Wednesday, October 31

কানাইঘাট মেছার চরে জমি দখল নিয়ে দু'পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের মেছার চরে প্রায় ৩ একর ভূমির মালিকানা নিয়ে ২ পক্ষের মধ্যে সম্প্রতি সংঘর্ষের পর পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের ও বিরোধপূর্ণ ভূমির একাংশে রাতের বেলা টিনশেডের ঘর নির্মাণ নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মেছা গ্রামের মৃত আবু বক্করের পুত্র আব্দুল মতিন গং এবং সাউদগ্রামের হাজী বিলাল আহমদ ও চরিপাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা নজমুল হক গংরা পাল্টাপাল্টি উক্ত ভূমির মালিকানা দাবী করে আসছেন। 

গত মঙ্গলবার গভীর রাতে আব্দুল মতিন গংরা বিরোধপূর্ণ ভূমির একখন্ডে টিনশেডের একটি ঘর ও বেশ কিছু কলাগাছ রোপন করলে নতুন করে ২ পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। 

বিরোধপূর্ণ ভূমি পৈত্রিক সম্পত্তি দাবী করে সেখানে মতিন গংরা কর্তৃক রাতের বেলা অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে টিনশেডের ঘর নির্মাণ করায় বীর মুক্তিযোদ্ধা নজমুল হক বাদী হয়ে অাজ বুধবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে আব্দুল মতিন গংদের ১৫ জন কে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

মুক্তিযোদ্ধা নজমুল হক ও তার ভাই হাজী বিলাল জানিয়েছেন, জমির দখলদার ও মালিক তারা। জোরপূর্বক ভাবে আব্দুল মতিন গংরা তাদের জমি দখল করে নিচ্ছে।

অপর দিকে আব্দুল মতিন গংরা জানিয়েছেন, খরিদা ও পৈত্রিক সূত্রে তারা বিরোধপূর্ণ ভূমির মালিক হয়ে র্দীঘদিন ধরে শান্তিপূর্ণ ভাবে ফসল লাগিয়ে ভোগ দখলে আছেন। তাদের কে ভূমি থেকে বিতাড়িত করার জন্য হাজী বিলাল গংরা নানা ভাবে পায়তারা করে আসছে। তাদের দখলকৃত ভূমির একাংশে ঘর নির্মাণ করছেন বিলাল গংদের জমি তারা দখল করেননি। 

স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন, বিরোধপূর্ণ ৩ একর ভূমির অনেক জায়গা সরকারি খতিয়ানের। লোভা নদীর তীরঘেষা উক্ত ভূমির মাটির নিচে পাথরের মওজুদ থাকায় দখল নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।

কানাইঘাট নিউজ ডটকম/৩১ অক্টাবর ২০১৮

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক