Friday, November 24

ইসলামে ঈদে মিলাদুন্নবী বলে তৃতীয় কোনো ঈদ নেই---মাওলানা মুস্তাক আহমদ খাঁন


মুজাহিদুল ইসলাম:
আধ্যাত্মিক রাজধানী খ্যাত সিলেটের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মুস্তাক আহমদ খাঁন বেদাতীদের উদ্দেশ্যে ওপেন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বলেন- ইসলামে ঈদে মিলাদুন্নবী বলে তৃতীয় কোনো ঈদ নেই। যদি তোমরা রাসূল (সঃ) এর ২৩ বছরের নবুওয়াতের জিন্দেগীতে ঈদে মিলাদুন্নবী পালনের কোনো প্রমাণ দেখাতে পারো তাহলে আমি গরিবের পক্ষ থেকে এক লক্ষ টাকা পুরস্কার দিবো। আর যদি প্রমাণ করার হিম্মত থাকে তাহলে প্রয়োজনীয় দলীল কিতাব নিয়ে আগামী শুক্রবার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে এসো। কিতাব ছাড়া এসে গুনগুন করলে পিঠ রেডি করে এসো। আজ (২৪ নভেম্বর) শুক্রবার সিলেট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের জুমার বয়ানে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি আরো বলেন- ১২ই রবিউল আউয়াল তারিখে নবীজির জন্ম নিয়ে মতানৈক্য আছে কিন্তু ঐতিহাসিকদের মতে ইন্তেকালের তারিখ (১২ই রবিউল আওয়াল) নিয়ে কোনো এখতেলাফ নেই।সুতরাং ১২ই রবিউল আওয়াল ঢাকঢোল বাজিয়ে শুধু জন্ম তারিখ উদযাপন করে হালওয়া রুটি খেয়ে আনন্দ উল্লাস করা ইহুদী নাসারাদের পদাঙ্ক অনুসরণ করা ছাড়া আর কিছুই নয়। তখন মসজিদে উপস্থিত হাজার হাজার মুসল্লীয়ানে কেরাম খতীব সাহেবের ওপেন চ্যালেঞ্জকে স্বাগত জানিয়ে একাত্মতা ঘোষণা করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কেন্দ্রীয় মসজিদের এক মুসল্লির সাথে হুজুরের বক্তব্য নিয়ে অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন- এতোদিন পর আমাদের খতীব সাহেব ঠিকমতো ওপেন চ্যালেঞ্জ করেছেন। আমি তাঁর চ্যালেঞ্জকে মোবারকবাদ জানাই। আরেক মুসল্লি বলেন- আমাদের নবী জন্মদিন পালন করতেন শুকরিয়াতান রোযা রেখে ও এবাদত বন্দেগী করে। কিন্তু বেদাতীরা এইদিন পালন করে খৃষ্টীয় শুভাযাত্রার মত র‍্যালী ও জাঁকজমকপূর্ণ বিভিন্ন আয়োজন করে। এখানেও তো তারা নবীর বিরোধীতা করলো! সবশেষে সিলেটের মুসল্লীরা তাকিয়ে আছে ঈদে মিলাদুন্নবী আয়োজকদের দিকে। তারা কি খতীব সাহেবের লক্ষ টাকার ওপেন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করবে নাকি টালবাহানা করে এড়িয়ে যাবে?
সূত্র: উকাব টোয়েন্টিফোর

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক