Wednesday, June 13

কানাইঘাটে আকস্মিক বন্যায় তলিয়ে গেছে নিম্নাঞ্চল,সুরমা ডাইকে ফাটল

নিজস্ব প্রতিবেদক: গত ২ দিন থেকে ভারী বৃষ্টিপাত ও ভারতের মেঘালয় রাজ্যের উজান থেকে নেমে আসা আকষ্মিক পাহাড়ী তীব্র ঢলে কানাইঘাট সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ১৩৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বুধবার সকাল ৬টার দিকে আকষ্মিক ভাবে উজান থেকে তীব্র বেগে পাহাড়ী ঢল লোভা ও সুরমা নদী দিয়ে প্রবাহিত হলে পানির তুড়ে উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা তলিয়ে যায়। হঠাৎ করে তীব্র বেগে পাহাড়ী ঢল নেমে আসায় সুরমা ও লোভা নদীর তীরবর্তী বসবাসরত মানুষের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পাহাড়ী ঢলের কারণে কানাইঘাট বাজারে গলিপথে পানি ঢুকে পড়ে। বিভিন্ন জায়গায় সুরমা নদীর ডাইক আংশিক ভেঙ্গে গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট ও বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে পানি ঢুকে পড়েছে। মারাত্মক ভাবে নদী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। তবে বুধবার সকালে যে ভাবে পানি বৃদ্ধি পেয়েছিল সন্ধ্যার দিকে পানি অনেকটা কমে যাওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন লোকজন। বিকেল ৪টার দিকে বিপদ সীমার প্রায় দেড়শ কিঃমিঃ উপর দিয়ে সুরমা নদীর পানি প্রবাহিত হচ্ছিল। যাহা সন্ধ্যার দিকে ১৩৫ সেন্টিমিটারে নেমে আসে। আকষ্মিক এ পাহাড়ী ঢলে মৎস্য সেক্টরে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়েছে। লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ও লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপির বেশ কিছু গ্রাম ও কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে পড়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা ও এসিল্যান্ড লুসিকান্ত
হাজং সার্বিক পরিস্থিতি দেখার জন্য কানাইঘাট বাজার, গৌরিপুর সুরমা ডাইক ও লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। পাহাড়ী ঢলের কারণে সুরমা নদীর ডান তীর এলাকায় বিভিন্ন স্থানে ভয়াভহ ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে অনেক এলাকায়  পানি ঢুকে পড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়েছে বলে জনপ্রতিনিধিরা জানিয়েছেন। লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান জেমস লিওফারুগুশন "কানাইঘাট নিউজকে" জানান তার ইউনিয়নের লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম, উত্তর লক্ষীপ্রসাদ, মেছা, নিহালপুর, পূর্ব কুওরেরমাটি, রাজার মাটি, হালাবাদি, আগফৌদ সহ কয়েকটি এলাকায় পানি ঢুকে পড়েছে। লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপি চেয়ারম্যান ফয়েজ আহমদ জানিয়েছেন, মূলত তার ইউনিয়নের লোভা নদী দিয়ে উজান থেকে পাহাড়ী ঢল নেমে আসায় বিস্তীর্ণ এলাকায় হঠাৎ করে বন্যা দেখা দিয়েছে। হাওর অঞ্চলে মৎস্য খামার গুলো ডুবে গেছে। মূলাগুল বাজার, সাউদগ্রাম, মেছা, ভালুকমারা সহ কয়েকটি এলাকা তলিয়ে গেছে। কানাইঘাট সদর ইউপির মারাত্মক নদী ভাঙ্গন কবলিত ভাটিদিহি গ্রামের ফয়জুর রহমানের বাড়ির পাশে সুরমা ডাইক ভেঙ্গে তীব্র বেগে পানি এলাকায় ঢুকে পড়েছে। সদর ইউপির ছোটদেশ, গোসাইনপুর, সোনাপুর, সতিপুর এলাকার বিভিন্ন স্থানে সুরমা ডাইকে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। পৌরসভার বায়মপুর, গৌরিপুর, রামপুর, বানীগ্রাম ইউপির চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ জানিয়েছেন, তার ইউনিয়নের সর্দারমাটি সুরমা ডাইকের বিশাল এলাকা ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে। যে কোন সময় ডাইকটি সম্পূর্ণ ভাবে ভেঙ্গে এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হতে পারে। এছাড়া তার ইউপির বাহ্মণগ্রাম ও বড়দেশ গ্রামের সুরমা ডাইকের কয়েকটি জায়গায় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে বলে জানান। রাজাগঞ্জ ইউপির চেয়ারম্যান ফয়েজ আহমদ জানান, তার ইউপির অধিকাংশ গ্রাম সুরমা ডাইকের পাশে অবস্থিত এবং নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা। আকষ্মিক পাহাড়ী ঢলে ইউপির রাজাগঞ্জ, ফালজুর, বীরদল, ধাওয়াধরি, বৃহত্তর তালবাড়ী, খালোপার, খোয়াজপুর, ভাটার খাল এলাকায় সুরমা ডাইকের বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে বলে জানান। তাছাড়া দিঘীরপার পূর্ব ইউপির দর্পনগর, সাতবাঁক ইউপির চরিপাড়া এলাকায় সুরমা ডাইকের কয়েকটি স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে বলে জানা গেছে। জনপ্রতিনিধি ও নদীর তীরবর্তী এলাকায় বসবাসরত লোকজন জরুরী ভিত্তিতে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন।

কানাইঘাট নিউজ ডটকম/১৩জুন ২০১৮ ইং

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক