Sunday, December 31, 2017

কানাইঘাট পৌরসভার মাসিক সভায় তুলকালাম কান্ড !


নিজস্ব প্রতিবেদক: রবিবার বেলা ১২টায় কানাইঘাট পৌরসভার মাসিক সভায় পৌরসভার বিগত দিনের আয় ব্যায়ের হিসাব নিয়ে মেয়র নিজাম উদ্দিন ও কয়েকজন কাউন্সিলরের মধ্যে বাকবিতন্ডা নিয়ে তুলকালাম কান্ড ঘটেছে। এ সময় মেয়র নিজাম উদ্দিনের বিরুদ্ধে একক ভাবে পৌরসভার কার্যক্রম পরিচালনা ও নানা অনিয়ম দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ এনে মাসিক সভা বয়কট করেন পৌরসভার ৭জন কাউন্সিলর। তারা সভা বয়কট করে কানাইঘাট বাজারস্থ নোয়াম সেন্টারে পৌরসভার অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। একপর্যায়ে তারা নানা শ্লোগান দিয়ে মিছিল সহকারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানার কাছে মেয়র নিজাম উদ্দিনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ দেন। তবে পৌর মেয়র নিজাম উদ্দিন তার বিরুদ্ধে কতিপয় কাউন্সিলর কর্তৃক মাসিক সভায় হট্টগোল সৃষ্টি করে পৌরসভার উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগ এনেছেন। পৌরসভার মাসিক সভা নিয়ে হট্টগোল সৃষ্টি, পৌর কার্যালয়ের সামনে ৭জন কাউন্সিলারদের বিক্ষোভ প্রদর্শন নিয়ে পৌর নাগরিকদের মধ্যে নানা প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। বিক্ষোভকালে বিপুল সংখ্যক লোকজন সেখানে জমায়েত হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। সভা বয়কটকারী কয়েকজন কাউন্সিলার জানিয়েছেন, কানাইঘাট পৌরসভার বর্তমান পরিষদের প্রায় ২ বছর অতিবাহিত হলেও অদ্যবধি পর্যন্ত মেয়র নিজাম উদ্দিন মাসিক সভায় পৌরসভার রাজস্ব খাত সহ আয় ব্যায়ের কোন ধরণের হিসাব প্রদান করেননি। আজকের মাসিক সভায় মেয়র নিজাম উদ্দিন পৌরসভার রাজস্ব খাত সহ অন্যান্য উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের হিসাব ও পৌরসভার পূর্বের মাসিক রেজুলেশনের কপি কাউন্সিলারদের কাছে দেওয়ার কথা ছিল। সভার শুরুতে বেশ কয়েকজন কাউন্সিলার বিগত দিনের পৌরসভার হিসাব নিকাশের তালিকা প্রকাশ করার জন্য মেয়রের নিকট দাবী জানালে তিনি দাবী উত্তাপনকারী কাউন্সিলারদের সভা থেকে বের হওয়ার জন্য বললে এ নিয়ে সভায় বাকবিতন্ডা ও হট্টগোল সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে ৭জন কাউন্সিলার সভা বয়কট করে বের হয়ে যান। কাউন্সিলারদের অভিযোগ মেয়র নিজাম উদ্দিন গত মাসের মাসিক সভায় কাউন্সিলাদের দাবীর প্রেক্ষিতে তিনি বলেছিলেন আগামী মিটিংয়ে রাজস্ব খ্যাত সহ সকল হিসাব নিকাশ নিয়ে আলোচনা হবে। কিন্তু এরই মাঝে মেয়র নিজাম উদ্দিন তার কথা বদলীয়ে গত ২৮ ডিসেম্বর নিজের মনগড়া এজেন্ডা দিয়ে মাসিক সভার চিঠি ইস্যু করেছেন। আজকের সেই নির্ধারিত সভায় ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুক আহমদ, ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাওলানা ফখরুদ্দীন, ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবিদুর রহমান, ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী শরীফুল হক, সংরক্ষিত ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসমা বেগম, ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আছিয়া বেগম, ১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রহিমা বেগম তাদের বক্তব্যে রাজস্ব খাত সহ গত সভার কথা উল্লেখ করে বক্তব্য রাখলে মেয়র নিজাম উদ্দিন তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন বলে তাদের অভিযোগ। তাদের দাবী মাসিক সভার রেজিষ্টার খাতার স্বাক্ষরিত সিদ্ধান্তের কপি তিনি গোপন করে রাখেন ও মাসিক সভার সিন্ধান্তের কপি কাউন্সিলারদের দেন না। মেয়র তার নিজের মনগড়া আইনে পৌরসভার কার্যক্রম পরিচালনা করে উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডে সীমাহীন দূর্নীতি ও অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতি,ওয়ার্ড ভিত্তিক উন্নয়নে বৈষম্য করে যাচ্ছেন। এ নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে কাউন্সিলর ও মেয়রের মধ্যে এক ধরণের বিরোধ চলে আসছে। কয়েক মাস পুর্বে পৌরসভার ৯জন কাউন্সিলর মেয়র নিজাম উদ্দিনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে এনে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরাবরে দরখাস্ত দিয়েছিলেন। পরে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপে তা সমাধান করা হয়েছে বলে জানান সভা বয়কটকারী কাউন্সিলাররা। এ ব্যাপারে মেয়র নিজাম উদ্দিনে সাথে তার কার্যালয়ে সাক্ষাতকালে তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, পৌরসভার মাসিক সভা বয়কটকারী ৭জন কাউন্সিলার তার বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ এনেছেন তার কোন ভিত্তি নেই। মিথ্যা অপপ্রচার তারা চালাচ্ছে আমার বিরুদ্ধে। পৌরসভার যাবতীয় হিসাব নিকাশ ও প্রশাসনিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সকলের মতামতের ভিত্তিতে পরিচালিত হচ্ছে। আজকের সভায় এজেন্ডা ভিত্তিক আলোচনার শুরুতেই কাউন্সিলার মাসুক আহমদ ও শরিফুল হক অযথা বিশৃঙ্খলা তৈরি করে তাদের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলের চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে সভা মূলতবী করা হয়। পৌরসভার রাজস্ব খাত সহ অন্যান্য উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের হিসাব নিকাশ জবাব দিহিতার মধ্যে পরিচালিত হচ্ছে এ নিয়ে সভা বয়কটকারী কাউন্সিলারদের প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই। জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালকবৃন্দ পৌরসভার কার্যালয় পরির্দশন করে তদন্ত করে সব কিছু সঠিক পেয়েছেন। পৌরসভার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে বলেন, পৌরসভাটি ৩য় গ্রেড থেকে তার আমলে ২য় গ্রেডে উন্নীত হয়েছে। জাইকার কার্যক্রম এখানে চলছে। একটি কু-চক্রী মহলের যোগসাজশে পৌরসভার উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ব্যাহত করার জন্য কয়েকজন কাউন্সিলর তার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রপাগান্ডা চালাচ্ছেন।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক