Tuesday, April 24

কানাইঘাটে ইউএনও'র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানার হস্তক্ষেপে কানাইঘাট থানা পুলিশ বীরদল এন.এম একাডেমির ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী কুলসুমা আক্তার জেসমিন (১৪) এর বাল্যবিয়ে পন্ড করে দিয়েছে। মঙ্গলবার কানাইঘাট সদর ইউ.পির বীরদল ভাড়ারীফৌদ গ্রামের খসরু মিয়ার মেয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির একই উপজেলার ঢাকনাইল দক্ষিন রসুলপুর গ্রামের সুরুজ আলীর পুত্র রুহেল আহমদের সাথে মহা ধুমধামে বিবাহর আয়োজন ছিল। বিয়ে উপলক্ষ্যে যথারীতি দাওয়াতপত্র বিলি ও কানাইঘাট আল-রিয়াদ কমিউনিটি সেন্টারে বর কনের আগমন উপলক্ষ্যে দুপুরে প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। সবকিছু যখন টিকটাক কনে ও বরের বাড়িতে আনন্দ উৎসব বিরাজ করছিল কিন্তু ঠিক সেই মূহুর্তে বিয়ের দিন আজ মঙ্গলবার সকাল বেলায় নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা ষষ্ঠ শ্রেনির ছাত্রী কুলসুমা আক্তার জেসমিনের বাল্যবিবাহের সংবাদ পেয়ে বিয়েটি পন্ড করে দেওয়ার জন্য কানাইঘাট থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন। তাৎক্ষনিক সকাল সাড়ে ৯টার দিকে থানার এসআই আবু কাওছার একদল পুলিশ নিয়ে প্রথমে এনএম একাডেমি স্কুলে যান। শিক্ষকদের কাছ থেকে নিশ্চিত হন কুলসুমা আক্তার তাদের প্রতিষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণির একজন নিয়মিত ছাত্রী। পরে পুলিশ অফিসার আবু কাওছার স্কুলের সহকারী শিক্ষক শাহাব উদ্দিনকে সাথে নিয়ে ছাত্রীটির বাড়িতে গিয়ে তার বাবা খসরু মিয়ার সাথে কথা বলে তার মেয়ের বাল্য বিবাহ বন্ধ করার নির্দেশ দেন। তা না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে জানালে খসরু মিয়া মেয়ের বাল্যবিবাহ দিবেন না বলে মুচলেকা প্রদান করেন বলে এসআই আবু কাওছার জানিয়েছেন। 

কানাইঘাট নিউজ ডট.কম/২৪ এপ্রিল।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক