সিলেটে আস্তানায় ২ জঙ্গি নিহত, অভিযান চলবে: সেনাবাহিনী

Kanaighat News on Sunday, March 26, 2017 | 8:52 PM

সিলেটে আস্তানায় ২ জঙ্গি নিহত, অভিযান চলবে: সেনাবাহিনী
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সিলেটের দক্ষিণ সুরমা এলাকার শিববাড়ীর আতিয়া মহলে অপারেশন টোয়াইলাইটে ২ জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান।

তিনি বলেন, 'আমরা রকেট লাঞ্চার দিয়ে ছিদ্র করে তারপর সেখান দিয়ে টিয়ারসেল ছোড়ার পর তাদের জন্য ভেতরে থাকা কঠিন হয়েছিল'। এখন পর্যন্ত ২ জন জঙ্গি নিহত হয়েছে। দু’জনই পুরুষ সদস্য। অভিযান সার্বক্ষণিক চলতে থাকবে। রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার পর দ্বিতীয় দফা সংবাদ সম্মলনে এ তথ্য জানান তিনি।

ফখরুল আহসান আরো বলেন, 'এখনও এক বা একাধিক জঙ্গি ভেতরে আছে'। আমাদের কেউ আহত হননি।
'আশা করেছিলাম অভিযান আজ শেষ হবে, কিন্তু আজ শেষ হচ্ছে না'। অভিযান সার্বক্ষণিক চলবে।

তিনি বলেন, 'এলাকাটা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে'। তারা কোন গোষ্ঠীর জানা গেছে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'সেটা আমাদের বিষয় না, পরবর্তী সময়ে তদন্ত যারা করবেন, তারা বিষয়টি দেখবেন'। ভেতরে কোনও নারী জঙ্গি আছে কিনা, জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।'
সূত্র: বিডিলাইভ।
+

কানাইঘাটে প্রবাসীর বা‌ড়ি‌তে ডাকা‌তি,৭ ভ‌রি স্বর্ণ লুট

Kanaighat News on Saturday, March 25, 2017 | 10:01 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট ৭নং বাণীগ্রাম ইউপির লামাদলইকান্দি গ্রামের মৃত ইব্রাহিমের বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ সহ বাড়ির লোকজন জানিয়েছেন, শনিবার ভোররাত অনুমান ৪টার দিকে মুখোশধারী বেশ কয়েকজন দেশীয় অস্ত্রধারী ডাকাত দল মৃত ইব্রাহিম আলীর পাকা বসত ঘরের লোহার কলাপসেবল গেইট ভেঙ্গে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে। ডাকাতরা ইব্রাহিম আলীর ভাই গৃহকর্তা আফতাব উদ্দিনসহ ঘরের অন্যান্য সদস্য ও মহিলাদের অস্ত্রের মাধ্যমে জিম্মি করে তিনটি রুমের মালামাল তছনছ করে অনুমানিক ৭ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ অর্ধলক্ষাধিক টাকা, কয়েকটি মোবাইল সেটসহ দামি জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতরা বাড়ির মহিলা সদস্যদের মারধর করে তাদের কান থেকে স্বর্ণের দুল পর্যন্ত ছিড়িয়ে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে ডাকাতরা চলে যাওয়ার পর বাড়ির লোকজনের আর্তচিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করেন। ডাকাতির খবর পেয়ে শনিবার সকালে কানাইঘাট থানার ওসি মোঃ আব্দুল আহাদ, বাণীগ্রাম ইউপির চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ব্যাপারে ওসি আব্দুল আহাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ব্যাপারে তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং এ ঘটনার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার করা হবে। প্রসঙ্গত যে, মৃত ইব্রাহিম আলীর পুত্র ওলিউর রহমান তার স্ত্রীকে নিয়ে সৌদি আরবে ওমরাহ হজে রয়েছেন। তার আরো এক ভাই প্রবাসী বলে জানা গেছে।

গণহত্যা দিবস উপলক্ষে কানাইঘাটে আ'লীগের আলোচনা সভা


নিজস্ব প্রতিবেদক: ২৫শে মার্চ জাতীয় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে শনিবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট উত্তর বাজারস্থ কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক সাবেক মেয়র লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক রফিক আহমদের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক উপাধ্যক্ষ লুকমান হোসেন, মাসুদ আহমদ চেয়ারম্যান, ফখর উদ্দিন শামীম, রিংকু চক্রবর্তী, উপজেলা আ’লীগ নেতা ফারুক আহমদ, কাউন্সিলার মাসুক আহমদ, কাউন্সিলার ইসলাম উদ্দিন, জেলা যুবলীগ নেতা আব্দুল হেকিম শামীম, পৌর যুবলীগের আহবায়ক এনামুল হক, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ আহমদ, যুবলীগ নেতা এসএম মাহবুবুল আম্বিয়া, ইফতেখার আলম মাহবুব প্রমুখ। সভায় বক্তারা ১৯৭১ সালের ২৫ শে মার্চ রাতে মুক্তিকামী এদেশের মানুষের স্বাধীনতাকে হরণ করার জন্য পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী নির্বিচারে হত্যাযজ্ঞ সংগঠিত করে। এ গণহত্যার সাথে জড়িতদের বিচার এবং ২৫শে মার্চকে আন্তর্জাতিক ভাবে জাতীয় গণহত্যা দিবসের স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য বিশ্বনেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানান।

নাক ডাকা বন্ধ করার উপায়


নাক ডাকা বন্ধ করার উপায়
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: নাক ডাকেন এমন কারও সঙ্গে একই বিছানায় ঘুমিয়েছেন! হায় হায় রাতের ঘুমের একেবারে দফারফা! রাজ্যের যন্তণা ভর করবে আপনাকে। পরের টুকু তো ইতিহাসই। রাতের নীরবতা ভেঙে একটানা বা থেমে থেমে বিচিত্র স্বরে সে নাক ডেকে যাচ্ছে। শব্দ কখনো বাড়ছে কখনো কমছে। পাশের ঘরে হলে না হয় দরজা-জানালা বন্ধ করে, হালকা শব্দে গান ছেড়ে কোনো না-কোনোভাবে বাঁচলেন। তবে পাশে থাকলে কী করণীয় সেটির সমাধানই খুঁজেন অনেকে।

স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৪৫ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের মধ্যে নাক ডাকার সমস্যা দেখা যায়। যখন গলার শিথিল পেশীতে কম্পন সৃষ্টি হয় তখন নাক দিয়ে শব্দ বের হয় অর্থাৎ নাক ডাকার শব্দ শোনা যায়। এটি মাঝে মাঝে শোয়ার ঝামেলার জন্য হতে পারে।

সমাধানের জন্য যা করতে পারেন-

১. যোগব্যায়াম:
'প্রাণায়াম' একটি যোগব্যায়াম যা শ্বাসপ্রশ্বাস নিয়ন্ত্রণ করে। এই ব্যায়ামের মাধ্যমে দীর্ঘ ও ছোট শ্বাস নেওয়া শেখা যায়, যা ফুসফুসে পর্যাপ্ত অক্সিজেনের প্রবেশ নিশ্চিত করার পাশাপাশি সারা শরীরের রক্ত চলাচল নিশ্চিত করে।

২. জিহবা ও গলার ব্যায়াম
গলা ও জিহবার পেশী গঠনের মাধ্যমে নাক ডাকার সমস্যা দূর করা যায়। চর্চার মাধ্যমে এটি শক্তিশালী হয় এবং বিশ্রামের সময় এসব অঙ্গের শিথিল হওয়ার সম্ভাবনাও কমে। তাছাড়া বয়স বাড়ার সঙ্গে কোষের স্থিতিস্থাপকতা ও শক্তি হারায়। ফলে বাতাস চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে যায়।

তাছাড়া নাক ডাকাসহ অন্যান্য ঘুমের সমস্যাও দূর করতে সাহায্য করে এই ব্যায়াম। 'প্রাণায়াম' চর্চার মাধ্যমে শরীর উজ্জীবিত হয় ও শক্তি বৃদ্ধি পায়।

৩. কক্ষের আর্দ্রতা:
নাক ডাকার সম্ভাব্য কারণ হতে পারে ঘরের শুষ্ক বাতাস। এর ফলে অনুনাসিক ঝিল্লি বা ‘নেইজল মেমব্রেইন’ এবং কণ্ঠনালীতে বাতাস চলাচলে বাধা তৈরি করে। তখন এসব জায়গার কোষে কম্পন তৈরি হয় এবং নাক ডাকার শব্দ শোনা যায়।

৪. ওজন কমান:
অতিরিক্ত ওজন নাক ডাকার অন্যতম কারণ। ওজন বেশি হলে গলায় অতিরিক্ত কোষ থাকার সম্ভাবনাও বাড়ে, যা নাক ডাকার সম্ভাবনা সৃষ্টি করে। গলায় যত বেশি প্রতিবন্ধকতা থাকবে বাতাস চলাচল ততবেশি বাধা পাবে। এটি কম্পনের সৃষ্টি অর্থাৎ নাক ডাকার কারণ।

বাকি যে কাজগুলো অবশ্যই করবেন....

১. ধূমপান এড়িয়ে চলুন
আমরা সবাই জানি ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। ধূমপান হতে পারে নাক ডাকার জন্য দায়ী। কেননা এটি বাতাস চলাচলের পথে বাধার সৃষ্টি করে।

২. মাথা উঁচু রেখে ঘুমান
ঘুমানোর সময় মাঝে মাঝে জিহবার কারণে গলা বাধা প্রাপ্ত হতে পারে অর্থাৎ বাতাস চলাচলে বাধা পায়। এই সমস্যা এড়াতে ঘুমানোর সময় মাথার নিচে বালিশ ব্যবহার করুন, এটি বাতাস চলাচলের পথ উন্মুক্ত করে।

৩. অ্যালকোহল পরিহার করুন
নাক ডাকার সমস্যা এড়াতে ঘুমানোর আগে অ্যালকোহল থেকে বিরত থাকুন। অ্যালকোহল গলার কোষ শিথিল করে ফলে জিহবা পিছনে পড়ে বাতাস চলাচলে বাধা দেয়। যা নাক ডাকার সৃষ্টি করে।

৪. বালিসের ভারসাম্য রক্ষা:
বালিশ খুব বেশি উঁচু বা নিচু হওয়া ঠিক নয়। ঘুমানোর সময় মাথা উঁচু থাকলে তা বাতাস চলাচলে সহায়তা করে। কিন্তু এই উচ্চতা যদি অনেক বেশি হয় তাহলে বাতাস চলাচলে বাধা দেয়। ফলে নাক ডাকার সৃষ্টি হয়। তাই খুব বেশিও উঁচু বা নিচু বালিশ ব্যবহার না করে মাঝারি ধরনের বালিশ ব্যবহার করা উচিত।

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ‘দ্য কপিল শর্মা শো’!

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ‘দ্য কপিল শর্মা শো’!

বিনোদন ডেস্ক: ভারতের জনপ্রিয় টিভি শো ‘দ্য কপিল শর্মা শো’। এ শোয়ের সঞ্চালক কপিল শর্মার সাথে সহকর্মী সুনীল গ্রোভারের তিক্ত অভিজ্ঞতার জন্য বন্ধ হয়ে যেতে বসেছে শো-টি।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া থেকে শো করে ফেরার পথে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন কপিল শর্মা ও সুনীল গ্রোভার। শোনা যায়, বিমানে সুনীলকে মারধর ও গালিগালাজ করেন কপিল। পরবর্তীতে শোয়ের শুটিং করেননি সুনীল।

সুনীল গ্রোভারের পর শোয়ের অন্য দুই সদস্য আলি আসগর ও চন্দন প্রভাকরও শোয়ে অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ফলে বন্ধ হয়ে যায় পরবর্তী পর্বের শুটিং। আর পুরো ঘটনায় বিরক্ত চ্যানেল কর্তৃপক্ষ। শেষ পর্যন্ত ‘দ্য কপিল শর্মা শো’ বন্ধ হওয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

আগামী মাসে ‘দ্য কপিল শর্মা শো’র চুক্তি নবায়ন হওয়ার কথা রয়েছে। জানা গেছে, এ চুক্তির পরিমাণ ১০৬ কোটি রুপি। সহশিল্পীদের সঙ্গে কপিলের এমন ঘটনায় শোয়ের চুক্তি নবায়ন না করার চিন্তা করছে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ। প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম।

‘দ্য কপিল শর্মা শো’র প্রতি পর্বের জন্য সুনীল গ্রোভার পেতেন ৭ লাখ রুপি। অন্যদিকে ১ কোটি রুপি পেতেন কপিল।

এ শোয়ের সদস্য চন্দন জানিয়েছেন, তিনি কাজ করতে চান, কিন্তু শোয়ে ফেরার বিষয়টিতে স্বস্তি বোধ করছেন না। ‘জানি না কপিলের ওপর কার অভিশাপ লেগেছে, অক্টোবর থেকে শোয়ের টিআরপি শুধু নেমেই যাচ্ছিল।’ বলেন চন্দন।

দ্বন্দ্বের পর থেকে একে অন্যকে মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে আনফলো করে দিয়েছিলেন কপিল ও সুনীল। তবে আবারো সুনীলকে ফলো করা শুরু করেছেন কপিল। কিন্তু এতেও তাদের মধ্যে বরফ গলছে না বলে জানা গেছে।

সুনীলের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘পারিশ্রমিক বাড়িয়ে দিলেও সুনীল এ শোয়ে ফিরবেন না। তিনি অন্য জায়গা থেকে কয়েকটি প্রস্তাব পেয়েছেন। তিনি বর্তমান অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে চাইছেন।’

একটি সূত্র ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘বড় কোনো তারকা অতিথি না পাওয়ায় কপিলকে শোয়ের শুটিং বাতিল করতে হয়েছে। এ কারণে তিনি ফিরাঙ্গি সিনেমার শুটিং করতে গিয়েছেন। আগামী ২৯ মার্চ মুম্বাইয়ে ফিরবেন তিনি।’

বিমানবন্দরে যাত্রীর সঙ্গে একজনের বেশি স্বজন নয়

বিমানবন্দরে যাত্রীর সঙ্গে একজনের বেশি স্বজন নয়

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তার স্বার্থে বিদেশগামী যাত্রীর সঙ্গে একজনের বেশি স্বজন না নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এ প্রসঙ্গে বিমানবন্দরের পরিচালক কাজী ইকবাল করিম বলেন, ‘নিরাপত্তার স্বার্থে বিমানবন্দরে একজন যাত্রীর জন্য একজনের বেশি স্বজন না যাওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। পাশাপাশি বিমানবন্দরে নিরাপত্তায় বাড়তি সর্তকতাও নেওয়া হয়েছে।'

এছাড়া শুক্রবার ওই এলাকায় পুলিশ চেকপোস্টে আত্মঘাতী বিস্ফোরণের ঘটনায় বিমানবন্দরের কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হয়নি বলেও জানান তিনি।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রসঙ্গে বিমানবন্দরের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদা সুলতানা বলেন, ‘বিমানবন্দরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। শুক্রবার যে ঘটনা ঘটেছে, তা বিমানবন্দর এলাকার ভেতরে নয়। তবু নিরাপত্তার স্বার্থে প্রতিটি পয়েন্টে সতর্ক নজরদারি ও তল্লাশি বাড়ানো হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি, বিমানবন্দরের ভেতরে যাত্রী ছাড়া দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করতে। বিমানবন্দরের বাইরের এলাকায় চেক পোস্টগুলোতে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের সদস্য সংখ্যাসহ তল্লাশি বাড়াতে বলা হয়েছে। সিভিল এভিয়েশন, অ্যাভসেক, পুলিশের সমন্বয়ে টিম পুরো বিমানব্ন্দর এলাকা টহল দিয়ে নজরদারি করছে।’

বিমানবন্দরটির পরিচালক কাজী ইকবাল করিম বলেন, ‘জনমনে ভীতি সৃষ্টি হওয়ার কোনও কারণ নেই। বিমানবন্দর স্বাভাবিক নিয়মে চলছে। সর্তকতার জন্য তল্লাশি বাড়ানো হয়েছে। আমরা এখন পর্যন্ত দর্শনার্থী প্রবেশ বন্ধ না করলেও একজনের বেশি না আসতে অনুরোধ করছি।’

এয়ারপোর্ট আর্মড ব্যাটেলিয়নের পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম বলেন, ‘নিয়ম অনুযায়ীই বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। সতর্কতা হিসেবে বিমানবন্দর এলাকায় প্রবেশের ক্ষেত্রে তল্লাশি বাড়ানো হয়েছে।’

এদিকে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে দু’টি ‘আত্মঘাতী’ বোমা বিস্ফোরণে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা। ধারাবাহিক অভিযানে জঙ্গিগোষ্ঠীকে কোণঠাসা করার কথা বলা হলেও জঙ্গিরা একের পর এক বিস্ফোরণ ঘটাচ্ছে।

গত ১৭ মার্চ রাজধানীর বিমানবন্দর বাসস্ট্যান্ড থেকে অদূরে আশকোনায় নির্মাণাধীন র‌্যাব সদর দফতরে ‘আত্মঘাতী’ বোমা বিস্ফোরণ ঘটায় এক জঙ্গি। এর এক সপ্তাহ পরই শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে বিমানবন্দর বাসস্ট্যান্ডে আবার ‘আত্মঘাতী’ বিস্ফোরণ ঘটালো তারা। যদিও পুলিশ এ হামলাকে আত্মঘাতী না বলে বোমা বহনের সময় ‘বিস্ফোরণ’ বলে দাবি করছে। বিমানবন্দর গোল চত্বরের পাশে পুলিশ বক্সের সামনে আত্মঘাতী বিস্ফোরণের পর রাজধানীসহ সারাদেশে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ ভবন, বিদেশি নাগরিকদের অফিস ও বাসস্থান, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন কার্যালয়ে নিয়োজিতদের সতর্কতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হয়েছে।

এ ঘটনার পর ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ‘পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছেন। কেপিআইসহ সব ধরনের স্থাপনা নিরাপদ রাখতে পুলিশ নজরদারি করছে।’ +

প্রথমবার সাকিব-তামিমের শতরানের জুটি

প্রথমবার সাকিব-তামিমের শতরানের জুটি

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: প্রথমবারের মত অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল ওয়ানডে ক্রিকেটে শতরানের জুটি গড়লেন।

৭১ বলে ৪টি চার এবং একটি ছক্কাতে ৭২ রান করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এভাবেই ভাঙে চতুর্থ উইকেটে দুজনের ১৪৪ রানের দুর্দান্ত জুটি। ক্যারিয়ারে ৮ম সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ৪৮তম ওভারের শেষ বলে আউট হন তামিম। ১৪২ বলে ১৫টি চার ও একটি ছক্কা মেরে ১২৭ রান করেন তিনি।

তামিম ইকবালের টেস্ট এবং ওয়ানডেতে সেঞ্চুরির সংখ্যা এখন সমান। একদিনের ক্রিকেটে ২৪ ইনিংস এক সঙ্গে ব্যাট করলেও সাকিব ও তামিমের প্রথম শতরানের জুটি এটিই। এর আগে অর্ধশত জুটি ছিল মাত্র ৪টি। সবশেষটি ২০১২ এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৭৬। যেটি ছিল জুটিতে দুজনের সর্বোচ্চ।

আজ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমেছে মাশরাফি বাহিনী। দাম্বুলায় শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। তবে তামিমের ১২৭, সাকিবের ৭২, সাব্বিরের ৫৪ রান এবং মোসাদ্দেক ও মাহমুদউল্লাহর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৩২৪ রানের বিশাল স্কোর দাঁড় করায় বাংলাদেশ।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১ উইকেট হারিয়ে ৩ ওভারে ৬ রান করেছে শ্রীলঙ্কা।

দাস ক্ষতের চুক্তি জনগণ মেনে নিবে না: রিজভী

দাস ক্ষতের চুক্তি জনগণ মেনে নিবে না: রিজভী

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ভারতের কাছে দাস ক্ষতের চুক্তি করা হলে জনগণ মেনে নেবে না বলে জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংস্থা জাসাস কর্তৃক আয়োজিত জিয়াউর রহমান ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, ভারতের সাথে প্রতিরক্ষার সমঝোতা চুক্তিতে তারা (ভারত) বাংলাদেশকে তাদের বর্ধিত অংশ হিসেবে ব্যবহার করবে। আর আমাদের প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় থাকতে তা উজার করে দিচ্ছে। কিন্তু দেশ বিরোধী কোনো ব্যক্তিদের বাংলার মাটিতে স্থান দেয়া হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।
 
এ সময় তিনি আরো বলেন, জঙ্গিবাদের পুরো ঘটনাই একটি ধোঁয়াশা। একটি গভীর ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে নাটকের খেলা খেলছে সরকার।

সংগঠনের সভাপতি ড. মামুন আহমেদ'র সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক হেলাল খানের সঞ্চালনায় এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক, সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ, বিএনপির তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারি হেলাল, মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারি বাবু, ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব আহসান প্রমুখ।

‘আমার নাতিন নওশাডারে আইন্না দিলাও’

‘আমার নাতিন নওশাডারে আইন্না দিলাও’
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: গতকাল শুক্রবার থেকে  তাদের কাটছে প্রতীক্ষার প্রহর। জঙ্গি আস্তানা বলে সন্দেহে থাকা আতিয়া মহলে আটকা মেয়ে আর জামাতা। বাইরে অজানা আশঙ্কায় বুক ধড়ফড় করছে বাবা আর মায়ের। মা সাফিয়া বেগম কাঁদছেন আর বলছেন, আমার বাইচ্চাটারে আইন্না দিলাও। আমার নাতিন নওশাডারে আইন্না দিলাও। বাবা নূর মিয়াও অস্থির।

 নূর মিয়া বলেন, তার মেয়ে রুমি বেগম। জামাতা খলকু মিয়া সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক। ঘরে এক ছেলে ও এক মেয়ে। রুমির সঙ্গে রুমির ছোট বোনও রয়েছে। এখনো তিনি মেয়ের পরিবারের কাউকেই পাননি।পুলিশের ধারণা, আতিয়া মহল নামের বাড়িটির নিচতলার একটি ফ্ল্যাটে সন্দেহভাজন জঙ্গিরা অবস্থান করছে। ভেতরে একজন নারী থাকার কথা নিশ্চিত হলেও মোট কতজন আছে, সেটা জানা যায়নি।

পুলিশের ধারণা, ভেতরে নব্য জেএমবির গুরুত্বপূর্ণ নেতা মাইনুল ওরফে মুসা রয়েছেন। আতিয়া মহল নামের পাঁচতলা ওই বাড়িতে মোট ২৯টি ফ্ল্যাট রয়েছে।নূর মিয়া দাবি করেন, এক ঘণ্টা (বেলা সোয়া একটা) আগে মেয়ের সঙ্গে মোবাইলে কথা হয়। জানিয়েছে, তারা ভালো আছেন। তবে এখনো নিজেদের ফ্ল্যাটেই আটকা আছেন। বেলা দুইটার দিকে আতিয়া মহল থেকে গোলাগুলি ও বিস্ফোরণের যখন শব্দ আসছিল, তখন চোখে-মুখে অসহায়ত্ব ফুটে ওঠে নূর মিয়া ও সাফিয়া বেগমের।

মেয়ের পরিবারকে নিরাপদে ফিরে পাবেন কি না, তা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন তারা।জঙ্গিরা অবস্থান করছেএমন তথ্যের ভিত্তিতে গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পাঁচতলা বাড়িটি ঘেরাও করে পুলিশ। গতকাল দিনভর বারবার মাইকে আহ্বান জানিয়েও ভেতরে থাকা জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করাতে পারেনি পুলিশ। উল্টো ভেতর থেকে গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়।

অভিযান চালাতে ঢাকা থেকে পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াটের একটি দল গতকাল বিকেলে সিলেটে পৌঁছায়। রাতভর বাড়িটি ঘিরে রাখা হয়। গতকাল সন্ধ্যার পর সেনাবাহিনীর দুটি গাড়ি ঘটনাস্থলে যায়।আজ বেলা সোয়া ১১টার দিকে দায়িত্ব পালনরত পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, সেনাবাহিনীর কমান্ডো দল আতিয়া মহল নামের ওই বাড়ির বাসিন্দাদের বের করে আনছে। আতিয়া মহল ও তার পাশের আতিয়া মহল ২ নামের আরেকটি ভবনের মাঝখানে ফায়ার সার্ভিসের মই দিয়ে সেতু তৈরি করা হয়েছে। এই পথে সেনাবাহিনীর সহায়তায় বাসিন্দাদের বের করা হচ্ছে। এ সময় ফায়ার সার্ভিসকে বিভিন্ন সরঞ্জাম নিয়ে বাড়ির ভেতরে ঢুকতে দেখা গেছে। সূত্র: প্রথম আলো

আগামী সপ্তাহে ন্যাটোর বৈঠকে যোগ দিবেন টিলারসন

আগামী সপ্তাহে ন্যাটোর বৈঠকে যোগ দিবেন টিলারসন
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন আগামী সপ্তাহে ব্রাসেলসে ন্যাটোর সদস্যভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করবেন। এ প্রেক্ষিতে জোটের কূটনীতিকরা বৈঠকের তারিখ নির্ধারণে কাজ করে যাচ্ছেন। শুক্রবার কর্মকর্তারা একথা জানান।

ব্রাসেলসে ন্যাটোর এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আগামী ৩১ মার্চ ন্যাটোর এ বৈঠক অনুষ্ঠানের কথা ভাবা হচ্ছে। এ ব্যাপারে জোটের মধ্যে আলোচনা চলছে।’

আগামী ৫ এপ্রিল ন্যাটোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকের তারিখ নির্ধারিত থাকলেও টিলারসন তাতে যোগ দিতে পারবেন না এমন কথা জানানোয় মঙ্গলবার এ নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়।

মার্কিন কর্মকর্তারা এখন বলছেন, টিলারসন আগামী সপ্তাহে শুক্রবার ব্রাসেলসে যাবেন।

পূর্ব পরিকল্পিত এ বৈঠকের ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু উল্লেখ না করে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মুখপাত্র মার্ক টনার বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী টিলারসন ন্যাটো বৈঠকে যোগ দিতে বেলজিয়ামের ব্রাসেলস যাচ্ছেন। সূত্র: বাসস

চীনে স্বর্ণখনিতে দুর্ঘটনায় নিহত ১০

চীনে স্বর্ণখনিতে দুর্ঘটনায় নিহত ১০

কানাইঘাট নিউজ  ডেস্ক: চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হেনান প্রদেশের দুটি স্বর্ণখনিতে শুক্রবার পৃথক দুর্ঘটনায় ১০ জন মারা গেছে। শনিবার ভোরে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ একথা জানায়।

কমিউনিস্ট পার্টি অব চায়নার নাগরিক কমিটির প্রেস অফিসের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল ১০ টা ৩৬ মিনিটে লিংবাও নগরীতে চায়না ন্যাশনাল গোল্ড গ্রুপের কিনলিং স্বর্ণখনি ধোঁয়ায় ঢেকে গেছে। সেখানে ১২ শ্রমিক ও মাকিলপক্ষের ছয় কর্মী আটকা পড়ে।

এতে আরো বলা হয়, শুক্রবার রাতে উদ্ধারকর্মীরা খনি থেকে সাতটি লাশ উদ্ধার করে। আহত অবস্থায় ১০ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। এদের মধ্যে একজন হাসপাতালে মারা যায়। অপর নয় জন আশঙ্কামুক্ত রয়েছে।

নগরীর জরুরি কর্মকর্তা জানান, শনিবার সকালে আটকে পড়া শ্রমিকদের একজন নিখোঁজ রয়েছে। কিন্তু খনির ভেতর বিষাক্ত কার্বন মনোক্সাইডের মাত্রা অনেক বেশি থাকায় ও এক মিটারের কম দূরের জিনিসও দেখতে না পাওয়ায় তল্লাশী ও উদ্ধার অভিযান বন্ধ রাখা হয়েছে।

শনিবার প্রাদেশিক কর্মস্থান সুরক্ষা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পাশের একটি স্বর্ণ খনিতেও একই ধরনের দুর্ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার ভোর তিনটায় সেখানে দুর্ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় খনির ভেতর ছয় শ্রমিক আটকা পড়ে। দিনভর উদ্ধার অভিযান চালিয়ে বিকেল সাড়ে পাঁচটায় চার শ্রমিককে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে সন্ধ্যায় অপর দুই শ্রমিককে সেখানে মৃত পাওয়া গেছে। প্রশাসন এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। সূত্র: বাসস

সপ্তগঙ্গার তীরে সুনামগঞ্জে দু’আধ্যাত্বিক মহাসাধকের লাখো লাখো ভক্তদের মিলনমেলা শনিবার শুরু

Kanaighat News on Friday, March 24, 2017 | 10:14 PM


রাহাদ হাসান মুন্না, তাহিরপুর থেকে: ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের সীমান্তঘেষা জাদুকাঁটা নদীর সপ্তগঙ্গার তীরে সুনামগঞ্জে দু’আধ্যাত্বিক মহা সাধকের লাখো লাখো ভক্তের তিনদিন ব্যাপী মিলনমেলা শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে।’ জানা গেছে, সিলেটের হযরত শাহজালাল (রহ.) ’র ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম সঙ্গী হযরত শাহ আরেফিন (রহ.)’র তাহিরপুরের লাউড়েরগড় সীমান্তের আস্থানায় প্রতি বছরের ন্যায় ১১ চৈত্র ১৪২৩ বাংলা ,২৫ মার্চ ২০১৭ বাদ আছর ওলি আউলিয়াদের জীবন দর্শনের উপর আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলের মাধ্যমে বার্ষিক তিন ব্যাপী ওরস মোবারক আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হবে। ওরস চলবে ১১,১২,১৩ চৈত্র -২৫, ২৬ ও ২৭ মার্চ সোমবার ফজর পর্য্যন্ত। অপরদিকে প্রাচীন লাউড় রাজ্যের হাবেলীর দেওয়ান রাজা ওরফে বিজয় সিংহের রাজদরবারের পুরোহিত শ্রী অদ্বৈত্য আচার্য মহাপ্রভুর নবগ্রাাম খ্যাত রাজাগাঁওস্থ আঁখড়া বাড়ির সংলগ্ন সীমান্তনদী ২৩ কি.মি দৈর্ঘের জাদুকাঁটা পণতীর্থের দু’তীরে ১১ চৈত্র -২৫ মার্চ শনিবার থেকে তিন দিন ব্যাপী মহাবারুণী মেলাও শুরু হচ্ছে। বারুণী মেলা চলবে ১১,১২,১৩ চৈত্র- ২৫, ২৬ ,২৭ মার্চ এবং ২৭ মার্চ ভোর বেলা মঙ্গল আরতির মাধ্যমে বারুণী মেলার সমাপ্ত হবে। এদিকে দু’ধর্মের দু’আধ্যাত্বিক মহাসাধকের ভক্তবৃন্ধের মিলনমেলাকে কেন্দ্র করে সিলেট বিভাগের সিলেট, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সুনামগঞ্জ সহ ৪ জেলা এবং উপজেলা গুলোতে গত এক সপ্তাহ ধরেই উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। বৃহক্তর সিলেট বিভাগের মধ্যে সুদুর ৭৫০ বছর পুর্ব কাল থেকে সপ্তগঙ্গার মিলনকেন্দ্র সব তীর্থের এক তীর্থ ২৩ কি.মি দৈর্ঘ্যরে পণতীর্থ ও হযরত শাহ আরেফিন (রহ.)’র আস্থানায় সবচেয়ে বড় উৎসব ও ওরস মোবারক হয়ে আসছে।’ এ ওরস মোবারক ও ¯œানযাত্রায় যোগ দিতে শুধু সিলেট নয় রাাজধানী ঢাকা সহ সারা দেশ থেকে এমনকি ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে ভক্ত ও আশেকানগণ এসে থাকেন। শ্রী অদ্বৈত্য মহাপ্রভুর আখড়াবাড়ী ও জন্মধাম সংরক্ষন সংস্কার কমিটির সভাপতি করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল ও গড়কাটি ইসকন মন্দিদের পরিচালক ভক্তপ্রিয় শুক্রবার জানান, এ বছর স্নানযাত্রার মুখ্য সময় নিধারিত হয়েছে মধুকৃষ্ণা ত্রয়োদশী শতবিশা নক্ষত্রে ১১ চৈত্র – ২৫শে মার্চ শনিবার রাত ১২টা ৮মিনিট ২৬ সেকেন্ড গতে ও ¯œানযাত্রা সমাপ্ত হবে পরদিন রবিবার বেলা ১১টা ১৩মিনিট ৫১ সেকেন্ড’র মধ্যে। গঙ্গাস্নান যাত্রাকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাাতিক কৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘ গড়কাটি ইসকন মন্দিরে তিন দিনের বারুণী মেলায় কমপক্ষে ৩ লাখ মানুষের মধ্যে মহাপ্রসাদ বিতরণের আয়োজন করা হয়েছে।’
সিলেট চাতল পুর্বপাড়ার হযরত শাহ্ আরেফিন (রহ.)’র আস্থানার মোতওয়াল্লী আনোয়ার শাহ্ মাইভান্ডারী ও খাদেম শাহ্ মো. আজাদ শুক্রবার জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও হযরত শাহ্জালাল (রহ.)’র মাজার শরীফ প্রাঙ্গন থেকে শনিবার সকাল ১০টার দিকে হযরত শাহ্ আরেফিন (রহ.)’র লাউড়েরগড় আস্থানা অভিমুখে কয়েক হাজার ভক্তের সমন্বয়ে একটি কাফেলা যাত্রা করবে।’ ওরস উদযাপন কমিটির সভাপতি তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ইসলাম, সহ সভাপতি বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ও কোষাধক্ষ নুরুল আমিন চিশতী জানিয়েছেন,হযরত শাহ আরেফিন (রহ.)’র আস্থানায় মুসলিম ও সনাতন, বৈদ্য খ্রীষ্টান সহ সব ধর্মের ভক্ত সহ এ বছর কমপক্ষে ৫ থেকে ৬ লাখ লোকের সমাগম ঘটবে। তারা আরো বলেন ১১ চৈত্র, ২৫শে মার্চ শনিবার বাদ আছর ওরস শুরু হয়ে শুরু হয়ে ১৩ চৈত্র ২৭ মার্চ রবিবার বাদ ফজর দেশের সুখ সমৃদ্ধি কামনা করে আখেরী মোনাজাতের মাধ্যমে বার্ষিক ওরস সমাপ্ত হবে। ইতিামধ্যে দেশের সমগ্র অঞ্চল থেকে হাজার হাজার কাফেলাধারী পাগল ফকির, ভক্ত, সাধক ও দর্শনার্থীরা ওরস এবং ¯œানযাত্রা মহোৎসবে যোগ দিতে সীমান্তবর্তী গ্রামগুলো ও আখড়াবাড়ীর আশে পাশের গ্রামে এসে পৌছেছেন। এদিকে সিলেট বিভাগ গণদাবী পরিষদের সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক ও জেলা পরিষদ সদস্য বিশ্ষ্টি আইনজীবী আবুল আজাদ রুমান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ¦ আবুল আবুল হোসেন ও গণদাবী পরিষদ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সদস্য সচিব হাবিব সরোয়ার আজাদ শুক্রবার যৌথ বিবৃতিতে, ওরস ও মেলা উপলক্ষে মদ, গাঁজা, ইয়াবা বিক্রয় ও সেবন কারীদের উপদ্রব দমন, ওরস ও বারুণী মেলায় জুয়ার আসর বসানোর অপচেষ্টা, চোর, পকেটমার , ছিনতাই রোধ ও মেলায় বসা দোকানপাঠ থেকে ইজারা ও অনুদান আদায়ের নামে দ্রব্যমুল্যের উর্ধŸগতি রোধ অহেতুক গণহয়রানী প্রতিরোধে আইশৃংখলা বাহিনীর বিশেষ সহায়হাতা কামনা করেছেন।’ সুনামগঞ্জ জেলা প্রসাশক শেখ মো. রফিকুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মো. হারুন অর রশীদ, ২৮ -বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল নাসির উদ্দিন আহমেদ পিএসসি শুক্রবার পৃথক পৃথক ভাবে বলেন, ওরস ও ¯œানযাত্রা মহোৎসবে সার্বিক নিরাপত্তা দিতে এ বছর অন্যান্য বছরের ন্যায় আখড়াবাড়ী, পণতীর্থ ধামে গঙ্গাস্নান, গড়কাটি ইসকন মন্দির, বারুণী মেলা ও ওরশ মোবারক আস্থানায় পুলিশ, বিজিবি, আনসার সদস্যদের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ বাহিনীর ৪টি অস্থায়ী ক্যাম্প বসানো হয়েছে, এছাড়াও ২জন নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে ২টি ভ্রাম্যমান আদালতের পাশাপাশি, এনএসআই, ডিএসবি, ডিবি ,সাদা পোশাকধারী পুলিশ ও র‌্যাবের কয়েক শতাধিক সদস্য বিশেষ নজরধারী করা ছাড়াও ঝুঁকিপুর্ণ সড়কগুলোতে দিবারাত্রী যাতায়াতকারীদের নিরাপত্তার স্বার্থে নিয়মিত টহল দেবে।

কানাইঘাটে বিশ্ব যক্ষ্ম দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: ঐক্যবদ্ধ হলে সবে, যক্ষ্মমুক্ত দেশ হবে এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বিশ্ব যক্ষ্ম দিবস উপলক্ষ্যে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও হীড বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে উপজেলা সদরে বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী সহ সকলের অংশগ্রহণে এক র‌্যালী বের হয়। র‌্যালী পরবর্তী সকাল ১০টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হল রুমে এই উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আবুল হারিছের সভাপতিত্বে ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমটি ল্যাব আব্দুুর রহমান দীপলুর পরিচালনায় বিশ্ব যক্ষ্ম দিবসের সচেতনতা মূলক সভায় বক্তব্য রাখেন, হীড বাংলাদেশ কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বপালনকারী প্রদীপ চন্দ্র, জনি চন্দ, সীমান্তীকের জেলা টিম লিডার মোঃ আব্দুল হামিদ, একাউন্ট অফিসার সিরাজ উদ্দিন, উপজেলা ফিল্ড সুপারভাইজার কামরুজ্জামান মাষ্টার সঞ্জয় চন্দ প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন, যক্ষ্ম মুক্ত দেশ গড়তে হলে সবাইকে আরো সচেতন হতে হবে। যক্ষা রোগের প্রাদুর্ভাবে আক্রান্তদের সঠিক ভাবে চিকিৎসা প্রদান করতে হবে। দেশের প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিনা মূল্যে যক্ষ্ম রোগীর চিকিৎসা করা হয়। নিয়মিত ভাবে ঔষধ সেবন করলে যক্ষ্ম রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, এই বিষয়টি সবাইকে জানাতে হবে।

বিমানবন্দরে পুলিশ চেকপোস্টে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ১

বিমানবন্দরে পুলিশ চেকপোস্টে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ১
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: রাজধানীর আশকোনার হাজি ক্যাম্প–সংলগ্ন পুলিশ বক্সের কাছে পুলিশের তল্লাশিচৌকিতে ‘আত্মঘাতী’ হামলার ঘটনা ঘটনা ঘটেছে। বিস্ফোরণে একজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার রাত পৌনে আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশের বিশেষ শাখার একটি সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এদিকে বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আজম মিয়া বলেন, ‘পুলিশ বক্সের বাইরে একটি বোমা হামলা হয়েছে। এতে হামলাকারী নিহত হয়েছেন। আর কারও হতাহতের খবর পাইনি।’
সূত্র:  বিডি লাইভ।

মাঝে মাঝে সাকিবের মাথাটা খুব গরম হয়ে যায়: শিশির


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বাহাতি স্পিনার হিসেবে সাকিবের মাঠে বড় আতঙ্কের নাম হওয়ার কথা শিশিরের; শিশির পড়লেই বল গ্রিপ করতে মুশকিল! কিন্তু কার্যত জীবনসঙ্গীনি করেছেন শিশিরকেই। যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী শিশির কখনোই ক্রিকেটভক্তদের একজন নন। তবে ক্রিকেট দেখতে গিয়েই দেখলেন বাংলাদেশ দলে দারুন স্মার্ট একটা ছেলে; ছেলেটির প্রেমেও পড়লেন। সেই প্রেম টিভি থেকে ফেসবুক হয়ে জীবনে। দু জনের সংসারও দারুন চলছে। সাকিব আল হাসান বইয়ের জন্য ২০১৪ সালে কথা বলেছিলেন সিাকিব ও সংসার নিয়ে- সাকিবের সঙ্গে আপনার পরিচয় কিভাবে হল? পরিচয়? পরিচয় তো আসলে ফেসবুকে। এর আগে আমি ওকে টিভিতে দেখেছি। কিন্তু পরিচয় ফেসবুকে। আপনি তো ক্রিকেট নাকি তেমন একটা দেখতেন না। তাহলে ক্রিকেটার সাকিবের প্রেমে পড়লেন কী করে? আসলে আমাদের বাসায়, আমেরিকাতে বাংলা চ্যানেল দেখা যায়। এখন যতবার খেলার খবর বা খেলা দেখায়, ওকে দেখা যায়। তারপর ও তো ক্যাপ্টেন ছিল; ওর অনেক কথাবার্তা দেখাতো। ক্রিকেট ভালো লাগে না। কিন্তু টিভিতে ওকে দেখে ভালো লাগতো। ক্রিকেটার হিসেবে ঠিক না… মানে, সাকিবের ক্রিকেট নয়, সাকিবের ইমেজটা ভালো লেগেছে… ঠিক। এটাই হয়েছে। ওর ইমেজটা ভালো লেগেছে। ওকে দেখে ভালো লেগেছে। এই সাকিবের মতো বিশাল তারকাকে বিয়ে করে ফেললেন। এখন কী ব্যাপারটা একটা বিড়ম্বনা মনে হয়? মানে, ওকে নিয়ে ইচ্ছে হলেই কোথাও যেতে পারেন না বা সবকিছু মন মতো করতে পারেন না। নাহ। আসলে আমরা তো ওরকম বেরোই না খুব একটা। অনেক কিছু করার ইচ্ছে থাকলে হয়তো ওরকম মনে হত। কিন্তু আমরা দু জন মিলেই আড্ডা দিতে পছন্দ করি। খুব একটা বের হই না। তাই এটা সমস্যা মনে হয় না। তারপরও এক ধরণের বাধা তো আছেই। আপনার বাংলাদেশী বন্ধুদের তো দেখছেন যে, তারা স্বামী নিয়ে ইচ্ছে মতো ঘুরছে। আপনি সেটা পারছেন না। এটা বিরক্তিকর মনে হয়? একটু। একটু মনে হয়। তবে এসব মেনে নিয়েছি। এ নিয়ে আলাদা করে এখন আর ভাবি না। সাকিবের অনেক প্রসঙ্গেই ইদানিং আপনার নাম চলে আসে। বিয়ের আগেও সে আলোচনায় ছিল। কিন্তু বিয়ের পর যখনই তার আলোচনা আসে, আপনার নাম চলে আসে। ফেসবুকে এগুলো তো দেখেন। বেশীরভাগ সময় আপনার নামটা আসে নেগেটিভ ভাবে। এটা কিভাবে নেন? এটা আসলে আমি একরকম প্রস্তুত ছিলাম। আমি মেনে নিয়েছি যে, এমনই হবে। একজন তারকার যে কোনো বিষয়ে অন্য কাউকে টেনে আনা বা আলোচনায় জড়ানো; এগুলো হবে বলেই আমি মনে করেছিলাম। ফলে এসবে আমি খুব একটা এখন আর চিন্তিত হই না। মানুষ তার কথা বলবে। সাকিব তারকা; ওকে নিয়ে লোকেরা কথা বলবে। আমি সেটা নিয়ে মাথা ঘামাই না। সাকিবকে নিয়ে কখনো ভয় হয়? তারকাদের নানারকম স্ক্যান্ডাল থাকে। সাকিব কখনো কোনো স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে পড়তে পারেন, এমন ভয় হয়? উহু…. নাহ। আমাদের বোঝাবুঝি, বিশ্বাস অনেক ভালো। সাকিব কেমন মানুষ? খুব ভালো। খুব ভালো? হ্যা, খুব ভালো। বন্ধু হিসেবে ভালো? খুব। আড্ডা দেয় আপনার সাথে? সারাক্ষন আমরা এক সাথে থাকি। আলাদা তো খুব কম থেকেছি আমরা। ক্রিকেটের বাইরে প্রায় সবটুকু সময় আমরা একসাথে থাকি। তাই প্রচুর আড্ডা দেই আমরা। আড্ডায় ক্রিকেট আসে কখনো? একদম না। কি নিয়ে আড্ডা দেন আপনারা? কি নিয়ে…. এই শপিং করতে যাওয়া, বিভিন্ন গল্প বলা, ফিউচার প্লান। মুভি। হ্যা, ঘরে কিছু মুভি দেখি; তবে একটু কম। দেশের বাইরে গেলে অনেক মুভি দেখি। কী মুভি দেখেন? বাংলা, হিন্দি, ইংরেজী… হিন্দি কম-বেশী দেখি। ইংরেজী মুভি অনেক দেখি। বাংলাটা যেহেতু আমার বুঝতে একটু সমস্যা হয়, তাই একটু কম দেখি। সাকিবের ভালো দিক তো অনেক বলতে পারবেন। একটু খারাপ দিক বলেন? খারাপ দিক তো…। আচ্ছা। মাঝে মাঝে মাথা খুব গরম হয়ে যায়। এটা সারা দেশ জানে… হ্যা। আবার অবশ্য দ্রুতই ঠান্ডা হয়ে যায়। এটাও আমরা জানি। আচ্ছা। তাহলে আরেকটা খারাপ দিক হল কোথাও বের হওয়ার সময় খুব বিরক্ত করে, রেডি হওয়ার সময় খুব তাড়াহুড়ো করে। ওকে। শেষ প্রশ্ন। সাকিবকে বিয়ে করা মানে তো শুধু সাকিব নয়, সাকিবের পুরো পরিবারের অংশ হওয়া। আমি সাকিবের বাবা-মা-বোনের কাছে এটা জানতে চেয়েছিলাম। তারা আপনাকে নিয়ে খুব খুশী। আপনি একটু বলেন, কতোটা আপন হতে পেরেছেন এই পরিবারে? খুব। এখানে সবাই আমাকে দ্রুত আপন করে নিয়েছেন। আমার খুব ভালো লাগে। এনজয় করি। এই পরিবারের একটা মেয়ের মতো হয়ে গেছি।

জেনে নিন-ইসলাম কী বলে! হাফ হাতা শার্ট বা গেঞ্জি পরে নামাজ হবে কি?


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: প্রশ্ন : ছেলেরা কি হাফ হাতা গেঞ্জি বা শার্ট পরে নামাজ পড়তে পারবে? উত্তর : হ্যাঁ, হাফ হাতা শার্ট অথবা গেঞ্জি অথবা টি-শার্ট যেগুলো আছে, সেগুলো পরে যদি কেউ সালাত আদায় করে, তাহলে হয়ে যাবে। সালাত না হওয়ার কোনো কারণ এখানে নেই। আর স্যান্ডো গেঞ্জি যেগুলো আছে, সেগুলো পরে যদি কেউ সালাত আদায় করেন, তাহলে তাঁর সালাত মাকরুহ হয়ে যাবে। কাঁধের ওপর যদি কোনো কাপড় দেওয়া থাকে বা চাদর দেওয়া থাকে, তাহলে তাঁর সালাত হয়ে যাবে। মূল কথা হলো, সালাতের সময় কাঁধ ঢাকতে হবে তাঁকে।

‘ওরা বাংলাকে নিশানা করলে, আমার টার্গেট ইন্ডিয়া’

‘ওরা বাংলাকে নিশানা করলে, আমার টার্গেট ইন্ডিয়া’

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল সাফল্য পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপরই খবর বের হয়েছিল পশ্চিমবঙ্গে জয় পাওয়ার জন্য মাঠে নামবে বিজেপি। এদিকে, সারদার পরে নারদ-কাণ্ডেও সিবিআই তদন্তের মুখে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল। জল্পনা চলছিল, পরিস্থি্তির চাপে কি বিজেপি’র প্রতি সন্ধির বার্তা দিতে পারেন তৃণমূল নেত্রী?

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির প্রতি ইঙ্গিত দিয়ে এবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘ওরা যদি বাংলাকে নিশানা করে, আমিও ইন্ডিয়া টার্গেট করব!’

এবিপি আনন্দের স্টুডিওতে বৃহস্পতিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝিয়ে দিলেন, পাল্টা আক্রমণই তার অস্ত্র। কয়েকজন মন্ত্রীর কাছে বুধবারই যার প্রাথমিক ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, এ দিন সেটাই আরও স্পষ্ট করলেন মমতা। গোপন করলেন না জাতীয় রাজনীতিতে নির্ণায়ক শক্তি হওয়ার বাসনা। সরাসরিই তিনি এ বার বলে রাখলেন, ‘চাইলে আমিও নেতৃত্ব দিতে পারি বা অন্য কেউ।’

মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ‘বিজেপি এর আগে দিল্লি, বিহার, তামিলনাড়ুতে হেরেছে। উত্তরপ্রদেশে জিতেছে মানেই সারা ভারতেও জিতবে, তার কোনো মানে নেই। ওখানে অখিলেশ আর মায়াবতীর ভোট এক হয়ে গেলেই কিন্তু ব্যাপারটা অন্য রকম হয়ে যায়।’

ভোটের আগে কোনও কাজ না করেও গেরুয়া শিবির কী ভাবে উত্তরপ্রদেশে ৩২৫টি আসন পেল, ইভিএমে কোনও কারসাজি আছে কি না— এ সব সংশয় তার গলায় ধরা পড়েছে ঠিকই। কিন্তু সে সব ছাপিয়েও যে বার্তা সামনে এসেছে, তা হল, ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে বিজেপিকে আটকাতে বিরোধী ভোটের ভাগাভাগি আটকানোর রসায়ন এখন থেকেই তাঁর মাথায় ঘুরছে। তার কথায়, ‘কংগ্রেস এখন দুর্বল। সব রাজ্যে এক রকম শক্তি নয়। যে রাজ্যে যে শক্তিশালী, আমার মতে তাকেই ভোট দেওয়া উচিত।’

সূত্র : আনন্দবাজার

সাজ-সজ্জার গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ পারফিউম

সাজ-সজ্জার গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ পারফিউম

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: পারফিউম দীর্ঘক্ষণ ধরে রাখতে চাইলে যা করবেন। পারফিউম ব্যবহার না করলে কোন একটা জায়গায় যেন খাপ খেতে চাই না বর্তমান যুগের সাথে। তবে শুধু পারফিউম ব্যবহার করলেই হয় না, পারফিউম যেন দীর্ঘক্ষণ সঙ্গ দেয় তার চিন্তাটাও মাথায় রাখা উচিত। যে পারফিউমই ব্যবহার করেন না কেন, কয়েকটি বিষয় মনে রাখলেই এবং তা মেনে চললে সহজেই থাকবে পারফিউম।

১. পারফিউম প্রয়োগের সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হলো গোসলের পর, অর্থাৎ আপনার শরীর যখন পরিষ্কার ও শুভ্র থাকবে।

২. শরীরের যেইসব স্থানে আপনি পারফিউম প্রয়োগ করবেন সেই স্থানগুলো অবশ্যই আর্দ্র হতে হবে। এজন্য ঐ স্থানগুলোতে ভালভাবে ময়শ্চারাইজার বা লোশন দিন।

৩. আপনার সাবান, লোশন এবং পারফিউম হতে হবে একই ধরণের ফ্রাগরেন্স যুক্ত। যেমন আপনি যদি ফুলের সৌরভের পারফিউম ব্যবহার করতে চান তাহলে সাবান আর লোশনও ফুলের সৌরভের হতে হবে। কিন্তু এক্ষেত্রে পারফিউম যদি হয় চকোলেট ফ্লেভারের তবে সাবান আর লোশনও একই ফ্লেভারের হতে হবে। নয়ত একটা ফ্লেভারের সাথে আরেকটি ফ্লেভার মিক্স হয়ে আসল পারফিউমের ফ্রাগরেন্স নস্ট হয়ে যাবে।

৪. এমন স্থান গুলোতে পারফিউম প্রয়োগ করুন যেখানে রক্ত চলাচল বেশি। যেমন: গলা, হাতের কব্জি, কানের পেছনে, বুকে, হাতের কুনুই, হাটুর পেছন দিকে ইত্যাদি।

৫. মোটামুটি ৫-৬ ইঞ্চি দূর থেকে পারফিউম প্রয়োগ করতে হবে।

৬. পারফিউম প্রয়োগের পর সেই স্থান না শুকানো পর্যন্ত হাত দেবেন না। স্বাভাবিকভাবে তা শুকাতে দিন।

দক্ষিণ সুরমার জঙ্গি আস্তানার আশপাশ থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে মানুষকে


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: দক্ষিণ সুরমার শিববাড়িতে জঙ্গি আস্তানা আতিয়া ভিলাটি ঘিরে রেখেছে ঢাকা থেকে আসা পুলিশের বিশেষায়িত টিম সোয়াত। শুক্রবার সন্ধ্যায় বাড়িটি ঘিরে রাখার পাশাপাশি নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে উৎসুক লোকজনদের। অভিযানের প্রাক-প্রস্তুতি সম্পন্ন করছেন আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা। এরপরেই তারা অভিযানে নামবেন। এর আগে অভিযানের অংশ হিসেবে শিববাড়ি এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। পাশাপাশি আতিয়া ভিলাতেও। এখনো অভিযান শুরু হয়নি। সোয়া্ত সদস্যরা এখনও প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ফায়ার সার্ভিসের ঘটনাস্থলে অবস্থান করেছে। আনা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্সও। এর পাঁচতলা ভবনের নীচতলার একটি ফ্ল্যাটে ‘জঙ্গিরা’ অবস্থান করছে। সেখানে অভিযান চালাতে শুক্রবার বিকাল ৩টা ৫২ মিনিটে সোয়াত ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায়। কালো রংয়ের একটি হাইয়েসে করে সোয়াত দলটি এসেছে। এই দলের সাথে পুলিশের বোমা নিস্ক্রিয়করণ ইউনিটের চারজন সদস্যও এসেছেন। এর আগে গত শুক্রবার রাত ৩টা থেকে পুলিশ ওই বাড়িটি ঘিরে রেখেছে। নীচতলার ওই ফ্ল্যাটে নারীসহ কয়েকজন জঙ্গি রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সকাল ৭টার দিকে বাড়ির ভেতর থেকে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পরে পুলিশ জানায়, এটি শক্তিশালী গ্রেনেড হতে পারে। পুলিশও কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে। সূত্র: সিলেট ভিউ।

'হলিউডের কোন নতুন খবর নেই'

'হলিউডের কোন নতুন খবর নেই'
বিনোদন ডেস্ক: বছরের শুরুটা দীপিকা পাড়ুকোনের জন্য ছিল অসাধারণ। কারণ বছরের শুরুর সাফল্য তিনি উদযাপন করেছেন হলিউডে। ‘ট্রিপল এক্স: দ্য রিটার্ন অব জেন্ডার কেজ’ ছবিটি দীপিকার প্রথম হলিউড সিনেমা। শোনা গেছে, হলিউড অভিষেকে অভাবনীয় সাফল্য পাওয়ার পর দীপিকার কাছে অসংখ্য ছবির প্রস্তাব আসছে।

দীপিকা এই মুহূর্তে বলিউডে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সঞ্জয় লীলা বানশালির ইতিহাস ভিত্তিক ছবি ‘পদ্মাবতী’তে মূল ভূমিকায় আছেন এই নায়িকা। এই প্রসঙ্গে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দীপিকাকে পশ্চিমা ছবির ব্যস্ততা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়।

জবাবে ৩১ বছর বয়সী নায়িকা বলেন, ‘হলিউডের নতুন কোন খবর নেই। কোন ছবির জন্য চুক্তিবদ্ধ হইনি। তবে অনেক প্রস্তাব পাচ্ছি। আর আমি এতেই খুশি।’

হৃতিক রোশন ও সোনম কাপুরের পরিবর্তে ‘ওপ্পো’ মোবাইল ফোনের নতুন মুখ হয়েছেন দীপিকা। এই ক্যামেরায় তিনি প্রথম কোন মুহূর্তটি বন্দি করতে চান, এই প্রশ্নের জবাবে দীপিকা বলেন, ‘আমার জীবনের প্রথম পুরস্কার পাওয়ার মুহূর্তটি আমি ধরে রাখতে চাইব। মডেলিং শুরুর প্রথম বছরেই আমি সেরা মডেলের পুরস্কার পাই। সেসময় কোন ক্যামেরা মোবাইল ফোন ছিল না। তখন আমি ব্যাঙ্গালরুতে থাকতাম। বাবার সাথে প্রথম মুম্বাই আসি ১৮ বছর বয়সে। প্রথম পুরস্কার পাওয়ার সময়টি আমি বেশ উত্তেজনায় পার করছিলাম।’

ওদিকে, শোনা যাচ্ছে হলিউডে ভিন ডিজেল এখন দীপিকার মেন্টর। তাই মেন্টরের মতামত ছাড়া দীপিকা কোনও কাজই করতে চাইছেন না। পেশাগত ব্যাপারে ভিন তাকে অনেক সাহায্য করছেন। একসঙ্গে ছবি করার কারণে তাদের সখ্যও এখন বেশ ভালো। সামনে তাদের আবারও জুটি বাঁধতে দেখা গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

বলিউডে ‘পদ্মাবতী’ ছাড়া আর কোনও ছবি এই মুহূর্তে হাতে নেই দীপিকার। ছবিটি নির্মাণ করছেন সঞ্জয় লীলা বানসালি। এতে তার বিপরীতে আছেন শহীদ কাপুর, অদিতি রাও হায়দরি এবং রণবীর সিং। সূত্র- দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

মুস্তাফিজ এটা ‍তোর উইকেট, উড়িয়ে দিবি: মাশরাফি

মুস্তাফিজ এটা ‍তোর উইকেট, উড়িয়ে দিবি: মাশরাফি

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: আজ বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে পাঁচটায় অনুশীলনে নামে মুশফিক-তামিমরা। সবার আগে মাঠে নামেন মাশরাফি-হাথুরুসিংহে। তাদের অনুসরণ করলেন ব্যাটিং পরামর্শক সামারাবিরা ও ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন। প্রায় দশ মিনিট খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে উইকেট দেখলেন মাশরাফি।

উইকেট দেখেই ড্রেসিংরুমের দিকে ফিরছিলেন মাশরাফি। রণগিরি উইকেট দেখে মাশরাফিকে সন্তুষ্টই মনে হল। হাসিমুখে তাইতো মুস্তাফিজকে পেয়ে- রণগিরির উইকেটকে মুস্তাফিজের উইকেট বলতে দ্বিধা করলেন না, মুস্তাফিজ, এটা তোর উইকেট। উড়িয়ে দিবি। বলার পরই মুস্তাফিজের মুখে লেগে থাকা হাসিটা আরও চওড়া হলো।

শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর আড়াইটায় তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটি শুরু হবে। শুক্রবার দুই দলই শেষ বারেরমতো অনুশীলন করেছে রণগিরির আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

ইনজুরি থেকে ফিরে নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়েছিলেন মুস্তাফিজ। সেখানে গিয়ে পুরো ফিট না থাকায় সবগুলো ম্যাচ খেলা হয়নি। পরবর্তীতে হায়দরাবাদ টেস্টে মুস্তাফিজকে স্কোয়াডে না রেখে পুরোপুরি ফিট হওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়। মুস্তাফিজ এর মধ্যেই পুরো ফিট হয়ে উঠেন। শ্রীলঙ্কায় এরই মধ্যে দুটি টেস্ট ম্যাচে খেলেছেন। সেখানে তার পারফরম্যান্স ছিল আশাব্যঞ্জক। আর শনিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফির গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র হচ্ছেন মুস্তাফিজ। তাই ম্যাচের আগের দিন অধিনায়ক মাশরাফির এমন মন্তব্য মুস্তাফিজকে আরও আত্মবিশ্বাসী করবে।

মোবাইলের ক্যামেরা পরিষ্কার করার সহজ সমাধান

মোবাইলের ক্যামেরা পরিষ্কার করার সহজ সমাধান

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মোবাইল ব্যবহার করতে করতে অনেক সময়েই মোবাইল ক্যামেরার লেন্সে ধুলো জমে এবং স্ক্র্যাচ পড়ে। এর ফলে আর স্পষ্ট ছবি তোলা সম্ভব হয় না। ঘরে বসেই এই সমস্যা সমাধান সম্ভব। আসুন জেনে নিই।

.আঙুলে সামান্য টুথপেস্ট নিয়ে ক্যামেরার লেন্সে লাগিয়ে দিন। তারপর এক টুকরো পরিষ্কার কাপড়ের টুকরো দিয়ে ক্লকওয়াইজ ঘুরিয়ে কয়েক বার মুছে নিন। এরপর আঙুলে এক ফোঁটা পানি লাগিয়ে লেন্সের উপর ঘষে দিন। ব্যস, দেখবেন লেন্স একেবারে সাফ হয়ে গেছে।

.একটি নতুন পেন্সিল ইরেজার নিয়ে মোবাইলের ক্যামেরার লেন্সে আলতো করে কয়েক বার বুলিয়ে দিন।   খেয়াল রাখবেন, ইরেজারটিকে একটি নির্দিষ্ট দিকেই (ঘড়ির কাঁটার দিকে অথবা বিপরীতে) বোলাবেন।   তা হলেই একেবারে পরিষ্কার হয়ে যাবে লেন্স।

.আঙুলের ডগায় সামান্য ভেসলিন নিয়ে ক্যামেরার লেন্সে লাগান।   তারপর মাইক্রোফাইবার ক্লথ দিয়ে কয়েকবার ঘষে নিলেই একেবারে নতুনের মতো হয়ে যাবে লেন্সটি।

.বাজারে স্ক্র্যাচ রিমুভার কিনতে পাওয়া যায়। যে কোনও একটি নির্ভরযোগ্য ব্র্যান্ডের স্ক্র্যাচ রিমুভার নিয়ে তাতে তুলো ভিজিয়ে আলতো করে বুলিয়ে নিন ক্যামেরার লেন্সে। একেবারে সাফ হয়ে যাবে লেন্সটি।

বিএনপি জঙ্গিদের আশ্রয়দাতা: হাছান মাহমুদ

বিএনপি জঙ্গিদের আশ্রয়দাতা: হাছান মাহমুদ
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বিএনপি জঙ্গিদের আশ্রয়দাতা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, মির্জা ফখরুলের বক্তব্যই প্রমাণ করে জঙ্গি তৎপরতায় বিএনপির মদদ আছে। দেশে আইনাশৃঙ্খলা বাহিনী কোন জঙ্গি বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে তখনই মির্জা ফখরুলসহ বিএনপি নেতৃবৃন্দ এ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন? জঙ্গিদের জন্য মায়া কান্না দেখান।

আজ শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। ২৫ মার্চকে ‘জাতীয় গণহত্যা দিবস’ হিসেবে পালনের জন্য জাতীয় সংসদে বিল পাস করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

হাছান মাহমুদ বলেন, গণমানুষের নেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর একের পর এক সমস্যার সমাধান করেছেন। অনেক দিনের পার্বত্য সমস্যা সমাধান হয়েছে। গঙ্গার পানির হিস্যা আদায়, ছিটমহল সমস্যা সমাধান, সমুদ্রসীমা জয় সম্ভব হয়েছে। কিন্তু বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার কোনো অর্জন নেই। তিনি যখন ক্ষমতায় ছিলেন তখন ভারতে গিয়ে গঙ্গার পানি চাইতে ভুলে গিয়েছিলেন।


প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন ভারত সফর নিয়ে বিএনপি জনগণকে বিভ্রান্ত করতে চাইছে মন্তব্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, দেশের স্বার্থ আদায়ের জন্যই প্রধানমন্ত্রী ভারতে যাচ্ছেন।

প্রজন্ম লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান দুর্জয়ের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুসহ সংগঠনটির বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ। 
সূত্র:  বিডিলাইভ।

কানাইঘাট শাখা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ কানাইঘাট উপজেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন শুক্রবার সকাল ১১টায় কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির ফালজুর গ্রামের কালিবাড়ী বামজংগা মন্দির প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা শাখার সভাপতি বাবু দূর্গা কুমার দাসের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হরিপদ শর্মার পরিচালনায় উক্ত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বিভাজ মাধব চক্রবর্তী মানস। বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কাউন্সিলার এড. প্রদীপ ভট্টাচার্য, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মদন মোহন বিশ্ব বিদ্যালয়েরর অধ্যাপক রজত ভট্টাচার্য, জেলা শাখার নেতা গোপিকা সেন, জ্যোর্তিময় বিশ্বাস, ধনঞ্জয় দাস দনূ। বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পৌঁজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি চিত্রশিল্পী বানু লাল দাস সাধারণ সম্পাদক, ভজন লাল দাস সহ উপজেলা হিন্দু-বন্ধু খ্রিষ্টান এক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। সম্মেলন শেষে সর্ব সম্মতিক্রমে কানাইঘাট ১নং লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জেমস্ লিও ফারগুসন নানকাকে সভাপতি ও রিংকু চক্রবর্তীকে সাধারণ সম্পাদক করে আংশিক কমিটি গঠন করেন জেলা নেতৃবৃন্দ।

'জঙ্গি নির্মূলে বিশেষ তৎপরতা চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী'

'জঙ্গি নির্মূলে বিশেষ তৎপরতা চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী'

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক জানিয়েছেন, জঙ্গি নির্মূলে বিশেষভাবে তৎপরতা চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী, তাই যেখানেই তাদের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে সেখানেই অভিযান চালানো হচ্ছে।

আজ শুক্রবার সকালে খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি ভবনের উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন এ কে এম শহীদুল হক।

শহীদুল হক বলেন, 'আমরা জঙ্গিদের হান্টিং করছি, শিকার করছি কোথায় কোথায় পাওয়া যায়। আমাদের পুলিশের গোয়েন্দা সংস্থা দেশব্যাপী কাজ করছে। যেখানেই আস্তানা সেখানেই আমরা ঘেরাও করি। জনগণের সহায়তা নিয়েই এই কাজগুলো আমরা করছি।'  

পুলিশের মহাপরিদর্শক বলেন, 'এখানে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নাই। জঙ্গিদের জন্য দুঃসংবাদ যে তারা কোথাও টিকে থাকতে পারছে না।'

তিনি আরো জানান, মুফতি হান্নানের রায় দ্রুত কার্যকর করা হবে।

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশি নিহত

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশি নিহত

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় তিন বাংলাদেশি নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও এক বাংলাদেশি।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে জিজান থেকে রিয়াদে যাওয়ার পথে ওয়াদি আল দরুস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

নিহতরা হলেন, ঢাকার দোহারের মোহাম্মদপুর গ্রামের মুসলিম মোল্লা ও একই এলাকার  জয়পারা গ্রামের সেলিম এবং মানিকগঞ্জের রশীদ। আহত হয়েছেন ফরিদপুরের ভাঙার হারুন। তারা জিজান থেকে কাজের সন্ধানে রিয়াদ যাচ্ছিলেন।

অভিযানের জন্য তৈরি হচ্ছে ‘সোয়াত’ টিম


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার শিববাড়ির পাঠানপাড়ায় একটি বাড়িতে ‘জঙ্গিদের’ ঘিরে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পাঁচতলা ভবনের নীচতলার একটি ফ্ল্যাটে ‘জঙ্গিরা’ অবস্থান করছে। সেখানে অভিযান চালাতে সিলেট এসে পৌঁছেছে বিশেষায়িত টিম সোয়াত। তারা অভিযানের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান- এর আগে শুক্রবার বিকাল ৩টা ৫২ মিনিটে সোয়াত ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায়। এদিকে গত শুক্রবার রাত ৩টা থেকে পুলিশ ওই বাড়িটি ঘিরে রেখেছে। নীচতলার ওই ফ্ল্যাটে নারীসহ কয়েকজন জঙ্গি রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সকাল ৭টার দিকে বাড়ির ভেতর থেকে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পরে পুলিশ জানায়, এটি শক্তিশালী গ্রেনেড হতে পারে। পুলিশও কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়েছে। সূত্র:সিলেটভিউ২৪ডটকম

তাক লাগানো এমন টাওয়ার হচ্ছে নিউইয়র্কে

তাক লাগানো এমন টাওয়ার হচ্ছে নিউইয়র্কে

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: নিউইয়র্কে নির্মাণ হতে যাচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় টাওয়ার। ইতোমধ্যেই বিগ ব্যান্ড নামের ইউ আকৃতির ওই টাওয়ারের নকশা প্রকাশ করা হয়েছে। আকাশচুম্বী বিগ ব্যান্ড অনেকের কাছেই অবিশ্বাস্য বলে মনে হতে পারে। এই টাওয়ার নির্মাণ করে বিশ্ববাসীকে তাক লাগিয়ে দেবে নিউ ইয়র্ক। খবর ডেইলি মেইল।

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু টাওয়ারটির নকশায় দেখা যায়, একপাশ থেকে আকাশচুম্বী উচ্চতায় উঠার পর আবার অন্যপাশ দিয়ে তা নিচে নেমেছে। লিফটের সাহায্যে অনায়াসেই সম্পূর্ণ টাওয়ারটি ভ্রমণ করা যাবে। অন্য দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে এটাকে সরু মিনার বলেই মনে হবে।

চার হাজার ফুট লম্বা কাচ দিয়ে বেষ্টিত টাওয়ারে লিফট চলাচলের এই নকশাটিও সব থেকে আধুনিক হবে। এই টাওয়ারে সবসময় আনুভূমিকভাবে লিফট চলাচল করবে। লিফট উপরে নিচে নামানোর নির্দেশনাও আনুভূমিকভাবেই কার্যকর হবে।

কানাইঘাটের মমতাজগঞ্জ বাজারে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে আরো ১টি করাতকল স্থাপন


নিজস্ব প্রতিবেদক: সীমান্তবর্তী কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পুর্ব ইউপি’র মমতাজগঞ্জ বাজারে আদালত ও থানা পুলিশের নির্দেশ উপেক্ষা করে বিরোধপুর্ণ জায়গায় আরো একটি করাতকল বসানোকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ চরম আকার ধারণ করেছে। বনবিভাগের আইন অনুযায়ী সীমান্তবর্তী এলাকায় করাতকল স্থাপন করা বেআইনী হলেও মমতাজগঞ্জ বাজারে দীর্ঘদিন ধরে কোন ধরনের বৈধ লাইসেন্স ছাড়া ২টি করাতকল চলায় সীমান্তবর্তী পাহাড়ী এলাকার বনাঞ্চল উজাড় হচ্ছে। মাঝে মধ্যে উপজেলা বিট অফিস স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় লাইসেন্স বিহীন করাতকল সীলগালার চেষ্ঠা করলে করাতকলের মালিকরা কয়েক বছর আগের হাইকোর্টের আদেশের কপি দেখিয়ে অবৈধভাবে করাতকল চালিয়ে যাচ্ছে। মমতাজগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন মমতাজগঞ্জ বাজারে দীর্ঘদিন ধরে ২টি করাতকল থাকলেও সম্প্রতি বাজারের নিকটবর্তী সুরতুন্নেছা মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে আদালতের ১৪৪ ধারা বিদ্ধমান থাকা অবস্থায় নারাইনপুর মৌজার দাগনং- ১৪, পরিমান ৮ শতক জমির উপর স্থানীয় ছোটফৌদ গ্রামের মৃত হাজী ফয়জুর রহমানের পুত্র হারিছ উদ্দিন (৩২) খোলা আকাশের নিচে একটি করাত স্থাপন করেন। সেখানে তিনি ঘর নির্মান ও করাতকল বসালে উক্ত ৮ শতক জমির বৈধ মালিক দাবী করে একই গ্রামের মৃত মাহমুদ আলীর পুত্র শফিকুল হক (৫৫) করাতকল স্থাপনকারী হারিছ উদ্দিন গংদের বিরুদ্ধে সিলেটের কানাইঘাট আদালতে মোকদ্দমা নং- ০৬/২০১৭, ধারা- ১৪৪ কার্যবিধি আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত উক্ত জমির উপর সব ধরনের স্থাপনা নির্মান বন্ধ করার জন্য কানাইঘাট থানার অফিসার ইন্চার্জকে নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশে উক্ত জমির উপর সব ধরনের স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ এবং শান্তি শৃংখলা রার্থে উক্ত জায়গার উপর কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদ ১৪৪ জারীর আদালতের নির্দেশে নোটিশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে এএসআই আব্দুল মন্নান গত ১৪ মার্চ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে করাতকল স্থাপনকারী হারিছ উদ্দিনসহ উভয় পক্ষকে আগামী ৫/৪/২০১৭ইং তারিখ উভয়ের বৈধ কাগজপত্র সহ বিজ্ঞ আদালতে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ দেন। কিন্তু আদালত ও থানা পুলিশের নির্দেশ অমান্য করে হারিছ উদ্দিন করাতকল স্থাপন ও বেআইনী ভাবে উক্ত জায়গার উপর ঘর নির্মান করে যাচ্ছেন বলে মামলার বাদী শফিকুল হক জানিয়েছেন। অপরদিকে হারিছ উদ্দিন জানিয়েছেন তিনি ভুমি খন্ডটির বৈধ মালিক বিধায় সেখানে বন বিভাগে আবেদন করে করাতকল স্থাপনসহ ঘর নির্মান করছেন। অযতা শফিকুল হক গংরা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছেন। তবে উপজেলা বিট কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ জানিয়েছেন, হারিছ উদ্দিন করাতকল স্থাপনের জন্য বনবিভাগ বা প্রশাসনের কোন অনুমতি নেননি। বেআইনী ভাবে কেউ করাতকল স্থাপন করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কানাইঘাট থানার এএসআই আব্দুল মন্নানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আদালতের নির্দেশ মোতাবেক উক্ত জায়গার উপর ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কোন পক্ষ যদি করাতকল কিংবা কোন ধরনের স্থাপনা নির্মান করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এলাকাবাসী বিরোধপুর্ণ উক্ত জায়গা থেকে করাতকল অপসারনের জোর দাবী জানিয়েছেন।

বেসরকারি চাকরিতে সৌদি নারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে ১৪৫ শতাংশ

বেসরকারি চাকরিতে সৌদি নারীদের অংশগ্রহণ বেড়েছে ১৪৫ শতাংশ

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সৌদি আরবে বেসরকারি চাকরির বাজারে নারীদের অংশগ্রহণ ১৪৫ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৬ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে জেনারেল অর্গানাইজেশন ফর সোশাল ইন্স্যুরেন্স (জিওএসআই)-এ ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৪শ’ নারী নিবন্ধিত হয়েছেন।

২০১২ সালের চেয়ে এই সংখ্যা ১৪৪ দশমিক ৬২ শতাংশ বেশি। ওই বছরের শেষ নাগাদ ২ লাখ ৩ হাজার ৮৮ নারী বেসরকারি চাকরি বাজারে প্রবেশ করে। খবর বার্তা সংস্থা সিনহুয়া’র।

জিওএসআই-এর পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বেসরকারি চাকরি বাজারে সৌদি নারীদের প্রতিনিধিত্ব ছিল ১২ শতাংশ। ২০১৬ সালের শেষ নাগাদ যা বেড়ে ৩০ শতাংশে দাঁড়ায়। ২০১৬ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে নারী কর্মীর হার আগের বছরের তুলনায় ৪.১ শতাংশ বেড়েছে।

সৌদি আরবের প্রায় ৪০ শতাংশ চাকরি রিয়াদে। এই নগরীতে ২ লাখ ৩ হাজার ৬শ’ চাকরি রয়েছে। কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে এরপরের স্থান মক্কা প্রদেশে। এখানে ১ লাখ ৬ হাজার ৮শ’ চাকরী রয়েছে, যা ২১ দশমিক ৫ শতাংশ। তৃতীয় অবস্থানে আছে পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ জাযান। এখানে ১১ দশমিক ৪ শতাংশ চাকরি রয়েছে। এই সংখ্যা ৫৬ হাজার ৪শ’। এখানে এ ধরনের চাকরি ১৯ শতাংশ বেড়েছে।

বিশিষ্ট নারী ব্যবসায়ী লামা আল-সুলাইমান বলেন, যেসব নারীরা চাকরি করতে চাইছেন, তারা যাতায়াত ব্যবস্থা ও শিশুদের ডে-কেয়ার সেন্টারের অপ্রতুলতাসহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, ‘ছোট চাকরির প্রতিই কর্মজীবী নারীদের বেশি আগ্রহ।’

২০১৬ সালের শেষ নাগাদ সৌদি আরবে বেকার নারীর সংখ্যা ৪ লাখ ৩৯ হাজার ৬শ’ তে পৌঁছেছে, যা দেশের মোট বেকারত্বের ৩৪ দশমিক ৫ শতাংশ। দেশটির বেকারত্বের মোট হার ১২ দশমিক ১ শতাংশ।

সৌদি সরকার ২০২০ সাল নাগাদ নারী কর্মীর হার ২৩ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ২৮ শতাংশে উন্নীত ও বেকারত্বের হার নয় শতাংশে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা করেছে। সূত্র: বাসস

চট্টগ্রামের জঙ্গিরাই সন্ধান দেয় সিলেটের জঙ্গি আস্তানার!


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: চট্টগ্রামে সীতাকুণ্ডের আরামবাগের এক আস্তানা থেকে গ্রেফতার করা দুই জঙ্গির তথ্যের ভিত্তিতেই সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার শিববাড়ির জঙ্গি আস্তানার খবর পাওয়া যায়। পরে প্রযুক্তি ও গোয়েন্দা তথ্যর সাহায্যে বাড়িটি চিহ্নিত করা হয়। ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা (সিটিটিসি) এই জঙ্গি আস্তানার বিষয়টি সিলেটের পুলিশকে অবহিত করেন। সিটিটিসির ডিসি মহিবুল ইসলাম খান এমন তথ্য জানিয়েছেন। শুক্রবার রাত ৩টা থেকে আতিয়া মহল নামের ওই বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ। পাঁচতলা ভবনের নীচতলার ফ্ল্যাটে জঙ্গিরা অবস্থান করছে বলে জানিয়েছে তারা। সোয়াত টিম এলে শুরু হবে অভিযান। সূত:সিলেটভিউ২৪ডটকম

কৃত্রিম সূর্য ‘সিনলাইট’ জ্বলে উঠেছে আপন আলোয়

কৃত্রিম সূর্য ‘সিনলাইট’ জ্বলে উঠেছে আপন আলোয়

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ২৩ মার্চ থেকে আলো আর উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেছে বিশ্বের বৃহত্তম কৃত্রিম সূর্য। জার্মানিতে বৃহস্পতিবার এই কৃত্রিম সূর্যের উদ্বোধন করেন দেশটির পরিবেশমন্ত্রী জোহান্স রেমেল, অর্থমন্ত্রী গর্গ মেনজেন এবং জার্মান অরোস্পেস সেন্টারের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য কার্স্টেন লেমের।

বৃহত্তম এই কৃত্রিম সূর্যের নাম দেয়া হয়েছে সিনলাইট। ৩ হাজার ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উত্তাপ তৈরি করতে পারে এই সিনলাইট। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

পৃথিবীর অনেক স্থানেই সূর্যরশ্মি ঠিকমত পৌঁছায় না। তাই প্রয়োজন থাকলেও সৌরশক্তির ব্যবহার সম্ভব হয় না। যে সব এলাকায় সৌরশক্তি পৌঁছায় না সে সব স্থানের কথা মাথায় রেখেই এই কৃত্রিম সূর্য তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

সিনলাইট থেকে হাইড্রোজেন প্রস্তুত করা সম্ভব হবে। হাইড্রোজেন পুড়লে যেহেতু কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস প্রস্তুত হয় না, তাই ভবিষ্যতে হাইড্রোজেনকেই জ্বালানী হিসেবে ব্যবহার করতে হবে বলেও জানিয়েছেন গবেষকরা।

সিনলাইটের ভবনটি তিন তলা উঁচু। এখানে ১৪০ জেনন শর্ট আর্ক ল্যাম্প জ্বলছে। মাল্টিপ্লেক্সের লার্জ সিনেমা স্ক্রিনে আলোর জন্য একটিমাত্র জেনন শর্ট আর্ক ল্যাম্প জ্বালানো হয়।

প্রচণ্ড তাপমাত্রায় গবেষকরা হাইড্রোজেন গ্যাস প্রস্তুত করছেন। সোলার রেডিয়েশন ব্যবহার করে হাইড্রোজেন প্রস্তুত করার প্রণালী বেশ কয়েক বছর আগেই আবিষ্কার হয়েছে। কিন্তু সিনলাইটের ফলে প্রচুর পরিমাণে হাইড্রোজেন উৎপন্ন করা সম্ভব যা শিল্প-কারখানাসহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানেও ব্যবহার করা সম্ভব।

দেশের বাজারে অপ্পোর নতুন স্মার্টফোন

দেশের বাজারে অপ্পোর নতুন স্মার্টফোন

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: দেশের বাজারে এসেছে অপ্পোর সেলফি এক্সপার্ট এফ৩ প্লাস স্মার্টফোন। সেটটির সামনের ক্যামেরা ১৬ মেগা পিক্সেলের ও ব্যাক ক্যামেরা হিসেবে দেওয়া হয়েছে সনির কাস্টমাইজ করা আইএমএক্স৩৯৮ সেন্সরের ক্যামেরা।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে এ স্মার্টফোনটির উদ্বোধন করা হয়। বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নেভি ঈ ও ব্র্যান্ড ম্যানেজার ব্রুস লি এ স্মার্টফোনটির উদ্বোধন করে। নতুন এই সেলফি ফোনটি অপ্পোর সর্ব প্রথম ১২০ ওয়াইড অ্যাঙ্গেলের ডুয়াল সেলফি ক্যামেরা।

স্মার্টফোনটিতে থাকছে দ্রুতগতির একটি অক্টাকোর প্রসেসর। সেটটিতে রয়েছে ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি রম। তবে মেমরি কার্ড ২৫৬ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

উল্লেখ্য, দেশের বাজারে এটি বিক্রি শুরু হবে ১ এপ্রিল থেকে। আর বৃহস্পতিবার থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত হ্যান্ডসেটটির আগাম বুকিং নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় যাচ্ছেন হাফেজ মাহমুদুল হাসান


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: তুরস্কের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আগামী ১৮ মে ১০ দিনব্যাপী ৫ম আন্তর্জাতিক হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। তুরস্কের এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন চাঁদপুরের কচুয়ার সন্তান হাফেজ মাহমুদুল হাসান পাটোয়ারী। গত রোববার (১২ মার্চ) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে শতাধিক হাফেজে কুরআন এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে বাছাই পরীক্ষার সম্মুখীন হন। হাফেজ মাহমুদুল হাসান পাটোয়ারী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে তুরস্কের এ আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হন। তুরস্কের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অধীন আয়োজিত ১০ দিনব্যাপী ৫ম আন্তর্জাতিক এ প্রতিযোগিতায় বিশ্বের ৬০ দেশের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করবেন। আগামী ২৮ মে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করবেন। জানা যায়, ১৯ বছর বয়সী চাঁদপুরের এ কৃতী সন্তান হাফেজ মাহমুদুল হাসান পাটোয়ারী গুলশান সোসাইটি জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি মুরতাজা হাসান ফয়েজি মাসুস প্রতিষ্ঠিত মিরপুরের মারকাযু ফয়জিল কুরআন আল ইসলামীর ছাত্র। বাংলাদেশের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখতে হাফেজ মাহমুদুল হাসান পাটোয়ারীর জন্য রইলো শুভ কামনা।

গরমে ত্বকের যত্ন

গরমে ত্বকের যত্ন

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: গরম পড়তে শুরু করে দিয়েছে অনেক আগে থেকেই। তাছাড়া বাইরেও এখন প্রচণ্ড রোদ আর ধুলোবালি। এ সময় ত্বক আর্দ্রতা হারায় এবং শুষ্ক হয়ে পড়ে। সেইসাথে বাইরের রোদ এবং গরম বাতাস ত্বকের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই এমন বিরূপ পরিবেশে ত্বকের চাই বিশেষ যত্ন।

> বাইরে বের হলে ছাতা ব্যবহার করুন। ব্যবহার করতে পারেন সানস্ক্রিন ক্রিমও। এমন সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করুন, যার এসপিএফ ৩০-এর বেশি।

> শুষ্ক ত্বকের খসখসে ভাব দূর এবং বলিরেখা পড়া থেকে রেহাই পেতে সবসময় ক্রিম ব্যবহার করা উচিত। অবশ্য ক্রিমের বদলে বেবি লোশনও ব্যবহার করতে পারেন। তবে গরমের দিনে ক্রিম হতে হবে তেলবিহীন। নতুবা ক্রিমের অতিরিক্ত তেল গরমে আরো বেশি সমস্যা তৈরি করবে।

> এ সময় ঘাম হয় খুব বেশি, তাই ত্বক রাখতে হবে পরিষ্কার। তবে সাবান বা ফেসওয়াশ দিনে একবারের বেশি ব্যবহার না করাই ভালো।

> এ সময় শরীর থেকে প্রচুর পানি বের হয়ে যায়। তাই পর্যাপ্ত পানি পান করুন। তরমুজ, বাঙ্গি, বেলসহ অন্যান্য ফল খেতে হবে। এসব ফলের রস ত্বকের জন্য উপকারী।

> দিন শেষে বাসায় ফিরে তরমুজ, লাল আতা, দুধ ও মধু একসাথে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে ত্বকে লাগাতে পারেন। বাঙ্গি, দুধ, মধু ও লাল আতার সাথে টকদই মিশিয়েও প্যাক তৈরি করতে পারেন।

> প্যাক তৈরি করার জন্য হাতের কাছে তেমন কিছু না পেলেও শুধু তরমুজের রস তুলার সাহায্যে ত্বকে লাগাতে পারেন। এতে আপনার ত্বক ঠাণ্ডা থাকবে ও তা উজ্জ্বল দেখাবে। আর রোদে পোড়া ভাবও কমে আসবে।

> আর হ্যাঁ, ত্বকে অতিরিক্ত খসখসে ভাব থাকলে রাতে ঘুমানোর সময় ত্বক পরিষ্কার করে পেট্রোলিয়াম জেলি ত্বকে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। সকালে ধুয়ে ফেলুন উপকার পাবেন। সারা বছরই ব্যবহার করতে পারেন।

মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় কানাইঘাট উপজেলা জাপা নেতা ফররুখ আহমদ গুরুতর আহত

Kanaighat News on Thursday, March 23, 2017 | 11:50 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় বিগত ইউপি নির্বাচনে কানাইঘাট-বড়চতুল ইউপির জাপা সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জেলা স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সিনিয়র সভাপতি ও উপজেলা জাপা নেতা কিউএম ফররুখ আহমদ ফারুক (৩৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। সজ্ঞাহীন অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের অর্থপেডিক বিভাগে কিউএম ফররুখ আহমদ ফারুক চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। জানা যায় গত রবিবার রাত ৮টার দিকে জৈন্তাপুর মডেল থানা থেকে মোটর সাইকেল যোগে কানাইঘাট চতুল বাজারে ফেরার পথে পথিমধ্যে সিলেট তামাবিল সড়কের জৈন্তাপুর ছইয়া গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান এনায়েত মিয়ার বাড়ীর পাশে আসামাত্র বিপরীত দিক থেকে একটি অটোরিক্সা সিএনজি থেকে দুই জন যাত্রী নেমে ফারুক আহমদের মোটর সাইকেলের সামনে পড়লে তিনি তাদের বাঁচাতে গিয়ে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনার স্বীকার হন। তার স্বজনরা জানিয়েছেন, তিনি মাথায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছেন। অজ্ঞান অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে সিওমেক হাসপাতালে পাঠান।  দুর্ঘটনার খবর পেয়ে জেলা ও কানাইঘাট উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের জাপা ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ফারুক আহমদকে হাসপাতালে দেখতে যান। সিলেট-৫ (কানাইঘাট-জকিগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য বিরোধী দলীয় হুইপ আলহাজ্ব সেলিম উদ্দিন তার সার্বক্ষণিক চিকিৎসার খোঁজ খবর নিচ্ছেন। আহত ফারুক আহমদকে দেখতে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান নিরাপদ সড়ক চাই সিলেট মহানগর শাখার উপদেষ্ঠা ও আজীবন সদস্য জহিরুল ইসলাম মিশু, আহবায়ক এম ইকবাল হোসেন, সদস্য সচিব আব্দুল হাদি পাবেল, সদস্য সাদেকুর রহমান চৌধুরী ও জুম্মান আহমদ।  এদিকে জাপা নেতা কিউএম ফররুখ আহমদ ফারুকের দ্রুত সু-স্বাস্থ্য কামনা করে সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন দলীয় নেতাকর্মী ও পরিবারের সদস্যরা।

কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিনের মাতার মৃত্যুতে সেলিম উদ্দিন এমপি সহ বিভিন্ন মহলের শোক


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র মোঃ নিজাম উদ্দিনের মাতা পৌরসভার উত্তর গোবিন্দপুর গ্রাম নিবাসী সমাজসেবী হাজী আজিজুর রহমানের সহ ধর্মিনী হাজিরা বেগম বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়ীতে গত মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে ইন্তেকাল হইয়াছেন। ইন্নানিল্লাহি.............রাজিউন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি স্বামী সহ ৬ ছেলে ৪ মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গতকাল বুধবার বাদ যোহর মরহুমা হাজিরা বেগমের জানাজার নামায কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় উপজেলা চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, কানাইঘাট পৌর আ’লীগের আহবায়ক জামাল উদ্দিন সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও সর্বস্তরের মানুষ শরীক হন। পরে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এদিকে কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিনের মাতা হাজিরা বেগমের মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ও মরহুমার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করেছেন সিলেট-৫ (কানাইঘাট-জকিগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য বিরোধী দলীয় হুইপ আলহাজ্ব সেলিম উদ্দিন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম রানা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম বেগম, উপজেলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ফোরামের সভাপতি সদর ইউপি চেয়ারম্যান মামুন রশিদ, সাধারণ সম্পাদক বানীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মাষ্টার মহি উদ্দিন, কানাইঘাট বাজার বণিক সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কানাইঘাট নিউজ ডট কমের সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ সহ বিভিন্ন সামাজিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

কানাইঘাটে বিরোধপুর্ণ ভুমিতে সমিল স্থাপন নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কানাইঘাট মন্তাজগঞ্জ বাজারের সুরতুন্নেছা মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে বিরোধপুর্ণ ভুমিতে খোলা জায়গায় একটি  স'মিল স্থাপন নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ নিয়ে বাজার এলাকায় যে কোন সময় অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে বাজারে ব্যবসায়ী ও স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, মন্তাজগঞ্জ বাজারে নারাইনপুর মৌজার জেএল নং- ২৪০, এসএ খতিয়ান নং- ১০, দাগনং- ১৪, পরিমান ৮ শতক জমির উপর স্থানীয় ছোটফৌদ গ্রামের মৃত হাজী ফয়জুর রহমানের পুত্র হারিছ উদ্দিন (৩২) একটি  স'মিল বসানোর পায়তারা করলে উক্ত ভুমি খন্ডটি নিজেদের মালিকানা দাবী করে একই গ্রামের মৃত মাহমুদ আলীর পুত্র শফিকুল হক (৫৫) বাদী হয়ে হারিছ উদ্দিন গংদের বিরুদ্ধে সিলেটের কানাইঘাট আদালতে বিবিধ মোকদ্দমা নং- ০৬/২০১৭, ধারা- ১৪৪ কার্যবিধি আইনে মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত উক্ত ৮ শতক জমির উপর সব ধরনের স্থাপনা বন্ধ করার জন্য কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ প্রদান করেন। আদালতের নির্দেশে ৮ শতক জমির উপর সব ধরনের স্থাপনার কাজ বন্ধ এবং শান্তি শৃংখলা রাক্ষর্থে উক্ত জায়গার উপর কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদ ১৪৪ জারী করেন। পরবর্তীতে এএসআই আব্দুল মন্নান গত ১৪ মার্চ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে  স'মিল স্থাপনকারী হারিছ উদ্দিনসহ উভয় পক্ষের আগামী ৫/৪/২০১৭ইং তারিখ স্ব-স্ব বৈধ কাগজপত্র সহ বিজ্ঞ আদালতে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ প্রদান করেন। কিন্তু আদালত ও থানা পুলিশের নির্দেশ অমান্য করে হারিছ উদ্দিন প্রশাসনের অনুমতি না নিয়ে বেআইনী ভাবে উক্ত জায়গার উপর খোলা আকাশের নিচে সমিল স্থাপন এবং ঘর নির্মান করে যাচ্ছে। এব্যপারে থানা পুলিশকে অবহিত করার পরও হারিছ উদ্দিনের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন না বলে জমির মালিক মামলার বাদী শফিকুল হক জানিয়েছেন। ভুমি খন্ডটি উভয় পক্ষ মালিকানা দাবী করায় উত্তেজনা বিরাজ করায় থানা পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বাজারের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ও এলাকাবাসী। দ্রুত এব্যাপারে অপরদিকে হারিছ উদ্দিন জানিয়েছেন তিনি ভুমি খন্ডটির বৈধ মালিক বিধায় সেখানে বন বিভাগে আবেদন করে সমিল স্থাপন সহ ঘর নির্মান করছেন। অযতা শফিকুল হক গংরা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে আমার মামলা রয়েছে। তবে উপজেলা বিট কর্মকর্তা আবু সাইদ জানিয়েছেন হারিছ উদ্দিন সমিল স্থাপনের জন্য বন বিভাগ বা প্রশাসনের কোন অনুমতি নেননি। বেআইনী ভাবে সমিল স্থাপন করলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানোগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কানাইঘাট থানার এএসআই আব্দুল মন্নানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আদালতের নির্দেশ মোতাবেক উক্ত জায়গার উপর ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশ অমান্য করে কোন পক্ষ যদি সমিল কিংবা কোন ধরনের স্থাপনা নির্মান করার চেষ্ঠা করেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানোগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ফুলতলীতে ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ডের পাগড়ী ও সনদ বিতরণ


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ড এর পাগড়ী ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) ফুলতলী ছাহেব বাড়ি কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয়। মাওলানা গুফরান আহমদ চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন মুরশিদে বরহক আল্লামা ইমাদ উদ্দিন চৌধুরী বড় ছাহেব কিবলাহ ফুলতলী। উপস্থিত ছিলেন- লতিফিয়া এতিমখানা ফুলতলী’র সাধারণ সম্পাদক মাওলানা শিহাব উদ্দিন চৌধুরী ছাহেব জাদায়ে ফুলতলী, শাহজালাল দারুস সুন্নাহ ইয়াকুবিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা কমরুদ্দীন চৌধুরী ছাহেব জাদায়ে ফুলতলী, ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ড এর সাধারণ সম্পাদক হাফিয মাওলানা ফখরুদ্দীন চৌধুরী ছাহেব জাদায়ে ফুলতলী, জালালপুর জালালিয়া সিনিয়র মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা জ.উ.ম আব্দুল মুনঈম মঞ্জলালী, লতিফিয়া এতিমখানা ফুলতলী’র ব্যবস্থাপক ফারহান আহমদ চৌধুরী রেদা। আরো উপস্থিত ছিলেন- ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআর বোর্ড এর বিভিন্ন উপজেলা কমিটির দায়িত্বশীলবৃন্দ ও বিভিন্ন হিফযুল কুরআন মাদরাসার শিক্ষকবৃন্দ। হিফয সমাপনী ২৩০ জন ছাত্রকে পাগড়ী ও সনদ দেয়া হয়। ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ড এর ৪টি স্থরে (হিফয ইবতেদায়ী, হিফয মাধ্যমিক, হিফয উচ্চ মাধ্যমিক, হিফয তকমিল) মোট পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩৮১২ জন। এর মধ্যে কৃতকার্য হয়েছেন ৩১৫৮ জন। বৃত্তি পেয়েছেন ২৬৭ জন। পাশের হার ৮২.৮৪%। বোর্ডের অন্তর্ভুক্ত প্রতিষ্ঠান ৩৭৫ টি। মুরশিদে বরহক আল্লামা ইমাদ উদ্দিন চৌধুরী বড় ছাহেব কিবলাহ ফুলতলী’র দু’আর মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্তি হয়।(প্রস বিজ্ঞপ্তি)

কানাইঘাট দিঘীরপার ইউপিতে আনসার সমাবেশ অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসকে সামনে রেখে কানাইঘাট উপজেলার ৩নং দিঘীরপার পুর্ব ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে  বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় ইউপি আনসার সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন কাজলের সভাপতিত্বে ও দিঘীরপার পুর্ব ইউনিয়ন আনসার দলনেতা বসির উদ্দিন চৌধুরী’র পরিচালনায় উক্ত আনসার সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সড়কের বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল মতিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা আনসার বিডিপি’র ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খালেদ আহমদ, দিঘীরপার পুর্ব ইউপির ৭নং ওয়ার্ড সদস্য মুন্সি আবুল হোসেন। বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য রমিজ উদ্দিন, আনসার দলনেতা সুলতান আহমদ, মহিলা আনসার দলনেত্রী রিনা বেগম, জাহানারা বেগম প্রমূখ। ৩নং দিঘীরপার পুর্ব ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত ১১৪৯ জন আনসার সদস্যদের উপস্থিতিতে সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে ৩নং দিঘীরপার পুর্ব ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আলী হোসেন কাজল বলেন, আনসার সদস্যরা গ্রাম-গঞ্জের আইন শৃংখলার উন্নয়নে প্রশাসন, আইন শৃংখলা বাহিনী সহ ইউনিয়ন পরিষদকে সহযোগীতা করে থাকেন। পাশাপাশি আনসার সদস্যরা রাষ্ট্রের নিরাপত্তা রা ও সকল নির্বাচনে নিষ্টার সাথে দায়িত্ব পালন করে থাকেন। তাই আনসার সদস্যদের জিবন মানের উন্নয়ন একান্ত প্রয়োজন। ইউনিয়নের আইন শৃংখলা রা এবং অপরাধীদের তথ্য প্রদান এবং জনগনের
জানমালের নিরাপত্তা রা করার জন্য আনসার সদস্যদের আরো আন্তরিকথার সহিত দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি ৩নং দিঘীরপার পুর্ব ইউপির আনসারদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। সমাবেশ শেষে কাজের দতা সরুপ সফল আনসার দলনেতা ও সদস্যদেরকে পুরস্কৃত করা হয়।

কানাইঘাট মহিলা কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গির আলম রানা বলেছেন, নারী সমাজ আর কোন দিক থেকে পিছিয়ে নেই। উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে শিক্ষার মূল ভিত্তি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত মেয়েদের উপস্থিতির সংখ্যা আজ বেশি। শিক্ষা, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে মেয়েরা উজ্জ্বল ভূমিকা রেখে দেশের অর্গ্রযাত্রাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি কানাইঘাট মহিলা কলেজের শিক্ষার সার্বিক উন্নয়নে একসাথে কাজ করে এ প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নেওয়ার মাধ্যমে এ অঞ্চলের নারী শিক্ষার উন্নয়নে সবাইকে এক সাথে কাজ করার আহবান জানান। ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গির আলম রানা বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় কানাইঘাট মহিলা কলেজের ২০১৭ ব্যাচের এইচএসসি পরিক্ষার্থীদের বিধায় ও কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। কলেজের অধ্যক্ষ বিশিষ্ঠ শিক্ষাবিদ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও কলেজের প্রভাষক আকতার ফারুক ও শামিম আহমদের যৌথ পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন কলেজ গভর্নিং বডির সদস্য সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, কানাইঘাট পাবলীক হাইস্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রহিম উদ্দিন ভরসা, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, পাবলীক হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইয়াহইয়া। উপস্থিত ছিলেন মিলেনিয়াম টিভি ও চ্যানেল এস, এর কানাইঘাট প্রতিনিধি আলিম উদ্দিন আলিম, আওয়ামীলীগ নেতা ইকবাল হোসেন, মুমিন রশিদ, জুনেদ হাসান জিবান, কলেজের ভুমিদাতা আলিম উদ্দিন, রোটারিয়ান ইকবাল হোসেন। বক্তব্য রাখেন কলেজের প্রভাষক শামিম আহমদ, প্রভাষক মাসুম আহমদ, একাদশ শ্রেনীর ছাত্রী জান্নাত জাহান, দাদ্বশ শ্রেনীর বিদায়ী শিক্ষার্থী তাহমিনা বেগম, সুহাদা বেগম প্রমূখ। অনুষ্ঠানে কলেজের শিক্ষার্থীরা দেশাত্ববোধক মনমোগ্ধকর গান গেয়ে সবাইকে মুগ্ধ করেন। বিদায়ী দ্বাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থীদের সম্মানে কেক কাটা হয় এবং সম্মাননা মানপত্র অতিথি বৃন্দ তুলে দেন তাদের হাতে।

কানাইঘাট উপজেলা জমিয়তে তালাবার কাউন্সিল ও কর্মী সম্মেলন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
 জমিয়তে উলামা বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় আমীর আল্লামা আলিমুদ্দীন শায়খে দুর্লভপুরী বলেছেন, দারুল উলূম দেওবন্দের সঠিক আদর্শ বাস্তবায়নে জমিয়তে তালাবার নেতাকর্মীদের সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। একটি সু-শৃঙ্খল ও আদর্শবান ছাত্র সংগঠন হিসাবে ছাত্রদের কাছে জমিয়তে তালাবার দাওয়াত পৌঁছে দেওয়া সহ সকল বাতিল শক্তির বিরুদ্ধে মাঠে ময়দানে নবী করিম (স.) ও সাহাবাদের সঠিক আদর্শ লালন করে হক ও হক্কানিয়াতের পথে চলতে হবে। আল্লামা দুর্লভপুরী বলেন, পদ পদবীর লোভ পরিহার করে ইসলামী শরীয়ত সংরক্ষণের জন্য তোমাদেরকে সংগঠনের কাজে আত্মনিয়োগ করতে হবে তাহলেই তোমরা সফলকামী হবে। সকল তাগুতি শক্তি বাতিল মতবাদের বিরুদ্ধে কোন আপোষ চলবে না। আল্লামা মুশাহিদ বায়মপুরী রহ. আজীবন সকল কুসংস্কারের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে গেছেন। তাই আমাদেরকেও সমাজ থেকে সকল প্রকার কুসংস্কার দূরীভূত করতে কাজ করতে হবে। আল্লামা দুর্লভপুরী গত বুধবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট ডাক বাংলায় জমিয়তে তালাবা বাংলাদেশ কানাইঘাট উপজেলা শাখার কাউন্সিল ও কর্মী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উপজেলা কমিটির আহ্বায়ক মাও. ক্বারী মাশুক আহমদ ধনপুরীর সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব হাফিয সিদ্দিক বিন মুহাম্মদ এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জমিয়তে উলামার কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মাও. শামসুদ্দীন দুর্লভপুরী, আলহাজ¦ মাও. গোলাম ওয়াহিদ। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন জমিয়তে উলামার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাও. ক্বারী হারুনুর রশীদ চতুলী। বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় জমিয়তে উলামার অফিস সম্পাদক মাও. খালিদ সাইফ উল্লাহ, মাও. আব্দুল মুমিন, জমিয়তে তালাবার কেন্দ্রীয় সভাপতি মাও. জয়নুল আবেদীন, মাও. এনামুল হাসান, মাও. সাদ উল্লাহ, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাও. বদরুল ইসলাম আল ফারুক, মাও. জাকারিয়া, মাও. নুরুল আলম, মাও. আব্দুল কাহির, মাও. হাফিজ নজরুল ইসলাম, মাও. বিলাল আহমদ, মাও. জুনেদ আহমদ, মাও. নুরুল ইসলাম, মাও. সুফিয়ান আহমদ, মাও. সুয়াইবুর রহমান, মিজানুর রহমান, হা. সুফিয়ান আহমদ, সাইফুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাও. হারিছ উদ্দিন, মাও. হা. এহসানে এলাহী, কানাইঘাট পৌর জমিয়তে তালাবার সভাপতি মাও. হা. নজীর আহমদ, কেন্দ্রীয় জমিয়তে তালাবার সাধারণ সম্পাদক আসাদ আহমদ, প্রচার সম্পাদক জুনায়েদ আল হাবিব, অফিস সম্পাদক হাফিজ ইয়াহইয়া মাহমুদ, বক্তব্য রাখেন, জমিয়তে তালাবা নেতা হা. মারুফ আহমদ, কাওছার আহমদ, হাসান ইবনুল আমিন, অলি উল্লাহ, আহমদ আলী, হাফিজ আব্দুল করিম, আফতাব উদ্দিন, শামসুদ্দিন, মাসুম বিল্লাহ, দেলোয়ার হোসেন। কাউন্সিলে মাও. হা. এহসানে এলাহীকে সভাপতি, হাফিজ সিদ্দিক বিন মুহাম্মদকে সাধারণ সম্পাদক, অলি উল্লাহকে যুগ্ম সম্পাদক, রায়হান আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ আলীকে প্রচার সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট জমিয়তে তালাবা বাংলাদেশ কানাইঘাট উপজেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি ঘোষণা করেন, জমিয়তে উলামার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাও. ক্বারী হারুনুর রশীদ চতুলী, কাউন্সিল পরবর্তীতে নবাগত কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে কানাইঘাট বাজারে একটি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

কানাইঘাটে ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার চৌধুরীকে বিদায়ী সংবর্ধনা

Kanaighat News on Monday, March 20, 2017 | 11:03 PM


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা দেলোয়ার হোসেন চৌধুরীর প্রবাস যাত্রা উপলক্ষে কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি যুবলীগ স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে এক বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সোমবার বিকাল ৫টায় স্থানীয় সুরইঘাট বাজারে অনুষ্ঠিত হয়। সিলেট ল’কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আনোয়ারুল হকের সভাপতিত্বে ও যুবলীগ নেতা আফতাব উদ্দিনের পরিচালনায় উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের বিদ্রুহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন। প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন, জেলা ছাত্রলীগ নেতা আফজল হোসেন রিজবী। বিশেষ অতিথি সংবর্ধিত ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগ নেতা ফরহাদ হোসেন, হাবিব উল্লাহ, ফয়াজ আহমদ, মঞ্জুর আহমদ, পৌর ছাত্রলীগের বিদ্রুহী কমিটির সভাপতি ইয়াহইয়া ডালিম, কানাইঘাট কলেজ শাখা বিদ্রুহী কমিটির সভাপতি সাহেদ আহমদ, পৌর শাখার বিদ্রুহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক আশফাক আহমদ, কলেজ শাখা বিদ্রুহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজু আহমদ। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা মাসুম আহমদ, আফজল হোসেন, জয় চক্রবর্তী মুন্না, মারুফ
আহমদ, সুহেল রানা, হিফজুল, আতিক, বাহার আলী, সজল, আশরাফ, তালহা, সাদিক, রেজওয়ান, শাহার। বক্তব্য রাখেন, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি ছাত্রলীগ নেতা আশিক উদ্দিন, কয়ছর আহমদ, মুন্না সহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। অনুষ্ঠান শেষে সংবর্ধিত ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন চৌধুরীকে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের পক্ষথেকে ক্রেষ্ট প্রদান এবং উপহার সামগ্রী তুলে দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। অনুষ্ঠানে বক্তারা জাতীরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ধারন করে ও প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড দেশবাসীর কাছে তুলে ধরার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান। সেই সাথে প্রবাসে গিয়ে বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড প্রবাসীদের কাছে তুলে ধরার পাশাপাশি সংগঠনের কাজ করার জন্য ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার চৌধুরীর প্রতি আহবান জানান।(বিজ্ঞপ্তি)

কানাইঘাট ছাত্রলীগের কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে ভবানীগঞ্জ বাজারে আনন্দ মিছিল


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: নবগঠিত কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর এবং ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে কানাইঘাট সাতবাঁক ইউপি ছাত্রলীগের উদ্যোগে এক আনন্দ মিছিল গত শুক্রবার বিকেল ৫টায় স্থানীয় ভবানীগঞ্জ বাজারে অনুষ্ঠিত হয়। মিছিল শেষে বাজার পয়েন্টে ছাত্র সমাবেশে ছাত্রলীগ নেতা রিপন আহমদের সভাপতিত্বে উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুস সহিত রাসেলের পরিচালনায় ছাত্র সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ইউপি আ’লীগের সভাপতি হাজী মখদ্দুছ আলী। বক্তব্য রাখেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুন নুর মেম্বার, সংবর্ধিত ছাত্র নেতা উপজেলা ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শাহিদুল ইসলাম(শহিদুল্লাহ), উপ-পাঠাগার সম্পাদক আদনান সামি, পৌর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মাহবুবুল আলম তানিম সহ সাতবাঁক ইউপি ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বক্তব্য রাখেন। সমাবেশে দীর্ঘদিন পর উপজেলা ও পৌর এবং ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি উপহার দেওয়ায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক সিলেটের কৃতি সন্তান এস.এম জাকির হোসেন সহ সিলেট জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, কানাইঘাটের মাটিকে ছাত্রলীগের ঘাটিতে পরিণত করতে নবগঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দ ঐক্যবদ্ধ ভাবে সংগঠনের সকল সদস্যকে নিয়ে কাজ করে যাবে ইনশাহআল্লাহ।(বিজ্ঞপ্তি)
 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩