কানাইঘাটে ইলিয়াছ মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের বিশাল জনসভা অনুষ্ঠিত

Kanaighat News on Tuesday, October 30, 2012 | 11:44 PM

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
সিলেট জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য দিলদার হোসেন সেলিম বলেছেন, রাষ্ট্রপরিচালনায় এ সরকারের সীমাহীন ব্যর্থতা, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, গুম, হত্যা, নির্যাতন নিপীড়ন ও দেশের স্বার্থ বিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে বলিষ্ট ভূমিকা পালন করায় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম. ইলিয়াছ আলীকে এ সরকার সাড়ে ৬ মাস ধরে গুম করে রেখেছে। আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে এ সরকারকে মতা থেকে বিতাড়িত করে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যালেটের মাধ্যমে দেশপ্রেমিক সরকার গঠন করে সিলেটের কোটি মানুষের প্রিয় নেতা এম. ইলিয়াছ আলীকে মুক্ত করে আনা হবে। দিলদার হোসেন সেলিম আজ মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট ডাকবাংলো মাঠে ইলিয়াছ আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদ কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর শাখার যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ যাবতকালের সর্ববৃহৎ জনসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উপজেলা ইলিয়াস মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক চাকসুর সাবেক আপ্যায়ন সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুনের সভাপতিত্বে ও উপজেলা ও পৌর ইলিয়াস মুক্তি পরিষদের সচিব অধ্যাপক ফরিদ আহমদ ও পৌর কাউন্সিলার শরীফুল হকের যৌথ পরিচালনায় জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল গফফার বলেন, টিপাইমুখ বাঁেধর বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকা পালন করায় এবং বৃহত্তর সিলেটের নেতৃত্ব শূন্যতা করার জন্য এম. ইলিয়াছ আলীকে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রকারীরা গুম করে রেখেছে। সিলেটবাসী আজ জেগে উঠেছে। যেকোন আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে তাদের প্রিয় নেতা এম. ইলিয়াছ আলীকে মুক্ত করে আনবে। জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো বক্তব্য রাখেন- ইলিয়াস মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ও জেলা বিএনপির সহসভাপতি শেখ মখন মিয়া চেয়ারম্যান, সদস্য সচিব ও জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এটিএম ফয়েজ, জেলা বিএনপির সহসভাপতি সোনা মিয়া মেম্বার, মুজাহিদ আলী, কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মামুন রশিদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক নাজিম উদ্দিন লস্কর, যুগ্ম আহবায়ক আরীফ ইকবাল নেহাল, জেলা যুবদলের সহসভাপতি সুদিপ্ত রঞ্জন সেন বাবু, জেলা উলামা দলের সভাপতি আজিজ ইবনে মুছব্বির। এ ছাড়া বক্তব্য রাখেন, কানাইঘাট পৌর বিএনপি’র সভাপতি হাজী ইফজালুর রহমান, বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদ চৌধুরী, সাহাব উদ্দিন চেয়াম্যান, ডাঃ মানিক মিয়া চেয়াম্যান, সমশের আলম চেয়াম্যান, সাবেক চেয়াম্যান আব্দুল হামিদ, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম বিএ, ইলিয়াছ আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের কানাইঘাট শাখার যুগ্ম আহবায়ক হাজী জসিম উদ্দিন, গোলাম মোস্তফা, শাহজাহান সেলিম বুলবুল, আব্দুর রাজ্জাক, জামাল উদ্দিন, ডাঃ ইয়াকুব আলী, ১৮ দলীয় ঐক্যজোটের সদস্য সচিব মুফতি এবাদুর রহমান, উপজেলা যুবদল সভাপতি এম.এ.মান্নান, ছাত্রদল সভাপতি নজরুল ইসলাম, পৌর ছাত্রদল সভাপতি রুহুল আমিন, কলেজ ছাত্রদল সভাপতি আমিনুল ইসলাম, শ্রমিকদল সভাপতি জাকারিয়া, স্বেচ্ছাসেবকদল সভাপতি নাজিম উদ্দিন, পৌর সভাপতি মিজানুর রহমান, পৌর যুবদল সভাপতি জসিম উদ্দিন প্রমুখ। জনসভার শুরুর পূর্বে কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর বিএনপি শ্রমিকদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, উলামাদল, ছাত্রদল ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন ইউনিট থেকে মিছিল নিয়ে জনসভায় যোগদান করেন।



আঘাত হেনেছে স্যান্ডি : জনজীবন বিপর্যস্ত, নিহত ১১

ঘূর্ণিঝড় স্যান্ডি মঙ্গলবার ভোররাতে যুক্তরাষ্টে আঘাত হেনেছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে পূর্ব উপকূলের কয়েকটি রাজ্যে ঝড়ো হাওয়াসহ প্রবল বর্ষণ দেখা দিয়েছে। আটলান্টিক সিটির রাস্তার বন্যার পানি উঠে গেছে। ম্যাানহাটনের নিম্নাঞ্চলে বন্যার কারণে বিদ্যুত্ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। সাবওয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। এসব রাজ্যে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।
পশ্চিম ভার্জিনিয়া, নর্থ ক্যারোলিনা এবং কানেকটিকাটে ১১ জন মারা যাওয়ার কথা জানানো হয়েছে সিএনএন এর অনলাইনে। তবে স্যান্ডি মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকার কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।
ম্যানহাটন সিটির মেয়র লরেঞ্জো লংফোর্ড সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেছেন, শহরের উত্তর অংশে সমুদ্র উপকূল থেকে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বন্যার পানি উঠে গেছে। বিদ্যুত্ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, ঘোষণা দেয়া হলেও এখনো অনেক মানুষ ম্যানহাটনের নিম্নাঞ্চলে রয়ে গেছে। তারা এই মুহূর্তে সেখান থেকে বের হতে গেলেও সমস্যা। পরিস্থিতি শান্ত হওয়া পর্যন্ত তাদেরকে অপেক্ষা করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
ম্যানহাটন শহরের পুলিশ প্রধান জানিয়েছেন, শহরের উত্তর অংশের পুরো অংশেই পানি উঠে গেছে। এসব জায়গায় পানি উঠে যাওয়ায় রীতিমত আতঙ্ক তৈরি হয়েছে এখানকার মানুষের মধ্যে।
নিউইয়র্ক শহরের ম্যানহাটনের নিম্ন্ঞ্চলের ব্যাটারি পার্কের বাধ ছাপিয়ে পানি প্রবেশ করেছে। ১৪ উচ্চতা ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে শহর।
জাতীয় হারিকেন সেন্টার জানায়, সোমবার সকাল থেকেই শক্তিশালী রূপ নিয়ে আটলান্টিক সিটির ২০৫ মাইল দক্ষিণপূর্ব এবং নিউ ইয়র্কের ২৬০ মাইল দক্ষিণ-দক্ষিণপূর্ব দিক থেকে ধেয়ে আসে ঝড়টি। ঘণ্টায় ৯০ মাইল বেগে উত্তর-পশ্চিমে অগ্রসর হয়ে উপকূলে আঘাত হানে।আবাহাওয়াবিদরা বলছেন, ২৪ থেকে ৩৬ ঘন্টা ধরে ১২ টি রাজ্যে এ ঝড় স্থায়ী হতে পারে। এর প্রভাবে ১০ ইঞ্চি পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে। ২৪ ইঞ্চি তুষারপাতের আশঙ্কা করছেন তারা।
এর আগে গতকাল সোমবার জনগণকে স্যান্ডির ব্যাপারে হুঁশিয়ার করে দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছিলেন, এটা বড় আর ভয়ঙ্কর ধরনের ঘূর্ণিঝড়।
বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আজ মঙ্গলবারও ট্রেডিং ফ্লোর বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় নিউ ইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ। এর আগে ১৯৮৫ সালে ঘূর্ণিঝড় গ্লোরিয়ার কারণে এই স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন বন্ধ রাখা হয়েছিল।
স্যান্ডির কারণে নিউইয়র্ক, নিউ জার্সি, পেনসিলভেনিয়া, ওয়াশিংটন, ডেলওয়ারে, কানেকটিকাট ও বস্টন বিমানবন্দরে গত দুই দিনে প্রায় ৬ হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে, যার মধ্যে ৩ হাজারেরও বেশি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট রয়েছে।
আগামী ৬ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও স্যান্ডি বড় ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা। ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং রিপাবলিকান দলের প্রার্থী মিট রমনি দুজনেই তাদের বেশকিছু নির্বাচনী প্রচারণা আপাতত বন্ধ রেখেছেন।ফেয়ার নিউজ





বীর মুক্তিযোদ্ধা (অব. সেনা কর্মকর্তা) ফরিদ আর নেই

নিজস্ব প্রতিবদেক :

সেনাবাহিনীর অবঃ লেন্স নায়ক কানাইঘাট পৌরসভার নন্দিরাই গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন তাঁর নিজ বাড়ীতে দীর্ঘদিন ধরে রোগ ভোগের পর গত রোববার ভোর ৫টায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহ................. রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। তাঁর মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। ঐদিন বাদ জোহর নন্দিরাই জামে মসজিদে নামাযে জানাজা শেষে পারিবারিক গুরুস্থানে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁকে সমাহিত করা হয়। জানাজায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল হক সহ তাঁর সহকর্মী ছাড়াও প্রশাসনের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সরিক হন। বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন ১৯৭১ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কর্মরত থাকা অবস্থায় দেশমাতৃকার ডাকে সাড়া দিয়ে মহান মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করে সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাক সেনাদের সাথে সম্মুখ যুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। এ বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন, জেলা আ’লীগের সিনিয়র সদস্য জমির উদ্দিন প্রধান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, কানাইঘাট পৌর সভার মেয়র লুৎফুর রহমান, সদর ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্য সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি চাকসুর আপ্পায়ন সম্পাদক মামুনুর রশিদ, কানাইঘাট প্রেসকাবের সভাপতি এম.এ.হান্নান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার আফতাব উদ্দিন প্রমুখ।





ইলিয়াস মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে কানাইঘাটের জনসভাকে সফল করার জন্য বিভিন্ন স্থানে প্রচার মিছিল অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবদেক:
এম. ইলিয়াস আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে কাল মঙ্গলবার বেলা ২টায় কানাইঘাট ডাক বাংলো মাঠে আয়োজিত জনসভা সফলের ল্েয কানাইঘাট উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের যৌথ উদ্যোগে আজ সোমবার বাদ আসর কানাইঘাট বাজার সহ বিভিন্ন স্থানে প্রচার মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজকের জনসভাকে সফল করার ল্েয গতকাল বিএনপি শ্রমিকদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, উলামাদল, ছাত্রদল ও ইলিয়াস মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে কানাইঘাট বাজার, গাছবাড়ী বাজার, সড়কের বাজার, সুরাইঘাট বাজার, চতুল বাজার, বড়দেশ বাজার, বুরহান উদ্দিন বাজার, সীমার বাজার, রাজাগঞ্জ বাজার, মুলাগুল নয়াবাজার, মন্তাজগঞ্জ বাজার, আটগ্রাম বাজারে পৃথক প্রচার মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। কানাইঘাট বাজারে প্রচার মিছিল শেষে পূর্ব বাজারে আয়োজিত সভায় বক্তব্য রাখেন, কানাইঘাট পৌর বিএনপি’র সভাপতি ইফজালুর রহমান, থানা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল হক, পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ফরিদ আহমদ, বিএনপি নেতা অধ্যাপক এবাদুর রহমান, ডাঃ ইয়াকুব আলী, ঢাকা সেন্টার ল-কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল হান্নান, থানা যুবদলের আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান, স্বেচ্ছাসেবকদলের সিনিয়র যুগ্ম আহমদ ফারুক আহমদ, থানা ছাত্রদলের সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম শাহীন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মিজানুর রহমান রাশিদুল হাসান টিটু, জালাল আহমদ জনী, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আম্বিয়া, কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি আমিনুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক করিম চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া ইলিয়াস আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের কানাইঘাট উপজেলা শাখার আহ্বায়ক মামুন রশিদ মামুন গত এক সপ্তাহ ধরে জনসভাকে সফল করার বিভিন্ন স্থানে সভা সমাবেশ অব্যাহত রেখেছিলেন।

কানাইঘাটের বিশিষ্ট মুরব্বী হাজী আজিজুর রহমানের ইন্তেকাল

কানাইঘাটের বিশিষ্ট মুরব্বী পৌরসভার সুতার গ্রাম গ্রাম নিবাসী জেলা সিভিল সার্জন অফিসের অফিস সহকারী আমিনুর রশিদের পিতা হাজীঃ আজিজুর রহমান (আজই) বার্ধক্য জনিত রোগ ভোগের পর গত শনিবার পবিত্র ঈদু-উল-আযহার দিনে সকাল ১১টায় নিজ বাড়ীতে ইন্তেকাল করিয়াছেন (ইন্নালিল্লাহ .......................রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর। তিনি ৫ছেলে ৫মেয়ে স্ত্রী নাত-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। ঐদিন বাদ আসর সুতার গ্রাম জামে মসজিদে আজিজুর রহমানের জানাজার নামাযের পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাজায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ শরীক হন। এদিকে সিভিল সার্জন অফিসের সহকারী আমিনুর রশিদের পিতা সমাজসেবী আজিজুর রহমানের মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ও মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আ’লীগের আহ্বায়ক লুৎফুর রহমান, কানাইঘাট সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্য সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নিজাম উদ্দিন আল মিজান, বিএনপি’র সভাপতি মামুনুর রশিদ, সদর ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান মামুন রশিদ, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এডভোকেট মামুন রশিদ, পৌর আ’লীগের আহ্বায়ক জামাল উদ্দিন, কানাইঘাট প্রেসকাবের সভাপতি এম.এ.হান্নান, দপ্তর সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, বীরদল এন.এম একাডেমীর সহকারী প্রধান শিক্ষক কলামিষ্ট মহিউদ্দিন কানাইঘাট নিউজ সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, প্রমুখ।



ধেয়ে আসছে স্যান্ডি, যুক্তরাষ্ট্রের পাঁচ অঙ্গরাজ্যে জরুরি অবস্থা

Kanaighat News on Sunday, October 28, 2012 | 11:49 PM

ডেস্ক নিউজ,২৮ অক্টোবর:যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলের দিকে ধেয়ে যাচ্ছে শক্তিশালী হারিকেন ‘স্যান্ডি’। এরই মধ্যে কয়েকটি উপকূলবর্তী রাজ্যে তীব্র ঝড়ো হাওয়া বইছে। ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় স্যান্ডি স্থানীয় সময় সোমবার ফ্লোরিডা ও ওহাইওতে আঘাত হানতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে।স্যান্ডির আশঙ্কায় উপকূলীয় এলাকা থেকে বহু মানুষকে নিরাপদ অবস্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।এদিকে, ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটার বেগে ধেয়ে আসা এই ঝড় মোকাবিলায় রাজধানী ওয়াশিংটন, নিউইয়র্ক, প্যানসিলভ্যানিয়া, ভার্জিনিয়া, ম্যারিল্যান্ড এবং উপকূলীয় কাউন্টি নর্থ ক্যারোলিনায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। তবে এর গতিবেগ আরো বাড়ছে বলে জানায় আবহাওয়া কর্মকর্তারা। এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও প্রভাব ফেলেছে হারিকেন স্যান্ডি। দুই প্রার্থী তাদের সফরসূচিতে পরিবর্তন এনেছেন। রমনি ইতোমধ্যে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্য ভার্জিনিয়ায় তার সফর বাতিল করেছেন।মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা জরুরি বৈঠক করে শক্তিশালী এই ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের। সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনকে নিয়ে তিনি হোয়াইট হাউসে বসে ঝড়ের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করছেন।তীব্র শীতের মধ্যে ঝড়ো হাওয়া অব্যাহত থাকলে মাত্র নয় দিন পর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ব্যাহত হতে পারে বলে অনেকে আশঙ্কা করছেন।গত সপ্তাহে হারিকেন স্যান্ডির আঘাতে জ্যামাইকা, হাইতি, কিউবা, বাহামাসহ ক্যারিবীয় অঞ্চলে প্রায় ৬০ ব্যক্তি প্রাণ হারায়। এছাড়া এসব দেশে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালায় স্যান্ডি।

বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানের ৪১তম শাহাদৎবার্ষিকী আজ

রোববার ২৮ অক্টোবর বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানের ৪১তম শাহাদৎবার্ষিকী। ১৯৭১ সালের এই দিনে মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার ধলই সীমান্তের চৌকি এলাকায় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ হন তিনি।
যুদ্ধে অসামান্য বীরত্বের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাঁকে বীরশ্রেষ্ঠ উপাধিতে ভূষিত করে। মাত্র ১৮ বছর বয়সে শহীদ হওয়া হামিদুর রহমান সাত জন বীরশ্রেষ্ঠ পদকপ্রাপ্ত শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ।
জন্ম ও শিক্ষাজীবন
মোহাম্মদ হামিদুর রহমান জন্ম ১৯৫৩ সালের ২ ফেব্রুয়ারি যশোর জেলার (বর্তমানে ঝিনাইদহ জেলা) মহেশপুর উপজেলার খোরদা খালিশপুর গ্রামে। তার পিতার নাম আব্বাস আলী মন্ডল এবং মায়ের নাম মোসাম্মাৎ কায়সুন্নেসা। শৈশবে তিনি খালিশপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পরবর্তীকালে স্থানীয় নাইট স্কুলে সামান্য লেখাপড়া করেন।
কর্মজীবন
১৯৭০ সালে হামিদুর যোগ দেন সেনাবাহিনীতে সিপাহী পদে৷ তার প্রথম ও শেষ ইউনিট ছিল ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট৷ সেনাবাহিনীতে ভর্তির পরই প্রশিক্ষণের জন্য তাকে পাঠানো হলো চট্টগ্রামের ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট সেন্টারে৷ ২৫ মার্চের রাতে চট্টগ্রামের ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট ওখানকার আরও কয়েকটি ইউনিটের সমন্বয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয়৷
মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকা
১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আক্রমণের মুখে চাকরিস্থল থেকে নিজ গ্রামে চলে আসেন। বাড়িতে একদিন থেকে পরদিনই মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেওয়ার জন্য চলে যান সিলেট জেলার শ্রীমঙ্গল থানার ধলই চা বাগানের পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত ধলই বর্ডার আউটপোস্টে। তিনি ৪ নম্বর সেক্টরে যুদ্ধ করেন।
১৯৭১ সালের অক্টোবর মাসে হামিদুর রহমান প্রথম ইস্টবেঙ্গলের সি কোম্পানির হয়ে ধলই সীমান্তের ফাঁড়ি দখল করার অভিযানে অংশ নেন। ভোর চারটায় মুক্তিবাহিনী লক্ষ্যস্থলের কাছে পৌঁছে অবস্থান নেয়। সামনে দু প্লাটুন ও পেছনে এক প্লাটুন সৈন্য অবস্থান নিয়ে অগ্রসর হতে থাকে শত্রু অভিমুখে। শত্রু অবস্থানের কাছাকাছি এলে একটি মাইন বিস্ফোরিত হয়। মুক্তিবাহিনী সীমান্ত ফাঁড়ির খুব কাছে পৌছে গেলেও ফাঁড়ির দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্ত হতে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর মেশিনগানের গুলিবর্ষণের জন্য আর অগ্রসর হতে পারছিল না।
অক্টোবরের ২৮ তারিখে প্রথম ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট ও পাকিস্তান বাহিনীর ৩০এ ফ্রন্টিয়ার রেজিমেন্টের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ বাধে। ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ১২৫ জন মুক্তিযোদ্ধা যুদ্ধে অংশ নেন। মুক্তিবাহিনী পাকিস্তান বাহিনীর মেশিনগান পোস্টে গ্রেনেড হামলার সিদ্ধান্ত নেয়। গ্রেনেড ছোড়ার দায়িত্ব দেয়া হয় হামিদুর রহমানকে। তিনি পাহাড়ি খালের মধ্য দিয়ে বুকে হেঁটে গ্রেনেড নিয়ে আক্রমণ শুরু করেন। দুটি গ্রেনেড সফলভাবে মেশিনগান পোস্টে আঘাত হানে, কিন্তু তার পরপরই হামিদুর রহমান গুলিবিদ্ধ হন।
সে অবস্থাতেই তিনি মেশিনগান পোস্টে গিয়ে সেখানকার দুই জন পাকিস্তানী সৈন্যের সাথে হাতাহাতি যুদ্ধ শুরু করেন। এভাবে আক্রমণের মাধ্যমে হামিদুর রহমান এক সময় মেশিনগান পোস্টকে অকার্যকর করে দিতে সক্ষম হন। এই সুযোগে ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের মুক্তিযোদ্ধারা বিপুল উদ্যমে এগিয়ে যান, এবং শত্রু পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে পরাস্ত করে সীমানা ফাঁড়িটি দখল করতে সমর্থ হন। কিন্তু হামিদুর রহমান বিজয়ের স্বাদ আস্বাদন করতে পারেননি, ফাঁড়ি দখলের পরে মুক্তিযোদ্ধারা শহীদ হামিদুর রহমানের লাশ উদ্ধার করেন।
হামিদুর রহমানের মৃতদেহ সীমান্তের অল্প দূরে ভারতীয় ভূখন্ডে ত্রিপুরা রাজ্যের হাতিমেরছড়া গ্রামের স্থানীয় এক পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়। নীচু স্থানে অবস্থিত কবরটি এক সময় পানির তলায় তলিয়ে যায়।
২০০৭ সালের ২৭ অক্টোবর বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকার হামিদুর রহমানের দেহ বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেয়। সেই অনুযায়ী ২০০৭ সালের ১০ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ রাইফেলসের একটি দল ত্রিপুরা সীমান্তে হামিদুর রহমানের দেহাবশেষ গ্রহণ করে, এবং যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে কুমিল্লার বিবিরহাট সীমান্ত দিয়ে শহীদের দেহাবশেষ বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়। ১১ ডিসেম্বর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানকে ঢাকার বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়।
পুরস্কার ও সম্মাননা
মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক পদক বীরশ্রেষ্ঠ পদক দেয়া হয় সিপাহী হামিদুর রহমানকে। এছাড়া তার নিজের গ্রাম 'খোর্দ খালিশপুর'-এর নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় হামিদনগর৷ এই গ্রামে তার নামে রয়েছে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়৷ ঝিনাইদহ সদরে রয়েছে একটি স্টেডিয়াম৷ ১৯৯৯ সালে খালিশপুর বাজারে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে একটি কলেজ ৷ স্বাধীনতার ৩৬ বছর পর এই শহীদের স্মৃতি রক্ষার্থে তার গ্রামে লাইব্রেরি ও স্মৃতি জাদুঘর নির্মাণের কাজ শুরু করেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়৷ ১২ জুন ২০০৭ সালে এই কলেজ প্রাঙ্গণে ৬২ লাখ ৯০ হাজার টাকা ব্যয়ে শুরু হয় এই নির্মাণ কাজ৷
বার্তা২৪ ডটনেট



কানাইঘাটে ১ দিনব্যাপী মিনি ফুটসাল টুর্নামেন্ট আগামী ৩১ অক্টোবর

কানাইঘাটে সুরমা ভয়েজ কাব কর্তৃক আয়োজিত ১ দিনব্যাপী দিবারাত্রী মিনি ফুটসাল টুর্ণামেন্ট আগামী ৩১ অক্টোবর গাছবাড়ী আইডিয়্যাল কলেজ মাঠে অনুষ্টিত হবে।

খেলার নিয়মাবলি

বাংলাদেশের মিনিবার প্রচলিত নিয়মানুযায়ী খেলা চলবে।

<>< খেলা চলাকালীন সময়ে রেফারীর সিদ্বান্ত বলে গণ্য চলবে।

<>< সর্ব সময়ে কমিটির সিদ্বান্ত চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

<>< খেলা সকাল ৮-৩০ ঘটিকার সময়ে আরম্ভ হবে।

<>< নির্দিষ্ট সমযের ২০ মিনিট আগে মাঠে আসতে হবে।

<>< প্রত্যেক দলের ৬ জন খেলওয়াড় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

<>< প্রত্যেক দলের নিজ নিজ বল বোট ও জারসি নিয়ে আসতে হবে।

খেলায় পুরষ্কার হিসেবে ১ম পুরষ্কার ১টি ১৪ ইঞ্চি রঙ্গিন টেলিভিশন,২য় পুরষ্কার ১টি ১৪ ইঞ্চি সাদা কালো টেলিভিশন এছাড়াও ভালো খেলোয়াড়দের জন্য আকর্ষনীয় বিশেষ পুরষ্কার রয়েছে।

খেলায় এন্ট্রি ফি ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এন্ট্রি ফি জমা দেওয়ার স্থান মা-ট্রেডার্স,এবি রেষ্টুরেন্ট গাছবাড়ী বাজার।

কানাইঘাটে ঈদের জামাতে ইমামের মৃত্যু

Kanaighat News on Saturday, October 27, 2012 | 3:57 PM

আব্দুল্লাহ আল নোমান:
কানাইঘাট উপজেলার হারাতইল শাহী ঈদগাহে প্রবীণ আলিম হাফিজ আনিসুলহক (৭৫) ইন্তেকাল ( ইন্নালিল্লাহে ...... রাজেউন) করেছেন। শনিবার নামাজের আগে মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেয়ার পর ঈদগাহেই তিনি মারা যান।

হাফিজ আনিসুল হক জেল রোডের শাহ আবু তোরাব জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও খতিব। হার‍াতইল বেতু গ্রামে তার বাড়ি। কানাইঘাট উপজেলার হারাতইল শাহী ঈদগাহ প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই তিনি নামাজের ইমামতি করে আসছিলেন।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, তিনি বার্ধ্যক্যজনিত রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন।

ভোট দিলেন ওবামা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নিজের ভোটটি আগেই দিয়ে দিলেন বারাক ওবামা। যুক্তরাষ্ট্রের কিছু অঙ্গরাজ্যে মূল নির্বাচনের আগেই নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে ফেলতে পারেন ভোটাররা। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মতো প্রেসিডেন্ট পদে অধিষ্ঠিত থেকে কেউ আগাম ভোটাধিকার প্রয়োগ করলেন। নিজের ভোটটি দিয়ে ওবামা রসিকতা করে বলেন, �নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্সটি নবায়ন করতে পেরে ভালো লাগছে।� যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সময় ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদর্শন করার বিধান রয়েছে।

ভোট দিয়ে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নির্বাচনের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তাদের সঙ্গে কিছু সময় কাটান। নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্সে যে ছবিটি আছে, সেটার দিকে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, এই ছবি তোলার সময় আমার কোনো পাকা চুল ছিল না। দয়া করে ব্যাপারটি অগ্রাহ্য করুন।

বারাক ওবামা নির্বাচনী কর্মকর্তাদের কাজের প্রশংসা করে বলেন, যারা নির্বাচনে ভোট দেবেন, তাদের জানাচ্ছি, ভোট দেওয়ার সুবিধার জন্য খুব সুন্দর ব্যবস্থা করে রেখেছেন আমাদের নির্বাচনী কর্মীরা।ফেয়ার নিউজ

আগামী ৬ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সর্বশেষ নির্বাচনী জরিপে ডেমোক্রেট প্রার্থী বারাক ওবামা তাঁর রিপাবলিকান প্রতিদ্বন্দ্বী মিট রমনির চেয়ে জন সমর্থনে এগিয়ে রয়েছেন বেশ কিছু ব্যবধানে। দ্য টেলিগ্রাফ।

সম্পাদকের ঈদ শুভেচ্ছা

ঈদকে নির্বাচনী প্রচারণায় কাজে লাগাবে ১৮ দল

জাতীয় সংসদ নিবার্চন আর বছর খানেক পর। ১৮ দলীয় জোটের নেতারা আসন্ন ঈদকে তাই নির্বাচনী প্রচারণায় কাজে লাগাতে চান। বিরোধী দল বিএনপিসহ জোট নেতাদের অনেকেই রাজধানী ঢাকা ও গ্রামের বাড়ি দু�জায়গাতেই ঈদ করবেন। এ জন্য অধিকাংশ নেতাই এ বছর কোরবানির গরুর সংখ্যা বাড়িয়ে দিয়েছেন। কারণ, গরীর ও অসহায় মানুষকে গোস্ত বিতরন করবেন তারা।

মাংস বিতরণের মধ্যেই রাজনীতিকরা এবছর দু�টি কাজ হাছিল করতে চান। একটি হচ্ছে আল্লাহর সান্নিধ্য লাভ করা ও গরীব অসহায় মানুষকে পক্ষে আনা।

১৮ দলীয় জোট নেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রতি বছরের মতো এবারো ঈদের দিন ইস্কাটনের লেডিস ক্লাবে সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

একই সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গেও তিনি ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। এরপর গুলশানের ৭৯ নম্বর রোডের এক নম্বর বাড়িতে আ�ীয়-স্বজনের সঙ্গে সময় কাটাবেন তিনি। ঈদের পরের দিন ২৮ অক্টোবর সাত দিনের সফরে ভারত যাবেন খালেদা জিয়া। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকার উত্তরার বাসায় ঈদ করবেন। ইস্কাটনের লেডিস ক্লাবে দলের চেয়ারপারসনের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকবেন।

তিনি গ্রামের বাড়িতে ঈদ করতে না পারলেও কোরবানি দিচ্ছেন নিবার্চনী এলাকায়। ঈদের পরে তার ঠাকুরগাঁও যাওয়ার কথা রয়েছে।দলের স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন সস্ত্রিক হজ পালনের জন্য সৌদি আরবে রয়েছেন। ঈদের দিন সেখানেই কাটবে তার। তিনি দেশে ফিরে গ্রামের বাড়িতে যাবেন। গ্রামের বাড়িতে কোরবানি দেবেন মোশাররফ।স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আরএ গনি, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) আসম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, নজরুল ইসলাম খান ঢাকার নিজ নিজ বাসায় ঈদ করবেন। তারা ঈদের দিন তাদের নিবাচর্নী এলাকার নেতা-কর্মী ছাড়াও ঢাকায় অবস্থানরত কর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম যশোরে নিজ বাড়িতে ঈদ করবেন। তিনি তার এলাকার নেতা কর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে ওই দিনই ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হবেন। ঈদের পরের দিন তিনি বিএনপি চেয়ারপারসনের ভারত সফরের সঙ্গী হিসেবে ভারত যাবেন।

সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডনে চিকিৎসাধীন থাকায় গত কয়েকটি ঈদ সেখানেই কাটছে তার। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা গুলশান আজাদ মসজিদে ঈদের নামাজ পড়বেন বলে জানান।

এ ছাড়াও দলের ভাইস চেয়ারম্যান বিচারপতি টিএইচ খান, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, সেলিমা রহমান, এম মোরশেদ খান, শমসের মবিন চৌধুরী, রাবেয়া চৌধুরী, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সৈয়দা রাজিয়া ফয়েজ, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফসহ অনেকেই ঢাকায় ঈদ করবেন। অনেকেই ঈদের পরের দিন গ্রামের বাড়িতে যাবেন। কোরবানি দেবেন। ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মীর মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন চট্টগ্রামে ঈদ করবেন বলে জানান। চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মোসাদ্দেক আলী ফালু, যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, সহ-দফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি হজে গেছেন।

জেলে আটক রয়েছেন ১৮ দলীয় জোটের বেশ কয়েকজন নেতা। তাদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সালাম পিন্টু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন পিন্টু, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের ঈদ জেলখানায়ই কাটছে এবার। ১৮ দলীয় জোটের শরিক দল জামায়াতের সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযম, বর্তমান আমির মতিউর রহমান নিজামী, নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, সহকারী সেক্রেটারি কামারুজ্জামান, আবদুল কাদের মোল্লা, এটিএম আজহারুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাসেম আলীর এবারের ঈদ কাটবে জেলাখানায়।

জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান ঢাকায় ঈদ করবেন। সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ঈদ করবেন রাজশাহীতে ও মিয়া গোলাম পরওয়ার খুলনায়। পাবনা শহরের কাছে মধুপুর মাদ্রাসা ময়দানে ঈদের নামাজে ইমামতি করবেন ১৮ দলীয় জোটের শরিক খেলাফত মজলিসের আমির মওলানা মুহাম্মদ ইসহাক।

ইসলামী ঐক্যজোটের আমির মুফতি ফজলুল হক আমিনী ঈদের নামাজ পড়বেন ঢাকার লালবাগের মাদ্রাসা ময়দানে। তার দলের মহাসচিব আবদুল লতিফ নেজামী নামাজ পড়বেন তার নিজ জেলা নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার মুন্সেফেরচর ঈদগাহ মাঠে।ফেয়ার নিউজ



:: কানাইঘাটে দু"মাসেও নিখোঁজ স্কুল ছাত্রের সন্ধান মিলেনি ::

Kanaighat News on Thursday, October 25, 2012 | 10:14 PM

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কানাইঘাটে নিখোঁজ স্কুল ছাত্র মকসুদুল আলম (১৩) এর সন্ধান প্রায় দু’মাসেও পায়নি পরিবারের লোকজন। এতে বাবা-মা সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। পবিত্র ঈদুল আযহার আগমনী বার্তা স্বজনদের মধ্যে দুঃখের ঢেউ যেন উতালা দিয়ে ওঠছে। আজও তারা পথ চেয়ে বসে আছে কবে ফিরে আসবে তাদের প্রিয় সন্তান। উল্লেখ্য যে, গত ৬সেপ্টেম্বর সুরতুননেছা মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র ভোর ৬.০০টায় গ্রামের মসজিদের মক্তবে যাওয়ার সময় নিখোঁজ হয়। এর পর থেকে তার সন্ধান কেউ পায় নি।

:: কানাইঘাট লোভাছড়া পাথর কোয়ারীর মূল উৎসস্থল বন্ধ করে দিয়েছে বিজিবি ::

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কানাইঘাট লোভাছড়া পাথর কোয়ারীর মূল উৎসস্থল মাঞ্জরি, আপারমুখ, বড়গ্রাম এলাকায় গত দু’দিন ধরে পাথর উত্তোলন বন্ধ করে দিয়েছে লোভাছড়া বিজিবি ক্যাম্পের জওয়ানরা। বিজিবি কর্তৃক কোয়ারির মূল উৎসস্থলে পাথর উত্তোলন বন্ধ করে দেওয়ায় শত শত বারকি শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছেন। বারকি শ্রমিকরা স্থানীয় সাংবাদিকদের কোয়ারি থেকে পাথর উত্তোলনে যাতে কোন ধরনের সমস্যা না হয় তার জন্য বিজিবি ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার নজরুল ইসলামকে পূর্বে প্রতিদিন বারকি শ্রমিকদের কাছ থেকে চাঁদার মাধ্যমে উত্তোলন করা প্রতিদিন ২৫হাজার টাকা করে দেওয়া হত। সম্প্রতি গত কয়েকদিন ধরে পাথর মজুদের উৎসস্থল লোভানদীর পানি কমে যাওয়ায় শত শত পাথর শ্রমিকরা প্রতি বছরের ন্যায় মাঞ্জরি, আফা, রাজবাড়ি ও বড়গ্রাম নামক স্থান থেকে নৌকা দিয়ে পাথর উত্তোলন শুরু করলে শ্রমিকদের পাথর উত্তোলনে বাঁধা প্রদান করে লোভাছড়া ক্যাম্প কর্তৃপ। স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন নায়েক সুবেদার নজরুল ইসলাম ক্যাম্পে যোগদানের পর থেকে কথায় কথায় পাথর কোয়ারীটি বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের অযুহাত তোলে বন্ধ করে দেন। গত কয়েকমাস ধরে পাথর কোয়ারীতে আর্ন্তজাতিক সীমা রেখার দোহাই দিয়ে কোয়ারীর মুল উৎসস্থল মাইঞ্জরি, আফারমুখ, রাজবাড়ী এলাকা থেকে শ্রমিকদের পাথর উত্তোলনে বিজিবি জওয়ানরা বাঁধা প্রদান করলেও রাঁতের আধারে জওয়ানরা তাদের মনোনিত শ্রমিকদের দিয়ে নৌকা প্রতি হাজার টাকা আদায় করে উক্ত স্থান থেকে পাথর উত্তোলনের সুযোগ দেওয়ায় কোয়ারীতে অচল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। দুই দিন ধরে কোয়ারির মূল উৎস স্থলে পাথর উত্তোলন বন্ধ থাকায় একদিকে শত শত বারকি শ্রমিকরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন, অপরদিকে সরকার এ কোয়ারী থেকে বিরাট অংশের রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। পাথর শ্রমিকরা ােভ প্রকাশ করে বলেন, গত দু’দিন ধরে বিজিবি জওয়ানরা মুলাগুল বাজারের উজানে পাথর কোয়ারীর মুল উৎসস্থলে সব ধরনের পাথর উত্তোলন বন্ধ করে দিয়েছে। পাথর উত্তোলন কাজে জড়িত হাজার হাজার শ্রমিকরা জানান বাংলাদেশ সীমান্তের নোমেন্স ল্যান্ডের দেড়শ গজ বাহিরে অবস্থিত লোভা নদীর মাঞ্জরি, আফারমুখ, বড়গ্রাম থেকে স্বাধীনতার পর থেকে ভারতের সীমান্ত রি বিএসএফ’র বাঁধা ছাড়াই পাথর উত্তোলন করে আসছেন। কিন্তু বর্তমানে বিজিবি জওয়ানদের চাঁদাবাজিসহ নানা হয়রানীর শিকার হচ্ছেন তারা। কোয়ারী থেকে নির্বিঘেœ পাথর উত্তোলনের জন্য সরকারের হস্তপে কামনা করেছেন এলাকাবাসী। এ ব্যাপারে লোভাছড়া বিজিবি ক্যাম্পের দায়িত্ব প্রাপ্ত নায়েক সুবেদার নজরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ছুটিতে থাকায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায় নি। তবে দায়িত্বে থাকা হাবিলদার রাশিদুলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পাথর শ্রমিকদের কাছ থেকে বিজিপি ক্যাম্পের নামে চাঁদা আদায়ের বিষয়টি তিনি জ্ঞাত নন। তিনি ৩দিন পূর্বে ক্যাম্পে যোগদান করেছেন। পাথর কোয়ারীর মূল উৎসস্থল থেকে পাথর উত্তোলন বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, নোমেন্স ল্যান্ডের ভিতরে অবস্থিত সীমান্তের ১৩২৬ পিলারের আশপাশ এলাকায় পাথর উত্তোলন বন্ধ রয়েছে, তবে মুলাগুল নয়বাজার এলাকা থেকে শ্রমিকরা পাথর উত্তোলন করছেন।

কানাইঘাটে এম.ইলিয়াস আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের জনসভা সফলের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

আগামী মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় কানাইঘাট পূর্ব বাজার ডাক বাংলো মাঠে কানাইঘাট এম.ইলিয়াস আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত জনসভা সফলের লক্ষ্যে ইলিয়াস আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদ, কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর বিএনপি অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। জনসভা সফলের লক্ষ্যে গত বুধবার বিকেল ৫টায় কানাইঘাট পূর্ব বাজারস্থ বিএনপি’র কার্যালয়ে বিএনপি, যুবদল, শ্রমিকদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, উলামাদল ও ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দের যৌথ উদ্যোগে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এম.ইলিয়াস আলী মুক্তি পরিষদ কানাইঘাট উপজেলা শাখার আহ্বায়ক ও কানাইঘাট-জকিগঞ্জ বিএনপি’র প্রধান সমন্বয়কারী চাকসুর সাবেক আপ্যায়ন সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুনের সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভায় বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে জনসভাকে জন সমুদ্রে পরিণত করার জন্য উপজেলা জুড়ে ব্যাপক মাইকিং প্রচার-প্রচারণাসহ সকল হাট বাজারে প্রচার মিছিলের সিন্ধান্ত গৃহিত হয়। উক্ত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহসভাপতি সাবেক সাংসদ দিলদার হোসেন সেলিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল গাফ্ফার, কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, জেলা বিএনপি’র সহসভাপতি এম.ইলিয়াস আলী মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক শেখ মখন মিয়া, সদস্য সচিব ও জেলা বিএনপি’র যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট এটিএম ফয়েজসহ জেলা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন। এদিকে ও ইলিয়াস মুক্তি সংগ্রাম পরিষদের আগামী মঙ্গলবারের জনসভাকে ঘিরে কানাইঘাট বিএনপির অঙ্গসংগঠন সহ সর্বস্থরের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা পরিলতি হচ্ছে। জনসভায় বিপুল সংখ্যক জনসমাগম ঘটবে বলে মামুনুর রশিদ মামুন জানিয়েছেন।

মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের বন্ধ প্রতিষ্ঠান ফের চালুর উদ্যোগ

বন্ধ হয়ে যাওয়া মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠানগুলোকে চালু করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এজন্য সম্প্রতি ট্রাস্টের দেড়শ� কোটি টাকার ঋণ মওকুফ করা হয়েছে। পাশাপাশি প্রায় ৩শ� কোটি টাকা খরচে নিজস্ব ভূমিতে গড়ে তোলা হচ্ছে দুটি বাণিজ্যিক ভবনসহ ৪টি প্রকল্প। তবে আগের মতো অদক্ষ ব্যবস্থাপনার আদলে ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠানগুলো পরিচালনা করলে তা আবারো লোকসানের মুখে পড়বে বলেই সংশ্লিষ্টদের আশঙ্কা। ফলে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, বীরশ্রেষ্ঠ পরিবারসহ দেশের প্রায় ৮ হাজার পরিবারকে দেয়া আর্থিক সুবিধা ব্যাহত হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, দরিদ্র মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কল্যাণে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ২২টি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট গড়ে তোলেন। পরবর্তীতে এরশাদ সরকারের শাসনামালে ট্রাস্টে আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান যুক্ত হয়ে প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা দাঁড়ায় ৩২। কিন্তু বর্তমানে ট্রাস্টের ৩টি প্রতিষ্ঠান বাদে বাকি ২৯টি প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশই বন্ধ ও ইজারায় রয়েছে। যদিও ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠানকে লাভজনক হিসেবে গড়ে তুলতে সরকারের নীতিগত সহায়তা ছিল। কিন্তু অব্যবস্থাপনার কারণে প্রতিষ্ঠানগুলো লাভের মুখ না দেখে বরং লোকসানের বোঝা বাড়িয়ে গেছে। বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের চালু ৩টি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ঢাকার পূর্ণিমা ফিলিং অ্যান্ড সার্ভিস স্টেশন, চট্টগ্রামের ইস্টার্ণ কেমিক্যাল লিমিটেড ও ঢাকার মিমি চকোলেট লিমিটেড। এ ৩টি প্রতিষ্ঠান থেকে মাসিক গড় আয় ৩৫ লাখ টাকা।

সূত্র জানায়, লোকসানের কারণে ১৯৯০ সালে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলে অবস্থিত সিরকো সোপ, ১৯৯৩ সালে গাজীপুরের ইউনাইটেড টোব্যাকো কোম্পানি, ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ গ্লাস ইন্ডাস্ট্রি (হাইসন্স), ১৯৯৫ সালে মেটাল প্যাকেজেস লিমিটেড ও পোস্তগোলার পারুমা (ইস্টার্ণ) লিমিটেড, ১৯৯৯ সালে চট্টগ্রামের নাসিরাবাদেও বাক্সলী পেইন্টস, ২০০৫ সালে কালুরঘাটের এমজেসিসি এবং ঢাকার মিরপুরের ট্রাস্ট আধুনিক হাসপাতাল বন্ধ করে দেয়া হয়। তাছাড়া ১৯৮৮ সালে চু-চিন-চৌ চায়নিজ রেস্তরাঁ, ১৯৯২ সালে বক্স রবার ইন্ডাস্ট্রিজ, রাজধানী সুপার মার্কেটের হরদেও গ্লাস ওয়ার্কস, ২০০৩ সালে ঢাকার আনিস ফিল্ম কর্পোরেশন, ফিল্ম ইকুইপমেন্ট, মডেল ইলেকট্রিক্যাল ও দুর্বার এ্যাড লোকসানের ভারে বন্ধ হয়ে যায়। সর্বশেষ ২০০৮ সালে বন্ধ হয়ে যায় ট্রাস্টের সবচেয়ে লাভজন কোমল পানীয় উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান তাবানী বেভারেজ। তাছাড়া পুঁজি প্রত্যাহার করা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে চট্টগ্রামের মদিনা ট্যানারি, হামিদিয়া অয়েল, হামিদিয়া মেটাল, ঢাকার বেঙ্গল ট্যানারি, ন্যাশনাল ট্যানারি, ওমর সন্স ও যান্ত্রিক পাবলিকেশন। একইভাবে চট্টগ্রামের চট্টেশ্বরী রোডের দেলোয়ার পিকচার্স লিমিটেড লিজ দেয়া হয় ১৯৯৪ সালে। আর অব্যবহৃত পড়ে রয়েছে তেজগাঁও শিল্প এলাকার ২৫৭ নম্বর প্লট, গাজীপুরে ২টি প্লট, চট্টগ্রাম আগ্রাবাদেও ৩৬ ও ৩৭ নম্বর প্লট, নারায়ণগঞ্জের ডালপট্টি এমজেসিসি ও রাঙ্গুনিয়ার ১৫ একর জমিসহ বেশ কিছু স্থাপনা।

সূত্র আরো জানায়, বর্তমানে রাজধানী ও এর বাইরে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টেও বিপুল পরিমাণ জমিই বেদখল হয়ে আছে। অনেক ক্ষেত্রে ট্রাস্টেও জমিতে শিল্প-কারখানা গড়ে তুলেছে দখলদাররা। অথচ এসব জমি থেকে সরকার যেমন রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে, তেমনি ট্রাস্টও কোনো আয় পাচ্ছে না। তারপরও বর্তমানে অব্যবহৃত জমি ছাড়া একাধিক মার্কেট ট্রাস্টের অধীন চালু রয়েছে। তবে এক্ষেত্রে দোকান বরাদ্দ থেকে শুরু করে ভাড়া নির্ধারণ ও আদায়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। তাছাড়া ট্রাস্টেও বিপক্ষে বেশকিছু মামলাও রয়েছে। এর কয়েকটিতে হেওে গেছে ট্রাস্ট। মূলত তহবিল না থাকার কারণেই হেরে যাওয়া মামলাগুলো ট্রাস্ট যথাযথভাবে পরিচালনা করতে পারেনি।

এদিকে দীর্ঘদিন লোকসান টাকার পরও বন্ধ হয়নি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টেও প্রতিষ্ঠানগুলো। কারণ প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করার আগে দায়দেনাও পরিশোধযোগ্য ছিল। মূলত অদক্ষ ব্যবস্থাপনা, সিদ্ধান্তহীনতা ও অযৌক্তিক বিভিন্ন বিষয় ট্রাস্টেও কাঁধে চাপিয়ে দেয়ার কারণে ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠানগুলোর এ করুণ হাল হয়েছে। এক্ষেত্রে ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠানগুলোতে বাঁচাতে হলে উপযুক্ত নীতিমালা প্রণয়নের বিকল্প নেই বলেই সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। তাদের মতে, মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টভুক্ত প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় নিয়োগ দিতে হবে পেশাদারী মনোভাবাপন্ন দক্ষ ব্যক্তিদের। এ মুহূর্তে ট্রাস্টের ক্ষেত্রে আর্থিক সহায়তার চেয়ে নীতিগত সহায়তাই বেশি জরুরি। কারণ ট্রাস্টের অধীন সব জমি থেকে যথাযথভাবে ভাড়া আদায় হলে এর বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং ইজারা দেয়া সব প্রতিষ্ঠানের দায়দেনা পরিশোধ সম্ভব।

অন্যদিকে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টেও সব দেনা পরিশোধ করা হয়েছে। পাশাপাশি ট্রাস্টকে আরো লাভজনক করতে প্রায় ৩শ� কোটি টাকা খরচে ৪টি প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়িত হলে তা থেকে বছরে দেড় থেকে পৌনে ২ কোটি টাকা আয় হবে। এর মাধ্যমে ২০১৪ সালের মধ্যেই ট্রাস্টকে লাভজনক পর্যায়ে নেয়া সম্ভব। ইতিমধ্যে নারায়ণগঞ্জে বেদখল হয়ে যাওয়া ট্রাস্টের প্রায় ২৫ একর জমি উদ্ধার করা হয়েছে। তাছাড়া ট্রাস্টের অধীন বর্তমান বাজারদরে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে।

মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠানগুলোকে লাভজনক করা প্রসঙ্গে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম (অব.) জাতীয় সংসদে জানান, মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্টকে লাভজনক করার উপায় খুঁজতে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট একটি সুপারিশমালা প্রণয়ন করছে। সে সুপারিশ অনুযায়ীই ব্যবস্থা নেয়া হবে। ফেয়ার নিউজ

যুক্তরাষ্ট্রে আড়াই হাজার মসজিদে ঈদ জামাত

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে পবিত্র ঈদ-উল-আযাহা। ঈদের জামাতের জন্য আড়াই হাজার মসজিদে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ইসলামিক সার্কেল অব নর্থ আমেরিকা, ইসলামিক সোসাইটি অব নর্থ আমেরিকা, মুসলিম আমেরিকান সোসাইটি ও কাউন্সিল অন আমেরিকান ইসলামিক রিলেশন্সসহ মুসলমানদের বিভিন্ন সংগঠন থেকে জানানো হয়, নিউইয়র্ক, ক্যালিফোর্নিয়া, মিশিগান, ওয়াশিংটন, টেক্সাস, অরেগন, ফ্লোরিডা, ওয়াশিংটন, নিউজার্সি, পেনসলিভেনিয়া, ম্যাসেচুসেট্স, ইলিনয়, ওহাইয়ো, ক্যানসাস, কানেকটিকাট প্রভৃতি অঙ্গরাজ্যে আড়াই হাজারের বেশি মসজিদের ব্যবস্থাপনায় প্রায় ৫ হাজার ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে নিউইয়র্ক অঞ্চলে বাংলাদেশিদের বড় ঈদ জামাতগুলো অনুষ্ঠিত হবে জ্যামাইকার মুসলিম সেন্টার, এস্টোরিয়ায় আল আমিন মসজিদ, ব্র�কলিনে বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টার এবং ম্যানহাটানে মদিনা মসজিদ, শাহজালাল মসজিদ ও গাউসিয়া মসজিদের ব্যস্থাপনায়।

বেশ কয়েকটি স্থানে প্রকাশ্য ময়দান অথবা প্রশস্ত রাস্তার ওপর জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে বলেও সংস্থাগুলো জানিয়েছে।

ঈদ উপলক্ষে অভিবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যেও ব্যাপক প্রস্তুতি দেখা গেছে। পরিবার-পরিজন নিয়ে যারা যুক্তরাষ্ট্রে বাস করছেন তাদের প্রায় সবাই কোরবানি দিচ্ছেন। বিভিন্ন গ্রোসারি শপে ধর্মীয় পদ্ধতিতে পশু জবাইয়ের পর তার মাংস ঈদের দিন রাত এবং পরদিন সরবরাহ করা হবে।ফেয়ার নিউজ



কানাইঘাটে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শারদীয় দূর্গোৎসব সম্পন্ন

Kanaighat News on Wednesday, October 24, 2012 | 7:37 PM

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপুজা কানাইঘাটের ২৮টি পূজামন্ডপে উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন হয়েছে। পুজোর শেষ দিনে দেবী দূর্গার সান্নিধ্য লাভ করার জন্য ধর্মীয় আরাধনাসহ মন্ডপে মন্ডপে হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষের ঢল নামে। কোথাও কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায় নি। রাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে শোকাবহ ও ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্য পরিবেশে ভক্তানুরাগীরা মা দূর্গাকে কানাইঘাট সুরমা নদীতে বিসর্জন দেন। এ দিকে দূর্গোৎসবের দশমীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের সাথে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ ঘুরে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দীন চৌধুরী, নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম সোহরাব হোসেন, নবগঠিত উপজেলা আ’লীগের আহবায়ক পৌর মেয়র লুৎফুর রহমান, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ইউপি চেয়ারম্যান অধ্য সিরাজুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক রফিক আহমদ, মাসুদ আহমদ, এড. আব্দুস সাত্তার, কানাইঘাট প্রেসকাব নেতৃবৃন্দ, চাকসুর সাবেক আপ্যায়ন সম্পাদক বিএনপি নেতা মামুনুর রশিদ মামুন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ইকবাল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রীমতি প্রভাতী রানী দাস। এছাড়া পুজোমন্ডপগুলো ঘুরে সার্বিক আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্বে ছিলেন কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল হাই, ওসি (তদন্ত) মহসিন আলম । এদিকে ধর্মীয় সম্প্রীতির মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে কোন ধরণের অনাকাংঙ্খিত ঘটনা ছাড়াই দূর্গাপুজা সম্পন্ন হওয়ায় কানাইঘাট পুজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি মাষ্টার সুদ্বিপ্ত চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার সলীল চন্দ্র দাস, উপজেলা প্রশাসন ও বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সকলের প্রতি শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।





দেয়াল ধ্বসে তিন শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কানাইঘাটে গত মঙ্গলবার একটি স্কুলের দেয়াল ধসে তিন শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ডাঃ ফয়াজ উদ্দিন, ম্যানেজিং কমিটির অন্যান্য সদস্য ও স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুজাম উদ্দিনসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার রাতে কানাইঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত নির্মাণ শ্রমিক মোহাম্মদ আলীর চাচা তবারক আলী বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-(৩৩) ২৩/১০/১২। এদিকে ঐ রাতেই অনুমান ১০টায় কানাইঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে নিহত তিন শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট ওমেক হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ঘটনার খবর পেয়ে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হাসান মাহমুদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম সোহরাব হোসেন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হযরত আলী ও কানাইঘাট থানার ওসি আব্দুল হাই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং নিহত তিন শ্রমিকের বাড়ীতে গিয়ে আত্মীয় স্বজনদের শান্তনা দেন। নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম সোহরাব হোসেন স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, নিহত তিন শ্রমিকের প্রত্যেক পরিবারকে জেলা প্রশাসক খান মোহাম্মদ বেলাল নগদ ২০ হাজার টাকা করে আর্থিক অনুদান দিয়েছেন। স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ডাঃ ফয়াজ উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, স্কুলের পুরাতন ভবনের দেয়াল ভাঙ্গার বিষয়ে তার কোন সম্পৃক্ততা নেই। নিহত তিন শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌছে সম্পূর্ণ বিষয় জানতে পারেন।



অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা বন্ধে হার্ডলাইনে সরকার

দেশে অবৈধ ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রটোকল (ভিওআইপি) ব্যবসা বন্ধে হার্ড লাইনে সরকার। কারণ অবৈধ ভিওআইপির মাধ্যমে প্রতিদিনই আন্তর্জাতিক কল আদান-প্রদানের মাধ্যমে শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অসাধু প্রভাবশালী চক্র। দীর্ঘদিন ধরেই দেশে এ অবস্থা চলে আসছে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন অভিযানে বিপুলসংখ্যক অবৈধ ভিওআইপি যন্ত্রপাতি উদ্ধার ও আটক করা হলেও এখনো দেশে এ ব্যবসা ওপেন সিক্রেট। গতবছর এসময়ে প্রতিদিন বৈধ পথে সাড়ে ৫ থেকে সাড়ে ৬ কোটি মিনিট আন্তর্জাতিক কল দেশে আসতো। কিন্তু বর্তমানে তা নেমে দাঁড়িয়েছে ৩ থেকে সাড়ে ৩ কোটি মিনিটে। আর বাকি প্রায় সাড়ে ৩শ� কোটি মিনিট আন্তর্জাতিক কলই দেশে আসছে অবৈধ পথে। এ পরিস্থিতিতে দেশে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা বন্ধে মাঠে নেমেছে বিটিআরসি। এজন্য সব আইজিডব্লিউ, মোবাইল অপারেটর, আইসিএক্স, বিটিসিএল, এসটিএম-১ এর সার্কিটগুলো নিয়মিত পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষণ করা হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বিটিআরসি দেশে অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে। এক্ষেত্রে আইসিএক্স অপারেটরদের সময় দেয়া হয়েছে ৩ দিন, আইএসপিগুলোতে ৭ দিন এবং বিটিসিএলকে ১৪ দিন। কেউ বিটিআরসির এ নির্দেশ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইতিমধ্যে ইন্টারনেট গেটওয়ে (আইজিডাব্লিউ), মোবাইল অপারেটর, ইন্টারকানেকশন এক্সচেঞ্জ (আইসিএক্স), বিটিসিএল, আইএসপিসহ (ইন্টার সার্ভিস প্রোভাইডর) বিভিন্ন ধরনের ইন্টারনেট সার্ভিস প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি বিটিআরসি অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে অব্যাহতভাবে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। বিটিআরসির এ অবস্থানের কারণে সম্প্রতি অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা কিছুটা কমে এসেছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে দ্রুততম সময়ের মধ্যেই দেশের অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে বলেই সংশ্লিষ্ট আশাবাদী।

সূত্র জানায়, বর্তমানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় দেশ থেকে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা একেবারে বন্ধ করার কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। আর এ কর্মসূচি বাস্তবায়নে বদ্ধপরিকর মন্ত্রণালয়। এজন্য অবৈধ ভিওআইপি কল মনিটর করার জন্য মনিটরিং সিস্টেম স্থাপন করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে এ কাজ পর্যায শেষ পর্যায়ে পৌঁছে। এর ফলে সহজেই কেউ অবৈধ ভিওআইপি ব্যবহার করতে পারবে না। এদেশে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসার সাথে মূলত প্রভাবশালী কিছু ব্যক্তি জড়িত। এ ব্যবসার মাধ্যমে তারা রাতারাতি টাকার পাহাড় গড়ে তুলেছে। কিন্তু সরকার বঞ্চিত হয়েছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে। ইতিপূর্বে বিটিআরসি দেশ থেকে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবহার বন্ধ করতে নানা উদ্যোগ নিয়েও সফল হয়নি। সর্বশেষ গতবছরের ডিসেম্বও মাসে অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে শক্তিশালী অবৈধ ভিওআইপি অনুসন্ধান নামে তদন্ত কমিটিও গঠন করে বিটিআরসি। ওই কমিটি দীর্ঘ ৩ মাস বিটিসিএল ও টেলিটকের তদন্ত শেষে ১৩টি কারণ খুঁজে পেয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে পূর্ণাঙ্গ ইন্টারকানেকশন এক্সচেঞ্জ (আইসিএক্স), অত্যাধুনিক সফটওয়্যার, রেডিও লিং ব্যবহার, কললিস্ট মুছে ফেলাসহ নানা কারসাজি। ইতিমধ্যে ওই তদন্ত কমিটি অবৈধ ভিওআইপির উ ঘাটিত কারণগুলো সুপারিশ আকারে মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। তদন্ত কমিটি সদস্যরা মনে করছেন, তদন্তে উ ঘাটিত কারণগুলো বন্ধ হলে দেশে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবহার বহুগুণ কমে আসবে।

সূত্র আরো জানায়, বিআরটিসির শক্তিশালী তদন্ত কমিটি বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে এদেশে কর্মরত বেসরকারি মোবাইল অপারেটরগুলো আন্তর্জাতিক কল আদান-প্রদান পরীক্ষা করতে পারেনি। কারণ বিটিসিএল ও টেলিটকের অনিয়ম খুঁজে বের করতেই কমিটির অনেক সময় লেগে যায়। মূলত তাদের কাছ থেকে পূর্ণাঙ্গ কোনো তথ্য না পাওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। ফলে তদন্তের সময় সংস্থাগুলোর অসহযোগিতার কারণে ঠিক কী পরিমাণ অবৈধ ভিওআইপি হচ্ছে তা নির্ণয় করতে পারেনি তদন্ত কমিটি। যদিও বিটিসিএল ও টেলিটককে তাদের কললিস্ট ও আইসিএক্স বসানোর জন্য প্রায় ১৯ বার চিঠি দেয়া হয়েছে। কিন্তু ওসব চিঠির কোনো জবাবই দেয়নি তারা। বরং সবচেয়ে বেশি অবৈধ ভিওআইপি হচ্ছে টেলিটক ও বিটিসিএলর মাধ্যমে। সাধারণ গ্রাহকরাও এ অভিযোগ করছে। এর কারণ হিসেবে গ্রাহকরা বলছে, দেশের বাইরে থেকে বেশিরভাগ কলই আসছে টেলিটক নাম্বারে। আইজিডব্লিউ ও আইসিএক্স�র ব্যবহৃত সুইচ বা গেটওয়ে স্থাপনের সাথে বিলিং প্লাটফরম না থাকায় তদন্ত কমিটি সঠিকভাবে আন্তর্জাতিক কলের পরিমাণ ও বিল বিশ্লেষণ করতে পারেনি।

এদিকে তদন্ত হওয়া বিটিসিএল ও টেলিটকের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, অবৈধ ভিওআইপি কল অনুসন্ধানে গঠিত কমিটিতে কোনো বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী ছিল না। কিন্তু এ অভিযোগ মানতে রাজি নয় বিটিআরসি। তাদের মতে, অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের দিয়েই অবৈধ ভিওআইপি কল অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হবে। তবে লোকবলের অভাবে কমিটিতে সদস্য সংখ্যা বাড়ানো যায়নি। বেশিসংখ্যক লোকবল কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা গেলে অবৈধ ভিওআইপি কলের পূর্ণাঙ্গ চিত্র বেরিয়ে আসতো। তদন্ত কমিটি ৩ মাস ধরে বিটিসিএল ও টেলিটকের ভিওআইপি কল কিভাবে হয় তার কারণ খুঁজে দেখে। এরপর তারা সুপারিশ মালা তৈরি করে। মন্ত্রণালয় এ সুপারিশের ভিত্তিতেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

অন্যদিকে বিটিআরসি সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র মতে, দেশে অবৈধ ভিওআইপি শনাক্ত করা এখন খুবই কঠিন। কারণ এক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহৃত হচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রেই মুছে ফেলা হচ্ছে কললিস্ট। তাছাড়া অবৈধ কলের জন্য নানা ধরনের আধুনিক সফটওয়্যার ব্যবহার হচ্ছে। কিন্তু এক্ষেত্রে অবৈধ ভিওআইপি পরিচালনাকারীদেও তুলনায় বিটিআরসির হাতে ওই পরিমাণ আধুনিক যন্ত্রপাতি বা সফটওয়্যার নেই। এ কারণে অবৈধ ভিওআইপি ধরা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাছাড়া এখনো তো এদেশে কর্মরত বেসরকারি মোবাইল অপারেটরদেও অবৈধ ভিওআইপি কলের ব্যাপারে কোনো তদন্তই শুরু হয়নি। মূলত লোকবল ও সময়ের অভাবে তাদেও কললিস্ট পরীক্ষা করা যাচ্ছে না।ফেয়ার নিউজ





কানাইঘাটে দেওয়াল ধ্বসে তিন নির্মাণ শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু

Kanaighat News on Tuesday, October 23, 2012 | 8:26 PM

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
আজ বিকাল ৫টায় কানাইঘাট উপজেলার ১নং লক্ষ্মীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের উজান বারাপৈত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন একটি ভবনের একাংশের পাকা দেওয়াল ভাঙ্গার সময় দেওয়ালের একটি বিরাট অংশের নিচে চাঁপা পড়ে ৩ নির্মাণ শ্রমিক ঘটনাস্থলে মর্মান্তিক ভাবে প্রাণ হারিয়েছেন। নিহত নির্মাণ শ্রমিকরা হলেন, লক্ষ্মীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের ভাটি বারাপৈত গ্রামের পঙ্কিরাজার পুত্র মোহাম্মদ আলী (২০) একই গ্রামের ফয়জুল করিমের পুত্র হামিদুর রহমান (১৮) ও লোহাজুরী গ্রামের নূর আহমদ (৩০)। স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানা যায়, উজান বারাপৈত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুজাম উদ্দিনের নির্দেশে পুরাতন ভবনের দেওয়াল ভাঙ্গার কাজ করার সময় হঠাৎ করে বিকাল অনুমান ৫টায় দেওয়ালের বিরাট একটি অংশ দুমড়ে মুচড়ে কর্মরত এ তিন শ্রমিকের উপর ধসে পড়লে তারা ঘটনাস্থলে মারা যান। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় শত শত লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এসে দেওয়ালের নিচে চাঁপা পড়া তিন শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করে স্কুল আঙ্গিনায় রেখেছেন। তিন নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয়টি স্বীকার করে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, লাশ উদ্ধারের প্রক্রিয়া চলছে। এদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম সোহরাব হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ৩ নির্মাণ শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যুতে দুঃখ ও সহমর্মিতা প্রকাশ করে বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার অনুমতি ব্যতিরেকে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শ্রমিকদের দিয়ে নিজ উদ্যোগে স্কুলের পুরাতন ভবনের দেওয়াল ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত নেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। অপর দিকে স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুজাম উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি, তার মুঠো ফোনটি বন্ধ রয়েছে।

সিলেট-৫ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী মামুন রশিদের কানাইঘাট-জকিগঞ্জের বিভিন্ন পুজামন্ডপ পরিদর্শন

কানাইঘাট উপজেলা ১৮ দলীয় ঐক্যজোটের আহবায়ক উপজেলা বিএনপির সভাপতি চাকসুর সাবেক আপ্যায়ন সম্পাদক সিলেট-৫ আসনের বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মামুনুর রশিদ মামুন কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন পুজামন্ডপ গত সোম ও মঙ্গলবার পরিদর্শন করেছেন। পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে মামুনুর রশিদ মামুন হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্বস্তরের লোকজনের সাথে শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। তিনি পুজার সার্বিক খোজ খবর নেন এবং তার প থেকে বিভিন্ন মন্ডপে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন। বিভিন্ন পুজা মন্ডপ পরিদর্শন কালে তার সাথে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট-জকিগঞ্জ বিএনপি, শ্রমিকদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, ছাত্রদলসহ বিএনপি সমর্থিত বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ।

::কানাইঘাটে চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রীর বিয়ে !ধামাচাপা দিতে একটি মহল তৎপর::

নিজস্ব প্রতিবেদক:
সম্প্রতি সিলেটের বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিক পএিকায় কানাইঘাট মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী সাড়ে ৯ বছরের নাজিয়া আক্তারকে স্কুল কর্তৃপরে বাধা নিষেধ উপো করে মা পারবিন বেগম কর্তৃক জোর পূর্বকভাবে গত ১০ অক্টোবর ১৭ বছরের এক কিশোর শমসের আলমের সাথে বাল্য বিয়ে দেন। এ সংবাদটি ১৬ অক্টোবর বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিক পএিকায় প্রকাশিত হলে কানাইঘাটে একটি সরকারী অনুষ্ঠানে সিলেটের জেলা প্রশাসক খান মোহাম্মদ বেলালের দৃষ্টিগোচর হয়। তিনি তাৎনিক বিষয়টির আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম সোহরাব হোসেনকে নির্দেশ প্রদান করেন। নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম সোহরাব হোসেন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের আলোকে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাইকে নির্দেশ দিলে ওসি আব্দুুল হাই বিষয়টি তদন্ত করার জন্য থানার এস আই কামরুজ্জামানকে দায়িত্ব দেন। এ ঘটনার পর থেকে পুলিশ বাল্য বিবাহের হোতা নাজিয়া আক্তারের মা পারভীন বেগমকে গ্রেফতার ও ভিকটিমকে উদ্ধার এবং বাল্য বিয়ের সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে হন্যে হয়ে খুঁজছে। গত রবিবার রাতে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পারভীন বেগমকে ধরতে নন্দিরাই গ্রামের তার এক আত্মীয়ের বাড়ীতে অভিযান চালালেও তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। এ দিকে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর বিয়ের পর থেকে স্বামীর বাড়ীতে অবস্থানরত নাজিয়া আক্তারকে তার মা স্বামীর বাড়ী থেকে এনে পুলিশি ভয়ে অন্যত্র এক আত্মীয়ের বাড়ীতে লুকিয়ে রেখেছেন বলে অনুসন্ধানে জানা গেছে। এমন কি পারভীন বেগম নিজ পিত্রালয় সদর ইউনিয়নের বীরদল ভাড়ারী ফৌদ ও পৌর শহরের ভাড়া বাসা ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছেন বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন। স্থানীয় সাংবাদিকরা তার সাথে দেখা করার জন্য বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা চালানোর পরও তাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা এমন কি তার মোবাইল ফোনটিও বন্ধ রয়েছে। বাল্য বিবাহের সাথে জড়িত ঘটক ও নিকাহনামার উকিলরা আত্মগোপনে থেকে বাল্যবিবাহের নিকাহ রেজিস্টারের সাথে আতাত করে পুরো বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে নিজেদের রা ও ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। নাজিয়ার স্বামী উপজেলার লন্তিরমাটি গ্রামের আব্দুল মতিনের পুত্র ১৭ বছরের কিশোর সমশের আলমও নিজ বাড়ী ছেড়ে বর্তমানে অন্যত্র আত্মগোপনে রয়েছে। স্থানীয় সচেতন মহল, শিার্থী ও শিক এবং অভিভাবকরা মা কতৃক লুকিয়ে রাখা বাল্য বিবাহের স্বীকার নাজিয়া আক্তারকে উদ্ধার ও তার স্বামীকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে আসা হলে বাল্য বিবাহের সাথে জড়িতদের মুখোশ উন্মচোন হবে বলে জানিয়েছেন। স্থানীয় লোকজন বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন তারা। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম সোহরাব হোসেন এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রীর বাল্য বিবাহের সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ধরনে ঘৃন্যিত কাজের সাথে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা বলে তিনি জানিয়েছেন। থানার ওসি আব্দুল হাই স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, ইতোমধ্যে পত্রিকায় বাল্য বিবাহের সংবাদ প্রকাশের পর থেকে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।




কানাইঘাটে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শারদীয় দূগোতসব পালিত হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শ্রী শারদীয় দূর্গাপুজা কানাইঘাটের ২৮টি মন্ডপে উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে। কোথাও কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায় নি। সরজমিনে বিভিন্ন মন্ডপ ঘুরে দেখা যায়, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বন্ধনে আবদ্ব হয়ে হাজারো হিন্দু সম্প্রদায়ের নারী পুরুষ অষ্টমীর দিনে দেবী দুর্গার স্বান্ধিদ্ব লাভ করার জন্য ধর্মীয় আরাধনা করে যাচ্ছেন। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দূর্গাপূজা সম্পন্ন করার লক্ষ্যে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৮ টি মন্ডপে বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ দিকে গত রবি ও সোমবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম সোহরাব হোসেন, কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল হাই, ওসি (তদন্ত) মহসিন আলম রাতভর বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করে হিন্দু সম্প্রদায়ের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এসময় পূর্ণ্যার্থীরা সর্বত্র প্রতি বছরের ন্যায় এবারও কোথাও কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ধর্মীয় সম্প্রীতির মেলবন্দনে পূজা উজ্জাপিত হচ্ছে বলে জানান।

ঈদ উপলক্ষে হাসিনা-খালেদার শুভেচ্ছা বিনিময়

ঈদুল আযহা উপলক্ষে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া। ঈদ কার্ডের মাধ্যমে কোরবানির ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন তারা।প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী (মিডিয়া) মাহবুবুল হক শাকিল জানান, প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল কর্মকর্তা শেখ আখতার হোসেন সোমবার দুপুরে সংসদ ভবনে বিরোধী দলীয় নেতার কার্যালয়ে গিয়ে তার একান্ত সচিব সালেহ আহমেদের কাছে ঈদ কার্ড পৌঁছে দেন।

পরে বিরোধী দলীয় নেতার সহকারী একান্ত সচিব মো. সুরুতুজ্জামান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এসে আখতার হোসেনের হাতে খালেদা জিয়ার ঈদ কার্ড পৌঁছে দেন।

দীর্ঘদিন দুই নেত্রী মুখোমুখি না হলেও প্রতি ঈদের আগে তারা কার্ড পাঠিয়ে পরস্পরে শুভেচ্ছা বিনিময় করে থাকেন। ফেয়ার নিউজ

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

Kanaighat News on Monday, October 22, 2012 | 9:25 AM

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যে, তাঁর আসন্ন ভিয়েতনাম সফর ঢাকা ও হ্যানয়-এর মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারে সম্ভাবনার নতুন দ্বার উন্মোচন করবে।

সমাজতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র ভিয়েতনামের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত নগুয়েন কোয়াং থাক গতকাল রোববার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সাক্ষাৎকালে শেখ হাসিনা এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, বৈঠকে পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় এবং প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন ভিয়েতনাম সফর নিয়ে আলোচনা হয়।

প্রধানমন্ত্রী ৫ থেকে ৬ নভেম্বর লাওসে অনুষ্ঠেয় এশিয়া-ইউরোপ শীর্ষ সম্মেলনের (এএসইএম) আগে ২ থেকে ৪ নভেম্বর ভিয়েতনাম সফর করবেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক বিদ্যমান। এই সম্পর্কের মূলে রয়েছে সমৃদ্ধ অভিন্ন ঐতিহ্য ও সাংস্কৃতিক বন্ধন এবং গণতন্ত্র, উন্নয়ন, আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার প্রতি দৃঢ় অঙ্গীকার।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের অভিন্ন রাজনৈতিক ইতিহাস দু�দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ও বন্ধুত্ব আরো জোরদারে প্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।

এ্যাম্বাসেডর এ্যাট লার্জ এম জিয়াউদ্দিন, মুখ্য সচিব শেখ এম ওয়াহিদ উজ্জামান ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোল্লা ওয়াহেদুজ্জামান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

গোলাপগঞ্জে কোটিপতি ব্যবসায়ীর বাড়ী ডাকাতী করে কানাইঘাটে এসে লুন্ঠিত মালামাল ভাগ-বাটোয়ারার সময় জনতার হাতে ৩ ডাকাত আটক।

Kanaighat News on Sunday, October 21, 2012 | 12:09 AM

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
গত শুক্রবার গভীর রাতে গোলাপগঞ্জ উপজেলার দাড়িপাতন গ্রামের খসরু মিয়ার বাড়ীতে ডাকাতী করে গোলাপগঞ্জ থানার নিকটবর্তী কানাইঘাট উপজেলার ৯নং রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের ছোট মির্জারগড় গ্রামে গতকাল সকাল অনুমানিক সাড়ে ৭টার দিকে লুণ্ঠিত মালামাল ভাগবাটোয়ারর সময় স্থানীয় জনতা তিন ডাকাতকে কিছু লুণ্ঠিত মালামালসহ আটক করেন। পরে সকাল অনুমানিক সাড়ে ৯ টার দিকে গোলাপগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদের নেতৃত্বে সাদা পোশাকে একদল পুলিশ কানাইঘাটে জনতার হাতে আটক তিন ডাকাতকে গ্রেফতার করে নিয়ে যেতে চাইলে পুলিশের সাথে স্থানীয় লোকজনের কথা কাটাকাটি হয়। কানাইঘাট থানা পুলিশের উপস্থিতি ছাড়া ডাকতদের হস্তান্তর করা হবেনা এ নিয়ে জনতার মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে রাজাগঞ্জ ইউপির চেয়ারম্যান মানিক মিয়া ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সহযোগীতায় সকাল ১১টায় কানাইঘাট থানার এস.আই মঈন উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ থানা থেকে ৩০ কি:মি: দূরে ঘটনাস্থলে পৌছে উপস্থিত লোকজনকে আশ্বস্থ করার পর গোলাপগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে তিন ডাকাতকে সোপর্দ করা হয়। স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গোলাপগঞ্জ উপজেলার দাড়িপাতন গ্রামের খসরু মিয়ার বাড়ীতে গত শুক্রবার রাত অনুমানিক ৩টার দিকে একই উপজেলার বাঘা কোণা কান্দি গ্রামের সুনাফর আলীর পুত্র মো: মুরাদ (২০), বাঘা উত্তর গড় গ্রামের নূর রহমানের পুত্র রুহেল আহমদ (২৬) ও গোলাপগঞ্জ গ্রামের হারুন মিয়ার পুত্র মখলিছুর রহমান (২৭) সহ চার ডাকাত ডাকাতী শেষে কানাইঘাটের ছোট মির্জারগড়ের মামার বাজারের অদূরে নির্জন স্থানে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ডাকাতীর মালামাল ভাগ বাটোয়ারার সময় স্থানীয় কিছু লোকজন বিষয়টি দেখে তাদের সন্দেহ হলে ডাকতদের চ্যালেঞ্জ করেন। এক পর্যায়ে আহত অবস্থায় এক ডাকাত সুরমা নদী সাত্রিয়ে পালিয়ে গেলেও স্থানীয় লোকজন উল্লেখিত তিন ডাকাতকে আটক করতে সম হন। আটককৃত ডাকাতদের কাছ থেকে তিন রাউন্ড গুলি, দুটি কালো মুখুশ, নগদ ২হাজার টাকা, একটি স্বর্ণের বালা ও দুটি নকিয়া মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি হারুনুর রশীদের সাথে যোগযোগ করা হলে তিনি বলেন, তাঁর থানার দাড়িপাতন গ্রামের খসরু মিয়ার বাড়ীতে একদল ডাকাত শুক্রবার গভীর রাতে হানা দিয়ে ডাকাতী করলে ডাকাতীর বিষয়টি বিভিন্ন গ্রামের মসজিদে মাইকিং করা হয়। ডাকাতদের ধরতে কয়েকটি পুলিশের পেট্রলপার্টি বিভিন্ন স্থানে তৎপরতা শুরু করে। এক পর্যায়ে পুলিশের তাড়া খেয়ে চার ডাকাত কানাইঘাটের মির্জারগড়ে আশ্রয় নিলে স্থানীয় লোকজন তিন ডাকাতকে আটকের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে স্থানীয় লোকজন ও কানাইঘাট থানা পুলিশের উপস্থিতিতে ডাকাতদের নিয়ে আসি। এ নিয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে গোলাপগঞ্জ থানা পুলিশের কোন গন্ডগোল হয়নি বলে ওসি হারুন রশীদ জানিয়েছেন।

কানাইঘাটে গাছের সাথে গাড়ির ধাক্কা নিহত ১/ আহত ৩

Kanaighat News on Saturday, October 20, 2012 | 11:53 PM

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কানাইঘাটে গাছের সাথে গাড়ির ধাক্কা খেয়ে ১জন নিহত ও ৩ যাত্রী আহত হয়েছেন। আজ সকাল ১১ টায় কানাইঘাট-গাছবাড়ী গাজী বোরহান উদ্দিন সড়কের তালবাড়ী নামক স্থানে ওই দূর্ঘটনা ঘটে। জানাযায়, গাছবাড়ী বাজার থেকে ৫ জন যাত্রী নিয়ে সিলেটগামী সিএনজি তালবাড়ী নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে একটি গাছের সাথে সজোরে ধাক্কা খায়। এ সময় ৪ জন আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়। নিহত ব্যক্তির নাম আশফাক উদ্দিন(৩৫)। সে তিনছটি গোয়াইনপুর গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে। মৃত আশফাক উদ্দিন গাছবাড়ী বাজারের ব্যাবসায়ী। তিনি ৩ সন্তানের জনক। তার মর্মান্তিক মৃত্যুতে এলাকায় শোকের শায়া নেমে

এসেছে।





মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখার জন্য ৬১ বিদেশি বন্ধুকে সম্মাননা

বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখার জন্য এবার ৬১ বিদেশি বন্ধুকে সম্মান জানাচ্ছে বাংলাদেশ। তাদের সম্মান জানানোর জন্য তৃতীয় পর্বের অনুষ্ঠান শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুরু হয়েছে। রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদেশি বন্ধুদের হাতে �বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা� ও �মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রী সম্মাননা� তুলে দিচ্ছেন।

মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য তৃতীয় পর্বের এ অনুষ্ঠানে ১৩৮ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও ৬১ জন উপস্থিত রয়েছেন।

এবার �বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা� পাচ্ছেন ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শ্রী আই কে গুজরাল এবং নেপালের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী প্রয়াত গিরিজা প্রসাদ কৈরালা। বাকী বন্ধুরা পাচ্ছেন �মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রী সম্মাননা�।

ব্যক্তিপর্যায়ে এবারের সম্মাননা পাচ্ছেন ভারত, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, সুইডেন, ইতালী অষ্ট্রেলিয়া ও ভিয়েতনামের নাগরিক।

এরা হচ্ছেন- ভারতের দিলীপ চক্রবর্তী, নারায়ন দেশাই, মানষ ঘোষ, আফজাল হোসেন, আহম্মদ হোসেন, হিরন্ময় কার্লেকার, অঞ্জলী লাহিড়ী, ড. অশোক মিত্র, পঙ্কজ সাহা, ক্যাপ্টেন (অব.) এম এন আর সামন্ত, প্রফেসর তরুণ স্যানাল, পবিত্র সরকার, রবীন সেনগুপ্ত, বিগ্রেডিয়ার সান সিং (মহাবীর চক্র), কর্নেল (অব.) অশোক তারা (বীরচক্র), উপেন তরফদার, প্রয়াত মনসুর আলী, প্রয়াত বেগম গৌরী আইয়ুব, প্রয়াত কাইফি আজমী, প্রয়াত দীপেন্দ্র বন্দোপাধ্যায়, প্রয়াত শিবনাথ ব্যানার্জী, প্রয়াত অনিল ভট্টাচার্য, প্রয়াত ভূপেন দত্ত ভৌমিক, প্রয়াত ডা. শিশির কুমার বসু, নীরেন্দ্র নাথ চক্রবর্তী, প্রয়াত নৃপেন চক্রবর্তী, প্রয়াত মৈত্রেয়ী দেবী, বি বি দত্ত, শহীদ ল্যানস নায়েক আলবার্ট এক্কা (পরম বীর চক্র), সন্তোষ কুমার ঘোষ, প্রয়াত ড. ফুলরেণু গুহ, প্রয়াত ভূপেশ গুপ্ত, গোবিন্দ হালদার, প্রয়াত কল্পনা দত্ত জোশী, প্রয়াত মাওলানা আবদুল লতিফ, প্রয়াত গৌরি প্রসন্ন মজুমদার, প্রয়াত দিলীপ মুখার্জী, প্রয়াত ব্রিগেডিয়ার টম পান্ডে (মহাবীর চক্র), প্রয়াত জগজীবন রাম, প্রয়াত চন্দ্র রাজেম্বর রাও, প্রয়াত প্রফেসর নীহার রঞ্জন রায়, প্রয়াত ক্যাপ্টেন উইলিয়ামসন সাংমা, প্রয়াত প্রণবেশ সেন (আকাশবানী), প্রয়াত ড. ত্রিগুনা সেন, প্রয়াত অমিয় তরফদার, যুক্তরাজ্যের শশাঙ্ক ব্যানার্জি, স্যার উইলিয়াম মার্ক টালি, প্রয়াত ডোনাল্ড চেজওয়ার্থ, ভিয়েতনামের মাদাম বিন, অষ্ট্রেলিয়ার ক্লিফটন ও প্রয়াত ডা. জিওফ্রে ডেভিস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জোয়ান এ ডাইন, টমাস এ ডাইন, সুইডেনের লারস লিজনবার্গ, ভেন স্ট্রমবাগ এবং ইতালীর ফাদার মারিনো রিগান।

এছাড়াও সম্মাননা পেতে যাচ্ছেন পশ্চিম বাংলার সর্বাধিক জনপ্রিয় পত্রিকার আনন্দবাজার এবং এর মালিক অভীক সরকার ও শ্রী রমেশ চন্দ্র ও বিশ্ব শান্তি পরিষদ।উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধে অনন্য অবদান রাখা গত বছর ২৫ জুলাই থেকে বিদেশি বন্ধুদের সম্মানিত করার কাজ শুরু হয়। ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে �বাংলাদেশ স্বাধীনতা সম্মাননা� (মরণোত্তর) প্রদানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মাননা দেওয়া শুরু হয়েছিল বিদেশি বন্ধুদের। পরবর্তীতে এই শিরোনামে আর কাউকে সম্মাননা দেয়নি সরকার।

আজ থেকে শেষ হচ্ছে বিডিআর বিদ্রোহ মামলার বিচার কার্যক্রম

সদর রাইফেল ব্যাটালিয়ন ইউনিটের মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে শেষ হতে যাচ্ছে তিন বছর আগের বিডিআর বিদ্রোহ মামলার বিচার কার্যক্রম।

শনিবার পিলখানার দরবার হলের এজলাসে এই মামলার রায় দিচ্ছেন বিজিবির ঢাকা সেক্টরের প্রধান কর্নেল এহিয়া আজম খান।

বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ২৪৭ জনের বিষয়ে রায় পড়া শেষ হয়েছে, এর মধ্যে ৪৮ জনকে সর্বোচ্চ সাত বছর সাজা দেয়া হয়েছে। এই ২৪৭ জনের মধ্যে নায়েক সুবেদার মো. ওলিউল্লাহ নামে একজন খালাস পেয়েছেন।

সদর রাইফেল ব্যাটালিয়নের ৭৩৫ জনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ১১ জুলাই বিদ্রোহের অভিযোগ দায়ের করা হয়। দুই আসামির মৃত্যুতে ৭৩৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।

২০০৯ সালের ২৫ এবং ২৬ ফেব্রুয়ারি পিলখানাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে বিডিআর বিদ্রোহের পর বিডিআর আইনে মোট ৫৭টি মামলা হয়। ৫৭টি মামলার মোট আসামি ৬ হাজার ৪১জন। এর মধ্যে ৫৬টি মামলার রায়ে ৫ হাজার ২০৩ জনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা হয়েছে। খালাস পেয়েছে ১০৫ জন।

এসব বিদ্রোহ মামলার মধ্যে ২০০৯ সালে ২৪ অক্টোবর প্রথম বিচার শুরু হয় রাঙামাটির ১২ রাইফেল ব্যাটালিয়ন রাজনগরের ৯ জনের বিরুদ্ধে। পরবর্তীকালে ২০১০ সালের ২ মে এই মামলার প্রত্যেক আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়।

বিদ্রোহের মামলার প্রথম রায় হয় পঞ্চগড়ের ২৫ রাইফেলস ব্যাটালিয়নের বিদ্রোহের ঘটনায়। ২০০৯ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি পিলখানায় বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় ৫৭ সেনা কর্মকর্তাসহ ৭৩ জন নিহত হন। রক্তাক্ত বিদ্রোহের পর সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর নাম বদলে রাখা হয় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবি।

বিদ্রোহের মামলার বিচার শেষ হতে চললেও পিলখানায় হত্যা-লুণ্ঠনের মামলার বিচার চলছে ঢাকার জজ আদালতে। ওই মামলা সাক্ষ্যগ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে। ফেয়ার নিউজ

কানাইঘাটে দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে প্রশাসনের ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ

Kanaighat News on Friday, October 19, 2012 | 11:00 PM

আজ থেকে শুরু হওয়া হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব শ্রী শ্রী শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে কানাইঘাটে ২৮টি পূজা মন্ডবে শান্তি শৃঙ্খলা রার্থে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্বস্থরের নারী পুরুষদের মধ্যে আনন্দ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। গত ১২ অক্টোবর কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই উপজেলা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন পূজা মন্ডপের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে উৎসব মুখর পরিবেশে শারদীয় দুর্গাপূজা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে মতবিনিময় করেছেন। মতবিনিময় সভায় ২৮টি পূজা মন্ডবের শান্তিশৃঙ্খলা রার্থে পর্যাপ্ত পরিমান পুলিশের পাশাপাশি দুইশ’র উপরে অধিক আনসার বিডিবি’র সদস্যদের মোতায়েন করা হবে বলে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দকে আস্বস্থ করা হয়। এদিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৮টি পূজা মন্ডবে ১৫টন চাল সরকারীভাবে বরাদ্ধ করা হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম.সোহরাব হোসেন জানিয়েছেন। ওসি আব্দুল হাই স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মাধ্যমে হিন্দু সম্প্রদায়ের শারদীয় দুর্গাপূজা নির্বিঘে উৎসব মুখর পরিবেশে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পূজামন্ডব গুলোতে নিয়মিত টহলের পাশাপাশি পুলিশের অনেকগুলি দল কাজ করবে। তিনি পূজামন্ডব গুলোর শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য সকল সম্প্রদায় ও রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

কানাইঘাট ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের আঞ্চলিক কমিটি বিলুপ্ত

সিলেট জেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং চট্ট- ২১৫৯ এর অন্তভুক্ত কানাইঘাট উপজেলা আঞ্চলিক কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে। সিলেট জেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু সরকার ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গফুর মিয়া গত ১৫ অক্টোবর স্বারিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের সাথে জড়িত থাকায় কানাইঘাট আঞ্চলিক ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। এখন থেকে কানাইঘাট আঞ্চলিক কমিটির সাথে কোন প্রকার সাংগঠনিক কাজ ও কোন ধরনের লেন দেন না করার জন্য সকল শ্রমিক ভাইদের প্রতি অনুরোধ করেছেন জেলা নেতৃবৃন্দ। উল্ল্যেখ্য যে, হারিছ মিয়াকে সভাপতি ও জসিম উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক করে কানাইঘাট আঞ্চলিক ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের কমিটি গঠন করা হলেও এ কমিটির কয়েক জনের ব্যর্থতা ও সংগঠন বিরোধি কার্যকলাপের কারণে কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে বলে সর্বস্থরের ট্রাক শ্রমিকরা জানিয়েছেন।

আগামী নির্বাচনে ইভিএম ব্যাবহার হবে না

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার হবেনা। স্থানীয় সরকারের অধীনের নির্বাচনগুলোতে আমরা ইভিএম ব্যবহার করব। বর্তমান আইনে তাই উল্লেখ রয়েছে। জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করতে হলে বিদ্যমান আইন পরিবর্তন করতে হবে।

এর আগে একজন নির্বাচন কমিশনার আগামী জাতীয় নির্বাচনে আংশিক পরিমাণে ইভিএম ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন। এর জন্য প্রয়োজনে নির্বাচনের ছয় মাস আগে আইন করবেন বলেও সেই কমিশনার জানান।

সে কমিশনারের বক্তব্য সম্পর্কে সিইসি বলেন, ��জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের বিষয়ে আমি বলিনি। আমাদের সিদ্ধান্ত হয়েছে সিটি করপোরেশন ও মিউনিসিপ্যালিটি নির্বাচনে ব্যবহারের বিষয়ে। ভবিষ্যতে আমরা উপজেলা পর্যায়েও এ প্রযুক্তি ব্যবহার করব।��সিইসি বলেন, ��আসন সীমানা পুনর্নিধারণ সকলের বিষয়। এ বিষয়ে সংলাপে আমরা সব দলকে আমন্ত্রণ জানাবো। আমরা আশা করি সব দল এ সংলাপে যোগ দেবে। সংলাপে যোগ দিলে বিএনপিরই লাভ।��

তিনি বলেন, ��ঈদের আগেতো আর সময় নেই। ঈদের পরেই ইসি সবগুলো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপে বসবে। আমরা সময় নিয়ে দলগুলো দাওয়াত দিতে চাই। কারণ বিষয়টি অতি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা গুরুত্ব সহকারে তাদের কথাও শুনতে চাই।��তবে ঈদের পর কখন এ সংলাপ বসবে তিনি তার নির্দিষ্ট দিন তারিখ প্রকাশ করতে অপারগতা প্রকাশ করেন।দলগুলো সংলাপে অংশ নিয়ে কমিশনকে ভাল পরামর্শ দিবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। সংলাপের মূল এজেন্ডা আসন সীমানা পুনর্নিধারণ হলেও কেউ চাইলে অন্য বিষয়েও মতামত দিতে পারবেন বলেও জানান রকিবউদ্দিন আহমদ।একই বিষয় নিয়ে ইতোমধ্যে ইসি সুশীল সমাজ ও সাংবাদিক প্রতিনিধিদের সঙ্গেও সংলাপ করেছেন। এ সংলাপ সম্পর্কে তিনি বলেন, ��সংলাপে অংশ নেয়া কেউ যদি পরবর্তীতেও আমাদেরকে কোন বিষয়ে মতামত জানাতে চান, তিনি চিঠি দিয়ে বা এসে তার মতামত জানিয়ে দিতে পারবেন।��

টাঙ্গাইল-৩ আসনের উপনির্বাচন ও রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন প্রস্তুতি এগিয়ে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।ফেয়ার নিউজ



দেশের প্রথম অনলাইনে কোরবানির হাট

প্রযুক্তির ছোঁয়ায় মানুষের জীবন দিনের পর দিন সহজ থেকে সহজতর হয়ে যাচ্ছে। আর যেতে হবে না হাটে এখন ঘরে বসে কিনতে পারবেন আপনার পছন্দের কোরবানীর গরু। ইন্টারনেট সংযোগ আমাদের আটপৌঢ়ে জীবনে দিয়েছে নতুন প্রাণ। জন্ম থেকে মৃত্যু জীবনের প্রতিটি পরতে যুক্ত এই অন্তর্জালের অন্তরঙ্গতা এখন জুড়ে গেছে মুসলমানদের আত্মোৎসর্গ আনন্দ আয়োজনেও। অর্থাৎ হাটে ঘোরাঘুরি কিংবা কোরবানির পশু কিনে রশি টানাতে টানতে বাসায় আনার গলদঘর্ম কসরৎ। অনলাইন এই কোরবানির হাট থেকে এখন চাইলেই ঘরে বসে পছন্দের গরু নির্বাচন করতে পারছেন ক্রেতারা। একইভাবে গোয়াল থেকেই ঈপ্সিত মূল্যে পালিত কোরবানির পশু বিক্রি করতে পারছেন চাষী বা খামারীরা।
দেশের ইতিহাসে প্রথম এই অনলাইন কোরবানির হাট বসেছে ঠিকানায়। http://amardesheshop.com/index.php/qurbani/এখানে রয়েছে কোরবানি উপলক্ষে বিক্রির অপেক্ষায় থাকা গরু ও ছাগলের ছবি, কোড নম্বর, দাম এবং কোনো কোনে ক্ষেত্রে এর ভিডিও। অনলাইনে বুকিং দেয়ার পাশাপাশি ব্রাকব্যাংক ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের ই ক্যাশ, বি-ক্যাশ কিংবা ব্যাংক ড্রাফটের মাধ্যমে পছন্দের পশু কিনতে পারছেন ক্রেতারা।ফেয়ার নিউজ



পৃথিবীর চেয়ে দ্বিগুণ বড় গ্রহের সন্ধান

সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর চেয়ে দ্বিগুণ বড় একটি গ্রহের সন্ধান পেয়েছেন। যেটিকে তারা নামকরণ করেছেন �হীরক গ্রহ�। যুক্তরাষ্ট্র এবং ফ্রান্সের একদল বিজ্ঞানীর যৌথ গবেষণায় নতুন এ গ্রহটির অস্তিত্ব ধরা পড়েছে। বিজ্ঞানীর এই দলটির নাম �৫৫ ক্যাংক্রি-ই�। তারা গবেষণায় দেখতে পান প্রায় সূর্যেরই মতো দেখতে একটি তারা সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘুরছে। আরও অবাক করার বিষয় হচ্ছে গ্রহটি অত্যন্ত দ্রুতগতিতে ঘুরছে। দলের প্রধান বিজ্ঞানী নিকু মধুসূদন বলেন, গ্রহটি আকারে পৃথিবীর দ্বিগুণ। এটি অবিশ্বাস্য রকমের গরম একটি গ্রহ। বিশেষ করে এর পৃষ্ঠটি ৩ হাজার ৯০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট উত্তপ্ত। তিনি আরও বলেন, গ্রহটির পৃষ্ঠ গ্রাফাইট এবং হীরক দিয়ে ঢাকা। যেখানে অন্য গ্রহের বেলায় সাধারণত পানি এবং গ্রানাইট দেখা যায়। তাই ব্যতিক্রমী এই বৈশিষ্ট্যের কারণে আমরা এর নাম দিয়েছি হীরক গ্রহ। তবে গ্রহটি নিয়ে গবেষণা অব্যাহত রাখলে আরও নতুন তথ্য পাওয়া যেতে পারে বলে জানান তিনি। ফেয়ার নিউজ

কানাইঘাটে ১৮ দলের মিছিল সমাবেশ

নিজাম উদ্দিন/কাওছার আহমদ:
এম. ইলিয়াস আলীর সন্ধান এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুর্নঃবহালের দাবীতে কানাইঘাটে জামায়াতে ইসলাম ছাড়া ১৮ দলীয় ঐক্যজোট উদ্যোগে আজ বুধবার বাদ আছর কানাইঘাট বাজারে ব্যাপক শোডাউন করেছে ১৮দলের অর্ন্তভুক্ত বিএনপি ও ইসলামী সমমনা দল অঙ্গসংগঠনের শত শত নেতাকর্মীরী। জামায়াতকে বাদ দিয়ে সম্প্রতি ১৮দলীয় ঐক্য জোটের উপজেলা ও পৌর আহ্বায়ক কমিটি গঠনের পর মহাজোট সরকার মতায় আসার প্রায় চার বছরের পর প্রায় ৩হাজার নেতাকর্মীদের অংশগ্রহনে বড় ধরনের কোন শো-ডাউন কানাইঘাটে বিরোধী জোটের উদ্যোগে উপজেলা সদরে পালিত হয়েছে। মিছিলটি পৌরশহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদণি শেষে কানাইঘাট দণিবাজারে গিয়ে এক মহাসমাবেশে মিলিত হয়। ১৮দলীয় জোটের কানাইঘাট পৌরশাখার আহবায়ক হাজী ইফজালুর রহমানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা ১৮ দলের সদস্য সচিব মুফতি ইবাদুর রহমানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন ১৮দলের পৌর সচিব জমিয়তে উলামা ইসলামের সভাপতি মাওঃ ফজলুর রহমান, থানা বিএনপি’র সহসভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদ চৌধুরী, ডাঃ আবু শহিদ, ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুল হক, পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ফরিদ আহমদ উপজেলা খেলাফত মজলিসের সভাপতি মাওঃ আব্দুস সালাম, উপজেলা ইসলামী ঐক্যজোটের সেক্রেটারী মাওঃ খলিলুর রহমান, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কাউন্সিলার হাজী শরীফুল হক, জেলা ছাত্রদলের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক হাজী জসিম উদ্দিন, পৌর খেলাফত মজলিসের সভাপতি মাওঃ নজরুল ইসলাম, উপজেলা যুবদলের আহবায়ক মোঃ আব্দুল মন্নান, যুগ্ম আহবায়ক মামুন রশিদ, সায়িক আহমদ, কাওছার কাঙ্গালী, ছাত্রদল সভাপতি নজরুল ইসলাম, সহসভাপতি রাশিদুল হাসান টিটু, উপজেলা যুব জমিয়তের সভাপতি মাওঃ নজরুল ইসলাম, সেক্রেটারী মহিউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওঃ নজরুল ইসলাম, সেক্রেটারী শিব্বির আহমদ, বিএনপি নেতা ডাঃ ইয়াকুব আলী, নুরুল হোসেন বুলবুল, মোহাম্মদ আলী মেম্বার, আজির উদ্দিন ভেড়া, নজরুল ইসলাম রুকন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা নাজিম উদ্দিন, জলাল আহমদ জনি, মিজানুর রহমান, মোহাম্মদ আলী, শ্রমিক দল নেতা জাকারিয়া, লালই, জাফর, সেলিম, আবিদ, শরিফ, হারিছ, রহমত, বিলাল, এতিম, শাকের, আশিক, ছাত্রদল নেতা রুহুল আমিন, রুহুল আম্বিয়া, কয়ছর, করিম চৌধুরী প্রমুখ।

 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩