কানাইঘাট বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে ড.আহমদ আল কবির

Kanaighat News on Wednesday, October 30, 2013 | 9:40 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক:
বাংলাদেশ রুপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান এনজিও সংস্থা সীমান্তিকের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. আহমদ আল কবির বলেছেন বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে দেশ আজ সব দিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে । আমাদের নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের তথ্যপ্রযুক্তি, জীবন ও বাস্তব ধর্মী  শিক্ষা গ্রহনের মাধ্যমে তাদের গড়ে তুলতে পারলেই বাংলাদেশ অচিরেই বিশ্বের উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিনত হবে। তিনি আরো বলেন আমাদের বিরাট বেকার জনগোষ্ঠী রয়েছে। তাদের কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষিত করতে পারলে দেশে অর্থনৈতিক বিল্পব সৃষ্টি হবে। ড. আহমদ আল কবির আজ বুধবার সকাল ১১টায় কানাইঘাট গাছবাড়ী মডার্ণ একাডেমীর রয়েল ফেয়ার ফান্ডের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন। একাডেমীর ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সমাজ সেবি অলিউর রহমানের সভাপত্বিতে এবং সাবেক ছাত্র নেতা এখলাছুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সীমান্তিক টির্চাস একাডেমীর অধ্য আব্দুর রউফ তফাদার সাবেক উইপি চেয়ারম্যান মাওলানা ফজলে হক সমাজ সেবী এডভোকেট আফসার উদ্দিন, বাসাস সিলেটের ব্যুরো প্রধান মকসুদ আহমদ, মডার্ণ একাডেমীর ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আব্দুল কুদ্দুস, জালাল উদ্দিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মডার্ণ একাডেমীর সিনিয়র প্রধান শিক্ষক আব্দুল মজিদ, সহকারী শিক্ষক আব্দুল হক, একাডেমীর সাবেক ছাত্র নাজিম উদ্দিন, ছাত্র নেতা হামজা হেলাল, শাহরিয়ার বখ্ত সাজু, শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নাজিরা বেগম, মাসুমা বেগম ও মারওয়া আক্তার প্রমূখ। অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি আহমদ আল কবির বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন। তিনি কানাইঘাটের মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভাল ফলা ফলের বৃত্তিতে ভর্তির সুযোগ সীমান্তিকের পরিচালিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেন।

কানাইঘাটে বাদীকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দুর্বৃত্তরা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
 ১৮ দলীয় জোটের ডাকা ৬০ ঘন্টার হরতালের প্রথম দিনে কানাইঘাটে একটি সিএনজি ফোরষ্টোক গাড়ী ভাংচুরের অভিযোগে গাড়ীর চালক বাদী হয়ে জামায়াত শিবিরের ১০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে কানাইঘাট থানায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা করেন। এ ঘটনায় মামলার বাদী কানাইঘাট সদর ইউপির বীরদল ছোটফৌদ গ্রামের মৃত আনিছুল হকের পুত্র উপজেলা শ্রমিকলীগ নেতা জাবেদ আহমদ (২৩) কে এলোপাতাড়ীভাবে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। আহতের আত্মীয় স্বজনরা জানান, জাবেদ আহমদ আজ বুধবার আনুমানিক সন্ধ্যে ৬টায় স্থানীয় বীরদল বাজার থেকে নিজ বাড়ীতে ফিরছিল। এ সময় খালপার রাস্তা দিয়ে আসার পথে অতর্কিতভাবে জামায়াত শিবির কর্মী জামাল, শামীম ও রুবেলের নেতৃত্বে ৮-১০ জনের একটি দল তাঁকে আক্রমন চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে রাস্তায় ফেলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে তার অবস্থা আশংঙ্কা জনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসার পর কর্তব্যরত ডাক্তার জাবেদকে সিলেট ওমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত থানায় কোন মামলা দায়েরের খবর পাওয়া যায় নি। 

হায়দ্রাবাদে চলন্ত বাসে আগুন, নিহত ৪০

ঢাকা : ভারতের অন্ধ্র প্রদেশে রাজধানী হায়দ্রাবাদের কাছে মাহবুবনগরে চলন্ত বাসে আগুন লেগে কমপক্ষে ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাসটি ব্যাঙ্গালুরু থেকে হায়দ্রাবাদ যাচ্ছিল।বুধবার ভোর ৫টা ২০ মিনিটের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
বাসটির তেলের ট্যাঙ্কারে বিস্ফোরণে আগুন লেগে যায় বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। বাসটিতে মোট ৪৯ জন যাত্রী ছিল বলে ধারণা করছে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, একটি গাড়িকে দ্রুতগতিতে ওভারটেক করতে গিয়েই বিপত্তি ঘটে। রাস্তার পাশের কালভার্টে ধাক্কা মারে বাসটি। এসময় আগুন ধরে যায় জ্বালানির ট্যাঙ্কে।
দুর্ঘটনার সময় বাসের অধিকাংশ যাত্রীই ঘুমোচ্ছিলেন। এসি ভলভো বাসটির জানালা বন্ধ থাকায় চেষ্টা করেও বাঁচতে পারেননি যাত্রীরা। তবে বাস চালকসহ সাতজন জানালা ভেঙে বাস থেকে বের হতে পেরেছেন বলে তাৎক্ষণিকভাবে জানা গেছে।
আসন্ন দেওয়ালি উপলক্ষ্যে যাত্রীদের অনেকেই বাড়ি যাচ্ছিলেন। ২০০৮ সালে উত্তর প্রদেশে একটি বাসে আগুন লেগে ৬০ জনেরও বেশি যাত্রী নিহত হন।
ভারতে রাস্তাঘাটের বেহাল দশা, পুরানো যানবাহন ও বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণে প্রায়ই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। সূত্র: জিনিউজ, এনডিটিভি, বিবিসি।

ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান এক বঙ্গসন্তান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিমানবাহিনীর বর্তমান প্রধান এ কে ব্রাউনি অবসর নেবেন ৩১ ডিসেম্বর। তার উত্তরসূরি হিসেবে মঙ্গলবার কলকাতার বাঙালি অরূপ রাহার নাম ঘোষণা করেছে কেন্দ্র।

বর্তমানে বিমানবাহিনীর দ্বিতীয় শীর্ষ পদে (ভাইস চিফ) আসীন অরূপ রাহা নতুন বছরের শুরুতে দাদিত্ব বুঝে নেবেন।
অরূপ রাহার জন্ম কলকাতায়। বাবা ননীগোপাল রাহা ছিলেন চিকিৎসক। আদি বাড়ি বাংলাদেশের যশোহর জেলায়। বাবা-মা দু’জনেরই পড়াশোনা কলকাতায়। বাবা কলকাতা মেডিকেল কলেজের কৃতী ছাত্র। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে বার্মা ফ্রন্টে গিয়ে যুদ্ধে আহত সেনানীদের চিকিৎসা করতে হয়েছিল তাকে। বাবার সেই দিনগুলো ছিল অরূপ রাহার সশস্ত্র বাহিনীতে যোগ দেওয়ার অন্যতম বড় অনুপ্রেরণা।

পুরুলিয়ার সৈনিক স্কুলে ভর্তি হওয়ার পরে চোখের সামনে যখন সিনিয়রদের সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে দেখতেন, তখনই সেই অনুপ্রেরণার সঙ্গে মিশে যায় সংকল্প।
অরূপ রাহা যখন সৈনিক স্কুলের ছাত্র, সেই সময়েই কলকাতা ছেড়ে বৈদ্যবাটিতে গিয়ে পাকাপাকি ভাবে বসবাস শুরু করেন তাঁর বাবা। সৈনিক স্কুল থেকে বেরিয়ে ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি ঘুরে ১৯৭৪ সালের ডিসেম্বরে যুদ্ধবিমানের পাইলট হিসেবে বিমানবাহিনীতে যোগ দিতে অরূপ রাহাকে বেশি বেগ পেতে হয়নি। তিনি কৃতী ছাত্র, বিমানবাহিনীর কোনও পরীক্ষাতেই দ্বিতীয় হননি। প্রায় চার হাজার ঘণ্টা উড়ানের অভিজ্ঞতা রয়েছে এই পাইলটের। এক সময়ে দাপটে উড়িেেছন সব ধরনের মিগ যুদ্ধবিমান।

বৈদ্যবাটির পাট চুকিয়ে এখন কলকাতার বাইপাসের ধারে চলে এসেছে অরূপ রাহার পরিবার। সেখানে অরূপবাবু মা পারুদবী থাকেন ছোট ছেলের সঙ্গে। বছরে বার দুয়েক কলকাতায় আসার সুযোগ হয় অরূপ রাহার।


উল্লেখ্য সেনাপ্রধান হিসেবে এর আগে দুই বঙ্গসন্তানকে পেয়েছে ভারত। তারা হলে জয়ন্তনাথ চৌধুরী এবং শঙ্কর রায়চৌধুরী। ষাটের দশকে একমাত্র বাঙালি নৌপ্রধান হয়েছিলেন অধরকুমার চট্টোপাধ্যায়। বিমানবাহিনীর সর্বোচ্চ পদে অরূপ রাহার একমাত্র বাঙালি পূর্বসূরি সুব্রত মুখোপাধ্যায়। শুধু প্রথম বাঙালিই নন, স্বাধীনতার পর বিমানবাহিনীর প্রথম ভারতীয় প্রধান সুব্রত মুখোপাধ্যায়ই। ১৯৫৪ সালে কার্যভার গ্রহণের পর ১৯৬০-এ আকস্মিক মৃত্যুর আগে পর্যন্ত ওই পদে ছিলেন তিনি।

মনিপুরে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনের কাছে বিস্ফোরণ: নিহত ২, আহত ৭

ঢাকা : ভারতের মনিপুর রাজ্যে আজ বুধবার সকালে এক বোমা বিস্ফোরণে অন্তত দুই জন নিহত ও সাতজন আহত হয়েছে। রাজ্যের রাজধানী ইম্ফলের  মইরাংখোম এলাকায় মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনের কাছে  বোমাটি বিস্ফোরিত হয়।

মনিপুরের মুখ্যমন্ত্রী ওকরাম ইবোবি সিং এ বোমা হামলার লক্ষ্য ছিলেন কি-না সে বিষয়ে এখনো পরিষ্কার তথ্য পাওয়া যায়নি বলে বেসরকারি চ্যানেল জি নিউজ জানিয়েছে।

বোমাটি ঘরে তৈরি এবং কোনো দল বা গোষ্ঠী এখনো এ বিস্ফোরণের দায়িত্ব স্বীকার করেনি।

এ নিয়ে উপর্যপুরি দ্বিতীয় দিনের মতো ইম্ফলে বোমা বিস্ফোরিত হলো। গতকাল ইম্ফলের থানগাল বাজারে ঘরে তৈরি এক বোমার বিস্ফোরণে অন্তত পাঁচ জন আহত হয়। বোমাটি একটি ঠেলাগাড়িতে পাতা ছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ বাজারটি মুখ্যমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে মাত্র এক কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এ এলাকায় অসম ও বিহার রাজ্য থেকে আগত দিনমজুররা কাজের আশায় ভিড় জমায়।

খালেদা জিয়া চাইলে একশবার দাওয়াত দিবো: আশরাফ

ঢাকা : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এলজিআরডি মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া চাইলে তাকে আবারও দাওয়াত দিতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। একবার কেন? একশ’বার দাওয়াত দিতে পারি।তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সংলাপের আমন্ত্রণ বহাল আছে।

আজ বুধবার গণভবেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী জেলাগুলোর আওয়ামী লীগ নেতাদের মতিবিনময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী টেলিফোনে একবার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। এখন বিএনপি আবার আমন্ত্রণ চাচ্ছে। এ সময়, ‘একবার সাধিলে খায় না, আর একবার সাধিলে..’ প্রবাদের উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপির এখন এ অবস্থা হয়েছে।
 
দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতিও উল্লেখ করে আশরাফ বলেন, দুর্বলের সঙ্গে আলোচনায় সন্ধি হয় না। ৩ নভেম্বরের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভায় আমাদের শক্তি দেখাতে হবে। এটি লাঠি কিংবা পেশীশক্তি নয়, সমাবেশে জনসমাগমের শক্তি।

এ সময় দলের কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতাদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহেমদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, মতিয়া চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, মাহবুবউল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, মণৃাল কান্তি দাস, অসীম কুমার উকিল, এম এ আজিজ, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম প্রমুখ।---ডিনিউজ

কূটনীতিক শিষ্টাচার রক্ষায় কূটনীতিকদের প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আহ্বান

ঢাকা: কূটনীতিক শিষ্টাচার রক্ষা করে কাজ করতে বিদেশী রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিকদের আহবান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি। দেশে চলমান রাজনৈতিক অবস্থা সম্পর্কে বিদেশী কূটনীতিকদের কাছে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান তুলে ধরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বুধবার বিকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক বৈঠকে এ সব কথা বলেন তিনি। এ সময় একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকার আন্তরিক বলেও জানান দীপু মনি। --ডিনিউজ

নির্বাচনী এলাকা ভোলা-২: প্রার্থী সংকটে আওয়ামীলীগ


ভোলা : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘীরে চরম ধোয়াশার মধ্যে রয়েছে ভোলা-২(দৌলতখান-বোরহানউদ্দিন) আসনের আওয়ামী কর্মী সমর্থকরা। এখানে আওয়ামী টিকিট নিয়ে কে লড়বেন তা এখনো অজানা নেতা কর্মীদের কাছে। ইতোমধ্যে কয়েকজন নতুন মুখ এলাকায় পোষ্টার সাটিয়ে শুভেচ্ছা জানালেও কর্মীদের কাছে তারা অপরিচিত।
এই আসনের বর্তমান সাংসদ তোফায়েল আহম্মেদ গত ২ বছর আগেই ভোলা-১(সদর) আসন থেকে নির্বাচন করার ঘোষনা দিলে তৈরি হয় এই প্রার্থী সংকট। 
ভোলা-২ আসনের আ’লীগ নেতা কর্মীদের সাথে কথা জানা গেছে এ তথ্য। তাছাড়া এই আসনে আগ্রহী প্রার্থী হয়ে ইতোমধ্যে এলাকায় শুভেচ্ছ পোষ্টার সাটিয়েছেন, ঢাকা মহানগর আ’লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুল কাদের খান, ঢাকা মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগ’র যুগ্ন-সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ হাওলাদার, ব্যবসায়ী হামীম আহম্মেদ তুহিন চৌধুরী।
স্থানীয় আওয়ামী নেতা কর্মীরা আমাদের সময়কে জানান, বাংলাদেশের জম্ম থেকে এই আসনে প্রার্থী ছিলেন তোফায়েল আহম্মেদ। যে কারনে কোন দ্বিতীয় ব্যাক্তি এখান থেকে নির্বাচন করার চিন্তাও করেনি। এবার তিনি ভোলা-১ আসন থেকে নির্বাচন করার ঘোষনা দিলে ভোলা-২ আসনটি মূলত প্রার্থী শূণ্য হয়ে পড়ে। তবে নেতা কর্মীরা এখনো আশাবাদী তোফায়েল আহম্মেদ এই আসন থেকেই নির্বাচন করেবেন। 
নেতা কর্মীরা প্রার্থী সংকটের কথা বললেও এটা মানতে নারাজ নবাগত মুখগুলো। এদের মধ্যে কাদের খান বলেন, তোফায়েল আহম্মেদ অপেক্ষা অন্য প্রার্থীরা তার মত শক্তিশালী নয়। তবে প্রার্থীর কোন সংকট নেই। তিনি চ্যালেঞ্জ করে বলেন, আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিলে আমি আওয়ামীলীগকে সংসদ সদস্য পদ উপহার দেব।   
অন্য দিকে একক প্রার্থী থাকায় অনেক সুবিধা জনক অবস্থানে রয়েছে বিএনপি। মামলা তান্ত্রীক জটিলতা না থাকলে এই আসনের সাবেক সাংসদ হাফিজ ইব্রাহিম প্রার্থী হবেন এই আসনে। তবে আইনি জটিলতা থাকলে জোটের শরিক বিজেপি নেতা নাজিউর রহমান মঞ্জু তনয় আশিকুর রহমান শান্ত নির্বাচন করবেন বলে জানায় দলটির বিশ্বস্ত সূত্র।---ডিনিউজ

রংপুরের বদরগঞ্জে মাইক্রোবাস-রিক্সাভ্যান সংঘর্ষ নিহত ২, আহত ৯

রংপুর : রংপুরের বদরগঞ্জে বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাস ও রিক্সাভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ৯ জন। 
রংপুর-পার্বতীপুর সড়কের বদরগঞ্জ ট্যাক্সেরহাটের ভেলাকোবা নামক স্থানে গতকাল রাত ১১টার দিকে এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন উপজেলার দক্ষিণ মুকসুদপুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের রিক্সাভ্যান চালক আবু তালেব (৩৫), একই এলাকার দক্ষিণ রামনাথপুর হিন্দুপাড়ার প্রবি চন্দ্র রায় (২২)। আহত ৯’জনের মধ্যে সুলতানা(২৩) ও তহুরা বেগম(২৫) কে আশংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বদরগঞ্জ থেকে ছেড়ে যাওয়া (ঢাকা মেট্রো-চ-১৪-০৩৭৬) বরযাত্রীবাহী একটি মাইক্রোবাস বদরগঞ্জ-পার্বতীপুর সড়কের ট্যাক্সেরহাটের ভেলাকোবা নামক স্থানে পৌঁছা মাত্রই অপরদিক থেকে আসা যাত্রীবাহী দু’টি রিক্সাভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এঘটনায় ভ্যানযাত্রী প্রবী চন্দ্র রায় ও ভ্যান চালক আবু তালেব ঘটনাস্থলে মারা যায়। আহতদের মধ্যে সুলতানা ও তহুরা বেগমেকে আশংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।বদরগঞ্জ থানার ওসি জাহিদুর রহমান চৌধুরী সড়ক র্দুঘটনায় দুইজন মারা যাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘাতক মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে যাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।---ডিনিউজ

৩ দিনের হরতালে গফরগাঁওয়ে সবজি চাষীদের ক্ষতি ২০ লাখ টাকা

ময়মনসিংহ : ১৮ দলের ডাকা টানা ৬০ ঘন্টা হরতালে ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন গফরগাঁও উপজেলার কমপক্ষে ২০ হাজার সবজি চাষী। পণ্য পরিবহন করতে না পেরে তারা পানির দরে সবজি বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছেন তারা। বিক্রি না হওয়া কযেক লাখ টাকার সবজি নষ্ট হচ্ছে বলে জানান কৃষকরা। 
জানা যায়, উপজেলায় সবচেয়ে বড় সবজি হাট সালটিয়া কাঁচা বাজার। এ বাজারে প্রতিদিন সকালে উপজেলার চরাঞ্চল সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক হাজার সবজি চাষী  শসা, শিম, টমেটো, গাজর, লালশাক, লাউ, পাটশাক, মুলাসহ বিভিন্ন জাতের প্রায় ৩০/৩৫ টন সবজি নিযে আসে বিক্রির জন্য । সাধারনত রাজধানী ঢাকার পাইকাররা এখান থেকে সবজি কিনে যায়। প্রতিদিন এ বাজারে গড়ে ১০লাখ টাকার সবজি বেচাকেনা হয়। সবজি ভান্ডার হিসেবে পরিচিত চরআলগী ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের ফজলুল হক, জাহাঙ্গীর, নাছির উদ্দিন জানান, চরাঞ্চলের বেশির ভাগ মানুষ সবজি চাষের সাথে জড়িত।  আমরা বাজারে সবজি এনে হরতালের কারনে পানির ধরে বিক্রি করেছি। হরতালের আগে প্রতি কেজি শসা ৩০ টাকা কেজি বিক্রি করলেও গতকাল মঙ্গলবার বিক্রি করেছি ১০ টাকা কেজি ধরে। প্রতি কেজিতে আমাদের লোকসান হয়েছে ২০ টাকা। সালটিয়া কাঁচা বাজারের ইজারাদার আমান উল্লাহ জানান, প্রতিদিন এই সবজি হাট থেকে ঢাকাসহ বিভিন্ন অঞ্চলের পাইকাররা কমপক্ষে ৫ ট্রাক সবজি  চাষীদের কাছ থেকে কিনে যায়। প্রতি ট্রাক সবজির মূল্য ২ লাখ টাকা। গত ৩ দিনে হরতালের কারনে পরিবহন করতে না পারায় এ হাট থেকে এক কেজি সবজিও বাইরের পাইকাররা কিনে নাই। উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, হরতালের কারনে সবজি বিক্রি করতে না পেরে গত ৩ দিনে সবজি চাষীদের আর্থিকভাবে কমপক্ষে  ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।--ডিনিউজ

ময়মনসিংহে স্কুল ছাত্রীকে উত্তক্ত করায় তিন বখাটেকে জেল-জরিমানা

ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের চরাঞ্চলে এক স্কুল ছাত্রীকে উত্তক্ত করায় গণধোলাইয়ের পর ৩ বখাটেকে বিভিন্ন মেয়াদে জেল-জরিমানা প্রদান করেছে ভ্রাহ্মমান আদালত।  
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ময়মনসিংহ সদর উপজেলার জুটমিল হাই স্কুলের ৭ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে চর কালিবাড়ি গ্রামের মজিবুর রহমানের বখাটে পুত্র রাশেদুল, তার সহযোগী বন্ধু রিয়াদ ও কবিরকে সাথে নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। মঙ্গলবার বিকেলে ঐ ছাত্রী স্কুল থেকে আসার পথে বখাটেরা ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করলে এলাকাবাসী ৩ জনকে আটক করে গনধোলাই দেয়। পরে এলাকাবাসী প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করলে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহি ম্যাজিস্ট্যাট সাইফুল ইসলাম বখাটে রাশেদুলকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৭ দিনের কারাদন্ড, রিয়াদ ও কবিরকে ৫ হাজার করে জরিমানা অনাদায়ে ৭ দিনের কারাদন্ডে দন্ডিত করে।---ডিনিউজ

চালু’র দু’মাসের মধ্যে বিকল হয়ে গেছে দু’টি ডেমু ট্রেনের ইঞ্জিন!

দিনাজপুর : চালু হওয়ার দুই মাসের মধ্যে বিকল হয়ে গেছে রেলওয়ের পশ্চিমজোনের পার্বতীপুর-ঠাকুরগাঁও এবং পার্বতীপুর-লালমনিরহাট রেলপথে চলাচলকারী দু’টি ডেমু ট্রেনেরই ইঞ্জিন।এতে বন্ধ রয়েছে এ দু’টি ট্রেন চলাচল।
পার্বতীপুর রেলওয়ে ডিজেল সেডের রক্ষণাবেক্ষণ শাখার প্রকৌশলীরা গত ৫ দিন ধরে ডেমু ট্রেন দু’টির চারটি ইঞ্জিন মেরামতের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন। এজন্য অবশেষে চাইনিজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ‘তাংশান’ এর বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীদের এনে ট্রেনের ইঞ্জিনগুলো মেরামত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।
পার্বতীপুর স্টেশন মাস্টার শেখ আবদুল জব্বার জানান, সম্প্রতি চিন থেকে বহুল আলাচিত ২০ জোড়া ডেমু (ডিজেল ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিট) ট্রেন আমদানি করা হয়। এর মধ্যে রেলের পশ্চিমজোনের পার্বতীপুর-ঠাকুরগাঁও রেলপথে কমিউটার-১ ও পার্বতীপুর-লালমনিরহাট রেলপথে কমিউটার-২ নামে দু’টি ডেমু ট্রেন চালু হয়। ২৭ আগস্ট সন্ধ্যায় পার্বতীপুর রেল স্টেশনে আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রেন দু’টি উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী মজিবুল হক এমপি।
২৮ আগস্ট থেকে দুই দিকে দু’টি ইঞ্জিন ও একটি বগি সম্বলিত ৩শ’ (আসন-১৪৯, দাঁড়িয়ে ১৫১) করে ৬শ’ যাত্রী ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন দু’টি ডেমু ট্রেন চলাচল শুরু করা হয়। এতে ওই দুই রেলপথে চাকরিজীবী যাত্রীদের কর্মস্থলে যাতায়াতে বেশ সুবিধা হয়। কিন্তু চালুর দুই মাস না যেতেই ২৫ অক্টোম্বর দু’টি ট্রেনেরই ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।
পার্বতীপুর ডিজেল ইঞ্জিন সেডের রেল ইঞ্জিন রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত লোকো ফোরম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) আব্দুল মতিন জানান, বিকল হয়ে যাওয়া প্রতিটি ডেমু ট্রেনের উভয় প্রান্তে থাকা (৪৬০ এইচপি + ৪৬০ এইচপি) ৯২০ অশ্বশক্তির চারটি ইঞ্জিন রেলওয়ের নিজস্ব প্রকৗশলীরা ৫দিন ধরে মেরামতের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।
রেলের লালমনিরহাট ডিভিশনের বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক এস এম মুরাদ জানান, ডেমু ট্রেনের বিশেষায়িত ইঞ্জিনগুলো দেশীয় প্রকৌশলীদের দ্বারা মেরামত করা সম্ভব না হওয়ায় নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীদের দিয়ে সেগুলো মেরামতের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।ডেমু ক্রয় চুক্তির শর্ত হিসেবে ক্রয় পরবর্তী দু’বছর পর্যন্ত চাইনিজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তাংশান যাবতীয় সার্ভিসিং সুবিধা প্রদান করবে বলে জানিয়েছে।
তবে কবে নাগাদ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী আসবেন ও কতোদিন পর ট্রেন দু’টি চালু করা সম্ভব হবে তা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।---ডিনিউজ

পিলখানা হত্যা মামলার রায় ৫ নভেম্বর

ঢাকা : বিডিআর বিদ্রোহের সময় পিলখানায় হত্যাকাণ্ডের মামলার রায় ঘোষণার জন্য ৫ নভেম্বর নতুন দিন ঠিক করেছে আদালত। 

আজ বুধবার ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আখতারুজ্জামান রায়ের এ দিন ঠিক করেন।

এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল ও আসামিপক্ষের আইনজীবী শামিম সর্দার এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ২০ অক্টোবর ঢাকার জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাসে আসামিপক্ষের চূড়ান্ত যুক্তিতর্ক শেষে বিচারক রায়ের জন্য ৩০ অক্টোবর ঠিক করেন।

দেশের ফৌজদারি অপরাধের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক অভিযুক্তের মামলা পিলখানা হত্যা মামলার বিচারকাজ শেষ করতে সময় লেগেছে ২৩২ কার্যদিবস।

উল্লেখ, ২০০৯ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি বিডিআর সদরদপ্তর পিলখানা হত্যাযজ্ঞে ৫৭ সেনা কর্মকর্তাসহ নিহত হয় ৭৪ জন। এরইমধ্যে বিজিবি আইনে বিদ্রোহের দায়ে বিশেষ ট্রাইব্যুনালে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের দায়ে অভিযুক্তদের বিচার হচ্ছে প্রচলিত আইনে।---ডিনিউজ

ভিতিকর পরিস্থিতিতে আলোচনা নয়

ঢাকা: ভিতিকর পরিস্থিতিতে সংলাপ করতে সরকার সরকার রাজি নয় বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর। বুধবার বিকালে রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বরে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স ট্রেনিং কমপ্লেক্সে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানি কারক সমিতির (বিজিএমইএ) ৩৫ জন সদস্যকে অগ্নি নির্বাপক ট্রেনিং গ্রহণ শেষে সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে বিরোধীদলের সঙ্গে সরকার আলোচনা করতে চায়। তবে ভিতিকর এই পরিস্থিতিতে সরকার আলোচনার জন্য প্রস্তুত নয়। গণতান্ত্রিক সরকার গণতান্ত্রিকভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে। অগণতান্ত্রিক কারো কাছে সরকার ক্ষমতা দিবে না।

সম্প্রতি ককটেল হামলার বিষয়ে তিনি বলেন, বিরোধীদলের হরতালচলাকালে মন্ত্রী, এমপি, বিচারক, আইনজীবীসহ ভিআইপিদের বাসভবন লক্ষ্য করে বোমা মারা হয়েছে। হামলাকারীদের অনেককেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই এলাকায় বিরোধীদলীয় যে সব নেতারা আছেন তারাই এই বোমা হামলার সঙ্গে জড়িত। বোমা হামলার জন্য তাদেরকেও গ্রেপ্তার করা হবে। যুদ্ধাপারাধীদের বাচাতে ও নিবাচন বানচাল করতে এসব হামলা করা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।---ডিনিউজ

প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতার ফোনালাপ সরকার প্রকাশ করেনি: তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, তিনি বা তার সরকার প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেতার ফোনালাপ প্রকাশ করেননি। কারা এ কাজ করেছে তা প্রশাসনিকভাবে খতিয়ে দেখা হবে এবং তা যদি বেআইনি হয়ে থাকে তবে সরকার সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।বুধবার সকালে চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউটে শান্তি, উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের অভিযাত্রা শীর্ষক এক গণসংলাপে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।---ডিনিউজ

র্নিদলীয় সরকারের দাবি আদায়ে জীবন দিতে প্রস্তুত: গয়েশ্বর

ঢাকা : র্নিদলীয় সরকারের দাবি আদায়ের আন্দোলনে প্রয়োজনে জীবন দিতে প্রস্তুত থাকার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

আজ বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন নামক একটি সংগঠন আয়োজিত অবিলম্বে নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠা এবং তারেক রহমান সম্পর্কে অপপ্রচারের প্রতিবাদে আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

গয়েশ্বর বলেন, যেখানে মুখের কথায় কাজ হয় না,সেখানে হাত পা চালাতে হয়। বর্তমান প্রেক্ষাপটে গবেষণাগারে বসে আলোচনা করে কাজ হবে না।

তিনি বলেন, নির্দলীয় সরকারের অধীন ছাড়া কেবল বিএনপি ও ১৮ দলীয় জোট নয়, দেশের জনগণ নির্বাচনের যাবে না।প্রতিবেশি রাষ্ট্রের সরকারের উদ্দেশ্যে গয়েশ্বর বলেন, আপনারা যদি সত্যিকার অর্থেই এ দেশের বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে দাবি করেন তাহলে আপনাদেরকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, কারো সাথে ব্যক্তিগত সম্পর্ক রাখবেন নাকি জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক রাখবেন। 

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে গয়েশ্বর বলেন, সংলাপ তো করেই ফেলেছেন। ফোনে যা করেছেন, সামনাসামনি তাই করেবেন। আগে নিজেরা আলোচনা করে নির্দলীয় সরকারের ব্যবস্থা করেন।--ডিনিউজ

আইএসআইয়ের টাকায় আন্দোলন করছেন খালেদা জিয়া: আমু

ঢাকা : আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু বলেছেন, আইএসআইয়ের টাকায় আন্দোলন করছেন খালেদা জিয়া। পাকিস্তানিরা চায় না বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ থাকুক। এ জন্য তিনি পাকিস্তানি এজেন্ট হিসেবে কজে করছেন।' 

বুধবার গণভবনে দলীয় বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। 

আমু বলেন, বিরোধীদলের এই আন্দোলন আসলে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার আন্দোলন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়ার ফোনালাপ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'আমাদের নেত্রী বিরোধীদলীয় নেতাকে ফোন করেছিলেন। তিনি (খালেদা জিয়া) যে কথা বলেছেন, তাতে জাতি তাকে তিরষ্কার করছে।'

তিনি আরও বলেন, 'আমাদের নেত্রী তাকে হরতাল প্রত্যাহারের কথা বললেন। আর তিনি বললেন হরতাল প্রত্যাহার করবেন না। বললেন ১৮ দলের সাথে কথা না বলে হরতাল প্রত্যাহার করা যাবে না। আবার বললেন তত্বাবধয়াক নীতিগতভাবে মেনে নিলে হরতাল প্রত্যাহার করেবেন।'

বৈঠকে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, ঢাকা ও আশেপাশের জেলার সংসদ সদস্য এবং নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।---ডিনিউজ

দু’নেত্রীর ফোনালাপ জানা জনগণের অধিকার: আ.লীগ

ঢাকা : প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনালাপে বিরোধীদলীয় নেতার অসৌজন্যমূলক ও শিষ্টাচার বহির্ভূত আচরণ প্রকাশ পাওয়ায় বিএনপির মাথা হেট হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তারা জানান, রাজনীতির এ দুই শীর্ষ নেত্রীর ফোনালাপ জানা জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার। 

আজ বুধবার রাজধানীতে আয়োজিত আলাদা আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তারা।

চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট উত্তরণে সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিরোধীদলের ফোনালাপ গতকাল মঙ্গলবার জনসম্মুখে প্রকাশ পায়। বুধবার ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে এক আলোচনায় বন ও পরিবেশমন্ত্রী হাছান মাহমুদ দুই নেত্রীর ফোনালাপকে রাষ্ট্রীয় সংলাপ অভিহিত করে বলেন, জনগণের তা জানার অধিকার আছে।

আরেক আলোচনায় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, এ ফোনালাপ জনসম্মুখে না আসলে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হত। ফোনালাপে বিএনপি নেত্রীর সৌজন্যের অভাব ছিল বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এছাড়া সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত জানান, আরপিও সংশোধন করতে হলে নির্বাচন কমিশনের মতামত নেওয়ার সাংবিধানিক কোনো নিয়ম নেই। তিনি বলেন, আরপিও সংশোধন সংসদের এখতিয়ার।

কানাইঘাটে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই ৬০ ঘন্টার হরতার শান্তিপূর্ণভাবে পালিত

Kanaighat News on Tuesday, October 29, 2013 | 9:59 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক:
 বিএনপি ও জামায়াত শিবিরের বেশ কিছু নেতাকর্মীদের বাড়ীতে গত সোমবার রাতে পুলিশের ব্যাপক তল্লাশী ফয়েজ উদ্দিন নামে এক জামায়াত কর্মীকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে দেশব্যাপী ১৮ দলীয় জোটের ডাকা টানা ৬০ ঘন্টার হরতালের তৃতীয় দিন কানাইঘাটে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। সকালের দিকে কিছু হরতাল সমর্থনকারী মোশাহীদ সেঁতুর বাই পাস সড়কে পুলিশের একটি পিকআপ লক্ষ্য করে কয়েকটি ঢিল ছুড়লে পুলিশের ধাওয়ায় পালিয়ে যায় তারা। এছাড়া দুপুর ১২টার দিকে মনসুরিয়া মাদ্রাসা পয়েন্টে জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীরা পিকেটিং কালে শ্রমিকলীগকর্মী সেবুল আহমদ কে ব্যাপক মারধর করলে সে পুলিশের পিকআপে উঠে রক্ষা পায়। হরতালের সমর্থনে সাড়ে ১১টায় ১৮দলীয় জোটের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীরা নেতাকর্মীরা পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের সম্মুখ পিকেটিং শেষে পৌর শহরে একটি মিছিল বের করে। মিছিল পরবর্তী পূর্ব বাজারে পৌর বিএনপির সভাপতি ইফজালুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং ছাত্রদলের সভাপতি নজরুল ইসলামের পরিচালনায় পথসভায় বক্তব্য রাখেন পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ফরিদ আহমদ, থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কাউন্সিলর শরীফুল হক, বিএনপি নেতা কাউন্সিলর রহিম উদ্দিন ভরশা, ডাঃ ইয়াকুব, নজরুল ইসলাম, মখলিছুর রহমান, উমর আলী, আব্দুল্লাহ, মনির, সুহেল, জমিয়ত নেতা মাওঃ এবাদুর রহমান, হেলাল আহমদ, খেলাফত মজলিস নেতা শিব্বির আহমদ, মিছবাহুর রহমান, ইসলামী ঐক্যজোট নেতা মাওঃ হাবিব আহমদ, মাওঃ আজির উদ্দিন, কৃষকদল নেতা ফারুক আহমদ, যুবদল নেতা আব্দুল মান্নান, মামুন রশীদ, সাইক আহমদ, সেচ্ছাসেবক দল নেতা মিজানুর রহমান, মোহাম্মদ আলী, ফারুক আহমদ, রাশিদুল হাসান টিটু, শ্রমিকদল নেতা জাকারিয়া, এবাদুর রহমান, আবিদুর রহমান, উলামাদলের সভাপতি মাওঃ কুদরত উল্লাহ, মাওঃ নিজাম উদ্দিন, ছাত্রদল নেতা খছরুজ্জামান, রুহুল আমিন, আমিনুল ইসলাম, আব্দুল বাসিত, দেলোয়ার, কবির উদ্দিন, রাসেল চৌধুরী, তাজুল, রিয়াজ, বদরুল, সুহেল প্রমূখ।

ঘুরে আসুন মালদ্বীপ


ঢাকা: হাজারের বেশি দ্বীপের দেশ মালদ্বীপ৷ তাই পর্যটকদের কাছে ভীষণ প্রিয়৷ কিন্তু এতদিন শুধু টাকা-পয়সাওয়ালা পর্যটকরাই সেখানে যেতে পারতেন৷ বছর কয়েক আগে আইনে সংস্কার আনায় এখন কম খরচে সেখানে যাওয়া যাচ্ছে৷ সার্কের অন্তর্ভুক্ত দেশ মালদ্বীপের আয়ের একটা বড় অংশ আসে পর্যটন খাত থেকে৷ দ্বীপ রাষ্ট্র হওয়ার কারণে পশ্চিমা পর্যটকদের কাছে মালদ্বীপ খুবই আকর্ষণীয়৷ বিশেষ করে পশ্চিমা নবদম্পতিরা সেখানে যেতে খুব পছন্দ করেন৷
 
কিন্তু পশ্চিমা পর্যটক মানেই তাদের বিশেষ কিছু সুবিধা দিতে হয়৷ যেমন অবাধে পানীয় পানের সুযোগ, ইচ্ছামতো পোশাক আশাক পরা, নারী-পুরুষের বিয়ে বহির্ভূত যৌনমিলনের সুযোগ ইত্যাদি৷ কিন্তু এর কোনোটাই মুসলিম দেশ মালদ্বীপের সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়৷
 
তাই আগে পর্যটকদের মনুষ্য বসতি আছে এমন কোনো জায়গায় যেতে দেয়া হতো না৷ রাজধানী মালের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার পর পর্যটকদের স্পিডবোটে বা এয়ার ট্যাক্সিতে করে বিভিন্ন দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হতো৷ সেসব দ্বীপে কোনো বসতি থাকত না৷ ফলে পর্যটকরা যা ইচ্ছা তাই করতে পারতেন৷
 
২০০৯ সালে দেশটিতে অনুষ্ঠিত প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচনে জয়ী হয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর মোহাম্মদ নাশিদ একটি সংস্কার আনেন৷ এর ফলে মালেতে বসবাসকারীরা তাদের ‘গেস্টহাউস' বিদেশি পর্যটকদের কাছে ভাড়া দেয়ার সুযোগ পান৷
 
এতে করে যেটা হয়েছে তা হলো পর্যটকদের আর স্পিডবোট বা এয়ার ট্যাক্সির মতো ব্যয়বহুল যানে চড়তে হচ্ছে না৷ আর রাজধানীতে থাকতে পারার কারণে কম খরচে খাওয়া দাওয়ার সুযোগ পাওয়া যাচ্ছে৷ অথচ আগে এয়ার ট্যাক্সিতে করে যে দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হতো সেখানে মানুষজন না থাকায় খাবারের দাম হতো অনেক বেশি৷
 
একটা উদাহরণ দিলে বিষয়টা আরও পরিষ্কার হবে৷ বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদক জানিয়েছেন, ২৫ বছর বয়সি মালের এক যুবক কদিন আগে একটি গেস্টহাউস চালু করেছেন৷ সেখানে প্রতি রাতের ভাড়া ৩০ ডলার৷ অথচ দ্বীপগুলোতে যে রিসোর্ট রয়েছে সেখানে ভাড়াটা এর চেয়ে প্রায় ১০ গুন বেশি!
 
সুতরাং ভ্রমণপ্রিয় পাঠকরা সময় ও সুযোগ পেলে চলে যেতে পারেন মালদ্বীপে৷ মালদ্বীপের এয়ারলাইন্স ‘মালদিভিয়ান' সপ্তাহে দু'দিন ঢাকা থেকে মালেতে চলাচল করে৷---ডিনিউজ

২/৩ দিনের মধ্যে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা

ঢাকা: আগামীকাল বুধবারের মধ্যে নির্বাচনী আচরণ বিধির খসড়া চুড়ান্ত করা হবে। আচারণবিধি চুড়ান্ত হওয়ার পর দুই তিন দিনের মধ্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। 

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে অবস্থিত নির্বাচন কমিশন সচিবলায়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিব উদ্দিন আহমদ সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনী আচরণবিধির খসড়া প্রায় চ’ড়ান্ত হয়ে গেছে। নির্বাচনী আচরণবিধি চ’ড়ান্ত হওয়ার পর দুই তিন দিনের মধ্যে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করা হবে।

তিনি বলেন, আমরা প্রশাসনে খোঁজ খবর রাখছি, বিতর্কিত কর্মকর্তাদের বিষয়টি দেখবো। ডিসি এসপিসহ প্রশাসনে রববদল করতে হবে এরকম কোন কথা নেই।

আরপিওর বিশেষ ক্ষমতা অনুযায়ী প্রশাসন কর্মকর্তাদের তাৎক্ষণিক বদলিসহ ইসিকে দেয়া ক্ষমতা ব্যবহার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সিইসি বলেন, আমরা অতিশীগ্রই এই ক্ষমতা প্রয়োগ করব। সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারের কাজতো থেমে থাকবে না। তবে তফসিলের পর আমরা কিছু বিষয় নির্দিষ্ট করে দেব কি করা যাবে আর কি করা যাবে না।
আরপিও সংশোধনীতে প্রার্থী হওয়ার জন্য কমপক্ষে তিন বছর রাজনৈতিক দলে থাকার বাধ্যবাধকতা বিলুপ্তির বিষয়ে কমিশনের অবস্থান জানতে চাইলে কাজী রকিব বলেন, এই বিষয়ে আমাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই। আমাদেরকে জানানোও হয়নি। জনগণ যেহেতু ভোট দিয়ে এমপিদের সংসদে পাঠিয়েছে তারা তাদের জ্ঞান বুদ্ধি ও বিবেচনা অনুযায়ী কাজ করেছে। এখানে আমাদের কিছু করার নেই।--ডিনিউজ

পিলখানা হত্যাকাণ্ডের রায় বুধবার হচ্ছে না

ঢাকা : বিডিআর বিদ্রোহের সময় পিলখানায় হত্যাকাণ্ডের মামলার রায় বুধবার হচ্ছে না।

আদালত থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য না থাকলেও এই মামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আইনজীবীসহ অন্যদের সঙ্গে কথা বলে এই আভাস পাওয়া গেছে।

বুধবার এই রায়ের দিন ঠিক থাকলেও নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে বিপুল সংখ্যক আসামিকে কারাগার থেকে বের করে আদালতে নেয়া নিয়ে পুলিশের যথেষ্ট প্রস্তুতি না থাকায় তা হওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দেয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, “আমি শুনেছি, আগামীকাল রায় হচ্ছে না।”

আসামি পক্ষের প্রধান আইনজীবী আমিনুল ইসলামের জিজ্ঞাসায় একই কথা বলেন।

রাষ্ট্রপক্ষে প্রধান আইনজীবী আনিসুল হক বলেন, “রায় লেখা শেষ না হওয়ায় আগামীকাল রায় হচ্ছে না বলে আমি শুনেছি।”---ডিনিউজ

কুতুবদিয়ায় পুলিশের গুলিতে নিহত ৩, আহত অর্ধশত

কক্সবাজার : কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলার ধুরুং বাজারে পুলিশ ও বিজিবির গুলিতে ২ জামায়াত কর্মী  ও ১ টেইলার্স কর্মী (দর্জি) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৫জন গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধুরুং বাজারে সমাবেশের আয়োজন করে জামায়াত। মাগরিবের নামাজের সময় পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা মঞ্চ দখলে নেয়। এক পর্যায়ে নেতাকর্মীদের সংর্ঘে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এতে উত্তর থুরুং ইউনিয়নের জামায়াত কর্মী আবু আহমদ, লেমশাখালী ইউনিয়নের আজিজুর রহমান এবং টেইলার্স কর্মী পারভেজ(২৬) নিহত হন।উপজেলা জামায়াতর সেক্রেটারি শাহরিয়ার চৌধুরী এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।--ডিনিউজ

৪৫ বছর ধরে সাংস্কৃতিক আন্দোলনে উদীচী

ঢাকা : আজ ২৯ অক্টোবর ৪৫বছর পূর্ন করেছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী। ১৯৬৮ সালের এই দিনে প্রতিষ্ঠিত হয় লড়াই, সংগ্রাম আর বাংলাদেশের গণসাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অন্যতম ধারক-বাহক এই সংগঠনটি।
 
পাকিস্তানের শাসন শোষণের বিরুদ্ধে যখন বাংলার আপামর মানুষ ফুঁসে উঠছিল, একটি কালজয়ী গণঅভ্যুত্থান যখন উঁকি ঝুঁকি মারছে, ঠিক তেমন একটি সময়ে শিল্পী-সংগ্রামী, বিশিষ্ট সাংবাদিক, ঔপন্যাসিক, কৃষক নেতা সত্যেন সেনের নেতৃত্বে ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী।
 
সত্যেন সেনের সাথে উদীচী প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন সাংবাদিক ও সাহিত্যিক রণেশ দাশগুপ্তসহ সেই সময়ে বাংলাদেশের শিল্প-সাহিত্য ও সংস্কৃতি জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্ররা।
 
এদিকে উদীচী’র ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে উদীচীর বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল থেকেই নানা রঙে রঙ্গীন শোভাযাত্রা। এছাড়াও উদীচীর শিল্পীরা পরিবেশন করেছেগণসঙ্গীত, পথনাটক, আবৃত্তি ও নৃত্য।
 
সেই থেকে আজও
জন্মলগ্ন থেকেই উদীচী নানা দুঃখ-দুর্দশা এবং অধিকার সম্পর্কে মানুষকে গণসঙ্গীতের মাধ্যমে সচেতন করে আসছে। উদীচীর গণসঙ্গীতের মধ্য দিয়ে বারবার ধ্বনিত প্রতিধ্বনিত হয়েছে কৃষকের ভাতের দাবি, শ্রমিকের শ্রমের ন্যায্য দাবির কথা।
 
আন্তর্জাতিক সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসনের বিরোধীতা করার পাশাপাশি দেশীয় দখলদার-মজুতদার-মুনাফাখোর, কালোবাজারীরা যখনই বিনষ্ট করতে চেয়েছে দেশের সম্মান, আপন স্বার্থে বিকিয়ে দিতে চেয়েছে দেশের সম্পদ তখনও তার বিরুদ্ধে গণমানুষের প্রতিনিধিত্বকারী উদীচী’র শিল্পীরা গেয়ে উঠেছে গণসঙ্গীত। উজ্জীবিত হয়েছে সাধারণ মানুষ। পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে স্বার্থান্বেষী মহল। বিভিন্ন সময়ে দেশের তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ পাচার, সাম্প্রদায়িকতা, শিক্ষার বাণিজ্যিকীকরণ ও বৈষম্যমূলক শিক্ষাব্যবস্থার অসারতাকে ব্যঙ্গ করে বারবারই সোচ্চার হয়েছে উদীচী।
 
গণসঙ্গীতের আরও বেশি বিস্তার ঘটানো, গণসঙ্গীত যাতে আরো বেশি শ্রমজীবী মানুষকে উজ্জীবিত করতে পারে, তার অধিকার সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে পারে, শোষণ-বঞ্চনার বিরুদ্ধে শিল্পীরা যাতে এসকল বঞ্চিত-নিপীড়িত-শোষিত মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াতে পারে সে লক্ষ্যে উদীচী ধারাবাহিকভাবে কাজ করে চলেছে। গণসঙ্গীতকে স্বতন্ত্র একটি ধারা হিসেবে টিকিয়ে রাখতেও নানা ধারাবাহিক উদ্যোগ নিয়ে চলেছে উদীচী।
 
শুধু গণসঙ্গীত নয়, বাংলাদেশের পথনাটকের ক্ষেত্রেও উদীচীই পথিকৃৎ। ১৯৬৯’র ২০ জানুয়ারি ছাত্রনেতা আসাদ স্বৈরাচারী আইয়ুব শাহীর পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার প্রতিবাদে দেশবাসীকে জাগিয়ে তোলার উদ্দেশ্যে উদীচী ঢাকা নগর ও শ্রমিক অঞ্চলে ‘শপথ নিলাম’ নামে পথনাটক পরিবেশন করে।
 
অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই ঢাকার বিভিন্ন অঞ্চলে এই পথনাটক মঞ্চস্থ হয় এবং গণঅভ্যূত্থানে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে। এরপরই জহির রায়হানের “পোস্টার” গল্পের নাট্যরূপ দিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ অন্যান্য স্থানে পথনাটক মঞ্চস্থ করা হয়।
 
রাজনৈতিক নানা ঘটনাপ্রবাহের সাথে যুক্ত থাকার পাশাপাশি দেশের প্রতিটি ঝড়-ঝঞ্ঝা-দৈব-দুর্বিপাকে, আন্দোলনে-সংগ্রামে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে উদীচী। ১৯৭১-এ মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় রাইফেল হাতে সরাসরি যুদ্ধে নামে উদীচীর শিল্পীকর্মীরা।
 
দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তারা অস্ত্র জমা দিয়ে আবার হাতে তুলে নেয় ঢোল, করতাল, হারমোনিয়াম, তবলা, নাটকের পাণ্ডুলিপি। দেশ গড়ার সংগ্রামে আর সবার মত শরীক হয় উদীচীর শিল্পীকর্মীরাও।---কামাল শাহরিয়ার

ডিনিউজ

কুমিল্লায় সংঘর্ষের ঘটনায় ১৭২৯ জনকে আসামী করে মামলা


কুমিল্লা: কুমিল্লায় হরতালের দ্বিতীয় দিনে সহিংসতার ঘটনায় কোতয়ালী মডেল থানা ও দেবীদ্বার থানায় গতকাল মঙ্গলবার পৃথক ৫টি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এতে ১২৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও ১৬’শ জনকে আসামী করা হয়। 
সোমবারের হরতালে দেবীদ্বারে পুলিশের গাড়ী ভাংচুর ও সরকারী কাজে বাধাঁ প্রদানের অভিযোগে করা মামলায় ৭৯জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরো ১৪’শ জনকে আসামী করা হয়। এতে সোমবার রাতে ৫ জনকে আটক করেছে দেবীদ্বার থানা পুলিশ। 
এছাড়াও সোমবার নগরীর কান্দিরপাড় রামঘাটলা ও চকবাজারের সংঘর্ষের  ঘটনায় ১৮ দলীয় জোট নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ২ টি করে ৪টি মামলা হয়েছে। এতে ৫০ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ২শ থেকে আড়াইশ জন অজ্ঞাতনামাকে আসামী করা হয়েছে। এ মামলায় সোমবারের আটক ৯ জনকে আসামী দেখানো হয়েছে। ---ডিনিউজ

রাজশাহীতে যুবদল কর্মীকে কুপিয়ে জখম : আটক ৪


রাজশাহী: রাজশাহী নগরীতে ডিস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে সিজার (২৮) নামে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) কর্মচারি ও য্বুদল কর্মী সিজারকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। আহত সিজার নগরীর তেরখাদিয়া এলাকার আসমত আলীর ছেলে। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে নগরীর নতুন বিলশিমলা বন্ধগেইট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চার জনকে আটক করেছে পুলিশ।
রামেক হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ এসআই উত্তম কুৃমার সাহা জানান, সিজারের তার মাথা ও ডান পায়ের উরুসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখম করা হয়েছে। তবে বর্তমানে তিনি আশংকামুক্ত।
রাসিক’র ১৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর টুটুল জানান, সকাল সোয়া ১০টার দিকে নগরীর বন্ধগেইট এলাকায় স্থানীয় সন্ত্রাসী মিলনের নেতৃত্বে ৩-৪ জনের একটি দল সিজারকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে নেয়া হয়। তিনি বলেন, ডিস ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দীর্ঘ দিন ধরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও ডিস ব্যবসায়ী আল মামুনের সাথে সিজারের বিরোধ চলে আসছিলো। এরই জের ধরে সকালে আল মামুনের লোকজন সিজারকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে। 
নগরীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম রেজাউল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চার জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।--ডিনিউজ

রাজশাহীতে হরতালের শেষ দিনে সংঘর্ষ পুলিশসহ আহত ১৩


রাজশাহী: রাজশাহীতে হরতাল চলাকালে টায়ারে আগুণ জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ ও পিকেটারদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। নগরীতে সংঘর্ষে এক সাংবাদিকসহ অন্তত: পাঁচজন আহত হয়েছে। চারঘাটে বিএনপি নেতা কর্মীদের হামলায় দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এছাড়া, আওয়ামীলীগ ও বিএনপি সমর্থকদের সংঘর্ষে ৬জন আহত হয়েছেন। নগরীতে পিকেটিং এর দায়ে গতকাল ২৬ জনকে আটক করা হয়েছে।   
মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে রাজশাহী কলেজ থেকে হরতালের সমর্থণে বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা। মিছিলটি সোনাদিঘী মোড়ে পৌছলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ বাধে। এসময় হরতাল সমর্থকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। বেশ কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল ছুড়ে। এসময় দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার রাজশাহী ব্যুরো প্রধান ড. সরদার এম আনিছুর রহমানসহ অন্তত ৫জন আহত হন। সকাল সোয়া ৮টার দিকে নগরীর কাজলা এলাকায় টায়ারে আগুণ জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে শিবির। পুলিশ সেখানে গেলে শিবির কর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে শিবির কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এর আগে কাদিরগঞ্জ এলাকায় বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে হরতাল সমর্থণে বিক্ষোভ মিছিল ও পথসভা করেছে ১৮ দল।  
এদিকে, বেলা ১১টার দিকে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলা সদরে বিএনপি নেতা কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশের এসআই আলাউদ্দিন ও কনস্টেবল আরমান আলী আহত হন। দুপুরে উপজেলার বামনদিঘী এলাকায় আওয়ামীলীগ ও বিএনপি সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে বিএনপির ৫ জন এবং আওয়ামী লীগের ১ জন কর্মী আহত হয়। ---ডিনিউজ

সহিংসতায় সারাদেশে নিহত ১১

ঢাকা : ১৮ দলের ডাকা টানা ৬০ ঘণ্টার হরতালে সারাদেশে তিন দিনে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশের বিভিন্নস্থানে হরতাল সমর্থক ও আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী এবং ক্ষমতাসীনদল ও বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

রোববার হরতালের প্রথম দিনে পাবনার মুলাডুলিতে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সংঘর্ষে শিবিরকর্মী জুলহাস উদ্দিন মুন্নাফ (৩৫), যশোরে বিএনপি-জামায়াতের হামলায় নওয়াপাড়া পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন শিমুল (৩৫), ফরিদপুরে বিএনপি ও পুলিশের সংঘর্ষে যুবদল কর্মী মারুফ হোসেন (৩৮), পিরোজপুরে জিয়ানগরের বানিয়ায় যুবলীগকর্মী স্বপন শীল (২৫) ও চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে যুবলীগ নেতা মোসলেম উদ্দিন (৩৬) নিহত হন।

এর মধ্যে যুবলীগ কর্মী স্বপন শীলকে শিবিরকর্মীরা বাড়ি থেকে টেনে হিঁচড়ে বের করে পিটিয়ে মেরে ফেলে। পেটানোর আগে তার পায়ের রগ কাটা হয়। জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা সীতাকুণ্ডের মোসলেম উদ্দিনকে পিটিয়ে হত্যা করে।

হরতালের দ্বিতীয় দিন সোমবার দেশের বিভিন্নস্থানে সংঘর্ষে ৫ জনের মৃত্যু হয়। এসব সহিংস ঘটনায় আহত হন পুলিশসহ শতাধিক নেতাকর্মী।

জামালপুরের ইসলামপুরে রামভদ্রা বাজারে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের সংঘর্ষে শাহাদাত (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হন। চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে পিকেটারের ঢিলের আঘাতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে পড়ে চালক মো. ওয়াসিম (৩০) নিহত হন।

হরিণাকুণ্ডুর দখলপুর বাজারে বোমা হামলায় ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবুল হোসেনকে (৪৫) আহত করা হয়। পরে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে হাসেন আলী (৩৫) নামে বিএনপি কর্মী নিহত হন। চাঁদপুর সদর উপজেলার পুরানবাজার এলাকায় পুলিশের গুলিতে ছাত্রদলকর্মী আরজু (১৬) নিহত হয়।

হরতালের শেষ দিনে মঙ্গলবার মাগুরার মোহাম্মদপুরের ধোয়াইলবাজারে বিএনপি-আওয়ামী লীগের মধ্যে সংঘর্ষে মারুফ (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। এসময় বিএনপির নয় কর্মী গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১৫ জন আহত হন।---ডিনিউজ

নজরদারি কার্যক্রমের পূনর্মূল্যায়ন নির্দেশ দিলেন বারাক ওবামা

ঢাকা : মিত্রদেশগুলোর সমালোচনার মুখে, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা নজরদারি কার্যক্রমের পূনর্মূল্যায়নের নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। একটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেয়া সাক্ষাতকারে তিনি এও স্বীকার করেছেন, জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা বা এনএসএ’র কাছে থাকা সব তথ্য শেষ পর্যন্ত তাঁর কাছেই এসে পৌঁছায়।

গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর যোগাড় করা কোন তথ্যই প্রেসিডেন্ট ওবামার কাছে অজানা থাকেনা। ফিউশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাতকারে নিজেই বিষয়টি পরিষ্কার করলেন তিনি।

ওবামা বলেন, জাতীয় নিরাপত্তাসংস্থাগুলোর কাজের উদ্দেশ্য একটাই, আর সেটা হলো আমেরিকার জনগনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। যাতে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি, সেজন্যে তাদের সংগ্রহ করা সব তথ্যেরই সর্বশেষ ব্যবহারকারী আমি।

ওবামা আরো জানান, হোয়াইট হাউসের কাছ থেকে নীতিগত নির্দেশনা এলেও, দক্ষতা বাড়াতে নিজেদের মতো করেই কাজ করে মার্কিন গোয়েন্দাসংস্থাগুলো।

এদিকে, মিত্রদেশগুলোর ওপর গোয়েন্দা নজরদারির বিষয়টির একটা ফয়সালা না হলে, যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আস্থার সম্পর্ক আর ফিরে আসবেনা বলেই মনে করছেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্যরা। এ বিষয়ে ওবামা প্রশাসনের ব্যাখা শুনতে ওয়াশিংটন সফর করছেন তাঁরা।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির প্রধান বলেন, আবারো বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে হবে। আমাদের জানতে হবে কেন এরকম বিশাল পরিসরে,গণ নজরদারির ঘটনা ঘটেছে।

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গিলা মের্কেলের টেলিফোনে আড়ি পাতা, স্পেনের লাখ লাখ মানুষের টেলিফোন, ইমেইল এমনকি মোবাইলের এসএম এসএর ওপর নজরদারি, এসবই এখন অধিকাংশ আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের শিরোনাম। সাবেক সিআইএ সদস্য এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করা তথ্যের কারণেই মিত্রদেশগুলোর সামনে এমন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছে ওবামা প্রশাসন।

রেডিও রাশিয়ার জন্মদিন আজ

ঢাকা : বিশ্বের একটি বৃহত্তম রেডিও সম্প্রচার কোম্পানী “রেডিও রাশিয়ার” আজ জন্মদিন। ১৯২৯ সালের ২৯শে অক্টোবর বিদেশের শ্রোতারা প্রথমবার শুনতে পেয়েছিলেন মস্কো থেকে প্রচারিত রেডিওর আহ্বান সঙ্গীত। এই ভাবেই বিশ্বে শুরু হয়েছিল প্রথম আন্তর্জাতিক রেডিও সম্প্রচারের। তার কাজ ছিল বিদেশীদের সোভিয়েত দেশ সম্বন্ধে জানানো। প্রথম প্রচার করা হয়েছিল জার্মান ভাষায়। আর ঠিক তার পরেই বিদেশে ফরাসী ও ইংরাজী ভাষায় মস্কো থেকে প্রচারিত অনুষ্ঠান শুনতে পাওয়া গিয়েছিল।

প্রথমে এই রেডিও কোম্পানীর নাম দেওয়া হয়েছিল “মস্কো রেডিও”। পরে তার নাম পাল্টে রাখা হয়েছে “রেডিও রাশিয়া”। দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক রেডিও, “বিবিসি” – এর তিন বছর পরেই শুরু করেছিল প্রচার। আর “ভয়েস অফ আমেরিকা” – ৭ বছর পরে।

আশি বছরেরও বেশী সময়ের মধ্যে অনেক কিছুই পাল্টে গিয়েছে। আজ ইন্টারনেট ও ডিজিট্যাল সম্প্রচারের ফলে বিভিন্ন দেশের মানুষরা শুধু আমাদের অনুষ্ঠান শুনতেই পাচ্ছেন না, আমাদের ভিডিও প্রচার দেখতেও পাচ্ছেন আর রেডিও স্টেশনের সঙ্গে খুবই ঘনিষ্ঠ ও নিরন্তর আলোচনাতেই মগ্ন হতে পেরেছেন, এই কথা “রেডিও রাশিয়ার” জন্মদিন উপলক্ষে আমাদের রেডিও স্টেশনকে অভিনন্দন জানিয়ে উল্লেখ করেছেন রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষের সদস্য ভিয়াচেস্লাভ নিকোনভ। তিনি বলেছেন:

“রেডিও রাশিয়া” “ধ্বনিত হয়” বিশ্বের বিভিন্ন মানুষের ভাষায়, বিভিন্ন জাতির মানুষের কাছে পৌঁছে দেয় রাশিয়ার খবর, বিশ্বের ঘটনা ও তার ব্যাখ্যা, যা প্রায়ই অন্যান্য সংবাদ মাধ্যম থেকে পাওয়া যায় না। তাই অবশ্যই “রেডিও রাশিয়া” এক খুবই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে থাকে”।

আজ “রেডিও রাশিয়ার” অনুষ্ঠান শোনা যেতে পারে বিশ্বের ৩৩টি ভাষায় মোবাইল টেলিফোনেই, আর ইন্টারনেটে ৩৯টি ভাষায়. আশি লক্ষের বেশী মানুষ আমাদের রেডিও স্টেশনের সঙ্গে সামাজিক সাইটে বন্ধুত্ব স্থাপন করেছেন।

সামাজিক গবেষণা করে দেখা গিয়েছে যে, এই রেডিও স্টেশন বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় নানা ধরনের পেশা ও বয়সের প্রায় ১০ কোটিরও বেশী মানুষ শুনে থাকেন।

আজ “রেডিও রাশিয়া” বিশ্বের প্রথম পাঁচটি সবচেয়ে বড় রেডিও স্টেশনের মধ্যে একটি. এই সম্প্রচার করা হয়ে থাকে বিশ্বের ১৬০টি দেশে। শর্ট ও মিডিয়াম ওয়েভ লেন্থে, এফএম রেডিও তরঙ্গে, উপগ্রহ মারফত পাঠানো তরঙ্গেও। প্রত্যেক দিনে – প্রচার করা হয়ে থাকে বিভিন্ন ভাষায় ১৭০ ঘন্টারও বেশী সময়ে অনুষ্ঠান। তাতে প্রতি সপ্তাহেই ইতিহাস, সংস্কৃতি, রাশিয়ার আভ্যন্তরীণ ও পররাষ্ট্র নীতির কথা বলা হয়ে থাকে প্রায় দেড় হাজার অডিও, ভিডিও ও লেখা অবস্থায় থাকা বিভিন্ন অনুষ্ঠান দিয়ে। “রেডিও রাশিয়া” সব সময়েই বিভিন্ন দৃষ্টিকোণের জন্য মঞ্চ হয়ে রয়েছে। রাশিয়া – এক উন্মুক্ত ও স্বাধীন দেশ আর “রেডিও রাশিয়া” সারা বিশ্বের শ্রোতাদের জন্যই সব সময়ে খোলা রয়েছে।

বিএনপিই সংলাপ চায় না: জয়

ঢাকা : প্রধানমন্ত্রীর টেলিফোনে আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে হরতাল কর্মসূচিতে অনড় থাকার সমালোচনা করে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, বিএনপি সংলাপ চায় না বলেই এমনটি করেছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে জয় বলেন, “বিএনপি সংলাপে আসতে চায় না বলেই নানা রকম ছুতা দেখিয়ে যাচ্ছে। তারা সংলাপে আসবে এমন আশা করলেও কোনো লক্ষণ তো দেখছি না।”

প্রধানমন্ত্রী হরতাল তুলে নিয়ে সোমবার গণভবনে বিরোধী নেত্রীকে আমন্ত্রণ জানান। তবে হরতাল প্রত্যাহার সম্ভব নয় জানিয়ে তিন দিনের এই কর্মসূচির পর সংলাপের আমন্ত্রণ গ্রহণ করতে রাজি আছেন বলে জানান খালেদা।

দুই নেত্রীর ওই আলাপের পর তাদের মধ্যে সংলাপ অব্যাহত রাখতে রাজনৈতিক, ব্যবসায়ী, কূটনীতিক মহলের চাওয়ার মধ্যে নতুন করে আলোচনায় উদ্যোগ নেয়ার জন্য দুই দল পরস্পরকে আহ্বান জানাচ্ছে।

হরতালে বোমা হামলার ঘটনা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী তনয় বলেন, “আমরা চেয়েছিলাম সংলাপের মাধ্যমে সমঝোতা হোক। কিন্তু বিএনপি তো সন্ত্রাস করছে। তাদের বোমাবাজি খুবই দুঃখজনক।”--ডিনিউজ

এরশাদের প্রেস সেক্রেটারিকে অব্যাহতি

ঢাকা : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রেস ও পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভ রায়কে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। জাতীয় পার্টির অফিসের এক সহকারিকে দিয়ে অব্যহতিপত্র সুনীলের বাসায় পাঠানো হয়।জাপা সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। 

তবে এখন পর্যন্ত অফিসিয়ালি জানানো হয়নি এ তথ্য। এ বিষয়ে জানতে চাইলে আপাতত কথা বলতে রাজি হননি দলটির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার। 

এদিকে শুনীলের ব্যক্তিগত ফোনে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।---ডিনিউজ

তারেক-এ আপত্তি কর্নেল অলির

ঢাকা: বিএনপিতে থাকতে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিলেন কর্নেল অলি আহমেদ (অব.)। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকেও কটাক্ষ করে বক্তৃতা-বিবৃতি দিয়েছেন চারদলীয় জোট ক্ষমতায় থাকতে। এখন তাঁর দল লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের শরিক হলেও তারেক রহমানকে মেনে নিতে প্রবল আপত্তি রয়ে গেছে অলি আহমেদের। বিএনপির সঙ্গে জোটে থাকলেও তারেক রহমানকে কিছুতেই মানতে পারছেন না তিনি। এমনকি জিয়াউর রহমান, বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক মতাদর্শের সঙ্গেও একমত হতে পারছেন না সাবেক এই বিএনপি নেতা। এনিয়ে ১৮ দল ও বিএনপিতে ভেতরে ভেতরে সমালোচনার অন্ত নেই। এছাড়া জোট শরিকের অনেকেই এসব কারণে অলি আহমেদের ওপর চরম অসন্তুষ্ট বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

এলডিপির ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, জোটগত বিভিন্ন কর্মসূচিতে জিয়াউর রহমান, বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবিসহ ব্যানার টানানো, পোস্টার ছাপানোতে প্রকাশ্যে বাধা দেন অলি আহমেদ। এনিয়ে দলের নেতাকর্মীদের কোণঠাসাও করে রাখেন তিনি। গত ২৬ অক্টোবর এলডিপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান অতিথি ছিলেন। ওই অনুষ্ঠানের জন্য আগে থেকেই ব্যানারও তৈরি ছিল। যেখানে খালেদা জিয়ার ছবি থাকায় সেটি বাতিল করে তাৎক্ষণিক ঢাকা মহানগর এলডিপির সভাপতি খালেদ সাইফুল্লাকে দিয়ে নিজের ছবিযুক্ত ব্যানার ঝুলিয়ে দেন অলি আহমেদ। বিষয়টি তখন আঁচ করতে পেরেছিলেন মির্জা ফখরুল। এছাড়া গত ৩০ মে মৃত্যুবার্ষিকীতে এবং ১৯ জানুয়ারি জন্মবার্ষিকীতে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিস্থলে এলডিপি নেতারা যাওয়ার উদ্যোগ নিলেও অলি আহমেদের বিরোধিতার মুখে তা  আর হয়ে উঠেনি।

সূত্র জানায়, রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলে বিএনপির সঙ্গে জোটে গেলেও মানসিকভাবে এখনও জিয়া পরিবারের বিরোধিতা থেকে সরে আসতে পারেননি কর্নেল অলি (অব.)। যে কারণে গত রমজান মাসে লন্ডনে চিকিৎসাধীন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সুস্থতা কামনা করে এলডিপির দোয়া মাহফিল নিয়েও নিজের ক্ষোভের কথা ঘনিষ্ঠদের কাছে বলেছেন অলি আহমেদ। তিনি বলেন, ‘আমি দলের চেয়ারম্যান। দোয়া করলে আমার জন্য করা যায়। কিন্তু তারেক রহমানের মতো একজন দুর্নীতিবাজের জন্য দোয়ার আয়োজন মেনে নেয়ার মতো না।’ ওই ঘটনার পর এলডিপির নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতা অলি আহমেদের ওপর চরমভাবে ক্ষুব্ধ হয়েছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলডিপির শীর্ষস্থানীয় এক নেতা বলেন, বিএনপির সঙ্গে জোটে গেলেও বেগম জিয়া, তারেক রহমানকে কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না অলি আহমেদ। এমনকি জোটগত কর্মসূচিতেও বিএনপি চেয়ারপারসন ও তারেক রহমানের ছবি ব্যবহার করার ব্যাপারে ঘোর আপত্তি দেখান তিনি। সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহালের দাবিতে ২০১১ সালে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়ার লংমার্চের আগে কুমিল্লার চান্দিনা এলাকায় এক জনসভা মঞ্চে জিয়াউর রহমান, বেগম জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি থাকায় দ্রুত বক্তৃতা দিয়ে ওই জায়গা ছেড়ে যান তিনি। যা তখন জোট নেতারা ভালভাবে নেননি।

এলডিপির ওই নেতা বলেন, অলি আহমেদের এমন জিয়া পরিবার বিদ্বেষী মনোভাব বিএনপি নেতারা ভাল চোখে দেখছেন না। তার ওপর ইতিপূর্বে তিনি বিএনপিতে থাকা অবস্থায় তারেক রহমান সম্পর্কে যাচ্ছেতাই বলেছেন। বিএনপি চেয়ারপারসনকে জড়িয়েও বক্তৃতা দিয়েছেন তিনি। এসব কারণে আগে থেকেই বিএনপির নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের অনেকে তাকে ভাল চোখে দেখেন না। এ পরিস্থিতিতে বিএনপি বিরোধী তার এ অবস্থান ভবিষ্যতে জোটগত সম্পর্ক অটুট রাখার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে।

এর আগে চারদলীয় জোট ক্ষমতায় থাকতে অলি আহমেদ খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান সম্পর্কে বলেছিলেন, ‘অনেকেই বলে থাকেন অমুক ভালো-ছেলে খারাপ। আমি বলি দুটোই বদমাশ। মা-বাবা ভালো হলে ছেলেমেয়েও ভালো হওয়ার কথা।’ তার এ বক্তব্যে ওই সময় বিএনপির ভেতরে-বাইরে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি করেছিল। যদিও পরবর্তীতে তিনি এ কথা বিএনপি চেয়ারপারসনকে উদ্দেশ্য করে বলেননি বলে দাবি করেছিলেন। এছাড়া তারেক রহমানকে ‘অর্বাচীন’ বলেও আখ্যায়িত করেছিলেন। খালেদা জিয়াকে বলেছিলেন-‘চোরের মার বড় গলা।’

বিএনপিতে থেকে দলের হাইকমান্ড ও তাঁর পরিবারের বিরোধিতা করে প্রকাশ্যে কথা বলাকে ভালভাবে নেয়নি দলটি নেতাকর্মীরা। পরে তোপের মুখে বিএনপি থেকে বেরিয়ে এসে বিকল্প ধারার চেয়ারম্যান বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে কর্নেল অলি আহমেদ (অব.) গড়ে তোলেন এলডিপি। কিন্তু শেষতক তাতেও ভাঙন লাগে। বদরুদ্দোজা চৌধুরী বিকল্প ধারায় ফিরে গেলে এলডিপিতে একা হয়ে পড়েন অলি।

এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য অলি আহমেদের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।-ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকম
 
 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩