Previous
Next

সর্বশেষ


Monday, September 26

জেলা পরিষদ নির্বাচন: ১২ নং ওয়ার্ডে সদস্য পদে কে কোন প্রতীক পেলেন

জেলা পরিষদ নির্বাচন: ১২ নং ওয়ার্ডে সদস্য পদে কে কোন প্রতীক পেলেন


নিজস্ব প্রতিবেদক :

আসন্ন সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান। 

তাই সদস্য পদে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।পরিষদের ১২ নং ওয়ার্ড (কানাইঘাট উপজেলার বৃহদাংশ ও জকিগঞ্জ উপজেলার একাংশ) থেকে সদস্য পদে ৪ জন লড়ছেন নির্বাচনে।

এ নির্বাচনে সদস্য পদে মোট ৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন সংগ্রহ করেছিলেন। পরবর্তীতে ৬ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম জমা দেন। এদের মধ্যে দু'জন প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেন।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বরাদ্দকৃত প্রতীকে মস্তাক আহমদ পলাশ পেয়েছেন টিউবওয়েল ,ইমাম উদ্দিন চৌধুরী পেয়েছেন তালা,এহসানুল হক জসীম পেয়েছেন হাতি এবং মোঃ ফখরুল ইসলাম বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীক পেয়েই প্রচারণায় নেমেছেন।

কানাইঘাট উপজেলা পরিষদ, কানাইঘাট পৌরসভা, ১ নং লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপি, ৩ নং দিঘীরপার ইউপি, ৪ নং সাতবাক ইউপি, ৬ নং কানাইঘাট সদর ইউপি, ৭ নং দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউপি, ৮ নং ঝিংগাবাড়ী ইউপি, ৯ নং রাজাগঞ্জ ইউপি এবং জকিগঞ্জের কাজলসার ইউপি নিয়ে সিলেট জেলা পরিষদের ১২ নং ওয়ার্ড গঠিত হয়েছে। এ ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১২০।

নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৭ অক্টোবর সিলেট জেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। 







Sunday, September 25

জেলা পরিষদ নির্বাচন: ১২ নং ওয়ার্ডে নির্বাচনি দৌড়ে এখন ৪ প্রার্থী

জেলা পরিষদ নির্বাচন: ১২ নং ওয়ার্ডে নির্বাচনি দৌড়ে এখন ৪ প্রার্থী



নিজস্ব প্রতিবেদক :

জেলা পরিষদ নির্বাচনে সিলেটে সাধারণ সদস্য পদে সাত প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এর মধ্যে ১২ নং ওয়ার্ড (কানাইঘাট উপজেলার বৃহদাংশ ও জকিগঞ্জ উপজেলার একাংশ) থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন নেন দুই জন। 

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) মনোয়নয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে রিটানিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করেন এসব প্রার্থী।

প্রত্যাহারকারী সাত প্রার্থীরা হলেন- ২ নম্বর ওয়ার্ডে জাকিরুল ইসলাম লায়েক, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে আবু সুফিয়ান, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুর রশিদ, ১০ নম্বর ওয়ার্ডে সুভাষ চন্দ্র পাল, ১২ নম্বর ওয়ার্ডে ডা. মো. আব্দুর রকিব ও শাহীন আহমদ এবং ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে মো. তাজ উদ্দিন।

১২ নং ওয়ার্ড থেকে দুই জনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেওয়ার ফলে এখন এই ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্যপদে প্রার্থী রয়েছেন চার জন। নির্বাচনী দৌড়ে যে চার জন আছেন তারা হলেন- মস্তাক আহমদ পলাশ,ইমাম উদ্দিন চৌধুরী, এহসানুল হক জসীম, ও মোঃ ফখরুল ইসলাম ।

সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা মো. সাইদুর রহমান বলেন, প্রত্যাহার শেষে চেয়ারম্যান পদে একজন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৭ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৪৭ জন প্রার্থী ছিলেন।

তিনি বলেন, গত ১৮ সেপ্টেম্বর বাছাইয়ে বাদ পড়া তিনজনের মধ্যে দুই প্রার্থী আপীলে প্রার্থীতা ফিরে পেয়েছেন। তারা হলেন, ১ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য শাহনুর ও তিন নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শহিদুর রহমান। এছাড়া ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল গফফার বাবরের আপীলের আবেদন করেননি।

এর আগে ১৮ সেপ্টেম্বর রিটানিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের বাছাই প্রক্রিয়ায় তিন জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। সিলেটের জেলা প্রশাসক ও চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত একমাত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মো. নাসির উদ্দিন খান, সাধারণ সদস্য পদে ৫২ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৭ নারীর সবাইকে বৈধ ঘোষণা করেন।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) প্রতীক বরাদ্দ এবং আগামী ১৭ অক্টোবর সিলেটসহ দেশের ৬১টি জেলা পরিষদের ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

Saturday, September 24

কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত

কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত


নিজস্ব প্রতিবেদক:

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে জেলা ছাত্রলীগ।  

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি  মো: নাজমুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজ স্বাক্ষরিত পৃথক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা দেয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে, মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কানাইঘাট উপজেলা, কানাইঘাট পৌরসভা ও কানাইঘাট সরকারি কলেজ শাখার কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

এরই সাথে সাথে এসকল ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশীদের নিকট থেকে আগামী পনেরো কার্যদিবসের মধ্যে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অথবা সাধারণ সম্পাদকের কাছে স্ব শরীরে উপস্থিত হয়ে জীবন বৃত্তান্ত জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

জমিয়তে উলামার চতুর্থ জাতীয় কাউন্সিল বৃহস্পতিবার

জমিয়তে উলামার চতুর্থ জাতীয় কাউন্সিল বৃহস্পতিবার


নিজস্ব প্রতিবেদক:

জমিয়তে উলামা বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির ৪র্থ জাতীয় কাউন্সিল অধিবেশন আগামী বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় কানাইঘাট ইউনিক কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হবে। 

জাতীয় কাউন্সিল অধিবেশনকে সামনে রেখে জমিয়তে উলামার নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। নেতাকর্মীরা অধীর আগ্রহে তাদের আগামী দিনের নেতৃত্ব নির্বাচনের জন্য জাতীয় কাউন্সিল সফলের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। 

সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে কর্মী সম্মেলন শুরু হবে এবং বাদ যোহর সারা দেশ থেকে আগত জমিয়তে উলামার শীর্ষ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে জাতীয় কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। 

এদিকে কাউন্সিল অধিবেশন সফলের লক্ষ্যে সিলেট জেলা সহ দেশের বিভিন্ন উপজেলায় পোস্টার-লিফলেট বিতরণ চলছে এবং বিশেষ বিশেষ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও গুরুত্বপূর্ণ আলেম-উলামাদের সাথে মতবিনিময় অব্যাহত রয়েছে। 

জাতীয় কাউন্সিল সফলের জন্য দলের মুহতারাম আমীর শায়খুল হাদিস আল্লামা আলিমুদ্দীন দুলর্ভপুরী ও মহাসচিব শায়খুল হাদিস আল্লামা নজরুল ইসলাম ক্বাসেমী জমিয়তে উলামা, আনসার ও জমিয়তে তালাবার সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। 

কানাইঘাটে মীনা দিবসে র‌্যালি, আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ

কানাইঘাটে মীনা দিবসে র‌্যালি, আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক: 

“নিরাপদ ও আনন্দময় পরিবেশে মানসম্মত শিক্ষা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারাদেশের ন্যায় কানাইঘাটে মীনা দিবস-২০২২ উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র‌্যালি, আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। 

এ উপলক্ষ্যে  শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর)  সকালে সাড়ে ১১টায় উপজেলা শিক্ষা অফিসের আয়োজনে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে থেকে বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সরকারি কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। 

র‌্যালি পরবর্তী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মীনা দিবসের আলোচনা সভা ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণের আয়োজন করা হয়। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জির সভাপতিত্বে ও শিক্ষক জাহেদ হোসেন রাহিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা গোপাল সূত্রধর, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, বায়মপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হালিমা বেগম, চরিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম, তালবাড়ী খালপার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলাল আহমদ, ফাটাহিজল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহিন আহমদ, শিবনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম সহ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ।

সভাপতির বক্তব্যে নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা, শিক্ষার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি, সচেতনতা, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, কুসংস্কার পরিহার, মূল্যবোধকে জাগ্রত করার জন্য মীনা কার্টুন সমাজ সচেতনতা গড়তে সক্ষম হয়েছে। তাই সরকার প্রতি বছরে ২৪ সেপ্টেম্বর মীনা দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে। যাতে করে এ দিবসে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা নির্মল আনন্দ-উদ্যাপন করতে পারে। তিনি কানাইঘাটের প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ সমমনা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, স্কুলে পাঠদানের পাশাপাশি শিশু শিক্ষার্থীরা যাতে করে নির্মল আনন্দ করতে পারে এজন্য খেলাধূলা ও  সাংস্কৃতিক কার্যক্রম আরো বাড়ানোর জন্য আহবান জানান। অনুষ্ঠান শেষে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরষ্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। 




Friday, September 23

কানাইঘাটে ছাত্রলীগ নেতা কামরুলের প্রবাস যাত্রা উপলক্ষে সংবর্ধনা

কানাইঘাটে ছাত্রলীগ নেতা কামরুলের প্রবাস যাত্রা উপলক্ষে সংবর্ধনা


নিজস্ব প্রতিবেদক:

কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা মোঃ কামরুল ইসলামের উচ্চ শিক্ষার্থে প্রবাস যাত্রা উপলক্ষে সাবেক ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের উদ্যোগে তাকে বিদায় সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। 

শুক্রবার(২৩ সেপ্টেম্বর)  বিকেল ৫টায় কানাইঘাট পাবলিক হাই স্কুল মিলনায়তনে এ বিদায় সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। 

ছাত্রলীগ নেতা রুবেল আহমদ সাগরের সভাপতিত্বে ও ছাত্রলীগ নেতা হারিছ উদ্দিনের পরিচালনায় বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক কানাইঘাট সদর ইউপির চেয়ারম্যান প্রভাষক আফসর উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। 

প্রধান বক্তা ছিলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাব উদ্দিন। 

বক্তব্য দেন, পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শরীফ উদ্দিন, মাস্টার মিলন কান্তি দাস, সাবেক ছাত্রনেতা এডভোকেট আবু সিদ্দিক, এডভোকেট আলা উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক মোঃ ইয়াহহিয়া, সাবেক ছাত্রলীগনেতা যুক্তরাজ্য প্রবাসী  রুহুল আমিন, সাবেক ছাত্রনেতা যুক্তরাষ্ট্র এম মস্তাক আহমদ, মাস্টার আজির উদ্দিন, মাস্টার বাবুল হোসেন, উপজেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক হারিছ উদ্দিন, শ্রমিকলীগ নেতা মোঃ আলমগীর হোসেন, সংবর্ধিত বিদায়ী ছাত্রলীগ নেতা কামরুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা তপন দাস, রেজাউল করিম, জিবান আহমদ প্রমুখ। 

সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে সংবর্ধিত ছাত্রলীগ নেতা কামরুল ইসলামকে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। 


কানাইঘাটে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বদরুল আমিনের মৃত্যুতে শোকসভা অনুষ্ঠিত

কানাইঘাটে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বদরুল আমিনের মৃত্যুতে শোকসভা অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক :

কানাইঘাট পৌরসভার মহেষপুর গ্রাম নিবাসী, তরুণ সমাজকর্মী, মহেষপুর জামে মসজিদের সাবেক মুতাওয়াল্লী, অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী মরহুম বদরুল আমিন লাবুর মৃত্যুতে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শুক্রবার(২৩ সেপ্টেম্বর)  বিকেল ৩টায় কানাইঘাট পাবলিক হাইস্কুল মিলনায়তনে বদরুল আমিন লাবুর সহপাঠী এসএসসি-৯৯ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে এ -শোকসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। 

পাবলিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইয়াহহিয়া'র সভাপতিত্বে ও মাস্টার আজির উদ্দিনের পরিচালনায় শোকসভায় অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী সমাজকর্মী যুব সংগঠক বদরুল আমিনের মৃত্যুর স্মৃতি চারণ করে বক্তারা বলেন, কানাইঘাটের তরুণ ও যুব সমাজের এক পরিচিত মুখ ছিলেন বদরুল আমিন। সব সময় ভালো কাজে অংশগ্রহণ, মসজিদ, মাদ্রাসার খেদমত করার পাশাপাশি সকল মহলের ব্যক্তিত্ব অধিকারী ছিলেন তিনি। সবার সাথে তার সুসম্পর্ক ছিল। অস্ট্রেলিয়ায় স্ব-পরিবারে যাওয়ার পর ১ মাসের মধ্যে তার অকাল মৃত্যুতে এলাকার সবাই শোকাহত। আল্লাহ রাব্বুল আল-আমিন যেন তাকে বেহেস্ত নছিব করেন এবং তার ৩ সন্তান সহ পরিবারের সদস্যদের যেন ধৈর্য ধরার তৌফিক দেন-শোকসভায় সেই দোয়া করে সবাই। 

বদরুল আমিনের সহকর্মী ৯৯ এসএসসি ব্যাচে’র উদ্যোগে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করায় উপস্থিত সবাই তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। 

শোকসভায় বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা জামাল উদ্দিন, কানাইঘাট সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রভাষক আফসার উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, দারুল ঊলূম মাদ্রাসার শায়খুল হাদিস মাওলানা আব্দুল লতিফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাব উদ্দিন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সাবেক ছাত্রনেতা তারেক চৌধুরী, সিলেট বারের আইনজীবি এপিপি আবু সিদ্দিক, এডভোকেট আলা উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা শরীফ উদ্দিন, মাস্টার মিলন কান্তি দাস, ব্যাংকার ফখরুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রনেতা যুক্তরাজ্য প্রবাসী রুহুল আমিন, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সিলেট ল’কলেজের সাবেক এজিএস এম মোস্তাক আহমদ, সোনারতালুক জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফিজ নজির আহমদ, উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক হারিছ উদ্দিন, মরহুম বদরুল আমিনের বড় ভাই কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অফিস সহকারী রুহুল আমিন, রায়গড় মসজিদের ইমাম মাওলানা খালেদ আহমদ, মহেষপুরের গ্রামের মুরব্বী বশির আহমদ প্রমুখ। শোক সভা শেষে মরহুম বদরুল আমিন লাবুর আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা আব্দুল লতিফ। 

এছাড়াও শোকসভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রেসক্লাবের সহ সাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, মাস্টার বুলবুল আহমদ, মাস্টার কামাল উদ্দিন, সাবেক সংবাদকর্মী খোকন জামান, প্রবাসী আব্দুল কাহির, খাজা গোলাম করিম, মাস্টার বাবুল হোসেন প্রমুখ।

কানাইঘাটে ঘরে ঘরে চোখ ওঠা রোগী

কানাইঘাটে ঘরে ঘরে চোখ ওঠা রোগী


মাহবুবুর রশিদ::

সিলেটের কানাইঘাটে হঠাৎ করে চোখ ওঠা রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। উপজেলার প্রতিটি গ্রামের ঘরে ঘরে কেউ না কেউ এ রোগে আক্রান্ত। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায়, এ রোগকে কনজাংটিভাইটিস বললেও সাধারণ মানুষের কাছে 'চোখ ওঠা' নামেই পরিচিত। রোগটি ছোঁয়াচে হওয়ায় একজনের কাছ থেকে অন্যজনের কাছে দ্রুত ছড়াচ্ছে ।

শিশুসহ সব বয়সের মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন এ রোগে। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিসপাড়া ও হাটবাজারে অধিকাংশ চোখ ওঠা রোগীর দেখা মিলছে। কনজাংটিভাইটিস বা চোখ ওঠা রোগ থেকে বাঁচতে অনেককে চোখে কালো চশমা ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

গত কয়েকদিন ধরে উপজেলা হাসপাতাল, কমিউনিটি ক্লিনিক, ফার্মেসি এবং পল্লী চিকিৎসকের কাছে চোখ ওঠা রোগীর বেশ ভিড় লক্ষ করা গেছে।

কানাইঘাট হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন প্রায় শতাধিক চোখ ওঠা রোগী হাসপাতালের বর্হিবিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

পার্কভিউ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক কানাইঘাটের কৃতি সন্তান শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ তারেক মাহমুদ বলেন,চোখ উঠা সাধারণত একটি সিজনাল ভাইরাস জনিত ছোঁয়াচে রোগ। সাধারণত পাঁচ থেকে সাত দিনের মধ্যে এই রোগ সেরে যায় । কিছু সাবধানতা অবলম্বন করলে সহজে এই রোগ থেকে বাঁচা যায়। যেমন- বারবার হাত দিয়ে চোখ না চুলকানি,রুমালের পরিবর্তে টিস্যু ব্যবহার করা,ময়লা পানিযুক্ত পুকুর বা নদী নালাতে গোসল না করা,ঘরের বাহিরে গেলে চশমা ব্যবহার করা এবং প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া। 

বীরদল কমিউনিটি ক্লিনিকের কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার হেলাল আহমদ বলেন,কমিউনিটি ক্লিনিকে ইদানীং প্রচুর চোখ ওঠার রোগী আসছেন। আমরা তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে ক্লোরামফেনিকল ড্রপ এবং পরামর্শ দিচ্ছি। 

কানাইঘাট বাজারের ইলেকট্রিক ব্যবসায়ী বিলাল উদ্দিন জানান,গত কয়েকদিন ধরে তিনি নিজে চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ইতোমধ্যে কিছুটা সুস্থ হয়েছেন। একইভাবে চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত সংবাদকর্মী মুমিন রশীদ।  চোখে কালো চশমা ব্যবহারের পাশাপাশি তিনিও প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন।

বাজারের মেসার্স মঈন ফার্মেসির মালিক শিহাব উদ্দিন জানান,গত কয়েকদিন ধরে তার ফার্মেসিতে প্রচুর চোখ ওঠা রোগী ভিড় করছে,ফলে চোখের ড্রপের ব্যাপক চাহিদা বেড়েছে। তিনি আক্রান্ত  ব্যক্তিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার আহবান করছেন বলে জানান।

Thursday, September 22

কানাইঘাটে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

কানাইঘাটে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক:

আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণ ও উৎসব মুখর পরিবেশে উদযাপনের লক্ষ্যে কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশের উদ্যোগে পৃথক প্রস্তুতি মূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

এ উপলক্ষ্যে  বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর)  সকাল ১১টায় উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খিস্ট্রান ঐক্য পরিষদ, পূজা উদযাপন পরিষদ সহ ৩৫টি পূজা মন্ডপের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে প্রশাসনে উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জির সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভায় এবারের শারদীয় দুর্গাপূজা উপজেলার ৩৫টি মন্ডপে যাতে করে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই অতিথিতের মতো সৌহার্দ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে উৎসব মুখর ভাবে দুর্গাপূজা সম্পন্ন হয় এজন্য উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ, আনসার ভিডিপির পক্ষ থেকে প্রতিটি মন্ডপে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা প্রদান, সার্বক্ষণিক ভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ সহ মন্ডপ কমিটির উদ্যোগে নিজস্ব স্বেচ্ছা সেবক নিয়োগ করা হবে বলে জানানো হয়। সেই সাথে ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করে যাতে করে দুর্গাপূজায় বিশৃংখলা ও নাশকতা মূলক কর্মকান্ড করতে না পারে এব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকার আহবান জানানো হয়। 

অপরদিকে বিকেল ৩টায় কানাইঘাট থানা পুলিশের উদ্যোগে দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে আইন-শৃংখলা ও নিরাপত্তা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা প্রতিটি পূজা মন্ডপের কমিটির সদস্যদের নিয়ে থানা প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় পুলিশের পক্ষ থেকে দুর্গাপূজার নিরাপত্তার বিষয়টি তুলে ধরা হয়। উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশের সভায় পৃথক ভাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আব্দুল করিম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা বেগম, থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম পিপিএম, ওসি (তদন্ত) দিলীপকান্ত নাথ, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সুবল চন্দ্র বর্মন, উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা মুস্তাফিদুল হক, সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান আবু তায়্যিব শামীম, পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম আক্তার হোসেন, উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান জেমসলিও ফারগুশন নানকা, সাধারন সম্পাদক শ্রী রিংকু চক্রবর্তী, সাবেক সভাপতি দূর্গাকুমার দাস, সুদিপ্ত চক্রবর্তী, সাবেক সাধারন সম্পাদক মাস্টার সলিল চন্দ্র দাস, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আব্দুন নূর, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বজন লাল দাস, সাধারণ সম্পাদক অলক চক্রবর্তী সহ বিভিন্ন পূজা মন্ডপের কমিটির নেতৃবৃন্দ।  

কানাইঘাট সরকারি কলেজের নতুন অধ্যক্ষ অধ্যাপক হাবিব

কানাইঘাট সরকারি কলেজের নতুন অধ্যক্ষ অধ্যাপক হাবিব

 


নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুকমান হোসেইনের অবসর গমন উপলক্ষ্যে বিদায়ী সংবর্ধনা এবং কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে কলেজের অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক হাবিব আহমদের দায়িত্ব গ্রহণ উপলক্ষ্যে কলেজের শিক্ষক, কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দের উদ্যোগে সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১১সেপ্টম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় কলেজ মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

কলেজের বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুকমান হোসেইনের সভাপতিত্বে ও কলেজ স্টাফ কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক ফরিদ আহমদ ও শরীর চর্চা শিক্ষক অলিউর রহমানের যৌথ পরিচালনায় বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য দেন সহকারী অধ্যাপক হাবিব আহমদ, প্রভাষক ফরিদুল হক ভুইয়া, সুব্রত কুমার বর্ধন, সিরাজুল হক, ইবাদুর রহমান, হিমাংশু রঞ্জন দাস, দেলোয়ার হোসেন, হারিছ উদ্দিন, দীপুকুমার ঘুষ, মাসুক মিয়া, নুরজাহান বেগম, বীনা রানী সরকার, রেহানা পারভীন, প্রশান্ত পাল, মঈনুল হক চৌধুরী, শফিউল আলম চৌধুরী, প্রদীপ কুমার বর্ধন, লিটন কুমার দেব, শান্তিময় দেব, মোঃ বিলাল উদ্দিন, মোঃ আজাদ উদ্দিন, মোঃ রহিম উদ্দিন, রাখাল চন্দ্র বৈষ্ণব, মোহাঃ ইয়াহিয়া, রিপন মালাকার, দেলোয়ার হোসেন, মোঃ শিহাব উদ্দিন, রশিদ আহমদ, শ্রী প্রনোজিত কুমার পার্থ, কলেজের জীব বিজ্ঞানের প্রদর্শক মোঃ ফয়ছল আহমদ, অফিস সহকারী আব্দুল মতিন প্রমুখ। 

সভাপতির বক্তব্যে কলেজের বিদায়ী অধ্যক্ষ লুকমান হোসেইন বলেন, প্রানের প্রতিষ্ঠানে ৩২ বছর কর্মরত থাকা অবস্থায় কলেজের উপাদক্ষের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কলেজ জাতীয় করণ হওয়ার পর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন কালে কলেজের সকল বিভাগে আমার সহকর্মী শিক্ষকবৃন্দ কলেজের কর্মকর্তা কর্মচারী ও অভিভাবক, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে যে সহযোগিতা ও ভালবাসা পেয়েছি তা কখনো ভুলবনা। কানাইঘাট সরকারি কলেজকে সিলেট অঞ্চলের একটি শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপিঠ হিসেবে এগিয়ে নিতে তিনি সব সময় তার পক্ষ থেকে সহযোগিতা করে যাবেন। সেই সাথে তিনি কলেজের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রেখে এ কলেজের শিক্ষার উন্নতির লক্ষ্যে নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব গ্রহনকারী কলেজের শুরু থেকে শিক্ষক হিসাবে কর্মরত সিনিয়র শিক্ষক সহকারী অধ্যাপক হাবিব আহমদকে সর্বাত্মক ভাবে সহযোগিতা করার জন্য কলেজের শিক্ষক মন্ডলী ও শিক্ষার্থীদের প্রতি আহবান জানান। 

শিক্ষক নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুকমান হোসেইন এ কলেজের সার্বিক শিক্ষা কার্যক্রমকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে গেছেন। শিক্ষকবৃন্দের একজন প্রিয় স্যার ছিলেন তিনি। সব সময় নিষ্ঠার সাথে শিক্ষকতা করেছেন। তার কাছ থেকে আমরা অনেক কিছু শিখেছি। অবসর গ্রহণ উপলক্ষ্যে তার সর্বাত্মক মঙ্গল কামনা করেন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। 

এছাড়া কলেজের স্টাফ কাউন্সিলর পক্ষ থেকে বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে সম্মাননা স্মারক ও উপহার সামগ্রী ভূষিত করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুকমান হোসেইন নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাবিব আহমদকে তার স্থলাভিষিক্ত করে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন। 

কানাইঘাটে ইউপি সদস্য সাহাবের জামিন লাভ, আনন্দ মিছিল

কানাইঘাটে ইউপি সদস্য সাহাবের জামিন লাভ, আনন্দ মিছিল


নিজস্ব প্রতিবেদক:

একটি মামলায় ৭ দিন কারাভোগের পর কানাইঘাট দিঘীরপার ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য ও স্থানীয় সড়কের বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ সাহাব উদ্দিন জামিনে মুক্তি লাভ করেছেন। 

গত বুধবার সিলেটের কানাইঘাট চীফ জুডিসিয়াল বিজ্ঞ আদালত ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিনের জামিন মঞ্জুর করলে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিকেলে মুক্তি লাভ করেন তিনি। 

জামিনে মুক্তি লাভের পর দিঘীরপার ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনসাধারন, বাজারের ব্যবসায়ী সহ কয়েক’শ মানুষ রাত সাড়ে ৯টার দিকে ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিনকে নিয়ে সড়কের বাজারে আনন্দ মিছিল বের করেন। তারা ষড়যন্ত্র মূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিনকে হয়রানীকারি মামলার বাদী শাহিকুল আলমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের পাশাপাশি মামলাটি প্রত্যাহারের দাবী জানান। 

এদিকে ৬দিন জেল খাটার পর জামিনে মুক্তি পেয়ে ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিন তাকে সর্বাত্মক ভাবে তার মুক্তির দাবীতে যারা সহযোগিতা করেছেন এজন্য ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জন সাধারন, বাজারের ব্যবসায়ী, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।  


Sunday, September 18

কানাইঘাটে জেছিসের টাউন হল মিটিং

কানাইঘাটে জেছিসের টাউন হল মিটিং


নিজস্ব প্রতিবেদক:

কোভিট-১৯ প্রতিরোধ, ঝুঁকি নিরূপণ, কমিউনিটি সম্পৃক্তকরণ ও টিকা-বার্তা যোগাযোগ জোরদারকরণ প্রকল্পের মাধ্যমে কানাইঘাটে টাউন হল মিটিং অনুষ্টিত হয়েছে৷

রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর)  জৈন্তিয়া ছিন্নমূল সংস্থা (জেছিস) এর বাস্তবায়নে ইউনিসেফ ও এডাব এর সহযোহিতায় কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হল রুমে স্বাস্থ্যবিভাগসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সমুহের সাথে টাউন হল মিটিং অনুষ্টিত হয় ৷

জেছিসের নির্বাহী পরিচালক ও এডাব সিলেট জেলার সভাপতি এ টি এম বদরুল ইসলামের সভাপতিত্বে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুবল চন্দ্র বর্মন। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, কোভিড শুরুর সেই দুঃসময় এখনো আমাদেরকে পীড়া দেয়। কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন থেকেও আমরা মানুষের সেবায় কাজ করেছি। তবে এখনো মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে এবং মারা যাচ্ছে। কাজেই এ ব্যাপারে ব্যাপক সচেতনতার বিকল্প নেই। এজন্য মাঠ পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং নিয়মিত মাস্ক পরিধান করা, ভ্যাকসিন গ্রহণ, হাত ধোয়ার অভ্যাস বজায় রাখা, ভীড় ও জনসমাগম এড়িয়ে চলার উপর গুরুত্ব দেন তিনি। একই সাথে করোনার গণঠিকা কার্যক্রমে এডাবের এই প্রকল্পের উদ্যোগে পাড়ায় মহল্লায় মাইকিং করে মানুষকে ঠিকা গ্রহণের ক্ষেত্রে আগ্রহী করছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। 

এডাবের কোভিড-১৯ প্রকল্পের জেলা সমন্বয়কারী শওকত হাসান আকঞ্জীর সঞ্চালনায় টাউনহল সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, কানাইঘাট উপজেলা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ তন্ময় কুমার, ডাঃ রিয়াজ মাহমুদ তমাল, সাংবাদিক খালেদ আহমদ, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, প্রকল্পের আইএসপি কর্মকর্তা মনির হোসাইন, জেছিস কর্মকর্তা শাহিন আহমদ, দুর্গাপুর হাই স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক মামুনুর রশীদ প্রমুখ। 

শুরুতে প্রকল্পের লক্ষ্য উদ্দেশ্য নিয়ে বক্তব্য রাখেন প্রকল্পের জেলা সমন্বয়কারী শওকত হাসান আকঞ্জী। মতবিনিময় সভায় কানাইঘাটের বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ অংশ নেন। 


Saturday, September 17

কানাইঘাটে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

কানাইঘাটে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: 

কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকল ধর্মের মানুষ ও সুধিজনদের অংশগ্রহণে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার(১৭ সেপ্টেম্বর)  বিকেল ৩টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্প্রীতি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেটের জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান বলেন, ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের

আহবানে হিন্দু, মুসলমান সহ সকল ধর্ম গোত্রের মানুষ অসাম্প্রদায়িক একটি ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র গঠনে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে এদেশকে স্বাধীন করে ছিলেন। সবাই একসাথে সম্প্রীতির মাধ্যমে বসবাস করার জন্য। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর যুগযুগ ধরে সকল ধরনের মানুষ তাদের আচার অনুষ্ঠান সম্প্রীতির মাধ্যমে পালন করে আসলেও মাঝে মধ্যে ধর্মীয় বিভাজন সৃষ্টি করে গুজব রটিয়ে একটি মহল সমাজে বিশৃংখলা সৃষ্টি করতে চায়। এদের ব্যাপারে সবাইকে সোচ্চার থাকতে হবে এবং সম্প্রীতির বন্ধনকে আরো সুদৃঢ় করতে হবে। জেলা প্রশাসক আরো বলেন, ইসলাম ধর্ম হচ্ছে শান্তির ধর্ম, এখানে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের কোন স্থান নাই। ইসলাম সহ অন্যান্য ধর্ম অপর ধর্মের প্রতি সব সময় সম্মান দিতে শিখিয়েছে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জির সভাপতিত্বে ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তরিকুল ইসলামের পরিচালনায় সম্প্রীতি সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিলেটের নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, একটি দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথ এগিয়ে নিতে হলে সমাজে শান্তি ও সম্প্রীতির বন্ধনকে আরো সুদৃঢ় করতে হবে। এক্ষেত্রে জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে। পুলিশ শান্তি-সম্প্রীতি রক্ষার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। কেউ রাষ্ট্রকে অস্থিতিশীল ও সমাজে ধর্মীয় বিভাজন তৈরির চেষ্টা করলে পুলিশ জনগণকে সাথে নিয়ে অশুভ শক্তিকে পরাজিত করবে। কানাইঘাটের সামাজিক বন্ধনকে আগামী দিনে আরো এগিয়ে নিতে সকল ধর্মের মানুষ ও সচেতন মহলকে আরো অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি আরো বক্তব্য দেন, কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মুমিন চৌধুরী, সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম, কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আব্দুল করিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, কানাইঘাট সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লোকমান হোসাইন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাও. আব্দুল্লাহ শাকির, কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলাম পিপিএম। বক্তব্য দেন, সিলেট প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি ও কানাইঘাট প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম.এ হান্নান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি জামাল উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, নাজমুল ইসলাম হারুন, কানাইঘাট সদর ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক আফসার উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সহ সভাপতি মাষ্টার সলীল চন্দ্র দাস, কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসার শিক্ষক ক্বারী হারুনুর রশিদ চতুলী, কানাইঘাট রামিজা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামুন আহমদ, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন প্রমুখ। 

সম্প্রীতি সমাবেশে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ্রের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক মন্ডলী, সুধীজন, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ সহ সর্বস্তরের জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।