Saturday, June 3

কানাইঘাটে ভাঙন কবলিত গৌরিপুর ডাইকের কাজ শুরু ! বালুর বস্তা ফেলে প্রতিরোধের চেষ্টা


নিজাম উদ্দিন : সুরমা নদীর করাল গ্রাসে ভয়াবহ ভাঙন কবলিত কানাইঘাট পৌরসভার ডালাইচর ও সদর ইউপির গৌরিপুর, কান্দেবপুর সুরমা ডাইকের ভাঙন ঠেকাতে কাজ শুরু হয়েছে। গৌরিপুর অংশের ডাইক ভেঙ্গে শনিবার ভোর থেকে সুরমা নদীর পানি উপজেলা সদর এলাকায় ডুকে পড়ায় আতংকিত হয়ে পড়েন এলাকাবাসী। নদী ভাঙনের খবর পেয়ে শনিবার তাৎক্ষণিক সেখানে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি সুমন আচার্য্য। নির্বাহী কর্মকর্তা গৌরিপুর ডাইকের ভয়াবহ ভাঙনের ঘটনাটি জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ারকে অবহিত করেন। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সিলেটের অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক সার্বিক শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, পানি উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম শনিবার বিকেলে ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে বিশেষ করে গৌরিপুর ডাইকের ভাঙন প্রতিরোধ করার জন্য তাৎক্ষণিক উদ্যোগ গ্রহণ করেন। উপজেলা জাতিয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক বাবুল আহমদ কাজের দায়িত্ব নিয়ে শনিবারে রাতের মধ্যে ভাঙন কবলিত গৌরিপুর ডাইকের দিয়ে প্রবাহিত সুরমা নদীর পানি এবং ভাঙন প্রতিরোধের জন্য শনিবার বিকেল থেকে সেখানে প্রায় শতাধিক শ্রমিকদের কাজে লাগিয়ে মেরামত কাজ শুরু করেন। বাঁশের গড় ও শত শত বালুর বস্তা সেখানে ফেলে শনিবার রাত ১২টা পর্যন্ত প্রাথমিক ভাবে ভাঙন প্রতিরোধ এবং পানির তীব্র গতি বন্ধ করা হয়েছে। ডালাইচর ও গৌরিপুর এবং কান্দেবপুর অংশের নদীর অংশের ভয়াবহ নদী ভাঙন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম কানাইঘাট নিউজকে জানিয়েছেন। এদিকে গৌরিপুর সুরমা ডাইকের ভাঙ্গন প্রতিরোধে প্রাথমিক ভাবে কাজ শুরু হওয়ায় এলাকাবাসী কিছুটা হলেও আশাবাদী হয়ে উঠেছেন। দ্রুত এ ব্যাপারে ভাঙন প্রতিরোধে আরো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী। কানাইঘাট পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক জামাল উদ্দিন জানিয়েছেন ডালাইচর ও গৌরিপুর সুরমা ডাইকের বিভিন্ন স্থানে ভয়াবহ ভাঙনের ফলে তার এলাকার শত শত মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থা বন্ধ হওয়ায় সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শনিবার ভোরে গৌরিপুর ডাইক ভেঙ্গে গিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় খবর পেয়ে তিনি তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগমকে অবহিত করেন। ভাঙনের প্রাথমিক ভাবে শুরু হওয়ায় তিনি সিলেটের প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কানাইঘাট উপজেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক ভাঙন কবলিত এলাকার কাজের দায়িত্ব প্রাপ্ত বাবুল আহমদ জানিয়েছেন গৌরিপুর ডাইকের ভাঙন প্রতিরোধে শতাধিক শ্রমিক লাগিয়ে কাজ শুরু হয়েছে। ভাঙন প্রতিরোধ প্রাথমিক ভাবে আমরা করতে পেরেছি। তবে কাজ চলবে বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক