কানাইঘাটে সিএনজি অটোরিক্সা চুরি,থানায় অভিযোগ

Kanaighat News on Saturday, September 30, 2017 | 9:18 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট সড়কের বাজারস্থ গ্যারেজের সাটারের তালা খুলে অটোরিক্সা সিএনজি গাড়ী চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শনিবার সিএনজি গাড়ীর মালিক দিঘীরপার পূর্ব ইউপির পূর্ব ঠাকুরেরমাটি গ্রামের সুরেশ চন্দ্র রায়ের পুত্র দেবরাজ চন্দ্র রায় কানাইঘাট থানায় অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। জানা যায়, গত শুক্রবার সিএনজি ড্রাইভার আব্দুল মন্নান গাড়ীটি সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সড়কের বাজারস্থ গ্যারেজে সিএনজি গাড়ী রেখে সাটারের তালাবদ্ধ করে বাড়ীতে চলে যান। পরদিন সকালে ড্রাইভার গ্যারেজে এসে সিএনজি গাড়ীটি নেই।

পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করলেন কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ


নিজস্ব প্রতিবেদক: শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে কানাইঘাট প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ মহানবমী ও বিজয়া দশমীতে কানাইঘাটের বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। কানাইঘাট পৌর শহরের উষাবাবু মহাশয়ের বাড়ী সার্বজনীন পূজা মন্ডপ, রায়গড় গ্রামের বিল্পব কান্তি দাসের বাড়ীর পূজা মন্ডপ, নিজ চাউরা গ্রামের দুর্গাবাবুর বাড়ীর পূজা মন্ডপ সহ, রামপুর পূর্ব-পশ্চিম, বড়চতুল ইউপির হারাতৈল পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেন। পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ক্লাবের সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সহ সম্পাদক আব্দুন নুর, কোষাধ্যক্ষ মিসবাহুল ইসলাম চৌধুরী, ক্রীড়া, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, সদস্য কাওছার আহমদ, আমিনুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, আলা উদ্দিন আলাই, সুজন চন্দ অনুপ, সহযোগী সদস্য মুমিন রশিদ প্রমুখ। প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ সনাতন ধর্মের সকল ভক্তবৃন্দের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করে বলেন, কানাইঘাটে যুগ যুগ ধরে অত্যন্ত উৎসব মুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্প্রীতির বন্ধনে অটুট হয়ে সকল ধর্মের অনুষ্ঠান উদ্যাপিত হচ্ছে। এই সম্প্রীতি আমাদের সবাইকে ধরে রাখতে হবে।

কানাইঘাটে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল দুর্গোৎসব


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাটে মহা বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হল সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্য, আনন্দ উদ্দীপনা ও সিঁদুরখেলার মধ্য দিয়ে প্রতিমা বিসর্জন করা হয়েছে। সাথে সাথে ভাঙ্গছে ৫ দিনের মিলনমেলা। মা দূর্গা দেবী, সাথে লক্ষী, স্বরস্বতী, গণেষ ও কাতির্ককে নিয়ে এই মর্ত্য থেকে স্বামী গৃহে আবারো কৈলাশে ফিরে গেলেন ঘোটকে। উপজেলার পৌরসভাস্থ রামপুর পূর্ব, রামপুর পশ্চিম, রায়গড়, নিজ চাউরা, উষাবাবু, জৈন্তিপুর সহ ৩০টি মন্ডপের পূজারীরা ঘুড়ি ঘুড়ি বৃষ্টি উপেক্ষা করে মা দূর্গাকে শোভাযাত্রা সহকারে সুরমা নদীতে বিসর্জন দেন। এ সময় উলুধ্বনি, ঢাকের বোল ও জয় মা দূর্গার জয় জয় ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে পৌর শহর। দূর্গাদেবীকে বিদায় জানানোর আগে শেষ বারের মতো আবির খেলা ও রং মাখামাখির মধ্যে দিয়ে আনন্দে মেতে উঠেন শিশু-কিশোর ও নারী পুরুষেরা। তবে আনন্দের মধ্যেও ছিল কিছুটা বিষাদের সুর, কারন দেবী দুর্গাকে বিসর্জন দিতে হচ্ছে। অত্যন্ত উৎসব মুখর ও ধর্মীয় ভাবগম্ভীর ও সম্প্রীতির মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণ ভাবে দূর্গাপূজা সম্পন্ন হওয়ায় উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ, উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কানাইঘাট ওসি আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন, কানাইঘাটের ৩০টি পূজামন্ডপে শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজার উৎসবের সমাপ্তি ঘটেছে।

সাংবাদিকদের সাথে কানাইঘাট আ’লীগ নেতৃবৃৃন্দের মতবিনিময়

Kanaighat News on Friday, September 29, 2017 | 1:09 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম আরও জোরদার এবং সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড জনসাধারনের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে এবং বিগত ন্থানীয় সরকারের নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী দলীয় নেতাদের স্বপদে পুর্নবহাল করার জন্য জেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন কানাইঘাট আ’লীগ নেতৃবৃন্দ। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ স্থানীয় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ দলের বেহাল সাংগঠনিক কার্যক্রম তুলে ধরে বলেন দীর্ঘদিন ধরে দলের কোন কমসূচী পালিত না হওয়ায় সাংগঠনিক কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়ায় তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে। অপরদিকে, সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড, সাংগঠনিক দুর্বলতার কারনে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরাও সম্ভব হচ্ছে না। মতবিনিময় সভায় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, পূর্বে ৮ বছর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দিয়ে কানাইঘাট আ’লীগের কমিটি ছিল। সেই দু’জনের কমিটি ৪ বছর পূর্বে ভেঙ্গে দিয়ে উপজেলা আ’লীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হলেও অদ্যবধি পর্যন্ত সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন না করায় দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে এক ধরনের হতাশা বিরাজ করছে। দলের প্রাথমিক সদস্য পর্যন্ত নবায়ন করা হচ্ছে না। ব্যক্তি স্বার্থে কানাইঘাট আ’লীগকে ঐক্যবদ্ধ না করে দলের নাম ভাঙ্গিয়ে সুবিধাভোগী হাইব্রিড নেতা এবং কিছু সুবিধা ভোগী নেতারা গোটা উপজেলা নিয়ন্ত্রন করে দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়ন করে যাচ্ছে। এদের হাত থেকে কানাইঘাট আওয়ামী লীগকে রক্ষা করতে হবে। জামায়াত শিবির ও রাজাকারদের আ’লীগে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে হবে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী কাউকে কানাইঘাটে আওয়ামী লীগে স্থান দেওয়া হবে না। এমতাবস্থায় উপজেলা আ’লীগের অবস্থান সুদৃঢ় এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম তৃণমূল পর্যায়ে শক্তিশালী ও সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড জনসাধারনের কাছে তুলে ধলার জন্য দলীয় ভাবে সভা সমাবেশ করার জন্য দলের নেতৃবৃন্দ ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন বলে সাংবাদিকদের নিয়ে মতবিনিময় সভায় আ’লীগ নেতৃবৃন্দ দাবী করেন। সিলেট-৫ আসনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দল থেকে যাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে দলীয় নেতাকর্মীরা তার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করে যাবেন বলে নেতৃবৃন্দ জানান। সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭১ তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, শেখ হাসিনা আজকে সারা বিশে^র শান্তি ও উন্নয়নের রুল মডেল। বাংলাদেশ তার নেতৃত্বে সবদিকে এগিয়ে যাচ্ছো। মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদে দেশে আশ্রয় দিয়ে এবং তাদের পক্ষে বিশ^ দরবারে দৃঢ় অবস্থান নেওয়ায় শান্তি ও মানবতার নেত্রীর স্বীকৃতি তিনি অর্জন করেছেন। সভায় শেখ হাসিনার সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়। সাংবাদিকদের নিয়ে মতবিনিময় সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ নবনির্বাচিত কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের অভিনন্দন জানান, এজন্য উপজেলা আ’লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। মতবিনিময় শেষে উপজেলা আ’লীগ নেতৃবৃন্দ শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে কানাইঘাট পৌর শহরের উষা বাবুর বাড়ীর পূজা মন্ডপ, নিজ চাউরা গ্রামের বাবু দুর্গাকুমার দাসের বাড়ীর পূজামন্ডপ সহ কয়েকটি পূজামন্ডপ পরিদর্শন করে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম শক্তিশালী করার জন্য ৯ জন যুগ্ম আহ্বায়কের উপস্থিতিতে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গাছবাড়ী আইডিয়াল কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন

Kanaighat News on Thursday, September 28, 2017 | 10:58 PM


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কানাইঘাট গাছবাড়ী আইডিয়্যাল কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মদিন পালন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মদিন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া মাহফিল,আলোচনা সভা ও কেক কাটা আয়োজন করে গাছবাড়ী কলেজ ছাত্রলীগ। এসময় উপস্থিত ছিলেন-কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুজর আহমদ, গাছবাড়ী আঞ্চলিক শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সারওয়ার আহমদ, কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি জুনেদ আহমদ,কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা আব্দুর রহমান,সিলেট জেলা ছাত্রলীগ নেতা মাহফুজ আহমদ,সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ নেতা শাকিল আহমদ,শাহিন আহমদ,সিলেট সরকারী কলেজ ছাত্রলীগ নেতা জাহেদ আহমদ জয়,সিপার আহমদ,আশরাফ আহমদ স্বাধীন, পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক শিব্বির আহমদ,গাছবাড়ি আইডিয়্যাল কলেজ ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা সুমন আহমদ,ওহিদুজ্জামান, শফিউর রহমান জয়,কিবরিয়া আহমদ,সেবুল আহমদ,ফাহিম আহমদ,কবির আহমদ পলাশ, দেলোয়ার,জাকির,মুরসালিন,শাকিব,হাবিব,আতিক,কামিল, এখলাছ,বাসিত,মাসুদ,নাদেল,হাবিব,শাহিন, মাছুম, দেলোয়ার,মারুফ আলবাব প্রমূখ। (বিজ্ঞপ্তি)

কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে সভা


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার এবং সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড জনসাধারণের কাছে তুলে ধরার পাশাপাশি কানাইঘাটকে দুর্নীতিমুক্ত করার লক্ষ্যে এক সভা বৃহস্পতিবার ২৮ সেপ্টেম্বর বিকেল ২টায় কানাইঘাট মহিলা কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের যথাক্রমে যুগ্ম আহ্বায়ক উপাধ্যক্ষ লোকমান হোসেন, বানীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, জালাল আহমদ, অলিউর রহমান, এডভোকেট আব্দুস সাত্তার, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, এডভোকেট মামুন রশিদ, সাবেক প্যানেল মেয়র ফখরুদ্দিন শামীম। সভায় উপজেলা আ’লীগের ৯জন যুগ্ম আহ্বায়কের উপস্থিতিতে সনাতন ধর্মের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবাইকে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দীর্ঘদিন ধরে সাংগঠনিক ভাবে ঝিমিয়ে পড়া উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম তৃণমূল পর্যায়ে আরো শক্তিশালী দলের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করার পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড তুলে ধরার জন্য সভা সমাবেশ এবং কানাইঘাটকে দুর্নীতিমুক্ত একটি উপজেলায় পরিণত করতে সভায় বিভিন্ন সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এছাড়া আগামী শনিবার উপজেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দ দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে পূজামন্ডপ পরিদর্শন করবেন বলে উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে উপরোক্ত সিন্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।(প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

কানাইঘাট অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ড্রেজার-বলগেট জব্দ


নিজস্ব প্রতিবেদক: বৃহস্পতিবার কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির ভয়াবহ নদী ভাঙ্গন কবলিত সুরমা নদীর তালবাড়ী বাজার, তালবাড়ী গ্রাম সহ আশপাশ এলাকা অবৈধভাবে অর্ধশতাধিক ড্রেজারের সাহায্যে প্রভাবশালী জাবের আশরাফ চৌধুরী কর্তৃক বালু উত্তোলনের ঘটনায় সেখানে অভিযান চালিয়েছে কানাইঘাট থানা পুলিশ। স্থানীয় প্রশাসনের বাঁধা নিষেধ উপেক্ষা করে দীর্ঘদিন ধরে একাধিক শক্তিশালী ড্রেজার মেশিন দিয়ে লীজ বর্হিভূত সুরমা নদীর তালবাড়ী এলাকা থেকে জাবের আশরাফ চৌধুরী গং কর্তৃক বালু উত্তোলনের দায়ে সরকার একদিকে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অপরদিকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের দায়ে নদীর তীরবর্তী বাড়ীঘর সুরমা ডাইক, বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তালবাড়ী বাজারের তৃতীয়াংশ নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় গত বুধবার স্থানীয় তহশীল অফিসের তহশীলদার জাহেদ আহমদ জাবের আশরাফ চৌধুরীকে আসামী করে কানাইঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ অভিযোগটি রেকর্ড করে। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের নির্দেশে থানার এস.আই স্বপন চন্দ্র সরকার একদল পুলিশ নিয়ে সুরমা নদীর তালবাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে বালু উত্তোলনের একটি শক্তিশালী ড্রেজার মেশিন ও একটি বলগেট নৌকা আটক করেন। পুলিশের অভিযান টের পেয়ে জাবের আশরাফ চৌধুরীর নেতৃত্বে বালু উত্তোলনের ড্রেজার ও বলগেট নৌকাগুলো এলাকা থেকে নদীপথে দিয়ে অন্যত্র সরিয়ে ফেলে বলে স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন। পুলিশ সেখানে দিনভর অবস্থান করে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ বালু উত্তোলনের সাথে জড়িত স্থানীয় তালবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা জাবের আশরাফ চৌধুরী ও তার সহযোগী আলী আখতার রুমি সহ অবৈধ বালু উত্তোলনের সাথে জড়িতদের আটকের জন্য অভিযান চালালেও পুলিশ কাউকে কাউকে আটক করতে পারেনি। সুরমা নদীর মারাত্মক ভাঙ্গন কবলিত তালবাড়ী এলাকা থেকে কেউ যাতে বালু উত্তোলন করতে না পারে সেজন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে থানার ওসি আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন। স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন, অবৈধ ভাবে সুরমা নদীর ভাঙ্গন কবলিত ড্রেজার দিয়ে তান্ডব চালিয়ে জনগনের জানমালের ক্ষতিসাধনের ঘটনার নায়ক জাবের আশরাফ চৌধুরী এ পর্যন্ত কোটি কোটি টাকার বালু উত্তোলন করে নদীপথে অন্যত্র বিক্রি করলেও সরকারের বিপুল রাজস্ব ফাঁকির ঘটনায় তার বিরুদ্ধে অদ্যবধি পর্যন্ত কোন মামলা করা হয়নি, যার কারণে জাবের আশরাফ চৌধুরী প্রশাসনকে কোন ধরনের তোয়াক্কা না করে বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে। শুধুমাত্র আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের লোকজন মাঝেমধ্যে সেখানে অভিযান করে বালু উত্তোলন বন্ধ করা সম্ভব হবে না বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। পূর্বে কয়েকবার প্রশাসন সেখানে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের জন্য অভিযান করলেও চতুর জাবের আশরাফ চৌধুরী গংরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বালু উত্তোলন করে থাকে। নদী ভাঙ্গন কবলিত তালবাড়ী পূর্ব ও পশ্চিম গ্রাম, খালপার গ্রাম সহ সুরমা নদীর উভয় অংশের ভাঙ্গন বন্ধ করতে হলে সেখানে নিয়মিত ভাবে প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রাখা এবং জাবের আশরাফ চৌধুরীকে গ্রেফতার ও তার কোটি কোটি টাকার আয়ের উৎস ড্রেজার ও বলগেট নৌকাগুলি জব্দ করতে হবে। সেই সাথে তার বিরুদ্ধে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে পৃথক মামলা দায়েরের আহ্বান জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

কানাইঘাটে পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট


নিজস্ব প্রতিবেদক: সনাতন ধর্মের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে কানাইঘাট উপজেলার বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন, সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আবদুল্লাহ সহ প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকবৃন্দ। বৃহস্পতিবার মহাষ্টমীতে উপজেলার পূজা মন্ডপগুলো সার্বিক নিরাপত্তা দেখার পাশাপাশি কানাইঘাট বাজারের ঊষা বাবু বাড়ীর পূজা মন্ডপ, রায়গড় নিকুঞ্জ বিহারী দাস বাদলের পূজা মন্ডপ, চতুলের রাউতগ্রাম পূজামন্ডপ পরিদর্শন করে ভক্তবৃন্দের সাথে শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। এসময় তাঁর সাথে বিভিন্ন মন্ডপ পরিদর্শন করেন, সিলেট জেলা আ’লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মস্তাক আহমদ পলাশ, কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম রানা, কানাইঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়া, উপজেলা প্রশাসনের সিএ নিহার রঞ্জন শর্মা, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, পৌর কাউন্সিলর মাসুক আহমদ, তাজ উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক শাহাব উদ্দিন, সিলেট জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী রিংকু চক্রবর্তী, উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি মাষ্টার সলিল চন্দ্র দাস, বর্তমান সভাপতি চিত্রশিল্পি ভানু লাল দাস, সাধারণ সম্পাদক ভজন লাল দাস, পূজা উদ্যাপন পরিষদ নেতা শ্যামল চন্দ্র দাস, নিহার রঞ্জন বর্ধন, বিপ্লব কান্তি দাস অপু, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ মিসবাহুল ইসলাম চৌধুরী,প্রেসক্লাবের ক্রীড়া-সংস্কৃতি ও প্রকাশনা সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, সদস্য আমিনুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, আলা উদ্দিন আলাই, মুমিন রশিদ, সুজন চন্দ অনুপ সহ আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। মন্ডপ পরিদর্শনকালে হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী পুরুষদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন বাংলাদেশ হচ্ছে বিশে^র মধ্যে ধর্মীয় সম্প্রীতির একটি দেশ। এখানে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাই যুগ যুগ ধরে নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছেন। ভাতৃত্ববোধ ও সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে আমরা সবাই ধর্মীয় উৎসবগুলোতে অংশ গ্রহণ করে ধর্মের চর্চাকে এগিয়ে নিয়ে যাই। সিলেটে অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও উৎসব মুখর পরিবেশে দূর্গাপূজা উৎসব পালিত হচ্ছে। কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। কানাইঘাটে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পূজা মন্ডপগুলোকে ঘীরে ব্যাপক নিরাপত্তার বলয় তৈরি করায় তিনি থানা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান। অপরদিকে কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের নেতৃত্বে পুলিশের একাধিক টিম রাত-দিন উপজেলার সবক’টি পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার ও পূর্ণার্থীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করে তাদের সাবির্ক খোঁজ খবর নিচ্ছেন।

কানাইঘাটে স্মল ফুটবল একাডেমী'র ফুটসাল প্রিমিয়ার লীগের উদ্বোধন


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাটে জমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে স্মল ফুটবল একাডেমী কর্তৃক আয়োজিত ফুটসাল প্রিমিয়ার লীগের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কানাইঘাট স্মল ফুটবল একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা ঢাকা স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘের সিনিয়র খেলােয়াড় ইসমাইল আলীর সভাপতিত্বে উক্ত উদ্ধোধানী অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক ক্রীড়ানুরাগী ব্যক্তিত্ব জামাল উদ্দিন,বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক,উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার কোষাধ্যক্ষ নাজমুল ইসলাম হারুন,কানাইঘাট সেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ন-আহবায়ক আবুল বাশার,কানাইঘাট প্রেসক্লাবের ক্রীড়া-সংস্কৃতি ও প্রকাশনা সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ,উপজেলা যুবলীগের অন্যতম নেতা ফরহাদ রেজা,ঢাকা যাত্রা বাড়ি ক্রীড়া চক্রের সাবেক গোল রক্ষক,কানাইঘাট উপজেলা ফুটবল দলের সিনিয়র গোল রক্ষক দেলোয়ার হোসেন বাবর,সিলেট জেলা ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা আফজাল হোসেন রিজভী,কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের অন্যতম নেতা সাহেদ আহমদ,কাহার,সাফওয়ান,শিহাব উদ্দিন প্রমূখ।

কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের সাথে সিলেট-৫ আসনে আ’লীগে মনোয়ন প্রত্যাশী মুনির চৌধুরীর মতবিনিময়


নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা রমনা-শাহবাগ থানা আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলার আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৫ আসনে আ’লীগের অন্যতম মনোনয়ন প্রত্যাশী জকিগঞ্জ-কানাইঘাটের কৃতি সন্তান ফয়জুল মুনির চৌধুরী কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেছেন। বুধবার সকাল ১১টায় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত মতবিনিময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, ফয়জুল মুনির চৌধুরীর সহধর্মিনী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের অটিজম ইন্সট্রাক্টর ডাঃ মমতাজ বেগম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক আজমল হোসেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এখলাছুর রহমান, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও প্রকাশনা সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, কোষাধ্যক্ষ মিসবাহুল ইসলাম চৌধুরী, সিনিয়র সদস্য বাবুল আহমদ, সদস্য আমিনুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, আলা উদ্দিন আলাই, সহযোগী সদস্য মুমিন রশিদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আসাদ উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল আম্বিয়া, যুবলীগ নেতা জাকির হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি রোমান আহমদ, উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক জুবায়ের আহমদ তুহিন, পৌর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি রহমত আলী সহ আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সিলেট-৫ আসনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩৫নং ওয়ার্ডের বার বার নির্বাচিত কাউন্সিলার ফয়জুল মুনির চৌধুরী বলেন, আমি কানাইঘাট ও জকিগঞ্জের একজন সন্তান। প্রিয় জন্মস্থানের টানে আমি বার বার আপনাদের মাঝে ছুটে আসি। ছাত্রলীগ করে আমি রাজনীতিতে এসেছি। ঢাকা-রমনা-শাহবাগ থানা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলাম। জনগণকে ভালোবাসি বলে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩৫নং ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলার নির্বাচিত হয়েছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিক হিসাবে সব সময় আমি গরীব দুঃখী ও মেহনতি মানুষের পক্ষে দাঁড়িয়ে সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার থেকে রাজনীতি করে যাচ্ছি। কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ আসন থেকে প্রকৃত জনদরদী রাজনৈতিক নেতাকে আমরা সংসদ সদস্য নির্বাচিত করলে অবহেলিত এ এলাকার উন্নয়ন ও গরীব দুঃখি মেহনতি মানুষের প্রত্যাশা পূরন করা সম্ভব। আ’লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য আমার সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। উন্নয়ন এবং একটি সুন্দর পরিবেশ করতে হলে এই এলাকার সৎ ও আদর্শবান নেতার প্রয়োজন। সকলের সার্বিক সহযোগিতা ও ভালোবাসা নিয়ে আমি কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ এলাকায় কাজ করে যাচ্ছি। সাধ্যানুযায়ী দলীয় নেতাকর্মী ও এলাকার গরীব মেহনতি মানুষকে সহযোগিতা করে যাচ্ছি। দলীয় ভাবে আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে কানাইঘাট জকিগঞ্জ আসন থেকে আমি নির্বাচন করব। এজন্য সাংবাদিক সহ দলমত নির্বিশেষে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি। কানাইঘাটের কর্মরত সাংবাদিকদের প্রশংসা করে তিনি বলেন, সব সময় সত্য ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের কলমকে সোচ্চার রাখতে হবে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে কলম চালিয়ে যেতে হবে। এলাকার সমস্যা-সম্ভাবনা ও উন্নয়নের সংবাদ বেশি করে প্রকাশ করতে হবে। সৎ রাজনীতিবিদদের মিডিয়ার মাধ্যমে তুলে ধরে কানাইঘাট ও জকিগঞ্জের মানুষের পক্ষে সাংবাদিকদের মতের উর্ধ্বে উঠে কাজ করতে হবে। কানাইঘাট প্রেসক্লাবের নানা সমস্যার কথা সাংবাদিকরা তুলে ধরলে ফয়জুল মুনির চৌধুরী প্রেসক্লাবের অবকাঠামো উন্নয়নের আশ^াস প্রদানের পাশাপাশি প্রেসক্লাবে একটি এলইডি টেলিভিশন ও একটি সিলিং ফ্যান প্রদান করেন। এছাড়া ফয়জুল মুনির চৌধুরী গত দু’দিন থেকে কানাইঘাট উপজেলার ৩০টি পূজা মন্ডপ পরিদর্শন অব্যাহত রেখে প্রতিটি মন্ডপে তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে শাড়ী, লুঙ্গি বিতরণ করে হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী পুরুষদের সাথে শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

কানাইঘাটে সৎ মায়ের হাতে শিশু খুন

Kanaighat News on Monday, September 25, 2017 | 10:15 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাটে এক সৎ মা কর্তৃক ৪ বছরের শিশু মেয়ে আফসানা বেগমকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকাল অনুমান সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপির বাখালছড়া গ্রামে। ৪ বছরের নিষ্পাপ শিশুকে সৎ মা কর্তৃক গলা টিপে নির্মম ভাবে হত্যার ঘটনায় এলাকা জুড়ে জনমনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কানাইঘাট থানা পুলিশ ঘাতক সৎ মা নাসিমা বেগম (২০) কে গ্রেফতার করেছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বাখালছড়া গ্রামের আলমগীর হোসেন তার প্রথম স্ত্রী খালেদা বেগমকে আড়াই বছর পূর্বে ডিভোর্স দেন। পরবর্তীতে আলমগীর একই গ্রামের নাসিমা বেগমকে বিয়ে করে। ১ম স্ত্রী খালেদা বেগমের গর্ভের সন্তান আফসানা বেগম তার সৎ মা নাসিমা বেগমের সাথে বসবাস করত। প্রায়ই সৎ মা নাসিমা বেগম শিশু আফসানা বেগমকে নির্যাতন করত। নাসিমা বেগমের স্বামী আলমগীর হোসেন অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসার জন্য ঢাকায় অবস্থান করলে এই সুযোগে সোমবার তার দ্বিতীয় স্ত্রী নাসিমা বেগম শ্বাশুড়ী আম্বিয়া বেগমের অনুপস্থিতে সৎ মেয়ে আফসানা বেগমকে নির্জন বসত ঘরে গলা টিপে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে লাশ শয়ন কক্ষে কাতামুড়ি দিয়ে ঢেকে রাখে। বাড়ীতে এসে আম্বিয়া বেগম নাতনি আফসানা বেগমের কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে পুত্রবধু নাসিমা বেগমের কাছে তার নাতনি কোথায় রয়েছে জানতে চাইলে সে একেক সময় একেক কথা বলে। এতে সন্দেহ হলে বসত ঘরের একটি কক্ষে ঢুকে নাতনি আফসানা বেগমের নিতর দেহ পড়ে থাকতে দেখে দাদী আম্বিয়া বেগম শোর চিৎকার শুরু করলে আশপাশের লোকজন এসে নাসিমা বেগমকে আটক করলে সে নিজে সৎ মেয়ে শিশু আফসানাকে গলাটিপে হত্যা করেছে বলে জানায়। সাথে সাথে ঘটনাটি কানাইঘাট থানা পুলিশকে এলাকাবাসী অবহিত করলে থানার এসআই রাজীব মন্ডল ঘটনাস্থলে গিয়ে আজ সোমবার সকাল ১১টার দিকে শিশু আফসানা বেগমের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন এবং হত্যাকারী নাসিমা বেগমকে গ্রেফতার করেন। পোষ্ট মডামের জন্য শিশু আফসানার লাশ সিলেট সিওমেক মর্গে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত আফসানার মা খালেদা বেগম কানাইঘাট থানায় বাদী হয়ে নাসিমা বেগমকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন, সৎ মা নাসিমা বেগম শিশু আফসানাকে শাসরুদ্ধ করে হত্যা করেছে। তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নাসিমা বেগমের দেড় বছরের একটি শিশু রয়েছে, বর্তমানে সে ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বাও। নাসিমা বেগমের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

কানাইঘাটে প্রধান শিক্ষকের বদলি আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন, স্মারকলিপি

Kanaighat News on Saturday, September 23, 2017 | 11:15 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সংকট থাকার পরও স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মঈনুল হককে অন্যত্র বদলীর ঘটনায় স্কুলের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। প্রধান শিক্ষকের বদলী প্রত্যাহারের দাবীতে স্কুলের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা শনিবার বিকেল ৪টায় স্কুল প্রাঙ্গনে মানববন্ধন পরবর্তী মৌনমিছিল সহকারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবের স্মারকলিপি প্রদান করেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক কর্তৃক স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মইনুল হককে সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে বদলীর পত্র প্রেরণ করেন। স্কুলে দীর্ঘদিন ধরে ২৭ জন শিক্ষকের স্থলে বর্তমানে প্রধান শিক্ষক সহ ৯ জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন। এরই মধ্যে প্রধান শিক্ষক মইনুল হককে অন্যত্র বদলীর সংবাদ পেয়ে স্কুলের অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।  শনিবার স্কুলের প্রাক্তন ও বর্তমানে অধ্যয়নরত প্রায় ৬ শতাধিক শিক্ষার্থী স্কুলের সুষ্ঠু পাঠদান অব্যাহত রাখতে প্রধান শিক্ষক মঈনুল হকের অন্যত্র বদলী প্রত্যাহারের জন্য প্রায় ৬ শতাধিক শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগমের মাধ্যমে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবরে প্রেরণ করেন। এছাড়া ই-মেইলের মাধ্যমে উক্ত স্মারকলিপির কপি শিক্ষার্থীরা মহাপরিচালক বরাবরে পাঠিয়েছেন। স্মারকলিপিতে শিক্ষার্থীরা উল্লেখ করেছেন, দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে শিক্ষক সংকট রয়েছে। বর্তমানে প্রধান শিক্ষক মইনুল হক সহ মাত্র ৯ জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন। এরমধ্যে প্রধান শিক্ষককে অন্যত্র বদলী করা হলে শিক্ষকদের সংখ্যা ৮ জনে নেমে আসবে। যার ফলে স্কুলের সুষ্ঠু পাঠদান চরমভাবে ব্যাহত হবে। শিক্ষক সংকট থাকার পরও প্রধান শিক্ষক মইনুল হকের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রতি বছর শিক্ষার্থীরা জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় শতভাগ ফলাফল করে আসছেন। তার অন্যত্র বদলী স্কুলের সুষ্ঠু পাঠদানের স্বার্থে প্রত্যাহারের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা-পরিচালকের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা।

মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে অর্থায়ন : শর‘য়ী দৃষ্টিভঙ্গি


আব্দুল মতিন: ইসলাম মানবজাতিকে পরিচালনার জন্য কমপ্লিট প্যাকেজ নিয়ে এসেছে, যার পরিপূর্ণ অনুসরণ ও অনুকরণ বিশ্বকে শান্তি এবং নিরাপত্তার চাদরে আচ্ছাদন করতে পারে। এ ধর্ম সম্পদ উপার্জন ও ব্যয়ের ক্ষেত্রেও নির্দিষ্ট তরীকাহ্ বর্ণনা করেছে। মূলত আল্লাহ্ই সম্পদের মালিক। আর তিনি মানবজাতিকে সম্পদ ব্যবহারের প্রতিনিধি বানিয়েছেন। সুতরাং মানবজাতিকে সম্পদের প্রতিনিধি হিসেবে সম্পদের আসল মালিক আল্লাহ্ তা উপার্জন ও ব্যয় করার ব্যাপারে যে শর্তারোপ করেছেন তা পালন করতে হবে। মানিলন্ডারিং হলো অবৈধ অর্থ বা সম্পত্তিকে বৈধ রূপ দেয়ার প্রক্রিয়া। আরো ব্যাপকভাবে বলা যেতে পারে: মানিলন্ডারিং হল, অবৈধ পন্থায় অর্জিত সম্পদের মূল হিসাবকে গোপন করা। আর সম্পদ গোপন করা হয় বিদেশে পাচার অথবা অন্য দেশের ব্যাংকে জমা রাখার মাধ্যমে। অথবা সে সম্পদ জমা বা বিনিয়োগ করা হয় কোন বৈধ খাতে। মানিলন্ডারিংয়ের কতগুলো উদ্দেশ্য থাকে। যেমন: ক. আয়ের অবৈধ প্রকৃতি, উৎস, মালিকানা ও নিয়ন্ত্রণ গোপন করা। খ. আইন ফাঁকি দেওয়া। গ. বিদেশে বা দেশে পাচার করা। ঘ. আইনের অধীন রিপোর্টিং আড়াল করা। ঙ) সম্পৃক্ত অপরাধ সংঘটনে অংশগ্রহণ, প্ররোচনা প্রদান বা সহায়তা করা। মানিলন্ডারিংয়ের ব্যাপারে ইসলামের অবস্থান: মানিলন্ডারিংয়ের আরবী প্রতিশব্দ ‘গসীলুল আমওয়াল’। ইসলামী শরীয়তে মানিলন্ডারিং বা গসীলুল আমওয়াল কোনটিই সরাসরি আসেনি। কিন্তু ইসলাম এমন শব্দ ব্যবহার করেছে যা মানিলন্ডারিং বা গসীলুল আমওয়াল থেকেও আরো ব্যাপক অর্থবোধক। আর তা হলো ‘আল-মালুল হারাম’ বা ‘হারাম সম্পদ’ ‘আল-কাসবুল হারাম’ বা ‘হারাম উপার্জন’ ও ‘আল-কাসবু গইরুল মাশরু’ বা ‘অবৈধ উপার্জন’। বিংশ শতাব্দীতে সারাবিশ্বে মানিলন্ডারিং নামক আর্থিক অপরাধ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে এবং এ অপরাধ বন্ধে দেশে দেশে নানান আইন তৈরি হয়। কিন্তু ইসলাম অনেক বছর পূর্বেই সম্পদের ব্যাপারে, বিশেষ করে হারাম সম্পদের ব্যাপারে তার অবস্থান পরিষ্কার করেছে। ইসলাম হালালকে হালাল বলে উল্লেখ করে হালালভাবে অর্থ উপার্জনের প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেছে। আর হারামকে হারাম হিসেবে বর্ণনা করে তা অপরাধের পথ হিসেবে উল্লেখ করেছে এবং তা থেকে বাঁচার জন্য বিভিন্ন রাস্তা তুলে ধরেছে। আল-কুরআন অন্যায়ভাবে মানুষের সম্পদ ভক্ষণের উপর সাধারণভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ্ তা‘আলা বলেন: ‘আর তোমরা অন্যায়ভাবে পরস্পরের মাল গ্রাস করো না এবং জানা সত্তে¡ও অসৎ উপায়ে লোকের মাল গ্রাস করার উদ্দেশে তা বিচারকের নিকট নিয়ে যেও না।’ সূরাহ্ আল-বাকারাহ্, আয়াত: ১৮৮। অনুরূপভাবে আল্লাহ্ তা‘আলা আরো বলেন: ‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা পরস্পর সম্মতিক্রমে ব্যবসা ব্যতীত অন্যায়ভাবে একে অন্যের সম্পদ গ্রাস করো না।’ সূরা আন-নিসা, আয়াত: ২৯। আল্লাহ্ তা‘আলা আরো বলেন: ‘এবং তিনি তাদের জন্য যাবতীয় পবিত্র বস্তু হালাল ঘোষণা করেন ও নিষিদ্ধ করেন হারাম বস্তুসমূহ।’ সূরা আরাফ: ১৫৭। আর এতে সন্দেহ নাই যে, মানিলন্ডারিংয়ের টাকা অবৈধভাবে উপার্জিত ও অপবিত্র। রাসূল (সা.) বিদায় হজ্জের ভাষণে বলেছেন: ‘(মনে রাখবে) তোমাদের জীবন, সম্পদ, ইজ্জত পরস্পরের মধ্যে যেমন হারাম; তেমনি আজকের এ দিন এ শহরে হারাম।’ মুসলিম (১২১৮)। এই হাদীসটি মানুষের সম্পদ রক্ষা ও অন্যের সম্পদ অবৈধ পন্থায় গ্রহণ করা না করার প্রতি নির্দেশ করে। এ হাদীসটি এক সাধারণ (আম) হাদীস যা সকল প্রকার আর্থিক ও অর্থনৈতিক অপরাধকে অন্তর্ভুক্ত করে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘মানুষের সামনে এমন একটি যুগ আসবে, যখন কেউ কি উপায়ে ধন-সম্পদ উপার্জন করলো, হারাম না হালাল উপায়ে- এ ব্যাপারে কেউ কোনো প্রকার পরোয়া করবে না।’ (বুখারী, ১৯৭৭)। এ হাদীসটি রাসূল (সা.)-এর ভবিষ্যতবাণী। তাই মানুষকে সম্পদ উপার্জনের ব্যাপারে সর্তক থাকতে হবে। কেননা রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ্ পবিত্র আর তিনি পবিত্র বস্তুই গ্রহণ করেন।’ মুসলিম (১০১৫)। হারাম সম্পদ থেকে গঠিত যেকোন ভালো কাজ যা দেখতে সুন্দর, এর ব্যাপারে ইসলামের অবস্থান স্বচ্ছ ও পরিষ্কার; যদিও তা আর্থিক ইবাদত বা শারীরিক ইবাদত হোক অথবা উভয় ইবাদত এক সাথে হোক। রাসূলুল্লাহ্ (সা.) বলেছেন, ‘পবিত্রতা ছাড়া নামায কবুল হয় না এবং আত্মসাৎ বা খেয়ানতের সম্পদ থেকে সাদ্কাহ কবুল হয় না।’ (সহীহ মুসলিম)। আবার হজ্জের ব্যাপারে হাদীসে এসেছে, ‘যখন কোন ব্যক্তি হালাল খরচে হজ্জের জন্য বের হয়ে আরোহীর উপর পা রাখে বলে: লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক। তখন আসমান হতে এক আহ্বানকারী আহ্বান করে বলে: লাব্বাইকা ওয়া সা‘দাইক। তোমার পাথেয় হালাল, তোমার আরোহণের পশু হালাল, তোমার হজ্জ কোন কিছুর দ্বারা আচ্ছাদিত না হয়ে কবুল করা হল। আর যখন কোন ব্যক্তি অবৈধ খরচে হজ্জের উদ্দেশ্যে বের হয়ে সফরের জন্তুর উপর পা রেখে লাব্বাইকা বলে, তখন আকাশ হতে এক আহ্বানকারী বলতে থাকে লা লাব্বাইকা ওয়ালা সা‘দাইক। তোমার পাথেয় হারাম, তোমার খরচ হারাম আর তাই তোমার হজ্জ কবুল হবে না।’ (তাবরানী ফিল আওছাত, ৫/২৫১, হাদীস নং ৫২২৮)। ইসলাম এ কথা বলে দিয়েছে যে, যে ব্যক্তি হারাম সম্পদ জমা করবে, আর যে ব্যক্তি হারাম সম্পদের উপর বেঁচে থাকবে তার এসম্পদগুলো জাহান্নাম যাওয়ার কারণ হবে। হাদীসে এসেছে: ‘যে রক্ত-মাংস অবৈধ আয়ে বৃদ্ধি পায় জাহান্নামের আগুন তাকে আগে গ্রাস করবে।’ (মুসতাদরাক, ৪/১৪১, হাদীস নং-৭১৬৩। সহীহ ইবনে হিব্বান, ১২/৩৭৮। সুনানে তিরমিযী, ২/৫১২)। সুতরাং অবৈধ পন্থায় অর্জিত সম্পদ যে বিপদের কারণ তা আলোচনার মাধ্যমে স্পষ্ট। আকলী (বুদ্ধিভিত্তিক) দলীল: শরী‘আর উদ্দেশ্য হচ্ছে সম্পদ সংরক্ষণ করা এবং সেই সম্পদ দিয়ে অর্থনীতির উন্নয়ন করা। কিন্তু মানিলন্ডারিং এমন একটি অপরাধ যা অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দেয়, কৌশলে অন্যায়-অবৈধ ও হারাম পন্থায় অর্থ উপার্জনের রাস্তাগুলোকে খুলে দেয়। সন্ত্রাসী কার্যের সংজ্ঞায় সন্ত্রাস বিরোধী আইন, ২০০৯-এর দ্বিতীয় অধ্যায়ের আলোকে বলা যেতে পারে যে, ক. কোন ব্যক্তি, সত্তা বা বিদেশী নাগরিক কর্তৃক বাংলাদেশের অখন্ডতা, সংহতি, জননিরাপত্তা বা সার্বভৌমত্ব বিপন্ন করার জন্য জনসাধারণ বা জনসাধারণের কোন অংশের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টির মাধ্যমে সরকার বা কোন সত্তা বা কোন ব্যক্তিকে কোন কার্য করতে বা করা হতে বিরত রাখতে বাধ্য করার উদ্দেশ্যে- প্রজাতন্ত্রের সম্পত্তির ক্ষতি সাধন, হত্যা, গুরুতর আঘাত, আটক বা অপহরণ করা বা চেষ্টা করা কিংবা অন্যকে এরূপ কার্যে প্ররোচনা, সহায়তা দেওয়া কিংবা এতদউদ্দেশ্য সাধনকল্পে বিস্ফোরক দ্রব্য, দাহ্য পদার্থ ও আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার বা নিজ দখলে রাখা। খ. অন্যকোন রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বিঘিœত বা সম্পত্তি বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যে অনুরূপ অপরাধ করা, চেষ্টা করা, কাউকে প্ররোচিত করা। গ. আন্তর্জাতিক কোন সংস্থার কোন কার্য বাধাগ্রস্ত করার উদ্দেশ্যে অনুরূপ অপরাধ করা, চেষ্টা করা, কাউকে প্ররোচিত করা, সহায়তা করা। গ. জ্ঞাতসারে কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর অর্থ সম্পদ ভোগ বা দখলে রাখলে। সন্ত্রাসী কার্যে অর্থায়নের ব্যাপারে ইসলামী দৃষ্টিভঙ্গি: সন্ত্রাস একটা মারাত্মক অপরাধ যার উদ্দেশ্য হলো বিশৃংখা সৃষ্টি করা। যা মানুষের শান্তি বিনষ্ট করে। যা জান-মাল, বাড়ি-ঘর, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল-চিকিৎসালয়, শিল্প-কারখানা, যোগাযোগ ব্যবস্থা ধ্বংস করে। আর ইসলাম কখনোই এ ধরনের কার্যক্রমকে সমর্থন করে না। আর যারা এ ধরনের কার্যের সাথে জড়িত সেখানে অর্থায়নকে ইসলাম আরোও সমর্থন করে না। এ ব্যাপারে আল্লাহ্ বলেন, ‘সৎকর্ম ও খোদাভীতিতে একে অন্যের সাহায্য কর। পাপ ও সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের সহায়তা করো না। আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয়ই আল্লাহ্ তা‘আলা কঠোর শাস্তিদাতা।’ সূরা মায়িদাহ্ : ০২। ‘আর এমন কিছু লোক রযেছে যাদের পার্থিব জীবনের কথাবার্তা তোমাকে চমৎকৃত করবে। আর তারা সাক্ষ্য স্থাপন করে আল্লাহকে নিজের মনের কথার ব্যাপারে। প্রকৃতপক্ষে তারা কঠিন ঝগড়াটে লোক। আর যখন ফিরে যায় তখন চেষ্টা করে যাতে জমিনে অকল্যাণ সৃষ্টি করতে পারে এবং শস্যক্ষেত্র ও প্রাণনাশ করতে পারে। আল্লাহ্ তা‘আলা ফাসাদ ও দাঙ্গা-হাঙ্গামা পছন্দ করেন না।’ সূরা বাকারাহ্: ২০৪-২০৫। রাসূল সা. বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি কোন বিদআতীকে (ইসলামের পরিপন্থী কোনো নতুন মতবাদ সৃষ্টিকারী) আশ্রয় দেয় তার ওপরও আল্লাহর লা‘নত।’ -সহীহ মুসলিম, কিতাবুল আযাহী। ইমাম শাওকানী নাইনুল আওতার (৮/১৫৮) গ্রন্থে বলেছেন, ‘মুহদিস’ হলো ওই ব্যক্তি যে এমন কাজ করে যার দ্বারা পৃথিবীতে অশান্তি ও বিশৃংখলা সৃষ্টি হয়। সৌদি আরবের কেন্দ্রীয় ফাতওয়া পরিষদ ‘হাইআতু কিবারিল উলামা’ উল্লিখিত আয়াত ও হাদীসের আলোকে এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে, সন্ত্রাস ও জঙ্গি কর্মকান্ডে অর্থায়ন হারাম ও এমন একটা অপরাধ যার কারণে শরয়ীভাবে শাস্তির যোগ্য। বিশ্বের প্রতিটি দেশে এন্টি-মানিলন্ডারিং আইন থাকলেও তা প্রতিরোধ করতে অক্ষম। মানিলন্ডারিংয়ের ফলে যেমন দেশের জনগণের অধিকার হরণ করা হচ্ছে তেমনি এ অর্থ বিদেশে পাচারের মাধ্যমে দেশের ক্ষতি হচ্ছে। অপরদিকে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে বিশ্বে আজ অশান্তি বিরাজ করছে। সুতরাং মানুষ যদি অর্থ উপার্জন ও ব্যয়ের ক্ষেত্রে ইসলমী আইন অনুসরণ করে তাহলে বিশ্বে শান্তির ছায়া নেমে আসবে।
 লেখক: অফিসার, শরী‘আহ্ সেক্রেটারিয়েট, এক্সিম ব্যাংক

কানাইঘাটে ছাত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়া গৃহশিক্ষক গ্রেফতার


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট মনসুরিয়া কামিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ফুসলিয়ে নিয়ে যাওয়ার ৫দিন পর কানাইঘাট কলেজের ছাত্র এনাম উদ্দিন (২৪) কে আটক করেছে কানাইঘাট থানা পুলিশ। শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার নারাইনপুর খলা গ্রামে আত্মগোপনে থাকা এনাম উদ্দিনকে গ্রেফতার করে থানার এসআই পিযুষ কান্তি দেবনাথ। এ সময় মাদ্রাসা ছাত্রী (১৩)কে উদ্ধার করে পুলিশ। জানা যায়, কানাইঘাট সদর ইউপির রাধানগর গ্রামের এক ব্যবসায়ীর মেয়ে মনসুরিয়া মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে একই গ্রামের আব্দুল মন্নান বটই এর পুত্র কলেজ শিক্ষার্থী এনাম উদ্দিন গৃহ শিক্ষক হিসাবে পড়াত। এই সুযোগে এনাম উদ্দিন ঐ ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে গত মঙ্গলবার ঐ ছাত্রীকে বাড়ী থেকে পালিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঐ ব্যবসায়ী তার মেয়ে নিখোঁজের ঘটনায় কানাইঘাট থানায় গত বৃহস্পতিবার একটি সাধারণ ডায়রী করেন। পরে ঐ ছাত্রীর বাবা জানতে পারেন তার মেয়ের গৃহ শিক্ষক একই গ্রামের এনাম উদ্দিন তার মেয়েকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। পুলিশ ঐ ছাত্রীকে উদ্ধার করার জন্য এনামের বড় ভাই আজির উদ্দিনকে আজ শনিবার বিকেল ৩টার দিকে আটক করে তার কাছ থেকে জবানবন্দীর সূত্র ধরে আত্মগোপনে থাকা এনাম উদ্দিনকে ঐদিন সন্ধ্যার দিকে নারাইনপুর খলা গ্রামের তার বোনের বাড়ী থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে, উদ্ধার করা হয় অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রীকে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মাদ্রাসা শিক্ষার্থী পুলিশি হেফাজতে ও এনাম উদ্দিনকে থানা হাজতে রাখা হয়েছে। থানার এসআই পিযুষ কান্তি দেবনাথ জানিয়েছেন, এনাম উদ্দিন ও মাদ্রাসা ছাত্রীর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এ প্রেমিক জুটি নিজ ইচ্ছায় বাড়ী থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ছাত্রী অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অপরদিকে মেয়ের বাবা জানিয়েছেন, তার অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েকে এনাম উদ্দিন ফুসলিয়ে অপহরণ করেছে।

কানাইঘাটে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ৬


মিছবা উল হক চৌধুরী : কানাইঘাট-দরবস্ত সড়কের দরবস্ত ৪নং ইউনিয়ন পরিষদের সামনে সড়ক দূর্ঘটনায় সিএনজি ড্রাইভার সহ ৫ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সিলেট থেকে কানাইঘাটগামী সিএনজি ( সিলেট থ-১২৯২৮১) দরবস্ত ৪নং ইউনিয়ন অতিক্রম করার সময় ছোট্ট একটি শিশু গাড়ির সামনে পড়লে শিশুটিকে বাঁচাতে গিয়ে সিএনজি ড্রাইভার কবির সহ গাড়ির আরো ৫ জন যাত্রী গুরুতর আহত হন। এসময় গাড়িটি দুমড়ে মুচড়ে রাস্তার পাশে পড়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আহতদের জৈন্তা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করা হয়। তাতক্ষণিক আহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

কানাইঘাটে দূর্গা পূজা উপলক্ষে হিন্দু-সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সাথে উপজেলা বিএনপির মতবিনিময়

Kanaighat News on Friday, September 22, 2017 | 10:11 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজাকে সামনে রেখে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেছেন, কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় কানাইঘাট পূর্ব বাজারস্থ বিএনপির কার্যালয়ে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে উপজেলার ৩৫টি পূজামন্ডপে উপজেলা বিএনপির সভাপতি চাকসুর সাবেক আপ্যায়ন সম্পাদক মামুন রশিদ মামুনের ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে নগদ ৩৫ হাজার টাকা শুভেচ্ছা স্বরূপ পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পৌর বিএনপির সভাপতি কাউন্সিলর হাজী শরিফুল হক, উপজেলা শ্রমিকদলের সভাপতি কাউন্সিলার আবিদুর রহমান, জেলা ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক আবুল বাশার সহ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে এ সময় জেলা পূজা উদ্যাপন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রিংকু চক্রবর্তী, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সহ সভাপতি সলিল চন্দ্র দাস, বাবু সুদিপ্ত কুমার দাস, উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ভজন লাল দাস, পৌর শাখার সভাপতি শ্যামল চন্দ্র দাস, পূজা উদ্যাপন পরিষদ নেতা বাবুল চন্দ্র দাস, সুব্রত চন্দ্র দাস, উপজেলা ছাত্র-যুব-ঐক্য পরিষদের সভাপতি বিধান চৌধুরী সহ বিভিন্ন মন্ডপের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকবৃন্দের হাতে বিএনপির সভাপতি মামুন রশিদের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদানের টাকা তুলে দেওয়া হয়। মতবিনিময় অনুষ্ঠানে পৌর বিএনপির সভাপতি কাউন্সিলার শরিফুল হক শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশে যুগ যুগ ধরে ধর্মীয় সম্প্রীতিকে অটুট রেখে সকল ধর্মের মানুষ বসবাস করে আসছেন। বিএনপি হিন্দু সম্প্রদায়কে কখনও সংখ্যালঘু সম্প্রদায় মনে করে না, আমরা একে অন্যের ধর্মের উৎসবে সবসময় অংশগ্রহণ করে থাকি। ধর্মীয় সংখ্যালঘু বলে কাউকে খাটো করতে বিএনপি চায়না। অতিতের মতো কানাইঘাটে প্রত্যেকটি পূজা মন্ডপে বিএনপির পক্ষ থেকে সহযোগিতার হাত ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে। পূজা উদ্যাপন পরিষদ সহ অন্যান্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিএনপির পক্ষ থেকে সব সময় তাদের ধর্মীয় উৎসবে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করায় ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ৪নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি তাজ উদ্দিন, উপজেলা শ্রমিকদলের যুগ্ম আহ্বায়ক জাফর আহমদ, তাতি দলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কিবরিয়া, জেলা ছাত্রদলের সদস্য বদরুল আলম, ছাত্রনেতা রেজোয়ান আহমদ হৃদয়, আব্দুর রহমান, আবু হেনা রনি, বাবুল আহমদ সোহাইব, মেহেদি হাসান রিজভী প্রমুখ।

কানাইঘাটে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ৪ ডাকাত গ্রেফতার


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট দিঘীরপাড় পূর্ব ইউপি মাছুগ্রাম এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি কালে কানাইঘাট থানা পুলিশ দেশীয় ধারালো অস্ত্র, একটি ভূয়া নাম্বারপ্লেট লাগানো পিকআপ সহ ৪ পেশাদার ডাকাতকে আটক করেছে। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এ ৪ ডাকাতকে স্থানীয় সড়কের বাজার থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। জানা যায়, একটি পিকআপ গাড়ী নিয়ে গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা স্থানীয় মাছুগ্রাম এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিলে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে তাদের ধাওয়া করে। এ সময় ঐ এলাকায় প্যাট্রোল ডিউটিরত থানার এসআই রাজীব মন্ডলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ডাকাতদের পিছু নিয়ে সড়কের বাজার থেকে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। এ সময় ডাকাতদের কাছ থেকে একটি ধারালো তরবারি, খাসিয়া দা, ছুরা, লোহার রড, সাবল, মেগ লাইট, রশি, দুইটি গামছা ও লেমিনিটিং করা সিলেট-মেট্রো-ন-১১-০২৬৫ খোলা নাম্বার প্লেইট উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হলো কানাইঘাট উপজেলার মিকিরপাড়া গ্রামের আব্দুল খালিকের পুত্র আসকর আলী @ আসকার আলী, এরালীগুল গ্রামের সিরাজুল হকের পুত্র হেলাল আহমদ, গোলাপগঞ্জ উপজেলার বড়গ্রামের সফর উদ্দিনের পুত্র নাজিম উদ্দিন, বিয়ানীবাজার উপজেলার দক্ষিণ ফারিহাবহর গ্রামের মৃত ফজর আলীর পুত্র কুখ্যাত ডাকাত মনসুর আলম। কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ কানাইঘাট নিউজকে জানিয়েছেন, থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃত ৪ ডাকাতের বিরুদ্ধে সিলেটের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তারা ডাকাতি সহ সবধরনের অপরাধের সাথে জড়িত। তাদের মধ্যে বিয়ানীবাজারের মনসুর আলম একজন কুখ্যাত ডাকাত। কানাইঘাট উপজেলায় যাতে করে কোন ধরনের ডাকাতি ও অন্যান্য বড় ধরনের অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটিত করতে না পারে এজন্য পুলিশ ব্যাপক তৎপর রয়েছে। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন

Kanaighat News on Thursday, September 21, 2017 | 8:52 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় স্কুল হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়। স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মঈনুল হকের সভাপতিত্বে ও সহকারী শিক্ষিকা সাবিনা ইয়াসমিনের উপস্থাপনায় পুরষ্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম। বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুন্সী তোফায়েল হোসেন, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ তারিকুল ইসলাম, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুর উদ্দিন। বক্তব্য রাখেন, স্কুলের সহকারী সিনিয়র শিক্ষক হোসেন আহমদ, সহকারী শিক্ষক আব্দুশ শুক্কুর, ক্রীড়া শিক্ষক ব্রজ মোহন সিংহ প্রমুখ। স্কুলের স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট ও স্কাউট দলের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অত্যন্ত সুশৃঙ্খল ও উৎসব মুখর এ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের নিয়ে গড়া স্কুলের সাংস্কৃতিক দল দেশাত্মবোধক মনোমুগ্ধকর গান এবং নাটিকা, কৌতুক পরিবেশন করে অনুষ্ঠানস্থলকে মাতিয়ে রাখেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষার গুণগত মান পরিবর্তন ও বিশ্বায়নের এ যুগে আমাদের শিক্ষার্থীদের যুগপোযোগী করে তোলার জন্য নানা ধরনের যুগান্তকারী প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তিনি ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সুনামকে ধরে রাখার জন্য শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণের আহবান জানিয়ে বলেন, একটি প্রতিষ্ঠানের সার্বিক শিক্ষার উন্নয়নে শিক্ষকদের যেমন দায়িত্ববোধ রয়েছে, পাশাপাশি সন্তানদের সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য অভিভাবকদের আরো সচেতন হওয়ার আহবান জানান। অনুষ্ঠান শেষে স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী সেরা শিক্ষার্থী, জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ জিপিএ-৫ ও বৃত্তিপ্রাপ্ত এবং বিজ্ঞান মেলায় অংশগ্রহণকারী সেরা দল ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বদলী আদেশ প্রত্যাহারের দাবী


নিজস্ব প্রতিবেদক: ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সংকটের কারণে বিদ্যালয়ের পাঠদান এমনিতেই চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এরমধ্যে গত ২০ সেপ্টেম্বর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে ডিডি কর্তৃক এক পত্রের মাধ্যমে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মঈনুল হককে কোন কারন ছাড়াই সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে বদলী করায় স্কুলের অভিভাবক ও সচেতন মহলের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্কুলের শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং এলাকার সচেতন মহল প্রধান শিক্ষক মঈনুল হকের অন্যত্র বদলী প্রত্যাহারের জন্য শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপির হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে শত বছরের প্রতিষ্ঠান ঐতিহ্যবাহী কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২৭ জন শিক্ষকের মধ্যে মাত্র ৯ জন শিক্ষক বর্তমানে কর্মরত রয়েছেন। এরমধ্যে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছিলেন মঈনুল হক। তিনি বদলী হয়ে গেলে শিক্ষকের সংখ্যা ৮ জনে নেমে আসবে। বর্তমানে উক্ত প্রতিষ্ঠানে সাড়ে ৬ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী অধ্যয়নরত রয়েছেন। শিক্ষক স্বল্পতা থাকার পরও স্কুলের অভিভাবকরা জানিয়েছেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মঈনুল হক নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করায় উপজেলার মধ্যে জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় শিক্ষক সংকট থাকার পরও উপজেলার মধ্যে ফলাফলের দিক থেকে প্রতিষ্ঠানটি প্রথমে রয়েছে। স্কুলের দু’টি ক্লার্কের পদ শূন্য থাকায় মইনুল হক প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি স্কুলের সব ধরনের প্রশাসনিক কাজ করে থাকেন। তিনি দায়িত্ব পালনের সময় স্কুলের সৌন্দর্য্য বর্ধন সহ অবকাঠামো উন্নয়ন অনেক হয়েছে। স্কুলের অভিভাবকবৃন্দ, সার্বিক পাঠদান অব্যাহত রাখতে প্রধান শিক্ষক মঈনুল হকের অন্যত্র বদলী প্রত্যাহারের জন্য শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় হুইপ সিলেট-৫ আসনের এমপি সেলিম উদ্দিনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে প্রধান শিক্ষক মঈনুল হক কানাইঘাট নিউজকে জানান গত ২০ আগস্ট শিক্ষা অধিদপ্তরের ডিডি মহোদয় কর্তৃক আমার অন্যত্র বদলীর একটি চিঠি পেয়েছি। আমি নিজে কোন বদলীর আবেদন করিনি। অনেকদিন আমি কানাইঘাট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছিলাম, নিষ্ঠার সাথে প্রতিষ্ঠানের লেখাপড়ার উন্নয়নে আন্তরিকতার সহিত কাজ করছি।

কানাইঘাটে কিশোরীদের জীবন দক্ষতামূলক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট উপজেলার দিঘীরপার পূর্ব ইউপির কিশোরীদের ৩ দিন ব্যাপী জীবন দক্ষতামূলক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল ২ টায় এফআইবিডিবি’র সূচনা প্রকল্পের প্রশিক্ষণ পরবর্তী আলোচনা সভায় ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন কাজলের সভাপতিত্বে ও ইউপি কো-অর্ডিটের নজরুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আশিক উদ্দিন চৌধুরী। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আজাদ মিয়া, সূচনা প্রকল্পের গভর্ন্যান্স অফিসার মোঃ আবু সাঈদ, সাংবাদিক শাহীন আহমদ, মুমিন রশিদ, ইউপি সদস্য রমিজ উদ্দিন, নাজির উদ্দিন, জীবন দক্ষতামূলক প্রশিক্ষণ কোর্সের প্রশিক্ষক এস.এম মইন উদ্দিন ও শতদল সরকার প্রমূখ। এই প্রশিক্ষণার্থীরা নিজ নিজ এলাকায় ১০ থেকে ২০ জন কিশোরীদের নিয়ে একটি দল তৈরী করে কিশোরীদের পুষ্টি, বাল্য বিবাহ রোধ, যৌতুক প্রথার কুফল, সামাজিক নির্যাতন, ধর্মীয় কুসংস্কার দূরীকরন ও গর্ভবতী মায়েদের যতœ নেওয়া সহ জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে একটি ক্লাব গঠন করবে এবং সামাজিক উন্নয়নে তারা কাজ করবে।

কানাইঘাটে খোলা বাজারে চাল বিক্রি শুরু


নিজস্ব প্রতিবেদক: বাজারের চালের দাম উর্ধ্বমূখী হওয়ায় সরকার খোলা বাজারে ন্যায্য মূল্যে সারাদেশে চাল বিক্রির উদ্যোগ নেওয়ায় এর অংশ হিসেবে কানাইঘাট উপজেলা সদরে ৩ জন ওএমএস ডিলারের মাধ্যমে ৩০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার খোলা বাজারে চাল বিক্রি কার্যক্রমের সার্বিক ভাবে তদারকি করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম ও উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা সাইফুল আলম সিদ্দিকী। সাইফুল আলম সিদ্দিকী কানাইঘাট নিউজকে জানিয়েছেন, চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় সরকার দরিদ্র জনগোষ্ঠী যাতে করে কম দামে সহনিয় পর্যায়ে চাল কিনতে পারেন এজন্য উপজেলা পর্যায়ে ওএমএস ডিলারের মাধ্যমে চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। একজন ক্রেতা সপ্তাহে ৬দিন ৩০টাকা কেজি ধরে উন্নত মানের জনপ্রতি ৫ কেজি চাল কিনতে পারবেন। কানাইঘাট পূর্ব বাজারের ওএমএস ডিলার আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা সেন্টারে হাজী আব্দুল হেকিম ও কানাইঘাট দক্ষিণ বাজারের আলী আকবরের দোকান থেকে ন্যায্য মূল্যের চাল কেনা যাবে। কোন ডিলার যাতে করে অবৈধভাবে কালো বাজারে চাল বিক্রি করতে না পারে এজন্য কঠোর মনিটরিং এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা সাইফুল আলম সিদ্দিকী জানিয়েছেন।

শাবিতে 'সাস্টিয়ান ফোরাম কানাইঘাট'র নয়া কমিটি গঠিত


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: শাবিপ্রবিতে অধ্যয়নরত কানাইঘাট উপজেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘সাস্টিয়ান ফোরাম, কানাইঘাট’ এর নতুন কার্যকরি পরিষদ গঠন সম্পন্ন হয়েছে। ২১ সেপ্টেম্বর রোজ বৃহস্পতিবার বিকালে ইউনিভার্সিটি সেন্টারে আয়োজিত এক সভায় ২০১৭-১৮ সালের জন্য সংগঠনের এই ২য় কার্যকরি পরিষদ গঠিত হয়। ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী আসিফ আযহারের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক এহসান-ই-এলাহী। সভায় নতুন কার্য বছরের জন্য ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী আসিফ আযহারকে সভাপতি ও লোক-প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী মামুনুর রশিদ-কে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ৫৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি: হাবীবা জাসমিন (পি.এস.এস.), আফরোজা জেবিন (জি.ই.ই.), ফাহিমা সুলতানা (অর্থনীতি), আবুল হাসনাত (বাংলা), ফখরুল ইসলাম রাহেল (অর্থনীতি), কবির উদ্দিন (বাংলা) ও আবুল কালাম আজাদ (সমাজবিজ্ঞান); যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক: ইফতেখার আহমদ মুরাদ (সমাজকর্ম), আমিনা বেগম (সমাজকর্ম), ইলিয়াছ আহমদ (নৃবিজ্ঞান), যাহরা আহমেদ (ইংরেজি) ও মো. জাহাঙ্গীর আলম (এফ.ই.এস.); সহ-সাধারণ সম্পাদক: রেদওয়ান হোসাইন (বাংলা), মো. আবু নোমান (ইংরেজি), সুমাইয়া ফয়েজ নিশু (ইংরেজি), আমান উদ্দিন মাহবুব (ব্যবসায় প্রশাসন), মহি উদ্দিন জাবের (নৃবিজ্ঞান), মুহাম্মাদ জয়নুল ইসলাম (আই.পি.ই.), রুমানা আক্তার পিংকী (লোক প্রশাসন), জুবের (নৃবিজ্ঞান), জুলফা বেগম (বাংলা); সাংগঠনিক সম্পাদক: ইবাদুর রহমান নাইফ (লোক প্রশাসন), সায়েম ফরিদ (ব্যবসায় প্রশাসন), মিছবা-উল হক চৌধুরী (ইংরেজি), জহিরুল আলম (লোক প্রশাসন); র্অথ সম্পাদক: ফয়ছল আহমদ লিপু (সমাজবিজ্ঞান); উপ-র্অথ সম্পাদক: আল-আমিন আহমেদ চৌধুরী (ব্যবসায় প্রশাসন); প্রচার সম্পাদক: মোসাদ্দেক হোসেন (সমাজকর্ম); উপ-প্রচার সম্পাদক: আফজালুল ইসলাম তানভীর (নৃবিজ্ঞান); দপ্তর সম্পাদক: তারেকুল ইসলাম (আই.পি.ই.); উপ-দপ্তর সম্পাদক: রুহেল আহমদ (বাংলা); গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক: জাহিদ আহমদ (ইংরেজি); উপ-গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক: ইফতেখার আহমদ নাইম (অর্থনীতি); পাঠাগার সম্পাদক: মুশফিকুর রহমান (বাংলা); উপ-পাঠাগার সম্পাদক: আহসান হাবিব সানি (পরিসংখ্যান); সাহিত্য সম্পাদক: আবুল বাশার (বি.এম.বি.); উপ-সাহিত্য সম্পাদক: মাহফুজুর রহমান (নৃবিজ্ঞান); সাংস্কৃতিক সম্পাদক: সুলতান আল মাবরুর (পি.এস.এস); উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক: মোস্তফা তানভীর কুহেল (আই.পি.ই.); শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক: আকরাম হোসাইন (রসায়ন); উপ-শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক: শহীদুর রহমান (লোক প্রশাসন); তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক: জহির উদ্দিন শিপন (পি.এস.এস.); উপ-তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক: তামিমা ফেরদৌস মীম (সমাজকর্ম); তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক: সঞ্জয় দাস (পদার্থবিজ্ঞান); উপ-তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক: সুমাইয়া আক্তার (পরিসংখ্যান); স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক: মাসুমা তাহসিন শাপলা (সমাজবিজ্ঞান); উপ-স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক: ফাতেমা নূরজাহান জুঁই (ইংরেজি); সমাজসেবা সম্পাদক: জুবায়রা জুই (সমাজবিজ্ঞান); উপ-সমাজসেবা সম্পাদক: তাসনুম সুলতানা ডেইজি (ইংরেজি); মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক: মোস্তফা সারওয়ার শুভ (সি.ই.পি.); উপ-মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক: তাসনুভা আলতাফ করবী (ইংরেজি); কার্যকরী সদস্য: ফারিহা চৌধুরী মীম (এফ.ই.টি.); তাহের (পদার্থবিজ্ঞান); মানাল (সি.এস.ই.); ফাতেমা আনবার ঔশি (এফ.ই.এস.)। এছাড়াও উপস্থিত সদস্যদের মতাতের ভিত্তিতে সংগঠনের সাবেক সভাপতি দেলওয়ার হোসেন (অর্থনীতি) ও সাবেক সাধারণ সম্পাদ এহসান-ই-এলাহী (লোক প্রশাসন)-কে সংগঠনের উপদেষ্টা নির্বাচিত করা হয়। (বিজ্ঞপ্তি)

ডিপজলকে মাউন্ট এলিজাবেথে ভর্তি করা হয়েছে

ডিপজলকে মাউন্ট এলিজাবেথে ভর্তি করা হয়েছে
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজলকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার সঙ্গে রয়েছেন মেয়ে অলিজা মনোয়ার।

ডিপজল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন এবং তার ফুসফুসে পানি জমেছে বলে জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ঠজন ও পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর।

তিনি জানান, মঙ্গলবার বিকালে বাসায় অসুস্থ হয়ে পড়ার পর তাকে দ্রুত রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে নেয়া হয়। চিকিৎসকেরা তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটিতে (সিসিইউ) পর্যবেক্ষণে রেখেছিলেন। তিনি ডা. বরেণ চক্রবর্তীর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তাকে সিঙ্গাপুর নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায় একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্স তাকে নিয়ে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে রওয়ানা হয়।

ডিপজল সম্প্রতি পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবরের ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’ ছবির কাজ শেষ করেছেন। আগামী মাসে ছবিটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে। এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন মৌসুমী।

এছাড়া ছটকু আহমেদ পরিচালিত ‘এক কোটি টাকা’ ছবিরও বেশকিছু অংশের শুটিং করেছেন ডিপজল। এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন আঁচল।

ডিপজল চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজনাও করেছেন। বর্তমানে নায়কের চরিত্রে অভিনয় করলেও খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করেই জনপ্রিয়তা পান তিনি।

শত কোটি টাকার শাড়ি কিনেও খুশি করা যায়নি নারীদের

শত কোটি টাকার শাড়ি কিনেও খুশি করা যায়নি নারীদের

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: উৎসবকে সামনে রেখে ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের গরীব নারীদের শাড়ি দেয়ার একটি স্কিম চালু আছে। কিন্তু এবার সরকারের এমন স্কিমে বাধা পড়েছে। বিনামূল্যে পাওয়া এসব শাড়ি 'নিম্ন মানের' বলে সেগুলো ফিরিয়ে দিচ্ছে নারীরা।

গঙ্গা নামক এক নারী শাড়ি হাতে নিয়ে বলেন, 'এ শাড়ি চারদিনের বেশি টিকবে কিনা তা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে।' তিনি আরও বলেন, 'তারা বলছে এগুলো হ্যান্ডলুম শাড়ি কিন্তু এগুলোতো তা নয়।'

যেসব নারী এসব শাড়ি পেয়েছে তারা বলছে সরকার যে ধরনের শাড়ি দেবার কথা ছিলো সে ধরনের শাড়ি এগুলো নয় এবং খুবই নিম্ন মানের শাড়ি তাদের দেয়া হচ্ছে।

আর সরকার এই শাড়ি কেনার প্রকল্পে এক কোটি শাড়ি কিনতে খরচ করেছে প্রায় ২২২ কোটি টাকা। স্থানীয় 'বথুকাম্মা' উৎসব উপলক্ষে বিনামূল্যে শাড়ি প্রদানের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল কর্তৃপক্ষ। যদিও 'নিম্নমানের শাড়ি'র অভিযোগ অস্বীকার করে কর্তৃপক্ষ বলছে এগুলো ভালো মানের শাড়ি।

তবে বিরোধী দলগুলো বলছে 'শাড়ি কেলেঙ্কারির' এই ঘটনা খতিয়ে দেখা উচিত। তারা বলছে, এভাবে শাড়ি ফিরিয়ে দেয়ার বিষয় প্রমাণ করে যে, সরকার প্রত্যেক শাড়ির জন্য যে অর্থ নির্ধারণ করেছে সে তুলনায় তারা কম খরচ করেছে।

এর আগে কর্তৃপক্ষ বলেছিল যে রাজ্যের হস্তশিল্পের কারিগরদের কাছ থেকেই শাড়ি কিনে এবার সেগুলো বিতরণ করা হবে। তবে সময়মতো সব শাড়ি পাওয়া যাবে না সেটা বুঝতে পেরে অন্য শাড়ি ক্রয়ের সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ।

নারীরা যে ক্ষুব্ধ হয়ে শাড়ি পোড়াচ্ছে এবং বলছে 'এসব সস্তা শাড়ি কে পড়বে' সে ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এদিকে, সরকার অভিযোগ করছে এসবের পিছনে রয়েছে বিরোধী দল। কারণ শাড়ি পোড়ানো ভারতীয় সংস্কৃতির সাথে যায় না।

তবে নিম্নমানের এ শাড়ি নিয়ে কিছু নারী খুশিও হয়েছেন অবশ্য। 'এটার দাম হয়তো ৭০ বা ৭৫ রূপী। কিন্তু আমি খুশি কারণ এটা বিনামূল্যে পেয়েছি' বলছিলেন সাবিত্রি। সূত্র: বিবিসি

আরও ৫০ হাজার টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত সরকারের

আরও ৫০ হাজার টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত সরকারের

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: দেশের খাদ্য ঘাটতি পূরণে আরও ৫০ হাজার টন সিদ্ধ চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এজন্য ব্যয় হবে ১৮১ কোটি ৭৭ লাখ টাকা।

খাদ্য সচিব জানিয়েছেন, সরকার আগামী নভেম্বরের মধ্যে আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে মোট নয় লাখ টন চাল ও গম আমদানি করবে।

বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিবসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান।

চলতি বছরে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যার কারণে ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষতি হয়। বন্যার ফলে ফসল উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। একই সঙ্গে বন্যা কবলিত মানুষের ত্রাণ সহায়তার জন্য খাদ্য ঘাটতি বেড়ে গেছে। এই বাস্তবতায় খাদ্য ঘাটতি মেটাতে সরকার খাদ্যশস্য আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সরকার বিশ্বের বিভিন্ন দেশ হতে ২০ লাখ টন খাদ্যশস্য আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মধ্যে ১৫ লাখ টন চাল এবং ৫ লাখ টন গম।

বৈঠক শেষে খাদ্য সচিব মো. কায়কোবাদ হোসাইন বলেন, এ পর্যন্ত সরকার থেকে সরকার (জি টু জি) পদ্ধতিতে মোট ৯ লাখ টন চাল আমদানির চুক্তি হয়েছে। এর মধ্যে দুই লাখ টন চাল এসেছে। দেড় লাখ টন চাল দেশে আসার পথে আছে। বাকি সাড়ে ৫ লাখ টন চাল ১২ নভেম্বরের মধ্যে আসবে বলে আশা করছি।

অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে প্যাকেজ-৪ এর আওতায় ৫০ হাজার টন সিদ্ধ চাল আমদানির একটি ক্রয় প্রস্তাব সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে এ চাল আমদানি করা হবে।

থাইল্যান্ডভিত্তিক মেসার্স সিয়াম ট্রেডিং এ চাল সরবরাহ করবে। প্রতি টনের দাম ৪৩৮ ডলার হিসেবে মোট ব্যয় হবে ১৮১ কাটি ৭৭ লাখ টাকা। এলসি খোলার ৪০দিনের মধ্যে এ চাল দেশে আসবে।

তিনি বলেন, কক্সবাজার জেলার বাঁকখালি নদী বন্যা নিয়ন্ত্রণ, নিস্কাশন, সেচ ও ড্রেজিং (১ম পর্যায়)’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বাঁধ নির্মাণ, নদী খনন, বাঁধ সুরক্ষা, খাল পুনঃখননসহ বিভিন্ন কাজ সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে বাস্তবায়নের একটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ নৌবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত ডকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেড প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। এজন্য ব্যয় হবে ১৫০ কোটি ৫৯ লাখ টাকা।

বৈঠকে ময়মনসিংহে বেসরকারি খাতে ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের একটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে জানান অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান।
সূত্র: বিডি লাইভ।

রোহিঙ্গা ইস্যু: জাতিসংঘের ‘দৃঢ় ও দ্রুত’ পদক্ষেপ চান ট্রাম্প

রোহিঙ্গা ইস্যু: জাতিসংঘের ‘দৃঢ় ও দ্রুত’ পদক্ষেপ চান ট্রাম্প

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে দৃঢ় ও দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

বুধবার নিরাপত্তা পরিষদে জাতিসংঘ শান্তি মিশনের সংস্কার বিষয়ক এক বৈঠকে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ট্রাম্পের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন বলে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে।

বৈঠকে মাইক পেন্স মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে অবিলম্বে সহিংসতা বন্ধের আহ্বান জানান। তিনি হুঁশিয়ারি জানিয়ে বলেন, যদি এই সহিংসতা অব্যাহত থাকে তাহলে তা হিংসা ও বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে দেবে এই অঞ্চলে। যা আগামী প্রজন্ম ও আমাদের সবার শান্তির জন্য হুমকি হয়ে উঠবে।

মাইক পেন্স বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও আমি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে এই সংকটের ইতি টানতে দৃঢ় ও দ্রুত পদপেক্ষ নেওয়া এবং রোহিঙ্গা মানুষের প্রয়োজনের সময় তাদের জন্য আশাবাদ নিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছি।

২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে দেশটির সেনাবাহিনীর তথাকথিত ক্লিয়ারেন্স অপারেশন শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত ৪ লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। জাতিসংঘ সামরিক বাহিনীর এক অভিযানকে জাতিগত নিধন হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

জীবন বাঁচাতে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য দুই কোটি ৮০ লাখ ডলার (২২৪ কোটি টাকা) মানবিক সহায়তা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

বুধবার সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার সঙ্গে বৈঠকে এ সহায়তার আশ্বাস দেন।

বেটিসের কাছে রিয়ালের হার

বেটিসের কাছে রিয়ালের হার

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ম্যাচের ৯৪ মিনিটে বেটিস তারকা আন্টোনিও সানাব্রিয়ার মাথার ছোঁয়ায় রিয়ালের বিপক্ষে নাটকীয় জয় পেল বেটিস।

স্প্যানিশ সুপার কাপের প্রথম লেগে বার্সেলোনার মাঠে রেফারিকে ধাক্কা দিয়ে স্প্যানিশ টুর্নামেন্টগুলোতে পাঁচ ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পেয়েছিলেন রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড রোনালদো। তার অনুপস্থিতির সর্বোচ্চ সুযোগ নিয়েছেন লিওনেল মেসি। পাঁচ ম্যাচেই ৯ গোল করে পিচিচি ট্রফির দৌড়ে অনেক এগিয়ে গেছেন মেসি। রিয়াল-ভক্তদের জন্য সুখবর দিয়ে সেই নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছিল। আজ বার্নাব্যুতে বেটিসের বিপক্ষে নেমেছিলেন রোনালদো।

লিগে প্রতিপক্ষের মাঠের ম্যাচ দুটিতে জিতলেও ঘরের মাঠে ভ্যালেন্সিয়া ও লেভান্তের সঙ্গে টানা দুই ম্যাচে ড্র করে রিয়াল। জয় না পাওয়ার কারণ? ফুটবল পরিসংখ্যান-ভিত্তিক ওয়েবসাইট অপ্টা জানাচ্ছে, রোনালদোহীন এই চার ম্যাচে গোল করার ১৩টি ‘বড় সুযোগ’ হেলায় হারিয়েছেন বেনজেমা-বেলরা।

রোনালদো থাকলে ওই সুযোগগুলোতে কত গোল হতো, সেটি তো নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। তবে লেভান্তের বিপক্ষে লিগে ঘরের মাঠে সর্বশেষ ম্যাচে ড্র করার পর রিয়াল মিডফিল্ডার মার্কোস ইয়োরেন্তেও বলেছিলেন, ‘ও (রোনালদো) থাকলে আজ আমরা জিততাম।’

কানাইঘাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কর্তৃক ৩১টি পূজা মন্ডপে আর্থিক অনুদান প্রদান

Kanaighat News on Wednesday, September 20, 2017 | 11:19 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম রানা শারদীয় দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে কানাইঘাট উপজেলার ৩১টি পূজা মন্ডপে তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান প্রদান করেছেন। গত বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর শারদীয় দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশের উদ্যোগে আয়োজিত প্রস্তুতি মূলক সভায় উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ, প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধির উপস্থিতিতে উপজেলার ৩১টি পূজা মন্ডপের কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে প্রতিটি মন্ডপে নগদ ১ হাজার টাকা করে ৩১ হাজার ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর রানা তুলে দেন। আগামীতে কালিপূজার জন্য আরো ৫টি মন্ডপে তার পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদান প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম ও কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের এই উৎসবকে আরো আনন্দ মুখর করতে ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম কর্তৃক পূজা মন্ডপে আর্থিক অনুদান প্রদান করায় তাকে ধন্যবাধ জ্ঞাপন করেন। ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম রানা জানান, কানাইঘাটের ধর্মীয় সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রয়েছে। আমরা সবাই মিলে একে অন্যের ধর্মের উৎসবে অংশগ্রহণ করে থাকি। দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে সনাতন ধর্মের অনুসারীদের মধ্যে আমি আমার সাধ্যানুযায়ী আর্থিক অনুদান প্রদান করেছি। ভবিষ্যতে তাদের পাশে থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করে যাব।

কানাইঘাটে কীটনাশক পানে প্রবাসীর স্ত্রীর আত্মহত্যা


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির লালারচক পশ্চিম গ্রামের দুবাই প্রবাসী ফখরুল আমিনের স্ত্রী এক সন্তানের জননী ফাহিমা বেগম (২৭) কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে। গত ১৮ সেপ্টেম্বর সোমবার ফাহিমা বেগম রাত সাড়ে ৭টার দিকে কীটনাশক পান করলে তাকে আশংকা জনক অবস্থায় সিওমেক হাসপাতালে ভর্তি করার পর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থা ফাহিমা বেগম আজ বুধবার সকালে মারা যান। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের লাশের ময়না তদন্তের পর এব্যাপারে কানাইঘাট থানায় ফাহিমা বেগমের ভাই জসীম উদ্দিন বাদী হয়ে বুধবার একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন। কীটনাশক পান করে ফাহিমা বেগমের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের আত্মীয় স্বজনরা জানিয়েছে ২০০৯ সালে লালারচক গ্রামের দুবাই প্রবাসী ফখরুল আমিনের সাথে ফাহিমা বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের দুই মাস পর স্বামী ফখরুল আমিন দুবাইতে চলে যান। এরপর আর সে আর বাড়ীতে আসেনি। ফাহিমা বেগম ও তার স্বজনরা জানতে পারেন সকলের অগোচরে স্বামী ফখরুল ইসলাম দুবাইতে এক বাংলাদেশী মেয়েকে বিয়ে করে সেখানে ঘর সংসার করছেন। বিয়ের পর থেকে ফাহিমা বেগমের কোন খোঁজ খবর স্বামী নেননি। ৮ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে ফাহিমা বেগমের। এমতাবস্থায় স্বামীর সংসারে থাকার পর তার উপর দেবর আল-আমিনের কু-নজর পড়ে। দেবর আল-আমিন বিভিন্ন সময়ে ফাহিমা বেগমকে কু-প্রস্তাব দিত বলে তার স্বজনরা জানিয়েছেন। যৌতুকের জন্য ফাহিমা বেগমের শাশুড়ী সালমা খাতুন ও ননড়ী সুমি বেগম কর্তৃক শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় ২০১০ সালে ফাহিমা বেগম বাদী হয়ে কানাইঘাট থানায় একটি অভিযোগও দিয়েছিলেন। দেবর আল-আমিনের কু-প্রস্তাবে অতিষ্ট হয়ে অনুমান ৩ মাস পূর্বে ফাহিমা বেগম তার কন্যা সন্তান রুজি বেগমকে নিয়ে নিজ পিত্রালয় ফতেহগঞ্জ গ্রামে চলে আসেন। একপর্যায়ে ফাহিমা বেগমের কাছ থেকে দেবর আল-আমিন ও শাশুড়ী সালমা খাতুন তার মেয়ে রুজি বেগমকে জোরপূর্বক ভাবে নিয়ে গেলে মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েন ফাহিমা বেগম। গত রবিবার ফাহিমা বেগম তার মেয়ের সাথে ফোনে কথা বলার জন্য বার বার মোবাইল ফোন করার পর শশুড় বাড়ীর লোকজন মেয়ের সাথে কোন ধরনের কথা বলতে না দেওয়ায় ক্ষোভ ও অপমানে গত সোমবার সবার অগোচরে পিত্রালয়ে কীটনাশক পান করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুদবার মারা যান ফাহিমা বেগম। ফাহিমা বেগমের ভাই জসীম উদ্দিন জানিয়েছেন, তার বোনকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দিয়েছে তার স্বামী প্রবাসী ফখরুল আমিন, দেবর আল-আমিন, তাজুল-আমিন, শাশুড়ী সালমা খাতুন ও ননড়ি সুমি বেগম। তার বোনের বিয়ে হওয়ার পর থেকে বোন জামাই ফখরুল আমিন কোন খোঁজ খবর না নিয়ে দুবাইতে বিয়ে করে সেখানে সংসার করতেছে। অপরদিকে স্বামীর অনুপস্থিতিতে তার দেবর আল-আমিন আমার বোন ফাহিমা বেগমকে নানা ভাবে কু-প্রস্তাব দিত, তার কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিভিন্ন সময়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করত। তার বোনকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে, এ ঘটনায় তিনি আইনের আশ্রয় নিবেন বলে জানিয়েছেন। এব্যাপারে কানাইঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ফাহিমা বেগম তার পিত্রালয়ে গত সোমবার কীটনাশক পান করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার মারা গেছেন। এব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। মামলার তদন্তকালে তার আত্মহত্যার প্ররোচনার দিকে স্বামীর বাড়ীর লোকজন জড়িত থাকলে তদন্ত পূর্বক তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

স্মার্টওয়াচ এবার সাধারণ ঘড়ির রূপে

স্মার্টওয়াচ এবার সাধারণ ঘড়ির রূপে

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সাধারণ ঘড়ির সঙ্গে স্মার্টঘড়ির কিছু পার্থক্য। স্মার্টঘড়িতে প্রযুক্তির সংস্পর্শ থাকলেও তা দেখতে খুব একটা ফ্যাশনেবল নয়। ফ্যাশন অনুষঙ্গ হিসেবে এখনও সাধারণ ঘড়ির কদরই বেশি।

এবার ফ্যাশন প্রেমীদের কথা ভেবে ঘড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান মার্শানওয়াচ বাজারে আনতে যাচ্ছে একটি হাইব্রিড স্মার্টঘড়ি। যার নাম দেওয়া হয়েছে এমভয়েস।

প্রধান প্রধান অ্যাপগুলোর নোটিফিকেশন দেখানোর পাশাপাশি এতে কল করা ও রিসিভ করার সুবিধা রয়েছে। শুধু তাই নয়, ছবি তোলা ও ভয়েস কমান্ড দেওয়ার জন্য এতে রয়েছে একটি শাটার বাটন। এই বাটনের সাহায্যে কমান্ড দেওয়া যাবে অ্যামাজনের অ্যালেক্সা, অ্যাপলের সিরি কিংবা গুগলের ওকে ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্টকে।

শুধু তাই নয়, ফোন কোথাও খুঁজে না পেলেও কোনো চিন্তা নেই। মার্শান মেনুতে চাপ দিলে স্মার্টঘড়িটি নিজে থেকেই ব্যবহারকারীকে ফোন দেবে। স্টাইলিশ এই স্মার্টওয়াচটির দাম ধরা হয়েছে ১২৯.৯৯ ডলার বা ১০ হাজার ৩৯৯ টাকা। সূত্র: টেক শহর।

ব্রিটেনের সাথে সৌদি আরবের সামরিক চুক্তি

ব্রিটেনের সাথে সৌদি আরবের সামরিক চুক্তি

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ব্রিটেনের সাথে সামরিক এবং নিরাপত্তা সহযোগিতা সংক্রান্ত একটি চুক্তি করেছে সৌদি আরব। ইয়েমেনের বিদ্রোহীদের সাথে সৌদির চলা যুদ্ধের মধ্যেই এ চুক্তি করলো ব্রিটেন।

সৌদি রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইকেল ফ্যালোন এবং সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান চুক্তিতে সই করেছেন। এছাড়া তারা সামরিক সহযোগিতার বিষয়েও আলোচনা করেছেন। তবে, চুক্তি সম্পর্কে বিস্তারিত কোনো তথ্য দেয়নি এসপিএ। যুবরাজ মুহাম্মাদ সৌদি প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করছেন।

গত ডিসেম্বরে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বলেছিলেন, আগামী এক দশকের মধ্যে পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর প্রতিরক্ষা খাতে তার দেশ ৪০৫ কোটি ডলার সমপরিমাণ অর্থবিনিয়োগ করবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে যাওয়ার আগে তেলসমৃদ্ধ রাজতন্ত্রিক দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক আরো জোরদার করতে চাইছে ব্রিটেন।

রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ করবে সেনাবাহিনী: কাদের

রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ করবে সেনাবাহিনী: কাদের

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গার মাঝে ত্রাণ বিতরণ ও শরণার্থী শিবির নির্মাণে কাজ করতে সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ বুধবার ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ২৫ আগস্ট থেকে এখন পর্যন্ত সেখানে প্রায় চার লাখ ২০ হাজার রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। সেনাসদস্যরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ও পুনর্বাসনে সহযোগিতা করবেন।

তিনি আরো বলেন, রোহিঙ্গাদের থাকার জন্য আশ্রয়ণ নির্মাণ খুবই কষ্টকর কাজ। এই কাজের জন্য এবং তাদের শৌচাগার নির্মাণ নিশ্চিত করতে সেনাবাহিনীর প্রয়োজন রয়েছে।

সেই সাথে কক্সবাজারে মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী এলাকায় শিগগির সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।  

সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, গত ২৪ ঘণ্টা ধরে ভারী বৃষ্টি হওয়ায় বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের দুর্ভোগ আরও বেড়ে গেছে। হাজারো রোহিঙ্গা কক্সবাজারে বিভিন্ন পাহাড়ের ওপর আশ্রয় নিয়েছে। তাই সেখানে ভূমিধসের ঝুঁকিও রয়েছে।

চুলের যত্নে পেঁয়াজের গুণাগুণ

চুলের যত্নে পেঁয়াজের গুণাগুণ
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: অনেকেই হয়তো জানেন যে পেঁয়াজের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে জীবাণুনাশক উপাদান থাকে। আর ঠিক এই কারণেই পেঁয়াজ আমাদের চুলের যাবতীয় সমস্যা সমাধান দারুণভাবে সাহায্য করতে পারে। যেমন ধরুন...

১. স্কাল্পের স্বাস্থের উন্নতি হয়: পেঁয়াজের রস চুলের গ্রন্থিতে পুষ্টি জোগাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই তো এই প্রকৃতিক উপাদানটি নিয়মিত মাথায় লাগালে স্কাল্পের স্বাস্থ্য ভাল হয়। ফলে নানাবিধ রোগের প্রকোপ কমে।

২. চুলের গোড়া মজবুত হয়ে ওঠে: পেঁয়াজে উপস্থিত সালফার চুলের আগা ফেটে যাওয়া এবং চুল পাতলা হয়ে যাওয়ার সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে চুল পরার হারও কমায়।

৩. সংক্রমণ ঠেকায়: পেঁয়াজের ভিতরে যে জীবাণুনাশক উপাদান থাকে, তা স্কাল্পের যে কোনও ধরনের সংক্রমণ ঠেকাতে সাহায্য করে। আর একবার সংক্রমণের আশঙ্কা কমে গেলে চুলের স্বাস্থ্য নিয়েও আর কোনও চিন্তা থাকে না।

৪. চুল সাদা হয় না: কম বয়সেই চুল রং বদলাচ্ছে নাকি? তাহলে আজ থেকেই পেঁয়াজের রস ব্যবহার শুরু করুন। দেখবেন উপকার মিলবে। কারণ পেঁয়াজে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট অকালপক্বতা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৫. ক্যান্সার প্রতিরোধক: একাধিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে পেঁয়াজের রস মাথা এবং গলার ক্যান্সার রোধে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আসলে এতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

৬. খুশকি দূর করে: পেঁয়াজ জীবাণুনাশক হওয়ায় এটি খুশকি রোধে সাহায্য করে। তাই যারা হাজার হাজার টাকা শ্যাম্পুর পিছনে খরচ করে ড্যানড্রফের হাত থেকে রক্ষা পেতে চাইছেন, তাদের জন্য এই ঘরোয়া চিকিৎসাটি কাজে আসতে পারে।

ছবি দেখার আগেই চমক চাননি আমির

ছবি দেখার আগেই চমক চাননি আমির

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে এ ছবির শুটিং’য়ের কিছু দৃশ্য। তাতে আমিরকে দেখে চমকে গেছেন সবাই!

জুম টিভির খবরে জানা যায়, ফাঁস হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমিরের ছবিগুলো ভাইরাল হয়ে যায় ইন্টারনেট দুনিয়ায়। আর ছবিগুলো ইন্টারনেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার প্রধান কারিগর আমিরের ভক্তরা।

তবে এ ঘটনায় মোটেও খুশি হতে পারেননি আমির। আমির চেয়েছিলেন, দর্শক চমকটা পাক ছবি দেখার সময়।

তবে যতই ছবির ব্যপারে লুকোচুরি করুন না কেন আমির, তথ্য ফাঁস হচ্ছেই। একটি সূত্র থেকে জানা যায়, ‘ছবির একটি দৃশ্যে আমিরের সঙ্গে তরবারির যুদ্ধে অবতীর্ণ হতে দেখা যাবে অমিতাভ বচ্চনকে।

ছবিতে আমিরের এমন রূপ দেখে অনেক ভক্তই তাকে তুলনা করছেন জনপ্রিয় হলিউড সিরিজ ‘গেম অব থ্রোনস’-এর টাইরিওন ল্যানিনস্টেরের সঙ্গে। ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী বছর। বলিউড সংশ্লিষ্টদের ধারণা, ছবি ফাঁস হওয়ার কারণে আগ্রহ বাড়বে দর্শকদের।  

আমির খান ছাড়াও ছবিতে অভিনয় করছেন ফাতিমা সানা শেখ, বিগ বি অমিতাভ বচ্চন ও ক্যাটরিনা কাইফ।

উল্লেখ্য, সিনেমার লুক ফাঁস হওয়া বিষয়টিকে সহজ ভাবে নেননি আমির খান। পরবর্তীতে যেন এমন ঘটনা না ঘটে এ জন্য শুটিং সেটে নিরাপত্তা জোরদার করেছেন তিনি।

নেইমারের সততার অভাব: বার্সা সভাপতি

নেইমারের সততার অভাব: বার্সা সভাপতি
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: দল বদলের পর থেকেই নেইমারের পিছু নিয়েছেন স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার  সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ।

নেইমারও চুপ থাকেননি। বার্সা সভাপতিকে জবাব দিয়েছেন।

এবার নেইমারের সততা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ। নেইমারের উদ্দেশে বার্তোমেউ বলেন, ‘আমরা তাদের (নেইমার ও তার উপদেষ্টাদের) খুব বেশি বিশ্বাস করেছিলাম। একজন খেলোয়াড় যখন চলে যেতে চায় তখন তাকে অবশ্যই সৎ থাকতে হবে, যেমনটা আলেক্সিস সানচেজ, পেদ্রো কিংবা সেস ফাব্রেগাস ছিল। তবে নেইমারের সেটার ঘাটতি ছিল’

উল্লেখ্য, গত ৪ আগস্ট ৫ বছরের চুক্তিতে নেইমারকে দলে ভেড়ায় পিএসজি। সেজন্য বার্সাকে ২২২ মিলিয়ন ইউরো বাই-আউট ক্লজ পরিশোধ করতে হয় ফরাসি ক্লাবকে। ২০০৯ থেকে ২০১৩ পর্যন্ত সান্তোস দিয়ে শুরু হয় নেইমারের ক্লাব ক্যারিয়ার। এরপর বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন নেইমার। বার্সার হয়ে নেইমার গোল করেছেন একশর বেশি।

'উ. কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করার ক্ষমতা আমেরিকা নেই'

'উ. কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করার ক্ষমতা আমেরিকা নেই'

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মার্কিন লক্ষ্যবস্তুর দিকে ছুটে আসা উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকানোর ব্যবস্থা আমেরিকার অস্ত্র ভাণ্ডারে সম্ভবত নেই বলে মনে করছেন সমর বিশ্লেষকরা। উত্তর কোরিয়াকে পুরোপুরি ধ্বংস করে দেয়া হবে বলে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেয়া বক্তব্যকে কেন্দ্র করে এ মত ব্যক্ত করেন তারা।

সামরিক এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রের কোনো কোনো বিশ্লেষক আরো এক ধাপ এগিয়ে বলছেন, আমেরিকা বা তার মিত্র দেশগুলোর লক্ষ্যবস্তুর দিকে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ধেয়ে আসছে বলে আগাম খবর পেলেও তা ভূপাতিত করার সাধ্য মার্কিন  সেনাবাহিনীর হবে না।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর মধ্যম পাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে পিয়ংইয়ং। জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের ওপর দিয়ে প্রশান্ত মহাসাগরে পড়ার আগে এটি ৪৮০ মাইল বা ৭৭০ কিলোমিটার উচ্চতায় উঠেছিল। ইউনিয়ন অব কনসার্নড সায়েন্টিস এ তথ্য দিয়েছে। আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা সংস্থা প্লাউশেয়ার ফান্ডের প্রতিষ্ঠাতা জোশেপ সিরিনসিওনে বলেন, অত উঁচু দিয়ে আসা ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকানোর ক্ষমতা জাপানের নেই।

প্রতিরক্ষা বিষয়ক ওয়েবসাইট  ডিফেন্স ওয়ানকে তিনি আরো বলেন, উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র যে উচ্চতায় গেছে, প্রচলিত কোনো ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা  এখনো ওই উচ্চতা পর্যন্ত যেতে পারে  নি।

এদিকে, সিরিনসিওনের বক্তব্যকে অনেকাংশে সমর্থন করেছেন অলাভজনক সংস্থা র‍্যান্ড কর্পোরেশনের বিশ্লেষক ব্রুস বেনেট। তিনি বলেন, অত উঁচু দিয়ে আসা ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকানো যেতে পারে বা ঠেকানোর চেষ্টা ব্যর্থও হতে পারে। এ নিয়ে নিশ্চিত হয়ে কিছু বলার উপায় নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সূত্র: পার্সটুডে

ডিসেম্বরের মধ্যেই ফোরজি: তারানা

ডিসেম্বরের মধ্যেই ফোরজি: তারানা

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছেন, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই দেশে চতুর্থ প্রজন্মের (ফোরজি) টেলিযোগাযোগ সেবা সাধারণ মানুষের জন্য চালু করা সম্ভব।

ইতিমধ্যে ফোরজি নীতিমালায় অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী হিসেবে গত সপ্তাহে এ অনুমোদন দেন তিনি।

আজ বুধবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তারানা হালিম।

তিনি বলেন, ডিসেম্বরের মধ্যে ফোরজি সুবিধা জনগণকে দিতে সক্ষম হব। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে নভেম্বরের মধ্যেই নিলাম সম্পন্ন করা। এটি আমরা টার্গেট বলছি এ কারণে যে এর মধ্যে কিছু ইকুইপমেন্ট আমদানির বিষয় আছে। এর ওপর আমাদের হাত নেই।

তরঙ্গ টেকনোলজি নিউট্রাল বা প্রযুক্তি নিরপেক্ষ হবে উল্লেখ করে তারানা হালিম বলেন, এ তরঙ্গে টু-জি, থ্রি-জি এবং ফোর-জি এলটিই সেবা দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে ডাক ও টেলিযোগাযোগসচিব শ্যামসুন্দর সিকদারসহ বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

ফেরি থেকে নদীতে পড়ে মানসিক রোগীর মৃত্যু

ফেরি থেকে নদীতে পড়ে মানসিক রোগীর মৃত্যু

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: পাটুরিয়া-দৌউলতদিয়া রুটের ফেরি থেকে পদ্মা নদীতে পড়ে এক মানসিক রোগী মারা গেছে। নিহত মানসিক রোগীর নাম মঞ্জুর রহমান (৩৫)।

আজ বুধবার দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সে ঝিনাইদাহ সদর এলাকার কাকুরভাংগা গ্রামের লুৎফর রহমানের পুত্র।

জানা যায়, সে শ্যালক শামিম হাসান এর সাথে ঢাকায় চিকিৎসার উদ্দেশ্যে এসে বাসযোগে গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন। বাসটি ভাষা সৈনিক ডা: গোলাম মাওলা ফেরিতে উঠে দৌলতদিয়ার উদ্দেশ্যে। ফেরিটি মাঝ নদীতে চলাকালীন ওই ব্যাক্তি ফেরিতে পায়চারী করার এক পর্যায়ে হঠাৎ নদীতে ঝাঁপ দেয়। সাথে সাথে তার শ্যালক ও অপর এক ব্যাক্তি তাকে উদ্ধার করার জন্যে নদীতে লাফিয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে আরিচা নৌ-ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা তাদেরকে উদ্ধার করে পাটুরিয়া ঘাটে নিয়ে আসে। মুমূর্ষ অবস্থায় ওই মানসিক রোগীকে শিবালয়ের উথুলিতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রোহিঙ্গাদের সহায়তায় সৌদি-যুক্তরাষ্ট্রের ৪৭ মিলিয়ন

রোহিঙ্গাদের সহায়তায় সৌদি-যুক্তরাষ্ট্রের ৪৭ মিলিয়ন
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদি আরব মোট ৪৭ মিলিয়ন ডলার সহয়তার ঘোষণা দিয়েছে। এরমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র দেবে ৩২ মিলিয়ন এবং সৌদি দেবে বাকি ১৫ মিলিয়ন ডলার।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বুধবার সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের একথা জানান।

এদিকে সৌদির হয়ে ঘোষণা দিয়েছেন সৌদির রয়্যাল কোর্টের উপদেষ্টা ও কিং সালমান সেন্টার ফর রিলিফ অ্যান্ড হিউম্যানিটারিয়ান ওয়ার্কের তত্ত্বাবধায়ক ড. আবদুল্লাহ আল-রাবিয়াহ।

সৌদি প্রেস এজেন্সিতে (এসপিএ) প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বাদশা সালমানের ত্রাণ ও মানবিক সহায়তা কেন্দ্রের কর্মকর্তা ড. আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজের বরাত দিয়ে আরব নিউজ জানিয়েছে, মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যা-নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সহায়তায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে সৌদি মন্ত্রিসভা। তারা রোহিঙ্গা মুসলিমদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিতকরণে ব্যবস্থা নিতে বলেন।

ড. আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজ বলেন, আগামী কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেন্টারের (বাদশাহ সালমান সেন্টার) বিশেষ প্রতিনিধিদের একটি দল বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হবে। তারা সেখানকার রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অবস্থা পর্যালোচনা করবে।

'সু চি'র ভাষণে সেনাবাহিনীর বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি'

'সু চি'র ভাষণে সেনাবাহিনীর বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি'

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মিয়ানমারে নেত্রী অং সান সু চি রাখাইনের পরিস্থিতি নিয়ে জাতির উদ্দেশে যে ভাষণ দিয়েছেন তা প্রত্যাখ্যান করেছেন রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন সংগঠন ও নেতারা। তারা বলছেন, সূ চি সব জেনেও না জানার ভান করেছেন। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী মনে করে, এই ভাষণে সেনাবাহিনীর বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি করা হয়েছে।

জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো বলছে, মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে প্রাণ বাঁচাতে চার লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা গত তিন সপ্তাহে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে। এখনো প্রতিদিন আরও ১০ থেকে ১৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসছে। রোহিঙ্গারা বলছে, নির্যাতনের কারণেই তারা তাদের নিজের গ্রাম ও ভিটেমাটি ছেড়ে পালাতে বাধ্য হচ্ছেন এবং সু চি সেটি ভালো করেই জানেন।

তারপরেও কেন এতো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে, সে সম্পর্কে জানা নেই বলে সু চি'র যে বক্তব্য সেটা ক্ষুব্ধ করেছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে।

রোহিঙ্গাদের একটি সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম লন্ডনে থেকে সংগঠনটির কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেন। তিনি বলেছেন, রাখাইনের পরিস্থিতি নিয়ে অং সান সূ চি পুরোপুরি অসত্য বক্তব্য তুলে ধরেছেন।

তিনি আরও বলেন, 'সু চি তার বক্তব্যে যা বলেছেন তা মোটেও সঠিক নয়। তার না জানার মতো কোন কারণ নেই। সময়ে সময়ে রোহিঙ্গারা তাকে সব জানিয়েছে- কি হচ্ছে আর না হচ্ছে। আর সু চি জেনেও না জানার মতো করছেন। শি ইজ অ্যা প্রিটেন্ডার। একই সময়ে তিনি মিথ্যা কথা বলেছেন। আমরা তো খালি হয়ে গেছি সেটা আপনারা দেখছেন তো। ওখানে আছে কি এখন? মানুষ তো একদমই নাই হয়ে গেছে সেখানে। আমার মন্তব্য হলো উনি ভণিতা করছেন ও মিথ্যা কথা বলছেন। জেনেও না জানার মতো আচরণ করছেন।'

বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গারা মূলত অবস্থান করছেন কক্সবাজার জেলার শরণার্থী শিবিরগুলোতে। এই দফাতে নতুন করে আসা শরণার্থীদেরও একটি বড় অংশকে এসব শিবিরে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। এমনই একটি কুতুপালং শরণার্থী শিবিরের রোহিঙ্গাদের একজন নেতা মোহাম্মদ নূর বলেছেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের কারণেই লাখ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে। কিন্তু সূ চি এই সত্যকে গোপন করেছেন।

তিনি বলেন, 'সম্পূর্ণ মিথ্যা বলেছেন সু চি। অত্যাচার না করলে, নির্যাতন না করলে, গুলি না করলে, কাটাছেড়া না করলে মানুষ কেন আসবে এখানে। জীবনেও আসতো না। মিয়ানমারে মুসলিম ছিলো ১২ লাখ । এর মধ্যে সাত লাখই তো এখানে এসে পড়েছে। মানুষ শান্তিপূর্ণ ভাবে থাকতে পারলে কি একদেশ থেকে আরেক দেশে পালিয়ে আসে? সূ চি সামরিক বাহিনীর লোকজনকে ভয় পান। সেজন্যই এভাবে বলেছেন।'

সু চি তার ভাষণে কি বলবেন তা নিয়ে অনেক আগ্রহ ছিলো রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন সংগঠনের। কিন্তু তার ভাষণ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়াই তৈরি করেছে রোহিঙ্গাদের মধ্যে। অস্ট্রেলিয়া ভিত্তিক রোহিঙ্গা ইন্টেলেকচুয়াল কমিউনিটির প্রেসিডেন্ট ড. লা মিন্ট বলেছেন, অং সান সূ চি-র বক্তব্য আর মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বক্তব্যকে তারা আলাদা করতে পারছেন না।

তিনি বলেন, 'উনার বক্তব্য আর সেনাবাহিনীর বক্তব্যের সাথে কোন পার্থক্য নেই। একই কথা বলেন উনারা। এটা সেনাবাহিনীরই বক্তব্য। উনি যা বলেছেন তার বক্তব্যের ৯০ ভাগই মিথ্যা কথা। রোহিঙ্গাদের নিয়ে তিনি যা বলেছেন সবাই আমরা তা প্রত্যাখ্যান করি।' সূত্র: বিবিসি
 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩