কানাইঘাটে ৩০০ টাকার জন্য যুবক খুন

Kanaighat News on Monday, July 31, 2017 | 10:26 PM


নিজস্ব প্রতিবেদক: মাত্র ৩ শত টাকার জন্য কানাইঘাট সুরাইঘাট বাজারে সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এক যুবককে ধারালো চাকু দিয়ে কুপিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায় কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির কালিনগর গ্রামের মন্তাজ আলীর পুত্র পাথর শ্রমিক হারুন আহমদ (৩৫) কে একই গ্রামের আফতাব উদ্দিনের পুত্র সুমন আহমদ (২৬) সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ৩শত টাকা পাওনা নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে ধারালো চাকু দিয়ে এলোপাতাড়ী ভাবে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। গুরুতর আহত অবস্থায় হারুন আহমদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পর কর্তব্যরত চিকিৎসকগণ তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালে উপস্থিত এলাকার লোকজন জানিয়েছেন, ঘাতক সুমন আহমদ নিহত হারুন আহমদের ভগ্নিপতি একই ইউপির নিহালপুর আমটিলা গ্রামের কবির আহমদের কাছে ঋণ বাবদ ৩ শত টাকা পাওনা ছিল। সোমবার রাতে সুরইঘাট বাজারে গিয়ে সুমন আহমদ তার ৩ শত টাকা দেওয়ার জন্য কবির আহমদকে চাপ দিলে কবির আহমদের শ্যালক হারুন আহমদ সুমন আহমদের কাছে সময় চাইলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে ধারালো চাকু বের করে হারুন আহমদকে এলোপাতাড়ী ভাবে কুপিয়ে সুরইঘাট বাজারের পুরান ব্রীজের পাশে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। এসময় ভগ্নিপতি কবির আহমদ সহ বাজারের উপস্থিত লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় হারুন আহমদকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। মাত্র ৩ শত টাকার জন্য এলাকার নিরীহ দরিদ্র হারুন আহমদকে নির্মম ভাবে হত্যার ঘটনার খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম, ইউপি সদস্য আলিম উদ্দিন সহ এলাকার লোকজন হাসপাতালে এসে ভীড় জমান। ঘটনাটি জানার পর দ্রুত কানাইঘাট থানার ওসি মোঃ আব্দুল আহাদ ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সুমন আহমদকে গ্রেফতার করার জন্য সীমান্তবর্তী এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি ঘাতককে ধরতে স্থানীয় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে এলাকায় তৎপরতা চালাচ্ছেন। এছাড়া থানার ওসি (তদন্ত) নুনু মিয়া হাসপাতালে ছুটে যান এবং লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন। তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করার পর সিলেট সিওমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হবে। ঘাতক সুমন আহমদকে গ্রেফতার করার জন্য থানার ওসি স্যারের নেতৃত্বে এলাকায় অভিযান চলছে বলে তিনি জানান।

ফিলিপিন্সে মেয়রসহ ১৩ জনকে গুলি করে হত্যা

ফিলিপিন্সে মেয়রসহ ১৩ জনকে গুলি করে হত্যা

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: মাদকবিরোধী অভিযানে পুলিশের গুলিতে ফিলিপিন্সের মিন্দানাও দ্বীপের ওজামিজ সিটির মেয়র পারজিনগস ও তার স্ত্রীসহ মোট ১৩ জন নিহত হয়েছেন।

মাদক চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন বলে ওই মেয়রের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুয়ের্তে। মেয়রের নিরাপত্তা রক্ষাকারীদের উপর গুলি করে পুলিশের ওই অভিযান শুরু হয় বলে জানানো হয়েছে।

২০১৬ সালে দেশটির প্রেসিডেন্ট দুয়ের্তে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেন। এরপর থেকে পুলিশের অভিযানে বিভিন্ন সময়ে দেশটিতে প্রায় সাত হাজারের বেশি মানুষকে হত্যা করা হয়েছে।

ওই মেয়রের বাসায় তল্লাশি করার অনুমিতপত্র নিয়ে হাজির হলে মেয়রের নিরাপত্তারক্ষীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পরে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে মোট ১৩ জন নিহত হয়।

প্রেসিডেন্ট দুয়ের্তের মুখপাত্র এরনেস্তো আবেল্লা এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট দুয়ের্তের করা শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকায় ওজামিজ সিটির মেয়র পারজিনগসের নাম ছিলো।

অবশ্য ওই মেয়রের এক মুখপাত্র সাংবাদিকদের কাছে বলেছেন যে, মেয়রের নিরাপত্তারক্ষাকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কোন গুলি ছোড়েনি। ওই অভিযানে মেয়রের ভাই ওজামিজও নিহত হয়েছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, মেয়রের কন্যা, যিনি ওই শহরটির উপ-মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন, তাকে একই অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে এর আগেও দেশটিতে একজন মেয়রকে কারাগারের সেলে গুলি করে হত্যা করেছিলো পুলিশ। রোনাল্ডো এসপিনোসা দেশটির মধ্যাঞ্চলীয় আলবুয়েরা শহরের মেয়র ছিলেন।

কানাইঘাটে ময়না তদন্তের জন্য ১৮ দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন


নিজস্ব প্রতিবেদক: আদালতে মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে কানাইঘাটে ১৮ দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। সিলেট জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রাহাত আনোয়ারের নির্দেশে সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কানাইঘাট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুমন আচার্যের উপস্থিতিতে দিঘীরপার পূর্ব ইউপির দর্পনগর পশ্চিম নালুহারা গ্রামের ফজলুর রাহমানের পুত্র মিসবাউল ইসলাম (১৯) এর লাশ তার মামার বাড়ী লন্তিরমাটি গ্রামের পঞ্চায়েত কবরস্থান থেকে উত্তোলন করা হয়। কানাইঘাট থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়া ও মিসবাউল ইসলাম হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই মোঃ আবুল মনসুর মির্জার উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলনের দায়িত্ব প্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুমন আচার্য লাশের প্রাথমিক রিপোর্ট তৈরী করার পর মিসবাহর লাশ ময়না তদন্তের জন্য সিলেট ওমেক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। লাশ কবর থেকে উত্তোলনের সময় তার আত্মীয় স্বজন ও এলাকার বিপুল সংখ্যক উৎসুক জনতা লন্তিরমাটি কবরস্থানে ভিড় জমান। প্রসঙ্গত, লন্তিরমাটি গ্রামের আপন মামা আনোয়ারুল হক চৌধুরীর বাড়ীতে মিসবাউল ইসলাম তার মা শাফিয়া বেগম চৌধুরীকে নিয়ে বসবাস করত। মামা আনোয়ারুল হক চৌধুরী ও মামাতো ভাইদের হাতে ধারাবাহিকভাবে নির্যাতনে মিসবাউল ইসলাম অসুস্থ হয়ে পড়লে সর্বশেষ মূমূর্ষু অবস্থায় তার মা শাফিয়া বেগম চৌধুরী ও আত্মীয় স্বজনরা তাকে গত ৬ জুলাই সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৭ দিন থাকার পর মিসবার শারিরীক অবস্থার কোন পরিবর্তন না হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার গত ১৩ জুলাই তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেন। পরদিন ১৪ জুলাই গভীর রাতে মিসবাহ তার লন্তিরমাটি গ্রামের মামা আনোয়ারুল হক চৌধুরীরর বাড়ীতে মারা যায়। মিসবাহর লাশ সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে লন্তিরমাটি গ্রামের পঞ্চায়িতী গোরস্থানে দাফন করা হয়। দাফনের পর মিসবাহর পিতা নালুহারা গ্রামের ফজলুর রহমান তার পুত্রকে মামা আনোয়ারুল হক চৌধুরী ও তার ৩ পুত্রের নিষ্ঠুর নির্যাতনে মৃত্যু হয়েছে মর্মে গত ১৮ জুলাই সিলেট কানাইঘাট আদালতে সি.আর মামলা নং- ১৮৯/২০১৭ দায়ের করেন। পরে বিজ্ঞ আদালত দরখাস্ত মামলাটি এফ.আই.আর হিসাবে গণ্য করে আসামীদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কানাইঘাট থানার ওসি মোঃ আব্দুল আহাদকে নির্দেশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে আদালতের নিদের্শে মিসবাহর লাশ কবর থেকে আজ সোমবার উত্তোলণ করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

‘জেমস বন্ড’ এবার লড়বেন অন্ধ ভিলেনের সাথে

‘জেমস বন্ড’ এবার লড়বেন অন্ধ ভিলেনের সাথে

বিনোদন ডেস্ক: সাড়া জাগানো হলিউডের ‘জেমস বন্ড’ সিরিজ। জেমস বন্ড সিরিজের ২৫তম কিস্তিতে বড় চমক নিয়ে আসছেন জনপ্রিয় অভিনেতা ড্যানিয়েল ক্রেগ।

পঞ্চমবারের মতো জেমস বন্ড চরিত্রে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ৪৯ বছর বয়সী এ তারকা অভিনেতা। তবে এবার কেমন চরিত্রে আসছে ড্যানিয়েল ক্রেগ? এ নিয়ে  ভক্তদের মাঝে ছিল বেশ জল্পনা কল্পনা। জানা গেছে, এবার ‘শিটারহ্যান্ড’ শিরোনামে ড্যানিয়েলকে দেখা যাবে অন্ধ সুপার ভিলেনের সাথে লড়াকু হিসেবে।

এবারের কাহিনী লিখছেন রেইমন্ড বেনসন। এর আগেও লেখক রেইমন্ড ‘বন্ড’ সিরিজের জন্য ‘টুমরো নেভার ডাই’, ‘ডাই অ্যানাদার ডে’ এবং ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইজ নট এনাফ’ লিখেছিলেন।

এদিকে ড্যানিয়েল ক্রেগ ‘ক্যাসিনো রয়্যাল’ (২০০৬), ‘কোয়ান্টাম অব সোলেস’ (২০০৮) ও ‘স্কাইফল’ (২০১২)–এর মতো দুধর্ষ স্পাই চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ছবির পরিবেশক সংস্থা ও প্রযোজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ২০১৯ সালে নভেম্বরে মুক্তি পাবে জেমস বন্ড সিরিজের ২৫তম কিস্তি।

এমবাপ্পের পথে ‘রোনালদো কাঁটা’

এমবাপ্পের পথে ‘রোনালদো কাঁটা’

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কথাটা এমবাপ্পের কান অবধি পৌঁছালে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে দু’চারটা গালি দিলেও দিতে পারেন।

আশা ছিল ১৮০ মিলিয়ন ইউরো পকেটে পুরে রিয়ালে উড়ে যাবেন এমবাপ্পে, কিন্তু সেই আশার গুড়ে বালি ঢেলে দিলেন সি আর সেভেন।

স্প্যানিশ আউটলেট ‘দিয়ারিও গোল’ বলছে, এমবাপ্পে রিয়ালে আসলে রোনালদোর ফিফা ব্যালন ডি’অরে ভাগ বসাবেন। এছাড়া রোনালদোর প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠবেন তিনি। এই শঙ্কা মাথায় চেপেছে রোনালদোর। ফলে পেরেজকে আবেদন করেছেন, যেন তিনি এমবাপ্পেকে দলে না নেন।’

গেল কয়েকদিন আগের খবর, মোনাকোর সঙ্গে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোতে ছয় বছরের জন্য ফরাসি তারকাকে কিনে নিতে আগ্রহী রিয়াল মাদ্রিদ। ১৯০ মিলিয়ন দাম হাঁকায় মোনাকো। কিন্তু দর কষাকষি শেষে ১৮০ মিলিয়নে এমবাপ্পেকে নিজের করে নিতে চায় জিনেদিন জিদানের দল। বাংলাদেশি টাকায় মূল্য প্রায় ১,৭০৪ কোটি। যদিও রিয়াল থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা আসেনি।

র‌্যাবের সহায়তায় রক্ষা পেলেন ২৬ হজযাত্রী

র‌্যাবের সহায়তায় রক্ষা পেলেন ২৬ হজযাত্রী

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের বর্হিগমন র‌্যাম্পে র‌্যাবের সহায়তায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেলেন ২৬ হজযাত্রী।

আজ সোমবার দুপুর ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাবের সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সোমবার দুপুর ১২ টার দিকে রাজধানীর মিরপুর থেকে আসা তামান্না গ্রুপের হজযাত্রীবাহী ঢাকা মেট্রো জ-১১-১৩০০ নম্বরের বাসটি বিমান আন্তর্জাতিক বর্হিগমন র‌্যাম্প দিয়ে টার্মিনালের দোতালায় উঠার সময় হঠাৎ ব্রেক লক অকেজো হয়ে যায়। তখন এই বাসটি পিছনের দিকে নামতে নামতে রেলিং ভেঙ্গে প্রায় ঝুলন্ত অবস্থায় আটকে যায়।

এ সময় সিভিল এভিয়েশনের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন কাজী ইকবাল দুর্ঘটনা কবলিত বাসটিকে উদ্ধারে র‌্যাবের সহযোগিতা চান। খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি উদ্ধার টিম উদ্ধারকারী যান নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে হজযাত্রীদের নিরাপদ অবস্থানে নিয়ে আসে এবং গাড়িটি উদ্ধার করে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, উদ্ধারকৃত বাসটিকে বিমান বন্দর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। পরে দুপুর দুইটার সময় সৌদি এয়ারলাইন্সের একটি বিমান হজযাত্রীদের নিয়ে সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

কানাইঘাট থানার সাব-ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলমকে সংবর্ধনা


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট থানার সাব ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম জুয়েল বদলী জনীত কারণে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন ঢাকা হেডকোয়ার্টারে যোগদান উপলক্ষ্যে কানাইঘাট উপজেলার কর্মরত সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে তাকে বিদায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। সোমবার রাতে স্থানীয় সাংবাদিকদের অস্থায়ী অফিস সুজন কম্পিউটারে উক্ত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কানাইঘাট প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও দৈনিক আমাদের সময় ও যুগভেরী পত্রিকার কানাইঘাট প্রতিনিধি সুজন চন্দ অনুপের পরিচালনায় বিদায়ী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সংবর্ধিত অতিথি কানাইঘাট থানার সদ্য বিদায়ী সাব ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম জুয়েল। উপস্থিত ছিলেন, সাবেক ছাত্রনেতা জালাল আহমদ জনি, দৈনিক শুভ প্রতিদিনের কানাইঘাট প্রতিনিধি আলিম উদ্দিন আলিম, দৈনিক সিলেটের ডাক ও সংবাদ প্রতিদিনের কানাইঘাট প্রতিনিধি আলা উদ্দিন আলাই, দৈনিক জালালাবাদ পত্রিকার প্রতিনিধি শাহীন আহমদ, দৈনিক সবুজ সিলেট পত্রিকার প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম, দৈনিক সিলেট সুরমা পত্রিকার প্রতিনিধি মাহফুজ সিদ্দিকী, সুরামা মেইল ডট কম ও দৈনিক সন্ধ্যাবানী পত্রিকার প্রতিনিধি মুমিন রশিদ, দৈনিক মানচিত্র পত্রিকার প্রতিনিধি আহমেদুল কবির মান্না, টিটিভি ডট কমের প্রতিনিধি মোঃ দুদু মিয়া, কানাইঘাট বার্তার স্টাফ রিপোর্টর আলী হোসেন জনি প্রমুখ। সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে থানার বিদায়ী সাব ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম জুয়েল তার বক্তব্যে বলেন, কানাইঘাট থানায় দুই বছরের অধিক সময়ে দায়িত্ব পালনের সময় থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ সহ কানাইঘাটের কর্মরত সাংবাদিকদের কাছ থেকে তিনি সব সময় সার্বিক সহযোগিতা পেয়েছিলেন। কানাইঘাটের মানুষ অত্যন্ত সহজ সরল ও ধর্মপ্রাণ উল্লেখ করে তিনি বলেন এখানে দায়িত্ব পালনের সকল মহলের কাছ থেকে আমি সহযোগিতা পেয়েছি, যা কখনও ভুলার নয়। সময় পেলে কানাইঘাটের ছুটে এসে আপনাদের সাথে মিলিত হব। নিষ্ঠার সাথে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব আমি পালন করেছি তারপরও কোন ধরনের ভুল ভ্রান্তি হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সভাপতির বক্তব্যে কানাইঘাট প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন তার বক্তব্যে বলেন, পুলিশ হচ্ছেন জনগনের প্রকৃত বন্ধু, পুলিশের সেবার পরিধি বাড়ানো হয়েছে। পুলিশে আজ অনেক মেধাবী অফিসাররা দায়িত্ব পালন করছেন। যার কারণে দেশের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। কানাইঘাট থানার বিদায়ী সাব ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম জুয়েল একজন নিষ্ঠাবান চৌকস পুলিশ অফিসার ছিলেন। তিনি সব সময় পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিকদের সব ধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতেন। কানাইঘাটে দুই বছরের অধিক দায়িত্ব পালনের সময় পুলিশ অফিসার জাহাঙ্গীর আলম জুয়েলের বিরুদ্ধে জনগনের কোন ধরনের অভিযোগ পাওয়া যায় নি। সব সময় হাস্যেজ¦ল মুখ এবং পুলিশের কাছে সাধারণ মানুষ যে ধরনের সেবা প্রাপ্তির আশা করে তার সবটুকু বিদায়ী সাব ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম জুয়েলের মধ্যে ছিল। তারপরেও পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় কোন সাংবাদিকের কাছ থেকে দুঃখ পেয়ে থাকলে তা ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার জন্য কানাইঘাটের কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ তার প্রতি আহ্বান জানিয়ে উত্তরোত্তর পদোন্নতি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। অনুষ্ঠান শেষে বিদায়ী পুলিশ অফিসার জাহাঙ্গীর আলম জুয়েলকে কানাইঘাটের কর্মরত সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে উপহার সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

জোড়া লাগানো শিশুদের অপারেশন কাল

জোড়া লাগানো শিশুদের অপারেশন কাল

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: আগামীকাল মঙ্গলবার সকালে জোড়া লাগানোর দুই শিশুর অপারেশন করবেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। এজন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইলেন তারা।

আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টার সময়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২১২ নম্বর ওয়ার্ডে শিশু সার্জারী বিভাগের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ডা. আশফাকুল হক কাজল বলেন, শিশু দুইটির জন্মের সময়ে পায়খানার রাস্তা ছিলনা। সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকেরা সার্জারি করে তাদের মলদ্বার বের করে। শিশু দুইটির নাম রাখা হয় তোফা ও তহুরা। দোয়া করবেন আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল আটটার সময়ে তাদের আলাদা সার্জারি করা হবে।

তিনি আরো বলেন, গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর  গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন ইউনিয়নে জন্ম নেওয়া জোড়া লাগানো দুই মেয়ে শিশুকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শিশুদের বাবা রাজু মিয়া জানান, জন্ম নেওয়ার পরপর তাদের জোড়া লাগানো অবস্থায় দেখতে পারেন। আস্তে আস্তে গ্রামে জানাজানি হলে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মুরব্বিরা তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন।

শিশু দুইটির জন্মের সময়ে তার ওজন ছিল ৪.৮ কেজি। এখন তার ১০ মাস বয়স। ওজন হয়েছে ১০ কেজি।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের প্রধান সম্মনয়ক ডা. সামন্তলাল সেন, অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, ডা. আশফাকুল হক কাজল, সহযোগী অধ্যাপক সাহানুর ইসলাম, নিউরো সার্জারি বিভাগের প্রধান অসিত চন্দ্র সরকার, সহকারী অধ্যাপক রাজিউল হক, হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মিজানুর রহমান ও শিশু দুইটির বাবা রাজ মিয়া ও মা সাহিদা বেগম উপস্থিত ছিলেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

সৌদি মিথ্যার জবাব দিতে দিতে আমরা ক্লান্ত: কাতার

সৌদি মিথ্যার জবাব দিতে দিতে আমরা ক্লান্ত: কাতার

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মুহাম্মাদ আবদুর রহমান আলে সানি বলেছেন, সৌদি আরবের নানামুখী মিথ্যা অভিযোগের জবাব দিতে দিতে তারা ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন।

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-জুবায়ের অভিযোগ করেছেন, পবিত্র হজের স্থাপনাগুলোকে আন্তর্জাতিকীকরণের দাবি জানিয়েছে কাতার। তার এ অভিযোগের জবাবে আবদুর রহমান আলে সানি এ কথা বললেন। তিনি সুস্পষ্ট করে বলেন, কাতারের কোনো কর্মকর্তা হজের স্থাপনাগুলোকে আন্তর্জাতিকীকরণের দাবি জানাননি।

কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'আমরা মিথ্যা তথ্য ও গল্পের জবাব দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছি অথচ এসবের কোনো ভিত্তি নেই।'

তিনি বলেন, সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাতারের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে তাকে 'যুদ্ধ ঘোষণার শামিল' বলে যে মন্তব্য করেছেন তার মাধ্যমে পরিষ্কার হয়েছে- তারা অনমনীয় অবস্থানে রয়েছেন। এছাড়া, এ বক্তব্যের মাধ্যমে এও পরিষ্কার হচ্ছে যে, চার আরব দেশ কাতারের সঙ্গে চলমান সংকট বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে।

সূত্র: পার্সটুডে

মক্কা-মদিনার-আন্তর্জাতিকীকরণের-ডাক-যুদ্ধ-ঘোষণার-শামিল’

‘মক্কা-মদিনার আন্তর্জাতিকীকরণের ডাক যুদ্ধ ঘোষণার শামিল’

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সৌদির হজের স্থানগুলোকে আন্তর্জাতিকীকরণে কাতারের ‘দাবি’কে তাদের বিরুদ্ধে ‍যুদ্ধ ঘোষণার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। আল আরাবিয়ার ওয়েবসাইটে দেওয়া উদ্ধৃতিতে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবেইর বলেছেন, “পবিত্র স্থানগুলোকে আন্তর্জাতিকীকরণের কাতারের দাবি আক্রমণাত্মক এবং সৌদি আরবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা।

রোববার সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন আল আরাবিয়া টেলিভিশন এ কথা জানিয়েছে; অপরদিকে এ ধরনের কোনো আহ্বান জানানোর কথা অস্বীকার করেছে কাতার।

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “যারাই পবিত্র স্থানগুলোর আন্তর্জাতিকীকরণের জন্য কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের অধিকার আমাদের আছে।”

অপরদিকে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুলরাহমান আল থানি বলেছেন, তার দেশের কোনো সরকারি কর্মকর্তা এ ধরনের কোনো আহ্বান জানাননি।
আল জাজিরা টেলিভিশনকে তিনি বলেন, “মিথ্যা তথ্যের জবাব দেয়ার চেষ্টা করছি আমরা। শূন্য থেকে এসব গল্প বানানো হচ্ছে।”

এদিকে সৌদি আরব হজকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করে ধর্মীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে বলে শনিবার জাতিসংঘের বিশেষ দূতের কাছে অভিযোগ করেছে কাতার। চলতি বছর হজ গমনেচ্ছু কাতারিদের যে বাধাগুলোর মুখোমুখি হতে হচ্ছে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দেশটি।

কাতারের বিরুদ্ধে জঙ্গিদের মদত দেয়ার অভিযোগ তুলে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করেছে সৌদি আরব ও তার মিত্র সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিশর ও বাহরাইন। পাশাপাশি সড়ক, জলপথ ও বিমানপথে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ওই চার আরব দেশ।

ঝর্ণা রানীর ছেলেকে চাকরি দিলেন প্রধানমন্ত্রী

ঝর্ণা রানীর ছেলেকে চাকরি দিলেন প্রধানমন্ত্রী

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: কিশোরগঞ্জে শোলাকিয়ায় গত বছরের ঈদুল ফিতরের দিন পুলিশ-জঙ্গি পাল্টাপাল্টি গুলিতে নিহত ঝর্ণা রানী ভৌমিকের (৪৪) পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঝর্ণা রানীর বড় ছেলে বাসুদেব ভৌমিককে চাকরি দিয়েছেন তিনি। বাসুদেব তেজগাঁও মহিলা কলেজের খণ্ডকালীন প্রভাষক ছিলেন।

আজ রোববার ঝর্ণার স্বামী ও দুই ছেলে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে তাঁর কার্যালয়ে আসেন। প্রধানমন্ত্রী তাঁদের খোঁজখবর নেন ও বাসুদেবের হাতে বেসরকারি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সহকারী অফিসার পদের নিয়োগপত্র তুলে দেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও ব্যাংকটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

রিজিয়াকে নিয়ে এখন কেন এত কথা: কাদের

রিজিয়াকে নিয়ে এখন কেন এত কথা: কাদের
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: রিজিয়াকে মহিলা আওয়ামী লীগের পদ দেওয়ার ক্ষেত্রে তার বিয়ের পরের কর্মকাণ্ডই শুধু বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। স্বামী আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হওয়ার চার বছর পর রিজিয়া নদভীর বাবার জামায়াত পরিচয় নিয়ে এখন প্রশ্ন তোলা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন ওবায়দুল কাদের।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন নদভীর স্ত্রী রিজিয়া রেজা চৌধুরীকে (রিজিয়া নদভী) সম্প্রতি মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য করা হয়।

জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদের সদস্য ও দলটি থেকে একাধিকবার চট্টগ্রামের বাঁশখালী থেকে সংসদ সদস্য প্রার্থী মুমিনুল হক চৌধুরীর মেয়ে রিজিয়াকে সহযোগী সংগঠনে পদ দেওয়া নিয়ে আওয়ামী লীগের ভেতর থেকেই সমালোচনা উঠেছে।

মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি অনুমোদনকারী কাদের রোববার ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এলে বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পড়েন।

পদ দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেছেন, “বিয়ের পরে সে জামাতের কোথাও জড়িত ছিল কি না, সেটা দেখা হয়েছে।”

সমালোচনার প্রতিক্রিয়ায় রিজিয়া সম্প্রতি বলেছেন, তিনি বিয়ের আগে কোনো রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত ছিলেন না। বিয়ের পর স্বামীর আদর্শের অনুসারী হয়ে আওয়ামী লীগের কাজ করছেন।

রিজিয়াকে পদ দেওয়ায় কোথাও কোনো ধরনের ক্ষোভ দেখেননি বলে জানান ওবায়দুল কাদের। সেই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘সাময়িকভাবে বিতর্ক সৃষ্টি করার’ সুযোগ আছে।

প্রশ্ন যারা তুলেছেন, তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “যিনি আওয়ামী লীগের এমপি, যিনি চার বছর ধরে এমপির দায়িত্বে, এ চার বছর কিন্তু তাকে নিয়ে কথা হয়নি। তার ওয়াইফ যদি জামাতের নেতার সন্তান হয়, তাহলে চার বছর ধরে এই সন্তানের হাজব্যান্ড হচ্ছে এমপি, এই এমপিকে নিয়ে, তার মনোনয়ন নিয়ে কেউ কোনো কথা বলেননি কেন?”

“এবং তার বিষয়েও কোনো বিতর্ক সৃষ্টি করেননি এবং ভদ্র মহিলা নিজেই প্রশ্ন করছেন, ‘আমার সন্তানেরা কি তাহলে আওয়ামী লীগ করতে পারবে না?’ তার হাজব্যান্ডের সঙ্গে সে আওয়ামী লীগ করছে, ভদ্র মহিলা বাবার সাথে এবং তার (এমপির) শ্বশুরের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই।”

রিজিয়া তার বাবার দল জামায়াতের পক্ষে কাজ করছে, এমন কোনো প্রমাণ পাননি বলে জানান ওবায়দুল কাদের। নদভী ও রিজিয়ার সঙ্গে নিজের ছবির প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, “যিনি এমপি, তিনি আসছেন আমার সাথে দেখা করতে, তখন কি আমি বলব, এই আপনি ছবিতে সাথে আইসেন না। সে তো এই এমপির ওয়াইফ।

“তিনি (রিজিয়া) কি জামায়াতের কোনো সংগঠনের সদস্য? সে তো জামাতের কেউ না, জামাতের কর্মী না, সে তো আওয়ামী লীগের কাজ করছে।”

তাহলে রিজিয়াকে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে আগে কেন বাদ দেওয়া হল- প্রশ্ন করা হলে কাদের বলেন, “এ ধরনের কোনো কথা আমি শুনিনি। আপনি কি এখন জেলা কমিটির সভাপতির সাথে কথা বলবেন? এটা ঠিক না।”

আওয়ামী লীগে সদস্য করার ক্ষেত্রে অনুপ্রবেশকারীদের বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলে আসছেন ওবায়দুল কাদের। রিজিয়াকে পদ দেওয়ার মধ্য দিয়ে তাই ঘটেছে বলে আওয়ামী লীগ সমর্থক অনেকে বলছেন।   

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “সারা দেশে কোথায় শিবির আওয়ামী লীগের পোস্টে আছে, প্রমাণ দিন। কোথায় আমাদের মেম্বার হয়েছে?

“এ প্রশ্ন গত চার বছর কেউ করল না কেন? একেকবার একেকজনকে নিয়ে শুরু হয়েছে, এর আগে শুরু হয়েছে হেফাজত নিয়ে, এখন শুরু হয়েছে এমপির স্ত্রীকে নিয়ে,” প্রশ্নকারীদের উদ্দেশ্য নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন ওবায়দুল কাদের। সূত্র: বিডিনিউজ

৩০টি গাড়ি গ্রাহকদের বুঝিয়ে দিল টেসলা

Kanaighat News on Sunday, July 30, 2017 | 10:31 PM

৩০টি গাড়ি গ্রাহকদের বুঝিয়ে দিল টেসলা

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় 'মডেল ৩' সংস্করণের ৩০টি গাড়ি গ্রাহকদের বুঝিয়ে দিয়েছে টেসলা। টেসলা’র কিছুটা সস্তা গাড়ি মডেল ৩। গাড়িটির সর্বনিম্ন মূল্য ৩৫ হাজার মার্কিন ডলার, যা মডেল এস বা মডেল এক্স-এর দামের অর্ধেকের কম।

ইতোমধ্যেই এ গাড়িটির প্রি-অর্ডারের সংখ্যা পাঁচ লাখ ছাড়িয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে আরও ২০ হাজার মডেল ৩ তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। আর ২০১৮ সালে আরও চার লাখ মডেল ৩ বানাবে তারা। এ বছর প্রতিষ্ঠানটির মোট পাঁচ লাখ মডেল ৩ উৎপাদনের পরিকল্পনা রয়েছে।

এ অনুষ্ঠানে বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা মার্কিন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান ইলন মাস্ক বলেন, এটি টেসলা’র জন্য দারুণ একটি দিন। এটি কখনোই আমাদের লক্ষ্য ছিল না যে আমরা দামি গাড়ি বানাবো। অবশেষে আমাদের সাশ্রয়ী মূল্যের একটি দারুণ গাড়ি আছে, যা আমাদের অবশ্যই দরকার ছিল।

তবে মডেল ৩-এর উৎপাদন সংস্করণের প্রথম গাড়িটি নিজেই রাখবেন বলে জানান মাস্ক। গাড়িটি বাজারে আনতে এর আগে কয়েকবার বিলম্ব করেছে টেসলা। তবে এখনও যারা গাড়িটির জন্য অর্ডার দিচ্ছেন তারা হয়তো ২০১৮ সাল শেষের আগে এটি পাবেন না।

রক্তের সম্পর্ক নেই, তবু দেখতে হুবহু এক

রক্তের সম্পর্ক নেই, তবু দেখতে হুবহু এক

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: এমনই এক ঘটনা ঘটেছে আয়ারল্যান্ড ও সুইডেনের দুই তরুণীর ক্ষেত্রে। তারা জমজ তো ননই, মা-বাবাও এক নন, এমনকি রক্তের কোনো সম্পর্কই নেই তাদের মধ্যে। তবু তাদের চেহারায় এতটাই মিল বাবা নিজেই তার মেয়ে কোনজন তা চিহ্নিত করতে পারেননি। এই দুই নারী হলেন আয়ার‍ল্যান্ডের কেরি কাউন্টির শ্যানন লোনারগ্যান এবং সুইডেনের সারা নর্ডস্ট্রম। একজনের বয়স ২১, অন্যজনের ১৭।

ডেইলি মেইল জানিয়েছে, শ্যানন ও সারা অনলাইনে প্রথম পরিচিত হন। পরে ডাবলিনে দেখা করতে গিয়ে দুজনেই চমকে যান। তাদের চুল, মুখের গঠন থেকে শুরু করে সবকিছুই হুবহু একই রকম।

প্রথম দেখা সম্পর্কে শ্যানন বলেন, ‘দরজা খুলেই আমি যখন দেখি সারা দাঁড়িয়ে আছে, তখন আক্ষরিক অর্থেই আমার হৃদপিণ্ড লাফ দিয়ে যেন মুখে উঠে এসেছিল! আমার আত্মা যেন উধাও হয়ে গিয়েছিল।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রকাশভঙ্গি, ঠোঁট বাঁকানো, হাসি সবই হুবহু একই রকম। এটা খুবই ভুতুড়ে ব্যাপার।’

শ্যানন বাণিজ্য বিভাগে পড়াশোনা করছেন। গত গ্রীষ্মে তিনি একটি ‘জমজ আগন্তুক’ বিষয়ের একটি ওয়েবসাইটে নিবন্ধন করেন। এরপর থেকে নিয়মিত তিনি খোঁজ রাখছিলেন নিজের মতো কারো দেখা তিনি পান কি না।
আর সারা ওই সাইটে নিবন্ধন করেন গত মাসে। এরপর দু-একবার সার্চ দিতেই মিলে যায় শ্যাননের ছবি। পরে তাঁরা ডাবলিনে দেখা করেন।



সারা বলেন, আমি যখন বিমানে করে আয়ারল্যান্ড যাচ্ছিলাম, তখন খুবই নার্ভাস ছিলাম। আমার ভয় ছিল, শ্যানন আর আমি হয়তো বাস্তবে একইরকম দেখতে হবো না। কিন্তু পরে যা দেখলাম ...। সে হুবহু আমারই মতো।’ তিনি বলেন, ‘আমার কাছে কিছুটা পরাবাস্তব মনে হচ্ছিল, অনেকটা নিজের দিকে তাকানোর মতো।’ 
সূত্র: বিডি লাইভ।

সুইজারল্যান্ডে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ ঝুলন্ত সেতুর উদ্বোধন

সুইজারল্যান্ডে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ ঝুলন্ত সেতুর উদ্বোধন

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সুইজারল্যান্ডের জেরমাট শহরে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ ঝুলন্ত সেতুর উদ্বোধন করা হয়েছে। এই সেতুটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৫০০ মিটার বা আধা কিলোমিটার। সেতুটির নাম অয়রোপাব্র্যুকে বা ইউরোপের সেতু।

গ্রাবেনগোফ্যের-এর সঙ্কীর্ণ এক উপত্যকায় ৮৫ মিটার উচ্চতায় এই সেতুটি ঝুলছে। জেরমাটে পর্যটন কর্তৃপক্ষ বলছে, এই সেতু বিশ্বের দীর্ঘতম ঝুলন্ত সেতু।

এর আগে সবচেয়ে দীর্ঘ ঝুলন্ত সেতুটি ছিলো অস্ট্রিয়ায়, মাটি থেকে ১১০ মিটার ওপরে। এই সেতুটি ৪০৫ মিটার লম্বা।
এর আগে জেরমাটে আরেকটি সেতু ছিলো। সেটি ওপর থেকে ছিটকে পড়া পাথরে ধ্বংস হয়ে গেলে সেখানে নতুন করে এই সেতুটি বানানো হয়েছে।

জেরমাটের নতুন সেতুটি যেসব রজ্জু দিয়ে বানানো হয়েছে তার ওজন প্রায় আট টন। লোকজনের চলাচলের সময় এটি যাতে দুলে উঠতে না পারে সেভাবেই এটিকে তৈরি করা হয়েছে। এর ওপর দাঁড়িয়ে চারপাশের নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগের সুযোগ পর্যটকদের আকর্ষণ করবে বলে আশা করছে কর্তৃপক্ষ।

প্রশাসনে ১১ অতিরিক্ত সচিব পদে রদবদল

প্রশাসনে ১১ অতিরিক্ত সচিব পদে রদবদল

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: প্রশাসনে অতিরিক্ত সচিব পদ মর্যাদার ১১ জন কর্মকর্তার রদবদল করা হয়েছে।

রোববার বিকেলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পৃথক দুইটি প্রজ্ঞাপনে এসব তথ্য জানা গেছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয় সংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আমিনুল ইসলামকে বাংলাদেশ ওভারসীজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেডের বোয়েসেলের নির্বাহী পরিচালক পদে বদলি করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবলায়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নুরুজ্জামানকে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সচিব, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম মহাসিনা ইয়াসমিনকে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী সদস্য, দুর্নীতি দমন কমিশনের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) ফরিদ আহমেদ ভূঞাকে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের মহাপরিচালক, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব বেগম নাসরীন আক্তারকে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বিসিএস প্রশাসন একাডেমীর পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) জাফর ইকবালকে দুর্নীতি দমন কমিশনের মহাপরিচালকের জন্য মন্ত্রী পরিষদ বিভাগে ন্যস্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ওভারসীজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেডের বোয়েসেলের নির্বাহী পরিচালক মো. রাশিদুল ইসলামকে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবলায়ের অতিরিক্ত সচিব এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মনোয়ারুল ইসলামকে শিল্প মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ডের মহাপরিচালক পদে বদলি করা হয়েছে।

পৃথক অপর প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. সুলতান উল ইসলাম চৌধুরীকে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পদে বদলি করা হয়েছে। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম চতুর্থ পর্যায় শীর্ষক প্রকল্পের পরিচালক) স্বপন কুমার বড়ালকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. সিরাজুল ইসলামকে ভূমি মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয় জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর করা হবে। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

কানাইঘাটের সেই মুন্নি অপহৃত হয়নি,স্বেচ্ছায় পালিয়েছিল


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাটের আলোচিত এক প্রেমিক জুটিকে গোয়াইনঘাট উপজেলার ৬নং ফতেহপুর ইউপির তৃতীয় খন্ড গ্রামের জনৈক এক মহিলার বাড়ী থেকে গত শনিবার রাতে আটক করে গোয়াইনঘাট থানায় সোপর্দ করার পর রবিবার এই প্রেমিক জুটিকে কানাইঘাট থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জানা যায়, কানাইঘাট রাজাগঞ্জ ইউপির গাজীপুর গ্রামের সৌদি প্রবাসী মনির উদ্দিনের মেয়ে স্থানীয় সুরমা উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমানে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী মাসুমা আক্তার মুন্নি একই বাড়ীর কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী সম্পর্কে চাচাতো ভাই জাবের আহমদ (২০) এর সাথে প্রেমের টানে কয়েক মাস পূর্বে বাড়ী থেকে পালিয়ে যায় এ প্রেমিক জুটি। পরে এ ঘটনায় মাসুমা আক্তার মুন্নির মা দিলারা বেগম বাদী হয়ে তার মেয়েকে অপহরণের অভিযোগ এনে কানাইঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে মাসুমা আক্তার মুন্নিকে পুলিশ উদ্ধার করলে সে নিজ ইচ্ছায় প্রেমের টানে জাবের আহমদের হাত ধরে পালিয়ে গেছে, তাকে অপহরণ করা হয়নি বলে জানায়। মা দিলারা বেগমের সাথে যেতে মুন্নি অস্বীকৃতি জানালে তাকে পুলিশ হেফাজতে আদালতের নির্দেশে সিলেট বাঘবাড়ী সেইফ কাস্টরিতে পাঠানো হয়। মুন্নির মা দিলারা বেগম পুণরায় আদালতের দারস্ত হলে মুন্নিকে শর্ত সাপেক্ষে গত ২৭ এপ্রিল তার মায়ের জিম্মায় দেন বিজ্ঞ আদালত। কিন্তু সেইফ কাস্টরি থেকে মুক্তি পাওয়ার পুণরায় মুন্নি তার প্রেমিক জাবের আহমদের সাথে আবারো সম্পর্ক তৈরি করে। গত ১৭ জুলাই মুন্নি তার খালা জাহানারা বেগমের সিলেট শহরস্থ বাসা থেকে প্রেমিক জাবেরের হাত ধরে আবারো পালিয়ে গিয়ে গোয়াইনঘাট উপজেলার ফতেহপুর ইউপির ৩য় খন্ড গ্রামে জনৈক এক মহিলার বাড়ীতে স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বসবাস শুরু করে। বিষয়টি জানতে পেরে মুন্নির মা দিলারা বেগম ও খালা জাহানারা বেগম ফতেহপুর ইউপির চেয়ারম্যান আমিনুর রশিদ ও ফতেহপুর ইউপির ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ফখর উদ্দিনের মাধ্যমে মুন্নি ও তার প্রেমিক জাবের আহমদকে স্থানীয় লোকজন শনিবার গভীর রাতে জনৈক মহিলার বাড়ী থেকে আটক করেন স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে রবিবার গোয়াইনঘাট থানায় সোপর্দ করেন। পরে এই প্রেমিক জুটিকে আজ কানাইঘাট থানায় হস্তান্তর করা হয়। কানাইঘাট থানায় ডিউটি অফিসারের কক্ষে মাসুমা আক্তার মুন্নির সাথে স্থানীয় সাংবাদিকরা কথা বললে সে বলে ভালোবাসার টানে নিজ ইচ্ছায় জাবের আহমদের হাত ধরে সে পালিয়ে গিয়ে আদালতে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে জাবের আহমদকে কোর্ট ম্যারেজ করেছে। তার বয়স ১৮ বলে মুন্নি জানায়। অপরদিকে মুন্নির খালা জাহানারা বেগম জানিয়েছেন, তার বোনজি মাসুমা আক্তার মুন্নি অপ্রাপ্ত বয়স্ক। স্কুল সার্টিফিকেট হিসেবে তার বয়স ১৬ বছর ৬ মাস। তার বোনজিকে ফুসলিয়ে বখাটে জাবের আহমদ অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার পর তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মুন্নির মায়ের দায়েরকৃত একটি অপহরণ মামলার চার্জশীট ভুক্ত পলাতক আসামী জাবের আহমদ। তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে। অপরদিকে মুন্নির বয়স নির্ণয় করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কানাইঘাটে ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা ॥ লম্পট গ্রেফতার


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাটের দুর্গম পাহাড়ী এলাকায় ১০ বছরের এক শিশু কন্যাকে জোরপুর্বক ভাবে ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনার খবর পেয়ে কানাইঘাট থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদের নির্দেশে ধর্ষনের চেষ্টাকারী লম্পটকে গ্রেফতার করেছে কানাইঘাট থানা পুলিশ। জানা যায় কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পুর্ব ইউপির দুর্গম পাহাড়ী এলাকার লোহাজুরী মিকিরপাড়া গ্রামের দরিদ্র শুক্কুর আলীর ১০ বছরের শিশু মেয়ে গত ২৪ জুলাই দুপুর ১২টায় গ্রামের একটি ঢিলার পাশে গরু চড়াতে যায়। এ সময় একই গ্রামের মৃত জফুর উদ্দিনের পুত্র আব্দুল খালিক (২৮) মেয়েটিকে একা পেয়ে ঢিলার উপরে নিয়ে জোরপুর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করলে মেয়েটির আত্মচিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে মেয়েটি ধর্ষণের হাত থেকে রক্ষা করে। এসময় লম্পট আব্দুল খালিক পালিয়ে যায়। এ ঘটনাটি এলাকায় জানা জানি হলে মান সম্মানের ভয়ে মেয়েটির বাবা দরিদ্র শুক্কুর আলী ও তার মা সাহিদা বেগম থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করেন নি। কিন্তু ১০ বছরের শিশু মেয়েটিকে নরপশু আব্দুল খালিক কর্তৃক ধর্ষণের চেষ্টার খবর বিভিন্ন সূত্রে জানতে পেরে কানাইঘাট থানার ওসি মোঃ আব্দুল আহাদ থানার এসআই রাজিব মন্ডলকে ঘটনাটির দায়িত্ব দিয়ে ধর্ষণের চেষ্টাকারী আব্দুল খালিককে গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করেন। এসআই রাজিব মন্ডল একদল পুলিশ নিয়ে গত শনিবার দুপুর ১২ টায় মিকিরপাড় গ্রামের ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে লম্পট আব্দুল খালিককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। এ ঘটনায় শিশু মেয়েটির মা সাহিদা বেগম বাদী হয়ে আব্দুল খালিককে আসামী করে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন । মামলা নং ১৯-২৯/৭/১৭ইং। এসআই রাজিব মন্ডল জানিয়েছেন ১০ বছরের এই কিশেরী মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনায় ওসি স্যার আমাকে দায়িত্ব প্রদান করলে ধর্ষণের চেষ্টাকারী আব্দুল খালিককে আমি গ্রেফতার করেছি। ধৃত আসামীকে আজ রবিবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং ভিকটিম মেয়েটির শরীরে কোন আঘাতের চিহৃ আছে কি না তা খতিয়ে দেখার জন্য ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য সিলেট ওসমানী হাসপাতালের ওসিসিতে গত শনিবার পাঠানো হয়েছে। এ দিকে স্থানীয় এলাকাবাসী কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল আহাদের প্রতি কৃজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেছেন তিনি ঘটনাটি জানার পর নিজ উদ্যেগে আমলে না নিতেন তাহলে দরিদ্র মেয়েটির পরিবার সমাজের কোথাও ন্যায় বিচার পেত কিনা সন্দেহ ছিল। পুলিশ আব্দুল খালিককে গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করায় এলাকায় ভবিষ্যতে এ ধরনের জঘন্য ঘটনার পুর্ণবৃত্তি হবে না বলে এলাকাবাসী মনে করেন।

মেসিদের ডেরায় টাইগারের আগমন

মেসিদের ডেরায় টাইগারের আগমন

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের মায়ামিতে অনুষ্ঠিত প্রাক-মৌসুমের এল ক্লাসিকো জেতার পর বার্সার ড্রেসিংরুমে পা পড়ে গলফের বাদশা টাইগার উডসের।

ম্যাচ প্রায় শেষ৷ হঠাৎই বার্সেলানোরা ড্রেসিংরুমে হাজির বার্সার জার্সি পরিহিত টাইগার৷

উডসের সঙ্গে ছিলেন তার সন্তানরা৷ ড্রেসিংরুমে মেসির সঙ্গে দেখা করেন তিনি৷ বার্সার রাজপুত্রের সঙ্গে বেশ হাসি ঠাট্টা করতে দেখা যায় তাকে৷

এরপর সুয়ারেজও তাদের সঙ্গে যোগ দেন৷ ‘এল এম টেন’ ও ‘উরুগুয়ান বম্বারের’ সঙ্গে ছবিও তোলেন ‘গলফের বাঘ’৷ উডসকে সামনে আপ্লুত হয়ে যান সুয়ারেজ৷

প্রসঙ্গত, ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপে রিয়ালকে ৩-২ গোলে হারিয়ে শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছে বার্সেলোনা। বার্সার পক্ষে একটি করে গোল করেছেন লিওনেল মেসি, রাকিটিস, সার্জিও বুসকেটস এবং জেরার্ড পিকে। অপরদিকে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর অনুপস্থিতে গোলের দেখা পেয়েছেন মাতেও কোভাসিস ও মার্কো আসেনসিওর।

'বাংলাদেশ প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্কে বিশ্বাসী'

'বাংলাদেশ প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্কে বিশ্বাসী'

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্কে বিশ্বাস করে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এটা স্বাভাবিক যে প্রতিবেশিদের সঙ্গে সমস্যা থাকতেই পারে। কিন্তুু বন্ধুত্ব এবং সহযোগিতাও চলমান থাকবে এবং যে কোনো সমস্যাই আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই সমাধান করা হবে।’

বাংলাদেশে পাকিস্তানের হাইকমিশনার রফিউজ্জামান সিদ্দিকী আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাত করতে এলে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

বৈঠকের পরে প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ভারতের সঙ্গে সীমান্ত এবং সমুদ্র সীমা সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান করেছে। ভারতের সংসদ সীমান্ত চুক্তি সংক্রান্ত বিলটি সর্ব সম্মসতভাবে অনুমোদন করেছে। ভারতের সঙ্গে সমস্যাটির শান্তিপূর্ণ সমাধান সমগ্র বিশ্বের কাছে একটি উদাহারণ সৃষ্টি করেছে।

শেখ হাসিনা আরো উল্লেখ করেন, একই ভাবে মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্র সীমা সমস্যার সামাধান করা হয়েছে। আমরা শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করে ভারত থেকে ৬২ হাজার শরনার্থী ফিরিয়ে আনার মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামের বিদ্রোহের অবসান ঘটিয়েছি।

দারিদ্রকে এই অঞ্চলের প্রধান শক্র উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী এই অঞ্চলের দেশগুলো থেকে দারিদ্রের মূল উৎপাটনে একযোগে কাজ করার ওপর গুরুত্বরোপ করেন। প্রধানমন্ত্রী এ সময় তার সরকারের নেতৃত্বে বিগত সাড়ে ৮ বছরে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নেরও একটি খন্ডচিত্র তুলে ধরেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ক্ষমতায় আসার পরই কতগুলো নির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করে এগিয়ে যাই। যার মধ্যে রয়েছে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, শিক্ষা এবং জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা। যে কারণে জনগণ এখন এগুলোর সুফল পাচ্ছে।

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়ন কর্মকান্ডের ভূয়শী প্রশংসা করে এ সময় পাকিস্তানের হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের ধারায় পুরোপুরি পরিবর্তিত একটি দেশ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী যেভাবে সন্ত্রাস এবং জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সমর্থ হয়েছেন তাতে পাকিস্থানের জনগণও আনন্দিত।

গত বছর গুলশানের হলি অর্টিজান রেস্তোরায় সন্ত্রাসী হামলার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে পাকিস্তানের হাইকমিশনার বলেন, ঐ হামলার পর আর এ ধরনের কোনো ঘটনা বাংলাদেশে ঘটেনি। যেহেতু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সন্ত্রাস এবং জঙ্গিবাদকে কঠোর হস্তে দমনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

কানাইঘাটে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে উত্তেজনা, শিক্ষা বোর্ডে অভিযোগ


নিজস্ব প্রতিবেদক:: কানাইঘাটে চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। জানা যায়,উপজেলার সাতবাঁক ইউপির সুনামধন্য বিদ্যাপিঠ চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে এলাকায় ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এরই প্রতিবাদে গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় লোভারমুখ বাজারে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত হয়েছে। ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান মোবারকের সভাপতিত্বে ও আমির উদ্দিনের পরিচালনায় কমিটির বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখেন ৩নং ওর্য়াডের ইউপি সদস্য শাইকুল আলম, আব্দুল হান্নান, আবু শহিদ, তোফায়েল হোসেন প্রমুখ। বিপুল সংখ্যক অভিভাবক সদস্য ও এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে সরব হয়ে উঠে প্রতিবাদ সভাস্থল। তারা এ কমিটিকে পকেট কমিটি আখ্যায়িত করে গত ২৫ জুলাই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স্থানীয় সাতবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সুত্রে জানা যায় চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মামলা জনিত কারনে দীর্ঘদিন থেকে অনুপস্থিত থাকায় বিদ্যাপিঠটির লেখাপড়া থুবড়ে পড়েছে। প্রধান শিক্ষক ও ভাইস প্রিন্সিপালের অনুপস্থিতির সুযোগে রাতের অন্ধকারে সিলেটের একটি হোটেলে ম্যানেজিং কমিটি নামে একটি পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে এলাকার সর্বস্থরের লোকজন সহ অভিভাবকগণ ফোঁসে উঠেছেন। এমনকি যে কোন সময় এ নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে বলে তারা অভিযোগে উল্লেখ করেন। এব্যাপারে এলাকার বিশিষ্ট মুরব্বী আব্দুল হান্নান জানান সম্পুর্ণ নিয়মনীতি উপেক্ষা করে অভিভাবক সদস্যদের না জানিয়ে রাতের অন্ধকারে সিলেটের একটি হোটেলে বসে পকেট কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি গঠনের দায়িত্বে থানা প্রিজাইটিং অফিসার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বড় অংকের উৎকোচের মাধ্যমে কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন বলে তারা অভিযোগ করেন। এ কমিটি এলাকাবাসী ও অভিভাবক সদস্যরা কখনো মেনে নিবেন না দাবী করে বলেন দ্রুত এ পকেট কমিটি ভেঙ্গে সকল অভিভাবক সদস্যদের প্রত্যেক্ষ ভোটের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক নিয়মে ম্যানেজিং কমিটি গঠন করতে হবে। অন্যতায় মিছিল মিটিং সহ আন্দোলন আরো জোরদার করা হবে বলে তারা জানান। এদিকে বিদ্যালয়ের দায়িত্বে থাকা শিক্ষক ইসলাম উদ্দিন জানান প্রতিবারের ন্যায় যথা নিয়মে পুরানো কমিটির মেয়াদের শেষ প্রান্তে বিদ্যালয়ে বসে সকল অভিভাবক সদস্যের মতামতের আলোকে এবারও ১১ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি গঠনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রিজাইটিং অফিসারের দায়িত্বে থাকা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুনসী তোফায়েল হোসেন জানান বড় অংকের উৎকোচ শব্দটি ডাহা মিথ্যা, এসবের প্রশ্নই উঠে না। তবে কমিটি গঠনের ব্যাপারটি তাদের অভ্যন্তরীন দন্ধ হতে পারে। এলাকার অভিভাবক সদস্যদের মাধ্যমে অন্যান্য বিদ্যাপিঠের ন্যায় চরিপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের ম্যানেজিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়াও তিনি জানান কমিটি গঠনের পুর্বে কোন অভিভাবক সদস্যদের কেউ কমিটি গঠনের ব্যাপারে কোন ধরনের অভিযোগ করেননি।

কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এ হান্নানের ছেলের সুস্থতা কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল


নিজস্ব প্রতিবেদক: দৈনিক সিলেট বাণীর নির্বাহী সম্পাদক কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এ হান্নানের বড় ছেলে সিলেট বারের শিক্ষানবিশ আইনজীবি সাপ্তাহিক কানাইঘাটের ডাক পত্রিকার সম্পাদক দিলদার হোসেন জোবায়ের হঠাৎ করে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে রবিবার তাকে সিওমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দিলদার হোসেন জোবায়েরের আশু সুস্থতা ও রোগ মুক্তি কামনা করে রবিবার বাদ আসর কানাইঘাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে স্থানীয় কর্মরত সাংবাদিকদের উদ্যোগে এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি বাবুল আহমদ, প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন, দৈনিক শুভ প্রতিদিনের প্রতিনিধি আলিম উদ্দিন আলিম, সবুজ সিলেট পত্রিকার কানাইঘাট প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম, জালালাবাদ পত্রিকার কানাইঘাট প্রতিনিধি শাহীন আহমদ, সিলেটের ডাকের কানাইঘাট প্রতিনিধি আলা উদ্দিন আলাই, সিলেট সুরমার পত্রিকার প্রতিনিধি মাহফুজ সিদ্দিকী, মানচিত্র পত্রিকার প্রতিনিধি আহমেদুল কবির মান্না, দৈনিক সন্ধ্যাবানী ও সুরমা মেইল ডট কমের প্রতিনিধি মুমিন রশিদ, একটি বাড়ী একটি খামারের মাঠ সহকারী বাবুল আহমদ। মিলাদ শেষে দিলদার হোসেন জোবায়েরের আশু রোগমুক্তি ও দ্রুত সুস্বাস্থ্য কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হা. মাও. নজির আহমদ।

পাকিস্তানে মাইক্রোবাসে আগুন লেগে ১৩ জনের মৃত্যু

পাকিস্তানে মাইক্রোবাসে আগুন লেগে ১৩ জনের মৃত্যু

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: রোববার সকালে পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখওয়া প্রদেশে মাইক্রোবাসে আগুন লেগে ১৩ জন নিহত হয়েছেন। গ্যাস পাইপলাইনের সঙ্গে সংঘর্ষের পর মাইক্রোবাসে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে।

উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিহতদের দেহগুলো মারাত্মকভাবে পুড়ে গেছে এবং ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে তাদের শনাক্ত করা হয়তো সম্ভব হবে না।

রাওয়ালপিন্ডি থেকে পেশোয়ার যাওয়ার পথে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসটির সংঘর্ষ হয়।
এতে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে মাইক্রোবাসটি ওই এলাকার গ্যাস পাইপলাইনে গিয়ে ধাক্কা মারে, সঙ্গে সঙ্গেই ১৩ জন আরোহী থাকা গাড়িটিতে আগুন ধরে যায়।

আগুনের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশের পাশাপাশি উদ্ধারকারী কর্মীরাও ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হলেও কাউকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

ছাত্রী ধর্ষণ: তুফানসহ তিনজন রিমান্ডে

ছাত্রী ধর্ষণ: তুফানসহ তিনজন রিমান্ডে
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বগুড়ায় বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় করা মামলায় বগুড়া শহর শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক তুফান সরকারসহ তিনজনের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার বগুড়ার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম শ্যামসুন্দর রায় এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডে পাঠানো অন্য দুই আসামি হলেন তুফানের সহযোগী শহরের চকসূত্রাপুর কসাইপট্টির আলী আজম ওরফে ডিপু এবং কালীতলা এলাকার রূপম। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তি দেওয়ায় অপর আসামি আতিকুর রহমানকে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়নি।

ধর্ষণের শিকার মেয়েটি এখনো অসুস্থ। মাসহ তিনি এখন বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান আব্দুল মোত্তালেব হোসেন বলেন, মেয়েটির শরীরে লোহা বা রড জাতীয় বস্তু দিয়ে সাত থেকে আট জায়গায় আঘাত করা হয়েছে। ফোলা ও জখম আছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত।

উল্লেখ্য, শুক্রবার বিকেলে কলেজে ভর্তি-ইচ্ছুক ছাত্রীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন বগুড়ার শহর শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক তুফান সরকার। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে তিনি ও তার সহযোগীরা দলীয় ক্যাডার ও এক নারী কাউন্সিলরকে ধর্ষণের শিকার মেয়েটির পেছনে লেলিয়ে দেন। চার ঘণ্টা ধরে তারা ছাত্রী ও তার মায়ের ওপর নির্যাতন চালান। এরপর দুজনেরই মাথা ন্যাড়া করে দেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

যে চিকিৎসা নিতে বাংলাদেশে আসেন বিদেশি রোগীরা

যে চিকিৎসা নিতে বাংলাদেশে আসেন বিদেশি রোগীরা

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের স্বাস্থ্য সেবার মান নিয়ে নেতিবাচক খবরে যখন মিডিয়া সয়লাব! উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের মানুষ পাগলের মত যখন ছুটে ভারত, থাইল্যান্ড ও সিঙ্গাপুরে। ঠিক তখনই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মানুষ জীবন রক্ষাকারী চিকিৎসা নিতে আসছে বাংলাদেশে! হ্যাঁ, বাংলাদেশের ডাক্তারদের কাছেই যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের মত দেশ থেকে রোগীরা আসছেন ক্রনিক হেপাটাইটিস এর চিকিৎসা নিতে!

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হেমাটোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল) ও জাপান প্রবাসী চিকিৎসাবিজ্ঞানী ডা. শেখ মোহাম্মদ ফজলে আকবর বাংলাদেশে সফল হেপাটাইটিস  চিকিৎসার নেপথ্য কারিগর।

বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উপলক্ষ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেপাটাইটিস  চিকিৎসার সাফল্য সম্পর্কে ডা. স্বপ্নীলের দেয়া বর্ণনা ‘প্ল্যাটফর্ম’ নামক ওয়েবপোর্টালে তুলে ধরেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মারুফুর রহমান অপু।



‘নাসভ্যাক’ (Novel Nasal Vaccine for Hepatitis B বা NASVAC)। বাংলাদেশি চিকিৎসকদের উদ্ভাবিত প্রথম নিউ ড্রাগ মলিউকিউল যেটি ক্লিনিকাল ট্রায়ালের নানা ধাপ পেরিয়ে শেষ ধাপে আছে। বর্তমানে কিউবাসহ পৃথিবীর আরো কিছু দেশে ইতিমধ্যে বাজারজাত শুরু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের FDA এবং বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসন এর অনুমতি নিয়ে ‘নাসভ্যাক’ এর  ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়ে দেখা গেছে ন্যাসভ্যাক প্রয়োগে ৬ মাসে ৫৯% হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের কারনে ক্রনিক হেপাটাইটিসে আক্রান্ত রোগী সম্পূর্ণ আরোগ্য লাভ করেছেন।

প্রচলিত স্বীকৃত ওষুধ পেগাইলেটেড ইন্টারফেরন প্রয়োগে আরোগ্য পেয়েছেন ৩৮ শতাংশ রোগী। বর্তমানে ওষুধটি জাপানে মাল্টি সেন্টার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে আছে। প্রয়োজনীয় আইন না থাকায় এটি এখনো বাংলাদেশে প্রস্তুত করা যায় নি তবে আগামী ২-১ বছরের মাঝেই এটি বাজারে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

এখানেই সাফল্যের গল্পের শেষ নয়! যদি বলি এদেশেই স্টেম সেল থেরাপী দেয়া হচ্ছে! হ্যাঁ, ডা. সপ্নীল ও তার দল  বাংলাদেশেই স্টেম সেল থেরাপীর মাধ্যমে লিভার সিরোসিস বা ফেইলিউর হয়ে যাওয়া রোগীদের চিকিৎসা শুরু করেছেন।

লিভার সিরোসিস বা ফেইলিউর হওয়া অধিকাংশ রোগী মৃত্যুবরণ করেন এবং এর প্রচলিত চিকিৎসা লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট। যাতে খরচ প্রায় ৪০-৫০ লক্ষ টাকা  আর উপযোগী ডোনার পাওয়াও কষ্টসাধ্য।

কিন্তু স্টেমসেল পদ্ধতিতে চিকিৎসা খরচ মাত্র ৫০ হাজার থেকে দেড় লক্ষ টাকা। স্টেম সেল ব্যবহারের পদ্ধতিটি নতুন না হলেও ডাঃ স্বপ্নীল ও তার দল নিজস্ব উদ্ভাবিত পদ্ধতিতে সরাসরি লিভারের আর্টারিতেই স্টেম সেল প্রয়োগ করছেন এবং এ প্রক্রিয়া ৩ জন রোগীর উপর প্রয়োগ করে ইতিমধ্যে সাফল্য  পেয়েছেন।

আর একটি বিষয় জানা দরকার যে, হেপাটাইটিস-বি এর পাশাপাশি হেপাটাটিস-সি ভাইরাসও লিভার নষ্ট হয়ে মারা যাবার অন্যতম কারণ। বহির্বিশ্বে  এই রোগে ব্যবহার্য ওষুধের মূল্য প্রায় ১ লক্ষ ডলার! কিন্তু বাংলাদেশে সেই একই ওষুধ এর মূল্য কত জানেন? মাত্র ১ হাজার ডলার! তৈরি করছে ইনসেপ্টা এবং বিকন।

মূল একটিভ মলিকিউল তৈরি করা কোম্পানি বাংলাদেশ ও ভারতে এই ওষুধ তৈরির অনুমতি দিয়েছে। বাংলাদেশ ২০৩৩ সাল পর্যন্ত পেটেন্ট রেস্ট্রিকশন পাওয়ায় এখানে এই ওষুধের দাম ভারতের চেয়ে কম। তাই বহির্বিশ্বের প্রচুর রোগী এই ওষুধ নিতে সরাসরি বাংলাদেশে আসছেন কিংবা অনলাইনে অর্ডার করে নিচ্ছেন।

সূত্র: ‌চ্যানেল আই অনলাইন

কয়েক সেকেন্ডেই চার্জ হবে স্মার্টফোন!

কয়েক সেকেন্ডেই চার্জ হবে স্মার্টফোন!

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: চার্জ দেওয়ার ঝামেলাটা স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য এক আতঙ্কের নাম। দীর্ঘসময় চার্জ দিয়েও অনেক সময় ফোন বন্ধ হয়ে বিপাকে পড়তে হয়। ফোনে চার্জ দেওয়ার সময় কমিয়ে আনার জন্য দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছে বিজ্ঞানীরা। এবার বোধহয় আশার আলো খুঁজে পেলেন তারা।

বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি এমন ধরনের উপাদান আবিষ্কার করেছেন যা দিয়ে ফোনের ব্যাটারি তৈরি করলে এটি মাত্র কয়েক সেকেন্ডে চার্জ হবে। বিজ্ঞানীরা একে যুগান্তকারী আবিষ্কার বলে অভিহিত করছেন।

এই উপাদানের নাম দেওয়া হয়েছে ‘এমএক্সেন’। এই উপাদান তৈরি করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়া অঙ্গরাজ্যের ডিক্সেল ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক। গবেষণা দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন প্রফেসর জুরি গোগোটসি। যিনি ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কাজ করছেন।

জুরি জানান, তাদের আবিষ্কৃত উপাদান সাধারণ ব্যাটারির উপাদান সম্পূর্ণ আলাদা। এই উপাদানের তৈরি ব্যাটারির আয়ন দ্রুত চার্জ নিতে সক্ষম।

বিজ্ঞানীরা এই উপাদান তৈরির জন্য ২০১১ সাল থেকে কাজ করছেন। তারা আশাবাদী যে এই উপাদান দিয়ে ভবিষ্যতে ব্যাটারি তৈরি করলে তা কয়েক সেকেন্ডে চার্জ হবে। এই উপাদান দিয়ে স্মার্টফোন ও অন্যান্য গ্যাজেটের ব্যাটারি তৈরি করা সম্ভব। তবে এখনই এই উপাদান দিয়ে স্মার্টফোনের ব্যাটারি তৈরি করা হচ্ছে না। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই উপাদান দিয়ে ব্যাটারি তৈরির জন্য তিন বছর পর শুরু হবে।

ভালো কিছু পেতে অপেক্ষাতো করতেই হবে।

সজল-পূর্ণিমার ‘অন্ধজনে অন্ধক্ষণে’

সজল-পূর্ণিমার ‘অন্ধজনে অন্ধক্ষণে’
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: নতুন এক নাটকে জুটি বাঁধলেন সজল ও পূর্ণিমা। ‘অন্ধজনে অন্ধক্ষণে’ শিরোনামের নতুন এই নাটকটি নির্মাণ করছেন তরুণ নাট্যনির্মাতা রুমান রুনি। রচনা করেছেন ইউসুফ আলী খোকন।

শুক্রবার থেকে পুরান ঢাকায় নাটকটির শুটিং শুরু হয়েছে। আসছে ঈদে একটি বেসরকারি চ্যানেলে প্রচারিত হবে নাটকটি।

নাটকটি নিয়ে সজল বললেন, 'আমাদের সমাজেরই গল্প তুলে আনা হয়েছে নাটকে। গল্পটা দারুণ। পূর্ণিমার সঙ্গে কাজ মানেই আড্ডায় ভরপুর'। এটি ছাড়াও সজল এবার ঈদের বেশ ক’টি নাটকে অভিনয় করছেন।

নির্মাতা জানিয়েছেন, নাটকটির গল্প অন্ধ প্রেমিক জুটিকে ঘিরে। একজনের দৃষ্টিহীনতায় তাদের প্রেমে বাধা হয়ে দাঁড়ায়।
সূত্র: বিডি লাইভ।

ফ্যাশনে চাই স্টাইলিশ ঘড়ি

ফ্যাশনে চাই স্টাইলিশ ঘড়ি
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ঘড়ি জীবন চলার পথের অন্যতম অনুষঙ্গ। সময়ের বিবর্তনে এর জায়গা দখল করে নিয়েছে মুঠোফোন। তাই ঘড়ির অবস্থান চলে এসেছে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ফ্যাশনে। এখন ফ্যাশনপ্রেমীদের পছন্দের তালিকায় যুক্ত হয়েছে নানা ডিজাইনের স্টাইলিস্ট ঘড়ি।

স্কুলের ছোট শিশুরা একটু চওড়া বেল্টের কালারফুল ঘড়ি পছন্দ করে। এছাড়া স্কুল ও কলেজের ছেলেমেয়েরা ইউনিফর্মের সঙ্গে মিলিয়ে সাধারণত ঘড়ি পরে থাকে। প্রধানত ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া তরুণ-তরুণীরা ঘড়িকে ফ্যাশনের একটি অনুষঙ্গ হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন।

বর্তমান সময়ে রাউন্ডের চেয়ে বেশি স্কয়ার ডায়াল এবং কালারের ক্ষেত্রে গোল্ডেনের চেয়ে ব্ল্যাক, সিলভার এবং সিলভার ও গোল্ডেন মিক্সড বেশি চলছে। এছাড়া বেল্টের চেয়ে মেটালের, চওড়া চেইনের, কিছু চিকন চেইন এবং দামি পাথর খচিত ঘড়ি তরুণ-তরুণীদের বেশ জনপ্রিয়।

বর্তমান হালফ্যাশনে বেশিরভাগ কর্মজীবী নারী ও পুরুষ তাদের কর্মস্থলে, কর্মব্যস্ত দিনে, কাজের প্রয়োজনে ও ফ্যাশন দুটো মিলিয়েই ঘড়িতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।

ফলে ফ্যাশনেবল তরুণ-তরুণীদের মধ্যে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ঘড়ি অনেক জনপ্রিয়। সিকো একটি জাপানিজ ব্র্যান্ড। এখানে রাউন্ড, স্কয়ার এবং ওভাল শেপের ঘড়ি চলছে। সিলভার ও ব্ল্যাক কালার চেইনের ঘড়ি বেশি চলছে। সেলোক্স একটি ইউকে বেইজড কোম্পানি এবং এদের মেশিন জাপানের। সেলোক্স মেয়েদের বেশি জনপ্রিয়। এখানে একটু রাউন্ডের মধ্যে বড় ডায়াল এবং সিলভার ও গোল্ডেন মিক্সড কালারটা বেশি চলছে।

এছাড়া ক্রিডেন্সও একটি ইউকে বেইজড কোম্পানি। এর মেশিন সুইজারল্যান্ডের। এখানে ভেরিয়েশন হচ্ছে রেগুলার স্টপ ওয়াচ, ফাংশনাল এবং অটোমেটিক ঘড়ি। আরও রয়েছে টাইমভিউ। এটি জাপানিজ ব্র্যান্ড। এখানে বর্ডার শেপ ছেলে ও মেয়েরা পছন্দ করছে এবং মিক্সড কালার বেশি চলছে।

রাতের পার্টি বা বিশেষ কোনো অনুষ্ঠানে শাড়ি বা ফরমাল পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে অভিজাত ঘড়ি ভালো লাগে। ঘড়ির সঙ্গে লাইফ স্টাইলের সম্পর্ক অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। ঘড়ি একজন মানুষের ব্যক্তিত্বকে অনেক বেশি বিকশিত করে থাকে।

মোবাইল ফোন ঘড়ির চাহিদা মেটালেও ঘড়ির প্রয়োজন ফ্যাশন হোক ও কাজের ক্ষেত্রে হোক; ঘড়ি তার একটা নিজস্ব জায়গা ধরে রেখেছে। মানুষের চাহিদা ও ফ্যাশনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ডিজাইন ও স্টাইলে আধুনিক থেকে আধুনিকতর হয়েছে। তাই ফ্যাশনপ্রেমীদের কাছে স্টাইলের অনুষঙ্গ হিসেবে ঘড়ি অনেক জনপ্রিয়।

রিয়াল থেকে আর কাউকে ছাড়তে চাই না: জিদান

রিয়াল থেকে আর কাউকে ছাড়তে চাই না: জিদান

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: দলবদলের পালায় গ্যারেথ বেলের ভবিষ্যত অনিশ্চিত বলে গুঞ্জন রয়েছে। তারকা এই উইঙ্গারের প্রতি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আগ্রহ আছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে আর কোনো খেলোয়াড়কে ছাড়তে চান না জিনেদিন জিদান।

এদিকে মোনাকোর কিলিয়ান এমবাপেকে ১৮ কোটি ইউরো ট্রান্সফার ফিতে দলে ভেড়াতে প্রস্তুত রিয়াল। স্পেন ও ইংল্যান্ডের কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের খবরে এ তথ্য জানা গেছে।

আর এই বিশাল অঙ্কের অর্থ যোগাতে ওয়েলশের ফরোয়ার্ড বেলকে বিক্রি করে দিতে পারে গত মৌসুমে লা লিগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ী দলটি।

দলে কারোর ভবিষ্যতের নিশ্চয়তাও দিতে পারছেন না জিদান। তবে তিনি চান না, আলভারো মোরাতা, হামেস রদ্রিগেস, দানিলো ও পেপেদের মতো আর কেউ চলে যাক।

সংবাদ সম্মেলনে জিদান বলেন, 'এই দল নিয়ে আমি নির্ভার ও খুশি। আমাদের সেরা দল আছে। আমরা জিতেছি এবং আবারও আমরা একই রকম করতে চাই'।

'দলটি খুব ভালো এবং আমি কোনো পরিবর্তন চাই না। একমাত্র ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো প্রাক-মৌসুমে আমাদের সঙ্গে নেই। কিন্তু আমরা জানি, এটা কঠিন একটি বছর হতে যাচ্ছে। সবাই জিততে চাইবে'।

পর্তুগালের হয়ে কনফেডারেশন্স কাপ খেলার পর ছুটি বাড়িয়েছেন রোনালদো। তাই ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে বার্সেলোনার বিপক্ষে খেলবেন না ৩২ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। তবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে দলের সবচেয়ে বড় খেলোয়াড়কে না পেলেও সমস্যা দেখছেন না জিদান।

তাইওয়ানের দিকে বছরের প্রথম টাইফুন

তাইওয়ানের দিকে বছরের প্রথম টাইফুন

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: বছরের প্রথম টাইফুন ধেয়ে যাচ্ছে তাইওয়ানের দিকে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে শনিবার দ্বীপটির ট্রেন চলাচল স্থগিত ও স্কুলগুলো বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

দ্বীপটির পূর্ব উপকূলে টাইফুন নেসাত এর প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল হয়ে উঠেছে এবং ঝড়ো হাওয়া বইছে। শুক্রবার এটি একটি মাঝারি আকারের ঝড়ে পরিণত হয়েছে। ঝড়টি শনিবার রাতে আঘাত হানতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

গ্রিনিচ মান সময় ০২১৫টায় টাইফুন নেসাত হুয়ালাইন কাউন্টি থেকে ২১০ কিলোমিটার দক্ষিণপূর্বে অবস্থান করছিল। এ সময় ঝড়টির গতিবেগ ছিল ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১৩৭ কিলোমিটার।

তাইওয়ানের আবহাওয়া ব্যুরো সতর্ক করে বলেছে, কাউন্টিগুলোর পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চলে মুষলধারে এবং কোনো কোনো এলাকায় গ্রীষ্মকালীন ঝড়ের পাশাপাশি ৯শ’ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হতে পারে। দূরবর্তী দুটি দ্বীপের স্কুল ও অফিস আদালত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

শনিবার পূর্ব উপকূলের অধিকাংশ ট্রেন চলাচল স্থগিত করা হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে আকাশ যান চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হয়েছে। পূর্ব ও দূরবর্তী দ্বীপগুলোর অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটগুলো স্থগিত করা হয়েছে। দুর্যোগ পরবর্তী ত্রাণ তৎপরতায় সহায়তার জন্য ৩৬ হাজারের বেশি সৈন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

২০৩০-এর আগেই সবার জন্য নিরাপদ পানি: প্রধানমন্ত্রী

Kanaighat News on Saturday, July 29, 2017 | 11:47 PM

২০৩০-এর আগেই সবার জন্য নিরাপদ পানি: প্রধানমন্ত্রী

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এসডিজি’র নির্ধারিত সময়সীমা ২০৩০ সালের আগেই আমরা শতভাগ মানুষকে নিরাপদ পানি সরবরাহ করতে চাই। ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে আমরা ২০২১ সালের মধ্যেই সকলের জন্য নিরাপদ পানি নিশ্চিত করতে পারব।’ তিনি বলেন, রাজধানী ঢাকায় নতুন খাল খনন, পুরনো খাল সংস্কার, জলাধার সংরক্ষণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, তার সরকার ২০২১ সাল নাগাদ ভূগর্ভস্থ পানির ব্যবহার কমিয়ে বিভাগীয় সদরগুলোতে ভূ-উপরিস্থিত নিরাপদ পানি সরবরাহের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

আজ রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে তিন দিনব্যাপী ‘ওয়াটার সামিট-২০১৭’ এর উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য- স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে অর্থাৎ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিরাপদ পানি ব্যবস্থাপনায় সরকার গৃহীত কার্যক্রমসমূহের মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে: ১৯৯৯ সালে জাতীয় পানিনীতি প্রণয়ন। ওয়াটার সাপ্লাই অ্যান্ড সুয়্যরেজ অ্যাক্ট-১৯৯৬ প্রণয়ন, ন্যাশনাল ওয়াটার সাপ্লাই অ্যান্ড স্যানিটেশন অ্যাক্ট-২০১৪ প্রণয়ন এবং আর্সেনিক সমস্যা মোকাবিলায় ‘ন্যাশনাল পলিসি ফর আর্সেনিক মিটিগেশন অ্যান্ড ইমপ্লিমেন্টেশন প্লান’ (এনএএমআইপি) প্রকল্প বাস্তবায়ন চলছে।

তিনি বলেন, ইমপ্লিমেন্টেশন প্লান ফর আর্সেনিক মিটিগেশন ফর ওয়াটার সাপ্লাই-২০১৬ প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। গত ৮ বছরে এই দু’টি খাতে সরকারের বরাদ্দ ছিল ১৪ হাজার ৯শ’ কোটি টাকা। বর্তমানে এই খাত দু’টিতে ৩২ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প চলমান আছে।

তিনি আরো বলেন, লবণাক্ত পানিপ্রধান এলাকায় পুকুরের পানি ফিল্টার করে লবণাক্ততা মুক্ত করা হয়েছে, ৭ হাজার পুকুর এবং গভীর কূপ খনন করা হয়েছে ৩২ হাজার ৬শ’ টি। বর্ষার পানি সংরক্ষণে ৪ হাজার ৭শ’ জলাধার তৈরি করা হয়েছে এবং ২০২১ সালের মধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও খুলনাসহ সকল বিভাগীয় শহরের নিরাপদ পানি ভূ-উপরিস্থ পানি থেকে নিশ্চিত করার কার্যক্রম চলছে।

জাতিসংঘের পানি ও স্যানিটেশন-বিষয়ক বিশেষ প্যানেলের সদস্য শেখ হাসিনা বলেন, গোটা বিশ্বে এই মুহূর্তে ২৪০ কোটি লোক স্যানিটেশন সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এছাড়া নিরাপদ পানির অভাবে পৃথিবীতে বছরে ১০ লাখ লোক মারা যায়, যাদের অধিকাংশই শিশু। প্রতিদিন গড়ে বিশ্বে এক হাজার শিশু বিশুদ্ধ পানির অভাবে প্রাণ হারায়।

বছরের ১৫ নভেম্বর মরক্কোর মারাকাসে অনুষ্ঠিত জলবায়ু সম্মেলনের প্রদত্ত বক্তব্যে উদ্ধৃতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি জলবায়ুর বিরূপ প্রভাবে পানি ব্যবস্থাপনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য নিরাপদ পানি ও স্যানিটেশন বিষয়ে পৃথক ফান্ড গঠনের দাবি জানিয়েছি।’ বাংলাদেশকে জাতিসংঘ গঠিত নিরাপদ পানি ও স্যানিটেশন বিষয়ক বিশেষজ্ঞ প্যানেলে রাখা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি আশা করি- তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা পানি সম্মেলন-২০১৭’, ডেল্টা সামিটের ওয়ার্কিং সেশন এবং শেরপা বৈঠকগুলোতে বিশেষজ্ঞদের আলোচনায় নিরাপদ পানি ব্যবস্থাপনা ও পয়ঃ নিষ্কাশনের পথে বাঁধাসমূহ চিহ্নিত হবে এবং এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ভবিষ্যৎ কর্মকৌশলও বেরিয়ে আসবে।

তিনি বলেন, পৃথিবীর শতকরা ৯০ শতাংশ বিপর্যয়ের জন্য দায়ী পানি। প্রাকৃতিক দুর্যোগে মৃত্যুর শতকরা ৭০ ভাগই বন্যা এবং অন্যান্য পানিবাহিত দুর্যোগে হয়। বিশুদ্ধ খাবার পানি শুধু আমাদের বেঁচে থাকার জন্যই নয়, সমগ্র প্রাণিকূলেরও বেঁচে থাকার জন্য অপরিহার্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বে শতকরা ১ ভাগেরও কম পানিসম্পদ পানের জন্য নিরাপদ বলে বিবেচনা করা হয়। ফলে এখনও পর্যন্ত বিশ্বের প্রায় ১শ কোটি মানুষেরই সুপেয় পানির প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা যায়নি। জনসংখ্যা বৃদ্ধি, নগর সভ্যতার ক্রমবিকাশ এবং প্রযুক্তিগত ভিন্নতায় পানি ব্যবহারের ধরন বদলেছে। তবে সুপেয় পানি প্রাপ্যতার প্রতি হুমকি রয়েই গেছে। বিশ্বের প্রায় ৪০ শতাংশ মানুষ কমবেশি সুপেয় পানি সমস্যায় ভুগছেন।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সরকার জনগণের জন্য নিরাপদ পানি নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যেই বিশেষ সাফল্যের পরিচয় দিয়েছে। এমডিজি’র লক্ষ্য অনুযায়ী ২০১৫ সালের মধ্যে ৮৪ শতাংশ লোকের জন্য নিরাপদ পানির ব্যবস্থা করার লক্ষ্য নির্ধারিত ছিল। ২০১৫ সাল নাগাদ বাংলাদেশের ৮৭ শতাংশ মানুষ নিরাপদ পানি পেয়েছেন। বর্তমানে বাংলাদেশে শহরাঞ্চলে ৯৮ ভাগ মানুষ নিরাপদ পানি পাচ্ছেন।

দেশের ৯৯ শতাংশ মানুষ পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার আওতায় এসেছেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শতভাগ স্বাস্থ্যসম্মত পয়ঃনিষ্কাশনের আওতায় এসেছে ৬১ শতাংশ। উন্মুক্ত স্থানে মলমূত্র ত্যাগের পরিমাণ গত ৮ বছরে উল্লেখযোগ্য হারে কমে গিয়ে বর্তমানে ১ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। ২০০৩ সালেও এর পরিমাণ ছিল ৪২ শতাংশ।

সরকার প্রধান বলেন, শতবর্ষের পরিবর্তনের গতিধারা মাথায় রেখে পানি সম্পদের সমন্বিত ব্যবস্থাপনার জন্য আমার সরকারের যুগান্তকারী উদ্যোগ হচ্ছে ‘বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান’। আমরা ‘হান্ড্রেড ইয়ার বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান (বিডিপি)-২১০০’ হাতে নিয়েছি। এটা একটি দীর্ঘ মেয়াদী সমন্বিত পানি ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা।

তিনি বলেন, শত বর্ষের ডেল্টা পরিকল্পনায় ভূ-প্রাকৃতিক বৈচিত্র ও পানির বৈশিষ্টের ভিন্নতা বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশকে ছয়টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এতে সমতল, পাহাড় ও উপকূলীয় এলাকাগুলোকে ভিন্ন ভিন্ন পরিকল্পনার আওতায় নেওয়া হয়েছে। আমাদের উন্নয়ন সহযোগী ১২টি দেশের সহযোগিতায় ডেল্টা প্লান বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

এলজিআরডি এবং সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাস মাহমুদ, পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক প্রধান সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ বক্তৃতা করেন।

আল আকসায় ফের সংঘর্ষে নিহত ২

আল আকসায় ফের সংঘর্ষে নিহত ২

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: আল আকসা মসজিদকে কেন্দ্র করে ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনী ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে নতুন করে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে অন্তত দুই ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর গাজা, অধিকৃত পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বিবিসি জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হাজার হাজার ফিলিস্তিনি মসজিদে জড়ো হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই নিরাপত্তা বাহিনী ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এতে শতাধিক ফিলিস্তিনি আহত হয়।

গত বৃহস্পতিবার আল আকসা প্রবেশ পথ থেকে ইসরাইল মেটাল ডিটেক্টরসহ সব ধরনের নজরদারি ও নিরাপত্তা উপকরণ সরিয়ে নেয়ার পর বয়কটের ডাক উঠিয়ে নিয়ে ফিলিস্তিনিরা আবার মসজিদে ফিরতে শুরু করে।

শুক্রবার জুমার নামাজের আগে মুসল্লিরা মসজিদ প্রাঙ্গণে জড়ো হতে থাকলে আবারও সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়। জুমার নামাজের পর আবার বিশৃঙ্খলা ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হতে পারে এই আশঙ্কায় শুধু ৫০ বছরের বেশি বয়সি পুরুষ ও সব বয়সের নারীদের মসজিদে প্রবেশের অনুমতি দেয় ইসরাইলি পুলিশ।

ফলে হাজার হাজার ফিলিস্তিনি রাস্তায় নামাজ আদায় করতে বাধ্য হয়। নামাজ শেষে আবার উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এবং নাবলুস, হেবরন, রামাল্লা ও বেথেলহেমের বাইরে ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

'উন্নয়নের মহাসড়কে শুধু পানি আর পানি'

'উন্নয়নের মহাসড়কে শুধু পানি আর পানি'

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: রাজধানীর জলজটের জন্য সরকারের সমালোচনা করে জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ‘সরকার কথায় কথায় বলে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। আমরা তো দেখি এখন মহাসড়কে শুধু পানি আর পানি।’

শনিবার রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে জাপার যৌথ সভায় এসব কথা বলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সভায় বিশেষ অথিথি ছিলেন জাপার সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ। এতে সারাদেশ থেকে আসা কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন।

দেশের সার্বিক পরিস্থিতির জন্য আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে দায়ী করেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ। তিনি বলেন, দেশের সব কিছুতে জট লেগেছে। উন্নয়নে জট, চাকরিতে জট, রাস্তাঘাটে জট, দুনীর্তিতে জট। আওয়ামী লীগ-বিএনপি এ জট লাগিয়েছে। জট খুলতে তিনি আগামী নির্বাচনে জাপাকে ভোট দিতে দেশবাসীকে অনুরোধ করেন।

সংসদে প্রধান বিরোধী দলের আসনে বসলেও সরকারের অংশীদারিত্ব রয়েছে জাপার। দলটির তিনজন নেতা মন্ত্রিসভার সদস্য। এরশাদ যৌথ সভায় দলীয় মন্ত্রীদের উপস্থিতিতেই সরকারের সমালোচনা করেন। সাবেক এ সেনাশাসক দাবি করেন, সরকার যতটা উন্নয়নের প্রচারণা চালাচ্ছে, আদতে ততটা হয়নি।

এরশাদ বলেন, 'সরকার কথা কথায় বলে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। আমরা তো দেখি এখন মহাসড়কে শুধু পানি আর পানি। পানি দিয়ে সরকার কী উন্নয়ন করছে তা তো দেশের মানুষ হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে।'

তিনি বলেন, মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নেই। চারদিকে দুর্নীতি আর সন্ত্রাস। ব্যাংকের টাকা লুট হচ্ছে, কিন্তু সরকার কিছু করছে না। ঢাকা শহর বসবাসের অযোগ্য হয়ে গেছে। চারদিকে অশান্তি। এর থেকে দেশের মানুষকে বাঁচাতে হবে।

গত এপ্রিলের জাপার নেতৃত্বে সম্মিলত জাতীয় জোট (ইউএনএ) নামে ৫৮ দলের ঢাউস একটি জোটের আত্মপ্রকাশ হয়। এরশাদ জানান, জোটের ব্যানারেই আগামী নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবে জাপা। তিনি বলেন, নির্বাচনী প্রস্তুতি হিসেবে আগামী তিন মাস সারা দেশে জাতীয় পার্টি ও জোটের ব্যানারে সভা সমাবেশ হবে। আগামী নভেম্বর মাসে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জোটের পক্ষে মহাসমাবেশ করার ঘোষণা দেন এরশাদ।

যৌথসভায় বক্তৃতা করেন জাপার কো চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু এমপি, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, সালমা ইসলাম এমপি, সৈয়দ আব্দুল মান্নান, রত্না আমিন হাওলাদার এমপি, মীর আবদুস সবুর আসুদ প্রমুখ।

ভোরে মুখোমুখি রিয়াল-বার্সা

ভোরে মুখোমুখি রিয়াল-বার্সা
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপে কাল এল ক্লাসিকো। মুখোমুখি দুই চির-প্রতিদ্বন্দ্বি ক্লাব বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ। যুক্তরাষ্ট্রের হার্ডরক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শুরু হবে ম্যাচ। এদিকে অন্যম্যাচে ভোর ৪টায় ম্যানসিটির প্রতিপক্ষ টটেনহাম।

নতুন মৌসুম শুরুর আগে রিয়াল-বার্সার লড়াই। তাই এই ম্যাচকে ঘিরে ভক্তদের মাঝে রয়েছে বাড়তি উত্তেজনা। ৩৫ বছর পর স্পেনের বাইরে কোথাও মুখোমুখি হচ্ছে রিয়াল ও বার্সেলোনা। স্পেনের বাইরে এটি তাদের দ্বিতীয় এল ক্লাসিকো। ১৯৮২ সালে ভেনিজুয়েলায় মুখোমুখি হয়েছিল এ দুই চির-প্রতিদ্বন্দ্বী। যুক্তরাষ্ট্রে প্রথমবার এল ক্লাসিকো হওয়ায় ধারনা করা হচ্ছে স্টেডিয়ামে ৬৫ হাজারেরও বেশি দর্শকের উপস্থিতি থাকবে।

২০১৬-১৭ মৌসুমে শেষ তিনবারের লড়াইয়ে দু-দলের জয়ের পরিসংখ্যান সমান। তবে ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে এখনও কোর ম্যাচ জেতা হয়নি রিয়ালের। তারওপর মর্যাদার লড়াইয়ে রোনালদোকে পাচ্ছে না রিয়াল। অন্যদিকে চ্যম্পিয়ন্স কাপে টানা দুটি জয় এবং মেসি নেইমরের দুর্দান্ত ফর্ম এগিয়ে রাখছে বার্সাকে।

যুক্তরাষ্ট্র কি উত্তর কোরীয় ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে পারবে?

যুক্তরাষ্ট্র কি উত্তর কোরীয় ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে পারবে?

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: উত্তর কোরিয়া সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর পর দেশটির নেতা কিম জং উন বলেছেন, এই পরীক্ষার মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে যে যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডের পুরোটাই এখন তাদের হামলার আওতায় এসে গেছে।

বিবিসির বিশ্লেষক জোনাথন মার্কাস বলছেন, উত্তর কোরিয়ার এই ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা বা ক্ষমতা যা-ই হোক না কেন- এতে কোন সন্দেহ নেই যে উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তির ক্ষেত্রে অব্যাহতভাবে উন্নতি করে চলেছে। তাদের বরাবরের লক্ষ্য ছিল এমন একটি পারমাণবিক বোমা বহনের ক্ষমতাসম্পন্ন ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করা- যাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেকে একটা হুমকির মুখে ফেলা যায়।

প্রশ্ন হলো: যুক্তরাষ্ট্র কি এরকম একটা আক্রমণ থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারবে?

যুক্তরাষ্ট্রের ওপর আক্রমণ চালাতে হলে উত্তর কোরিয়াকে এমন একটি ছোট আকারের পরমাণু বোমা বানাতে হবে- যা ক্ষেপণাস্ত্রের মাথায় বসানো যাবে এবং তা নির্ভুল ভাবে লক্ষ্যের ওপর নেমে আসতে পারবে। উত্তর কোরিয়া এ ক্ষেত্রে ঠিক কতটা দক্ষ হয়েছে তা এখনো অজানা, কিন্তু সম্ভবত ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট থাকতে থাকতেই তারা এ সক্ষমতা অর্জন করে ফেলবে।

যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যেই ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র থেকে আত্মরক্ষার প্রযুক্তি গড়ে তুলতে বিপুল অর্থ খরচ করেছে। আকাশ জুড়ে তারা একটি উপগ্রহ ব্যবস্থা তৈরি করেছে- যাতে পৃথিবীর যে কোন জায়গায় কোন ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ হলেই তারা তা টের পেয়ে যাবে। এরকম কোন ক্ষেপণাস্ত্রকে মাঝ আকাশে ধ্বংস করে দেবার ব্যবস্থাও এখন সক্রিয় রয়েছে।

কিন্তু সমালোচকরা বলেন, এ ব্যবস্থা খুব একটা নির্ভরযোগ্য নয়। ট্রাম্প প্রশাসন ব্যাপারটি পর্যালোচনা করছে, নতুন ধরণের ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংসকারী অস্ত্র তৈরি করা হচ্ছে। কিন্তু মনে করা হয়, এগুলো সংখ্যায় খুব বেশি হবে না।

১৯৮০র দশকের রুশ-মার্কিন স্নায়ুযুদ্ধের সময়কার তুলনায় সাম্প্রতিককালে প্রযুক্তির উন্নতি ঘটেছে নাটকীয়ভাবে। ইসরায়েল এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ কিছু অগ্রগতি ঘটিয়েছে। তারা মার্কিন সহায়তায় যে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা মোকাবিলার জন্য যে ইন্টারসেপ্টর সিস্টেম এবং রাডার ব্যবস্থা তৈরি করেছে- তা দারুণ কার্যকর বলে দেখা গেছে। কিন্তু একটা পূর্ণমাত্রার আক্রমণের বিরুদ্ধে এটা কতটা কাজ করবে তা এখনো অজানা।

যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় ইন্টারসেপ্টর মিসাইল বসিয়েছে- যা দিয়ে প্রতিপক্ষের নিক্ষিপ্ত ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করা যাবে।

অন্য দিকে মার্কিন কম্যান্ডাররাই স্বীকার করেন যে তাদের নিজেদের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পুরোপুরি নিশ্ছিদ্র নয়। বড় আকারের আক্রমণের মুখে তা ভেঙে পড়তে পারে।

বিশ্লেষকদর মতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে খুব দ্রুতই সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে উত্তর কোরিয়ার ব্যাপারে তিনি কি করবেন। কারণ সময় দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে। বিবিসি

পাওনাদারদের থেকে বাঁচতে চেহারা বদল!

পাওনাদারদের থেকে বাঁচতে চেহারা বদল!

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: এক চীনা নারী বিভিন্ন ভাবে মানুষের কাছে দেনা হয়েছেন আড়াই কোটি ইউয়ান। কিন্তু এটি পরিশোধের জন্য তার কোনো ব্যবস্থা ছিলো না। তাই এ দেনার হাত থেকে বাঁচতে প্লাস্টিক সার্জারি করে নিজের চেহারা বদলে ফেলেছেন ঐ নারী।

এ অদ্ভূত ঘটনাটি ঘটেছে চীনের শেনঝেন শহরে। দিনের পর দিন একাধিক সংস্থা এবং ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা ধার নিচ্ছিলেন ঝু নাজুয়ান নামে ৫৯ বছরের চীনা মহিলা।

দেনার পরিমাণ বেড়েই চলছিল। শেষমেশ সেই পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় ২ কোটি ৫০ লক্ষ ইউয়ানে। বাংলাদেশী টাকায় যার পরিমাণ প্রায় সাড়ে ২৮ কোটি টাকা। আর এই দেনা না দিতে পেরে পাওনাদারদের থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন তিনি।

অবশেষে পাওনাদাররা আদালতের দ্বারস্থ হন। আদালতের তরফে ওই মহিলাকে পাওনাদারদের সমস্ত পাওনা-গণ্ডা মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

এর পর থেকেই ফেরার ছিলেন ওই মহিলা। সম্প্রতি শেনঝেন শহরের পুলিশ তাকে পাকড়াও করে। তবে প্রথমটায় বেশ সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়েছিল তাদের। মুখ বদলে যাওয়ায় ধৃত মহিলাই ঝু নাজুয়ান কি না তা নিয়ে সন্দেহ ছিল। পরে মহিলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়।

ধৃত মহিলা জানিয়েছেন, প্লাস্টিক সার্জারির জন্য অন্যের ব্যাঙ্ক কার্ড ব্যবহার করেছিলেন তিনি। এমনকী পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পালিয়ে পালিয়ে বেড়াতেন। ট্রেনে সফরের জন্য ব্যবহার করতেন অন্যান্য ব্যক্তিদের পরিচয়পত্র।

'আমি যে চেয়ারে বসি সেখানে বৃষ্টির পানি পড়ে'

'আমি যে চেয়ারে বসি সেখানে বৃষ্টির পানি পড়ে'

কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের বর্তমান অবস্থার কথা জানাতে গিয়ে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, 'আমি যে চেয়ারে বসি সেখানে বৃষ্টির পানি পড়ে।' এছাড়া নতুন ভবন নির্মাণ করা না হলে মাঠে বসে বিচারকাজ করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সুপ্রিম কোর্ট অডিটোরিয়ামে আজ বাংলাদেশ মহিলা জজ এসোসিয়েশন আয়োজিত দেশের প্রথম নারী বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানার সম্মাননা অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে উদ্দেশ্য করে প্রধান বিচারপতি বলেন, ''মাননীয় মন্ত্রী আপনাকে বলছি, সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবন ভঙ্গুর অবস্থায় রয়েছে। আমি যে চেয়ারে বসি সেখানে বৃষ্টির পানি পড়ে। নতুন একটা এনেক্স ভবন না করলে মাঠে বসে বিচার কাজ করতে হবে। মাননীয় মন্ত্রী বিচার বিভাগ কিভাবে চলবে?'

তিনি আরো বলেন, নারী বিচারকদের পথ প্রদর্শক হচ্ছেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা। পৃথিবীর যেকোন দেশের চেয়ে আমাদের দেশে নারী বিচারকেরা অগ্রগামী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, 'বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা এ দেশ এবং বিচার বিভাগের ইতিহাসের অংশ। তিনি এদেশের বিচার বিভাগের অহংকার। তাকে অনুসরণ করে অনেক নারী এই পেশায় এসেছেন। আজ তাই দেশে ২৪ শতাংশ নারী বিচারক রয়েছেন।'

অনুষ্ঠানে বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা বলেন, 'আমি আমার বিচারিক জীবনে ন্যায়বিচার করে গেছি। কখনও ইচ্ছাকৃতভাবে কিংবা অবহেলায় ভুল বিচার করিনি।'

নারী বিচারকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'প্রিয় নারী বিচারকেরা মনে রাখবেন বিচারকের জীবন মানেই ন্যায় বিচারের দায়িত্ব কাঁধে নেয়া। আর এই দায়িত্ব পালন করা খুব কঠিন ও পরিশ্রমের।'

অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রধান বিচারপতি ও আইনমন্ত্রীর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে উচ্চ আদালতে নারী বিচারপতির সংখা বাড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

এ অনুষ্ঠানে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ও দেশের নারী বিচারকরা উপস্থিত ছিলেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভাইসহ ৪ বাংলাদেশি নিহত


কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভাইসহ চার বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাতে এই দুর্ঘটনা ঘটে। রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর (শ্রম) সারওয়ার আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা হলেন- রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের দরাপের ডাঙ্গি এলাকার আহেদ ব্যাপারীর ছেলে ইরশাদ ব্যাপারী (২৮) ও হুমায়ুন ব্যাপারী (২৫), ৫নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ উজানচর নাছির মাতব্বর পাড়ার ওসমান খানের ছেলে কুব্বাত খান (২৫) এবং দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের আনসার মাঝি পাড়ার সহের মন্ডলের ছেলে মিরাজ মন্ডল (২২)। জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে একটি গাড়িতে করে নিহতরা কাজের জন্য দাম্মাম থেকে রিয়াদ যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়ে গাড়িটি। এসময় গাড়িতে থাকা কয়েকজন ঘটনাস্থলেই মারা যান এবং আরও কয়েকজন হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান। এর মধ্যে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের চারজন। সূত্র: সিলেট ভিউ।

কানাইঘাটে শুভ প্রতিদিন’র আত্মপ্রকাশ উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাটে দৈনিক শুভ প্রতিদিন’র আত্মপ্রকাশ উপলক্ষে এক আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দ শোভাযাত্রা পরবর্তী শনিবার দুপুর ১২টায় কানাইঘাট ডাকবাংলো হলরুমে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। শুভ প্রতিদিনের পথচলার মঙ্গল কামনা করে আনন্দমূখর এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং স্থানীয় দৈনিক পত্রিকায় কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ। কানাইঘাট বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম খোকনের সভাপতিত্বে ও শুভপ্রতিদিনের কানাইঘাট প্রতিনিধি আলিম উদ্দিন আালিমের পরিচালনায় শুভ প্রতিদিনের আত্মপ্রকাশের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কানাইঘাট পৌরসভার সাবেক মেয়র লুৎফুর রহমান। আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক ও সিলেট জেলা মুক্তিযোাদ্ধা সংসদ কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, সিলেট জেলা বিএনপির সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নুরুল হোসেন বুলবুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক রফিক আহমদ, ২নং লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌধুরী, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক বাবুল আহমদ, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা এডভোকেট আব্দুল খালিক, সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা আব্দুল হেকিম শামীম, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুুরুল হক, কানাইঘাট পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র হাজী আব্দুল মালিক, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক এনামুল হক, সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক এসএম মাহবুবুল আম্বিয়া, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তর/দৈনিক উত্তরপুর্বের কানাইঘাট প্রতিনিধি নিজাম উদ্দিন,কানাইঘাট কবিতা লেখক পরিষদের সভাপতি আব্দুল কাহির, ২নং লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ সমছুল হক, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক খসরুজ্জামান পারভেজ, উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক রুহুল আমিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহফুজ সিদ্দিকী, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নোমান আহমদ রোমান, কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব দেলোয়ার হোসেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক ইকবাল হোসেন, কানাইঘাট পৌর জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সভাপতি মাওলানা আজির উদ্দিন, কানাইঘাট কলেজ ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মাহবুব হোসেন রহমত, উপজেলা ছাত্র জমিয়তের সাবেক সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন, কেন্দ্রীয় জমিয়তে তালাবার সাধারণ সম্পাদক মাও. আসাদ উদ্দিন, বড়চতুল ইউপি জমিয়তে তালাবার সাধারণ সম্পাদক মাও. তারেক রহমান, জাপা নেতা সেলিম উদ্দিন, দৈনিক সবুজ সিলেটের কানাইঘাট প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম, দৈনিক জালালাবাদ পত্রিকার কানাইঘাট প্রতিনিধি শাহিন আহমদ, দৈনিক সন্ধ্যাবানী ও সুরমা মেইল ডট কমের কানাইঘাট প্রতিনিধি মুমিন রশিদ, টিটিভি ডট কমের কানাইঘাট প্রতিনিধি দুদু মিয়া, জকিগঞ্জ-কানাইঘাটের ডাক পত্রিকার কানাইঘাট প্রতিনিধি হাফিজ আহমদ সুজন, সাপ্তাহিক কানাইঘাট বার্তা পত্রিকার স্টাফ রির্পোটার আলী হোসেন জনি প্রমূূখ।

চক্রান্ত করে নির্বাচন বন্ধ করা যাবে না: নাসিম

চক্রান্ত করে নির্বাচন বন্ধ করা যাবে না: নাসিম
কানাইঘাট নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বাংলাদেশের জনগণের উপর আস্থা নেই বলেই বিএনপি এখন নির্বাচন বন্ধের চক্রান্ত শুরু করেছে। আজ শনিবার কাজীপুরের নিশ্চিন্তপুর হাই স্কুল মাঠে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্মিত মনসুরনগর, নাটুয়ারপাড়া এবং নিশ্চিন্তপুর দশ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র উদ্বোধন উপলক্ষে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, কোন চক্রান্ত ষড়যন্ত্র করে জনগণকে বিভ্রান্ত করা যাবে না। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত সময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং তা সংবিধান অনুযায়ী শেখ হাসিনার অধিনেই নির্বাচন হবে। এর কোন বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগকে ভোটের মাধ্যমে পরাজিত করতে পারবেনা বলেই বিএনপি দেশী বিদেশী চক্রান্তের পথে পা দিয়েছে। তাদের এই চক্রান্ত সফল হবে না। এ দেশের জনগণ শান্তি ও উন্নয়নের পক্ষে থাকবে। যে কোন অশুভ শক্তির চক্রান্ত নস্যাত করে দেবে।

দেশের উন্নয়নের ধারা এবং শান্তির রক্ষার জন্য আবারো নৌকা মার্কায় ভোট দিতে দেশবাসীর প্রতি আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বলেন, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলেই কেবল দেশের উন্নয়ন হয়। আর স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশের সম্পদ লুটপাট হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আছে বলেই দেশের সকল সেক্টরে উন্নয়ন হচ্ছে। দুর্গম এই চরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। বিদ্যুৎ, পাকা সড়ক, স্বাস্থ্য সেবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সবই আছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃণমূলের মানুষের কাছে স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেবার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, এই দুর্গম চরাঞ্চলে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে তা পূরণ করা হলো। এ সব কেন্দ্রে ডাক্তার, নার্স এবং প্রয়োজনীয় সকল ওষুধ পাওয়া যাবে। কিন্তু মানুষের সেবা নিশ্চিত করতে হবে। কোন অনিয়ম দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সারোয়ার, এইচইডি’র তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এফ এ মোঃ মুরশিদ, সিভিল সার্জন ডাঃ শেখ মনজুর রহমান, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপপরিচালক মোঃ শাহিন হাসান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। 
সূত্র: বিডি লাইভ।

কানাইঘাট প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রথম বর্ষপূর্তি উদ্‌যাপন


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট পৌর শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত কানাইঘাট প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রথম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে শনিবার সকাল ১১টায় স্কুল মিলনায়তনে এক হয়। স্কুল পরিচালনা কমিটির পরিচালক আলহাজ্ব সিরাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও স্কুলের প্রধান শিক্ষক রাজিব দাস ঝলকের পরিচালনায় উক্ত বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, স্কুলের পরিচালক শাহাব উদ্দিন, অবিভাবক খছরুজ্জামান পারভেজ, ইকবাল হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুল হাফিজ, কামরুল ইসলাম, স্কুলের সহকারী শিক্ষক আজিজুল হক বাবর, খায়রুল ইসলাম, শোয়েব আহমদ, জামাল আহমদ, মনির উদ্দিন, শাহেদুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন, শহিদুর রহমান, ফেরদৌসী বেগম, শিল্পী বেগম, সুমি রানী দাস প্রমূখ। সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ্ব সিরাজ উদ্দিন বলেন ২০১৬ সালের ২৯ জুলাই ১০ জন তরুণ উদ্যোমী শিক্ষক ও এলকার মানুষের সার্বিক সহযোগিতার মধ্য দিয়ে কানাইঘাট প্রি-ক্যাডেট স্কুলের যাত্রা শুরু হয়েছিল। শিক্ষার্থীদের আগামী দিনের সুনাগরিক হিসাবে গড়ে তুলার লক্ষে মান-সম্মত শিক্ষা প্রদান, সর্বপোরী শিক্ষার্থীদের খেলা-ধুলা, বিনোদনের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে এক বছরের মধ্যে এই প্রতিষ্ঠানটি শিক্ষার্থী ও অবিভাবকদের আস্থা অর্জন করেছে। বর্তমানে প্লে-নার্সারী থেকে নমব শ্রেণী পর্যন্ত ৩৯৪ জন শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত রয়েছে। আগামী দিনে স্কুলের সার্বিক শিক্ষা কার্যক্রম এগিয়ে নিতে অবিভাবক সহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন স্কুলের পরিচালক ও শিক্ষক বৃন্দ। অনুষ্ঠান শেষে বর্ষপূর্তির কেক কেটে শিক্ষার্থীসহ সবাইকে আপ্যায়ন করানো হয়।
 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩