উপজেলা পরিষদের সভায় ১কোটি ৯লক্ষ ১১হাজার টাকার প্রকল্প অনুমোদন

Kanaighat News on Wednesday, November 30, 2011 | 12:42 AM

উপজেলা পরিষদের সভায় ১কোটি ৯লক্ষ ১১হাজার টাকার প্রকল্প অনুমোদন


কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় কমিটির সভায় ১কোটি ৯ল ১১হাজার টাকার প্রকল্প অনুমোদন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার উপজেলা পরিষদের মাসিক সাধারন সভায় এসব প্রকল্প অনুমোন করা হয়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম.সোরহাব হোসেনের পরিচালনায় উক্ত মাসিক সমন্বয় সভায় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ইকবাল ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রীমতি প্রভাতী রাণী দাসসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং সরকারী দপ্তরের কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী জানান, অতিদরিদ্র জনগোষ্ঠির কর্মসংস্থান কর্মসূচীর আওতায় ১০ল ৮৫হাজার টাকার প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। এডিপি’র আওতায় ৭১ল ২৪হাজার টাকার প্রকল্প ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে জনসংখ্যার আয়তন অনুসারে খাত ওয়ারি বিভাজন করা হয়। টিআর প্রকল্পের মাধ্যমে ২১ল ৮হাজার টাকার প্রকল্প গ্রহন করা হয়। এছাড়াও রাজস্ব তহবিলের মাধ্যমে বাস্তবায়নের জন্য ৬ল টাকার প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী বলেন, আমরা উপজেলা পরিষদের মাধ্যমে এসব উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করতে সর্বসম্মতি ক্রমে এসব প্রকল্প গ্রহন করেছি। প্রকল্পগুলো গ্রামীন জনপদের উন্নয়নের বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি জানান।

অটোরিক্সা খাদে পড়ে কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজের ৫শিক্ষার্থী

অটোরিক্সা খাদে পড়ে কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজের ৫শিক্ষার্থী আহত


কানাইঘাটে এক অটোরিক্সা (সিএনজি) চালকের ভূলের মাশুল দিলেন কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেনীর ৫টেস্ট পরীার্থী। জানা যায়, উপজেলার ৪নং সাঁতবাক ইউনিয়নের ভবাণীগঞ্জ বাজার থেকে সিলেট-চ, ১২-৭৫১০ নাম্বারের সিএনজি রিজার্ভ করে সকাল ৯টায় কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীর শিার্থী হালিমা বেগম, ফয়ছল আহমদ, সালোয়া বেগম, ফাউজিয়া বেগম, মাছুমা বেগম কলেজে আসার জন্য রওয়ানা দিলে সিএনজিটি সাঁতবাক ইউনিয়ন কমপ্লেক্সের পার্শ্বে আসা মাত্র ড্রাইভার সুহেল আহমদের ভুলে রাস্তা থেকে ছিটকে পড়ে উল্টেগেলে এ ৫শিার্থী রক্তাক্ত আহত হন। তাদের মধ্যে ৪শিার্থীকে কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হলেও ফয়সল আহমদ গুরুতর আহত হওয়ায় তাকে সিলেট ওমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। আহত এ পাঁচ শিার্থী গতকালকের কলেজের গতকালকের পৌরনীতি ২য় পত্রের টেস্ট পরীায় অংশগ্রহন করতে পারেন নি। আহত শিার্থীরা জানিয়েছেন সিএনজি ড্রাইভার সুহেল আহমদ তার পাশে বসা একটি ছেলেকে দিয়ে গাড়ি চালানোর চেষ্টা করলে এ দূর্ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় খাসিয়ার গুলিতে কানাইঘাটে কৃষক নিহত

Kanaighat News on Monday, November 28, 2011 | 8:58 PM

ভারতীয় খাসিয়ার গুলিতে কানাইঘাট সীমান্তে বাংলাদেশী কৃষক নিহত
কানাইঘাট লোভাছড়া সীমান্তে ভারতীয় খাসিয়ারা বাংলাদেশে অভ্যন্তরে প্রবেশ করে এক বাংলাদেশী কৃষককে ধরে নিয়ে উপর্যুপরি গুলি করে হত্যা করে লাশ বাংলাদেশ সীমান্তের ভিতরে ফেলে চলে যায়। স্থানীয় লোভাছড়া বিজিবি ক্যাম্প সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১নং লক্ষ্মীপ্রসাদ পূর্ব ইউনিয়নের কান্দলা কোনাপাড়া গ্রামের মৃত আলাউর রহমানের পুত্র কৃষক মসদ আলী উরফে মনোয়ার (৩০) সোমবার (২৮ নভেম্বর) সকাল ১১টায় বাংলাদেশ সীমান্তের লোভাছড়া হাপার মুখ এলাকায় গরু চরাতে গেলে ভারতের বুলিং পুঞ্জির খাসিয়ারা তাকে ধরে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে। পরে বিকেল ৫টায় বাংলাদেশ সীমান্তের ১৩২৪ মেইন পিলারের পাশে লাশ ফেলে দেয়। স্থানীয় লোকজন রক্তাক্ত লাশ দেখে লোভাছড়া বিজিবি ক্যাম্পের জওয়ানদের বিষয়টি অবগত করেন। খবর পেয়ে মসদ আলী’র আত্মীয়স্বজন ঘটনাস্থলে এসে লাশটি সনাক্ত করে। বিজিবি ও স্বজনরা কানাইঘাট থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কানাইঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে সিলেট ওমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুর রহমান খান জানিয়েছেন।

কানাইঘাটে মোবাইল কোটের্র অভিযান

মোবাইল কোটের্র অভিযান
হাসানা ড্রিংকিং ওয়াটার কোং সিলগালা ও জরিমানা আদায়


সোমবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম সোহরাব হোসেন কানাইঘাট বাজারে এক মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এ সময় হাসানা ড্রিংকিং ওয়াটার কোম্পানীতে অভিযান চালালে কোম্পানী কর্তৃপক্ষ বি.এস.টি.আই’র অনুমোদনের কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারলে ১০হাজার টাকা জরিমানা ও কোম্পানীকে সিলগালা করেন। এছাড়া কানাইঘাট মধ্য বাজারে আরাফাত ও শাহজালাল রেষ্টুরেন্টে অভিযান চালিয়ে আরো ১হাজার টাকা করে ২হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

নবগঠিত জেলা আ'লীগের সভাপতির সাথে কানাইঘাট আ'লীগ নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাত

নবগঠিত জেলা আ’লীগের সভাপতির সাথে কানাইঘাট আ'লীগ নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাত


নিজাম উদ্দিন:
নবগঠিত সিলেট জেলা আ’লীগের সভাপতি আবদুজ জহির চৌধুরী সুফিয়ানকে অভিনন্দন শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। গত শুক্রবার রাতে নবনির্বাচিত জেলা আ’লীগের সভাপতির সিলেট শহরস্থ বাসভবনে কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দ এক সৌজন্য সাক্ষাত করে আবদুজ জহির সুফিয়ানকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও নবগঠিত জেলা কমিটির সকল নেতৃবৃন্দের সফলতা ও দলের অগ্রযাত্রা কামনা করেন। সৌজন্য সাক্ষাতকালে আ’লীগ নেতৃবৃন্দ কানাইঘাট আ’লীগের সাংগঠনিক স্থবিরতার কথা তুলে ধরেন এবং তৃণমূল পর্যায়ে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম শক্তিশালী করার ল্েয দলের পরীতি ও ত্যাগী নেতা কর্মীদের মূল্যায়ণ করে আগামী দিনে জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত দলের সকল কর্মসূচী এবং রাজপথে বিরোধী দলের আন্দোলন সংগ্রাম মোকাবেলা করার জন্য মেয়াদ উত্তীর্ণ পূর্ণাঙ্গ কমিটি বিহীন উপজেলা আ’লীগের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘটনের দাবী জানান। আবদুজ জহির চৌধুরী সুফিয়ান নেতাকর্মীদের আশ্বস্থ করে বলেন, আগামী দিনে সিলেটে তৃণমূল পর্যায়ে আ’লীগকে আরো শক্তিশালী করার জন্য অবশ্যই দলের পরীতি নেতাদের মূল্যায়ন করা হবে। তিনি জনগণের কল্যাণে নেওয়া সরকারের সকল উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনার ঘোষিত ডিজিটাল সমৃদ্ধ বাংলাদেশ ঘটনে দলের সর্বস্থরের নেতাকর্মীদের সকল বেদাবেধ ভূলে গিয়ে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানান। স্বাাৎকালে কানাইঘাট আ’লীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আ’লীগনেতা কানাইঘাট সদর ইউপি’র চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্য সিরাজুল ইসলাম যুক্তরাজ্য আ’লীগের শিা ও মানব বিষয়ক সম্পাদক এম.সি কলেজের সাবেক ভিপি খছরুজ্জামান খছরু, আ’লীগনেতা রফিক আহমদ জালাল আহমদ, উমর আলী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল্লাহ, মোঃ সাইফুল্লাহ খালেদ, সুবেদার আফতাব উদ্দিন, সিরাজুল ইসলাম খোকন, ওলিউর রহমান, এডভোকেট মামুন রশিদ, কাউন্সিলার ফখরুদ্দিন শামীম, জিএম হায়দার, কেএইচএম আব্দুল্লাহ, তাজ উদ্দিন, নাসির আহমদ, ছয়ফুল আলম, তৌহিদ আহমদ, মুহিবুল হক মেম্বার, খালিক মেম্বার, শাহজাহান আহমদ, হাজী বিলাল, জসিম উদ্দিন, হেলাল আহমদ, সমির উদ্দিন, খলিলুর রহমান, ইসমাইল আলী, জুবের আহমদ চৌধুরী, জালাল উদ্দিন, কামরুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন সেলিম, মাসুদুল হক, শাহীনুজ্জামান, সাদিক আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা শাহার আহমদ, আশফাকুজ্জামান, আনোয়ারুল হক, জুবের আহমদ প্রমুখ। দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ মহাজোট সরকারের বিরুদ্ধে প্রবাসে

ব্যাবসায়ীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় ২ ডাকাত গ্রেফতার

ব্যবসায়ীর বাড়িতে ডাকাতি দু’ডাকাত গ্রেফতার
গত ১৪ নভেম্বর কানাইঘাট উপজেলার ৭নং দণি বানী গ্রাম ইউনিয়নের ধলিবিল দণি (নয়াগ্রামে)’র বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফারুক আহমদের বাড়িতে সংঘটিত দুর্ধষ ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত দু’ডাকাতকে কানাইঘাট থানা পুলিশ গত শুক্র ও শনিবার পৃথক অভিযান চালিয়ে আটক করতে সম হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হল ৫নং বড়চতুল ইউপি’র কুড়ারপার গ্রামে নাসির উদ্দিনের পুত্র পেশাদার ডাকাত ও একাধিক ডাকাতি মামলার আসামী এনাম উদ্দিন (২৫) ও ৭নং দণি বানীগ্রাম ইউপি’র ধলিবিল দণি নয়াগ্রামের তাজুল ইসলামের পুত্র এলাকার চিহ্নিত অপরাধী হারুনুর রশিদ (৩০)। পুলিশ সূত্রে জানাযায় গত শুক্র ও শনিবার পৃথক অভিযান চালিয়ে থানার এস.আই এনাম আহমেদ ও এস.আই হাবিব আহমদ পৃথক অভিযান চালিয়ে এ দু’ডাকাতকে তাদের নিজ এলাকা থেকে আটক করেন। গ্রেফতারকৃত এনাম ডাকাতের বিরুদ্ধে দরবস্ত চতুল রাস্তার মালিগ্রাম এলাকায় সড়ক ডাকাতিসহ ৩টি ডাকাতির মামলা রয়েছে। সম্প্রতি সে জেল কেটে বের হয়ে আবারো ডাকাতিতে জড়িয়ে পড়ে। অপরদিকে হারুন রশিদের বিরুদ্ধে থানায় বিষ্ফোরক দ্রব্য আইনেসহ আরো দু’টি মামলা রয়েছে। আটককৃত এদু’ডাকাতকে গতকাল আদালতে পুলিশ সোপর্দ করলে বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধিতে হারুন রশিদ ব্যবসায়ী ফারুক আহমদের বাড়িতে ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলে কানাইঘাট থানার ওসি শফিকুর রহমান খান জানিয়েছেন। উল্লেখ্য যে গত ১৪নভেম্বর গভীর রাতে ব্যবসায়ী ফারুক আহমদের বাড়িতে ১০/১২জনের অস্ত্রধারী ডাকাতদল হানা দিয়ে ১৮ভরি স্বর্ণালঙ্কার নগদ দু’ল ৬১হাজার টাকাসহ প্রায় ১২ল টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় ডাকাতরা।

জনমত গঠনে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ব হয়ে কাজ করতে হবে

জনমত গঠনে বিএনপি নেতাকর্মীদের
ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে ---------আব্দুল কাহির চৌধুরী


নিজাম উদ্দিন:
সিলেট জেলা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য বর্তমানে সৌদি আরবে অবস্থানরত আলহাজ্ব আব্দুল কাহির চৌধুরী বলেছেন, দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়ে বর্তমান মহাজোট সরকার দিশেহারা হয়ে বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে যাচ্ছে। তাই জুলুমবাজ এই সরকারের বিরুদ্ধে প্রবাসে অবস্থানরত বিএনপি’র নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে এ সরকারের বিরুদ্ধে জনমত গঠনের ল্েয কাজ করে যেতে হবে। আব্দুল কাহির চৌধুরী গত বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় সৌদিআরব জেদ্দা মুসনাবাজার আঞ্চলিক বিএনপি’র উদ্যোগে বাংলা ফুড্ হোটেলে আয়োজিত তাকে দেওয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। সৌদিআরব পশ্চিম শাখা শ্রমিক দলের সেক্রেটারী ও জেদ্দা মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়েস আহমদের সভাপতিত্বে এবং মুসনা বিএনপি’র আঞ্চলিক কমিটির সেক্রেটারী টিপু সুলতানের পরিচালনায় উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেদ্দা বিএনপি’র প্রধান উপদেষ্টা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান প্রধান, জেদ্দা মহানগর বিএনপি’র সভাপতি এম.এ.আজাদ চয়েন, জেদ্দা মহানগর বিএনপি’র প্রধান এ্যাডভাইজার নুরুল আমিন, জেদ্দা মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাঈদুল ইসলাম মাজেদ, জেদ্দা মহানগর বিএনপি’র প্রধান উপদেষ্টা আইয়ূব বাঙ্গালী, জেদ্দা মহানগর বিএনপি নেতা গিয়াস উদ্দিন মারুফ, জাফর ইকবাল, আরফান আলী, মোয়াজ্জিম হোসেন, সুলতান, ফরিদ আহমদ, নজির আহমদ, নুরুল হক, লুৎফুর রহমান, হোসেন আহমদ প্রমুখ। জেদ্দা মহানগর ও মুসনাবাজার আঞ্চলিক শাখা বিএনপি, যুবদল ও শ্রমিকদলের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীরা সংর্বধনা অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। এ ছাড়া কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ উপজেলার প্রবাসী বিএনপি’র নেতাকর্র্র্মীরা কাহির চৌদুরীর সাথে সাাৎ করেন। এক ই-মেইলে প্রেরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জেদ্দা মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ও কানাইঘাট উপজেলা বিএনপি’র সদস্য ওয়েছ আহমদ এ সংবাদ পাঠিয়েছেন।

জেলা আ'লীগের কমিটিতে স্থান পেলেন কানাইঘাটের ৫নেতা

Kanaighat News on Thursday, November 24, 2011 | 11:20 PM

জেলা আ’লীগের কমিটিতে স্থান পেলেন কানাইঘাটের ৫নেতা
নিজাম উদ্দিন:বহুপ্রতিক্ষিত সিলেট জেলা আ’লীগের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে কানাইঘাটের ৫নেতা স্থান করে নেওয়ায় দলের সর্বস্থরের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক আনন্দ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। জেলা আ’লীগের পূর্বের কোন কমিটিতে এর আগে কানাইঘাটের এত নেতা স্থান করে নিতে পারেননি। জেলা আ’লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে নবীন ও প্রবীণ মিলে যারা স্থান করে নিয়েছেন তারা হলেন, সিনিয়র সদস্য হিসেবে প্রবীণ বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ দলের একনিষ্ট কর্মী কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি জমির উদ্দিন প্রধান, কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান, কুয়েত আ’লীগের সিনিয়র সহসভাপতি শিল্পপতি আব্দুল মুমিন চৌধুরী। আর সম্পাদকীয় পদে দলের পরীতি সাবেক ছাত্রনেতা ৪নং সাঁতবাক ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, উপপ্রচার সম্পাদক এবং দলের ত্যাগী ও পরিতি সৈনিক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এমাদ উদ্দিন মানিক, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছে। এ ৫নেতা কমিটিতে স্থান পাওয়ায়, দীর্ঘদিন ধরে মুখ থুবড়ে পড়া সাংগঠনিকভাবে বিপর্যস্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটি বিহীন কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রমে গতিশীলতা ফিরে আসার পাশাপাশি ও তৃণমূল পর্যায়ে দলের পূর্ণগঠন কার্যক্রম শুরু হবে বলে দলের বিভিন্ন স্থরের নেতাকর্মীরা আসাবাদ ব্যক্ত করেছেন।
জেলা ও মহানগর আ’লীগের নবগঠিত
কমিটির নেতৃবৃন্দকে কানাইঘাট আ’লীগের অভিনন্দন
কাওছার আহমদ: নবগঠিত সিলেট জেলা ও মহানগর আ’লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির সকল নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কানাইঘাট উপজেলা ও পৌর আ’লীগের নেতৃবৃন্দ। সিলেট আ’লীগের জেলা কমিটিতে সভাপতি আবদুজ জহির চৌধুরী সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম কামাল ও মহানগর কমিটিতে সভাপতি সিটি মেয়র বদর উদ্দিন কামরান, সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে সাবেক ছাত্রনেতা শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ আ’লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক স্থানীয় সরকার ও সমবায় মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কানাইঘাট সদর ইউপি’র চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, প্রকৌশলী মাহমুদ হোসেন, অধ্যাপক লোকমান হোসেন, জামাল উদ্দিন, রফিক আহমদ, জালাল আহমদ, ওলিউর রহমান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ওমর আলী, কাউন্সিলর ফখরুদ্দীন শামীম, কে.এই.এম আব্দুল্লাহ, সামসুদ্দিন মেম্বার, আব্দুল খালিক মেম্বার, এ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার, এ্যাডভোকেট মামুন রশিদ প্রমুখ।
প্রধান মন্ত্রীর ত্রান তহবিল এরশাড়ী-লুঙ্গি মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বিতরণ
গত মঙ্গলবার কানাইঘাট উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রধান মন্ত্রীর ত্রান তহবিল থেকে পাওয়া প্রদত্ত শাড়ী-লুঙ্গি, কানাইঘাটের অস্বচ্ছ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বিতরণ করা হচ্ছে। নির্বাহী কর্মকর্তা কার্য্যালয়ে বস্ত্র বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম.সোহরাব হোসেন, পৌর মেয়র ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান, মহিলা ভাইষ চেয়ারম্যান শ্রী প্রভাতি রানীদাস ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ চৌঃ, মুবশ্বির আলী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক, সাবেক কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা শামসুদ্দিন চৌঃ, সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন, এখলাছুর রহমান, আব্দুন নুর প্রমুখ। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে উপজেলা চেয়ারম্যান ও নির্বাহী কর্মকর্তা অস্বচ্ছ ৯২জন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে শাড়ী-লুঙ্গি বিতরণ করেন।

Kanaighat News on Tuesday, November 22, 2011 | 11:01 PM

ডাকাতদের হামলায় আহত ২
কানাইঘাটে দুধর্ষ ডাকাতি ১৮ভরি স্বর্ণালংকারসহ নগদ আড়াই লক্ষ টাকা লুট
নিজাম উদ্দিন:-
কানাইঘাট উপজেলার ৭নং দক্ষিণ বানী গ্রাম ইউনিয়নের ধলিবিল দক্ষিণ (নয়াগ্রামে)’র বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফারুক আহমদের বাড়িতে গত সোমবার গভীর রাতে এক দুধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকাতরা নির্জন পাঁকা বাড়িতে হানা দিয়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ব্যবসায়ী ফারুক আহমদ ও তার বৃদ্ধ পিতা হাজী বরকত উল্লাহকে অস্ত্রের মাধ্যমে জিম্মী করে মারধর করে আহত করে নগদ ২ল ৬১হাজার টাকা, ১৮ভরি স্বর্ণালংকার ও দামী কাপড়চোপড়সহ প্রায় ১২ল টাকার মালামাল লুট করে ডাকাতরা নির্বিঘেœ পালিয়ে যায়। বাড়ির গৃহকর্তা আহত হাজী বরকত উল্লাহ ও তার পুত্র বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফারুক আহমদ জানান, পরিবারের অন্যান্য মহিলা ও পুরুষ সদস্যরা অন্যত্র বেড়াতে যাওয়ায় গত সোমবার বাড়িতে তিনি এবং তার পিতা অবস্থান করছিলেন। রাত অনুমানিক আড়াইটার দিকে ১০/১২জনের অস্ত্রধারী ডাকাত দল পাকা বাড়িতে হানা দিয়ে প্রথমে ফারুক আহমদের করে কাঠের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে তাকে অস্ত্রের মাধ্যমে জিম্মী করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার বের করে দিতে বলে। তিনি তাতে অসম্মতি জানালে ডাকাতরা তাকে মারধর শুরু করলে তার চিৎকার শুনে পাশের ক থেকে পিতা বরকত উল্লাহ এগিয়ে আসলে ডাকাতরা তাকে ধরে প্রচন্ড মারধর করে আহত করে পিতা পুত্রকে বেঁধে একটি কে আটকে রেখে। পরে ডাকাতরা ঘরের বিভিন্ন কে হানা দিয়ে কাঠ ও স্টীলের সকেস, আলমারী ভেঙ্গে নগদ ২ল ৬১ হাজার টাকা, ১৮ভরি স্বর্ণসহ অন্যান্য দামী জিনিসপত্র লুট করে পার্শ্ববর্তী ধলিবিল হাওর এলাকাদিয়ে পালিয়ে যায়। ডাকাতির পর পিতা-পুত্রের আত্মচিৎকারে গ্রামের আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করেন। ডাকাতির ঘটনাটি স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে দ্রুত মোবাইল ফোনে অবহিত করা হলে, পেট্রোল ডিউটিরত পুলিশের একটি টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছলেও ডাকাতদের আটক করতে পারেনি। এদিকে গতকাল সকাল ৭টার দিকে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুর রহমান খান, ওসি (তদন্ত) রুহুল আমীন ডাকাতির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত জব্দ করেন। ডাকাতির ঘটনার পেয়ে সিলেট উত্তর সার্কেলের এ.এস.পি মিস্ বীণা রানী দাস, উপজেলা চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, ইউপি সদস্য হারুন রশিদ, গতকাল ব্যবসায়ী ফারুক আহমদের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের শান্তনা দেন। এ.এস.পি বিণা রানী দাস স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম ষাড়াষী অভিযান অব্যাহত রেখেছে। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনা পনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অপরাধ প্রবণ এলাকায় গ্রাম পুলিশের পাহারা ও পুলিশের টহল জোরধার করা হবে বলে তিনি জানান। ডাকাতির ঘটনায় বাড়ির মালিক বরকত উল্লাহর ছেলে জামাল উদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন কে আসামী করে গতকাল থানায় একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেছেন। থানার মামলা নং- (১৯) ২২/১১।
বড়দেশ বাজারের অগ্নিকান্ডের
স্থান পরিদর্শনে উপজেলা চেয়ারম্যান

কানাইঘাট উপজেলার বড়দেশ বাজারে গত রবিবারে ভয়াভহ অগ্নিকান্ডে তিগ্রস্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেছেন সাবেক সংসদ সদস্য অধ্য মাওঃ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী সহ কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী, সিলেট উত্তর সার্কেলের এ.এস.পি বিণা রানী দাস, কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুর রহমান খান। গতকাল পৃথকভাবে অগ্নি কান্ডের ঘটনাস্থল পরিদর্শনের সময় তাদের সাথে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বড়দেশ বাজারের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, সমাজেসেবী লোকমান উদ্দিন ও অগ্নিকান্ডে তিগ্রস্ত মার্কেটের মালিক হাজী আতাউর রহমানসহ আরো অনেকে। এসময় তিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের শান্তনা দিয়ে প্রশাসনের প থেকে তাদের সব ধরনের আর্তিক সহায়তা ও সহযোগীতার আশ্বাস দেন উপজেলা চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী। উল্লেখ্য যে গত রবিবার বড়দেশ বাজারে এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও আংশিক আরো কয়েকটি দোকান পুড়ে প্রায় ৭০ল টাকার য়তি সাধিত হয়।

Kanaighat News on Monday, November 21, 2011 | 11:31 PM

কানাইঘাট খছরুজ্জামান ট্রাষ্টের বার্ষিক ২০১১ এর মেধাবী শিক্ষার্থীদের বার্ষিক বৃত্তি প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সোমবার সকাল ১১টায় বীরদল এন.এম.একাডেমী হাইস্কুলের অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও কানাইঘাট সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং স্কুলের সহকারী শিক্ষক কলামিষ্ট মো: মহি উদ্দিনের পরিচালনায় উক্ত বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট পৌর সভার মেয়র ও উপজেলা আ'লীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, খছরুজ্জামান ট্রাষ্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি যুক্তরাজ্য প্রবাসী বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা ও এম.সি.বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভি.পি খছরুজ্জামানা খছরু, সিলেট কৃষি বিশ্ব বিদ্যালয়ের সহকারী রেজিষ্ট্রার ফজলুর রহমান, আ'লীগ নেতা বিলাল আহমদ, বড়দেশ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুর উদ্দিন, সমাজসেবী মাসুদ আহমদ, কানাইঘাট প্রেসকাবের দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন, খছরুজ্জামান খছরুর সহধর্মীনি যুক্তরাজ্য মহিলা আ'লীগ নেত্রী রাবেয়া জামান জোসনা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এন.এ.এম একাডেমীর প্রধান শিক্ষক জারউল্লাহ, এন.এম.একাডেমীর সদস্য ডাক্তার ইমদাদ উদ্দিন, তৌহিদুর রহমান, আলাউর রহমান প্রমুখ। অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করেন, নতুন কুঁড়ি সাংস্কৃতিক গোষ্ঠির কন্ঠশিল্পী জাকারিয়া আহমদ শিশির, এন.এম.একাডেমীর ক্ষুদে শিল্পী উম্মে হানী, যুক্তরাজ্য প্রবাসী খছরুজ্জামানের স্ত্রী রাবেয়া জামান ও নিজের লেখা কবিতা আবৃতি করেন তার মেয়ে সন্ধী। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষকবৃন্দ এবং এলাকার গণ্যমান্য লোকজনদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠান শেষে ষ্ট্রাষ্টের উদ্যোগে বৃত্তি প্রাপ্ত মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরন ও এককালীন বৃত্তি প্রদান করেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ। বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগীতার দায়িত্বে ছিলেন, কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজের ছাত্র সাহার আলম, আশফাকুজ্জামান, এ.এই্চ.শাকিল, ফারভেজ ও তারেক আহমেদ। ষ্ট্রাষ্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি খছরুজ্জামান খছরু এলাকার দরিদ্র, মেধাবী শিক্ষার্থীদের কল্যাণে ষ্ট্রাষ্টের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে উল্লেখ করে বলেন, এ ক্ষেত্রে সমাজ হিতৈশী সকলকে কানাইঘাটের সামগ্রিক শিক্ষার প্রসার-প্রচার ও সার্বিক কল্যাণে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
কানাইঘাটের বড়দেশ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড \ ৫টি দোকান পুড়ে ছাই

নিজাম উদ্দিন:
কানাইঘাটের বড়দেশ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫টি দোকান সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৬০ লাখ টাকা। আগুন নেভাতে গিয়ে কলেজ ছাত্রসহ দু’জন আহত হয়েছেন। উপজেলায় ফায়ার সার্ভিসের কোন ইউনিট না থাকায় স্থানীয় লোকজন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রাত ১০টার দিকে বড়দেশ বাজারের লোকজন দোকান বন্ধ করে বাড়ী ঘরে চলে যান। এর কিছুক্ষণ পরেই হঠাৎ করে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এতে পুড়ে ছাই হয় শাহজালাল ফার্মেসী, মারুয়া ভেরাইটিজ স্টোর, মারহাবা ভেরাইটিজ স্টোর, শফিকুল ইসলামের চায়ের দোকান এবং মোস্তাক মিয়ার ফার্ণিচারের দোকান। আগুনের প্রচন্ড লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়লে লোকজনের মাঝে আতংক দেখা দেয়। পার্শ্ববর্তী কয়েকটি গ্রাম থেকে মানুষ এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। লোকজন দুটি আধা পাকা দোকান ভেঙ্গে কিছু মালামাল রক্ষা করতে সক্ষম হন। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, এতে প্রায় ৬০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। আগুনের হাত থেকে দোকানের মালামাল রক্ষা করতে গিয়ে আহত হন ব্যবসায়ী ইসলাম উদ্দিন (৩০) ও কলেজ ছাত্র আকতার হোসেন (১৯)। তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে জানা যায়নি। এদিকে রাত ১২টায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় গিয়ে দেখা যায় পুড়ে যাওয়া দোকান ঘরগুলো তখনও জ্বলছিল। ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, আগুন লাগার পরপরই তারা সিলেট ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে ফোন করেন। ২ ঘন্টা পার হলেও ফায়ার ব্রিগেডের গাড়ী যায়নি। কানাইঘাট উপজেলা সদরে একটি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন থাকলে এ ক্ষতি থেকে তারা রেহাই পেতেন বলে মন্তব্য করেন। খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান দক্ষিণ বাণী গ্রাম ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ এবং বর্তমান চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন। তারা ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনকে শান্তনা দেন।
কানাইঘাটে তারেক রহমানের ৪৭তম জন্মদিন পালিত
নিজাম উদ্দিন :

বিএনপি'র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তাকের রহমানের ৪৭তম জন্ম বার্ষিকী উপল্যে কানাইঘাট উপজেলা ছাত্রদলের উদ্যোগে গত রবিবার বিকেল ৫টায় কানাইঘাট উত্তর বাজারস্থ সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে আয়োজন করা হয়। উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিমের সভাপতিত্বে এবং ছাত্রদল নেতা জাকির উদ্দিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপি'র সভাপতি এম.এ.লতিফ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হাবিব আহমদ, বিএনপি নেতা সালমান রশিদ, নিজাম উদ্দিন, নাজিম উদ্দিন, যুবদল নেতা গুলজার আহমদ, আবু সিদ্দেক, ফয়সল আহমদ, আছার উদ্দিন, মিছবাহুর রহমান, বিলাল উদ্দিন, ছাত্রদল নেতা ওলিউর রহমান, শরিফ আহমদ, জাহাঙ্গীর আলম, ইমন আহমদ, আশিকুর রহমান, মোহাম্মদ আলী, নজমুল ইসলাম, রায়হান, আশিকুর রহমান, রুহুল আমিন, আব্দুল জব্বার, ফারুক আহমদ, জামিল, ফয়েজ উদ্দিন, কুদরত মুসলিম, শাহাব উদ্দিন প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে তারেক রহমানের দীর্ঘই জীবন কামনা করে মোনাজাত করেন মাওঃ হুদুর রহমান। এছাড়া আলোচনা সভায় তাকের রহমানের জন্মদিন উপল্যে সকলের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

Kanaighat News on Sunday, November 20, 2011 | 8:41 PM

কানাইঘাটে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে হামলার ঘটনায়
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের ঘটনাস্থল পরিদর্শন
নিজাম উদ্দিনঃ

গত শনিবার রাতে কানাইঘাটে ৪০তম জাতীয় সমবায় দিবসের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উশৃঙ্খল লোকজন কতর্ৃক হামলা চালিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পন্ড ও উপজেলা প্রশাসনের ভিতরে ঢুকে ব্যাপক ভাংচুর এবং সমবায় মেলার ৮টি স্টল গুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় কানাইঘাট থানায় প্রশাসনের প থেকে জিডি দায়ের করা হয়েছে। উদ্বুদ্ধ ঘটনার পরিপ্রেেিত আজ রবিবার সিলেটের অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক (সার্বিক) মিজানুর রহমান ভাংচুরকৃত মেলার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে য়তি প্রত্য করেন। পরে বিকেল ৫টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম.সোহরাব হোসেনের সভাপতিত্বে রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ,জনপ্রতিনিধি এলাকার গণ্যমান্য লোকজন এবং কৌমি মাদ্রাসার শিকদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। সভায় শনিবারের অনাকাঙ্খিত ঘটনার চিত্র তুলে ধরে মাদ্রাসার শিক রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ জনপ্রতিনিধিরা তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন। কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসার মোহাদ্দিস মাওঃ শামসুদ্দিন শনিবারে প্রশাসন চত্ত্বরে ভাংচুর ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে হামলার ঘটনার সাথে কৌমি মাদ্রাসার ছাত্রশিকরা জড়িত নয়,অন্য একটি প এ ঘটনার সাথে জড়িত বলে মন্তব্য করেন। মাওঃ আব্দুল লতিফ বলেন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সিলেট থেকে নায়িকা আনার কারনে যারা টিকেট না পেয়ে হলে ঢুকতে পারেনি তারাই জিহাদের নাম করে মেলা স্টল ভাংচুর করেছে। পৌর আ'লীগের আহ্বায়ক জামাল উদ্দিন বলেন, সরকারের ভাবমূর্তী ও আ'লীগের ইমেজ ুন্ন করার জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনের নামে একটি চক্রের কারনে এ অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেছে,তিনি প্রকৃত অপরাধীদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান। কানাইঘাট দারুল উলূম মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাওঃ ইসমাইল শনিবারের ঘটনার দুঃখ প্রকাশ করে বিষয়টি মামলার মধ্যে না গিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে সমাধানের জন্য অনুরোধ করেন। ইউপি চেয়ারম্যান অধ্য সিরাজুল ইসলাম ঘটনার সাথে জড়িত অপরাধীদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান। আ'লীগ নেতা আব্দুল মুমিন চৌধুরী কানাইঘাটকে আলিম উলামার জনপদ আখ্যায়িত করে বলেন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের নামে এ ধরনের অনৈসলামিক কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান এবং অনাকাঙ্খিত ঘটনাটির সামাজিকভাবে নিষ্পত্তির অনুরোধ করেন। কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শফিকুর রহমান খান বলেন, সম্পূর্ণ গুজব রটানোর মাধ্যমে মাদ্রাসার ছাত্র ও সরলমনা ধর্মপ্রাণ লোকজনদের উত্তেজিত করে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। পৌর মেয়র ও উপজেলা আ'লীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান অপৃথিকর ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, ঘটনার সাথে মাদ্রাসার ছাত্র শিক ও পৌর সভার লোকজন জড়িত নয়, বাহির থেকে একটি মহলের ইন্ধনে এ ঘটনা ঘটেছে। তিনি এলাকার সমপ্রীতি রার্থে আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে বিকল্প ব্যবস্থা বিষয়টির সমাধানের উপর গুরুত্বারূপ করেন। কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক চৌধুরী প্রশাসন চত্ত্বর ও সমবায় মেলায় হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার জন্য পুলিশ প্রশাসন ও সরকারের হস্তপে কামনা করেন। জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আ'লীগ নেতা মাসুক উদ্দিন চৌধুরী ও অনুরূপ মন্তব্য করেন। মতবিনিময় সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, জাতীয় সমবায় দিবসের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে যারা উপজেলা চত্বরের ভিতরে দলবেঁধে ঢুকে মেলার ৮টি স্টলে হামলা, লুট ও ভাংচুর করেছে তাদেরকে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে। ইতি মধ্যে থানায় জিডি করা হয়েছে। অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটিয়ে যারা কানাইঘাটের সামাজিক সমপ্রীতি ও সরকারের ভাবমূর্তী ুন্ন করেছে তিনি এর তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, ইসলাম শান্তি ও সহনশীল ধর্ম, ইসলাম কখনো সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি এবং অরাজকতায় বিশ্বাস করে না। অশ্লীলতা বিবর্জিত, ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত আনে না এমন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, শনিবারের ঘটনার সাথে জড়িতদের নিবীড় তদন্তের মাধ্যমে শনাক্ত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা রার্থে তিনি সবাইকে একসাথে কাজ করারও আহ্বান জানান।
সাংস্কৃতিক অনুষ্টানে হামলা।আহত ১৫জন


জাতীয় সমবায় দিবস উপলক্ষে কানাইঘাটে বাউল বহুমূখী সমবায় সমিতির উদ্যোগে উপজেলা টিডিসি হলে গত শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় বাউল শিল্পী দেওয়ান কালা মিয়ার সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম সোহরাব হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন পৌর মেয়র লুৎফুর রহমান, আওয়ামী লীগনেতা খছরুজ্জামান ও এডভোকেট মামুন রশিদ। এছাড়াও প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। রাত সাড়ে ৮টায় আলোচনা সভা শেষে যখন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রস্ত্ততি চলছিল ঠিক তখনই কয়েকজন মাদ্রাসার ছাত্র সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধের দাবী জানায়। এ সময় উদ্যোক্তারা তাদেরকে আশ্বস্থ করেন যে, এখানে কোন প্রকার অসামাজিক কার্যকলাপ হবে না। কিন্তু আগত মাদ্রাসার ছাত্ররা এতে সন্তুষ্ট না হয়ে অনুষ্ঠান বন্ধের দাবী জানিয়ে চলে আসে। এর কিছুক্ষণ পর তারা স্থানীয় কানাইঘাট বাজারে এসে প্রায় হাজারো জনতায় দলবদ্ধ হয়ে লাঠি সোটা নিয়ে জোরপূর্বক উপজেলা প্রশাসনের ভিতরে ঢুকে পড়ে। এ সময় পুলিশ তাদের বাধা দিয়েও আটকাতে পারেনি। প্রশাসন চত্বরের ভিতরে ঢুকেই তারা ইউটিডিসি হলসহ বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠানে ইট, পাটকেল নিক্ষেপের ফলে সমবায় দিবস উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী মেলার ৮টি সমবায় স্টল সম্পূর্ণরূপে ভাংচুর হয়ে যায়।উশৃঙ্খল জনতার ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ফলে এক পর্যায়ে বৈদ্যুতিক তার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় প্রায় ঘন্টাখানেক পৌর শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় লোকজন ভয়ে দিগ্বিদিক ছুটতে থাকে এবং ইট-পাটকেলের আঘাতে ১০/১৫ জন লোক আহত হন। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম জানা যায় নি। এ সময় উত্তেজিত জনসাধারণকে শান্ত পরিবেশে ফিরিয়ে আনতে আ’লীগের পৌর আহবায়ক জামাল উদ্দিন বক্তব্য রাখেন খবর পেয়ে কানাইঘাট থানার ওসি শফিকুর রহমান খান ও ওসি তদন্ত রুহুল আমিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়।মাদ্রাসা ছাত্র ও বিক্ষুব্ধ জনতার অভিযোগ, এশার আজানের সময় মাইক বাজিয়ে গান করা হয়। এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে তারা হামলা চালায়।

Kanaighat News on Saturday, November 19, 2011 | 11:43 PM

কানাইঘাটে বঙ্গবন্ধু আদর্শ বাস্তবায়ন পরিষদের অভিষেক

গত শুক্রবার(১৯নভেম্বর)বিকেল ৫টায় কানাইঘাট পৌর শহরের ত্রিমোহনীতে বঙ্গবন্ধু আদর্শ বাস্তবায়ন পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। পরিষদের সভাপতি জিএম হায়দারের সভাপতিত্বে এবং পৌর আ'লীগ নেতা ইসমাইল হোসেনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানাইঘাট সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্য সিরাজুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট পৌর আ'লীগের আহ্বায়ক জামাল উদ্দিন, কানাইঘাট বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আ'লীগনেতা সিরাজুল ইসলাম (খোকন), জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট মামুন রশিদ, পৌর কাউন্সিলার আ'লীগ নেতা ফখরুদ্দীন শামিম, বঙ্গবন্ধু আদর্শ বাস্তবায়ন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নাসির আহমদ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান, পৌর আ'লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এ.এইচ.এম আব্দুলাহ ও খলিলুর রহমান প্রমুখ।

সামাজিক অবক্ষয় রোধে পাড়া মহল্লায় সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন গড়ে তুলতে হবে

Kanaighat News on Monday, November 14, 2011 | 8:06 PM




-------আলহাজ্ব ছাব্বির আহমদ
জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব ছাব্বির আহমদ বলেছেন, বিদেশী বি জাতীয় সংস্কৃতি আগ্রাসনের কারনে দিন দিন আমাদের সমাজ থেকে দেশীয় কৃষ্টি সংস্কৃতি বিলুপ্তির কারনে সমাজের সর্বত্র অবয় দেখা দিয়েছে। এ থেকে উত্তরণের ল্েয ধর্মীয় মূল্যবোধের পাশাপাশি দেশীয় সংস্কৃতির জাগরন ও খেলাধূলার মাধ্যমে যুব ও ছাত্রসমাজকে দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ব করার জন্য পাড়া মহল্লায় সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গড়ে তুলতে সমাজ হৈতষী লোকজনদের এগিয়ে আসতে হবে। আলহাজ্ব ছাব্বির আহমদ গত রবিবার বিকেল ৫টায় কানাইঘাট-চতুল বাজারে, চতুল হারাতৈল স্পোর্টিং কাব কর্তৃক আয়োজিত এক ঈদ-পুর্নমিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বিশিষ্ট মুরব্বি হাজী হোসেন আহমদের সভাপতিত্বে এবং হারাতৈল স্পোর্টিং কাবের নির্বাহী সভাপতি দেলোওয়ার হোসেনের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক ফোরামের চেয়ারম্যান শামীম ইকবাল, ৫নং বড়চতুল ইউপি চেয়ারম্যান মুবেশ্বর আলী, কানাইঘাট বাজার বণিক সমিতির সাবেক সেক্রেটারী আলাউদ্দিন মামুন, চতুল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুর রশিদ, কানাইঘাট ফেইসবুক ফেন্ডস্ ফোরামের সভাপতি কে.এম ফররুখ আহমদ ফারুক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাওঃ আতাউর রহমান, ইউপি সদস্য আলা উদ্দিন, আব্দুল মুছব্বির। বক্তব্য রাখেন, কাব সভাপতি ফখরুল ইসলাম, মোহাম্মদ আলী, আলমাছ উদ্দিন, জসিম উদ্দিন, এখলাকুল আম্বিয়া, মহসিন প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি আলহাজ্ব ছাব্বির আহমদ হারাতৈল স্পোটিং কাবে ১০হাজার টাকা এবং চতুল বাজার জামে মসজিদের উন্নয়নের জন্য ১ ল টাকা অনুদান দেন। এছাড়া প্রবাসী যুবনেতা ফররুখ আহমদ ফারুক কাবে নগদ ১০হাজার টাকা চতুল বাজার জামে মসজিদে ৫০হাজার টাকা হারাতৈল আনোয়ারুল উলূম মাদ্রাসায় ১ ল ও হারাতৈল জামে মসজিদে ১৮হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন।

Kanaighat News on Thursday, November 10, 2011 | 8:31 PM

গাছবাড়ি আহ্লে হাদিস পাঠাগারের
উদ্যোগে ঈদপুর্নমিলনী অনুষ্ঠান

কানাইঘাট-গাছবাড়ি আহ্লে হাদিস পাঠাগারের উদ্যোগে গত মঙ্গলবার বিকালে গাছবাড়ি বাজার বন্ধন কমিউনিটি সেন্টারে এক ঈদপুনর্মিলী ও মসজিদ ভিত্তিক পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আহ্লে হাদিস পাঠাগারের সভাপতি মাষ্টার আব্দুল মতিনের সভাপতিত্বে এবং মোঃ আব্দুল গফুর ও আব্দুল জব্বারের যৌথ পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রুসূলপুর ওসমান মোল্লা ফাজিল মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ বিশিষ্ট আলেমেদীন মাওলানা শামসুদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট এম.সি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি যুক্তরাজ্য প্রবাসী বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা খছরুজ্জামান খছরু, গাছবাড়ি জামিউল উলূম কামিল মাদ্রাসার আরবী বিভাগের প্রভাষক ড. ইব্রাহীম আলী, ৮নং ঝিঙ্গাবাড়ী ইউপি’র চেয়ারম্যান মাষ্টার রফিক আহমদ চৌধুরী, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এ.হান্নান, মিসবাহুল উলূম কামিল মাদ্রাসা ঢাকার মুহাদ্দিস মাওঃ আশরাফুজ্জামান, আলহাজ্ব বশির আহমদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সহসভাপতি দেলোওয়ার হোসেন সেলিম, সেনগ্রাম মোহাম্মদীয়া সালাফিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুফার মাওঃ ফয়জুল ইসলাম, সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন, সাংবাদিক মাহবুবুর রশিদ। ইসলামী সংঙ্গীত পরিবেশন করেন, গোলাম কিবরীয়া। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআনে পাক্ থেকে তেলোওয়াত করেন হাফিজ জাকারিয়া ঈমাম। গাছবাড়ি এলাকার বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও মক্তবের শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রী এলাকার গণ্যমান্য লোকজনদের উপস্থিতিতে এবারে আহ্লে হাদিস পাঠাগারের পক্ষ থেকে মসজিদ ভিত্তিক বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে বিজয়ী বৃত্তি প্রাপ্ত ১১০জন ছাত্রছাত্রীদের হাতে পুরষ্কার সামগ্রী ও বৃত্তি তুলেদেন অনুষ্টানের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ।
যুক্তরাজ্য যাত্রা উপলক্ষ্যে সাংবাদিক দেলোওয়ার হোসেন সেলিমকে সংবর্ধনা

কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক দেলোওয়ার হোসেন সেলিমের যুক্তরাজ্য যাত্রা উপলক্ষ্যে গত মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় কানাইঘাট ৮নং ঝিংঙ্গাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে এক নাগরিক বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ৮নং ঝিংঙ্গাবাড়ি ইউপি’র চেয়ারম্যান রফিক আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এলাকার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও গণ্যমান্য লোকজনদের উপস্থিতিতে উক্ত বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, এম.সি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভি.পি যুক্তরাজ্য প্রবাসী বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা ও সেখানখার বিভিন্ন বাংলা টিভির সঞ্চালক খছরুজ্জামান খছরু। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি এম.এ.হান্নান, সংবর্ধিত বিদায়ী অতিথি সাংবাদিক দেলোওয়ার হোসেন সেলিম, বিশিষ্ট সমাজসেবক মাষ্টার আব্দুল মতিন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের দপ্তর ও পাঠাগার সম্পাদক সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন, মাসিক সীমান্তের ডাক পত্রিকার সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, আলহাজ্ব বশির আহমদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিন, ইউপি সদস্য আব্দুর রহমান, ডাক্তার ওলিউর রহমান নাসিম, কানাইঘাট থানা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম। বক্তব্য রাখেন, জসিম উদ্দিন, মাহবুবুর রহমান প্রমুখ। প্রধান অতিথি খছরুজ্জামান খছরু ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্যে সাংবাদিক দেলোওয়ার হোসেন সেলিমের ভূয়সী প্রশংসা করে তাঁর মোফস্বল সাংবাদিকতার বর্ণাঢ্য কর্ম তৎপরতার চিত্র তুলেধরে বলেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরে মহান সাংবাদিকতা পেশায় দায়িত্ব পালনকালে অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সাথে সকলপ্রকার ভয়ভীতি উর্ধ্বে উঠে কানাইঘাটের সার্বিক সমস্যা, সম্ভাবনার কথা পত্রিকার পাতায় তুলে ধরার মাধ্যমে আর্থসামাজিক উন্নয়নে বিরাট ভূমিকা পালন করেছিলেন। মুক্ত গণমাধ্যমের দেশ যুক্তরাজ্যে অবস্থানকালে সাংবাদিক দেলোওয়ার হোসেন সেলিম তার লেখনীয় অব্যাহত রাখবেন বলে বক্তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সভার শুরুতে বিদায়ী সংবর্ধিত দেলোওয়ার হোসেন সেলিমকে কানাইঘাট প্রেসক্লাব ও এলাকার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা তার শুভ কামনায় ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

Kanaighat News on Sunday, November 6, 2011 | 9:47 PM

ঈদুল আযহায় আমাদের করণীয়

----মাহবুবুর রশিদ----
ঈদ আরবি শব্দ। মাত্র দু’টি অক্ষরের সমন্বয়ে গঠিত। কিন্তু এর তাৎপর্য অনেক। ঈদ শব্দের অর্থ আনন্দ বা খুশী। প্রত্যেক সম্প্রদায়ের লোকদের কাছে বছরের নির্দিষ্ট দিনে তাদের নিজ নিজ আনন্দ ও উৎসবের দিন থাকে। তেমনি প্রতি বছর বিশ্বের মুসলমানদের কাছে দু’টি অত্যন্ত আনন্দের দিন আসে -- ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা। ইসলামের আনন্দ উৎসবাদির মধ্যে নিহিত রয়েছে ইসলামের মূল শিক্ষা, মানবতার সাম্য, শান্তি ও কল্যাণ সাধনের প্রশিক্ষণ। তাই মুসলমানদের কাছে দু’ঈদের আনন্দ সংযমের ও আনুগত্যের। ঈদ মুসলমানদের জাতীয় পর্ব। ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার পৃথক পৃথক পটভূমি রয়েছে। ঈদের খুশী প্রত্যেক মুসলমানের প্রাণকে আলোড়িত করে তোলে। দু’টি ঈদের দিন মুসলমানগণ হিংসা, বিদ্বেষ, ভুলে গিয়ে ধনী-গরীব নির্বিশেষে এক কাতারে সমবেত হয়। এ যেন মুসলমানদের এক মহান মিলনমেলা। জিলহজ্ব মাসের ১০ তারিখ খুশীর সওগাত নিয়ে আমাদের মাঝে হাজির হয় ঈদুল আজহা বা কুরবানীর ঈদ। ঈদুল আযহার অনেক তাৎপর্য রয়েছে। হযরত ইব্রাহীম(আঃ) কে মহান আল্লাহ তাআলা স্বপ্নে তার সর্বাপেক্ষা প্রিয় বস্ত্তকে আল্লাহর নামে কুরবানি করার জন্য তাগিদ দেন। হযরত ইব্রাহীম (আঃ) অনেক চিন্তা, ভাবনার পর স্থির করলেন যে,তাঁর স্নেহের পুত্র হযরত ইসমাইল (আঃ) ব্যাতীত প্রিয় বস্ত্ত আর কিছুই নেই। আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য হযরত ইব্রাহীম (আঃ) তাঁর প্রাণ প্রিয় পুত্রকে আল্লাহর নামে কুরবানি করতে নিয়ে যান। কঠিন পরীক্ষায় হযরত ইব্রাহীম (আঃ) উর্ত্তীণ হন। আল্লাহ তাআলা,ইব্রাহীম (আঃ)-এর প্রভূভক্তির জন্য সন্তুষ্ট হয়ে ইসমাইলের পরিবর্তে দুম্বা স্থাপন করেন। দুম্বা কোরবানী হয়ে যায়। সেদিন থেকে মহান আল্লাহ ইব্রাহীম (আঃ) এর উপর সন্তুষ্ট হয়ে মুসলমানদেরকে ঈদুল আযহা উপহার দিয়েছেন এবং কুরবানি করার নির্দেশ দিয়েছেন। আর তাই প্রত্যেক বছর জিলহজ্ব মাসের ১০-১৩ তারিখ বিশ্বের মুসলমানরা ঈদুল আজহা পালন করে থাকে কুরবানি মহান আল্লাহ রাববুল আলামীনের উদ্দেশ্যে একটি ইবাদত। নামায, রোজা, হজ্ব, ইত্যাদি যেমন আল্লাহ ছাড়া কারো উদ্দ্যেশ্য হয়না, তেমনি কুরবানি ও আল্লাহ ছাড়া কারো জন্য নয়। আল্লাহ তাআলা এরশাদ করেন যে, আপনার প্রতিপালকের উদ্দ্যেশ্য নামাজ ও কুরবানি করুন (সূরা কাওসার)। তাই মুসলমানদের যাদের সামর্থ্য আছে তাদের কুরবানি করা অবশ্যই কর্তব্য। রাসুল (সাঃ) বলেন-অর্থ্যাৎ যাদের কুরবানি। দেওয়ার সক্ষমতা আছে, কিন্তু কুরবানি। দেয়, না, সে যেন আমাদের ঈদগাহের নিকটবর্তী না আসে। ঈদুল ফিতরের মত ঈদুল আযহার দিন ও ঈদগাহে ইমাম সাহেব ঈদুল আযহার খুৎবা পাঠ করেন। খুৎবায় ঈদুল আযহার তাৎপর্য, উদ্দ্যেশ্য ইত্যাদি বয়ান করে থাকেন। খুৎবা শেষে মোনাযাত করে বাড়ীতে এসে কুরবানির পশু কুরবানি করা হয়। কোরবানিকৃত পশুর গোস্ত গরীব, এতিম, মিসকিনদের মধ্যে বন্টন করা হয়। কুরবানি সম্পর্কে সাহাবা (রাঃ) এর প্রশ্নের জবাবে রাসুল (সাঃ) বলেন, কুরবানির পশুর প্রত্যেকটি লুমে একটি করে সওয়াব লিখিত হয়। তবে কুরবানি হতে হবে আল্লাহকে খুশী করার নিয়তে। কুরবানির পশু নিয়ে হিংসা,বিদ্বেষ করা চলবেনা। অনেকে বেশী দাম দিয়ে পশু ক্রয় করে পত্র পত্রিকায় নিজেদের নাম ফলাও করে প্রকাশ করে যা আদৌ ঠিক নয়। আল্লাহ অহংকারীকে পছন্দ করেন না। ঈদ মুসলসানদের মন থেকে হিংসা, বিদ্বেষ, অহংকার, ঘৃণা, উঁচু, নিচু, ভেদাভেদ দূর করে। ফলে তাদের অন্তরে দয়া, সহানুভূতি, ত্যাগ, ও দানশীলতার উন্মেষ ঘটে। সুপ্রিয় পাঠক, আসুন আমাদের ব্যক্তি ও সমষ্ঠিগত জীবনে ঈদুল আযহার শিক্ষা প্রতিফলিত ও বাস্তবায়িত হোক। (আমীন) লেখক : প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, কানাইঘাট লেখক ফোরাম। সদস্য: কানাইঘাট প্রেস ক্লাব।

Kanaighat News on Thursday, November 3, 2011 | 9:48 PM

ঈদ মোবারক!
ঈদ মোবারক!! ঈদ মোবারক!!!






পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে আমাদের অগণিত পাঠক,শুভানুধ্যায়ীদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক।

 
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: মো:মহিউদ্দিন,সম্পাদক : মাহবুবুর রশিদ,নির্বাহী সম্পাদক : নিজাম উদ্দিন। সম্পাদকীয় যোগাযোগ : শাপলা পয়েন্ট,কানাইঘাট পশ্চিম বাজার,কানাইঘাট,সিলেট।+৮৮ ০১৭২৭৬৬৭৭২০,+৮৮ ০১৯১২৭৬৪৭১৬ ই-মেইল :mahbuburrashid68@yahoo.com: সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত কানাইঘাট নিউজ ২০১৩