Previous
Next

সর্বশেষ


Thursday, February 2

 'দুর্যোগ সাংবাদিকতা বিকশিত হলে ভয়াবহ বন্যার পুনরাবৃত্তি হবে না'

'দুর্যোগ সাংবাদিকতা বিকশিত হলে ভয়াবহ বন্যার পুনরাবৃত্তি হবে না'


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক :

‘বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যার পূর্বপ্রস্তুতি গ্রহণে দুর্যোগ সাংবাদিকতা’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা বলেছেন, সর্বকালের রেকর্ড ভঙ্গকারি বাইশের প্রলয়ংকারী বন্যার রেশ এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল বিশেষ করে সিলেট ও সুনামগঞ্জ। 

পূর্বপ্রস্তুতি থাকলে ঘন ঘন আঘাত হানা বাইশের বন্যায় ক্ষয়ক্ষতি আরো কম হতো। পূর্বপ্রস্তুতি থাকলে যেকোনো দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতি কম হয়, এমনকি দুর্যোগ মোকাবিলা অনেকটাই সহজে করা যায়। 

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট ‘বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যার পূর্বপ্রস্তুতি গ্রহণে দুর্যোগ সাংবাদিকতা’ শীর্ষক এই সেমিনারের আয়োজন করে বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সিলেট নগরীর জিন্দবাজারের একটি হলরুমে। জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের এই সংক্রান্ত একটি গবেষণা প্রকল্পের অংশ হিসেবে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়। 

ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আবু সাদেকের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এই গবেষণার প্রধান গবেষক সাংবাদিক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচ.ডি গবেষক এহসানুল হক জসীম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের গবেষণা কর্মকর্তা মো. ফাইম সিদ্দিকী। 

পর্যবেক্ষণ তুলে ধরে বিশেষজ্ঞ, গণমাধ্যমকর্মী, গণমাধ্যম কর্মকর্তা ও ভয়াবহ বন্যার প্রত্যক্ষদর্শীরা একটি সেমিনারে বলেন, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো পূর্বাভাস প্রদানে যেমন ব্যর্থ হয়েছিল তেমনি বাইশের বন্যার ব্যাপারে গণমাধ্যমে পূর্বাভাস, সচেতনতামূলক ও সতর্কতামূলক কোন সংবাদ ছিল না। 

তারা বলেন, বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল একটি বন্যাপ্রবণ এলাকা। ২০২২ সালের ভয়াবহ বন্যার পুনরাবৃত্তি যেন না হয়, সেজন্য সরকার ও সংশ্লিষ্টদের পাশাপাশি গণমাধ্যমকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে। 

তারা আরো বলেন, মূলধারার গণমাধ্যমসহ বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমে দুর্যোগ সাংবাদিকতা তুলনামূলক কম গুরুত্ব পায় বলে ক্ষতিগ্রস্ত জনপদের কথা যেভাবে গণমাধ্যমে উঠে আসার কথা সেভাবে আসছে না। দুর্যোগের পূর্বপ্রস্তুতি, সচেতনতা ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত সংবাদ খুব একটা দেখা যায় না। দেশের মূলধারার সংবাদ মাধ্যমে দুর্যোগ সাংবাদিকতা গুরুত্ব পেলে বাইশের ভয়াবহ বন্যার পুনরাবৃত্তি হবে না।

বন্যাসহ যেকোনো দুর্যোগ প্রতিরোধ ও পূর্বপ্রস্তুতি গ্রহণে দুর্যোগ সাংবাদিকতার গুরুত্ব  তুলে ধরে সেমিনারে বক্তারা মূলধারার গণমাধ্যমে দুর্যোগ সাংবাদিকতার জন্য বিশেষায়িত বিট অন্তর্ভূক্ত করার আহ্বান জানান।

প্যানেল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. জহির বিন আলম, একই বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ আশরাফুর রহমান এবং সারি নদী বাঁচাও আন্দোলনের চেয়ারম্যান পরিবেশবিদ আব্দুল হাই আল হাদী।

অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন সাংবাদিক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পলিনা রহমান পলিন, বাসসের শুয়াইবুল ইসলাম, ওমর ফারুক, এডভোকেট আসাদুল আলম চৌধুরী, এডভোকেট সাব্বির আহমদ প্রমুখ। 

অধ্যাপক ড. জহির বিন আলম বলেন, ২০২২ সালের বন্যা কেবলই অতিবৃষ্টির কারণে হয়নি; নদীর নাব্যতা কমে যাওয়া, সুরমা নদীর উপর একাধিক জায়গায় ব্রীজ নির্মাণ, কিশোরগঞ্জে হাওরে অলওয়েদার রোড নির্মাণ এবং আরো বিভিন্ন কারণে হাওরের পানি যথাযথভাবে নিষ্কাষিত না হওয়া ইত্যাদি কারণও দায়ী। 

তিনি বলেন, সুরমা নদী ছাতক থেকে শুরু করে এই নদীর শেষ পর্যন্ত তলদেশ অনেক ভরাট হয়েছে। সুরমা ও কুশিয়ারা নদী ড্রেজিং করতে হবে। সিলেট নগরী ও অন্যান্য স্থানের ছড়া ও জলাশয়গুলো রক্ষা ও উদ্ধার করতে হবে। নানা ব্যবস্থা না নিলে বাইশের ভয়াবহ বন্যার পুনরাবৃত্তি ভবিষ্যতে আবার হতে পারে। 

এই পানি ও পরিবেশ বিশেষজ্ঞ আরো বলেন, এই ধরণের বন্যা যাতে আর না হয়, সেজন্য গণমাধ্যম বিশেষ অবদান ও মুখ্য ভূমিকা রাখতে পারে। যেসব কারণে ভয়াবহ রূপ নেয়, সেই কারণগুলো নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন তৈরীর মাধ্যমে সরকারের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে যেমন করাঘাত করতে পারে গণমাধ্যম, তেমনি জনগণকে সচেতন ও পুর্বপ্রস্তুতির ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা রাখতে পারে। ফলে দুর্যোগ সাংবাদিকতাকে মিডিয়ায় গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা উচিত। 

জলাবদ্ধতা ও বন্যার হাত থেকে বাঁচতে তিনি সিলেট নগরীর ছড়া-নালা রক্ষার তাগিদ দেন।

অধ্যাপক আশরাফুর রহমান অপরিকল্পিত কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।

শুয়াইবুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, ২০২২ সালের জুন মাসে সংঘটিত বন্যার সময় তিনি কমপক্ষে ৬০টি মৃত্যুর সংবাদ সম্পর্কে অবহিত হয়েছেন এবং নিশ্চিত হয়েছেন। কিন্তু এই ৬০টির কোন একজনেরও মৃত্যুর ঘোষণা আসেনি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে। বন্যায় অসংখ্য মানুষ মারা গেছেন, পানিতে ভেসে গেছেন, যা হিসেবে আসেনি এবং গণমাধ্যমেও খবর প্রকাশিত হয়নি। 

মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম এবং অন্য বক্তারা বলেন, গণমাধ্যমকর্মীদের ‍দুর্যোগ সাংবাদিকতার উপর প্রশিক্ষণ দেওয়া দরকার যাতে দুর্যোগের পূর্বে গণমাধ্যমে রিপোর্টিংয়ের মাধ্যমে দুর্যোগের পূর্বপ্রস্তুতি গ্রহণে ভূমিকা রাখতে পারে।

মোহাম্মদ আবু সাদেক বলেন, বাংলাদেশে দুর্যোগ সাংবাদিকতা এখনো সেভাবে বিকশিত হয়নি। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বৈশ্বিক উষ্ণতার কারণে প্রাকৃতিক বিপর্যয় একটি বড় সমস্যা। বাংলাদেশ দুর্যোগপ্রবণ দেশ। প্রাকৃতিক এবং মানুষের তৈরি দু-রকমের দুর্যোগেরই শিকার হচ্ছে এই দেশ। এসব দুর্যোগের ঝুঁকি ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় মানুষকে ব্যাপকভাবে সচেতন করতে গণমাধ্যম বড় ভূমিকা পালন করতে পারে। ফলে গণমাধ্যমে দুর্যোগ সাংবাদিকতাকে গুরুত্ব দেওয়ার কোন বিকল্প নেই। 

তিনি জানান, সিলেট অঞ্চলে বন্যার ভয়াবহতা বিবেচনায় জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের তত্ত্বাবধানে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। বন্যার আগাম প্রস্তুতি গ্রহণে এ গবেষণা সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

কানাইঘাটে লাবণ্য ফাউন্ডেশনের শীতবস্ত্র বিতরণ

কানাইঘাটে লাবণ্য ফাউন্ডেশনের শীতবস্ত্র বিতরণ


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক :

কানাইঘাটে লাবণ্য স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হতদরিদ্র শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার(২ ফেব্রুয়ারি) কানাইঘাট পৌর শহরস্থ বিষ্ণুপুর গ্রামে চিত্রশিল্পী ভানু লাল দাসের বাড়িতে এক অনাড়ম্বর অনুষ্টানের মধ্য দিয়ে লাবণ্য স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এলাকার অসহায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করা  হয়। লাবণ্য স্মৃতি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্টাতা ও বর্তমান সভাপতি  চিত্রশিল্পী ভানু লাল দাসের সভাপতিত্বে এবং শিক্ষক, কবি ও কলামিস্ট মাস্টার মিলন কান্তি দাসের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কানাইঘাট উপজেলা শাখার সভাপতি, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ হাজী মোঃ শরীফ উদ্দিন। প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মোঃ শাহাব উদ্দিন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসী কমিউনিটি নেতা মোঃ আব্দুস সাত্তার,আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক,জলাল আহমদ,বিধান চৌধুরী,সুকান্ত  চক্রবর্তী প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাজী শরীফ উদ্দিন বলেন,"সমাজের অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানো আমাদের সামর্থ্যবানদের নৈতিক দায়িত্ব।"

প্রধান বক্তা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেন,"চিত্রশিল্পী ভানু লাল দাস কানাইঘাট পৌরসভার একজন নিবেদিন সমাজসেবক।কানাইঘাটের মাটি ও মানুষের উন্নয়নে তার নিরলস প্রচেষ্টা প্রশংসনীয়।"

সভাপতির বক্তব্যে লাবণ্য স্মৃতি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্টাতা সভাপতি চিত্রশিল্পী ভানু লাল দাস বলেন,"আমার ছাত্রজীবনের শুরু থেকেই আমি জনসেবার স্বপ্ন দেখে আসছি। সাধারণ জনগণের সেবার মধ্য দিয়ে আমার আত্মতৃপ্তি। প্রিয় কানাইঘাটবাসী ও কানাইঘাট পৌরবাসীর ভাগ্য উন্নয়নের জন্য আমার কর্মপ্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।"


ঘরে ঘরে শীতবস্ত্র নিয়ে মাঝপাড়া আদর্শ যুবকল্যাণ সংস্থা

ঘরে ঘরে শীতবস্ত্র নিয়ে মাঝপাড়া আদর্শ যুবকল্যাণ সংস্থা


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

গরীব অসহায় মানুষের ঘরে ঘরে শীতবস্ত্র পৌঁছে দিয়েছে মাঝপাড়া আদর্শ যুব কল্যাণ সংস্থার সদস্যরা। 

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) রাতে সংস্থার সদস্যরা শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। 

সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফিরদাউস আলম বলেন, আমরা আমাদের নিজ উদ্যোগে এলাকার গরিব অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করতে পারায় মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি,  আমরা যেন সবসময় এভাবে মানব সেবায় নিয়োজিত থাকতে পারি। যারা আমাদের এই উদ্যোগের সঙ্গে নানাভাবে সহায়তা করেছেন বিশেষ করে প্রবাসীরা সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন- সংস্থার সহ-সভাপতি জুবায়ের আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ সুয়েবুর রহমান, সহ- কোষাধ্যক্ষ আব্দুল কাদির,আলি আহসান,শাহরিয়া, কামরুল আলম,মাহফুজ আলম সহ অন্যান্যরা।  

উল্লেখ্য, ২০২০ সালে মাঝপাড়া আদর্শ যুব কল্যাণ সংস্থার যাত্রা শুরু হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই নানামুখী সেবামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন তারা। যার ফলস্বরূপ গত বছরের ডিসেম্বর মাসে 'মোহনা সাহিত্য সংস্কৃতি সংসদ' নামক সংগঠনের পক্ষ থেকে সেরা সংগঠন পুরস্কার অর্জন করে।

কানাইঘাটে কৃষকদের নিয়ে উদ্বুদ্ধকরণ সভা

কানাইঘাটে কৃষকদের নিয়ে উদ্বুদ্ধকরণ সভা


নিজস্ব প্রতিবেদক:

অনাবাদী জমি কৃষি ক্ষেতের আওতায় নিয়ে আসার জন্য কানাইঘাট পৌরসভার কয়েকটি গ্রামের কৃষকদের নিয়ে কৃষি উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সেচ প্রকল্পের মাধ্যমে ধর্মপুর, নন্দিরাই, ধনপুর সহ আশপাশ এলাকার ফসলী জমিতে প্রথমবারের মতো বোরো ধানের আওতায় নিয়ে আসার জন্য বৃহস্পতিবার(২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় উপজেলা কৃষি অফিসের আয়োজনে পৌরসভার ধর্মপুর পূর্ব মাঠে কৃষকদের নিয়ে এ উদ্বুদ্ধকরণ সভার আয়োজন করা হয়। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জির সভাপতিত্বে ও সিলেটের বিএডিসি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল কুদ্দুছের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য দেন, কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আব্দুল করিম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এমদাদুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম হারুন, কানাইঘাট পল্লীবিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম আখতারুজ্জামান, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন, সেচ কমিটি ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি কেএইচএম আব্দুল্লাহ। 

উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মাস্টার মহি উদ্দিন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খাজা শামীম আহমদ শাহীন, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বিলাল আহমদ, ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জসিম উদ্দিন, সাবেক কাউন্সিলর ইসলাম উদ্দিন, সেচ কমিটির সাথে সযুক্ত কৃষক মোঃ ইয়াহিয়া, মোস্তফা কামাল, রসময় দাস, হবিব আহমদ, কামরুজ্জামান, কয়ছর আহমদ, আমিন উদ্দিন প্রমুখ। 

সভাপতির বক্তব্যে নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি বলেন, বর্তমান সরকার দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পুর্ণ করার লক্ষ্যে দেশের সমস্ত কৃষি ও অনাবাদী জমি চাষাবাদের আওতায় নিয়ে আসার জন্য কৃষকদের মধ্যে প্রণোদনা সহ বিনামূল্যে সার-বীজ বিতরন করে আসছে। সিলেট অঞ্চলের অনাবাদী জমি চাষাবাদের আওতায় আনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ইতিমধ্যে সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান স্যার প্রতিটি উপজেলায় কৃষকদের নিয়ে কৃষক সমাবেশ ও হাজার হাজার কৃষকদের মাঝে সরকারি ভাবে সার-বীজ বিতরণ করেছেন। কানাইঘাট পৌরসভা সহ উপজেলার প্রত্যন্ত অনাবাদী ক্ষেতের মাঠগুলো চাষাবাদের আওতায় আনার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় সেচের মাধ্যমে পৌরসভার কৃষকরা তাদের জমিতে যাতে করে বোরো ফসল ফলাতে পারেন এজন্য কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। 


কানাইঘাটে আব্দুল মালিক শিক্ষা ট্রাস্ট'র বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন

কানাইঘাটে আব্দুল মালিক শিক্ষা ট্রাস্ট'র বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন



নিজস্ব প্রতিবেদক:

কানাইঘাটে মাস্টার আব্দুল মালিক শিক্ষা ট্রাস্টের উদ্যোগে প্রথমবারের মতো মেধাবী বৃত্তি পরীক্ষার সনদ ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার(২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ২টায় পৌরসভাস্থ সোনারবাংলা একাডেমি মিলনায়তনে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

সোনারবাংলা একাডেমির প্রধান শিক্ষক ও আব্দুল মালিক শিক্ষা ট্রাস্টের সভাপতি মাস্টার মহি উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিনের পরিচালনায় বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি। 

বিশেষ অতিথি ছিলেন, কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আব্দুল করিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম হারুন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খাজা শামীম আহমদ শাহীন, কানাইঘাট পাবলিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইয়াহিয়া, পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বিলাল আহমদ, ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জসিম উদ্দিন, সাবেক কাউন্সিলর কানাইঘাট বাজার বণিক সমিতির সহ সভাপতি ইসলাম উদ্দিন, প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদন শাহিন আহমদ, সমাজকর্মী কামরুজ্জামান। বক্তব্য দেন, আব্দুল মালিক শিক্ষা ট্রাস্টের সচিব মাস্টার নুরুল আমিন, সোনারবাংলা একাডেমির সহকারী শিক্ষক মোঃ রাসেল আহমদ, এইচএম ফজলুর রহিম মুরাদ।

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও বৃত্তিপ্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি বলেন, শিক্ষার পাশাপাশি দেশ আজ সবদিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীদের আগামী দিনের সু-নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য শিক্ষাক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করায় শিক্ষার প্রচার-প্রসার ঘটছে। সরকারের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জ্ঞান অর্জনের জন্য বেসরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি সামাজিক সংগঠনগুলোর উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বৃত্তি পরীক্ষার মাধ্যমে পুরষ্কৃত করা হচ্ছে। প্রয়াত মাস্টার আব্দুল মালিক শিক্ষা ট্রাস্টের উদ্যোগে ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে বৃত্তি ও সনদ প্রদান করায় ট্রাস্টের নেতৃবৃন্দের প্রতি ধন্যবাদ জানান তিনি। 

অনুষ্ঠান শেষে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের হাতে নগদ বৃত্তি, সনদ ও সম্মাননা স্মারক তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। 

Tuesday, January 31

সাংবাদিক আলা উদ্দিনের প্রবাসযাত্রায় সংবর্ধনা

সাংবাদিক আলা উদ্দিনের প্রবাসযাত্রায় সংবর্ধনা


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকার কানাইঘাট উপজেলা প্রতিনিধি ও কানাইঘাট প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সিনিয়র সদস্য সাংবাদিক আলা উদ্দিনের সংক্ষিপ্ত প্রবাসযাত্রা উপলক্ষ্যে বিদায়ী সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) রাত ৮টায় তাকে এই বিদায় সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও ক্রীড়া সাংস্কৃতিক সম্পাদক আমিনুল ইসলামের পরিচালনায়, সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট থানার সেকেন্ড অফিসার সোহেল মাহমুদ, সংবর্ধিত সাংবাদিক আলা উদ্দিন, ক্লাবের সহ সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহিন আহমদ, কার্যনির্বাহী সদস্য সুজন চন্দ অনুপ, সদস্য মাও. আসআদ উদ্দিন, সমাজকর্মী আশরাফুল আম্বিয়া, ব্যবসায়ী শাহ আলম, হারুন রশিদ।

সাংবাদিক আলা উদ্দিন মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব-আমিরাতের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন। সেখানে কিছুদিন অবস্থান করে পরবর্তীতে তিনি কাতার, ওমান ভ্রমণ শেষে পবিত্র ওমরাহ হজ্জ্ব পালনের জন্য সৌদিআরবে পৌঁছাবেন। হজ্জ্ব পালন শেষে মার্চের প্রথম সপ্তাহে দেশে ফেরার কথা রয়েছে তার।

এ ৪টি দেশে অবস্থানকালে সেখানে বসবাসরত প্রবাসি কানাইঘাটের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে তাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হবে।

সাংবাদিক আলা উদ্দিন সংক্ষিপ্ত প্রবাস যাত্রাকালে সহকর্মী সাংবাদিক ও শুভাকাঙ্খিদের কাছে দোয়া চেয়েছেন।


Friday, January 27

কানাইঘাটে নবাগত ওসি বরণ ও বিদায়ী ওসিকে সংবর্ধনা

কানাইঘাটে নবাগত ওসি বরণ ও বিদায়ী ওসিকে সংবর্ধনা


নিজস্ব প্রতিবেদক:

সিলেটের কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম পিপিএম বিয়ানীবাজার থানায় বদলী জনীত উপলক্ষে বিদায় সংবর্ধনা ও নবাগত অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর আহমেদকে বরণ করা হয়েছে।

 

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেল ৪টায় কানাইঘাট থানা পুলিশের উদ্যোগে থানা প্রাঙ্গনে বিদায় সংবর্ধনা ও বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

 

থানার সেকেন্ড অফিসার এস.আই সোহেল মাহমুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে জৈন্তাপুর মডেল থানা থেকে বদলী হয়ে কানাইঘাট থানায় নবনিযুক্ত অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর আহমেদকে ফুলেল তোড়া দিয়ে বরণ করে নেন কানাইঘাট থানার বিদায়ী অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম পিপিএম, ওসি (তদন্ত) দিলীপ কান্ত নাথ সহ থানায় কর্মরত পুলিশ সদস্যরা। নবাগত অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর আহমেদ বিদায়ী সংবর্ধিত ওসি তাজুল ইসলাম পিপিএমকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

 

বিদায়ী অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম পিপিএম তার বক্তব্যে বলেন, কানাইঘাট থানায় দুই বছরের অধিক সময় কর্মরত থাকাকালীন সময়ে রাজনৈতিক মহল, সুধীজন, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক সহ সকল মহল থানা পুলিশকে সহযোগিতা করায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার পাশাপাশি পুলিশের সেবা জনগনের দূরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার চেষ্টা করেছি। দায়িত্ব পালনকালে কারো মনে দুঃখ-কষ্ট দিয়ে থাকলে তা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার জন্য সবার প্রতি আহŸান জানান তিনি।

 

নবাগত অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, জৈন্তাপুর মডেল থানায় কর্মরত থাকাকালীন সময়ে আইন শৃঙ্খলা উন্নয়নের পাশাপাশি পুলিশের সেবা পৌঁছে দিতে আন্তরিকতার সহিত কাজ করেছি। জৈন্তাপুরের পাশর্^বর্তী উপজেলা কানাইঘাট হওয়ায় এখানকার মানুষের সাথে আমার সম্পর্ক রয়েছে। সব ধরনের অপরাধ দমন ও আইন-শৃঙ্খলার উন্নয়নে সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করব, যাতে করে পুলিশের ভাবমুর্তি আরো উজ্জ্বল করতে পারি।

 

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, থানার ওসি (তদন্ত) দিলীপ কান্ত নাথ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জামাল উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হেকীম শামীম, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, থানার এস.আই দেবাশীষ শর্ম্মা। উপস্থিত ছিলেন, প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, কার্যনির্বাহী সদস্য সুজন চন্দ অনুপ সহ থানার অফিসার ও পুলিশ সদস্যরা।

 

বিদায়ী অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলামকে থানার অফিসাররা ও ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া প্রদান সহ বিভিন্ন উপহার সামগ্রী দিয়ে ভূষিত করা হয়।

 

প্রসঙ্গত, সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুনের এক আদেশের মাধ্যমে গত ২৬ জানুয়ারী জেলার ৪ থানার অফিসার ইনচার্জদের রদবদর করা হয়। এর মধ্যে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলামকে বিয়ানীবাজার থানায় এবং জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম দস্তগীর আহমেদকে কানাইঘাট থানায় বদলী করা হলে গতকাল শুক্রবার থারা নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগদান করেন।

Wednesday, January 25

কানাইঘাটে আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসনে অবহিতকরণ সভা

কানাইঘাটে আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসনে অবহিতকরণ সভা


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর ও এশিয়া আর্সেনিক নেটওয়ার্কের আয়োজনে জিওবি-ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় কানাইঘাটে আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসনে কমিউনিটির সচেতনতা বৃদ্ধি এবং সকলের জন্য নিরাপদ পানি নিশ্চিতকরন প্রকল্প অবহিতকরণ ও পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বুধবার(২৫ জানুয়ারি)  সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলা সভাকক্ষে এ অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জির সভাপতিত্বে ও এশিয়া আর্সেনিক নেটওয়ার্ক কানাইঘাটের এরিয়া ম্যানেজার কামাল আলীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে জিওবি ইউনিসেফ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের প্রকল্পের সার্বিক চলমান কাজের বিষয় তুলে ধরেন, ইউনিসেফ জোনাল অফিস সিলেটের ওয়াস অফিসার এ.এ কামরুল আলম, এশিয়া আর্সেনিক নেটওয়ার্ক ঢাকার প্রজেক্ট ম্যানেজার সাইড এ এইচ সানি, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী পনিরুজ্জামান।

বক্তব্য দেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা বেগম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এমদাদুল হক, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুবল চন্দ্র বর্মণ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জহিুরুল ইসলাম, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান মাও: জামাল উদ্দিন, সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান আবু তায়্যিব শামীম, বড়চতুল ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক চৌধুরী, সদর ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক আফসার উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, বাণীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন, রাজাগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মাও. শামসুল ইসলাম, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, ইউপি সদস্য মঈন উদ্দিন। 

বিভিন্ন দফতরের সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী ও এশিয়া আর্সেনিক নেটওয়ার্কের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে অবহিতকরণ সভায় নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, কানাইঘাট হচ্ছে একটি সীমান্তবর্তী জনপদ। এখানকার অধিকাংশ এলাকার টিউবওয়েল এর পানিতে আর্সেনিক ধরা পড়েছে। আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসনে প্রকল্পটির কাজ যাতে করে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয় এজন্য প্রকল্পের কাজে জড়িত কর্মকর্তা সহ জনপ্রতিনিধিদের নিষ্ঠার সাথে কাজ করার জন্য আহবান জানান। সেই সাথে তিনি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করতে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। 


Monday, January 23

হিযবে এলাহী পরিষদ কানাইঘাট পৌরসভার কোরআন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

হিযবে এলাহী পরিষদ কানাইঘাট পৌরসভার কোরআন প্রতিযোগিতা সম্পন্ন


কানাইঘাট নিউজ ডেস্কঃ

গত ২১ জানুয়ারি ২০২৩ ঈ. শনিবার জামিয়া ইসলামিয়া দারুল কুরআন শিবনগর মাদ্রাসায় হিযবে এলাহী পরিষদ কানাইঘাট পৌরসভা সিলেট এর উদ্যোগে মক্তব ভিত্তিক কুরআন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে পৌরসভার ২৭ টি মক্তব থেকে মোট ১২৪ জন ছাত্র/ছাত্রী অংশগ্রহণ করে। উক্ত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করে নগদ ৫০০০/- টাকা পেয়েছে দূর্লভপুর নয়াগ্রাম দক্ষিণ অদর্শ মক্তবের ছাত্র মাওলানা আব্দুল মতিন এর ছেলে নাবিল আহমদ। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে নগদ ৩০০০/- টাকা পেয়েছে খেলুরবন্দ জামে মসজিদের ছাত্র মো. আব্দুল্লাহ এর ছেলে সুহেল আহমদ। তৃতীয় স্থান অর্জন করে নগদ ২০০০/- টাকা পেয়েছে গৌরিপুর বড়বাড়ি জামে মসজিদের ছাত্র নুর ইসলাম এর ছেলে নাঈম আহমদ। সাথে তাদের শিক্ষকগণকেও সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এছাড়া ২০ জনকে অকর্ষণীয় পুরস্কারসহ সকল প্রতিযোগীকে সান্ত্বনা পুরস্কার দেয়া হয়।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা মুহাম্মদ বিন ইদ্রিস শায়খে লক্ষিপুরী হুজুর দা. বা.। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা আলীম উদ্দীন শায়খে দুর্লভপুরী দা. বা.। প্রধান মেহমান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল্লাহ শাকির সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। 

সকাল ৮ টা থেকে শুরু হয়ে দুপুর ২ টা নাগাদ প্রতিযোগিতা শেষ হয়। বিকাল ৩ ঘটিকা থেকে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শুরু হয়। 

উক্ত প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে ছিলেন মুশাহিদিয়া ক্বিরাত প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান ক্বারী মাওলানা সাজ্জাদুর রহমান সাহেব। পূর্ব সিলেট আযাদ দ্বীনি এদারা বোর্ডের হিফজ বিভাগের পরীক্ষক হাফিজ রিয়াজ উদ্দিন সাহেব। লাফনাউট রমযানিয়া ক্বিরাত সেন্টারের প্রধান ক্বারী মাওলানা শামীম আহমদ ক্বাসিমী। 

অনুষ্ঠানকে সফল করতে যাদের অবদান অতুলনীয় তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন ডক্টর খাজা শাহাব আহমদ আমেরিকা প্রবাসী, মো. মামুন আহমদ, মাওলানা ফাহাদ আহমদ, মো. জসিম উদ্দিন, হাফিজ হুসাইন আহমদ, হাফিজ কুদরত উল্লাহ, জনাব শামসুল হক, হাফিজ মুহিবুর রহমান সুব্বুর, হাফিজ সুহেল আহমদ, হাফিজ ইসলাম উদ্দীন, মাওলানা ইলিয়াস সাহেব, মো. মিলন আহমদসহ প্রমূখ।

Saturday, January 21

সাংবাদিক কাওছারের পিতার দাফন সম্পন্ন

সাংবাদিক কাওছারের পিতার দাফন সম্পন্ন


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

দৈনিক প্রতিদিনের বাংলাদেশ সিলেট অফিসের স্টাফ রিপোর্টার ও সিলেট বাণীর সিনিয়র রিপোর্টার, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য সাংবাদিক কাওছার আহমদের পিতা কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের সতিপুর গ্রাম নিবাসী সাবেক ইউপি সদস্য এলাকার প্রবীণ পঞ্চায়েত মুরব্বী সিরাজ উদ্দিনের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। 

শুক্রবার(২০ জানুয়ারি)  রাত ৮টায় সতিপুর জামে মসজিদ সংলগ্ন মাঠে তার জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ সহ সর্বস্তরের কয়েক হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে গ্রামের পঞ্চায়েত কবরস্থানে সিরাজ উদ্দিনকে দাফন করা হয়। 

জানাজা নামাজের পূর্বে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বলেন, প্রবীণ মুরব্বী সাবেক ইউপি সদস্য সিরাজ উদ্দিন এলাকার একজন বিশিষ্ট সালিশ ব্যক্তিত্ব ছিলেন। এলাকার মসজিদ মাদ্রাসা সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন সহ সকল ভাল কাজে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি কাজ করে গেছেন। তার মৃত্যুতে এলাকাবাসী একজন ন্যায় নিষ্ঠবান প্রবীণ মুরব্বীকে হারিয়েছে। সবাই তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। 

প্রসজ্ঞত যে, বার্ধক্যজনীত কারনে গত শুক্রবার দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটের সময় নিজ বাড়িতে মৃত্যু বরণ করেন সিরাজ উদ্দিন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ও ৪ মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। 

এদিকে কানাইঘাট প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য সাংবাদিক কাওছার আহমদের পিতা পঞ্চায়েত মুরব্বী বিশিষ্ট সমাজসেবক সিরাজ উদ্দিনের মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ও মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করেছেন কানাইঘাট প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম.এ হান্নান, বর্তমান সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন সহ নেতৃবৃন্দ। 


কানাইঘাটে টাকা ধার না দেয়ায় দুই ভাইয়ের উপর হামলা

কানাইঘাটে টাকা ধার না দেয়ায় দুই ভাইয়ের উপর হামলা


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

টাকা ধার না দেয়ার কারনে কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের কালিজুরী গ্রামে মাদক মামলার আসামীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন আপন ২ভাই। 

অভিযোগে জানা যায়, কালিজুরী গ্রামের নুর হোসেনের পুত্র একটি মাদক মামলায় হাজতখাটা আসামী শাহিদ আহমদ (২৫) একই গ্রামের মৃত ইদ্রিছ আলীর পুত্র সেলিম উদ্দিনের কাছে গত শুক্রবার(২০ জানুয়ারি)  সকালে ৫ হাজার টাকা হাওলাত চায়। 

হাওলাত টাকা দিতে সেলিম উদ্দিন অস্বীকৃতি জানালে শাহিদ আহমদ তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে দেখে নিবে বলে হুমকি দেয়। ঐদিন বিকেল ৩টার দিকে সেলিম উদ্দিনের ভাই সেবুল আহমদ গ্রামের আমতলা জামে মসজিদের পাশে একটি ওয়াজমাহফিলে যাওয়ার পথে শাহিদ ও তার ভাই শমসের আলম, শাহিন, সালিক তাকে গালিগালাজ করে লাঠি-সোটা ও ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তার উপর হামলা চালিয়ে সেবুলকে গুরুতর আহত করে। 

তার আত্মচিৎকারে তার ভাই সেলিম উদ্দিন এগিয়ে আসলে তাকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপিয়ে মাথা সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে হামলাকারীরা। পরে আহত অবস্থায় এ দুই ভাইকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসকগণ সেলিম উদ্দিনের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় তাকে সিওমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন এবং সেবুল আহমদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় আহত সেবুল আহমদ বাদী হয়ে একটি মাদক মামলায় দীর্ঘদিন হাজত খেটে কয়েকদিন পূর্বে জামিনে বেরিয়ে আসা আসামী হামলাকারী শমসের আলম, শাহিদ আহমদ ও তাদের অপর দুই ভাই শাহিন আহমদ, সালিক আহমদকে আসামী করে গত শুক্রবার রাতে কানাইঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, হামলাকারীরা এলাকায় বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত এবং তাদের নামে পূর্ব থেকে মামলা রয়েছে। 


কানাইঘাটে ব্লাড ফ্যামিলি'র ২য় বর্ষপূর্তি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

কানাইঘাটে ব্লাড ফ্যামিলি'র ২য় বর্ষপূর্তি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত



নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের কয়েকজন তরুণের উদ্যোগে গঠিত'ব্লাড ফ্যামিলি রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন' এর ২য় বর্ষপূর্তি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার(২০ জানুয়ারি)  বিকেলে রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে 'ব্লাড ফ্যামিলি রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন'র ২য় বর্ষপূর্তি ও ৩য় বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবীদের মিলনমেলায় পরিণত হয় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান।

সংগঠনের সভাপতি আব্দুল্লাহ সায়েমের সভাপতিত্বে ও মাওলানা ইকরামুল হক জুনাইদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফিজ আব্দুন নুর নোমান ও হাফিজ মুহাম্মদ হুসাইন। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন, জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হাদিস রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের প্রাক্তন মুহতামিম মাওলানা আব্দুল আজিজ (বন্দরবাড়ি হুজুর)।

প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হাদিস রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের শায়খুল হাদীস ও শিক্ষাসচিব মাওলানা আহমদ আলী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, রাজাগঞ্জ মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা হাবিবুর রহমান, রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা শামসুল ইসলাম, মাওলানা লুকমান আহমদ, প্রবাসী সংগঠক মাওলানা শাব্বির বিন আব্দুল হান্নান, মাওলানা আমীমুল ইহসান শামীম, প্রবাসী সংগঠক  আলী আহমদ, মাওলানা আলী আবদীন, মাওলানা ইমরান হুসাইন চৌধুরী, মাওলানা নজরুল ইসলাম, জাকের আহমদ প্রমুখ।

এছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা সালেহ আহমদ, মাওলানা জুবায়ের আহমদ চৌধুরী, কারী দুলাল আহমদ, হোসাইন আহমদ, মাওলানা জুনায়েদ আহমদ প্রমুখ। 



Thursday, January 19

কানাইঘাটে শীতার্তদের মাঝে সেইভ সিলেটের কম্বল বিতরণ

কানাইঘাটে শীতার্তদের মাঝে সেইভ সিলেটের কম্বল বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সেইভ সিলেটের উদ্যোগে কানাইঘাট উপজেলার ২ শতাধিক অসহায় পরিবারের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার(১৯ জানুয়ারি)  বিকেল ৩টায় প্রথমে পৌর শহরের ইউনিভার্সেল স্কুল প্রাঙ্গনে শীতার্ত শতাধিক পরিবার এবং পরবর্তী লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী পাহাড়ি এলাকায় আরো শতাধিক পরিবারের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়। 

যুক্তরাষ্ট্রের বি-দেশ ফাউন্ডেশন ও এসোসিয়েশন ফর সোসিও-ইকোনোমিক এডভান্সমেন্ট অব বাংলাদেশের সহযোগিতায় সেইভ সিলেটের উদ্যোগে বিতরণকৃত শীতের উপহার স্বরূপ উন্নতমানের কম্বল পেয়ে শীতার্ত দরিদ্র অসহায় পরিবারের নারী-পুরুষদের আনন্দিত হতে দেখা যায়। 

কম্বল বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন, সেইভ সিলেটের ফাউন্ডার আয়ান মুমিন হক, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, সমাজসেবী হাজী শরিফ উদ্দিন, সেইভ সিলেটের স্বেচ্ছাসেবী সদস্য ফারহান আহমদ, দেলোয়ার, ইউনিভার্সেল স্কুলের পরিচালক পর্ষদের সভাপতি রোমান আহমদ নোমান, কানাইঘাটের প্রকল্প প্রদান আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, সদস্য তোফায়েল আহমদ, সমাজকর্মী হারিছ উদ্দিন, শিক্ষক মামুন রশিদ সহ আরো অনেকে। 

তীব্র এই শীতের সময় সীমান্তবর্তী জনপদ কানইঘাটে অসহায়দের মধ্যে সেইভ সিলেটের উদ্যোগে কম্বল বিতরণ করায় সাধুবাধ জানিয়ে সবাই বলেন, সেইভ সিলেট দীর্ঘদিন থেকে বৃহত্তর সিলেটের আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে আসছে। যারা এ সংগঠনকে অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয় এবং সেইভ সিলেটের পাশাপাশি সমাজের বিত্তশালী সহ অন্যান্য সংগঠনগুলোকে এই শীতের সময় শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানানো হয়।