Thursday, June 1

কানাইঘাটে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে কর্মসৃজন প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ


নিজস্ব প্রতিবেদক: কানাইঘাট উপজেলার ৯নং রাজাগঞ্জ ইউনিয়নে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসৃজন প্রকল্পে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ না করিয়ে টাকা উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে। ইউনিয়নের সচেতন মহল ও স্থানীয় আওয়ামীলীগের দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন ইউপির কয়েকজন সদস্য কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ সঠিক ভাবে কাজ না করে ব্যাংক থেকে ভুয়া শ্রমিকদের তালিকা তৈরি করে প্রকল্পের অধিকাংশ টাকা আত্মসাত করেছেন। এতে করে ইউনিয়নের কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ইউনিয়নের অধিকাংশ এলাকার মানুষ। গত ৩০ মে মঙ্গলবার কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে ব্যাপক অনিয়ম, দূর্নীতি ও ওয়ার্ডের দরিদ্র শ্রমিকদের দিয়ে কাজ না করে স্কেভেটর দিয়ে ইউপির ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য মিনহাজ উদ্দিন সহ তার সহযোগী ৪ জনের বিরুদ্ধে মাটি ভরাট কাজের অনিয়মের অভিযোগ এনে ৬নং ওয়ার্ডের খালপার গ্রামবাসীর পক্ষে আওয়ামীলীগ নেতা লুৎফুর রহমান, শাহারিয়া, মখলিছুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, গোলাম আলী, শামিম আহমদ, আব্দুলাহ, শাহিন আহমদ, রুবেল আহমদ বতাই, ছুনু মিয়া ও মাছুম আহমদ গংরা একটি লিখিত অভিযোগ কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগমের কাছে দায়ের করেছেন। অভিযোগের অনুলিপি কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কাছে অবহিত ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রদান করা হয়েছে। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে ইউপি সদস্য মিনহাজ উদ্দিন ওয়ার্ডের কর্মসৃজন প্রকল্পের আওতায় বেখবেখী হইতে সরিষার খাল পর্যন্ত রাস্তা ভরাটের কাজ ওয়ার্ডের দরিদ্র শ্রমিক দিয়ে না করিয়ে রাতের আধারে স্কেভেটর দিয়ে কাজ শুরু করেন। এতে ওয়ার্ডের জনসাধারণ বাধা প্রদান করলে তিনি এবং তার সহযোগীরা প্রতিবাদকারীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এছাড়া অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে উক্ত ইউপি সদস্য ২০১৬/১৭ অর্থ বছরে টিআর প্রকল্পের আওতায় খালপার সুরমা ডাইক হইতে দারুস সুনহা শিব্বিরিয়া সুলতানিয়া দাখিল মাদ্রাসার রাস্তায় ৩৮ হাজার টাকা বরাদ্ধের কাজ দেখিয়ে কোন কাজ না করে সমুহ টাকা উত্তোলন করে  আত্মসাত করেছেন। এছাড়া কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ মিনহাজ উদ্দিন তার নিজস্ব লোক দিয়ে লেবার কার্ড তৈরি তাদের মাধ্যমে ব্যাংক হইতে সরকারি অর্থ উত্তোলন করে  আত্মসাত  সহ আরো বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা  আত্মসাত সহ নানা অভিযোগ এনেছেন। এ নিয়ে যে কোন সময় এলাকায় আইন শৃংখলার চরম অবনতি ঘটতে পারে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। তদন্ত পূর্বক উক্ত ইউপি সদস্য ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনআনুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী। এব্যাপারে ইউপি সদস্য মিনহাজ উদ্দিনের সাথে মোবাইল যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমি স্কেভেটর দিয়ে ওয়ার্ডের একটি রাস্তার কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ শুরু করি। এখন শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করা হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ মিথ্যা বলে তিনি দাবী করেন। চাদা না পেয়ে কিছু লোক তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানীর চেষ্টা করছে। রাজাগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ফখরুল ইসলামের তার ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে দূর্নীতির বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ইউপি সদস্য মিনহাজ উদ্দিন স্কেভেটর দিয়ে কাজ করলে আমি বিষয়টি জেনে তাকে এভাবে কাজ না করে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করার জন্য বলেছি। এছাড়া অন্যান্যে ওয়ার্ডে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে কোন অনিয়ম হয়নি বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন

0 comments:

পাঠকের মতামতের জন্য কানাইঘাট নিউজ কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়

নোটিশ :   কানাইঘাট নিউজ ডটকমে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক