Previous
Next

সর্বশেষ


Saturday, October 31

কানাইঘাটে মায়ের স্বপ্ন পূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে গ্রামে এলেন প্রবাসী যুবনেতা!

কানাইঘাটে মায়ের স্বপ্ন পূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে গ্রামে এলেন প্রবাসী যুবনেতা!


 নিজস্ব প্রতিবেদক :

শুক্রবার(৩০ অক্টোবর)  সকাল ৯টা। কানাইঘাট উপজেলার ৭নং দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউনিয়নের দলইকান্দি কান্দিগ্রাম মিফতাহুল উলূম ঈদগাহ মাদ্রাসা সহ অাশপাশ এলাকায় উৎসুক জনতার ভীড়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভীড় জমে যায় পুরো এলাকায়। এক পর্যায়ে ভীড়ের কারণ জানা গেলো।

মায়ের স্বপ্ন পূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে নিজ গ্রাম কান্দিগ্রামে অাসছেন দুবাই প্রবাসী যুব জমিয়ত নেতা হাফিজ মাশহুদ শিকদার। এমন খবর শোনার পর সকাল থেকে দলইকান্দি মাদ্রাসা সহ অাশপাশ এলাকায় উৎসুক জনতা ভীড় করে। 

স্থানীয়রা জানান, গতকাল শুক্রবার ভোরে সিলেট ওসমানী অান্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি বিমানে দেশে আসেন মাশহুদ শিকদার। মায়ের স্বপ্ন পূরণে আগে থেকে হেলিকপ্টার ভাড়া করা হয়েছে। আর তা প্রস্তুত করতে খরচ হয়েছে দেড় লাখ টাকা। ওসমানী অান্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে হেলিকপ্টারে চড়েন মাশহুদ শিকদারের মা । সকাল সাড়ে ৯টায় গ্রামের বাড়ি কান্দিগ্রামের পথে হেলিকপ্টার যাত্রা করে দলইকান্দি মাদ্রাসা মাঠে অবতরণ করে।

হাফিজ মাশহুদ শিকদার বলেন, ‘খুব কম বয়সে মা-বাবার ইচ্ছায় বিদেশ পাড়ি দিই। ছোট বেলা থেকে আমার ইচ্ছা ছিল মাকে নিয়ে হেলিকপ্টারে আকাশে ওড়াব। সেই ইচ্ছা পূরণ করতে পেরেছি। এটা আমার জীবনে বড় পাওয়া। ’ 


অবশ্যই মাশহুদ শিকদারকেও নিরাশ করেনি তার দলীয়(যুব জমিয়ত) নেতা কর্মীরা। অায়োজন করে বিশাল  সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের।

কান্দিগ্রাম মিফতাহুল উলূম ঈদগাহ মাদ্রাসার হলরুমে    দক্ষিণ বাণীগ্রাম ইউনিয়ন যুব জমিয়ত এ সংবর্ধনার আয়োজন করে।  ইউনিয়ন  যুব জমিয়তের সভাপতি মাওলানা বুরহান উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও  যুব জমিয়ত সেক্রেটারি মাওলানা ফাহাদ উদ্দীনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি'র বক্তব্য দেন সিলেট জেলা জমিয়তের সহ প্রচার সম্পাদক  মাওলানা খলিলুর রহমান।  বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা জমিয়তের যুগ্ন সম্পাদক মাওলানা শামসুল ইসলাম , উপজেলা যুব জমিয়তের সহ-সভাপতি মাওলানা অাব্দুল অাজিজ,সিলেট জেলা যুব জমিয়তের সহ-সভাপতি মাওলানা অাব্দুর রাজ্জাক, উপজেলা জমিয়তের সহ-সভাপতি মাওলানা এখলাছুর রহমান,যুব জমিয়তের প্রচার সম্পাদক মাওলানা ইমরান অাহমদ চৌধুরী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা জমিয়ত নেতা মাওলানা ইয়াহইয়া বদরী,মাওলানা মুশাহিদ,হাফিজ মাহমুদ হোসাইন,হাফিজ তোফায়েল আহমদ,মাওলানা অাশিক,মাওলানা গোলাম কিবরিয়া,মারুফ সারওয়ার চৌধুরী, সুলতান আহমদ, মাওলানা জহির উদ্দিন, মাওলানা বদরুল ইসলাম,নুরুল অাম্বিয়া প্রমুখ।

সংবর্ধনা সভায় ফ্রান্স সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে বিশ্বনবী (সা:) এর অবমাননা ও ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের কঠোর প্রতিবাদ করেন বক্তারা এবং ফরাসি সজল পণ্য বর্জনের আহ্বান করেন তারা।

সভাশেষে সংবর্ধিত অথিতিকে সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রধান করেন উপজেলা যুব জমিয়ত নেতৃবৃন্দ।


কানাইঘাট নিউজ ডটকম /৩০ অক্টোবর  ২০২০






Thursday, October 29

কানাইঘাটে জমিয়তে উলামার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

কানাইঘাটে জমিয়তে উলামার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের প্রতিবাদে কানাইঘাটে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ২টায় জমিয়তে উলামা বাংলাদেশ কানাইঘাট উপজেলা শাখার উদ্দ্যেগে দারুল উলুম দারুল হাদিস মাদ্রাসার মাঠ হতে কয়েক হাজার মানুষ বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ করে কানাইঘাট উত্তর বাজারে এসে এক প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় মাদ্রাসার মুহতামিম আল্লামা মুহাম্মদ বিন ইদ্রিস লক্ষীপুরী হুজুরের সভাপতিত্বে ও মাদ্রাসার শিক্ষক ক্বারী মাওলানা হারুনুর রশিদ চতুলীর পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জমিয়তে উলামা বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির আমীর আল্লামা আলিমুদ্দিন দুর্লভপুরী। প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি বলেন সর্বকালের সর্ব শ্রেষ্ঠ মানব হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ করা, তাকে অবমাননা করা, দুনিয়ার মুসলমান মেনে নিবে না। তিনি ফ্রান্সের সকল পণ্য চিহিৃত করে বর্জন করা সহ সরকারের প্রতি আহবান করে বলেন ফ্রান্সের সাথে সকল ধরনের কুটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করতে হবে। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন জমিয়তে উলামা বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি আল্লামা সামছুদ্দিন, কানাইঘাট বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হেকিম শামীম, মাওলানা রুহুল আমীন আসাদী, মাওলানা আব্দুল্লাহ, মাওলানা মঈন উদ্দিন, মাওলানা বদরুল ইসলাম আল ফারুক, হাফিজ শাহরিয়া, হাফিজ মাওলানা মখসুদ আহমদ, হাফিজ মাওলানা নজির আহমদ। এদিকে বেলা ৪ টায় একই স্থানে বাক স্বাধীনতার নামে ইসলাম ধর্ম অবমাননার প্রতিবাদে বাংলাদেশ ছাত্র যুব ও শ্রমিক অধিকারের ব্যানারে মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এ সময় মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের প্রতিবাদ জানিয়ে তাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র যুব ও শ্রমিক অধিকার কমিটি সিলেট শাহাজালালার বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান, সিলেট জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আখতার হোসেন, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল গফ্ফার প্রমুখ।

Monday, October 26

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক তাহির আর নেই

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক তাহির আর নেই


নিজস্ব প্রতিবেদক:

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি কানাইঘাটের কৃতি সন্তান অধ্যাপক  ডা. মো. তাহির আর নেই(ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার(২৬ অক্টোবর)  সকালে ঢাকা ল্যাবএইড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।

মাসিক অর্থ ও চিকিৎসা বার্তার সম্পাদক সাংবাদিক খায়রুল ইসলাম চৌধুরী তার মৃত্যুর সংবাদ নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সকাল ৮টার দিকে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন  অধ্যাপক  ডা. মো. তাহির । আজ বাদ এশা মরহুমের গ্রামের বাড়ির ছোটদেশ জামে মসজিদে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।


অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ তাহির কানাইঘাট উপজেলার ছোটদেশ গ্রামে ১৯৪২ সালের ১৮ জানুয়ারি মাসে এক সম্ভ্রান্ত  মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা মাওলানা হাবিবুর রহমান ও মাতা মাহমুদা খাতুন।


তিনি ১৯৫৭ সালে সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ১৯৫৯ সালে এমসি কলেজ থেকে এইচএসসি, ১৯৬৪ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস, এর পর তিনি এফসিপিএস ডিগ্রী অর্জন করেন। কর্মজীবনের শুরুতে তিনি রংপুরে চাকরি শুরু করেন।১৯৭৭ সালে বাংলাদেশের সর্ব কনিষ্ঠ অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন। তিনি বিসিপিএস-এর প্রেসিডেন্ট ছিলেন দু’বার, বিএমঅারসি এর চেয়ারম্যান ছিলেন।  সর্বশেষ তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন। একজন সাদা মনের মানুষ হিসেবে সর্বমহলে ছিলেন তিনি সমাদৃত। অালোকিত এই মানুষের মৃতুতে কানাইঘাটে নেমে এসেছে শোকের ছাঁয়া।


কানাইঘাট নিউজ ডটকম /২৬ অক্টোবর ২০২০




Tuesday, October 20

তামাবিলে রড ভর্তি ট্রাকের সাথে অটোরিকশার ধাক্কা, কানাইঘাটের ১জন নিহত

তামাবিলে রড ভর্তি ট্রাকের সাথে অটোরিকশার ধাক্কা, কানাইঘাটের ১জন নিহত


নিজস্ব প্রতিবেদক:

সিলেট-তামাবিল মহাসড়কে একটি রড ভর্তি ট্রাকের সাথে অটোরিকশার(সিএনজি) ধাক্কা লেগে, কানাইঘাটের ১জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। 

মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ৪ জন। সোমবার(১৯ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের হরিপুর পাখিটিকি নামক স্থানে এই দুর্ঘটনা ঘটে।


জানা যায়, সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিলেট শহর থেকে একটি যাত্রিবাহী সিএনজি অটোরিকশা কানাইঘাটে ফিরছিলো । হরিপুর পাখিটিকি এলাকায় পৌঁছার পর অটোরিকশাটি যান্ত্রিক ত্রুটির কারনে আটকে থাকা রড বোঝাই একটি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়েমুচড়ে যায়। এতে চালকসহ ৫জন যাত্রী গুরুত্বর জখম হয়। সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজে নেওয়ার পথে বাহার বেগম নামের এক মহিলার মৃত্যু হয়। তার বাড়ি কানাইঘাট উপজেলার সাতবাঁক ইউনিয়নের জুলাই গ্রামে। 


আহতরা কানাইঘাট পৌর এলাকার নন্দিরাই এলাকার বাসিন্দা বলে জানা যায়। 




Sunday, October 18

আজিজ আহমদ সেলিমের মৃত্যুতে কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের শোক 

আজিজ আহমদ সেলিমের মৃত্যুতে কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের শোক 


নিজস্ব প্রতিবেদক:  

দৈনিক উত্তরপূর্ব পত্রিকার প্রধান সম্পাদক ও সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক দুইবারের সভাপতি এবং বিটিভির সিলেট প্রতিনিধি প্রবীণ সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিমের মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা এবং মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করেছেন কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ। 

এক শোকবার্তায় প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান সেলিম বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন বলেন, আজিজ আহমদ সেলিম সিলেটের সাংবাদিক সমাজের সর্বজন শ্রদ্বেয় একজন অভিভাবক ছিলেন। পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে সিলেটের আত্মসামাজিক উন্নয়নে কাজ করে গিয়ে ছিলেন। তার মৃত্যুতে সাংবাদিকরা সিলেটের একজন নির্ভিক কলম সৈনিককে হারিয়েছে যাহা সহজে পুরন হওয়ার মতো নয়। 


প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নবাগত টিএইচও’র মতবিনিময়

কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নবাগত টিএইচও’র মতবিনিময়


নিজস্ব প্রতিবেদক: 

কানাইঘাট উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নবাগত টিএইচও ডা. অভিজিৎ শর্মা স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। রোববার (১৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টায় তার কার্যালয়ে কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন।

এসময় নবাগত টিএইচও ডা. অভিজিৎ শর্মা বলেন, আমি গত ৮ অক্টোবর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদান করেছি, এর আগে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ছিলাম। দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের সর্বাত্মক সহযোগিতা চাই। হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার মান উন্নয়নসহ সব ধরনের অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে তিনি সর্বাত্মক পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। এক্ষেত্রে সাংবাদিকসহ সকল মহলের সহযোগিতা প্রয়োজন, যাতে করে হাসপাতালের পরিবেশ সুন্দর থাকে এবং সেবা প্রাপ্তিরা সহজে চিকিৎসা নিতে পারেন। হাসপাতালের কোন স্টাফ কোন ধরনের অনিয়ম-দুর্নীতির সাতে জড়িত থাকলে এবং চিকিৎসা সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে অবহেলা করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

মতবিনিময়কালে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ দায়িত্ব পালনকালে টিএইচও অভিজিৎ শর্ম্মাকে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করে বলেন, সম্প্রতি সময়ে গণমাধ্যমে হাসপাতালের অভ্যন্তরে নানা ধরনের অনিয়ম-দুর্নীতি সহ ভুয়া বিল-ভাউচার তৈরি করে সরকারের লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতের সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। এসব দুর্নীতির সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন। হাসপাতালের চিকিৎসা সেবার মান ভালো নয়, নোংরা পরিবেশ বিদ্যমান রয়েছে, তাই চিকিৎসার সেবার মান উন্নয়নে আরও আন্তরিকতার সহিত কাজ করার জন্য সাংবাদিকরা আহ্বান জানান।

ক্লাব নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহ সভাপতি আব্দুন নুর, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক মুমিন রশিদ, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহীন আহমদ, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, কার্যনির্বাহী সদস্য সুজন চন্দ অনুপ, সাংবাদিক মাহফুজ সিদ্দিকী।

মাহবুবুর রব ফয়সলের রোগ মুক্তি কামনায় কানাইঘাটে মিলাদ-দোয়া

মাহবুবুর রব ফয়সলের রোগ মুক্তি কামনায় কানাইঘাটে মিলাদ-দোয়া

 


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক  :: সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য, কানাইঘাটের কৃতি সন্তান মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সলের রোগ মুক্তি কামনায়  মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।


শনিবার বিকেলে কানাইঘাট পৌর শহরের একটি জামে মসজিদে এই মিলাদ ও দোয়া অনুষ্টিত হয়। দোয়ায় মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সলের আশু রোগ মুক্তি কামনা করা হয়।

এসময় উপস্তিত ছিলেন কানাইঘাট পৌর বিএনপির আহবায়ক আবিদুর রহমান, পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য শরিফুল হক, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম, পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য নুরুল হোসেন বুলবুল, মোঃ ইয়াহিয়া,  মোঃ শফিক আহমেদ, জসিম উদ্দিন, জাকারিয়া হাবিব জাকু, হেলাল উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আর এ বাবলু, বিএনপি নেতা আজই মেম্বার, কবির উদ্দিন, মখলিছুর রাহমান, কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক এম এইচ আল আমিন, পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব সদস্য সচিব  সোহেল আহমেদ, কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আক্তার হোসেন, সিহাব আহমেদ মুন্না, ফখরুল ইসলাম ফজু প্রমুখ।    
কানাইঘাটে ডাল কাটতে উঠে গাছেই কিশোরের মৃত্যু

কানাইঘাটে ডাল কাটতে উঠে গাছেই কিশোরের মৃত্যু


নিজস্ব প্রতিবেদক: 

কানাইঘাটে গাছের ডাল কাটার সময় ডালের আঘাতে  এক কিশোরের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। রবিবার (১৮ অক্টোবর) সকালে উপজেলার বড়চতুল ইউনিয়নের মাঝবড়াই গ্রামে  এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটনা ঘটে।

নিহত আসাদ উদ্দিন  (১৭) একই ইউনিয়নের কাদিরগ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,নিহত আসাদ ডাল কাটার জন্য সকালে একটি উচু গাছে উঠে। ডালটি কাটার শেষ পর্যায়ে ডাল ভেঙে তাকে স্বজোরে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। 


ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কানাইঘাট নিউজ ডটকম /১৮ অক্টোবর ২০২০

Saturday, October 17

কানাইঘাটে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের ঘটনায় মামলা

কানাইঘাটে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের ঘটনায় মামলা

 


নিজস্ব প্রতিবেদক :

কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের কালিনগর আগফৌদ গ্রামে গত বৃহস্পতিবার রাতে স্বামীর হাতে স্ত্রী ফাতেমা বেগম খুনের ঘটনায় কানাইঘাট থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহতের মা কালিনগর আগফৌদ গ্রামের আব্দুল খালিকের স্ত্রী জলিকা বেগম বাদী হয়ে গত শুক্রবার থানায় এ হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ফাতেমা বেগমের পলাতক স্বামী মরম আলীর নাম উল্লেখ করে আরো ৩/৪ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। থানার মামলা নং- ২২, তারিখ- ১৭/১০/২০২০ইং। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ফাতেমা বেগমের লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার রাতে যে কোন সময় ফাতেমার লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই সঞ্জিত কুমার জানিয়েছেন। 

এদিকে ফাতেমা বেগম খুন হওয়ার পর থেকে তার স্বামী মরম আলী পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতার করার জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটনের জন্য কয়েকজনকে পুলিশ আটক করে জিজ্ঞাসাবাদও করেছে বলে জানা গেছে।  

প্রসজ্ঞত যে, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহের জের ধরে গত বৃহস্পতিবার রাতে ফাতেমা বেগমকে তার পিত্রালয়ে আলাদা ঘরে শ^াসরুদ্ধ করে হত্যার করে পালিয়ে যায় তার স্বামী একই গ্রামের জালাল উদ্দিনের পুত্র মরম আলী। শুক্রবার সকালে ঘটনার খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও সিলেট সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিটের একটি দল ফাতেমার লাশ উদ্ধার করে। ফাতেমার শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায় এবং তার মুখ ও কান দিয়ে রক্ত বের হতে দেখা গেছে। এ হত্যাকান্ডের সাথে ফাতেমা বেগমের স্বামী মরম আলী ছাড়াও আর কেউ জড়িত রয়েছেন কি না সেটাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এলাকার অনেকে বলছেন প্রায় এক বছর পূর্বে অন্য স্বামীর ঘর থেকে পালিয়ে এনে ফাতেমা বেগমকে বিয়ে করে মামাতো ভাই মরম আলী। বিয়ের পর থেকে মরম আলী তার বাড়ি ছেড়ে শ^শুড় বাড়িতে আলাদ ঘরে ফাতেমাকে নিয়ে বসবাস করত। বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে ঝগড়া-ঝাটি লেগে থাকতো।

Friday, October 16

কানাইঘাটে জবাই নয়, শ্বাসরুদ্ধে হত্যা করা হয়েছে গৃহবধূকে

কানাইঘাটে জবাই নয়, শ্বাসরুদ্ধে হত্যা করা হয়েছে গৃহবধূকে


নিজস্ব প্রতিবেদক:

সিলেটের কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের কালিনগর আগফৌদ গ্রামে স্বামীর হাতে খুন হয়েছেন ফাতেমা বেগম নামের এক গৃহবধু। 

গত বৃস্পতিবার রাত ১১ টার পর যে কোন সময়ে এ হত্যাকান্ডটি সংঘটিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম। এ হত্যাকান্ডের সাথে ফাতেমা বেগমের স্বামী মহরম আলী (২৭) ছাড়াও আরো কেউ জড়িত রয়েছে কিনা এবং কি কারনে ফাতেমাকে হত্যা করা হয়েছে তা তদন্ত করে বের করা হবে ওসি জানান। 


হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে কানাইঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল করিম ও থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম ঘটনাস্থলে যান কিন্তু তারা লাশ উদ্ধার করেনি। এক পর্যায়ে বিকাল ২টার দিকে ফাতেমা হত্যাকান্ডের আলামত সংগ্রহ করার জন্য পুলিশের অধিকতর অপরাধ (সিআইডি) ক্রাইমসিন   ইউনিটের   সিলেটের   একটি   দল   ঘটনাস্থলে   এসে   ফাতেমার   লাশের   প্রাথমিক সুরতহাল   রির্পোট   তৈরী   সহ   বেশ   কিছু   আলামত   জব্দ   করেন।   ক্রাইম   সিন   দলের পাশাপাশি থানা পুলিশও পৃথক সুরতহাল রির্পোট তৈরী করে তার লাশ উদ্ধার করে সিলেট ওমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, একটি পাকা ঘরের মেঝেতে ফাতেমা বেগমের মৃত দেহ পাওয়া যায় এবং মেঝেতে জমাট বাধা রক্তের দাগও ঘরের বিছানা সহ আসবাব পত্র এলামেলো ভাবে পাওয়া যায়। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাতেমা বেগমকে তার স্বামী মহরম আলী গলা কেটে হত্যা করেছে বলে প্রচারকরা হচ্ছে তা একেবারে সত্য নয়। কোন কিছু সঠিকভাবে জানার আগে গুজব ছড়ানো হয়। তিনি বলেন ফাতেমা বেগমের ডান চোখের নিচে এবং বাম চোখের পাশে এবং গলায়নখের আচাড় সহ আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার মুখ ও কান দিয়ে রক্ত বের হয়েছিল। ধারনা করাহচ্ছে ফাতেমা বেগমকে শ^াসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারনা করছে পুলিশ। তবেময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর কিভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে তার কারন যাবে বলেওসি শামসুদ্দোহা জানান।এদিকে   সরেজমিনে   ঘটনাস্থলে   গেলে   স্থানীয়   লোকজন   জানান,   কালীনগর   আগফৌদ গ্রামের আব্দুল খালিকের মেয়ে ফাতেমা বেগমের সাথে একই গ্রামের জলাল উদ্দিনের পুত্র মামাতো ভাই ট্র্যাক্টর চালক মরম আলীর বিয়ে বছর খানেক পূর্বে হয়। বিয়ের পর থেকেশ^শুড়বাড়িতে আলাদা একটি পাকা ঘরে স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করত মরম আলী। বিয়ের পরথেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়াঝাটি লেগে থাকতো, অনেকবার সামাজিক ভাবেস্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া মিমাংসা করা হয় বলে সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল খালিক সহআরো   অনেকে   জানান।   ফাতেমা   বেগমের   মা   জলিকা   বেগমও   বলেন   তার   মেয়ের   সাথেস্বামীর ঝগড়া সব-সময় লেগেই থাকতো। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকেতারা ঘুমিয়ে যান। পরদিন শুক্রবার সকাল বেলা মরম আলীর বাড়ির কয়েকজন মহিলা আমার বাড়িতে এসে বলেন, আমার মেয়ে ফাতেমা নাকি অসুস্থ। একপর্যায়ে তাদের বসত ঘরেরদরজায় এসে ডাকাডাকি করলে আমার মেয়ে ফাতেমা ও তার স্বামীর কোন সাড়া-শব্দ নাপেয়ে দরজায় ধাক্কা দিলে দরজা খুলে যায় এবং ঘরের মেঝেতে আমার মেয়ের রক্তাক্ত লাশ দেখতেপাই, কিন্তু তার স্বামীকে ঘরে দেখা যায়নি। স্ত্রীকে খুন করার পর থেকে মরম আলী পলাতকরয়েছে। তবে পুলিশ মরম আলীকে আটক করার জন্য বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে।এলাকার আরো অনেকে বলছেন মামাতো ভাই  মরম   আলীর   সাথে বিয়ে হওয়ার  পূর্বেফাতেমা বেগমের অন্যত্র একটি বিয়ে হয়েছিল। সেই ঘরে ফাতেমার ছেলে সন্তান রয়েছেজানা গেছে। এ ঘটনায় থানায় নিহতের মা জলিকা বেগম বাদী হয়ে মেয়ের জামাই মরমআলীর বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

কানাইঘাটে স্ত্রীকে হত্যা করে পালালেন স্বামী

কানাইঘাটে স্ত্রীকে হত্যা করে পালালেন স্বামী

 


নিজস্ব প্রতিবেদক  :

কানাইঘাট উপজেলার কালিনগর গ্রামে ফাতিমা বেগম নামে এক গৃহবধূকে স্বামী কতৃক হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর থেকে স্বামী মরম আলী পলাতক রয়েছে। 

খবর পেয়ে সকাল থেকে ঘটনাস্থলে রয়েছেন কানাইঘাট সার্কেলের সিনিয়র এএসপি অাব্দুল করিম ও  থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম ।


এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে  পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ক্রাইম সিন ইউনিটের একটি দল। তাঁরা নিশ্চিত করবে ফাতেমা বেগমকে কিভাবে হত্যা করা হয়েছে।


কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।


Wednesday, October 14

কানাইঘাটের বড়দেশ বাজারে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং উদ্বোধন

কানাইঘাটের বড়দেশ বাজারে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং উদ্বোধন

 


নিজস্ব প্রতিবেদক :

কানাইঘাট উপজেলার বড়দেশ বাজারে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এর এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট শাখার উদ্বোধন হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২ টায় বাজারের হাজী রফিক মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় আউটলেট শাখার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সিলেট জোন প্রধান শিকদার মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিন।

ইসলামী ব্যাংকের কানাইঘাট শাখা প্রধান মোঃ সোলাইমানের সভাপতিত্বে ও বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাহেদ অাহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন আউটলেট শাখার এজেন্ট হাজী রফিক উদ্দিন। প্রধান মেহমান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সাংসদ মাওলানা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী,প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মোমিন চৌধুরী।  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল্লাহ শাকির, স্থানীয় ইউপি সদস্য এবাদুর রহমান,মাওলানা সামছুল হুুদা,ডাঃইয়াকুব অালী,হাফিজ মাওলানা অাফতাব উদ্দিন,মাস্টার সৈয়দ অাহমদ। এছাড়াও স্থানীয় ব্যবসায়ী, পেশাজীবী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। বড়দেশ বাজারে ইসলামী ব্যাংক এর এজেন্ট ব্যাংকিং শাখা পরিচালনার ক্ষেত্রে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন আউটলেট শাখার এজেন্ট হাজী রফিক উদ্দিন ও নুরুল অালম ফারুকী। উদ্বোধন শেষে দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা হুদুর রহমান।