Thursday, September 28

কানাইঘাট অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ড্রেজার-বলগেট জব্দ


নিজস্ব প্রতিবেদক: বৃহস্পতিবার কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির ভয়াবহ নদী ভাঙ্গন কবলিত সুরমা নদীর তালবাড়ী বাজার, তালবাড়ী গ্রাম সহ আশপাশ এলাকা অবৈধভাবে অর্ধশতাধিক ড্রেজারের সাহায্যে প্রভাবশালী জাবের আশরাফ চৌধুরী কর্তৃক বালু উত্তোলনের ঘটনায় সেখানে অভিযান চালিয়েছে কানাইঘাট থানা পুলিশ। স্থানীয় প্রশাসনের বাঁধা নিষেধ উপেক্ষা করে দীর্ঘদিন ধরে একাধিক শক্তিশালী ড্রেজার মেশিন দিয়ে লীজ বর্হিভূত সুরমা নদীর তালবাড়ী এলাকা থেকে জাবের আশরাফ চৌধুরী গং কর্তৃক বালু উত্তোলনের দায়ে সরকার একদিকে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অপরদিকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের দায়ে নদীর তীরবর্তী বাড়ীঘর সুরমা ডাইক, বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তালবাড়ী বাজারের তৃতীয়াংশ নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় গত বুধবার স্থানীয় তহশীল অফিসের তহশীলদার জাহেদ আহমদ জাবের আশরাফ চৌধুরীকে আসামী করে কানাইঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ অভিযোগটি রেকর্ড করে। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের নির্দেশে থানার এস.আই স্বপন চন্দ্র সরকার একদল পুলিশ নিয়ে সুরমা নদীর তালবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলনের একটি শক্তিশালী ড্রেজার মেশিন ও একটি বলগেট নৌকা আটক করেন। পুলিশের অভিযান টের পেয়ে জাবের আশরাফ চৌধুরীর নেতৃত্বে বালু উত্তোলনের ড্রেজার ও বলগেট নৌকাগুলো এলাকা থেকে নদীপথে দিয়ে অন্যত্র সরিয়ে ফেলে বলে স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন। পুলিশ সেখানে দিনভর অবস্থান করে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ বালু উত্তোলনের সাথে জড়িত স্থানীয় তালবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা জাবের আশরাফ চৌধুরী ও তার সহযোগী আলী আখতার রুমি সহ অবৈধ বালু উত্তোলনের সাথে জড়িতদের আটকের জন্য অভিযান চালালেও পুলিশ কাউকে কাউকে আটক করতে পারেনি। সুরমা নদীর মারাত্মক ভাঙ্গন কবলিত তালবাড়ী এলাকা থেকে কেউ যাতে বালু উত্তোলন করতে না পারে সেজন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে থানার ওসি আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন। স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন, অবৈধ ভাবে সুরমা নদীর ভাঙ্গন কবলিত ড্রেজার দিয়ে তান্ডব চালিয়ে জনগনের জানমালের ক্ষতিসাধনের ঘটনার নায়ক জাবের আশরাফ চৌধুরী এ পর্যন্ত কোটি কোটি টাকার বালু উত্তোলন করে নদীপথে অন্যত্র বিক্রি করলেও সরকারের বিপুল রাজস্ব ফাঁকির ঘটনায় তার বিরুদ্ধে অদ্যবধি পর্যন্ত কোন মামলা করা হয়নি, যার কারণে জাবের আশরাফ চৌধুরী প্রশাসনকে কোন ধরনের তোয়াক্কা না করে বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে। শুধুমাত্র আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের লোকজন মাঝেমধ্যে সেখানে অভিযান করে বালু উত্তোলন বন্ধ করা সম্ভব হবে না বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। পূর্বে কয়েকবার প্রশাসন সেখানে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের জন্য অভিযান করলেও চতুর জাবের আশরাফ চৌধুরী গংরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বালু উত্তোলন করে থাকে। নদী ভাঙ্গন কবলিত তালবাড়ী পূর্ব ও পশ্চিম গ্রাম, খালপার গ্রাম সহ সুরমা নদীর উভয় অংশের ভাঙ্গন বন্ধ করতে হলে সেখানে নিয়মিত ভাবে প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রাখা এবং জাবের আশরাফ চৌধুরীকে গ্রেফতার ও তার কোটি কোটি টাকার আয়ের উৎস ড্রেজার ও বলগেট নৌকাগুলি জব্দ করতে হবে। সেই সাথে তার বিরুদ্ধে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে পৃথক মামলা দায়েরের আহ্বান জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক