Wednesday, October 10

বিশ্ব মনোবিজ্ঞানীদের কংগ্রেসে কী-নোট স্পিকার কুলাউড়ার ডা. সাঈদ এনাম

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক:
বিশ্ব মনোবিজ্ঞানীদের সম্মেলনে কী-নোট স্পিকার হিসেবে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার ডা. সাঈদ এনাম। 

তিনি বর্তমানে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ছাড়াও ওই সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ জোবায়ের মিয়া।

আগামী ১৮, ১৯ অক্টোবর জাপানের টোকিওতে ১৯তম আন্তর্জাতিক সাইকিয়াট্রি অ্যান্ড সাইকিয়াট্রিক ডিসওর্ডার কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হবে। এর আয়োজক এলাইড একাডেমী স্কলার্স। এলাইড একাডেমি সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নানান মেডিকেল বিষয়ে অভিজ্ঞ স্কলারদের নিয়ে প্রতিবছর এ রকম ইন্টারন্যাশনাল কংগ্রেসের আয়োজন করে থাকে।

আন্তর্জাতিক এই কংগ্রেসে কী-নোট স্পিকার হিসাবে বাংলাদেশের সাইকিয়াট্রিস্ট ডা. সাঈদ এনাম ব্রেইন স্ট্রোক এন্ড ডিপ্রেশন নিয়ে তার গবেষণা তুলে ধরবেন। আর ডা. জোবায়ের মিয়া এপিলেপ্সী বা মৃগী রোগ বিষয়ে তার গবেষণা বিশ্ব মনোবিজ্ঞানীদের এ আসরে তুলে ধরবেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ডা. সাঈদ এনাম বলেন, প্রথম যেদিন তারা আমার গবেষণা পড়ে মেইল করলো এবং রিভিউ কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে কী নোট স্পিকার মনোনয়নের, আমার বিশ্বাস হয়নি। সত্যি বলতে কি তখন আমি আমার পুরো গবেষণাটি পুনরায় একবার সারা রাত জেগে রিডিং দিয়েছিলাম। বিষয়টি আমার গবেষণার গাইড সাইকিয়াট্রির অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকর দে স্যার ও কো-গাইড নিউরোমেডিসিনের প্রখ্যাত অধ্যাপক ডা. মতিউর রহমান স্যারকে জানাই। দেশের প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণ করা সত্যি গর্বের। আমি দেশবাসীর কাছে দোয়াপ্রার্থী।

প্রসঙ্গত, ডা. সাঈদ এনাম ইউরোপিয়ান সাইকিয়াট্রিক এসোসিয়েশনের একজন মেম্বার। চলতি বছরের ডিসেম্বরে আমেরিকার লস এঞ্জেলস এ তাঁর ওয়ার্ল্ড সাইকোলজি এন্ড সাইকিয়াট্রি কনফারেন্স,  ২০১৯ সালের এপ্রিলে লন্ডনে অনুষ্ঠিতব্য মেন্টাল হেলথ কনফারেন্সে অস্ট্রিয়া, ভিয়েনায় স্লিপ কংগ্রেসে  তাঁর স্পিকার হিসেবে অংশগ্রহণ করার সম্ভাবনা রয়েছে।

সাইকিয়াট্রিস্ট ডা. সাঈদ এনামের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নের বেড়কুড়ি গ্রাম। তিনি ১৯৯১ সালে কুলাউড়া এন সি হাইস্কুল থেকে এস.এস.সি পরীক্ষায় প্রথম বিভাগ ও ১৯৯৩ সালে সিলেটের এম সি কলেজ থেকে এইচ.এস.সি পরীক্ষায় প্রথম বিভাগ নিয়ে পাশ করেন। ২০০২ সালে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। পরে তিনি সাইকিয়াট্রি বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি বিসিএস ২৪তম ব্যাচে উত্তীর্ণ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এরই মধ্যে তিনি ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে মানসিক রোগ বিষয়ে সেমিনারে অংশ নেন। তিনি যুগান্তরসহ বিভিন্ন পত্রিকার একজন নিয়মিত লেখক। মনোরোগ বিষয় তার বিভিন্ন প্রবন্ধ ও গল্প ইতিমধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

একই সম্মেলনে অংশ নেয়া ডা. জোবায়ের মিয়া ২০০০ সালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করে সাইকিয়াট্রি বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি লাভ করেন। তিনিও ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে মানসিক রোগ বিষয়ে সেমিনারে অংশ নেন। সাইকিয়াট্রিস্ট ডা. মোহাম্মদ জোবায়ের মিয়া ১৯৭৫ সালে শেরপুর জেলার শ্রীরদী উপজেলার সীমান্তবর্তী ভায়াডাংগা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ২০০০ সালে রাজশাহী মেডিকেল থেকে এমবিবিএস পাস করেন। ২০০৯ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাইকিয়াট্রিতে এমফিল পাস করেন। এর আগে প্রায় ৬ বছর মানসিক হাসপাতাল পাবনায় কনসালটেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন এ চিকিৎসক।
ডা. সাঈদ এনাম কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর উপজেলা স্বাস্থ্য ও প:প কর্মকর্তা ছিলেন।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক