Thursday, March 22, 2018

কানাইঘাটের মেছার চর রক্ষায় নদী তীরে হাজারো মানুষের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট উপজেলার লোভা নদীর তীরবর্তী ঐতিহ্যবাহী বিশাল মেছার চরটি পাথর খেকোদের তান্ডব থেকে রক্ষা করার জন্য এলাকাবাসী স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টা থেকে ১০টা পর্যন্ত লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউ.পির মেছাগ্রাম, সাউদগ্রাম, পশ্চিমপাড়া, বড়গ্রাম, কালিজুরি, নক্তিপাড়া, উজানবারাপৈত, ভাটিবারাপৈত, সতিপুর, শরীফনগর, বাখালছড়া, কান্দলা, বাজেখেল ও ভালুকমারা গ্রামের শত শত মানুষ নদীর পারে লাঠি-সোটা নিয়ে অবস্থান করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। চরে অবস্থান করে পাথর খেকোদের হাত থেকে ঐতিহ্যবাহী এই চরটি রক্ষা করার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবী জানান তারা। ইউ.পি সদস্য আব্বাস উদ্দিন, কয়েছুর রহমান, মিছবাহুর রহমানসহ স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন, লোভাছড়া পাথর কোয়ারি সংলগ্ন লোভা নদীর ডান তীরে অবস্থিত বিশাল এ চরটি থেকে পার্শ্ববর্তী লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউ.পির উত্তর লক্ষীপ্রসাদ গ্রামের আবু ছিদ্দেক, আবু বক্কর, হেলাল, এখলাছুর রহমান, দেলোয়ার, নাসির, বাকির, আজই, ইসমাইল, আবু সহিদ, হেলাল উদ্দিন, বিলাল উদ্দিন, সোলেমান ও মাসুক গংদের নেতৃত্বে প্রায় দেড় শতাধিক লোকজন লাঠিয়াল বাহিনী গঠন করে যান্ত্রিক চালিত বাহন দিয়ে চরটির নদীর তীরবর্তী এলাকায় বড় বড় গর্ত তৈরী করে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন অব্যাহত রাখায় চরটির অনেক জায়গা লোভানদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। মহামান্য হাইকোর্ট ও নিম্ন আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে সেখান থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করছে প্রভাবশালী লোকজন। চর এলাকায় ১৪৪ ধারা বলবৎ থাকার পরও প্রশাসনের নির্দেশ মানছে না পাথর খেকো চক্র। এ পর্যন্ত চর থেকে প্রায় ১০ লক্ষ ঘন ফুট পাথর উত্তোলন করছে তারা। অপর দিকে উত্তর লক্ষীপ্রসাদ গ্রামের লোকজন জানিয়েছেন, চরটির অনেক জায়গা এসএ সূত্রে তারা মালিক। এব্যাপারে উপজেলা ভূমি অফিস তাদের পক্ষে প্রতিবেদন দিয়েছে। তারা তাদের জায়গা থেকে পাথর তুলছেন। বিক্ষোভ প্রদর্শনকালে স্থানীয় লোকজন দেশীয় লাটি-সোটা নিয়ে অবস্থান করে জানান, মেছার চরটিতে বিভিন্ন জাতের সবজির বাম্পার ফসল উৎপাদন হয়ে থাকে। এ চরের মিষ্টি কুমড়া, টমেটু, বেগুন, বরবটি, ফরাস, ফুলকপি, বাধাকপি, শালগম, শষা, ধনিয়া পাতাসহ ইত্যাদি দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হয়। মেছাগ্রাম সহ এলাকার কয়েকটি গ্রামের মানুষ এ চরে শীত মৌসুমে নানা ধরনের সবজি চাষ করে কোটি টাকা আয় করে থাকেন। যুগযুগ ধরে চরটির মালিক ও দখলদার মেছাগ্রাম এলাকার লোকজন। গায়ের জোরে উত্তর লক্ষীপ্রসাদ গ্রামের অধিকাংশ লোকজন তাদের চর থেকে অবৈধ ভাবে কয়েক মাস থেকে পাথর উত্তোলন করছে।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক