কানাইঘাটে ট্রাফিক পুলিশের উদ্যোগে চালকদের নিয়ে সচেতনতা মূলক সভা

Kanaighat News on Tuesday, October 31, 2017 | 8:04 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষ্যে জেলা ট্রাফিক বিভাগ, সিলেটের উদ্যোগে নিরাপদ সড়ক ব্যবহার ও ট্রাফিক সচেতনতা কার্যক্রম তুলে ধরে এক সচেতনতা মূলক সভা মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় কানাইঘাট উত্তর বাজারস্থ ক্যারিকাভ চালক সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। কানাইঘাট-জকিগঞ্জ-বিয়ানীবাজার থানা ট্রাফিক পুলিশের টিআই তপন তালুকদারের সভাপতিত্বে কানাইঘাট উপজেলার বিভিন্ন স্ট্যান্ডের গাড়ীর চালকদের উপস্থিতিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ বলেন, পরিবহন সেক্টরের সাথে জড়িত গাড়ীর চালকরা ট্রাফিক আইন মেনে গাড়ী চালালে অনেকাংশে সড়ক দূর্ঘটনা প্রতিরোধ করা সম্ভব। ট্রাফিক আইন মেনে চলার পাশাপাশি বেপরোয়াভাবে দ্রুত গতিতে গাড়ী না চালানো, ওভারটাইক না করা, গাড়ী চালানো অবস্থায় মোবাইল ফোন ব্যবহার বন্ধ এবং বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্সধারী চালকরা গাড়ী চালালে সড়ক দূর্ঘটনার মতো মর্মান্তিক প্রাণহানির সংখ্যা অনেকটা কমে যাবে। ফিটনেস বিহীন গাড়ী না চালিয়ে ট্রাফিক আইন মেনে চালকদের গাড়ী চালানোর আহ্বান জানান তিনি। কানাইঘাট ট্রাফিক পুলিশের এটিএসআই দীপকংর পালের পরিচালনায় সচেতনতা মূলক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কানাইঘাট থানা এলাকার ট্রাফিক সার্জেন্ট উজ্জ্বল রায়, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) কানাইঘাট শাখার সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কানাইঘাট উত্তর বাজার ক্যারিকাভ চালক সমিতির সভাপতি হাবিব উল্লাহ। উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট ট্রাফিকের এটিএসআই কাওছার আহমদ, সাংবাদিক শাহীন আহমদ, কানাইঘাট উত্তর বাজার স্ট্যান্ডের অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শ্রমিকনেতা ফিরোজ মিয়া, দক্ষিণ বাজার শাখার সেক্রেটারী জিয়া উদ্দিন, মাইক্রোবাস চালক সমিতির সভাপতি শাহীন আহমদ সহ বিভিন্ন স্ট্যান্ডের পরিবহন সমিতির নেতৃবৃন্দ। সভায় সড়ক দূর্ঘটনায় বিয়ানীবাজারের ৭ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় শোক প্রকাশ করা হয়।

সিলেট জেলা বিএনপির সম্পাদক আলী আহমদের সুস্থতা কামনায় কানাইঘাটে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ এর আশু রোগমুক্তি কামনা করে কানাইঘাটে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বাদ আসর কানাইঘাট বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত উক্ত মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপির সহ সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ও কানাইঘাট উপজেলা যুবদলের সভাপতি নুরুল ইসলাম,সিলেট জেলা বিএনপির সদস্য কানাইঘাট পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল হুসেন বুলবুল,কানাইঘাট উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও প্রবীণ মুরব্বি হাজী আবদুল হেকিম,কানাইঘাট সদর ইউ’পি বিএনপির সভাপতি নিজাম উদ্দিন,উপজেলা খেলাফত মজলিশের প্রথম যুগ্ন সম্পাদক সাব্বির আহমদ (মেম্বার),কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ,বিএনপি নেতা সুলেমান আহমদ,হুসন আহমদ উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খসরুজ্জামান পারবেজ,৬ নং সদর ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম,উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক রুহুল আমিন,পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক আর এ বাবলু ,পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব দেলওয়ার ইসমাইল,উপজেলা ছাত্রদলের প্রথম সদস্য দেলওয়ার হুসেন,পৌর যুবদলের প্রচার সম্পাদক ইয়াইয়া আহমদ, উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য জাকির হোসাইন,পৌর ছাত্রদলের সদস্য মোয়াজ্জম হোসেইন আল-আমিন, কলেজ ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন, ৪ নং সাতবাক ইউপি ছাত্রদলের সভাপতি রুহুল আমিন,কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র নেতা রুহুল আমিন,কলেজ ছাত্রদল নেতা হেলাল আহমদ,৬ নং ওর্য়াড ছাত্রদলের সভাপতি রাজু আহমদ ১ নং ওর্য়াড ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম,২ নং ওর্য়াড ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইয়াহইয়া আলি,সিলেট জেলা তরুন প্রজন্ম দলের সহ সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম ফজু,কলেজ ছাত্রদল নেতা আল আমিন,পৌর ছাত্রদল নেতা মাসুম আহমদ,পৌর ছাত্রদল নেতা আব্দুল বাসিত, আব্দুর রাহমান, শাহিদ আহমদ, সাহার আলম সহ যুবদল-ছাত্রদলের অন্যান্য নের্তৃবৃন্দ উপস্তিত ছিলেন। (বিজ্ঞপ্তি)

জকিগঞ্জ উপজেলা আ'লীগের সভাপতি'র সাথে যুক্তরাজ্যস্থ জকিগঞ্জ-কানাইঘাটবাসীর মতবিনিময়

Kanaighat News on Monday, October 30, 2017 | 10:33 PM


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: জকিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য জননেতা লোকমান উদ্দীন চৌধুরীর সাথে যুক্তরাজ্যস্থ জকিগঞ্জ-কানাইঘাটবাসীর মতবিনিময়। ২৯ অক্টোবর, রবিবার পূর্ব লন্ডনের মক্কা গ্রীল রেস্টেুরেন্টে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কাওসার চৌধুরী।যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সহ সভাপতি সারওয়ার কবিরের পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব জালাল উদ্দীন।তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে।প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারাদেশে অভাবনীয় উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। বাংলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ, মাদরাসা, মসজিদ, মন্দির, বিদ্যুৎ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন হচ্ছে। জীবনযাত্রার মান পরিবর্তন হয়েছে। মাথাপিছু আয় বেড়েছে। এসব কিছু সম্ভব হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার দুরদূশী নেতৃত্বে। তাই বিশ্বে শেখ হাসিনা এখন উন্নয়নের রোল মডেল।’ সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখতে গিয়ে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বলেন, শেখ হাসিনা উন্নয়নের প্রতীক, গণতন্ত্রের প্রতীক। বঙ্গবন্ধু কন্যা ক্ষমতায় আছেন বলেই দেশের উন্নয়ন হচ্ছে।তার হাত ধরেই স্বাধীনতা বিরোধীদের ষড়যন্ত্র চক্রান্ত মোকাবিলা করেই বিশ্বের বুকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ।আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ ডিজিটাল বাংলায় রূপান্তরিত হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ন।জকিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লোকমান চৌধুরী তার বক্তৃতায় বলেন, বাংলাদেশের সর্বত্র যেভাবে উন্নয়ন হচ্ছে জকিগঞ্জ-কানাইঘাটও তার ব্যতিক্রম নয়।এলাকায় রাস্তাঘাটের যেমন উন্নয়ন হচ্ছে, তেমনি স্কুল কলেজেরও অবকাঠামোগত উন্নয়ন হচ্ছে।জকিগঞ্জে ১২০টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ১০২ টিতে নতুন ভবন নির্মাণ হয়েছে। কলেজ, মাদ্রাসায়ও সরকারের উন্নয়ন হচ্ছে।প্রত্যন্ত এ অঞ্চলের মানুষ শিক্ষাক্ষেত্রে এখন অগ্রসরমান।কানাইঘাটেও সমানতালে উন্নয়ন হচ্ছে।লোকমান চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতীক হচ্ছে নৌকা, নৌকা স্বাধীনতার প্রতীক, উন্নয়নের প্রতীক।দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে নৌকাকে বিজয়ী করা আমাদের দায়িত্ব।লোকমান চৌধুরী ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাঙালিদের অবদান কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করে বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে প্রবাসী বাঙালিরাও সেসময় অনন্য ভূমিকা পালন করেছিলেন। সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য কাওসার আহমদ চৌধুরী বলেন, মহানবীর শিক্ষা ছিলো সহনশীলতা ও সহমর্মিতা। মহানবীর এই দীক্ষা নিয়ে মক্কা বিজয়, মদীনা বিজয়সহ মানবতার বিজয় এসেছিলো। আমাদের নিজেদেরকে সেই দীক্ষায় দিক্ষিত হতে হবে। মহান রাব্বুল আলামিনের অপার কৃপায় এবং বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য নেতৃত্বে জয় বাংলা স্লোগাণের মাধ্যমে পুরো জাতি সেদিন ঐক্যবদ্ধভাবে বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলো। মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসীদের অবদান ছিলো অনস্বীকার্য। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক সারব আলী, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ছুরুক মিয়া, সহ প্রচার সম্পাদক লুতফুর রহমান ছায়াদ, জকিগঞ্জ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি কাউন্সিলার শেরওয়ান চৌধুরী,সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল হুসেন, কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি কৃষিবিদ নিজাম উদ্দীন আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো: ইকবাল হোসাইন। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন লন্ডন মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন তাপাদার । যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আবুল ফয়েজের সূচণা বক্তব্যে ও উপ দপ্তর সম্পাদক মাইনুল ইসলামের কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় বক্তব্য রাখেন জকিগঞ্জ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের একলিম চৌধুরী, পারবেজ চৌধুরী হেরিক, আবেদ রাজা, জিবান আহমদ, তারেক আহমদ, এনায়েত চৌধুরী, লন্ডন আওয়ামী লীগের মানবাধিকার বিসয়ক সম্পাদক শায়েক আহমদ, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক জিলু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দীন, দেলওয়ার হুসেন. যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল আহমদ খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদ আলী, প্রবাস কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক দুলাল আহমদ, লন্ডন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সল হুসেন সুমন, আওয়ামী লীগ নেতা মজুমদার মিয়া, যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সহ সভাপতি এমএ শহীদ, আব্দুল হাফিজ কানু, যুগ্ম সম্পাদক ফখরুল কামাল জুয়েল, লন্ডন মহানগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি কাজী জাফর, শফিক আহমদ।
হচ্ছে।লোকমান চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতীক হচ্ছে নৌকা, নৌকা স্বাধীনতার প্রতীক, উন্নয়নের প্রতীক।দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে নৌকাকে বিজয়ী করা আমাদের দায়িত্ব।লোকমান চৌধুরী ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাঙালিদের অবদান কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করে বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে প্রবাসী বাঙালিরাও সেসময় অনন্য ভূমিকা পালন করেছিলেন। সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য কাওসার আহমদ চৌধুরী বলেন, মহানবীর শিক্ষা ছিলো সহনশীলতা ও সহমর্মিতা। মহানবীর এই দীক্ষা নিয়ে মক্কা বিজয়, মদীনা বিজয়সহ মানবতার বিজয় এসেছিলো। আমাদের নিজেদেরকে সেই দীক্ষায় দিক্ষিত হতে হবে। মহান রাব্বুল আলামিনের অপার কৃপায় এবং বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য নেতৃত্বে জয় বাংলা স্লোগাণের মাধ্যমে পুরো জাতি সেদিন ঐক্যবদ্ধভাবে বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলো। মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রবাসীদের অবদান ছিলো অনস্বীকার্য। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক সারব আলী, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ছুরুক মিয়া, সহ প্রচার সম্পাদক লুতফুর রহমান ছায়াদ, জকিগঞ্জ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি কাউন্সিলার শেরওয়ান চৌধুরী,সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল হুসেন, কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি কৃষিবিদ নিজাম উদ্দীন আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো: ইকবাল হোসাইন। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন লন্ডন মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন তাপাদার । যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আবুল ফয়েজের সূচণা বক্তব্যে ও উপ দপ্তর সম্পাদক মাইনুল ইসলামের কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় বক্তব্য রাখেন জকিগঞ্জ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের একলিম চৌধুরী, পারবেজ চৌধুরী হেরিক, আবেদ রাজা, জিবান আহমদ, তারেক আহমদ, এনায়েত চৌধুরী, লন্ডন আওয়ামী লীগের মানবাধিকার বিসয়ক সম্পাদক শায়েক আহমদ, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক জিলু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দীন, দেলওয়ার হুসেন. যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল আহমদ খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদ আলী, প্রবাস কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক দুলাল আহমদ, লন্ডন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সল হুসেন সুমন, আওয়ামী লীগ নেতা মজুমদার মিয়া, যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সহ সভাপতি এমএ শহীদ, আব্দুল হাফিজ কানু, যুগ্ম সম্পাদক ফখরুল কামাল জুয়েল, লন্ডন মহানগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি কাজী জাফর, শফিক আহমদ।(বিজ্ঞপ্তি)

কানাইঘাটে শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তাকে বরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ শিক্ষক সমতি কানাইঘাট উপজেলা শাখার উদ্যোগে উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানাকে বরণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে সোমবার সকাল ১১টায় শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে উপজেলা সম্মেলন কক্ষে বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা বলেন, আমি কানাইঘাটে যোগদানের পর থেকে নানা শ্রেণিপেশার মানুষ আমাকে যেভাবে বরণ করে নিয়েছেন এতে আমি অভিভূত হয়েছি। কানাইঘাটের মানুষ অত্যন্ত ভালো ও অতিথি পরায়ন উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য আমাকে মুগ্ধ করেছে। প্রতিটি কাজে সবাই আমাকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। একটি এলাকার শিক্ষার উন্নয়ন করতে পারলেই মানুষের সকল মৌলিক অধিকারের পাশাপাশি সচেতনতা তৈরি করা সম্ভব। তিনি শিক্ষকদের সমাজের মুকোট সম্রাট আখ্যায়িত করে বলেন, শিক্ষকদের কাছে শিক্ষা গ্রহণ করে আমরা সরকারি দায়িত্ব পালন করছি। তাই শিক্ষকদের যথাযথ সম্মান করতে হবে। কানাইঘাটের শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন এবং শিক্ষার্থীদের সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করে আগামী দিনে আলোকিত মানুষ হিসাবে গড়ে তোলার জন্য তিনি শিক্ষক নেতৃবৃন্দকে নিষ্ঠার সাথে পাঠদান করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, শিক্ষার উন্নয়নে শিক্ষক সংগঠনের মহতি যে কোন কার্যক্রমে তিনি সব সময় সহযোগিতা করে যাবেন। উপজেলা বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সভাপতি বীরদল এন.এম একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মোঃ জার উল্লার সভাপতিত্বে ও সচিব রামিজা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমানের পরিচালনায় বরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম, কানাইঘাট বেসরকারী শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি মানিকগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এখলাছে এলাহী, সচিব সাজিদ মিয়া, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, শিক্ষক সমিতি ও বেসরকারী শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্টের নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আব্দুস সালাম, আব্দুল মতিন, নুর উদ্দিন, সাজ উদ্দিন সাজু, আহমদ সবুর, মামুন রশিদ, জালাল আহমদ, এনামুল হক, বেলাল আহমদ, ইয়াহিয়া, নুরুল আমিন প্রমুখ। এ সময় শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানার দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, কানাইঘাটের শিক্ষার আত্মসামাজিক উন্নয়ন এবং শিক্ষার্থীদের আগামী দিনের সুনাগরিক হিসাবে গড়ে তোলার জন্য শিক্ষক সমিতি ও বেসরকারী শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্ট কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সমস্যা নিরসন ও প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে নির্বাহী কর্মকর্তার সব ধরনের সহযোগিতা কামনা করেন এবং প্রতিটি স্কুল পরিদর্শন করে নারী শিক্ষার্থীদের উদ্দীপনা দেওয়ার জন্য নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতি আহ্বান জানান শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। সভার শুরুতে নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানাকে শিক্ষক সমিতি ও শিষ্টা ট্রাস্ট্রের নেতৃবৃন্দ সম্মাননা স্বরূপ ক্রেস্ট প্রদান ও ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে নেন।

কানাইঘাটে পরগনার সৃষ্ট বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে থানায় সভা


নিজস্ব প্রতিবেদক: দলীয় কিছু নেতাকর্মীদের হাতে গত ১৯ অক্টোবর কানাইঘাট উত্তর বাজারস্থ আ’লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে বড়চতুল ইউপি আ’লীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুবশ্বির আলী চাচাই আক্রান্তের ঘটনার প্রতিবাদে চতুল পরগনাবাসীর উদ্যোগে ২০ অক্টোবর শুক্রবার ৯ পরগনার কানাইঘাট বাজারে স্বশস্ত্র লাঠি মিছিলের ঘটনায় পাল্টা কানাইঘাট বাজেরাজ, চাউরা ও সাতবাঁক পরগনাবাসীর মধ্যে তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হলে সৃষ্ট ঘটনাটি নিরসনের জন্য ফালজুর পরগনার মুরব্বী ও জনপ্রতিনিধিরা উদ্যোগ গ্রহণ করেন। এ নিয়ে উভয় পক্ষের সৃষ্ট বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে মধ্যস্থতাকারী মুরব্বীয়ানরা সোমবার বিকেল ২টায় কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জের কার্যালয়ে এক বৈঠকে মিলিত হন। সভায় উপস্থিত ছিলেন থানার ওসি আব্দুল আহাদ, ঘটনার মধ্যস্থতাকারী মুরব্বীয়ানদের পক্ষে সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মস্তাক আহমদ পলাশ, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান জেমস্ লিও ফারগুসন নানকা, থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়া, সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, শ্রী রিংকু চক্রবর্তী, বিশিষ্ট মুরব্বী আব্দুল লতিফ, পৌর আ’লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক খলিলুর রহমান, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন। বৈঠকে উভয় পক্ষের ৫ জন করে ১০ জনের একটি নামের তালিকা মধ্যস্থতাকারী মুরব্বীয়ানরা থানার ওসি আব্দুল আহাদের কাছে হস্তান্তর করেন। সভায় শান্তিপূর্ণ উপায়ে সৃষ্ট বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য আগামী ৬ নভেম্বর সোমবার সকাল ১১টায় প্রথমে কানাইঘাট বাজেরাজ ও চাউরা পরগনার মুরব্বী এবং ঐদিন বিকেল ৩টায় চতুল পরগনার মুরব্বীয়ানদের সাথে থানার অফিসার ইনচার্জের কার্যালয়ে ওসি আব্দুল আহাদের নেতৃত্বে মধ্যস্থতাকারী মুরব্বীয়ানরা বৈঠকে বসবেন বলে সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

কানাইঘাট চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের সৃষ্ট ঘটনা নিষ্পত্তির জন্য ১১ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন


নিজস্ব প্রতিবেদক: সম্প্রতি ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী স্কুলের সহকারী শিক্ষক ইসলাম উদ্দিন কর্তৃক ধর্ষণের স্বীকার এবং স্কুলে বিভিন্ন সময়ে ছাত্রী র্নিগহের ঘটনা সহ দুর্বল ম্যানেজিং কমিটির পরিবর্তন ও স্কুলের সুনাম ফিরিয়ে আনার জন্য সৃষ্ট জটিলতা নিরসনের লক্ষ্যে এক মতিবিনিময় সভা সোমবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। গত দু’সপ্তাহ থেকে চরিপাড়া স্কুলের ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনা সহ ছাত্রী ধর্ষণের সাথে জড়িত শিক্ষককে গ্রেফতারের দাবীতে সাতবাঁক সচেতন নাগরিক কমিটির উদ্যোগে নানা ধরনের কর্মসূচী চলছিল। সমূহ সৃষ্ট ঘটনা শান্তিপূর্ণ উপায়ে নিরসনের লক্ষ্যে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ উদ্যোগ গ্রহণ করলে সকল কর্মসূচী স্থগিত করেন সচেতন নাগরিক কমিটির নেতৃবৃন্দ। সোমবার শিক্ষক সমিতির কার্যালয়ে নাগরিক কমিটি, শিক্ষক নেতৃবৃন্দ, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকবৃন্দের উপস্থিতিতে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চরিপাড়া স্কুলে ঘটে যাওয়া সমূহ ঘটনা নিরসন এবং স্কুলের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে কানাইঘাট রামিজা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামুন আহমদকে আহ্বায়ক ও মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সচিব ফজলুর রহমানকে সদস্য সচিব করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটির নেতৃবৃন্দ আগামী ২ নভেম্বর নিরপেক্ষ ভাবে তদন্তের মাধ্যমে যে রিপোর্ট প্রদান করবেন এতে স্কুলের শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং আন্দোলনরত সচেতন নাগরিক কমিটির নেতৃবৃন্দ মেনে নিবেন বলে বৈঠকে সিন্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন, সাতবাঁক ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান বিশিষ্ট মুরব্বী ইফজালুর রহমান, বর্তমান চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোঃ জার উল্লাহ, সচিব ফজলুর রহমান, বেসরকারী শিক্ষা কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি এখলাছে এলাহী, রামিজা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামুন রশিদ, সাজ উদ্দিন সাজু, প্রিন্সিপাল আব্দুস সমি, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, নাগরিক কমিটির সভাপতি জলিল আহমদ, সদস্য সচিব ইউপি সদস্য শাব্বির আহমদ সহ শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ ও সাতবাঁক ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

কানাইঘাট চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

Kanaighat News on Sunday, October 29, 2017 | 10:20 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য একটি কুচক্রি মহলের অপপ্রচারের প্রতিবাদে এবং উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১১টায় স্কুল সংলগ্ন স্থানীয় লোভারমুখ বাজারে প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে বলেন, চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজ অর্ধশত বছরের সিলেটের একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। উক্ত স্কুলের শত শত শিক্ষার্থীরা আজ সরকারের উচ্চ পর্যায়ে কর্মরত থাকার পাশাপাশি নানা ভাবে সু-প্রতিষ্ঠিত। স্বনামধন্য এই বিদ্যাপীঠকে ধ্বংস করার জন্য একটি প্রভাবশালী কুচক্রী মহল বর্তমানে নানা ভাবে স্কুলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। স্কুল বিরোধী যে কোন ধরনের অপতৎপরতা জীবন দিয়ে হলেও স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থীরা প্রতিহত করবে বলে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন। স্কুরের প্রাক্তন ছাত্র তারেকুল ইসলাম মারুফের সভাপতিত্বে ও নুরুল আম্বিয়ার পরিচালনায় মানববন্ধন কর্মসূচীতে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থী কিবরিয়া চৌধুরী, কয়ছর আহমদ, ফখর উদ্দিন, আব্দুল হেকিম, সালেহ আহমদ, গিয়াস উদ্দিন, সালমান আহমদ ফাহাদ, আব্দুল কাহির, ইমরান আহমদ, তোফায়েল আহমদ, জুবায়ের আহমদ তুহিন, সাদিকুর রহমান, কামরুজ্জামান, রুমান, সাঈদুল ইসলাম, আদনান সামি, জসীম উদ্দিন, হেলাল আহমদ, জাহাঙ্গীর আলম, মাহফুজ আহমদ, মাজেদুল ইসলাম, মায়রুফ আহমদ, শাহাব উদ্দিন প্রমুখ।

কানাইঘাট প্রি-ক্যাডেট স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট উপজেলা সদরে অবস্থিত প্রি-ক্যাডেট স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণ অনুষ্টান রবিবার সকাল ১১টায় স্কুল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। কানাইঘাট ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক স্কুলের পরিচালক হাবিব আহমদের সভাপতিত্বে ও স্কুলের সহকারী শিক্ষক বাবর আহমদের পরিচালনায় অভিভাবক, সুধীজন ও বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা পরিষদ ১৫নং ওয়ার্ড সদস্য আলমাছ উদ্দিন, কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি রোটারিয়ান শাহাজাহান সেলিম বুলবুল, সহ-সম্পাদক আব্দুন নুর, সাবেক প্যানেল মেয়র হাজী আব্দুল মালিক, পৌর কাউন্সিলর শরীফুল হক, সমাজসেবী হাজী জসিম উদ্দিন, স্কুলের অভিভাবক খসরুজ্জামান পারভেজ, ছাত্রনেতা আফতাব উদ্দিন। শিক্ষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, রাজিব দাস ঝলক, জসিম উদ্দিন, খায়রুল ইসলাম, শিক্ষার্থীদের মধ্যে শাকিব আল হাসান, তাহসিনা আক্তার রুমি প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী বলেন, কানাইঘাট প্রি-ক্যাডেট স্কুল প্রতিষ্ঠার ১০ মাসের মধ্যে একটি সেরা প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। স্কুলের বিজ্ঞ পরিচালকবৃন্দের নানামুখী শিক্ষামূলক কার্যক্রম গ্রহণ এবং কর্মরত শিক্ষকরা নিষ্ঠার সাথে পাঠদান করায় ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা মেধার দিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি সৃজনশীল কর্মকান্ডের মাধ্যমে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধূলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে স্কুলের শিক্ষার্থীরা সকলের নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছে। অনুষ্ঠান শেষে ৩৯টি ইভেন্টের বিজয়ী শতাধিক শিক্ষার্থীদের হাতে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরষ্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

‍‌"শামসুর রহমান স্মৃতি বৃত্তি এ বছরে ৩০০০ বই পুরস্কার হিসেবে বিতরণ করবে"


বিগত ২০ অক্টোবর ২০১৭ সিলেট শহরের সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে সিলেট বিভাগের ৫ ম ও ৮ ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল শামসুর রহমান স্মৃতি প্রাথমিক ও জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষা। সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, বর্তমান মেয়র আরিফুল হক ও সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করে শিক্ষার্থীদের ব্যাপক অংশ গ্রহণে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এ বছর শামসুর রহমান স্মৃতি বৃত্তি পরীক্ষা ১৮ তম থেকে ১৯ তম’এ যাত্রা শুরু করলো। বিগত ১৭ বছরে শামসুর রহমান স্মৃতি বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৫০০০ হাজার। এবারের বৃত্তি বিতরণ সহ নানা প্রসঙ্গ জানতে চেয়েছিলাম শামসুর রহমান ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব জিবলু রহমানের কাছে। 
তার সাথে কথপোকথনের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো---- মাহবুবুর রশিদ।
কানাইঘাট নিউজ : শামসুর রহমান স্মৃতি বৃত্তি কত সাল থেকে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে।
জিবলু রহমান : ধন্যবাদ। ১৯৯৮ সালের ২৬ জানুয়ারী গোয়াইনঘাটের ২ নং পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের ৫ ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের মধ্যে মূলত এ ব্যবস্থা চালু হয়েছিল। পরবর্তীতে শামসুর রহমান ফাউন্ডেশন গঠনের মাধ্যমে ১৯৯৯ সাল থেকে সিলেট সদর ও পর্যায়ক্রমে সিলেট বিভাগে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়।
 কানাইঘাট নিউজ : বর্তমানে কোনো কোনো শ্রেণীতে শামসুর রহমান স্মৃতি বৃত্তি চালু আছে। 
জিবলু রহমান : সিলেট বিভাগের ৫ ও ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০০ মার্কের ইংরেজী ও অংল পরীক্ষা নেয়ার মাধ্যমে বৃত্তি পরীক্ষা চালু আছে। 
কানাইঘাট নিউজ : আপনাদের খাতা মূল্যায়ন হয় কিভাবে?
 জিবলু রহমান : অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলী প্রথমে আমাদের খাতা মূল্যায়ন করেন। পরে আবার শিক্ষদের ৫ সদস্যের একটি কমিটি ‘খাতা মূল্যায়ন সঠিক’ হয়েছে কিনা তা বিবেচনা করে দেখেন। 
কানাইঘাট নিউজ : তাহলে বলা যায় ২ বার খাতা মূল্যায়ন হয়। 
জিবলু রহমান : অবশ্যই। সিলেট বিভাগের শিক্ষার্থীরা আশা করে আমাদের বৃত্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। তাদেরতো নিরপেক্ষ ও সঠিকভাবে ফলাফল দিতে হবে।
 কানাইঘাট নিউজ : আপনারা এ বছর কতজন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করবেন। 
জিবলু রহমান : এটাতো ফলাফল না আসলে বলা মুশকিল। আমাদের ফলাফল নির্ধারিত হয় কম্পিউটারের সফটওয়ারের মাধ্যমে। অনেক সময় আবেদনপত্রে উল্লেখিত নির্দিষ্ট ঘোষণার পরও বৃত্তির সংখ্যা বেড়ে যায়। এছাড়া কোটা বৃত্তিতো রয়েছেই। আমার আশংকা এবারে বৃত্তির সংখ্যা প্রায় ৬০০ হতে পারে। চূড়ান্ত সংখ্যা আসলে ফলাফল ঘোষণায় সময়ই পাওয়া যাবে। 
কানাইঘাট নিউজ : যদি ৬০০ হয় তাহলে এরা কী পুরস্কার পাবে? 
জিবলু রহমান : আমরা বিগত ৫ বছর থেকে সাটিফিকেট প্রদানের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের মধ্যে পাঠ্যউপযোগী গল্প-রম্য রচনা, ইতিহাস, সংস্কৃতির উপর বই প্রদান করছি। বর্তমানে শামসুর রহমান ফাউন্ডেশনের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘শ্রীহট্ট প্রকাশ’-এর মাধ্যমে বই মূদ্রণ হচ্ছে। 
কানাইঘাট নিউজ : এবারে কতগুলো বই দিতে পারেন। 
জিবলু রহমান : প্রায় ৩০০০ কপি বই বিতরণ করার জন্য শামসুর রহমান ফাউন্ডেশন ও ‘শ্রীহট্ট প্রকাশ’ প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। 
কানাইঘাট নিউজ : বৃত্তিতে বই বিতরণ-বিশেষ কোনো উদ্দেশ্যে আছে কী? 
জিবলু রহমান : অবশ্যই। আমাদের পদক্ষেপ ফলো করে এক সময় দেখেবেন সিলেট বিভাগের বিদ্যালয়-কলেজ, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সংগঠনগুলো তাদের বিভিন্ন পুরস্কার হিসেবে বই প্রদান করছে।
 কানাইঘাট নিউজ : তাতে লাভ কী হবে? 
জিবলু রহমান : লাভতো আছেই। একজনের বই ক্রয় করলে সে আরো বেশি লেখার ও জানার চেষ্টা করবে। নতুন আরেকজন লিখতে চেষ্টা করবে। প্রকাশকরা ভিন্ন মাত্রার স্বাদ পাঠকের হাতে তুলে দিতে পারবে। দেশ ও সমাজ উপকৃত হবে।
 কানাইঘাট নিউজ : আপনার মতামতের জন্য ধন্যবাদ।
 জিবলু রহমান : আমাদের বক্তব্য তুলে ধরার জন্য কানাইঘাট নিউজ পরিবারকেও ধন্যবাদ।

কানাইঘাটে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত ( ভিডিও সহ )

Kanaighat News on Saturday, October 28, 2017 | 8:10 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: পুলিশই জনতা-জনতাই পুলিশ এই স্লোগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় কানাইঘাট থানা পুলিশের উদ্যোগে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-১৭ উপলক্ষ্যে শনিবার সকাল ১১টায় কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমের সফলতা তুলে ধরে বিভিন্ন ধরনের প্লেকার্ড বহন করে বর্ণাঢ্য র‌্যালী পরবর্তী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রশাসনের কর্মকর্তা, থানা পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সদস্য, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহণে বর্ণাঢ্য র‌্যালীটি থানা প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানা প্রাঙ্গনে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালী পরবর্তী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে ও থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়ার পরিচালনায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা আ’লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি আ’লীগের আহ্বায়ক সাবেক পৌর মেয়র লুৎফুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম রানা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম বেগম, সিলেট বাণীর নির্বাহী সম্পাদক কানাইঘাট প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম.এ হান্নান, সিলেট শাবিপ্রবি সহকারী কলেজ পরিদর্শক সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ তাজিম উদ্দিন, প্রেসক্লাবের সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুল, দক্ষিণ বানীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, দিঘীরপাড় পূর্ব ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন কাজল, বড়চতুল ইউপি চেয়ারম্যান মাওঃ আবুল হোসাইন, রাজাগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রী রিংকু চক্রবর্তী, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার আফতাব উদ্দিন, সদর ইউপি আ’লীগের সভাপতি হোসেইন আহমদ, পৌর আ’লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক
খলিলুর রহমান, নারীনেত্রী খাদিজা বেগম সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির নেতৃবৃন্দ ও সূধীজনও বক্তব্য রাখেন। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন ‘পুলিশই জনতা-জনতাই পুলিশ’ এই স্লোগানের মাধ্যমে পুলিশ জনগনের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনকে আইন শৃঙ্খলার উন্নয়ন সহ সর্বক্ষেত্রে সহযোগিতা করার লক্ষ্যে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। তা আজ সফলতার দিকে দিন দিন এগিয়ে যাচ্ছেন। সাধারণ মানুষ পুলিশকে ভয় না করে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম মাধ্যমে একেবারে পুলিশের কাছাকাছি এসে সমাজ থেকে অপরাধ নির্মুল এবং পুলিশকে নানা ধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমকে আরো জোরধার এবং সকল মতের সৎ ও নিবেদিত ব্যক্তিকে দিয়ে উপজেলা থেকে শুরু করে ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠন করলে এর সুফল দেশবাসী পাবেন এবং কমিটি কমিউনিটি পুলিশিং ডে’র উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য পূরণ হবে। র‌্যালী পরবর্তী আলোচনা সভা অনুষ্ঠানে সার্বিক তদারকির দায়িত্বে ছিলেন, থানার সাব ইন্সপেক্টর ও এএসআই পদমর্যাদার অফিসার ও পুলিশের সকল সদস্যবৃন্দ।

কানাইঘাটে যুবদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

Kanaighat News on Friday, October 27, 2017 | 10:31 PM


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকা উপলক্ষ্যে কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর যুবদলের উদ্যোগে কেক কেটে ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপন করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় কানাইঘাট বাজারের একটি অভিযাত মিষ্টি ভান্ডারে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটা অনুষ্ঠানে পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন রশিদের সভাপতিত্বে ও পৌর যুবদলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কয়ছর আহমেদ কয়েছের পরিচালনায় প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পৌর বিএনপির সহ সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম। পৌর বিএনপির প্রচার সম্পাদক জালাল আহমদ জনী, উপজেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক এবাদুর রহমান লালই, পৌর যুবদলের সহ সাধারণ সম্পাদক হেলাল আহমদ,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা রাসেল আহমদ রানা, পৌর শ্রমিকদলের যুগ্ম আহ্বায়ক জাফর আহমদ, কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল করিম চৌধুরী, দক্ষিণবানীগ্রাম ইউপি যুবদল নেতা আজিজুর রহমান, যুবদল নেতা আসাদ, রুবেল, উপজেলা ছাত্রদল নেতা আলিম উদ্দিন, চতুল ইউপি ছাত্রদল সভাপতি তোফায়েল আহমদ, কলেজ ছাত্রদলের সহ সাধারণ সম্পাদক প্রিন্স
সুহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন, পৌর ছাত্রদল নেতা আব্দুর রহমান, জুয়েল আহমদ, বদরুল সহ যুবদল ও অঙ্গসংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীরা। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা অনুষ্ঠানে নেতৃবৃন্দ বলেন, বহু দলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট শহীদ জিয়াউর রহমান দেশের যুব সমাজকে জাতি গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালনের লক্ষ্যে যুবদল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। হাটি হাটি পা পা করে আজ যুবদল বাংলাদেশের যুব সমাজের প্রিয় সংগঠনে পরিণত হয়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার হাতকে শক্তিশালী এবং বর্তমান সরকারের সকল অপকর্মের জবাব দিতে রাজপথে যুবদল সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। হাজার হাজার নেতাকর্মীরা নির্যাতিত ও কারাবরনের শিকার হচ্ছেন। তারপরও আগামী দিনে সরকারী বিরোধী আন্দোলনে যুবদল রাজপথে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম চালিয়ে যাবে।( বিজ্ঞপ্তি)

সাতবাঁক ইউপিতে মাদক, জঙ্গি, সন্ত্রাস ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে বিট ও কমিউনিটি পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট থানা পুলিশের উদ্যোগে শুক্রবার বিকেল ৫টায় মাদক, জঙ্গি, সন্ত্রাস ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধের লক্ষ্যে সাতবাঁক ইউপি বিট ও কমিউনিটি পুলিশিং সভা ইউপি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউপি বিট ও কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মস্তাক আহমদ পলাশের সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য আলহাজ¦ শাব্বির আহমদের পরিচালনায় সভায় মাদক, জঙ্গি, সন্ত্রাস ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে বিট পুলিশিং কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে বিভিন্ন মতামত তুলে ধরে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাংবাদিক এম.এ হান্নান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সাতবাঁক ইউপি বিট ও কমিউনিটি পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার থানার এস.আই মোঃ আবু কাওছার, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, মৌলভীবাজার বিট রেঞ্জের অফিসার জহিরুল হক। বক্তব্য রাখেন, থানার এএসআই চন্দন, ইউপি সদস্য আব্দুন নুর, সাতবাঁক ইউপির উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবুল হারিছ। উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সদস্য আমিনুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, আলা উদ্দিন আলাই, সুজন চন্দ অনুপ, জসীম উদ্দিন, সহযোগী সদস্য মাহফুজ সিদ্দিকী, আহমেদুল কবির মান্না, মুমিন রশিদ সহ ইউপির সকল ওয়ার্ডের সদস্য ও বিট পুলিশিং কমিটির নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ বলেন, সাতবাঁক ইউপিতে কোন ধরনের মাদক বেঁচাকেনা ও মাদক ব্যবসায়ী নেই। মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স রয়েছে। জঙ্গি-সন্ত্রাস ও বাল্য বিবাহ মুক্ত ইউনিয়নে সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। জকিগঞ্জ উপজেলা থেকে মাঝেমধ্যে সাতবাঁক ইউপির বিভিন্ন সড়ক দিয়ে একধরনের মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক পাচার করে থাকে। পুলিশ তাদের ধরতে সক্রীয় রয়েছে। তিনি তার ইউনিয়নে তীর শীলং ও জোয়া খেলা বন্ধে এবং তীর খেলার সাথে জড়িত অপরাধীদের গ্রেফতার করতে পারলে সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তা অথবা যদি কোন সচেতন নাগরিক আটক করতে পারেন তবে তিনি সেই ব্যক্তিকে ১০ হাজার টাকা পুরষ্কারের ঘোষণা করেন। ইউপির বিট পুলিশিং কর্মকর্তা এস.আই মোঃ আবু কাওছার বলেন, সাতবাঁক ইউপিতে অপরাধ মূলক কর্মকান্ড অনেকটা কমে এসেছে। এতে সবাই বিট ও কমিউনিটি পুলিশিং কমিটিকে সহযোগিতা করছেন। পুলিশ ও জনতার মধ্যে সমন্বয় থাকলে যে কোন ধরনের অপরাধ মূলক কর্মকান্ড প্রতিরোধ করা সম্ভব। চরিপাড়া স্কুলে সম্প্রতি অষ্টম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী স্কুলের সহকারী শিক্ষক ইসলাম উদ্দিন কর্তৃক ধর্ষণের ঘটনার বর্ণনা দিয়ে বলেন, মামলার তদন্ত কার্যক্রমে প্রাথমিক ভাবে ছাত্রীটি যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে বলে প্রমাণিত হয়েছে। শিক্ষক ইসলাম উদ্দিনকে গ্রেফতার করতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

কানাইঘাটে লাঠি মিছিলের প্রতিবাদে তিন পরগনাবাসীর বিশাল সমাবেশ

Kanaighat News on Thursday, October 26, 2017 | 10:00 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: দলীয় কিছু নেতাকর্মীদের হাতে গত ১৯ অক্টোবর সন্ধ্যার দিকে কানাইঘাট উত্তর বাজারস্থ আ’লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে বড়চতুল ইউপি আ’লীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুবশ্বির আলী চাচাই আক্রান্তের ঘটনার প্রতিবাদে চতুল পরগনাবাসীর উদ্যোগে গত শুক্রবার ৯ পরগনার কানাইঘাট বাজারে স্বশস্ত্র লাঠি মিছিলের ঘটনার প্রতিবাদে কানাইঘাট বাজেরাজ, চাউরা ও সাতবাঁক পরগনাবাসীর ব্যানারে বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট পূর্ব বাজারে বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করলে বিষয়টি শান্তিপূর্ণ ভাবে স্থানীয় প্রশাসন সহ বৃহত্তর জৈন্তিয়া ১৭ পরগনা ও কানাইঘাট ফালজুর সহ অন্যান্য স্বতন্ত্র পরগনার মুরব্বি ও জনপ্রতিনিধিরা বৃহস্পতিবার রাতে বাজেরাজ, চাউরা, সাতবাঁক ও চতুল পরগনার মুরব্বিয়ানদের সাথে পৃথক বৈঠকে বসলে উভয় পক্ষ সমূহ ঘটনা নিরপেক্ষ ভাবে শান্তিপূর্ণ নিষ্পত্তির জন্য তাদের মতামত দিয়েছেন। সচেতন মহল মনে করেন, উভয় পক্ষের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে উত্তেজনা নিরসন হবে। বৃহস্পতিবার তিন পরগনার উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিবাদে সভাপতিত্ব করেন বাজেরাজ পরগনার বিশিষ্ট মুরব্বী শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম। ছাত্রনেতা নাজমুল ইসলাম হারুন ও শাহাব উদ্দিনের যৌথ পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বাজেরাজ, চাউরা ও সাতবাঁক পরগনাবাসীর বিশিষ্ট মুরব্বী সহ সর্বস্তরের জনসাধারণের উপস্থিতিতে বক্তব্য রাখেন, সাতবাঁক ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ইফজালুর রহমান, মাওঃ ইসমাইল আলী, মাও: সামছুল হুদা, সিলেট বানীর নির্বাহী সম্পাদক সাংবাদিক এম.এ হান্নান, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মামুন রশিদ, জালাল আহমদ, আলা উদ্দিন মামুন, সিরাজুল ইসলাম খোকন, রফিক আহমদ, হাজী আব্দুল মালিক মহাজন, সাবেক কাউন্সিলার ফখর উদ্দিন শামীম, তোতা মিয়া, সাবেক ছাত্রনেতা জামাল উদ্দিন, কাউন্সিলার শরিফুল হক, বদরে আলম চৌধুরী বাবু, নিজাম উদ্দিন, মাসুক আহমদ, ইউপি সদস্য আব্দুন নুর, আলহাজ্ব শাব্বির আহমদ, কাউন্সিলর ইসলাম উদ্দিন, যুবনেতা ইসলাম উদ্দিন, ছাত্রনেতা আজমল হোসেন, রুহুল আমিন সহ অর্ধ শতাধিক নেতৃবৃন্দ। প্রতিবাদ সমাবেশে তিন পরগনার মুরব্বী ও যুব সমাজ তাদের বক্তব্যে বলেন, গত ১৯ অক্টোবর কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের একটি সভা শেষে বড়চতুল ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলী চাচাই কিছু দলীয় নেতাকর্মীদের হাতে অনাকাংখিত ভাবে আক্রান্ত হন। বিষয়টি তাৎক্ষণিক ভাবে দলীয় ভাবে নিষ্পত্তির চেষ্টা করা হলেও মুবশ্বির আলী চাচাই ও তার সহযোগীরা কোন সাড়া না দিয়ে পরদিন শুক্রবার মুবশ্বির আলীর নেতৃত্বে চতুল পরগনার উশৃঙ্খল লোকজন সশস্ত্র লাঠি সোটা নিয়ে মিছিল সহকারে ৯ পরগনা কানাইঘাট বাজারে যে ত্রাস সৃষ্টি করে তা কোন অবস্থাতে অন্যান্য
পরগনার মানুষ মেনে নিতে পারেন না। বার বার মুবশ্বির আলী গংরা তুচ্ছা ঘটনা নিয়ে অন্যান্য পরগনার মানুষের উপর হামলা করে থাকে। উপজেলার শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্ট করার জন্য মুবশ্বির আলী চাচাইর নেতৃত্বে পরগনার ডাক দিয়ে বিভিন্ন সময়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সংঘঠিত হয় এতে করে শান্তি প্রিয় কানাইঘাট উপজেলা বাসী হেয়প্রতিপন্নের স্বীকার হন। শুক্রবারের স্বশস্ত্র লাঠি মিছিল এবং এ ঘটনার মদদ দাতা চাচাই সহ তাদের সহযোগীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি ও অন্যান্য পরগনাবাসীর কাছে এ ধরনের ন্যাক্কার জনক ঘটনার নিঃস্বার্থ ক্ষমা প্রার্থনা মুবশ্বির আলী চাচাই গংরা না করলে অন্যান্য পরগনা সর্বস্তরের মানুষকে নিয়ে শান্তিপূর্ণ উপায়ে যে কোন ধরনের কর্মসূচী গ্রহণ করা হবে বলে সমাবেশ থেকে হুশিয়ারি দেওয়া হয়। চতুল পরগনার অনেক বড় বড় মুরব্বী রয়েছেন। গত শুক্রবারের লাঠি মিছিলের মত ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে চতুলের বিবেকবান মানুষ জড়িত নয় বলে সমাবেশে অনেক বক্তা তাদের বক্তব্যে বলেন। অপরদিকে চতুল পরগনা বাসীর উদ্যোগে বৃহস্পতিবার বিকেল ২টায় স্থানীয় চতুল ঈদগাহ বাজারে পৃথক গণজমায়েত অনুষ্ঠিত হয়। জমায়েতে বাউরভাগ পরগনার মুরব্বী সহ বড়চতুল ইউপির চেয়ারম্যান মাওঃ আবুল হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলী চাচাই, হাজী আব্দুল হেকিম, শামীম উদ্দিন, সালমান রশিদ, এবাদুর রহমান, শাহাব উদ্দিন, মুহিবুর রহমান, ফারুক আহমদ পাখি, মীর মোঃ আব্দুল্লাহ, ইউপি সদস্য আব্দুল মুতলিব সহ অনেকে বক্তব্য রাখেন। জমায়েতে চতুল পরগনার লোকজনদের উপর বিভিন্ন সময় হামলা, মিথ্যা অপবাদ, আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলী চাচাইর উপর পরিকল্পিত হামলার কথা তুলে ধরে ঘটনার সুষ্ঠু বিচার ও হামলাকারীদের শাস্তির দাবী জানানো হয়। এদিকে গত কয়েকদিন থেকে এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করলে  বৃহস্পতিবারের পাল্টাপাল্টি সভাকে কেন্দ্র করে কানাইঘাট বাজার, চতুল ঈদগাহ বাজার সহ উপজেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। ১৯ অক্টোবরের ঘটনা নিয়ে একদিকে চতুল পরগনাবাসী অপরদিকে বাজেরাজ, চাউরা, সাতবাঁক পরগনার লোকজনদের মধ্যে উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি শান্তিপূর্ণ ভাবে নিষ্পত্তির জন্য বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে কানাইঘাট ডাক বাংলোয় বাজেরাজ, চাউরা ও সাতবাঁক পরগনার মুরব্বী ও রাত ৯টায় চতুল পরগনার মুরব্বীয়ানদের সাথে চতুল ঈদগাহ বাজারে বৈঠকে মধ্যস্থতা করেন, সাতবাঁক ইউপির চেয়ারম্যান জেলা আ’লীগ নেতা মস্তাক আহমদ পলাশ, ফালজুর পরগনার বিশিষ্ট মুরব্বী কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান জেমস্ লিও ফারগুসন নানকা, সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, আ’লীগ নেতা আব্দুল লতিফ, বড়দেশ পরগনাবাসীর পক্ষে ৭নং দক্ষিণ বানীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। উভয় পক্ষের সাথে বৈঠক কালে চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ ও চেয়ারম্যান জেমস্ লিও ফারগুসন নানকা সহ ঘটনার মধ্যস্থতাকারী নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, গত ১৯ অক্টোবর ও ২০ অক্টোবরের সমূহ ঘটে যাওয়া ঘটনাটি পর্যালোচনা করে এলাকায় শান্তি, সম্প্রীতি বজায় রাখতে সিলেটের উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসন ও অন্যান্য পরগনার মুরব্বীয়ানদের নিয়ে ঘটনাটি নিষ্পত্তির আহ্বান জানালে উভয় পক্ষ এতে তাদের সম্মতি জানান।

কানাইঘাটে প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ-সার বিতরণ


নিজস্ব প্রতিবেদক: কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে ২০১৭-১৮ মৌসুমে প্রনোদনা কর্মসূচির আওতায় বিনামূল্যে কানাইঘাট উপজেলার ৪০৬ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় উপজেলা কৃষি অফিসের আয়োজনে সার ও বীজ বিতরণ অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে কৃষকদের মাঝে কৃষি উপকরণ বিতরণ করেন নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুন্সি তোফায়েল হোসেনের সভাপতিত্বে কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মনসুর আলম, সাংবাদিক শাহীন আহমদ, সুজন চন্দ অনুপ ও বিভিন্ন ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের উপস্থিতে জন প্রতি কৃষকের মাঝে চাষাবাদের ধাপ অনুযায়ী ১ কেজী উন্নত জাতের সরিষা বীজ, ২০ কেজী ডিএপি সার, ১০ কেজী এমওপি সার, ২ কেজী ভুট্টা বীজ, ১ বিঘা জমিতে ফলনের জন্য ২ কেজী বিট বেগুণ বীজ, ১৫ ডিএপি, ১৫ কেজী এমওপি সার এবং গ্রীষ্মকালীন মুঘ ফসলের জন্য ৫ কেজী করে মুঘ বীজ, ২০ কেজী ডিএপি ও এমওপি সার বিতরণ করা হয়। বীজ ও সার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের উদ্যেশ্যে বলেন, সরকারী ভাবে বিনামূল্যে আপনাদের মাঝে যে কৃষি উপকরণ বিতরণ করা হচ্ছে তা যথাযথ ভাবে কাজে লাগিয়ে নিজেদের আর্থিক ভাবে স্বাবলম্বী করার জন্য ফসল উৎপাদন করবেন। কোন কৃষক ফসল না লাগিয়ে বীজ ও সার কোথাও বিক্রির চেষ্টা করলে তাৎক্ষণিক ভাবে সেই কৃষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।

কানাইঘাটে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট থানা পুলিশ এক মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে গত বুধবার সকাল ৭ টায় কানাইঘাট পৌরসভার শাহবাগ সড়কের রামপুর গ্রামের ষ্টীল ব্রিজের পাশ থেকে ৫০ বোতল ভারতীয় ফেনিসিডিল সহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদের দিক নির্দেশনায় থানার এসআই পিযুষ কান্তি দেবনাথ, এএসআই চন্দন কুমারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৫০ বোতল ফেনিসিডিলসহ জকিগঞ্জ উপজেলার বালিগ্রামের বশির আলীর পুত্র মাদক ব্যবসায়ী কামরুল ইসলামকে হাতে নাতে গ্রেফতার করলেও তার এক সহযোগী পুলিশের অভিযান টের পেয়ে পালিয়ে যায়। এঘটনায় ধৃত মাদক ব্যবসায়ী কামরুল ও তার সহযোগী কানাইঘাট সাঁতবাক ইউপির জুলাই নয়ামাটি গ্রামের মসাই মিয়ার পুত্র আশিক উদ্দিনকে আসামী করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে এসআই পিযুষ কান্তি দেবনাথ বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। থানার মামলা নং ১০ তাং- ২৫-১০-১৭।

চীনা কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান শি জিনপিং

চীনা কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান শি জিনপিং
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-কে দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির নেতা হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন করা হয়েছে। আগামী পাঁচ বছরের জন্য তিনি চীনা কমিউনিস্ট পার্টির চেয়ারম্যান ও পলিটব্যুরোর স্থায়ী কমিটির প্রধান হিসেবে কাজ করবেন।

আজ বুধবার চীনা কমিউনিস্ট পার্টি এ ঘোষণা দিয়েছে।

শি জিনপিংয়ের পাশাপাশি পলিটব্যুরোতে থাকছেন প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং। রুদ্ধদ্বার বৈঠকে পার্টির সর্বোচ্চ এ পর্যায়ের জন্য নতুন আরো পাঁচ ব্যক্তি নির্বাচিত হয়েছেন।

অনেকে ধারণা করছেন, পলিটব্যুরোর বিদায়ী কমিটির চেয়ে নতুন কমিটি কম প্রভাবশালী হবে; সেখানে বরং ৬৪ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং অনেক বেশি প্রভাবশালী ব্যক্তি। চীনে মাও সেতুংয়ের পরে জিনপিং-কে সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ২০১২ সালে তিনি ক্ষমতায় আসার পর দেশে দুর্নীতি-বিরোধী ব্যাপক অভিযান চালিয়েছেন।

শি জিনপিংয়ের রাজনৈতিক তত্ত্বের কারণে তার নাম চীনা সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মাও সেতুংয়ের পর এ কৃতিত্ব শুধু তারই। শি জিনপিং-কে দ্বিতীয় দফায় নির্বাচিত করার মাধ্যমে তাকে খোলা হাতে নিজের কর্মসূচি বাস্তবায়নের সুযোগ দেয়া হয়েছে যাতে চীন এ শতকের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে বিশ্বমানের সামরিক শক্তি নিয়ে পরাশক্তি হতে পারে।

১৭ লাখ টাকাসহ ৭ ডিবি পুলিশ আটক

১৭ লাখ টাকাসহ ৭ ডিবি পুলিশ আটক

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফ পৌরসভার এক কাউন্সিলরের ভাইকে আটকের পর জিম্মি করে ১৭ লাখ টাকা আদায়ের ঘটনায় ৭ ডিবিকে আটক করেছেন সেনাবাহিনী। এঘটনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবির) দুই  উপ-পরিদর্শক (এসআই) তিন সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ও দুই কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

আজ বুধবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেন এ আদেশ দেন।
 
টেকনাফ পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মনিরুজ্জামানের ভাইকে ইয়াবা ব্যবসায়ী হিসেবে আটকের পর জিম্মি করে আদায় করা ১৭ লাখ টাকাসহ ডিবি পুলিশের অফিসারসহ ৭জনকে আটক করেছে সেনাবাহিনীর একটি দল। এসময় তাদের ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাসও জব্দ করা হয়েছে।

বুধবার ভোরে ডিবির এসব সদস্যকে আটক করা হয়। পরে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেন ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল আটকদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাদের ছাড়িয়ে নিয়ে যান।

এ ব্যাপারে টেকনাফের সাবরাং নয়াপাড়া ত্রাণকেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা মেজর নাজিম আহমেদ বলেন, তার নেতৃত্বে ডিবির ওই দলটিকে আটক করা হয়। আটক ব্যবসায়ীর নাম আবদুল গফুর। তিনি টেকনাফ পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনিরুজ্জামানের ভাই ও কম্বল ব্যবসায়ী।

কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান বলেন, আবদুল গফুর মঙ্গলবার কক্সবাজার আয়কর অফিসে রিটার্ন জমা করতে যান। সেখান থেকে তাকে তুলে নিয়ে যায় ডিবির একটি দল। এরপর তাকে ইয়াবা ব্যবসায়ী হিসেবে চালান দেয়ার হুমকি দিয়ে পরিবারের কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করে ডিবির ওই দলটি। দর-কষাকষির পর ১৭ লাখ টাকায় তাকে ছেড়ে দিতে সম্মত হয় ডিবিদল। এসব বিষয় সেনাবাহিনীকে অবহিত করা হয়। কথামতো টেকনাফ এসে টাকা বুঝে পাবার পর তাকে ভোররাতে মেরিন ড্রাইভ এলাকায় ছেড়ে দেয় আটককারীরা। বিষয়টি সেনাবাহিনীকে জানালে টেকনাফের মেরিন ড্রাইভ এলাকার লম্বরী সেনাবাহিনীর তল্লাশিচৌকিতে ডিবির গাড়িটি সংকেত দিয়ে থামানো হয়।

গাড়িতে এসআই আবুল কালাম আজাদ, এসআই আলাউদ্দিন ও এসআই মনিরুজ্জামান, তিনজন এএসআই এবং ২ কনস্টেবলসহ ৮জন ছিলেন। গাড়ি থামানোর পর এসআই মনির কৌশলে পালিয়ে যান। গাড়ি থেকে জিম্মির বিনিময়ে আদায় করা ১৭ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। এরপর বাকি ৭জনকে সাবরাং সেনাবাহিনীর অস্থায়ী ক্যাম্পে নিয়ে আসা হয়।

মেজর নাজিম আহমেদ বলেন, কক্সবাজারের পুলিশ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সেনাবাহিনী ক্যাম্পে এসে আটকদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিয়ে যান। তবে উদ্ধার করা টাকা আমাদের হাতেই রয়েছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সূত্র মতে, ইয়াবার তালিকাভূক্ত এক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছিল। তারা কৌশলে ডিবি পুলিশকে ফাঁসিয়েছে। সেনা হেফাজত থেকে ডিবির সেই দলটিকে নিয়ে অফিসে ফিরছেন পুলিশ সুপারসহ অন্যরা।

এ বিষয়ে কক্সবাজার জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল বলেন, অভিযুক্ত দুই এসআই, তিন এএসআই ও দুই কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এটি জেলা গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক ইয়াসির আরাফাতের নিয়ন্ত্রণাধীন ২ নাম্বার টিম। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থাও নেয়া হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মিয়ানমারের ওপর চাপ দিচ্ছে ভারতও: কাদের

মিয়ানমারের ওপর চাপ দিচ্ছে ভারতও: কাদের

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর ভারতও চাপ দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বুধবার রাজধানীর সেতু ভবনে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে বৈঠক শেষে একথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক চাপের পর ভারত, চীন ও রাশিয়া একইভাবে চাপ দিলে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হবে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পক্ষে ভারতের অবস্থান আগের চেয়ে জোরালো হয়েছে বলেও জানান কাদের।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে বার্মিজ সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা গত দুই মাসে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। একই কারণে আগে থেকেই অন্তত পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে ছিলেন।

জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা রোহিঙ্গা নিপীড়ন বন্ধ করা ও তাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ দিচ্ছে। তবে ভারত, চীন ও রাশিয়া আগে থেকেই মিয়ানমারকে সমর্থন দিচ্ছে।

কূটনীতিকদের অভিমত, ভারতের এ অবস্থান বাংলাদেশকে ক্ষুব্ধ করেছে। এ পরিস্থিতিতে এ সপ্তাহের শুরুতে ঢাকা সফরে এসে ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বলেছেন, তার দেশ রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে রয়েছে। মিয়ানমারকে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে হবে। সুষমা স্বরাজের এ বক্তব্যকে ভারতের অবস্থান বদল হিসেবে দেখছেন ওবায়দুল কাদের।

কাদের আরো বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে বিশ্বজনমত আরও জোরদার হয়েছে। ভারতের সুরও আগের চেয়ে জোরদার হয়েছে। আগে ভারত রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ পাঠালেও শক্ত অবস্থানে যায়নি।

সবজি চাষে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন শফিকুল

Kanaighat News on Wednesday, October 25, 2017 | 7:07 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: সবজি চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন কানাইঘাট পৌরসভার মহেশপুর গ্রামের মরহুম শামছুল হকের পুত্র শফিকুল হক। তিনি পেশায় একজন কৃষক। তার একটাই স্বপ্ন ফরমালিন মুক্ত সবজি চাষ করে তিনি বাজারজাত করবেন। বর্তমানে তার উৎপাদিত সবজি কানাইঘাটে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বর্তমানে ফরমালিন মুক্ত সবজি চাষে আশানুরূপ উৎপাদন হওয়ায় তিনি নিজেকে আর্তিক ভাবে স্বাবলম্বি হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। জানা যায়, কানাইঘাট পৌরসভার মহেষপুর শফিকুল হক বিভিন্ন জাতের সবজী চাষের মাধ্যমে বেকারত্ব ও দরিদ্রতা দুর করতে নিজস্ব জমি-জমা না থাকায় অন্যের জমিতে বর্গা চাষ করে কঠিন পরিশ্রমের মাধ্যমে নিজের ভাগ্যকে পরিবর্তন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বর্তমানে ফরমালিন মুক্ত সবজি চাষে আশানুরুপ উৎপাদন হওয়ায় তিনি নিজেকে আর্থিক ভাবে স্বাবলম্বি হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। শফিকুল হক মনে করেন তার প্রতিদিনের হাড় ভাঙ্গা পরিশ্রমের ফরমালিন মুক্ত ফসল জনগনের কিছুটা হলেও পুষ্টির চাহিদা পুরণ করবে। বর্তমানে তার উৎপাদিত ফসলের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- বরবটি, লাউ, শীম, কচুরাজ, লালশাক, করলা ইত্যাদী। তিনি প্রায় ৪ একর জায়গার উপর বিভিন্ন জাতের ৪টি সবজি বাগান করেছেন। কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসনের বাউন্ডারী এলাকায় রয়েছে তার সকল সবজি বাগান। এছাড়া বর্তমানে শফিকুল হকের প্রতিটি সবজী বাগানের নিচে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির মাধ্যমে রয়েছে মৎস্য চাষের খামার। তিনি তার লাউ ও শীম বাগানের নিচে চাষ করছেন তেলাপিয়া ও পাংকাস মাছ। সবকিছু মিলিয়ে দরিদ্র কৃষক শফিকুর রহমানের চোখে মুখে এবার স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন। কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসনের আশেপাশে তার সবজী বাগানের চাষাবাদ হওয়ায় তাকে সার্বিক ভাবে সহযোগীতা করছেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুন্সী তোফায়েল হোসেন। এছাড়া উক্ত চাষাবাদে তাকে সহযোগীতা করছেন উপজেলা উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মনসুর আলম, পৌরসভা ব্লকের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা কবির আহমদ। কৃষক শফিকুল হক বলেন, উপজেলা কৃষি অফিস তাকে যে ভাবে পরামর্শ ও সহযোগিতা করে আসছেন। এভাবে তিনি সব সময় সহযোগীতা পেলে ফরমালিনমুক্ত সবজী চাষ করে তিনি সফলতার শিকড়ে পৌছতে পারবেন। এছাড়া তিনি মাছ ও সবজী চাষের জন্য আরো কয়েক বিগা জায়গা বর্গা নিয়ে তার চাষাবাদ এরিয়া বাড়াবেন। এতে এলাকার কয়েকজন বেকার যুবককে তিনি কাজে লাগাতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এদিকে গত বৃহস্পতিবার তার ফরমালিন মুক্ত সবজী বাগান পরিদর্শন করেন, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুন্সী তোফায়েল হোসেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কানাইঘাট পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তাজ উদ্দিন, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জুনেদ হাসান জিবান, সাতবাক ইউপি সদস্য শাব্বির আহমদ প্রমূখ।

কানাইঘাটে চোরাইকৃত গরুসহ তিন চোর গ্রেফতার


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির ফতেহগঞ্জ গ্রামের হারিছ মিয়ার বাড়ীতে গত সোমবার গভীর রাতে গরু চুরির ঘটনার সাথে জড়িত তিন পেশাদার গরুচোরকে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনতার সহায়তায় কানাইঘাট থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ফতেহগঞ্জ গ্রামের হারিছ মিয়ার পুত্র কৃষক আখলাছ মিয়ার দু’টি হালের গরু সোমবার দিবাগত গরু চোররা গোয়াল ঘর থেকে চুরি করে নিয়ে যায়। গরু চুরির ঘটনাটি জেনে কানাইঘাট অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ চুরি হওয়া গরু উদ্ধার এবং এ ঘটনার সাথে চোরদের আটক করতে থানার এসআই বশির আহমদকে নির্দেশ প্রদান করেন। এসআই বশির আহমদ গরু চোরদের গ্রেফতার করতে ব্যাপক তৎপরতা শুরু করলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার বিকেল ২টায় বিয়ানীবাজার উপজেলার মাত্তিউরা ইউপি পরিষদের অদূরে থেকে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশের সহায়তায় এসআই বশির তিন গরুচোরকে গ্রেফতার ও চোরাইকৃত দু’টি চোরাই গরু উদ্ধার করেন। গ্রেফতারকৃত গরুচোররা হল, কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির টুনু মিয়ার পুত্র মোঃ হাসান আলী (২৭), ঝিঙ্গাবাড়ী ইউপির তিনচটি গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের পুত্র একাধিক গরু চুরি মামলার আসামী মোঃ রহিম উদ্দিন, বিয়ানীবাজার উপজেলার পুরুষপাল গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের পুত্র নাসির উদ্দিন (২৫)। এ ঘটনায় উদ্ধারকৃত গরুর মালিক ফতেহগঞ্জ গ্রামের মোঃ হারিছ মিয়ার পুত্র মোঃ আখলাছ মিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। থানার মামলা নং- ০৯, তাং- ২৫/১০/২০১৭ইং। এদিকে কানাইঘাট উপজেলার সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও সম্প্রতি কিছু গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত রবিবার গভীর রাতে বড়চতুল ইউপির বড়চতুল গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য হাজী আলমাছ উদ্দিন চৌধুরীর ৬টি গরু চুরির ঘটনা ঘটে। এছাড়া সম্প্রতি মাস খানেক পূর্বে নন্দিরাই গ্রামের হাফিজ উদ্দিনের ৪টি গরু সহ আরো ২/৩টি গরু চুরির ঘটনা রয়েছে।

সাংবাদিকদের সাথে কানাইঘাট থানার ওসির মতবিনিময়

নিজস্ব প্রতিবেদক:
আগামী ২৮ অক্টোবর কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষ্যে কানাইঘাট থানা পুলিশের কার্যক্রম তুলে ধরে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভা বুধবার বিকেল ২টায় থানা অফিসার ইনচার্জের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। থানার ওসি আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে ও থানার কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার এসআই স্বপন চন্দ্র সরকারের পরিচালনায় মতবিনিময় সভয় থানার ওসি আব্দুল আহাদ বলেন, জনতাই পুলিশ, পুলিশই জনতা এই স্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক শহিদুল হক পিপিএম স্যার আগামী ২৮ অক্টোবর কমিউনিটি পুলিশিং ডে দিবসের সূচনা করেছেন। দেশব্যাপী জেলা ও থানা পর্যায়ে পুলিশের উদ্যোগে পুলিশিং ডে উপলক্ষ্যে সর্বস্তরের জনসাধারণের অংশগ্রহণে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এর অংশ হিসেবে সিলেট রেঞ্জ ও জেলা পুলিশের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ২৮ অক্টোবর শনিবার সকাল ১১টায় কানাইঘাট থানা পুলিশের উদ্যোগে থানা প্রাঙ্গণ থেকে কমিউনিটি পুলিশের সদস্য ও সকলের অংশ গ্রহণে র‌্যালী ও পরবর্তী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে উপজেলার সকল কমিউনিটি পুলিশের সদস্য, রাজনৈতিক মহল ও সূধীবৃন্দ সহ সর্বস্তরের লোকজনকে অংশ গ্রহণের মাধ্যমে উপজেলার সার্বিক আইন শৃঙ্খলার উন্নয়ন ও কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম জোরধারের মাধ্যমে সমাজ থেকে সব ধরনের অপরাধ নির্মূলে পুলিশকে গুরুত্বপূর্ণ মতামত ব্যক্ত করার আহবান জানানো হয়। কানাইঘাট থানা কমিউনিটি পুলিশের কার্যক্রম তুলে ধরে ওসি আব্দুল আহাদ বলেন, উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় থানার একজন সাব ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার অফিসারকে বিট পুলিশিং অফিসার নিয়োজিত করে আইন শৃঙ্খলার উন্নয়নে ইতিমধ্যে বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে সভা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, থানার এসআই যথাক্রমে হুমায়ুন কবির, বশির আহমদ, ইসমাইল, পিযুষ দেবনাথ, মনসুর মির্জা, এএসআই হারুনুর রশিদ, খোরশেদ আলম, কানাইঘাট পৌর আ’লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক খলিলুর রহমান, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সহ সম্পাদক আব্দুন নুর, সাংবাদিক শাহীন আহমদ, ফটোগ্রাফার জাকারিয়া হোসেন প্রমুখ।

কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে'র বার্ষিক সাধারণ সভা ও আজীবন সম্মাননা পদক প্রদান

Kanaighat News on Tuesday, October 24, 2017 | 7:42 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: যুক্তরাজ্যস্থ কানাইঘাটবাসীর প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের বার্ষিক সাধারণ সভা ২০১৭ বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে । সোমবার, ২৩ অক্টোবর পূর্ব লন্ডনের দ্যা হলিডে ইন হোটেলের হলরুমে শতাধিক কানাইঘাটবাসীর উপস্থিতিতে বার্ষিক এ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণ সভায় কানাইঘাটের উন্নয়ন, অগ্রগতি ও সংগঠনের আগামী দিনের কার্যক্রম নিয়েও ব্যাপক আলোচনা হয়। অনুষ্ঠানে কানাইঘাটের দুই কৃতি ব্যক্তিত্বকে সম্মাননা দেওয়া হয়। কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মরহুম এমএ রকিবকে মরণোত্তার পদক এবং কানাইঘাট ৭নং দক্ষিণ বানীগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুর রহমানকে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি কৃষিবিদ নিজাম উদ্দীন আহমদ চৌধুরী। সাধারণ সম্পাদক মো: ইকবাল হোসাইন সংগঠনের বার্ষিক কার্যক্রমের বিবরণ দেন। মো: রিয়াজ উদ্দীন ও সারওয়ার কবিরের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ সভাপতি ফারুক আহমদ, একেএম শামসুজ্জামান বাহার, শামীম আহমদ শামুল, মিসেস সমিরুন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক রশিদ আহমদ, সালাউদ্দিন খসরু, শামসুজ্জোহা চৌধুরী সোহেল, প্রফেসার কামাল উদ্দীন, নাজমুল ইসলাম । সংগঠনের বার্ষিক রিপোর্ট রিপোর্ট পেশ করেন ট্রেজারার আব্দুর রহমান বুলবুল।কানাইঘাটের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত সর্বস্তরের কানাইঘাটবাসীকে
ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবার আহবান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন নাজমুল ইসলাম, সোহেল রাজা, জিয়াউর রহমান, নুরুল হুদা, নুরুল আলম, ফাহিম আহমেদ, শুয়েবুর রহমান, রোকনুল কবির, ইকবাল উদ্দীন আহমদ চৌধুরী, আফতাব চৌধুরী কাওসার, হাসান আহমদ, আলমগীর কবির, মোস্তাক আহমদ, তাজুল ইসলাম, সালাউদ্দিন আহমদ, মোক্তার আহমদ,হেলাল উদ্দীন, একলিমুর রাজা চৌধুরী মান্না । কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করে সভায় বক্তব্য রাখেন গাছবাড়ী ডেভোলাপমেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি মুজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আহমেদ সোলেমান। অনুষ্ঠানে কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকের ফান্ড রাইজিং পলিসি নিয়ে আলোচনা করেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক ফাহাদ আহমদ। সংগঠনের কার্যক্রম ও আগামী দিনের পরিকল্পনা নিয়ে বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুম আহমদ। বক্তব্য রাখেন সংগঠনের দপ্তর সম্পাদক মাহতাবুর রহমান, আইটি বিষয়ক সম্পাদক কাওসার আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা কামাল, আবুল ফয়েজ, তোফায়েল আহমদ, সুহেল আহমদ, সমাজসেবা সম্পাদক আফজাল আহমদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শাহীন আহমদ, ক্রীড়া সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, ইফতেখার উদ্দীন আহমদ চৌধুরী, ইলিয়াস আলী, মকদ্দস আলী, নজরুল ইসলাম, রাশেদ আহমদ, ফয়সল আহমদ, মারুফ আহমদ,জামিল হোসাইন, আশরাফুল আম্বিয়া প্রমূখ।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ! ফাইনালে কানাইঘাট মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়


নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭ এর খেলায় কানাইঘাট উপজেলা পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় জেলা পর্যায়ের সেমিফাইনাল খেলায় গোয়াইনঘাট উপজেলার রফা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে ৩-১ গোলে পরাজিত করে ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়েছে। মঙ্গলবার সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বেলা ১টায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুটবল টুর্নামেন্টের সেমি ফাইনাল খেলায় নৈপুণ্য দেখিয়ে মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩-১ গোলে রফা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরিষ্কার ব্যবধানে পরাজিত করে ফাইনালের টিকেট কাটে। আগামীকাল বুধবার সকাল ১০টায় আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সিলেট জেলা পর্যায়ের ফাইনাল খেলায় মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের রাধা রানী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় টিমের মোকাবেলা করবে। খেলা চলাকালীন সময়ে মাঠে উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করেন, কানাইঘাট উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামসুল ইসলাম, কানাইঘাট বড়চতুল ইউপি চেয়ারম্যান মাওঃ আবুল হোসেন, জৈন্তাপুর চারিকাটা ইউপির চেয়ারম্যান শাহ আলম চৌধুরী তোফায়েল, উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা অফিসার গোপাল চন্দ্র সূত্রধর, মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুল লতিফ চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল আহমদ, উমরগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আম্বিয়া, উজান বীরদল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফুর রহমান, পর্বতপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিন, সহকারী শিক্ষক মুজিবুর রহমান, অসীম রঞ্জন দাস, আব্দুল হামিদ, রায়হান উদ্দিন, সহকারী শিক্ষক সমিতির সেক্রেটারী রশিদ আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, মালিগ্রাম প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসায় ক্বোররা সমাবেশ বৃহস্পতিবার

Kanaighat News on Monday, October 23, 2017 | 7:14 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ২৬ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসা মিলনায়তনে মুশাহিদিয়া ক্বিরাআত প্রশিক্ষণ বোর্ড বাংলাদেশ এর ১৬সালা দস্তারবন্দী মহাসম্মেলনের সকল প্রস্তুতি গ্রহণের লক্ষ্যে এক বিশাল ক্বোররা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এতে ২০০২-২০১৭ ইং সাল পর্যন্ত বোর্ডের সকল ফাযিলগণকে যথা সময়ে উপস্থিত থাকার জন্য বোর্ডের সভাপতি মাওঃ আলিমুদ্দীন দুর্লভপুরী ও সাধারণ সম্পাদক মাওঃ মাহমুদুল হাসান রায়গড়ী আহবান জানিয়েছেন।

কানাইঘাটে পুলিশের হাতে জুয়াড়ী'সহ আটক ৮


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির ছোট মির্জারগড় গ্রামের কুখ্যাত জোয়াড়ী রসু মিয়ার বাড়ীতে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে সংঘবদ্ধ জোয়াড়ী চক্র কর্তৃক জোয়া খেলার সময় কানাইঘাট থানা পুলিশের এস.আই বশির আহমদ, স্বপন চন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ গত রবিবার গভীর রাতে সেখানে হানা দিয়ে ৭ জোয়াড়ীকে আটক করে। এ সময় জোয়াড়ীদের কাছ থেকে কয়েক বান্ডিল তাশ, নগদ ১৪৩০/- টাকা উদ্ধার করা হয়। পুলিশের অভিযানে রসময় সংঘবদ্ধ জোয়াড়ী চক্ররা জোয়া খেলার হাজার হাজার টাকা সরিয়ে ফেলে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। আটককৃত জোয়াড়ীদের সোমবার বিকেল ২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ১ম শ্রেণির ম্যাজিষ্ট্রেট তানিয়া সুলতানার কার্যালয়ে হাজির করলে তিনি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে প্রত্যেক জোয়াড়ীকে মামলা দায়েরের মাধ্যমে ১০০/- টাকা করে জরিমানা করেন। পরে জরিমানার টাকা দিয়ে মুচলেখার মাধ্যমে জোয়াড়ীরা মুক্তি পায়। জোয়াড়ীরা হলো স্থানীয় ছোট মির্জারগড় গ্রামের জোয়াড়ী রসু মিয়ার পুত্র ওহিদ আহমদ (৩২), ফতেহগঞ্জ গ্রামের সফর আলীর পুত্র কয়েস আহমদ (৩৪), ছোট মির্জারগড় গ্রামের রফিক উদ্দিনের পুত্র আমিন উদ্দিন (৩৩), একই গ্রামের আব্দুল বারির পুত্র মাসুক আহমদ (৩২), মৃত আব্দুল মন্নানের পুত্র কবির আহমদ (৪৪), আহমদ আলীর পুত্র জামাল উদ্দিন (৩৬), ফতেহগঞ্জ গ্রামের আইয়ুব আলীর পুত্র শাহাব উদ্দিন (৫৫)। স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন, পুলিশের হাতে আটককৃত জোয়াড়ীরা এলাকার বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপের সাথে জড়িত, তারা নিয়মিত জোয়া খেলা, তীর খেলা সহ অনেকে গাঁজা সেবনে আসক্ত থাকে। কুখ্যাত জোয়াড়ী রসু মিয়ার বাড়ীতে নিয়মিত জোয়ার আড্ডা বসে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। অপরদিকে কানাইঘাট থানা পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে রবিবার গভীর রাতে রাজাগঞ্জ ইউপির নয়ামাটি গ্রামের বরকত উল্লার পুত্র ৩ মাসের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী বদরুলকে গ্রেফতার করা হয়।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ! জেলা পর্যায়ের সেমি-ফাইনালে কানাইঘাট মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়


নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৭ এর খেলায় কানাইঘাট উপজেলা পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় জেলা পর্যায়ে ১ম রাউন্ডের খেলায় জৈন্তাপুর উপজেলার ডিগারাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে ৩-০ গোলে পরাজিত করেছে। সোমবার সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুটবল টুর্নামেন্টের জেলা পর্যায়ের খেলায় মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩-০ গোলে ডিগারাই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে সেমিফাইনালে উন্নীত হয়। খেলা চলাকালীন সময়ে মাঠে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, বড়চতুল ইউপি চেয়ারম্যান মাওঃ আবুল হোসেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের সহকারী শিক্ষা অফিসার শাহীন মাহবুব, গোপাল চন্দ্র সূত্রধর, মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুল লতিফ চৌধুরী, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল আহমদ, উমরগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আম্বিয়া, নুরুননবী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুক আহমদ, জন্তিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বদরুল আলম, কানাইঘাট মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান, সহকারী শিক্ষক সমিতির সেক্রেটারী রশিদ আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ।

কানাইঘাটে লাঠি মিছিলকে কেন্দ্র করে দুই পরগনার বৈঠক ! জনমনে উত্তেজনা

Kanaighat News on Sunday, October 22, 2017 | 10:39 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: দলীয় কিছু নেতাকর্মীদের হাতে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে কানাইঘাট উত্তর বাজারস্থ আ’লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে বড়চতুল ইউপি আ’লীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুবশ্বিরর আলী চাচাই আক্রান্তের ঘটনার প্রতিবাদে চতুল পরগনাবাসীর উদ্যোগে গত শুক্রবার কানাইঘাট উপজেলা সদরে স্বশস্ত্র লাঠি মিছিলের ঘটনায় কানাইঘাটে অন্যান্য পরগনার মানুষের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। চতুলবাসীর লাঠি মিছিল নিয়ে পাল্টা জবাব দিতে গত শনিবার সন্ধ্যার দিকে কানাইঘাট বাজেরাজ ও চাউরা পরগনার মুরব্বিয়ানরা ডাক বাংলোয় একত্রিত হন। এ নিয়ে এলাকায় বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বৃহত্তর জৈন্তিয়া ১৭ পরগনার সালিশ সমন্বয় কমিটির সভাপতি আবুল হোসেন চৌধুরী সহ পরগনার কয়েকজন মুরব্বী ডাক বাংলোয় দুই পরগনার বৈঠকে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি সামাজিক ভাবে নিষ্পত্তির উপর গুরুত্বারূপ করেন। ১৭ পরগনার সভাপতি আবুল হোসেন রাজনৈতিক একটি ঘটনা নিয়ে চতুল পরগনা বাসীর লোকজন কানাইঘাট বাজার সহ প্রশাসন এলাকায় লাঠি মিছিলের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখ জনক বলে মন্তব্য করেন। যে কোন ধরনের ঘটনা উত্তেজনা সৃষ্টি করে নিরসন সম্ভব নয়। শান্তিপূর্ণ ও সালিশের মাধ্যমে সবকিছুর সমাধান সকলের জন্য মঙ্গল জনক হবে বলে ১৭ পরগনার মুরব্বীরা মনে করেন। পরে ১৭ পরগনার সালিশ সমন্বয় কমিটির সভাপতি উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতি নিরসনে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের সাথে কথা বলেন। এদিকে আগামী বৃহস্পতিবার চতুল বাসীর লাঠি মিছিলের প্রতিক্রিয়ার জবাব দিতে বাজেরাজ ও চাউরা পরগনা সহ কানাইঘাটের অন্যান্য পরগনার লোকজনদের উদ্যোগে ডাক বাংলোয় পরবর্তী সভার ডাক দেয়া হয়েছে। উক্ত সভা থেকে নানা ধরনের কর্মসূচী আসতে পারে। দলীয় কিছু নেতাকর্মীদের হাতে বড়চতুল ইউপি আ’লীগের আহ্বায়ক মুবশ্বির আলী চাচাই আক্রান্তের তুচ্ছ রাজনৈতিক ঘটনাটি পরগনার দিকে ঠেলে দেয়ায় সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে তুমুল আলোচনা সমালোচনা চলছে। এ নিয়ে চতুল পরগনাবাসীর দুই থেকে আড়াই হাজার লোকজন লাঠি সোটা, সেল-সুলফি, ঝাটা, ধারালো অস্ত্র নিয়ে চতুল থেকে মিছিল সহকারে উপজেলা প্রশাসন, কানাইঘাট থানা অতিক্রম করে ৯ পরগনার স্বতন্ত্র বাজার কানাইঘাট বাজারে লাঠি নিয়ে মিছিলের ঘটনায় বিশেষ করে বাজেরাজ ও চাউরা পরগনার মানুষ কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না। উক্ত দুই পরগনার লোকজন ভিতরে ভিতরে সংঘটিত হয়ে চতুল পরগনাবাসীর মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। সার্বিক পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ উপায়ে সমাধান করার জন্য ১৭ পরগনা সালিশ সমন্বয় কমিটির পাশাপাশি সিলেটের উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা, কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদ কানাইঘাটে বিভিন্ন পরগনার বিশিষ্ট মুরব্বীগণ ও ১৭ পরগনার সালিশ সমন্বয় কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছেন। কানাইঘাটের সচেতন মহল মনে করেন, আমরা এখন আধুনিক ও ডিজিটাল বিশ্বে বসবাস করছি। শিক্ষা সহ সকল ক্ষেত্রে আমাদের উন্নতি হচ্ছে। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার একটি রাজনৈতিক সামান্য ঘটনার জের ধরে আ’লীগের একজন নেতা আক্রান্তের পর বিষয়টি দলীয় ভাবে নিষ্পত্তির উদ্যোগ না নিয়ে চতুল পরগনার লোকজন উপজেলা প্রশাসন সহ কানাইঘাট বাজারে যে সশস্ত্র লাঠি মিছিল করেছে এটি অত্যন্ত দুঃখ জনক ও ন্যাক্কার জনক। এ ধরনের কোন সভ্য সমাজে কাম্য নয়। এতে কানাইঘাট উপজেলাবাসীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে। এব্যাপারে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, চতুলের লোকজন কানাইঘাট উপজেলা সদরে লাঠি মিছিলের পর যে প্রতিক্রিয়া জনমনে সৃষ্টি হয়েছে তা নিরসনে থানা পুলিশের পক্ষ থেকে শান্তিপূর্ণ উপায়ে ঘটনাটি নিষ্পত্তির জন্য আমি চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। লাঠি মিছিলের ব্যাপারে তিনি আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলী চাচাই সহ চতুলের মুরব্বীয়ানদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা আমাকে বলেছেন, উপজেলা সদরে লাঠি মিছিল করার কোন সিন্ধান্ত তাদের ছিল না। শুক্রবার সকালে এলাকায় এ নিয়ে বৈঠক বসলে মুরব্বীয়ানদের ডিঙ্গিয়ে লোকজন উপজেলা সদরের দিকে চলে এসেছে বলে মুবশি^র আলী চাচাই আমাকে জানিয়েছেন। অপরদিকে এব্যাপারে মুবশি^র আলীর চাচাই ও বড়চতুল ইউপির চেয়ারম্যান মাওঃ আবুল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে মুবশি^র আলী চাচাই বলেন, তিনি গত বৃহস্পতিবার আ’লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে ন্যাক্কার জনক পরিকল্পিত হামলার স্বীকার হয়েছিলেন। তাৎক্ষণিক চতুলের লোকজন কানাইঘাটের দিকে মিছিল নিয়ে যাওয়ার সময় থানার ওসি উত্তেজিত বিক্ষুদ্ধ লোকজনকে শান্ত করে আমার উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের আশ^াস করলেও হামলাকারীদের গ্রেফতার না করায় চতুলের লোকজন শুক্রবার সকালে এলাকায় জমায়েত হয়। সেখানে আমি আমার উপর নির্যাতনের বিষয়টি তুলে ধরলে উত্তেজিত লোকজন আমি সহ মুরব্বীয়ানদের ডিঙ্গিয়ে কানাইঘাট বাজারের দিকে মিছিল নিয়ে যায় এবং হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে শান্তিপূর্ণ উপায়ে তাদের প্রতিবাদ ব্যক্ত করে।

কানাইঘাটে অবাধে চলছে নিষিদ্ধ অটোরিক্সা ও টমটম

Kanaighat News on Saturday, October 21, 2017 | 11:53 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কানাইঘাট উপজেলা জুড়ে শত শত নিষিদ্ধ ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সা ও টমটম অবৈধভাবে চলাচল করছে। আর প্রতিদিন এসব ব্যাটারী চালিত টমটম ও রিক্সার ব্যাটারী চার্জে বিদ্যুতের মারাত্মক অপচয় ঘটছে। অথচ কানাইঘাট পল্লীবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনী এসব ব্যাটারী চালিত যানবাহনের বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় প্রতিদিন কানাইঘাটে ব্যাটারী চালিত যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এসব অবৈধ যানবাহনের কোন চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। অধিকাংশ চালকরা কিশোর বয়সের। যার ফলে প্রাই র্দূঘটনার স্বিকার হন যাত্রীরা। সরকারী ভাবে কঠোর নির্দেশ রয়েছে বিদ্যুতের অপচয় রোধে এসব ব্যাটারী চালিত টমটম ও রিক্সার ব্যাটারী চার্জে যাতে করে কেউ বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে না পারে এজন্য নির্দেশনা থাকার পরও কানাইঘাট উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজার এলাকায় প্রকাশ্যে এক ধরনের ব্যবসায়ীরা তাদের মিটার থেকে প্রতিদিন টমটম প্রতি ১৫০/- টাকা, রিক্সা প্রতি ১০০/- টাকা আদায় করে ব্যাটারী চার্জ দিচ্ছেন। পল্লীবিদ্যুতের অনেক কর্মকর্তাদের চোখের সামনে এরকম বাণিজ্যিক কর্মকান্ড চলার পরও বিদ্যুতের অপচয় রক্ষা করতে দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় অনেকে এ লাভ জনক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়েছেন। কানাইঘাট জুড়ে হাজারো ব্যাটারী চালিত যানবাহনে বিদ্যুৎ চার্জের কারনে এলাকায় লোড শেডিং তীব্র আকার ধারন করেছে। জানা যায়, প্রতিটি ব্যাটারী চালিত টমটমে ১২ বোল্টের ৫টি ব্যাটারী ও রিক্সায় ৪টি ব্যাটারী চার্জ দেওয়া হয়। এসব যানবাহনে বিদ্যুৎ সরবরাহ করায় বিদ্যুতের লোড শেডিং বেড়েই চলছে এবং শত শত পরিবার গুরুত্বপূর্ণ সময়ে বিদ্যুৎ প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে পল্লীবিদ্যুতের গ্রাহকরা জানিয়েছেন। উপজেলার সড়কের বাজার, গাছবাড়ী বাজার, রাজাগঞ্জ বাজার, কানাইঘাট বাজার, চতুল বাজার, সুরইঘাট বাজার, বড়বন্দ বাজার, চতুল ঈদগাহ বাজার, মালিগ্রাম বাজার, বাংলা বাজার, ভবানীগঞ্জ বাজার সহ অন্যান্য হাটবাজারে এক ধরনের ব্যবসায়ী তাদের আবাসিক ও বাণিজ্যিক মিটার থেকে এসব ব্যাটারী চালিত যানবাহনের বিদ্যুৎ দিয়ে লাভ জনক ব্যবসা করছেন। এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার রাতের বেলা সড়কের বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় জয়পুর হাউজ মার্কেটের মালিক আবুল হারিছ তার মার্কেটের ১০টি মিটারের মাধ্যমে ব্যাটারী চালিত টমটম ও রিক্সায় চার্জ দিচ্ছেন। উক্ত মার্কেটের দু’তলায় কানাইঘাট পল্লীবিদ্যুৎ জোনাল অফিসের সড়কের বাজার আঞ্চলিক অফিসের ইনচার্জ তমাল নিজে বাসা নিয়ে থাকেন। তার চোখের সামনে ব্যাটারী চালিত যানবাহনে চার্জ দেয়া হলেও তিনি এব্যাপারে পল্লীবিদ্যুৎ জোনাল অফিসের কোন কর্মকর্তাকে অবহিত না করে মার্কেটের মালিককে তার ব্যবসায় সহযোগিতা করে আসছেন বলে বাজারের ব্যবসায়ী ও সচেতন মহল জানিয়েছেন। পল্লীবিদ্যুতের গ্রাহক ও এলাকার সচেতন মহল জানান কানাইঘাট জুড়ে এমনিতেই ভয়াবহ লোডশেডিং প্রতিদিন হচ্ছে, তার উপর এসব শত শত অবৈধ ব্যাটারী চালিত যানবাহন বিদ্যুতের ব্যাপক অপচয় ঘটল্ওে পল্লীবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ কোন ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। এ ব্যাপারে কানাইঘাট পল্লীবিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম নজরুল ইসলাম মোল্লার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, নিষিদ্ধ ঘোষিত ব্যাটারী চালিত যানবাহনে বাণিজ্যিক ভাবে কোন ব্যবসায়ী বিদ্যুৎ চার্জ দেওয়ার ঘটনাটি আমার জানা নেই। যারা মিটার থেকে এসব যানবাহনে ব্যাটারী চার্জ দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকেও এসব যানবাহনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলে বিদ্যুতের অপচয় আমরা রোধ করতে পারব। সড়কের বাজারের জয়পুর হাউজ এর মালিক কর্তৃক ব্যাটারী চালিত যানবাহনে বিদ্যুৎ চার্জ কিভাবে দেওয়া হচ্ছে এই ব্যাপারে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য তিনি সড়কের বাজার আঞ্চলিক অফিসের ইনচার্জ তমালকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি কানাইঘাট বড়চতুল ইউপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

Kanaighat News on Friday, October 20, 2017 | 10:00 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি কানাইঘাট বড়চতুল ইউপির ১০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। আব্দুল হাফিজকে সভাপতি, মুহিবুর রহমানকে সিনিয়র সহ সভাপতি, আলফাছ উদ্দিন, জালাল উদ্দিন, রহম উল্লাহ, মুজন মিয়া, আব্দুল খালেক, সামছুল হক, জমির উদ্দিন, সামছু উদ্দিন, কুটি মিয়া, টেনাই মিয়া, ফেড়াই মিয়া, ছিফত উদ্দিন, আব্বাস উদ্দিন, বুরহান উদ্দিন, জয়নাল আহমদকে সহ সভাপতি, নুরুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক, হাবিব আহমদ, আব্দুল্লাহকে সহ সম্পাদক, শাহাব উদ্দিনকে সাংগঠনিক সম্পাদক ও শামীম আহমদ, জামিল উদ্দিনকে সহ সাংগঠনিক সম্পাদক, মৌলভী ফখরুল ইসলামকে ধর্ম সম্পাদক, তৈয়ব আলীকে সহ ধর্ম সম্পাদক, আফতাব উদ্দিনকে ক্রীড়া সম্পাদক, নিজাম উদ্দিনকে সহ ক্রীড়া সম্পাদক, শাহাব উদ্দিনকে প্রচার সম্পাদক, আজিজুর রহমানকে সহ প্রচার সম্পাদক, জুবেল আহমদকে দপ্তর সম্পাদক, আব্দুর রহমানকে সহ দফতর সম্পাদক, জমির উদ্দিনকে যোগাযোগ সম্পাদক ও খালিক আহমদকে শৃঙ্খলা সম্পাদক করে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট বড়চতুল ইউপি জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে অনুমোদন দিয়েছেন উপজেলা জাতীয় স্বেচ্চাসেবক পার্টির সভাপতি ইসলাম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসাইন।

জাতীয় ইমাম সমিতি কানাইঘাট শাখার কমিটি গঠিত


নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতি কানাইঘাট উপজেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট ডাক বাংলোয় সম্পন্ন হয়েছে। কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে কানাইঘাট সড়কের বাজার মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি ইবাদুর রহমানকে সভাপতি ও পৌরসভার নয়াতালুক জামে মসজিদের ইমাম, খতিব মাওঃ হাফিজ নজির আহমদকে সাধারণ সম্পাদক ও সুরইঘাট বাজার মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওঃ কামাল উদ্দিনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট জাতীয় ইমাম সমিতি কানাইঘাট উপজেলা শাখার কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি গঠন উপলক্ষ্যে বিভিন্ন মসজিদ মাদরাসার ইমামদের নিয়ে এক সভা গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট ডাক বাংলোয় অনুষ্ঠিত হয়। কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসার মুহদ্দিস মাওঃ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে ও মাওঃ নজির আহমদের পরিচালনায় কাউন্সিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা ইমাম সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওঃ শিহাব উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সিলেট মহনগর ইমাম সমিতির সহ সভাপতি মাওঃ নুর আহমদ কাসিমী, কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসার শিক্ষক মাওঃ হারুনুর রশিদ চতুলী। উপস্থিত ছিলেন, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও প্রকাশনা সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, সদস্য আমিনুল ইসলাম, শাহীন আহমদ প্রমুখ। কাউন্সিলে জাতীয় ইমাম সমিতির কার্য্যক্রম জোরদার এবং কানাইঘাটের সকল মসজিদের ইমাম ও খতিবদের উক্ত সংগঠনে একীভূত করে জাতীয় ইমাম সমিতির সকল সুযোগ সুবিধা গ্রহণে ইমামদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়।

কানাইঘাট চতুল পরগনাবাসীর লাঠি মিছিল ! এলাকায় উত্তেজনা, অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন



নিজস্ব প্রতিবেদক:
কানাইঘাট ৫নং বড়চতুল ইউপি আ’লীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুবশ্বির আলী চাচাই’র উপর গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কতিপয় ছাত্রলীগের নেতা কর্মী কর্তৃক হামলার ঘটনায় চতুল এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ছাত্রলীগের কিছু কর্মীদের হাতে হামলার স্বীকার আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলীর পক্ষ নিয়ে ঘটনার পরই বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে চতুল পরগনার লোকজন কানাইঘাট-দরবস্ত সড়কের গড়াখাই ব্রীজের পাশে লাঠিসোটা নিয়ে জমায়েত হয়ে কানাইঘাট বাজারের দিকে আসার পথে কানাইঘাট থানা পুলিশ সেখানে তাদের ব্যারিকেড দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। কিন্তু তার পরও চতুল পরগনার লোকজন এতে থামেনি। তারা মুবশ্বির আলীর উপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে শুক্রবার ভোর থেকে চতুল ইউনিয়ন ও চতুল পরগনার ২/৩ হাজার লোকজন দেশীয় লাঠিসোটা ও দারালো অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে চতুল বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে জমায়েত হয়ে সকাল ৭ টার দিকে কয়েক কিলোমিটার রাস্তা পাঁয়ে হেঁটে কানাইঘাট বাজারের উদ্দেশ্যে মিছিল সহকারে রওয়ানা দিলে পুরো এলাকা জুড়ে জনমনে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষোদ্ধ লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে উপজেলা সদর অতিক্রম করার সময় কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ থানার অদূরে মিছিলকারীদের গতিরোধ করার চেষ্টা করলে মিছিলকারীরা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙ্গে সকাল ১০ টার দিকে কানাইঘাট বাজারে ঢুকার আগেই আতংকিত ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান-পাট বন্ধ করে দেন। আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলীর উপর হামলা কারীদের বিরুদ্ধে নানা ধরনের স্লোগান দিয়ে মিছিলকারীরা বাজার প্রদক্ষিণ করে পূণরায় চতুল এলাকার হকারাই পয়েন্টে সমবেত হয়ে সেখানে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। এসময় চতুল-দরবস্ত সড়কে যান চলাচল প্রায় ঘন্টা খানিক বন্ধ ছিলো। সমাবেশে চতুল পরগনার মুরব্বীদের উপস্থিতিতে চতুল ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি মুবশ্বির আলী তাঁর বক্তব্যে বলেন চতুল পরগনার হাজার হাজার লোকজন আজ দেখিয়ে দিয়েছে তারা যে কোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ করতে জানেন। পরিকল্পিত ভাবে গত বৃহস্পতিবার সন্দ্যা ৭ টার দিকে কানাইঘাট উত্তর বাজারে দলীয় অস্থায়ী কার্যালয়ে তাঁর উপর হামলা করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, চিহ্নিত হামলাকারীদের আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করতে হবে। বড়চতুল ইউপির চেয়ারম্যান মাও: আবুল হোসাইন চতুলী তাঁর বক্তব্যে বলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুবশ্বির আলীর উপর যে ন্যাক্কার জনক সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে তা মেনে নেওয়া যায় না। চতুল পরগনাবাসী যে কোন অন্যায় কাজের এক সঙ্গে প্রতিবাদ করতে জানেন। হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করা না হলে চতুল বাসীর পক্ষ থেকে বৃহত্তর কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে বলে তিনি হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন। এদিকে দলীয় কিছু কর্মীদের হাতে মুবশ্বির আলীর উপর হামলার ঘটনা নিয়ে চতুল পরগনার লোকজন কানাইঘাট বাজারে লাঠি মিছিল করায় অন্যান্য পরগনার লোকজনদের মধ্যে নানা ধরণের প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। চতুল পরগনার মিছিলকে কেন্দ্র করে যাতে কোন ধরণের অপ্রিতিকর ঘটনা না ঘটে এজন্য কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আমিনুল ইসলাম সরকার ও কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের নেতৃত্বে উপজেলা সদরের বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। থানার ওসি আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আ’লীগ নেতা মুবশ্বির আলীর উপর হামলার তুচ্ছ এ ঘটনাটি নিয়ে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। তবে এঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি বলে তিনি জানিয়েছেন। পুলিশ কয়েক জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বাড়িতে হানা দিয়েছে বলে জানা গেছে। জানা যায়, মুবশ্বির আলী চাচাই তাঁর উপর যে হামলার অভিযোগ এনেছেন, এটি ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীন বিরোধকে কেন্দ্র করে ঘটেছে । সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দেলওয়ার হোসেন দুলাল কর্তৃক তার ফেইসবুক আইডিতে প্রতিপক্ষ গ্রুপের নেতা কর্মীদের নিয়ে পোস্ট করলে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে প্রতিপক্ষের কর্মীরা কানাইঘাট উত্তর বাজারে তার উপর হামলা চালালে সে নিজেকে বাঁচাতে উপজেলা আ’লীগের প্রস্তুতি মূলক সভায় ঢুকে পড়ে। সেখানে হামলাকারীরা চড়াও হয়ে দুলালের উপর হামলা চালালে সভায় উপস্থিত উপজেলা আ’লীগের আহবায়ক লূৎফুর রাহমান, বড়চতুল ইউপি আ’লীগের সভাপতি মুবশ্বির আলী, দিঘীরপার ইউপি আ’লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন কাজল ও হামলাকারীদের হাতে আক্রান্ত হন। মুবশ্বির আলীকে পরিকল্পিত ভাবে মারধর করা হয় বলে চতুল পরগনার লোকজন দাবী করেছেন। তবে এ তুচ্ছ ঘটনাটি নিয়ে পরগনা ইজম তুলায় সচেতন মহল ভালো চোখে দেখছেন না।

কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে'র বার্ষিক সাধারণ সভা সোমবার


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র বার্ষিক সাধারণ সভা(এজিএম)-২০১৭ আগামী ২৩শে অক্টোবর সোমবার দ্যা হলিডে ইন কমার্শিয়াল রোড, লন্ডনে অনুষ্ঠিত হবে। এতে আপনার স্ববান্ধব নিয়ে উপস্থিত থাকার জন্য কানাইঘাট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে'র সাধারণ সম্পাদক মো: ইকবাল হোসাইন অনুরোধ জানিয়েছেন।

কানাইঘাট পৌর জমিয়তে উলামা ও ছাত্র জমিয়তের কাউন্সিল সম্পন্ন


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ও ছাত্র জমিয়ত কানাইঘাট পৌর শাখার কাউন্সিল বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) কানাইঘাট ডাক বাংলো হল রুমে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে পৌর জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সভাপতি মাও. আমির হুসেন, সাধারণ সম্পাদ মাও. খালিদ বিন আব্দুল লতিফ ও হাফিজ হাবিবকে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। যুব জমিয়তের সভাপতি মাও. আমানুল্লাহ ও হাফিজ শাহিনুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। পৌর ছাত্র জমিয়তের সভাপতি হাফিজ জামাল উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক হাফিজ জহিরুল ইসলাম ও হাফিজ ফরিদ আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সহ সভাপতি মাও. নূর আহমদ ক্বাসিমী, সাধারণ সম্পাদক মুফতী ইবাদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাও. সামছুল ইসলাম প্রমূখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাও. নূর আহমদ ক্বাসিমী বলেন; পৌর সভার প্রতিটি ঘরে জমিয়তের দাওয়াত পৌছে দিতে প্রতিটি কর্মীকে কাজ চালিয়ে যেতে হবে।(বিজ্ঞপ্তি)
 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩