Previous
Next

সর্বশেষ


Sunday, May 22

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে উপজেলা চেয়ারম্যানের ত্রাণ বিতরণ

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে উপজেলা চেয়ারম্যানের ত্রাণ বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার বন্যা দূর্গত এলাকায় উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরন অব্যাহত রয়েছে। 

গতকাল শুক্রবার ও আজ শনিবার দিনভর বন্যা কবলিত কানাইঘাট উপজেলার ৫নং বড়চতুল এবং লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের বিভিন্ন বন্যা দূর্গত এলাকা পরিদর্শনের পাশাপাশি বড়চতুল ইউনিয়ন পরিষদ ও লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ, চতুল বাজার, পর্বতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে সরকারি শুকনো ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মোমিন চৌধুরী। 

এছাড়া তিনি কানাইঘাট সুরইঘাট সড়কের আগফৌদ নামক স্থানে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। 

বন্যাদূর্গতদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কালে উপজেলা চেয়ারম্যান মোমিন চৌধুরী বলেন, কানাইঘাটের বন্যাদূর্গতদের পাশে সরকার রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বক্ষণিক ভাবে বন্যার খোঁজখবর নিচ্ছেন। বন্যার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি আমি সরকারের বিভিন্ন মহলে ইতোমধ্যে তুলে ধরেছি, আরো ত্রাণ সামগ্রী আসবে। পানি কমার সাথে সাথে ভাঙ্গা রাস্তা-ঘাটের কাজ শুরু হবে। তিনি সবাইকে বন্যার্তদের পাশে দাড়ানোর আহ্বান জানান। 

এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম, যুক্তরাজ্য শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সারোয়ার কবির, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা জামাল উদ্দিন, বড়চতুল ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা বীরমুক্তিযোদ্ধা সুবেদার আফতাব উদ্দিন, আব্দুর রশিদ মেম্বার, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, বড়চতুল ইউপি আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল আম্বিয়া, চতুল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক যুবলীগ নেতা জাহেদুল ইসলাম রুবেল সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যবৃন্দ।

Saturday, May 21

কানাইঘাটে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও দুর্ভোগ কমেনি বানভাসিদের

কানাইঘাটে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও দুর্ভোগ কমেনি বানভাসিদের


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

কানাইঘাটে বন্যা পরিস্থিতির বেশ কিছু উন্নতি হলেও প্রত্যন্ত জনপদ হাওর এলাকায় বন্যার পানি ধীর গতিতে কমছে। উপজেলার সদর ও পৌর এলাকায় পানি কমার সাথে সাথে ব্যাপক জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।

সুরমা নদীর পানি এখনো বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। হাজার হাজার মানুষ এখনো পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছেন। 

গ্রামীণ এলাকার অধিকাংশ সড়ক বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা এখনো বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

কানাইঘাট-চতুল ও সুরইঘাট সড়ক থেকে বন্যার পানি নেমে গেলেও পানি শ্রুতে সড়কের বিভিন্ন অংশে বড় বড় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। সুরইঘাট সড়কের আগফৌদ নামক স্থানে পানির শ্রুতে সড়কের বড় ভাঙ্গন দেখা দেওয়ায় সেখানে সুরই নদীর পানি প্রবল শ্রুতে বের হওয়ায় এ সড়ক দিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ রয়েছে।

বন্যার্তদের পাশে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী বিতরনের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের বেশ কিছু নেতাকর্মী, উপজেলা বিএনপি, জামায়াত, জমিয়ত, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল্লাহ শাকির সহ প্রবাসী সংগঠন, চ্যারিটেবুল সংগঠন এবং সামাজিক সংগঠনের পাশাপাশি ব্যক্তি উদ্যোগে ত্রাণ সামগ্রী বিতরন অব্যাহত রয়েছে।

বানভাসি মানুষের জন্য সরকারি ত্রাণ সামগ্রী অপ্রতুল দাবী করে আরো বেশী করে ত্রাণ সামগ্রী বিতরনের দাবী জানিয়েছেন বিভিন্ন মহল।

কানাইঘাটকে বন্যা দূর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানালেন সাবেক সাংসদ সেলিম

কানাইঘাটকে বন্যা দূর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানালেন সাবেক সাংসদ সেলিম


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলা সহ বন্যা কবলিত অন্যান্য উপজেলাকে দ্রুত সরকারি ভাবে বন্যা দূর্গত এলাকা ঘোষণা করার জন্য জোর দাবী জানিয়েছেন জাতীয় সাংসদের সাবেক বিরোধী দলীয় হুইপ কানাইঘাট-জকিগঞ্জ আসনের সাবেক সাংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা বর্তমানে যুক্তরাজ্য অবস্থানরত আলহাজ্ব সেলিম উদ্দিন।


এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, কানাইঘাট-জকিগঞ্জে বর্তমানে সপ্তাহ দিন থেকে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি বিরাজ করছে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্ধি হয়ে এবং শত শত পরিবার বাড়ী ঘর হারিয়ে উদ্ভাস্ত এবং অনাহারে অর্ধাহারে জীবন যাপন করছে। তাদের এ সীমাহীন দুঃখ কষ্টে আমি নিজে অত্যন্ত ব্যতিত। যুক্তরাজ্যে অবস্থান করা স্বত্বেও কানাইঘাট-জকিগঞ্জের মানুষের সব সময় খোঁজ খবর আমি নিচ্ছি।


এই মূর্হুতে সবাই কানাইঘাট তথা সিলেটের যেসব উপজেলায় মারাত্মক বন্যা পরিস্থিতি বিরাজ করছে তারা সেই সব উপজেলাকে সরকারি ভাবে বন্যা দূর্গত উপজেলা হিসাবে ঘোষনা দাবী জানাচ্ছেন। মারাত্মক বন্যা পরিস্থিতি বিরাজ করার পরও এখন পর্যন্ত ত্রান ও দূর্যোগ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বন্যা দূর্গত এলাকা পরিদর্শন না করায় সাবেক সাংসদ জাপা’র কেন্দ্রীয় নেতা সেলিম উদ্দিন ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং তিনি দ্রুত কানাইঘাট-জকিগঞ্জ সহ সিলেটের বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে বন্যার্তদের জন্য সরকারি ভাবে বড় ধরনের ত্রান সামগ্রী প্রেরনের দাবী জানান।


সেই সাথে তিনি এই দূর্যোগ মূহুর্তে জাতীয়পার্টি সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠন, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী, প্রবাসী এবং বিত্তশালীরা বন্যার্তদের পাশে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করায় তার পক্ষ থেকে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে দ্রুত কানাইঘাটের বন্যা দূর্গতদের পাশে সাধ্যনুযায়ী সহযোগিতার হাত প্রসারিত করবেন বলে সাবেক সাংসদ সেলিম উদ্দিন জানান।

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে সমাজসেবী শিহাবের  ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে সমাজসেবী শিহাবের ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত


নিজস্ব প্রতিবেদক  ::

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় বন্যা দূর্গতদের মাঝে তৃতীয় দিনেও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন বিশিষ্ট সমাজসেবী আধুনিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক,ফেমেক্স এডুকেশন ও ইউনিটি অফ ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস অফ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান রোটারিয়ান শিহাব উদ্দিন।  

শনিবার তিনি বড়চতুল ইউনিয়নের হখারাই,লখাইরগ্রাম সদর ইউনিয়নের নিজ চাউরা, লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের মেছা বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র , পৌরসভার বায়মপুর এলাকায় পানিবন্দি ৩০০ পরিবারের মাঝে দিনব্যাপী  শুকনো খাবার বিতরণ করেন। 

ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন চড়িপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মুজম্মিল আলী,বড়চতুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক চৌধুরী, ৯ ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইসলাম উদ্দিন,৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য  আব্দুল মুতলিব,ফেমেক্স এডুকেশনের ডিরেক্টর মুস্তাফিজুর রহমান সামি,দক্ষিণ সুরমা ছাত্রলীগের সদস্য হাসিবুর রহমান, লিমন আহমদ প্রমুখ।




 

কানাইঘাটে বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রে খাদ্য সহায়তা দিলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মোস্তাক আহমদ

কানাইঘাটে বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রে খাদ্য সহায়তা দিলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মোস্তাক আহমদ


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইন টিভির মাধ্যমে কানাইঘাট পৌরসভার পাবলিক স্কুল ও শেখ ফজিলাতুন নেছা মহিলা কলেজে আশ্রয় নেওয়া বন্যা কবলিত বাড়ী-ঘর ছাড়া ২০টি পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিয়েছেন কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা বীরদল ভাড়ারীফৌদ গ্রাম নিবাসী যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এম মোস্তাক আহমদ। 

আজ শনিবার দুপুরের দিকে কয়েকটি অনলাইন টিভিতে এ দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নেওয়া বানভাসি পরিবারের সদস্যরা সামান্য শুকনো খাবার ছাড়া ত্রানের চাল-ডাল না পেয়ে তাদের আবেগপূর্ন কথাবার্তা লাইভে শুনে তাৎক্ষনিক কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দের কাছে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফোন দেন এম মোস্তাক আহমদ। 

তিনি তাৎক্ষনিক আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া পরিবারের মধ্যে চাল ও আলু কিনে দেওয়ার জন্য ২০ হাজার টাকা পাঠান। সেই টাকা দিয়ে প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ তাৎক্ষনিক কানাইঘাট বাজার থেকে ২০ হাজার টাকার চাল ও আলু কিনে বন্যার্ত পরিবারের মধ্যে বিতরণ করেন। 

আশ্রয় নেওয়া প্রতিটি পরিবার চাল ও আলু পেয়ে অনেকে তাৎক্ষনিক কেঁদে ফেলেন। তারা বলেন, কিছুটা শুকনো খাবার পেলেও গত কয়েকদিন থেকে তাদের কাছে রান্নার জন্য কোন চাল ছিল না। পরিবারের সদস্য ও ছোট ছোট বাচ্চারা অনাহারে অর্ধাহারে ছিলেন। আমাদের কষ্টের কথা শুনে আমেরিকা প্রবাসী মোস্তাক ভাই আমাদেরকে চাল, আলু কিনে দিয়েছেন আল্লাহ রাব্বুল আলআমিন তাকে যেন সব সময় ভাল রাখেন। চাল ও আলু বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহিন আহমদ, সমাজকর্মী মিজানুর রহমান, দুদু মিয়া সহ অনেকে। এ সময় প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ সহ লাইভে বন্যার্তদের দুঃখ কষ্টের কথা শুনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এম মোস্তাক আহমদ যিনি দীর্ঘদিন থেকে কানাইঘাট আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করে আসছেন এবং এই দূর্যোগ মূহুর্তে বন্যার্তদের পাশে দাড়িয়ে তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে বহু মানুষকে সহযোগিতা করায় তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

Friday, May 20

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগ নেতার ত্রাণ বিতরণ

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগ নেতার ত্রাণ বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক :

কানাইঘাটে বন্যা দূর্গতদের মাঝে যুক্তরাজ‍্য ছাত্রলীগ নেতা শাহীন আহমদের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার (২০ মে) কানাইঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে পানিবন্দি মানুষের মাঝে যুক্তরাজ‍্য ছাত্রলীগ নেতা শাহীন আহমদের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। 

ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য আসাদ উদ্দীন, কানাইঘাট পৌর ছাত্র লীগের সহ-সভাপতি  আফতাব উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা মনির উদ্দিন, মাওলানা রায়হান উদ্দিন প্রমূখ।

ত্রাণ নিয়ে বন্যার্তদের ঘরে ঘরে কাউন্সিলর জমির

ত্রাণ নিয়ে বন্যার্তদের ঘরে ঘরে কাউন্সিলর জমির


নিজস্ব প্রতিবেদক:

৪র্থ দিনের মতো কানাইঘাট পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জমির উদ্দিন কামরানের পক্ষ থেকে ত্রাণ পেলো আরও ১২০ পানিবন্ধি পরিবার।

শুক্রবার দিনব্যাপী তাঁর ওয়ার্ডে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। 

এর অাগে গত সোম,মঙ্গল,বুধ ও বৃহস্পতিবার তিনি তাঁর ওয়ার্ডে স্বেচ্ছাসেবক টিম এর সহোযোগিতায় পানিবন্দি মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে নিজ কাঁধে করে খাবার সামগ্রী পৌছে দেন।


Thursday, May 19

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন কাউন্সিলর জমির

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন কাউন্সিলর জমির


নিজস্ব প্রতিবেদক:

কানাইঘাট পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জমির উদ্দিন কামরানের পক্ষ থেকে ত্রাণ পেলো আরও ১৫০ পানিবন্ধি পরিবার।

তৃতীয়দিনের মতো বন্যা দূর্গত পানিবন্দী কর্মহীন ও দরিদ্র মানুষের জন্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে বাড়ি বাড়ি যান কাউন্সিলর জমির উদ্দিন কামরান। 

এর অাগে গত সোম ও মঙ্গলবার তিনি তাঁর ওয়ার্ডে স্বেচ্ছাসেবক টিম এর সহোযোগিতায় পানিবন্দী মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে নিজ কাঁধে করে খাবার সামগ্রী পৌছে দেন।

কাউন্সিলর জমিরের এমন মহতী উদ্যোগে দলমত নির্বিশেষে সব মহলের প্রশংসায় ভাসছেন তিনি। 


কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে সমাজসেবী শামসুজ্জামান বাহারের ত্রাণ বিতরণ

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে সমাজসেবী শামসুজ্জামান বাহারের ত্রাণ বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক :

কানাইঘাটে বন্যা দূর্গতদের মাঝে  আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য উপ-কমিটির সদস্য,যুক্তরাজ্য প্রবাসী  বিশিষ্ট  কমিউনিটি নেতা ও কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে'র সভাপতি শামসুজ্জামান বাহারের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) কানাইঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় ও কানাইঘাট মহিলা কলেজ বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে পানিবন্দি মানুষের মাঝে শামসুজ্জামান বাহারের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। 


ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুক আহমদ, কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য আসাদ উদ্দীন, কানাইঘাট পৌর ছাত্র লীগের সহ-সভাপতি  আফতাব উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা আক্তারুজ্জামান হিমেল,দেলোয়ার হোসেন, তারেক আহমদ, মাওলানা রায়হান উদ্দিন প্রমূখ।

কানাইঘাটে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি, নিখোঁজ দু'জনের লাশ উদ্ধার

কানাইঘাটে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি, নিখোঁজ দু'জনের লাশ উদ্ধার


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির কিছু উন্নতি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ১৩৮ সে. মি. ( বিকেল ৩টা পর্যন্ত)  উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। যা আগের দিন মঙ্গলবার ছিল ১৫৯ সে. মি.।  

বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও মানুষের দুর্ভোগ মোটেও কমেনি। বিভিন্ন এলাকায়  ঘর-বাড়ি, স্কুল-কলেজ, রাস্তাঘাট ও বাজার বন্যায় প্লাবিত হওয়ায় চরম বেকায়দায় পড়েছেন বানভাসি মানুষ। পানিবন্দি অবস্থায় দুর্বিষহ মানবেতর জীবন যাপন করছেন তাঁরা। তাদের কাছে ত্রাণ সামগ্রী সঠিক ভাবে পৌঁছাচ্ছে না। তারা অনাহারে অর্ধাহারে রয়েছেন। 

বুধবার রাত থেকে বন্যার পানি কমতে শুরু করায় বিভিন্ন জায়গায় নদী ভাঙনের খবর পাওয়া গেছে।

অধিকাংশ এলাকা এখনো বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় কানাইঘাট সদরের সাথে সিলেট শহরের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

এদিকে গত সোমবার (১৬ মে) রাত সাড়ে ১০টার দিকে মমতাজগঞ্জ বাজারের পাশে সুরমা নদীতে নৌকা ডুবে নিখোঁজ লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের নক্তিপাড়া গ্রামের ফয়জুর রহমানের পুত্র ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান (৫০) এর লাশ বৃহস্পতিবার সুরমা নদীর খুলুরমাটি নামক স্থানে পাওয়া গেছে। এবং গত বুধবার (১৮ মে) কানাইঘাট উপজেলার ৭ নং দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউনিয়নের উত্তর বাণীগ্রাম (ছত্রপুর) নিবাসী ছইফ উল্লাহ উরফে সবুলের পুত্র আব্দুল্লাহ বুধবার (১৮ মে)সকালে হাওরে নৌকা নিয়ে মাছ ধরত নিখোঁজ হন। 

বৃহস্পতিবার ছত্রপুর গ্রামের উত্তরের হাওরে পেকু বিল থেকে তার লাশ পাওয়া গেছে।

কানাইঘাটে দ্বিতীয় দিনেও ২০০ পরিবারকে ত্রাণ দিলেন সমাজসেবী শিহাব

কানাইঘাটে দ্বিতীয় দিনেও ২০০ পরিবারকে ত্রাণ দিলেন সমাজসেবী শিহাব


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় বন্যা দূর্গতদের মাঝে দ্বিতীয় দিনেও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন বিশিষ্ট সমাজসেবী আধুনিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক,ফেমেক্স এডুকেশন ও ইউনিটি অফ ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস অফ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান রোটারিয়ান শিহাব উদ্দিন।  

বৃহস্পতিবার তিনি সাঁতবাক ইউনিয়নের ৯টি বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রে পানিবন্দি মানুষের মাঝে দিনব্যাপী  শুকনো খাবার বিতরণ করেন। 

ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন সাতবাঁক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তায়্যিব শামীম,যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আবুল ফয়েজ,ইউপি সদস্য ফখর উদ্দিন, রইছ উদ্দিন, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সদস্য রাসেল আহমদ, লিমন আহমদ সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। 

এর আগে বুধবার তিনি কানাইঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় ও কানাইঘাট মহিলা কলেজ বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র সহ প্রায় তিন শতাধিক পানিবন্দি মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। 

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে সমাজসেবী শিহাবের  ত্রাণ বিতরণ

কানাইঘাটে বন্যার্তদের মাঝে সমাজসেবী শিহাবের ত্রাণ বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক ::

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় বন্যা দূর্গতদের মাঝে  ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন বিশিষ্ট সমাজসেবী আধুনিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক,ফেমেক্স এডুকেশন ও ইউনিটি অফ ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস অফ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান রোটারিয়ান শিহাব উদ্দিন।  

বুধবার(১৮মে)ডালাইচর,বিষ্ণুপুর,কুওড়ঘড়ি,

কানাইঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় ও কানাইঘাট মহিলা কলেজ বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রে প্রায় তিন শতাধিক পানিবন্দি মানুষের মাঝে তিনি দিনব্যাপী  শুকনো খাবার বিতরণ করেন। 


ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন ইউনিটি অফ ইউনিভার্স হিউম্যান রাইটস অফ বাংলাদেশের সাংগঠনিক সম্পাদক মোসারফ হোসেন হামদান,উপ-প্রচার সম্পাদক কামরুল হক খালিছ,ফেমেক্স এডুকেশনের ডিরেক্টর মুস্তাফিজুর রাহমান সামি,দুদু মিয়া প্রমূখ।

এসময় রোটারিয়ান শিহাব উদ্দিন বলেন,আমরা পানিবন্দী পরিবারগুলোর কাছে প্রথমদিনের মতো শুকনো খাবারসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পৌঁছে দিচ্ছি এবং  আগামীকালকেও বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাব।

এ সময় তিনি সমাজের বিত্তবানদের সাধ্যমত বন্যার্তদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। 

Wednesday, May 18

কানাইঘাটে বন্যার অবনতি, দিশেহারা মানুষ

কানাইঘাটে বন্যার অবনতি, দিশেহারা মানুষ


নিজস্ব প্রতিবেদক:

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার সার্বিক ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতি হয়েছে। নতুন করে রাতের বেলা ভারি বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা লোভা ও সুরমা নদীর ঢলে ৫ম দিনের মতো উপজেলা সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতি ঘটেছে। 

এই মুহুর্তে গোটা উপজেলার ৯৫ ভাগ এলাকা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। পানি বাড়ার সাথে সাথে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ঝুকিপূর্ণ সুরমা ডাইকে ভেঙ্গে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ২ লক্ষের অধিক মানুষ গ্রামীন রাস্তা-ঘাট ডুবে যাওয়ার কারনে পানিবন্দী অবস্থায় দুর্বিষহ মানবেতর জীবন যাপন করছেন। তাদের কাছে ত্রাণ সামগ্রী সঠিক ভাবে পৌঁছাচ্ছে না। তারা অনাহারে অর্ধাহারে রয়েছেন। 


বুধবার সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ১৫৯ সে. মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। যা আগের দিন মঙ্গলবার ছিল ১৪২ সে. মি.। 

মঙ্গলবার সকালের দিকে পানি হু হু করে বাড়লেও রাতের বেলা পৌর শহরের অধিকাংশ এলাকা থেকে ২ থেকে ৩ ফুট নেমে যায়, কিন্তু মুষলধারে বৃষ্টি ও উজান থেকে আসা পাহাড়ি ঢলের কারনে বুধবার সকাল থেকে বন্যার পানি আবার বাড়তে থাকে। দুপুর গড়াতে না গড়াতেই কানাইঘাট বাজার বন্যার পানিতে তলিয়ে যায়। উপজেলা রোড থেকে শুরু করে প্রশাসন পাড়ায় তীব্র বেগে পানি ঢুকতে থাকে। অনেক এলাকা নতুন করে বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়, যা অনেকে বলছেন ২০০৪ সালের বন্যা অতিক্রম করেছে এবারের ভয়াবহ বন্যা। 

বিশেষ করে কানাইঘাট সদরের সাথে সিলেট শহরের তিনটি যোগাযোগ সড়কের অধিকাংশ এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সম্পূর্ণ ভাবে যোগাযোগ ব্যবস্থা ৫ দিন থেকে বন্ধ থাকার কারনে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের সংকট দেখা দিয়েছে। ১৭টি বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রের পাশাপাশি উচু স্থানে অবস্থিত অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেখানে ২ হাজারের অধিক মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন বলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জানিয়েছেন। 

গতকাল মঙ্গলবার দিনভর উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির বেশ কিছু বন্যা দুর্গত এলাকা স্পিডবোট নিয়ে পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি। এ সময় তিনি বন্যার্তদের মাঝে শুকনো খাবার ও ত্রাণের চাল বিতরণ করেন। এখন পর্যন্ত সরকারি ভাবে কানাইঘাট উপজেলার বন্যা দুর্গতদের জন্য ৩৯ মেট্রিক টন চাল, কয়েক’শ শুকনো খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ করা হয়েছে। পাশাপাশি উপজেলা পরিষদের ফান্ড থেকে আরো শুকনো খাবার কিনে বিতরণ করা হবে বলে নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি জানান। তিনি বলেন, বন্যা হচ্ছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ। উপজেলাবাসী ভয়াবহ অবস্থার মধ্যে রয়েছেন। অনেক বন্যা দুর্গত এলাকায় গিয়ে মানুষের দুঃখ দুর্দশা আমি দেখেছি, যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। কিন্তু তাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর সরকারের পক্ষ থেকে নেয়া হচ্ছে। প্রশাসনের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিরা বরাদ্দকৃত ত্রাণ বন্যা দুর্গতদের মাঝে পৌঁছে দিচ্ছেন। 

এদিকে সচেতন মহল জানিয়েছেন, উপজেলার ৯টি ও পৌর সভার ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি বিরাজ করায় ও নৌকার চরম সংকট থাকার কারনে প্রত্যন্ত অঞ্চলে হাজার হাজার মানুষ ঘর থেকে বের হয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে আসতে পারছেন না। তাদেরকে দ্রুত সেখান থেকে সরিয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবী জানিয়েছেন।