এমপিকে ধর্ষণের হুমকি, অতঃপর শ্রীঘরে

Written By Shimanter Dak on Tuesday, September 30, 2014 | 11:52 PM


কানিউজ ডেস্ক : যুক্তরাজ্যের সংসদ সদস্য স্টেলা ক্রিজিকে আপত্তিকর এক টুইট করার শাস্তি পেলেন পিটার নান নামের ট্যাক্সিচালক। তাকে ১৮ সপ্তাহের কারাদণ্ড দিয়েছেন লন্ডনের একটি আদালত। চলতি মাসের প্রথম দিকে ওয়ালথামস্টোর এমপি ক্রিজিকে এক টুইটে ধর্ষণ করার হুমকি দেন ব্রিস্টলের নাগরিক নান। টুইটে সংসদের বিরোধী দল লেবার পার্টির এই নেত্রীকে ডাকিনী বলেও মন্তব্য করেন ৩৩ বছর বয়সী নান। নানের টুইটকে অশ্লীল, কুরুচিপূর্ণ ও ভীতিকর বলে অভিহিত করেন বিচারক এলিজাবেথ রসকো। প্রসঙ্গত, ব্রিটিশ ১০ পাউন্ডের কাগজের নোটে ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক জেন অস্টিনের ছবি ছাপা হয়। জেন অস্টিন ক্যাম্পেইন চালু করেছেন নারীবাদী সাংবাদিক ক্যারোলিন ক্রিয়াডো পেরেজ। এই ক্যাম্পেইনকে সমর্থন করায় ক্রিজিকে টুইট করে ওই হুমকি দেন নান। টুইটারে নানের একাধিক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। দেড় বছরের জেলাদেশের পাশাপাশি নানের এ সব অ্যাকাউন্টের ওপরও বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন আদালত। রায়ে বলা হয়, আগামীতে নান তার কোনও অ্যাকাউন্ট থেকেই ক্রিজি কিংবা পেরেজকে টুইট করতে পারবেন না। ২৯ সেপ্টেম্বর এই রায় ঘোষণার পর এমপি ক্রিজি প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। তিনি জানান, অনলাইন হয়রানিও যে হতাশা ও ভয়ের কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে, নানের এই দন্ডাদেশ সেটাই প্রমাণ করল।

মন্ত্রিসভা থেকে লতিফ সিদ্দিকীকে ‘অপসারণ’


স্টাফ রিপোর্টার : ডাক, টেলিযোগাযোগ ও প্রযুক্তি মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে মন্ত্রিসভা থেকে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। হজ এবং হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটূক্তি করে বিতর্কের জন্ম দেয়ার পর তাকে অপসারণের এ সিদ্ধান্ত এলো। বিভিন্ন বেসরকারি টিভি চ্যানেলে আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে অপসারণের সিদ্ধান্তের সংবাদ প্রচারিত হচ্ছে। তবে মন্ত্রি পরিষদ বিভাগ এ বিষয়ে কিছু জানাতে পারেনি। রোববার নিউ ইয়র্কে এক অনুষ্ঠানে হজ নিয়ে কটূক্তির পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে নিয়েও তাচ্ছিল্য করে বক্তব্য রাখেন তিনি। তিনি বলেন, আমি হজ এবং তাবলীগের ঘোরতর বিরোধী। আমি জামায়াতে ইসলামীর যত বিরোধী তার থেকেও হজ ও তাবলীগের বিরোধী। এ হজে যে কত ম্যানপাওয়ার নষ্ট হয়। হজের জন্য ২০ লাখ লোক আজ সৌদি আরবে গেছে। এদের কোনও কাম নেই। এরা কোন প্রডাকশন দিচ্ছে না। শুধু রিডাকশন দিচ্ছে। শুধু খাচ্ছে আর দেশের টাকা দিয়ে আসছে। ওই অনুষ্ঠানে টক শো আলোচকদেরও গালিগালাজ করেন তিনি। অনলাইনে এ বক্তব্য প্রচারিত হওয়ার পর তোলপাড় তৈরি হয়। হেফাজতে ইসলামসহ বিভিন্ন সংগঠন মন্ত্রিসভা থেকে তার অপসারণ এবং তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানায়। সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর তার মানসিক সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। আর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভানেত্রী সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী তাকে অভিহিত করেছেন মুখফোঁড় নেতা হিসেবে।

লোভাছড়া ট্যুরিস্ট ক্লাবের সভা অনুষ্টিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: লোভাছড়া ট্যুরিস্ট ক্লাবের এক সাধারণ সভা আজ সন্ধ্যা ৭টায় ক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। নতুন সদস্যদের কাছে ক্লাবের পরিচিতি তুলে ধরে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন লোভাছড়া ট্যুরিস্ট ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক মাহবুবুর রশিদ । তিনি বলেন, কানাইঘাটের সীমান্তবর্তী ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাশে অবস্থিত লোভাছড়া পর্যটন এলাকাকে দেশ বিদেশে তুলে ধরাসহ কানাইঘাটের যে কোন তথ্য আদান প্রদান ও পর্যটন সম্ভাবনাময় উপজেলা অন্যান্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মন্ডিত এলাকাকে তুলে ধরার পাশাপাশি সকল প্রকার সামাজিক ও সেবামূলক কর্মকান্ডে নবগঠিত এ সংগঠনটি কাজ করে যাবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের  সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান,সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ। সদস্য শাহেদ আহমদ,সুহেল আহমদ,সমির উদ্দিন,সাকিব আহমদ,শাহিদ আহমদ,আলাউদ্দিন,শেবুল আহমদ,রাসেল আহমদ,শাহিদ আহমদ-২,আবুল হুসেন,আবুু শালেহ মো: মামুন প্রমূখ। লোভাছড়া ট্যুরিস্ট ক্লাবের  বিস্তারিত তথ্যের জন্য www.facebook.com/lubasoratouristclub  নামে একটি অফিসিয়াল ফেসবুক ফ্যান পেজও খোলা হয় ।

কেরানীগঞ্জ ৪ খুনের প্রধান আসামি গ্রেফতার


ঢাকা: কেরানীগঞ্জের চার খুনের মামলার আসামি নাসিরকে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া থেকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরের দিকে তাকে উপজেলার মোহনগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়। উল্লাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে আমিও শুনেছি যে মোহনগঞ্জ থেকে নাসির নামে একজনকে গ্রেফতার করে ঢাকায় নিয়ে গেছে ডিবি পুলিশ। উল্লেখ্য, গত ২৪ সেপ্টেম্বর বুধবার বেলা ১১টার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন কলাকান্দি এলাকার একটি ছয়তলা ভবনের দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাট থেকে স্বামী-স্ত্রী এবং দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।এর একদিন পর তাদের পরিচয় পাওয়া যায়। নিহতরা হলেন-সানজিদা (২), ইমরান (৭), সাজু আহমেদ (৩৫) এবং রঞ্জি বেগম। সম্পর্কে সাজু আহমেদ ও রঞ্জি বেগম স্বামী-স্ত্রী। আর সানজিদা ও ইমরান তাদের দুই সন্তান। সাজুর বাড়ি পঞ্চগড়েরর দেবীগঞ্জ উপজেলার সারিকান্দি গ্রামে। এরপর এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বিভিন্ন স্থান থেকে ৭ জনকে আটক করে পুলিশ। পুলিশের দাবি, নিহত সাজু ডাকাত দলের সদস্য আর গ্রেফতারকৃতরা তার সহযোগী। সুমনের মোটরসাইকেল চুরি, নবাবগঞ্জের চুরাইন বাজারে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির মালামালের ভাগবাটোয়ারা এবং সুমনের স্ত্রী লাকীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের জের ধরেই সাজু ও তার স্ত্রী-সন্তানকে হত্যা করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- জাকারিয়া ওরফে জনি (২৬), সুমন ওরফে সিএনজি সুমন (৩০), আব্দুল মজিদ (২৪), রফিক (৩৮), সাহিদা বেগম (৩৬), মুক্তা বেগম (৩০) ও রানী বেগম। জনি ও সাহিদাকে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর থেকে, মজিদকে দক্ষিণ কেরারীগঞ্জের আব্দুল্লাহপুর এবং রফিককে হাসনাবাদ এলাকায় থেকে গ্রেফতার করা হয়। বাকিদের মধ্য সিএনজি সুমন ও রাণী বেগমকে গাজীপুরের ভাওয়াল মির্জাপুর এলাকায় থেকে গ্রেফতার করা হয।

লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার দাবি এরশাদের


স্টাফ রিপোর্টার : হজ ও তাবলীগ জামাত সম্পর্কে মন্তব্য করায় আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। আজ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এরশাদ এই দাবি জানান। এরশাদ বলেন, যেখানে দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এবং সংবিধান অনুসারে কোন সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা যাবে না। সেখানে লতিফ সিদ্দিকী ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে সরাসরি সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। তাই সংবিধান লঙ্ঘনের দায়ে তাকে অভিযুক্ত করতে হবে। এর জন্য শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না। দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। বিবৃতিতে এরশাদ বলেন, ‘ইসলামের চার স্তম্ভের অন্যতম হজ। তা নিয়ে লতিফ সিদ্দিকী যে জঘন্য ও কুৎসিত মন্তব্য করেছেন তার নিন্দা প্রকাশেরও ভাষা আমার জানা নেই। হজের ব্যাপারে আজ পর্যন্ত অন্য কোন ধর্মাবলম্বীরাও এ ধরনের কুৎসিত মন্তব্য করেনি। সেখানে বাংলাদেশের মতো একটি মুসলিম-অধ্যুষিত দেশে যেখানে ৯০ ভাগই মুসলিম জনগোষ্ঠী, তাঁদের ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত হানার মতো লতিফ সিদ্দিকী যে জঘন্য কাজ করেছেন, তা এ দেশের জনগণ কখনও এবং কোনভাবেই মেনে নেবে না।

সব ধরনের গ্যাসের দাম বাড়ছে


কা্নিউজ ডেস্ক: সব ধরনের গ্যাসের দাম আবারও বাড়ছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বাড়ছে আবাসিক খাতের গ্যাসের দাম। আবাসিক খাতে দুই চুলার ক্ষেত্রে দাম বাড়বে সর্বোচ্চ ১২২ দশমিক ২২ শতাংশ পর্যন্ত। এর ফলে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় আরও বাড়বে। দাম বাড়ানোর এই প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জ্বালানি মন্ত্রণালয় ও পেট্রোবাংলার দায়িত্বশীল সূত্র এই তথ্য জানিয়ে বলেছে, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদিত প্রস্তাব ইতিমধ্যে জ্বালানি মন্ত্রণালয় পেট্রোবাংলায় পাঠিয়েছে। এখন তারা ওই প্রস্তাব এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে জমা দেবে। এরপর কমিশন আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেবে। সূত্র জানায়, ডিজেল ও কেরোসিনের দাম রেগুলেটরি কমিশন বাড়ানোর ঘোষণা দেবে না। এটা সরকার নির্বাহী আদেশে বাড়াবে। এ জন্য কেবল কমিশনের মতামত নেবে। তবে তা আগে জানানো হবে না। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদিত প্রস্তাব অনুযায়ী, আবাসিক খাতে দুই চুলার গ্যাসের জন্য বর্তমান দাম ৪৫০ থেকে বাড়িয়ে এক হাজার টাকা করা হচ্ছে। বৃদ্ধির হার ১২২ দশমিক ২২ শতাংশ। আর এক চুলার গ্রাহকদের ক্ষেত্রে বর্তমান দাম ৪০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮৫০ টাকা করা হবে। এ ক্ষেত্রে দাম বাড়ার হার ১১২ দশমিক ৫০ শূন্য শতাংশ। আবাসিক গ্রাহকদের মধ্যে যাঁরা মিটার ব্যবহার করেন, তাঁদের ক্ষেত্রে প্রতি এক হাজার ঘনফুট গ্যাসের দাম বর্তমানে ১৪৬ টাকা ২৫ পয়সা। নতুন প্রস্তাবে এটা ২৩৫ টাকা করার কথা বলা হয়েছে। বৃদ্ধির হার ৬০ দশমিক ৬৮ শতাংশ। জানতে চাইলে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, গ্যাসের দাম এককালীন বড় আকারে বাড়ার ফলে মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্তদের মধ্যে যাঁরা গ্যাস ব্যবহার করেন, তাঁদের ওপর চাপ বাড়বে। নির্ধারিত আয়ের মানুষের ব্যয়ও বাড়বে। তবে দাম বাড়ার ফলে সরকারের যে বাড়তি আয় হবে, সেটা যদি গ্যাস উত্তোলন, বিতরণ এবং যাঁরা গ্যাস পাচ্ছেন না, তাঁদের দেওয়ার জন্য ব্যয় করা হয়, তাহলে দাম বাড়ানোর যৌক্তিকতা মেনে নেওয়া যায়। এ ছাড়া চাহিদা ও সরবরাহের মধ্যে ভারসাম্য আনতে হলে একটা মূল্য সমন্বয়ের প্রয়োজন আছে, সেটা অস্বীকার করা যায় না। আবাসিক খাতের পরেই গ্যাসের সবচেয়ে বেশি দাম বাড়বে ক্যাপটিভ বিদ্যুৎ (বেসরকারি শিল্পপ্রতিষ্ঠানে ব্যবহারের জন্য মালিকদের নিজস্ব উৎপাদিত) উৎপাদনে। বর্তমানে এক হাজার ঘনফুট গ্যাসের দাম ১১৮ টাকা ২৬ পয়সা। নতুন প্রস্তাবে তা ২৪০ টাকা করার কথা বলা হয়েছে। বৃদ্ধির হার ১০২ দশমিক ৯৪ শতাংশ। সিএনজির দাম বাড়বে ৩৩ শতাংশ। বর্তমানে সিএনজির প্রতি এক হাজার ঘনফুটের দাম ৮৪৯ টাকা ৫০ পয়সা। নতুন প্রস্তাবে তা করা হচ্ছে এক হাজার ১৩২ টাকা ৬৭ পয়সা। শিল্পে বর্তমানে প্রতি এক হাজার ঘনফুটের দাম ১৬৫ টাকা ৯১ পয়সা। এটা বেড়ে হচ্ছে ২২০ টাকা। বৃদ্ধির হার ৩২ দশমিক ৬০ শতাংশ। বাণিজ্যিক গ্রাহকদের ক্ষেত্রে বর্তমান দাম ২৬৮ টাকা ৯ পয়সা, এটা হচ্ছে ৩৫০ টাকা। বৃদ্ধির হার ৩০ দশমিক ৫৫ শতাংশ। সিএনজি খাতে গ্যাসের দাম এখন ৬৫১ টাকা ২৯ পয়সা। এটা বেড়ে হচ্ছে ৯০৫ টাকা ৯২ পয়সা। বৃদ্ধির হার ৩৯ দশমিক ১০ শতাংশ। চা-বাগানে ব্যবহৃত গ্যাসের বর্তমান দাম ১৬৫ টাকা ৯১ পয়সা। এটা করা হচ্ছে ২০০ টাকা। বৃদ্ধির হার ২০ দশমিক ৫৫ শতাংশ। বিদ্যুৎ উৎপাদনে যে গ্যাস দেওয়া হয় বর্তমানে সে রকম প্রতি এক হাজার ঘনফুট গ্যাসের দাম ৭৯ দশমিক ৮২ টাকা। এটা হচ্ছে ৮৪ টাকা, বৃদ্ধির হার ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ। সার উৎপাদনে বর্তমানে প্রতি হাজার ঘনফুট গ্যাসের দাম ৭২ দশমিক ৯২ টাকা। এটা বৃদ্ধি পেয়ে হবে ৮০ টাকা। বৃদ্ধির হার ৯ দশমিক ৭১ শতাংশ। জ্বালানি মন্ত্রণালয় ও পেট্রোবাংলার সূত্র জানায়, এবারই প্রথম দাম বাড়ানোর প্রস্তাবে সম্পদ হিসেবে প্রতি হাজার ঘনফুট গ্যাসের দাম ২৫ টাকা ধার্য করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী এই প্রস্তাবেও অনুমোদন দিয়েছেন। এর ফলে বাপেক্সসহ বিভিন্ন গ্যাস উত্তোলনকারী কোম্পানি যে গ্যাস উত্তোলন করে, তার ওপর এই দাম ধার্য হবে। এখন পর্যন্ত উত্তোলনকারী কোম্পানিকে উত্তোলিত গ্যাসের জন্য কোনো দাম দিতে হয় না। এই অর্থ রাষ্ট্র পাবে। এর আগে ২০১৩ সালের ৪ জানুয়ারি নির্বাহী আদেশে সরকার সর্বশেষ জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছিল। আর গ্যাসের দাম সর্বশেষ বাড়ানো হয় ২০০৯ সালের ১ আগস্ট।

লতিফ সিদ্দিকীকে মুখফোড় বললেন সাজেদা


স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে মুখফোড় মন্তব্য করে দলটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাজেদা চৌধুরী তার কথায় কান না দেয়ার জন্য দলের নেতাকর্মীদের পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, মুখফোড়রা অনেক কথাই বলেন। এটা তাদের স্বাধীনতা। এটা কখনোই গ্রহণযোগ্য হবে না। আশা করি আপনারাও এটা গ্রহণ করবেন না। মঙ্গলবার সকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির দলীয় কার্যালয়ে প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাজেদা চৌধুরী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, কে কী বলল তাতে কান দেবেন না। বঙ্গবন্ধু আমাদের যা দিয়ে গেছেন তা নিয়ে আমরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছি। আর জয় কে তা সবাই জানে। রোববার নিউ ইয়র্কে এক সংবর্ধনায় সরকারের মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী বলেন, আমি জামায়াতের চেয়ে হজ এবং তাবলীগের ঘোর বিরোধী। প্রধানমন্ত্রী পূত্র জয় সম্পর্কে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, জয় কে? ওই অনুষ্ঠানে টকশো’র আলোচকদের নিয়েও কদর্য বক্তব্য রাখেন লতিফ সিদ্দিকী। তার এ বক্তব্য প্রত্যাহার করে তওবা করার আহবান জানিয়েছে বিভিন্ন ইসলামী সংগঠন। তাকে মন্ত্রিসভা থেকে অপসারণের আল্টিমেটাম দিয়ে হেফাজতে ইসলাম বলেছে, প্রয়োজন আবারও আন্দোলনে নামবে সংগঠনটি।
 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি :মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। যোগাযোগ : ০২, সাউদিয়া মার্কেট,কানাইঘাট উত্তর বাজার,সিলেট। +৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল : editor@kanaighatnews.com.com, info@kanaighatnews.com নিউজের জন্য :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩