Sunday, March 17

জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী মোমিন-পলাশ


নিজস্ব প্রতিবেদক: আর মাত্র কয়েক ঘন্টা বাকি, রাত পোহালেই ভোট।
কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর করতে সবধরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে প্রশাসন । 

সোমবার (১৮ মার্চ) ভোট গ্রহণ চলবে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। 
ইতিমধ্যে ভোট কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে নির্বাচনী যাবতীয় সরঞ্জামাদি। 

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কে বিজয়ী হবেন,শেষ হাসি কার মুখে ফুটবে এ নিয়ে চলছে ভোটারদের মধ্যে চুলচেরা বিশ্লেষণ।

তবে উপজেলা পরিষদের এ নির্বাচনে নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মোমিন চৌধুরী ও দলের (বিদ্রোহী) স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মস্তাক আহমদ পলাশ বিজয়ের ব্যাপারে দু'জনই শতভাগ আশা ব্যক্ত করেছেন।


নৌকার প্রার্থী আব্দুল মোমিন চৌধুরী জানান, উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার যেখানে তিনি নির্বাচনী প্রচারণায় ছিলেন সর্বত্র দলমত নির্বিশেষে সবাই তার প্রতি সমর্থন জানিয়েছে। 

তিনি বলেন, উপজেলা পরিষদের নির্বাচন হচ্ছে একটি স্থানীয় সরকারের নির্বাচন। আমি বিগত ৪০ বছর ধরে একজন প্রবাসী রাজনৈতিক কর্মী হিসাবে সুখ-দুঃখে কানাইঘাটের মানুষের পাশে ছিলাম। সাধ্য অনুযায়ী এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে কাজ করেছি। প্রবাসের উপার্জনের একটি বড় অংশ এলাকার গরীব-দুঃখী মানুষের জন্য বিলিয়ে দিয়েছি। খেটে-খাওয়া মানুষের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক রয়েছে। রাজনীতি করি মানুষের কল্যাণের জন্য। কানাইঘাটবাসীর পাশে থেকে এলাকার উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড স্বচ্ছতার জবাবদিহিতার মাধ্যমে এগিয়ে নিতে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছি। যেহেতু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আমি সেই দলের একজন প্রার্থী হিসেবে দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচনে দাড়িয়েছি। আমার বিশ্বাস ভোটাররা আমার উপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখে দলমতের উর্ধ্বে উঠে নৌকা মার্কায় তাদের সুচিন্তিত মতামত ব্যক্ত করবেন। মুমিন চৌধুরী বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, প্রতিটি এলাকায় যে ভাবে মানুষ আমার প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতা করেছে ইনশাআল্লাহ নৌকা মার্কার বিশাল বিজয় সাধিত হবে। কানাইঘাটবাসী ন্যায়ের পক্ষে দূর্নীতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে তাদের মহা মূল্যবান ভোট প্রদান করবেন।

অপর দিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মস্তাক আহমদ পলাশ নির্বাচনী অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, আমি কানাইঘাটের মানুষের কাছে ঋণী হয়ে গেলাম। যেখানেই নির্বাচনী প্রচারে গিয়েছিলাম সেখানেই সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামছিলো। মটর সাইকেল মার্কার বিজয় সময়ের ব্যাপার মাত্র।  কোন ধরনের ষড়যন্ত্র ও অপ-প্রচার করে মটর সাইকেলের বিজয় কেউ ছিনিয়ে নিতে পারবে না ইনশাআল্লাহ। জনগণ তাদের ভোট রক্ষা করবেন। উপজেলার ৬০/৬৫ টি ভোট সেন্টারে মটর সাইকেল বিজয়ী হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 
পলাশ আরো বলেন,আমি মানুষের সেই ভালোবাসার প্রতিদান দিতে চাই। আমার একটাই স্বপ্ন কানাইঘাটকে একটি উন্নত আধুনিক ডিজিটাল উপজেলায় পরিণত করা। সেই লক্ষ্য নিয়ে সকলের সমর্থন ও সহযোগিতা নিয়ে নিবাচনে দাড়িয়েছি। আমি ৩বার সাতবাঁক ইউপির চেয়ারম্যান ছিলাম। উন্নয়ন কর্মকান্ড কিভাবে  করতে হয় আমার অভিজ্ঞতা রয়েছে। ভোটাররা সেটি বিবেচনা করে আমি উন্নয়ন করতে পারব যার জন্য দলমতের উর্ধ্বে উঠে সবাই আমাকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। তিনি যদি নির্বাচিত হন তাহলে কানাইঘাটে কোন ধরনের অন্যায় কর্মকান্ড করতে দিবেন না। রাজনৈতিক সম্প্রীতি গড়ে তুলবেন। সবাইকে নিয়ে কানাইঘাট কে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাবেন।  

কানাইঘাট নিউজ ডটকম/১৭ মার্চ ২০১৯ ইং

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক